| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * ভড়কে গিয়েই ভুল করেছে ইরান: রাশিয়া   * ঢাকাকে আমরা উন্নত ঢাকায় পরিণত করবো: তাপস   * ভোট স্থগিতে আপিলের বিরুদ্ধে লড়বে নির্বাচন কমিশন   * ইারান ইউক্রেনের বিমান বিধ্বস্ত : ২৫ হাজার ডলার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কানাডা   * নৌকার কোনো গিয়ার নেই : আতিকুল   * ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব : আখেরি মোনাজাতে শরিক হতে ইজতেমায় আসছেন মুসল্লিরা   * বিএনপি সব সময় দিবাস্বপ্ন দেখে : ওবায়দুল কাদের   * চীনের প্রেসিডেন্টের মিয়ানমার সফর : সমুদ্রবন্দর নির্মাণে চুক্তি   * বিশ্বের সবচেয়ে খাটো মানুষ খগেন্দ্র থাপা মগার মারা গেছেন   * প্রাইভেটকার দুর্ঘটনা কেড়ে নিল তিন প্রাণ  

   অর্থ-বাণিজ্য
  উল্টো পথে সুদহার: মুদ্রাবাজার পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত
 

নিজস্ব প্রতিবেদক

ব্যাংকঋণের সুদহার এক অঙ্কে নামিয়ে আনতে দেড় বছর ধরে চলছে নানা আলোচনা। সরকারের পক্ষ থেকে দেয়া হয়েছে নানা সুযোগ-সুবিধা। তারপরও কাজ হয়নি। ঋণের সুদহার উল্টো বাড়ছে। সুদহার কমাতে মুদ্রাবাজার পর্যালোচনা জরুরি। এজন্য ঋণ ও আমানতের পরিমাণ ও সুদহারসহ বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করা হচ্ছে। এগুলো হাতে পেলে তা যাচাই-বাছাই করে সুদহার কমানোর করণীয় বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হবে।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকে সুদহার এক অঙ্কে নামিয়ে আনতে গঠিত সাত সদস্যের কমিটির প্রথম বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। ডেপুটি গভর্নর এস এম মনিরুজ্জামানের নেতৃত্বে বৈঠকে অংশ নেয়া কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- অগ্রণী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ড. জায়েদ বখত, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি ও স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের চেয়ারম্যান কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ, রূপালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ওবায়েদ উল্লাহ আল মাসুদ, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এবং অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান সৈয়দ মাহবুবুর রহমান, আইএফআইসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহ আলম সরওয়ার ও এনআরবি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মেহমুদ হোসেন।



বৈঠকের বিষয়ে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের এমডি ও এবিবি চেয়ারম্যান সৈয়দ মাহবুবুর রহমান জানান, কিভাবে সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনা যায় এ বিষয়ে আজকে প্রথম মিটিং হয়েছে। বর্তমানে ঋণ ও আমানতের সুদহার কি অবস্থায় আছে, কোন খাতে কত টাকা ঋণ আছে ও আমানত আসছে, এছাড়া কোন খাতে কত টাকা ঋণের সুদ ধার্য আছে, এসব তথ্য সংগ্রহ করা হবে এবং তা যাচাই-বাছাই করা হবে। এরপর মুদ্রাবাজার পর্যালোচনার পর কমিটি পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে।

বৈঠকে উপস্থিত কমিটির আরেক সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ জাগো নিউজকে জানান, আমরা চেষ্টা করছি কিভাবে সুদহার কমানো যায়। এখন উভয় দিক বিবেচনা করে বাস্তবমুখি সিন্ধান্ত নিতে হবে। তবে তাৎক্ষণিক ১২ শতাংশ থেকে তিন শতাংশ সুদহার কমানো বেশ কঠিন। কারণ এখন যাদের ২০ হাজার কোটি টাকা ঋণ আছে তাদের প্রায় ৬০০ কোটি টাকা লাভ থাকবে না। অন্যদিকে ৬ শতাংশ হারে সরকারি আমানত ব্যাংকগুলো পাচ্ছে না। ব্যাংকগুলোর পরিচালন ব্যয় হয় প্রায় ৯ শতাংশ। তাই হঠাৎ করে কমানো যাবে না। আমরা চেষ্টা করছি। আশা করছি ভালো ফল আসবে।

এর আগে রোববার সকালে দেশের সব সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের চেয়ারম্যান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের (এমডি) সঙ্গে বৈঠক করে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান, খেলাপি ঋণ বৃদ্ধির একটি মাত্র কারণ হচ্ছে ঋণে সুদহার খুব বেশি। আমাদের মতো এত বেশি সুদহার পৃথিবীর আর কোথাও নেই। তবে তিনি বলেন, ঋণে সুদহার কমানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তৈরি ২০১৯ প্রান্তিকের সর্বশেষ প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংক খাতে বিতরণ করা ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৯ লাখ ৬৯ হাজার ৮৮২ কোটি টাকা। এর মধ্যে অবলোপন বাদে খেলাপিঋণ দাঁড়িয়েছে প্রায় ১ লাখ ১৬ হাজার ২৮৮ কোটি টাকা; যা মোট ঋণের ১১ দশমিক ৯৯ শতাংশ। আর অবলোপনসহ খেলাপিঋণের পরিমাণ দেড় লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে। গত বছর একই সময়ে (সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে) খেলাপিঋণ ছিল ৯৯ হাজার ৩৭০ কোটি টাকা। এ হিসাবে গত এক বছরের ব্যবধানে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ১৬ হাজার ৯১৮ কোটি টাকা।


এদিকে ঋণের সুদহার সিঙ্গেল ডিজিট বা এক অঙ্কে নামিয়ে আনবেন বলে গত বছর ২০ জুন এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয় ব্যাংকের উদ্যোক্তাদের সংগঠন বিএবি। ওই বছর ১ জুলাই থেকে এক অঙ্ক সুদে ঋণ বিতরণের ঘোষণা আসে। এজন্য প্রণোদনা হিসাবে সরকারি আমানতের ৫০ শতাংশ বেসরকারি ব্যাংকে রাখার সুযোগ দেয় সরকার। কেন্দ্রীয় ব্যাংকে বিধিবদ্ধ নগদ জমা বা সিআরআর সংরক্ষণের হার সাড়ে ৬ শতাংশ থেকে কমিয়ে সাড়ে ৫ শতাংশ করে। বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ধার নেওয়ার `রেপো` সুদহার ৬ দশমিক ৭৫ শতাংশ থেকে ৬ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়। এর আগের বছর করপোরেট কর আড়াই শতাংশ কমিয়ে সাড়ে ৩৭ শতাংশ করে সরকার। এসব সুবিধা দেওয়ার মূল উদ্দেশ্য ছিল, ব্যাংকগুলো এক অঙ্ক সুদে ঋণ বিতরণ করবে। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি উল্টো সুদহার বেড়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের সেপ্টেম্বর ব্যাংকগুলো ক্ষুদ্র ও মাঝারিশিল্পের মেয়াদি ঋণে সুদ নিয়েছে ১২ থেকে সাড়ে ১৬ শতাংশ। দুটি ব্যাংক ১৮ শতাংশ পর্যন্ত সুদে এসএমই ঋণ দিয়েছে। ২০১৮ সালে ব্যাংকের উদ্যোক্তা পরিচালকরা যখন সিঙ্গেল ডিজিট সুদে ঋণ বিতরণের ঘোষণা দিয়েছিলেন, ব্যাংকগুলো এসএমইর মেয়াদি ঋণ বিতরণ করে ১১ থেকে ১৫ শতাংশ সুদে। এর আগে ২০১৭ সালের জুনে ৯ থেকে ১৩ শতাংশ সুদ ছিল। একইভাবে ২০১৭ সালের জুন পর্যন্ত বড় শিল্পের মেয়াদি ঋণে সুদের হার ১০ শতাংশের কম ছিল। ২০১৮ সালে যা ১২ থেকে ১৩ শতাংশের ওপরে ওঠে। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে ১৩ থেকে ১৭ শতাংশে উঠেছে। বাড়ি-গাড়ি কেনার ঋণে ১৪ থেকে ১৭ শতাংশ সুদ নিচ্ছে ব্যাংক। ক্রেডিট কার্ডে অধিকাংশ ব্যাংকের সুদহার রয়েছে ১৮ থেকে ২৭ শতাংশ।

এদিকে ঋণের উচ্চ সুদহারের কারণে বেসরকারি ঋণ প্রবৃদ্ধির হার ধারাবাহিক কমছে। চলতি অর্থবছরের অক্টোবরে ঋণ প্রবৃদ্ধির ১০ দশমিক ০৪ শতাংশ হয়েছে। আগের মাস সেপ্টেম্বর ছিল ১০ দশমিক ৬৬ শতাংশে। এর আগে আগস্টে ছিল ১০ দশমিক ৬৮ শতাংশ। জুলাই শেষে ছিল ১১ দশমিক ২৬ শতাংশ। জুনে ঋণ প্রবৃদ্ধি ছিল ১১ দশমিক ২৯ শতাংশ, মে মাসে যা ছিল ১২ দশমিক ১৬ শতাংশ। এর আগের মাস এপ্রিলে ছিল ১২ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ, মার্চে প্রবৃদ্ধি ছিল ১২ দশমিক ৪২ শতাংশ। ফেব্রুয়ারিতে ছিল ১২ দশমিক ৫৪ শতাংশ এবং জানুয়ারিতে ১৩ দশমিক ২০ শতাংশ।



সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 35        
   শেয়ার করুন
Share Button
   আপনার মতামত দিন
     অর্থ-বাণিজ্য
স্বর্ণের ভরি ছাড়াল ৬০ হাজার
.............................................................................................
আইপিও বন্ধ থাকায় দেশের পুঁজিবাজার অর্থ সংগ্রহে ধস
.............................................................................................
১৭ মার্চ আসছে ২০০ টাকার নোট
.............................................................................................
বেড়েই চলছে খেলাপি ঋণ
.............................................................................................
খেলাপি ঋণ সংকটের মধ্যেও বাড়ছে ব্যাংকের সম্পদ
.............................................................................................
আরচারি থেকে স্বর্ণের সুবাতাস আসছেই
.............................................................................................
পাঁচ মাসে মধ্যপ্রাচ্য থেকে রেমিট্যান্স ৪৫০ কোটি ডলার
.............................................................................................
ব্যাংকাররা সুবিধা নিল কিন্তু সুদহার কমাল না : বাণিজ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
উল্টো পথে সুদহার: মুদ্রাবাজার পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত
.............................................................................................
বেসরকারি খাতের ঋণে নিম্নগতি
.............................................................................................
দুই কারণে বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়ছে
.............................................................................................
এডিবির নতুন প্রেসিডেন্ট জাপানের আসাকাওয়া
.............................................................................................
১৮টি প্রতিষ্ঠান পাচ্ছে স্বর্ণ আমদানির লাইসেন্স
.............................................................................................
ব্যাংকারদের সঙ্গে বৈঠকে অর্থমন্ত্রী
.............................................................................................
২০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের নতুন ক্ষেত্র তৈরি হচ্ছে বাংলাদেশে
.............................................................................................
মুদ্রার বিনিময় হার : ২৫ নভেম্বর ২০১৯
.............................................................................................
সুপারিতে উজ্জ্বল গ্রামীণ অর্থনীতি, সম্ভাব্য আয় ৩৫০ কোটি টাকা
.............................................................................................
সাধারণ বীমার সম্পদের ৬০% পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের সুযোগ
.............................................................................................
আমানতকারীদের অর্থ ফেরতে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ
.............................................................................................
আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ডের লেনদেনে নজরদারি
.............................................................................................
আয়কর মেলায় উপচেপড়া ভিড়
.............................................................................................
শিল্পখাতে সিআইপি হচ্ছেন ৪৮ উদ্যোক্তা
.............................................................................................
বিমান বহরে যুক্ত হচ্ছে আরও দুই ড্রিমলাইনার
.............................................................................................
সংশোধিত বাজেটে পিকেএসএফ পাচ্ছে ২৫০ কোটি টাকা
.............................................................................................
ঊর্ধ্বমুখী বাজারে বাড়ল মূল্য আয় অনুপাত
.............................................................................................
পিপলস লিজিং অবসায়ন চান না আমানতকারীরা
.............................................................................................
ট্যাক্স কার্ড পাচ্ছেন পাঁচ সাংবাদিক
.............................................................................................
সর্বোচ্চ কর দিয়ে ট্যাক্স কার্ড পাচ্ছেন মাশরাফি সাকিব তামিম
.............................................................................................
ট্যাক্স কার্ড পাচ্ছেন তাহসান, এস ডি রুবেল ও মমতাজ
.............................................................................................
সুইস ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগে আগ্রহী করে তুলেছে বাংলাদেশ : রাষ্ট্রদূত
.............................................................................................
সেরা ১৪১ করদাতা ট্যাক্স কার্ড পাচ্ছেন
.............................................................................................
ব্যবসায়ীদের দোষে তৈরি পোশাক খাতে নেতিবাচক প্রভাব: টিপু মুনশি
.............................................................................................
এক হিসাবেই সব মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেন
.............................................................................................
এটিএম বুথে জাল ও ছেঁড়া নোটে ভোগান্তি
.............................................................................................
ব্যাংকের সংকট বাড়ছে
.............................................................................................
দুর্দিনে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক
.............................................................................................
তৈরি পোশাক শিল্পে ঘাড়ে ভিয়েতনামের নিশ্বাস
.............................................................................................
মোবাইল ব্যাংকিংয়ে গ্রাহক সাড়ে ৭ কোটি ছাড়িয়েছে
.............................................................................................
রাজধানীতে বেড়েছে শীতকালীন সবজির সরবরাহ
.............................................................................................
বাজারে পেঁয়াজের ঘাটতি নেই শিগগির মূল্য স্বাভাবিক হয়ে আসবে
.............................................................................................
৪৫ টাকায় পেঁয়াজ মিলবে ঢাকার ৩৫ পয়েন্টে
.............................................................................................
কমেছে পেঁয়াজের দাম
.............................................................................................
শেয়ার বিক্রি করবে এনসিসি ব্যাংকের উদ্যোক্তা
.............................................................................................
কৃষি পদক পেল প্রাণ
.............................................................................................
পেঁয়াজের ঝাঁজ বেড়েছে
.............................................................................................
হিলিতে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে
.............................................................................................
স্বর্ণের দাম কমল
.............................................................................................
হিলিতে আমদানিকৃত পেঁয়াজের দাম বেড়েছে
.............................................................................................
সেপ্টেম্বরে ঢাকায় টেক্সটাইল গার্মেন্টস শিল্প প্রদর্শনী
.............................................................................................
স্বর্ণের নতুন দাম আজ থেকে কার্যকর
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]