| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * দ্বিতীয় দিনের মতো শতক ছাড়ালো করোনায় মৃতের সংখ্যা   * বাতাসের মাধ্যমে করোনা ছড়ানোর প্রমাণ পেলো গবেষকরা   * হেফাজতের সহকারী মহাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন গ্রেপ্তার   * সৌদি আরবে ওমরায় বিদেশীদের মানতে হবে যে নিয়ম   * এবার ভারতীয় বংশোদ্ভূত অরোরা জাতিসংঘের মহাসচিব পদে লড়বেন   * উত্তরার নিজ ফ্ল্যাট থেকে অধ্যাপক ড. তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উদ্ধার   * শতাধিক এমপি করোনায় আক্রান্ত   * লকডাউনের ‘কড়াকড়িতে’ এক মাসের সর্বনিম্ন পরীক্ষা : কোভিড-১৯   * কিউবায় ৬ দশকের কাস্ত্রো যুগের অবসান   * ‘ভালো চাইলে রোনালদোকে বেচে দাও’  

   অপরাধ ও অনিয়ম
  ইয়েমেনে হুথি হামলায় দিশেহারা সৌদি সেনারা
 

অনলাইন ডেস্কঃ মধ্যপ্রাচ্য মুসলিম রাষ্ট্র সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট প্রতিবেশী রাষ্ট্র ইয়েমেনে আগ্রাসন চালাচ্ছে। দেশটির সশস্ত্র সংগঠন হুথি যোদ্ধাদের পরাজিত করার পাশাপাশি ইয়েমেনের আন্তর্জাতিক স্বীকৃত সরকারকে ফের প্রতিষ্ঠিতর যে লক্ষ্য নিয়ে যুদ্ধে নেমেছিল; এবার সেটি সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরায় লন্ডনভিত্তিক রাজনৈতিক বিশ্লেষক এবং মধ্য প্রাচ্য বিষয়ক অভিজ্ঞ ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক থমাস ও ফক এক মতামতধর্মী সংবাদে এমন মন্তব্য করেছেন। তিনি লিখেছেন, ইয়েমেনে হুথিদের বিদ্রোহীদের উৎখাতে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের সামরিক হস্তক্ষেপ শুধুমাত্র ব্যর্থই হয়নি, বরং সৌদি জোট এমন এক অবস্থায় আছে যে; তারা আত্মসমর্পণে বাধ্য হতে পারে।

২০১৫ সালের মার্চ মাসে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে। শুরুতে সৌদি আরব পূর্বাভাস দিয়েছিল, এ যুদ্ধ মাত্র কয়েক সপ্তাহ স্থায়ী হবে। তবে আজ ছয় বছর হয়ে গেল, যুদ্ধটি শেষের কোনো লক্ষণই নেই।

ইউনিভার্সিটি অব ডেনভারের সেন্টার ফর মিডল ইস্ট স্টাডিজের পরিচালক নাদের হাসেমী বলেন, ইয়েমেনে হুথি বিদ্রোহী নিজেদেরকে অজেয় শক্তি হিসেবে প্রমাণ করেছে। যুদ্ধ চালিয়ে যাবার জন্য সৌদি আরবের বিরোধী পক্ষের সমান সক্ষমতা নেই। ২০১৫ সালে অপারেশন ডিসাইসিভ স্ট্রম দিয়ে সৌদি আরব যে অভিযান শুরু করেছিল; বাস্তবতা এখন তার থেকে ভিন্ন।

নাদের হাসেমী বলেন, সৌদি আরব ভেবেছিল কয়েক সপ্তাহ বোমা বিস্ফোরণ করে তারা যুদ্ধে জিততে পারবে। কিন্তু যুদ্ধ শুরু হওয়ার সাত বছরেও যুদ্ধ সমাপ্তের কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না।

বাস্তবিক অর্থে হুথিরা পূর্বের থেকে অধিক অগ্রসর হয়েছে। আর সৌদি আরব এমন এক অবস্থানে আছে যেখানে তারা জয়ী হবে; সেটা ভাবা বোকামি। হুথিরা রাজধানী সানা নিয়ন্ত্রণ ছাড়াও দেশটির উত্তর-পশ্চিমের অনেক অংশ নিয়ন্ত্রণ করেছে।

এছাড়া তেল, গ্যাস উৎপাদনের গুরুত্বপূর্ণ শহর মারিবেও আক্রমণ পরিচালনা করছে। আঞ্চলিক অর্জনের পাশাপাশি হুথিরা বারবার দেখিয়েছে যে, তারা সৌদি আরবের ভেতরের স্থাপনায়ও হামলা করতে পারে।

সাংবাদিক থমাস ও ফক লেখেন, যুদ্ধে এমন এক পর্যায়ে আছে যেখানে সৌদি আরব হুথিদেরকে শান্তি প্রস্তাব দিয়েছে। সৌদি দীর্ঘস্থায়ী শান্তির জন্য এই প্রস্তাব দিয়েছে এমন নয়, বরং যুদ্ধ থেকে বেঁচে ফেরার কৌশল হিসেবে এই প্রস্তাব দিয়েছেন।

কেন শুরু হয়েছিল এই যুদ্ধ?

