| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * পেঁয়াজের পর এবার সিলেটে লবণ নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড   * এক বছর নয়, আরও বেশি সময়ের জন্য নিষিদ্ধ হচ্ছেন শাহাদাত রাজীব   * খুলনা বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট অব্যাহত, দুর্ভোগে যাত্রীরা   * পদ্মা সেতুর আড়াই কিলোমিটার দৃশ্যমান হচ্ছে আজ   * ফুটবলের এসএ গেমস প্রস্তুতি শুরু বৃহস্পতিবার   * মাত্রাতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেয়েই অসুস্থ নুসরাত!   * নতুন সিনেমার প্রথম পোস্টারেই ভাইরাল কাজল   * পুরুষদের জন্য গর্ভনিরোধক ইনজেকশন!   * ককপিটে নিয়ে কেবিন ক্রুদের কুপ্রস্তাব দেন পাইলট ইশরাত   * লিবিয়ায় বিমান হামলায় নিহত বাংলাদেশির পরিচয় মিলেছে  

   আদালত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
গ্রামীণফোনের পাওনা টাকার মীমাংসা বাইরে নয় : আপিল বিভাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

গ্রামীণফোনের কাছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) পাওনা ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকার বিষয়ে আদালতের বাইরে কোনো মীমাংসা করা যাবে না বলে আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

চলমান বিবাদ নিরসনে আদালতের বাইরে অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ে করতে বিটিআরসিকে টেলিনর এশিয়ার পক্ষে প্রস্তাব দেয়ার প্রেক্ষিতে আদালত এ আদেশ দেন। পরে এ বিষয়ে আদেশ দেয়ার জন্য রোববার (২৫ নভেম্বর) পরর্বতী তারিখ নির্ধারণ করেন।

সোমবার (১৮ নভেম্বর) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বিভাগের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে গ্রামীণফোনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন ও শেখ ফজলে নূর তাপস। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মেহেদী হাসান চৌধুরী, শরীফ ভূঁইয়া ও আইনজীবী তানিম হোসেইন শাওন। বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, মুরাদ রেজা ও খন্দকার রেজা-ই-রাকিব। উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপক্ষের অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির।

পরে খন্দকার রেজা-ই-রাকিব সাংবাদিকদের বলেন, যেহেতু (বিটিআরসি) পাওনা নিয়ে নিষ্পত্তির বিষয়টি দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে পেন্ডিং আছে সেহেতু এটি অন্য কোনো মাধ্যমে নিষ্পত্তি করতে নিষেধ করেছেন আপিল বিভাগ।

তিনি বলেন, আদালতের বাইরে অন্য কোন মধ্যস্ততায় সালিশ (আরবিট্টেশন) করা যাবে না বলেছেন।


এর আগে গত (১৪ নভেম্বর) বিটিআরসির পাওনা টাকার মধ্যে ২০০ কোটি টাকা শর্ত সাপেক্ষে দিতে রাজি হয় গ্রামীণফোন। সে দিনের শুনানি শেষে মামলায় আদেশের জন্য আজকের (১৮ নভেম্বর) দিন ধার্য ছিল আপিল বিভাগে।

হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে বিটিআরসির লিভ টু আপিলের শুনানি নিয়ে গত ২৪ অক্টোবর গ্রামীণফোন ন্যূনতম কত টাকা দিতে পারবে তা জানতে চেয়ে ৩১ অক্টোবর আদেশের জন্য রেখেছিলেন আপিল বিভাগ। কিন্তু সে হিসাব গ্রামীণফোন দিতে না পারায় দুই সপ্তাহ সময় নিয়েছিল। আজ শুনানির নির্ধারিত দিনে গ্রামীণফোনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে দুই শত কোটি টাকা দিবে তবে, সেটা শর্ত সাপেক্ষে।

এর আগে গত ২৪ অক্টোবর ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকার মধ্যে গ্রামীণফোন আপাতত বিটিআরসিকে কত টাকা দিতে পারবে তা জানাতে বলেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। এর আগে গত ১৭ অক্টোবর গ্রামীণফোনের কাছে বিটিআরসির পাওনা ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা আদায়ের ওপর দুই মাসের অন্তর্বর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা দেন হাইকোর্ট।

হাইকোর্টের বিচারপতি আবদুল হাকিম ও বিচারপতি ফাতেমা নজীবের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ ওই আদেশ দেন। পরে সে আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে বিটিআরসি।

এর আগে প্রায় ২৭ খাতে ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা দাবি করে গ্রামীণফোনকে গত ২ এপ্রিল চিঠি দেয় বিটিআরসি। এ চিঠির যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে অর্থ আদায়ের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে গ্রামীণফোন নিম্ন আদালতে মামলা করে। এরপর গত ২৮ আগস্ট নিম্ন আদালত গ্রামীণের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আবেদন নামঞ্জুর করেন। পরে ওই আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করে গ্রামীণফোন। ওই আপিলটি শুনানির জন্য গ্রহণ করে দুই মাসের জন্য গ্রামীণফোনের কাছ থেকে টাকা আদায়ে নিষেধাজ্ঞা দেন হাইকোর্ট।

গ্রামীণফোনের পাওনা টাকার মীমাংসা বাইরে নয় : আপিল বিভাগ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

গ্রামীণফোনের কাছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) পাওনা ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকার বিষয়ে আদালতের বাইরে কোনো মীমাংসা করা যাবে না বলে আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

চলমান বিবাদ নিরসনে আদালতের বাইরে অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ে করতে বিটিআরসিকে টেলিনর এশিয়ার পক্ষে প্রস্তাব দেয়ার প্রেক্ষিতে আদালত এ আদেশ দেন। পরে এ বিষয়ে আদেশ দেয়ার জন্য রোববার (২৫ নভেম্বর) পরর্বতী তারিখ নির্ধারণ করেন।

সোমবার (১৮ নভেম্বর) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বিভাগের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে গ্রামীণফোনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন ও শেখ ফজলে নূর তাপস। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মেহেদী হাসান চৌধুরী, শরীফ ভূঁইয়া ও আইনজীবী তানিম হোসেইন শাওন। বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, মুরাদ রেজা ও খন্দকার রেজা-ই-রাকিব। উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপক্ষের অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির।

পরে খন্দকার রেজা-ই-রাকিব সাংবাদিকদের বলেন, যেহেতু (বিটিআরসি) পাওনা নিয়ে নিষ্পত্তির বিষয়টি দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে পেন্ডিং আছে সেহেতু এটি অন্য কোনো মাধ্যমে নিষ্পত্তি করতে নিষেধ করেছেন আপিল বিভাগ।

তিনি বলেন, আদালতের বাইরে অন্য কোন মধ্যস্ততায় সালিশ (আরবিট্টেশন) করা যাবে না বলেছেন।


এর আগে গত (১৪ নভেম্বর) বিটিআরসির পাওনা টাকার মধ্যে ২০০ কোটি টাকা শর্ত সাপেক্ষে দিতে রাজি হয় গ্রামীণফোন। সে দিনের শুনানি শেষে মামলায় আদেশের জন্য আজকের (১৮ নভেম্বর) দিন ধার্য ছিল আপিল বিভাগে।

হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে বিটিআরসির লিভ টু আপিলের শুনানি নিয়ে গত ২৪ অক্টোবর গ্রামীণফোন ন্যূনতম কত টাকা দিতে পারবে তা জানতে চেয়ে ৩১ অক্টোবর আদেশের জন্য রেখেছিলেন আপিল বিভাগ। কিন্তু সে হিসাব গ্রামীণফোন দিতে না পারায় দুই সপ্তাহ সময় নিয়েছিল। আজ শুনানির নির্ধারিত দিনে গ্রামীণফোনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে দুই শত কোটি টাকা দিবে তবে, সেটা শর্ত সাপেক্ষে।

এর আগে গত ২৪ অক্টোবর ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকার মধ্যে গ্রামীণফোন আপাতত বিটিআরসিকে কত টাকা দিতে পারবে তা জানাতে বলেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। এর আগে গত ১৭ অক্টোবর গ্রামীণফোনের কাছে বিটিআরসির পাওনা ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা আদায়ের ওপর দুই মাসের অন্তর্বর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা দেন হাইকোর্ট।

হাইকোর্টের বিচারপতি আবদুল হাকিম ও বিচারপতি ফাতেমা নজীবের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ ওই আদেশ দেন। পরে সে আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে বিটিআরসি।

এর আগে প্রায় ২৭ খাতে ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা দাবি করে গ্রামীণফোনকে গত ২ এপ্রিল চিঠি দেয় বিটিআরসি। এ চিঠির যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে অর্থ আদায়ের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে গ্রামীণফোন নিম্ন আদালতে মামলা করে। এরপর গত ২৮ আগস্ট নিম্ন আদালত গ্রামীণের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আবেদন নামঞ্জুর করেন। পরে ওই আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করে গ্রামীণফোন। ওই আপিলটি শুনানির জন্য গ্রহণ করে দুই মাসের জন্য গ্রামীণফোনের কাছ থেকে টাকা আদায়ে নিষেধাজ্ঞা দেন হাইকোর্ট।

আবরার হত্যা : চারজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ রাব্বিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে করা মামলায় পলাতক চারজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। তারা হলেন-মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম, মোর্শেদ অমত্য ইসলাম ও মোস্তবা রাফিদ। এদের মধ্যে প্রথম তিনজন এজাহারভুক্ত ও শেষের জন এজাহারবহির্ভূত।

সোমবার (১৮ নভেম্বর) ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর হাকিম কায়সারুল ইসলাম মামলার অভিযোগ (চার্জশিট) গ্রহণ করে তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। গ্রেফতার-সংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ৩ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।



এর আগে ১৩ নভেম্বর ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান।

অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে এজাহারে নাম রয়েছে ১৯ জনের। এছাড়া তদন্তে প্রাপ্ত এজাহারের বাইরে ছয়জন। এজাহারভুক্ত ১৯ জনের মধ্যে ১৬ জন ও এজাহারবহির্ভূত ছয়জনের মধ্যে পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারদের মধ্যে আটজন বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

গ্রেফতার ২১ জন হলেন-মেহেদী হাসান রাসেল, মো. অনিক সরকার, ইফতি মোশাররফ সকাল, মো. মেহেদী হাসান রবিন, মো. মেফতাহুল ইসলাম জিওন, মুনতাসির আলম জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মো. মুজাহিদুর রহমান, মুহতাসিম ফুয়াদ, মো. মনিরুজ্জামান মনির, মো. আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মাজেদুর রহমান, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, এ এস এম নাজমুস সাদাত, ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মো. মিজানুর রহমান ওরফে মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত ও এস এম মাহমুদ সেতু।

পলাতক চারজন হলেন-মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম, মোর্শেদ অমত্য ইসলাম ও মোস্তবা রাফিদ। এদের মধ্যে প্রথম তিনজন এজাহারভুক্ত ও শেষের জন এজাহারবহির্ভূত।


ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার জেরে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে গত ৬ অক্টোবর রাতে ডেকে নিয়ে যায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এরপর রাত ৩টার দিকে শেরেবাংলা হলের নিচতলা ও দোতলার সিঁড়ির করিডোর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পরদিন ৭ অক্টোবর দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে আবরারের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। নিহত আবরার বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি শেরেবাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন। ওই ঘটনায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে চকবাজার থানায় ১৯ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেন।

দুদকের মামলায় সম্রাট ৬ দিনের রিমান্ডে
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) করা মামলায় যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিষ্কৃত সভাপতি ‘ক্যাসিনো সম্রাট’ খ্যাত ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রোববার (১৭ নভেম্বর) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।



আজ সকালে কারাগার থেকে সম্রাটকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। এসময় অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে করা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তার বিরুদ্ধে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে দুদক। অপরদিকে, তার আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে ১২ নভেম্বর দুই কোটি ৯৪ লাখ ৮০ হাজার ৮৭ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয়-ঢাকা-১ এ সম্রাটের বিরুদ্ধে মামলা করেন দুদকের উপ-পরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম।

উল্লেখ্য, ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরুর পর সম্রাটের নাম আসার পর থেকেই তাকে নিয়ে নানা গুঞ্জন শুরু হয়। অভিযান শুরুর পর হাইপ্রোফাইল কয়েকজন গ্রেফতার হলেও খোঁজ মিলছিল না সম্রাটের। এসবের মধ্যে তার দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞাও জারি করা হয়। এরপর ৫ অক্টোবর রাত থেকেই তার গ্রেফতার হওয়ার খবর এলেও পরদিন সকালে তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।



৬ অক্টোবর কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রামে আত্মগোপনে থাকা সম্রাটকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। তার সঙ্গে আরমানকেও গ্রেফতার করা হয়। পরে ঢাকায় এনে তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়।

৬ অক্টোবর দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলমের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল কাকরাইলে ভূঁইয়া ট্রেড সেন্টারে তালা ভেঙে সম্রাটের কার্যালয়ে ঢুকে অভিযান শুরু করে। নিজ কার্যালয়ে পশুর চামড়া রাখার দায়ে তার ছয় মাসের জেল দিয়ে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এছাড়া র‌্যাব-১ বাদী হয়ে রমনা মডেল থানায় সম্রাটের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করে। দুই মামলার বাদী র‌্যাব-১ এর ডিএডি আব্দুল খালেক।


গত ৭ অক্টোবর রমনা থানা পুলিশ অস্ত্র ও মাদক আইনের মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানোপূর্বক ১০ দিন করে মোট ২০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। গত ১৫ অক্টোবর অস্ত্র মামলায় পাঁচদিন ও মাদক মামলায় পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন আদালত। ২৪ অক্টোবর রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়স হবে ৬০ বছর
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়সসীমা নিয়ে হাইকোর্টের রায় বাতিল ঘোষণা করে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের দেয়া পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়েছে। সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়সসীমা ৫৯ বছর থেকে ৬০ বছর করে ২০১৩ সালে করা আইন বৈধ ঘোষণা করে রায় ঘোষণা করা হয়েছে। রায়ে বলা হয়েছে, সরকারি চাকরি থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়সসীমা ৬০-ই হবে।

রোববার (১৭ নভেম্বর) সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে এই রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশ করা হয়।



রায়ের পর্যবেক্ষণে বলা হয়েছে, ‘হাইকোর্ট জাতীয় সংসদকে আইন প্রণয়ন বা সংশোধন করতে বলতে পারে না।’

এর আগে ২০১৮ সালের ১৮ নভেম্বর প্রধান বিচরপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়সসীমা ৫৯ বছর থেকে ৬০ বছর করে ২০১৩ সালে করা আইন অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের রায় বাতিল করেন।

২০১৮ সালের ১১ এপ্রিল সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়সসীমা ৫৯ বছর থেকে ৬০ বছর করে ২০১৩ সালে করা আইন অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করেন হাইকোর্ট। আদালত বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়সসীমা ৬১ বছর করা উচিত ছিল। কিন্তু সেটা না করা বৈষম্যমূলক হয়েছে। এ কারণে সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের ৬১ বছর পর্যন্ত সকল সুবিধা দেবে বলে মনে করি।’

হাইকোর্টের বিচারপতির গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি এ কে এম সাহিদুল হকের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রায় দেন।


আদালতে রিটকারীদের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার সিদ্দিকুর রহমান খান ও অ্যাডভোকেট গাজী মোশতাক আহমেদ। অন্যদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ এস এম নাজমুল হক।

সোনালী ব্যাংকের ডিজিএম মশির উদ্দিন ওয়ারেশী ও আনসার-ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংকের জেনারেল ম্যানেজার তপন কুমার সাহার রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এই রায় দেন আদালত।

পরে হাইকোর্টের এই রায় স্থগিত চেয়ে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। আপিল বিভাগ হাইকোর্টের ওই রায় বাতিল করেন।

সরকার ২০১৩ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি আইন সংশোধন করে মুক্তিযোদ্ধাদের ক্ষেত্রে অবসরের বয়সসীমা একবছর বাড়িয়ে ৬০ বছর করে। এ অবস্থায় চাকরি থেকে অবসরের বয়সসীমা দুই বছর বাড়ানোর নির্দেশনা চেয়ে দুই মুক্তিযোদ্ধা গত বছর হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। এ রিট আবেদনে রুল জারি করেন আদালত। এরপর রিট আবেদনকারীরা ২০১৩ সালের আইনের সংশোধনী বাতিল চেয়ে সম্পূরক আবেদন করেন।

৬৯ বার পেছাল সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন
                                  

 

নিজস্ব প্রতিবেদক 

 

 

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ৩০ ডিসেম্বর নতুন দিন ধার্য করেছেন আদালত। এ নিয়ে আলোচিত এ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ ৬৯ বার পেছাল।

 

বৃহস্পতিবার মামলার প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। তবে তদন্ত সংস্থা র‍্যাব প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাস নতুন দিন ধার্য করেন।

 

 

 

রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আসাদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি মাছরাঙা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক গোলাম মোস্তফা সারোয়ার ওরফে সাগর সারোয়ার ও এটিএন বাংলার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক মেহেরুন নাহার রুনা ওরফে মেহেরুন রুনি দম্পতি রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারে নিজ বাসায় খুন হন।

 

এরপর নিহত রুনির ভাই নওশের আলম রোমান শেরেবাংলা নগর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। প্রথমে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ছিলেন ওই থানার এক উপ-পরিদর্শক (এসআই)। চারদিন পর চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলার তদন্তভার ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করা হয়।

 

দুই মাসেরও বেশি সময় তদন্ত করে রহস্য উদঘাটনে ব্যর্থ হয় ডিবি। পরে হাইকোর্টের নির্দেশে একই বছরের ১৮ এপ্রিল হত্যা মামলাটির তদন্তভার র‍্যাবের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

 

 
চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদার জামিন খারিজের বিরুদ্ধে আপিল
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক 

 

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর করে দেয়া হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল আবেদন করেছেন খালেদার আইনজীবীরা। জামিন আবেদনে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিত চাওয়া হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই আবেদন করেন অ্যাডভোকেট অন রেকর্ড জয়নুল আবেদীন তুহিন। পরে এই তথ্য নিশ্চিত করেন বিএনপির আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল।

 

 

 

এর আগে গত ৩১ জুলাই দুর্নীতির মামলায় অপরাধের গুরুত্ব বিবেচনায় নিয়ে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন সরাসরি খারিজ করে দেন হাইকোর্ট।

 

খালেদা জিয়ার আইনজীবী ও বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল বলেন, খালেদা জিয়াকে তার সাংবিধানিক ও আইনগত অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। উনি গুরুতর অসুস্থ। এ ছাড়া সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বৃহৎ একটি রাজনৈতিক দলের চেয়ারপারসন। এ বিষয়গুলো বিবেচনায় না নিয়ে তার প্রতি অবিচার করা হয়েছে।

 

২০১০ সালের ৮ আগস্ট সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা করে দুদক। ক্ষমতার অপব্যবহার করে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয় আসামিদের বিরুদ্ধে। এই মামলায় খালেদা জিয়াসহ চার আসামিকে সাত বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন খালেদা জিয়া।

 

ওই আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি নিম্ন আদালতের নথি আসা সাপেক্ষে জামিন আবেদনের শুনানি গ্রহণ করা হবে বলে জানান আদালত। গত জুনে নথি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ থেকে হাইকোর্টে আসে। এরপরই খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা জামিন আবেদন শুনানির জন্য আদালতে আবেদন করেন। ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত মঙ্গল ও বুধবার জামিন আবেদনের ওপর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

 

 

শুনানিতে আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, জামিন পেলে খালেদা জিয়া পালিয়ে যাবেন না। অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, মামলার নথি এসেছে। এখন পেপারবুক প্রস্তুত করা হলেই আপিল শুনানি দ্রুত সম্ভব। এ অবস্থায় জামিন দেয়া ঠিক হবে না। এ ছাড়া খালেদা জিয়াকে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে এই মামলায় সাজা দিয়েছেন আদালত।

 

দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, এ মামলায় জামিন না দেয়াটা হবে যুক্তিযুক্ত। কারণ, তিনি সর্বোচ্চ পদে থেকে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়েছেন। শুনানি শেষে জামিন আবেদন খারিজ করে দেন হাইকোর্ট।

 
২০০ কোটি টাকা বিটিআরসিকে দিতে রাজি গ্রামীণ ফোন
                                  

 

স্টাফ রিপোর্টার

দুজন মন্ত্রীর উপস্থিতিতে আলোচনার প্রস্তাব অনুযায়ী ২০০ কোটি টাকা বিটিআরসিকে দিতে সম্মত আছে গ্রামীণ ফোন। অন্যদিকে, প্রায় সাড়ে ১২ হাজার কোটি টাকা পাওনার ৫০ ভাগ গ্রামীণ ফোনকে জমা দেওয়ার প্রস্তাব করেছে বিটিআরসি।

 

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ৬ সদস্যের আপিল বিভাগে গ্রামীণ ফোন ও বিটিআরসির আইনজীবীদের বক্তব্যে এসব প্রস্তাব এসেছে।

 

শুনানি নিয়ে আদালত আগামী সোমবার আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন। এই প্রেক্ষাপটে গ্রামীণ ফোনকে কত টাকা বিটিআরসিকে দিতে হবে, তা সেদিন জানা যেতে পারে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা।

 

৩১ অক্টোবর আদালত বিটিআরসির নিরীক্ষা দাবির প্রায় ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকার মধ্যে গ্রামীণ ফোন এখন কত টাকা দিতে পারবে, তা জানতে চেয়েছিলেন। একই সঙ্গে গ্রামীণ ফোনের আইনজীবীদের সময়ের আরজির পরিপ্রেক্ষিতে ১৪ নভেম্বর (আজ) পর্যন্ত শুনানি মুলতবি করেছিলেন। এর ধারাবাহিকতায় আজ আপিল বিভাগে শুনানি হয়।

 

 

আদালতে গ্রামীণ ফোনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী শেখ ফজলে নূর তাপস। গ্রামীণ ফোনের পক্ষ ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন ও মো. মেহেদি হাসান চৌধুরী।

 

বিটিআরসির পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মাহবুবে আলম। সঙ্গে ছিলেন খন্দকার রেজা-ই-রাকিব।

 

শুনানিতে গ্রামীণ ফোনের আইনজীবী শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, অর্থমন্ত্রীসহ দুই মন্ত্রীর উপস্থিতিতে প্রতিনিধিদের নিয়ে গত ৩ অক্টোবরের বৈঠকে ২০০ কোটি টাকা দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়। শর্ত ছিল—গ্রামীণ ফোনের ওপর বিটিআরসির আরোপ করা প্রতিবন্ধকতাগুলো তুলে দেওয়ার। এই প্রস্তাব অনুসারে দুই কিস্তিতে গ্রামীণ ফোন ওই টাকা বিটিআরসিকে দিতে সম্মত হয়।

 

শুনানিতে মাহবুবে আলম বলেন, অন্তত পাওনার ৫০ ভাগ অর্থ গ্রামীণ ফোন জমা দিক। তারপর কমিটির মাধ্যমে বাকি অর্থ পরিশোধের বিষয়ে আলোচনা হতে পারে।

 

মাহবুবে আলম বলেন, হাইকোর্টের আদেশ স্থগিতের আরজি জানান। এ সময় আদালত বলেন, নমনীয় দৃষ্টিতে দেখতে হবে।

 

বিটিআরসির পাওনা দাবি নিয়ে গ্রামীণ ফোন নিম্নআদালত একটি মামলা করে। পাওনা দাবির অর্থ আদায়ের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চায় গ্রামীণ ফোন। এই নিষেধাজ্ঞার আবেদন নামঞ্জুর হলে তারা হাইকোর্টে আপিল করে।

 

১৭ অক্টোবর হাইকোর্ট আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে ওই অর্থ দাবি আদায়ের ওপর দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা দেন। এই আদেশ স্থগিত চেয়ে বিটিআরসি আবেদন করে। যা চেম্বার বিচারপতির আদালত হয়ে আপিল বিভাগে শুনানির জন্য আসে।

 
কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের সভাপতি শফিকুলের বিরুদ্ধে চার্জশিট
                                  

 

নিজস্ব প্রতিবেদক 

 

 

রাজধানীর ধানমন্ডি থানায় মাদক আইনে করা মামলায় কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের সভাপতি শফিকুল আলম ফিরোজকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দিয়েছে র‌্যাব।

 

সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরীর আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা র‌্যাব-২ এর উপ-পরিদর্শক জসীম উদ্দীন। আদালত দেখিলাম বলে চার্জশিটে স্বাক্ষর করে বিচারের জন্য মহানগর দায়রা জজ আদালতে বদলির নির্দেশ দেন।

 

ধানমন্ডি থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আশরাফ আলী মঙ্গলবার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গতকাল সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

 

এর আগে ১০ অক্টোবর তিনদিনের রিমান্ড শেষে তাকে আদালতে হাজির করে র‌্যাব। এ সময় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা র‌্যাব-২ এর উপ-পরিদর্শক জসীম উদ্দীন তাকে কারাগারে রাখার আবেদন করে প্রতিবেদন দাখিল করেন। অন্যদিকে তার আইনজীবী জামিনের আবেদন করেন।

 

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম শাহিনুর রহমান জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এছাড়া তার চিকিৎসার জন্য আবেদন করলে আদালত কারাবিধি অনুসারে চিকিৎসার নির্দেশ দেন।

 

উল্লেখ্য, ২০ সেপ্টেম্বর দুপুর দেড়টার দিকে শফিকুল আলমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য র‌্যাব হেফাজতে নেয়া হয়। ওইদিন সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে কলাবাগান ক্রীড়াচক্র ক্লাবে অভিযান চালায় র‌্যাব।

 

 

অভিযান শেষে রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-২ এর অধিনায়ক আশিক বিল্লাল জানান, অভিযানের সময় শফিকুলের কাছে সাত প্যাকেট হলুদ রঙের ইয়াবা পাওয়া গেছে। বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত এ ধরনের ইয়াবা পাওয়া যায়নি। এ ইয়াবায় কোনো গন্ধ নেই। এটা নতুন আবিষ্কার।

 
আবরার হত্যার প্রতিবেদন দাখিল পিছিয়ে গেল
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক


বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে (২১) পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীসহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ১৮ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বুধবার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান প্রতিবেদন দাখিল করেনি। এ জন্য ঢাকা মহানগর হাকিম কায়সারুর ইসলাম প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নতুন এ দিন ধার্য করেন।

চকবাজার থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মাজহার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার জেরে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে গত ৬ অক্টোবর রাতে ডেকে নিয়ে যায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এরপর রাত ৩টার দিকে শেরেবাংলা হলের নিচতলা ও দোতলার সিঁড়ির করিডোর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পরদিন ৭ অক্টোবর দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে আবরারের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। নিহত আবরার বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি শেরেবাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন। ওই ঘটনায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে চকবাজার থানায় ১৯ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেছেন।

মামলার পর থেকে এ পর্যন্ত ২১ জনকে গ্রেফতার করেছেন ডিবি। এর মধ্যে এজাহারনামীয় ১৬ জন ও এজাহারের বাইরে ৫ জন।


এজাহারনামীয়রা হলেন-মেহেদী হাসান রাসেল , মো. অনিক সরকার, ইফতি মোশাররফ সকাল, মো. মেহেদী হাসান রবিন, মো. মেফতাহুল ইসলাম জিওন, মুনতাসির আলম জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মো. মুজাহিদুর রহমান, মুহতাসিম ফুয়াদ, মো. মনিরুজ্জামান মনির, মো. আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মো. মাজেদুল ইসলাম, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা ও এ এস এম নাজমুস সাদাত।

এজাহার বহির্ভূত ৫ জন হলেন- ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মো. মিজানুর রহমান ওরফে মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত ও এস এম মাহমুদ সেতু।

 
ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতা অনুসন্ধানে তদন্তের নির্দেশ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার

চলতি বছর ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া জ্বর নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার কারণ অনুসন্ধানে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। ঢাকার জেলা জজ ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের একজন যুগ্ম সচিবকে এ বিষয়ে তদন্ত করতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে অনুসন্ধান করে আগামী বছরের ১৫ জানুয়ারির মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

ঢাকা মহানগরীর দুই সিটির মশা নিধনে গ্রহণ করা পদক্ষেপের বিষয়ে জারি করা রুলের শুনানিতে মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই নির্দেশ দেন।

 
মুক্তিযোদ্ধা কোটায় চাকরিতে প্রতারণা : রাজস্ব কর্মকর্তার কারাদণ্ড
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক 

মুক্তিযোদ্ধার সন্তান না হয়েও প্রতারণার মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কোটায় চাকরি নেয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় শুল্ক, আবগারী ও ভ্যাট কমিশনারেট ঢাকার (পশ্চিম) সাবেক রাজস্ব কর্মকর্তা মনিরুজ্জামানের ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭ এর বিচারক শহিদুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন।

 

মামলার রায়ে তিন ধারায় তাকে ১৬ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেন আদালত। পেনাল কোডের ৪২০/৪৬৮ ধারায় অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় সাত করে চৌদ্দ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং বিশ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন আদালত। পেনাল কোডের ৪৭১ ধারায় অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় দুই বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেন আদালত। যদিও বিচারক রায়ে উল্লেখ করেন তিন ধারার সাজা একত্রে চলবে।

 

রায় ঘোষণার সময় মনিরুজ্জামান পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে সাজা পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

 

মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মত্যাগকে অপমান করেছেন মনিরুজ্জামান

 

বিচারক রায়ে উল্লেখ করেন, আসামি মনিরুজ্জামান মুক্তিযোদ্ধার সন্তান না হয়েও প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদের ঠিকানা ব্যবহার করেন। প্রতারণামূলকভাবে জাল-জালিয়াতির আশ্রয় গ্রহণে দেশের সূর্য সন্তান মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে মিথ্যা পরিচয়ে মুক্তিযোদ্ধাদেরর জন্য সরকার প্রদত্ত স্বীকৃতি, কোটা ও সুবিধা ভোগ করেছেন। যাঁদের ত্যাগের বিনিময়ে এদেশ স্বাধীন হয়েছে সেই মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মত্যাগকে অপব্যবহার তথা অপমান করেছেন। আসামির এহেন অপকর্মের কারণে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার পরিচয়, স্বীকৃতি ও সুবিধাদি হুমকির সম্মুখীন হয়েছে। ফলে আসামি কোনো অনুকল্প পেতে পারে না।

 

রায়ে আদালত আরও উল্লেখ করেন, দেশের অন্যদের জন্যও এই রায় বার্তা হিসেবে কাজ করবে। আসামি মুক্তিযোদ্ধা সন্তান না হয়েও প্রতারণার আশ্রয় গ্রহণে জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে কাগজপত্র সৃষ্টি ও তা ব্যবহার করে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কোটায় চাকরি নিয়েছে। দুর্নীতি দমন কমিশন আইন ২০০৪ এর তফসিলভুক্ত অপরাধ পেনাল কোডের ৪২০/৪৬৮ ও ৪৭১ ধারার অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আসামির অপরাধের প্রকৃত ও ফলাফল বিবেচনায় তাকে সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদান যুক্তিযুক্ত মনে করি।

 

 

দুদকের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) রেজা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান না হয়েও প্রতারণার মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কোটায় চাকরি নেওয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় শুল্ক, আবগারী ও ভ্যাট কমিশনারেট ঢাকার (পশ্চিম) সাবেক রজস্ব কর্মকর্তা মনিরুজ্জামানকে পেনাল কোডের তিন ধারায় ১৬ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

 

তবে তিন ধারার সাজা একসাথে চলবে বিধায় তাকে ৭ বছর কারাভোগ করতে হবে।

 

তিনি আরও বলেন, জালিয়াতির অভিযোগে ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে মনিরুজ্জামানের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।২০১৬ সালে তার বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে। বিভিন্ন সময়ে এ মামলায় ২১ জন সাক্ষী আদালতে সাক্ষ্য দেন।

 
দণ্ডিত শিশুদের মুক্তির আদেশের খোঁজ জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট
                                  

স্টাফ রিপোর্টার

ভ্রাম্যমাণ আদালতে দণ্ডিত শিশুদের মুক্তি ও জামিন সংক্রান্ত আদেশের কপি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছেছে কি না, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।হাইকোর্টের বেঞ্চ কর্মকর্তাকে রেজিস্ট্রার জেনারেলের দপ্তরে খোঁজ নিয়ে এ বিষয় জানাতে বলা হয়েছে।

বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ সোমবার এই তথ্য জানাতে বলেন।

আদালতের নজরে আনেন চিলড্রেন’স চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন (সিসিবি ফাউন্ডেশন) চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আবদুল হালিম। ভ্রাম্যমাণ আদালতে দণ্ডিত হয়ে গাজীপুরের টঙ্গী ও যশোরের পুলেরহাটের কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে থাকা ১২ বছরের কম বয়সী শিশুদের অবিলম্বে মুক্তি দিতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। টঙ্গী ও যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়কদের প্রতি এ নির্দেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে দণ্ডিত হয়ে শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে থাকা ১২ বছরের বেশি বয়সী থেকে ১৮ বছর পর্যন্ত বয়সী শিশুদের ছয় মাসের জামিন দেন হাইকোর্ট।

আজ সকালে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের কার্যক্রম শুরু হলে আদালত আইনজীবী আবদুল হালিমের কাছে শিশুদের মুক্তি ও জামিন সংক্রান্ত আদেশের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চান।

একপর্যায়ে হাইকোর্ট বলেন, আদালতের আদেশ পৌঁছেনি। অবশ্যই যেন পৌঁছে। যত দূর শুনেছি, ডেসপাস পর্যন্ত গেছে । আদালত সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ কর্মকর্তাকে ডেকে এ বিষয়ে খোঁজ নিতে বলেন।

আদালত বলেন, আজ বেলা দুইটার মধ্যে অবশ্যই যেন আদেশ যায়।

 
খালেদার ৮ মামলায় অ‌ভি‌যোগ গঠন শুনা‌নি ২৯ জানুয়া‌রি
                                  

স্টাফ

 

রাজধানীর দারুস সালাম থানা এলাকায় নাশকতার অভিযোগে দায়ের হওয়া আট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য আগামী বছরের ২৯ জানুয়া‌রি দিন ধার্য করেছেন আদালত।

 

 

বুধবার (০৬ ন‌ভেম্বর) কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারের অস্থায়ী আদালতের বিচারক ঢাকা মহানগর দায়রা জজ ইমরুল কায়েশ শুনা‌নির এ দিন ধার্য করেন।

 

চি‌কিৎসাধীন খা‌লেদা জিয়া‌কে এ‌দিন আদাল‌তে হা‌জির করা হয়‌নি। তাছাড়া তার আইনজীবীরা জা‌নি‌য়ে‌ছেন, এসব মামলার ক‌য়েক‌টি উচ্চ আদাল‌তে স্থ‌গিত আ‌ছে। এ অবস্থায় অ‌ভি‌যোগ গঠন শুনা‌নির জন্য আদালত নতুন এদিন ধার্য ক‌রেন।

 

খালেদা জিয়ার আইনজীবী জিয়াউদ্দিন জিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

২০১৫ সালের প্রথম দিকে বিএনপির হরতাল চলাকালে দারুস সালাম থানায় এ মামলাগুলো করে পুলিশ। ২০১৬ সালের প্রথম দিকে খালেদা জিয়াসহ অপর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।

 

খালেদা জিয়া ছাড়া মামলার উল্লেখযোগ্য আসামিরা হলেন- বিএনপি নেতা আমানউল্লাহ আমান, হাবিব-উন নবী খান সোহেল ও সুলতান সালাউদ্দিন টুকু।

 

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১৭ বছর দণ্ডিত হয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে রয়েছেন। বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন।

 
ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট
                                  


স্টাফ রিপোর্টার

চলতি বছরে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে কতজন মারা গেছেন তার সংখ্যা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী ১১ নভেম্বরের (সোমবার) মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষ আদালতকে এ তথ্য জানাতে হবে।


বুধবার (০৬ নভেম্বর) বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ নির্দেশ দেন।

গত ২৮ আগস্ট এক আদেশে আদালত ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সরকারের নেওয়া কাজের অগ্রগতি জানাতে নির্দেশ দিয়েছিলেন। বুধবার দুই সিটির পক্ষে এ প্রতিবেদন দিতে সময় আবেদনের পর আদালত ১১ নভেম্বর দিন ঠিক করেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার কাজী মাঈনুল হাসান। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার তৌফিক ইনাম টিপু।

৪ জুলাই স্বপ্রণোদিত এক আদেশে ঢাকা সিটিতে ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়াসহ এডিস মশা নির্মূল ও ধ্বংসে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দিয়ে দিয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

ওই আদেশের ধারবাহিকতায় উক্ত আদেশ দেন।

 
ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিলেন নুসরাতের দুই বন্ধু
                                  

আদালত প্রতিবেদক


নুসরাত জাহান রাফির জবানবন্দির ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে মামলায় সাক্ষ্য দিলেন ফেনীর সোনাগাজীর এই মাদ্রাসাছাত্রীর দুই বন্ধু।

নুসরাতের দুই বান্ধবী নাসরিন সুলতানা ফুর্তি ও নিশাত সুলতানা সোমবার ঢাকার সাইবার ট্রাইবুনালে রাষ্ট্রপক্ষে অতিরিক্ত তলব করা সাক্ষী হিসাবে জবানবন্দি দেন।

তারা বলেন, নুসরাতের সঙ্গে তাদেরও নেকাব খুলে বক্তব্য রেকর্ড করেন ওসি মোয়াজ্জেম। ভিডিওটি তিনি রেকর্ড করেন মামলার জন্য প্রয়োজনের কথা বলে।

গত মার্চ মাসের শেষে নুসরাতকে যৌন হয়রানির অভিযোগে তার মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ দৌলার বিরুদ্ধে মামলার পর সোনাগাজী থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম নির্যাতিত নুসরাতের জবানবন্দি নিয়েছিলেন।

এরপর সিরাজের নির্দেশে তার অনুগামী শিক্ষার্থী ও স্থানীয় প্রভাবশালী কয়েকজন নুসরাতের গায়ে আগুন দিলে তা নিয়ে নিন্দার ঝড় বয়ে যায়। পরে তার মৃত্যু হয়।

এই ঘটনা ঠেকাতে পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যর্থতার অভিযোগ ওঠার মধ্যে নুসরাতের জবানবন্দির ওই ভিডিও ছড়ায়। তখন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

নুসরাত হত্যার মামলায় ফেনীর আদালত ইতোমধ্যে রায় দিয়েছে, তাতে অধ্যক্ষ সিরাজসহ ১৬ আসামির সবাইকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলাটিতে গত ১৭ জুলাই বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আস-শামস জগলুল হোসেন ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের পর বিচার করছেন।

গত ৩০ অক্টোবর নুসরাতের দুই বন্ধুসহ তিনজনের সাক্ষ্য নেওয়ার জন্য বিচারকের কাছে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। তার পরিপ্রেক্ষিতে নাসরিন ও নিশাত সাক্ষ্য দিতে ঢাকায় আসেন।

সোমবার তাদের পাশাপাশি সিআইডির ফরেনসিক কর্মকর্তার সাক্ষ্যও নেওয়া হয়। সাক্ষ্য শেষে তাদের জেরা করেন আসামি ওসি মোয়াজ্জেমের আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ।

এ নিয়ে এ মামলায় ১১ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ হল। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআইয়ের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার রীমা সুলতানার সাক্ষ্যের জন্য ১১ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন বিচারক।

মামলার আসিাম ওসি মোয়াজ্জেম গত ১৬ জুন গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে কারাগারে রয়েছেন।

 
দুর্নীতি মামলায় হাই কোর্টে লতিফ সিদ্দিকীর জামিন
                                  

স্টাফ রিপোর্টার

দুর্নীতির মামলায় সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে জামিন দিয়েছে হাই কোর্ট।

বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের হাই কোর্ট বেঞ্চে সোমবার তাকে ছয় মাসের জামিন দেয়।

আদালতে লতিফ সিদ্দিকীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনসুরুল হক চৌধুরী, জেয়াদ আল মালুম ও শাহ মঞ্জুরুল হক। দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

দুদক আইনজীবী পরে সাংবাদিকদের বলেন, হাই কোর্টের দেওয়া জামিন আদেশ স্থগিতের জন্য আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে আবেদন করবেন তারা।

গত ৭ জুলাই এ মামলায় লতিফ