আরব বসন্তের ধাক্কায় ছিটকে পড়েন ইয়েমেনের ৩৩ বছরের স্বৈরশাসক প্রেসিডেন্ট আলি আবদুল্লাহ সালেহ। ২০১১ সালে তিনি তার ডেপুটি মানসুর হাদির কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন। দেশটির সবচেয়ে বড় শহর সানায় হুতিদের সঙ্গে যুদ্ধে ২০১৭ সালের ৪ নভেম্বর স্বৈরশাসক আলি আবদুল্লাহ সালেহ মারা যান।

প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর মানসুর হাদিকে চারপাশ থেকে নানা সংকট চেপে ধরে। জিহাদিদের হামলা, দক্ষিণে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের আন্দোলন, সেনাবাহিনীতে সালেহর অনুগত বাহিনী, দুর্নীতি, বেকারত্ব, খাদ্য সংকট। সালেহর শাসনামলে ইয়েমেনের সংখ্যালঘু জাইদি শিয়া সম্প্রদায়ের হুতি বাহিনী কয়েক দশক ধরে একাধিকবার সরকারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ, লড়াই করেছিল।

নতুন প্রেসিডেন্ট মানসুর হাদির দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে শক্তিশালী হয়ে ওঠে হুতি বাহিনী এবং উত্তরের সাদা প্রদেশসহ আশপাশের এলাকাগুলোর নিয়ন্ত্রণ নেয়। সরকারের ব্যর্থতায় বিরক্ত সাধারণ সুন্নিরা ২০১৪ সালের শেষে এবং ২০১৫ সালের শুরুতে হুতিদের প্রতি সমর্থন দেখায়। বিদ্রোহীরা ওই সময় সানাও দখলে নেয়।

সেনাবাহিনীর সালেহ অনুগত সেনারা হুথি যোদ্ধাদের সঙ্গে একজোট বেঁধে ক্ষমতা দখলে পুরো দেশ দখলে সর্বশক্তি নিয়োগ করে। চাপের মুখে মানসুর হাদি ২০১৫ সালের মার্চে দেশ ছেড়ে পালাতে বাধ্য হন।

হুথি বাহিনীর এই শক্তিশালী হওয়ার পেছনে ওই অঞ্চলের শিয়া শক্তি ইরান নিয়ামক হিসেবে কাজ করেছে বলা হয়। ফলে পাল্টা হামলার জন্য জোটবদ্ধ হয় আরব বিশ্বের সুন্নি দেশগুলো। সৌদি আরবের নেতৃত্বে আটটি আরব দেশ (বেশির ভাগই সুন্নি) হাদি সরকারকে ক্ষমতায় বসাতে শক্তি প্রয়োগ শুরু করে।



সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 34        
   শেয়ার করুন
Share Button
   আপনার মতামত দিন
     অপরাধ ও অনিয়ম
গাজীপুরে ছুরিকাঘাতে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু, আটক ১
.............................................................................................
গরুর ঘাস খাওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ৪০
.............................................................................................
ক্ষেতের ধান খাওয়ায় পাখির বাসায় আগুন, পুড়ে গেল ৩৩ ছানা
.............................................................................................
মেয়রের বাড়িতে বিস্ফোরণ, চার কাউন্সিলরসহ আহত ১৩
.............................................................................................
ইয়েমেনে হুথি হামলায় দিশেহারা সৌদি সেনারা
.............................................................................................
ঘুমন্ত শিশুকে কুপিয়ে হত্যা, সৎ মা আটক
.............................................................................................
লকডাউনে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকবে: রেলমন্ত্রী
.............................................................................................
এক ট্রাকে ৮০ যাত্রী!
.............................................................................................
বাসে উঠতে না পেরে অফিসযাত্রীদের সড়ক অবরোধ-বিক্ষোভ
.............................................................................................
দুই সন্তানকে হত্যা করে মায়ের আত্মহত্যা
.............................................................................................
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সংঘর্ষে নিহত বেড়ে ৫
.............................................................................................
মুন্সীগঞ্জে ইভটিজিং নিয়ে সালিশে ছুরিকাঘাতে নিহত ৩
.............................................................................................
রাজধানীতে মা-শিশুর মরদেহ উদ্ধার
.............................................................................................
১০০ টাকার প্রলোভন দেখিয়ে শিশুকে ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ
.............................................................................................
কেরানীগঞ্জে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু পরিবারের মামলা : ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে বাদী
.............................................................................................
জুতার মধ্যে পাওয়া গেল ১৩ স্বর্ণের বার
.............................................................................................
যুবককে মারধরের ছবি তোলায় সাংবাদিককে আটকে রাখলেন চেয়ারম্যান
.............................................................................................
হবিগঞ্জে নিজ ঘরে মা-মেয়ের গলাকাটা লাশ
.............................................................................................
গ্রামীণফোনের ডাটাবেজে ঢুকে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ
.............................................................................................
সুদের টাকা পরিশোধে ব্যর্থ হওয়ায় গৃহবুধকে গাছে বেঁধে নির্যাতন
.............................................................................................
Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale
Digital Load Cell
Digital Indicator
Digital Score Board
Junction Box | Chequer Plate | Girder
Digital Scale | Digital Floor Scale

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop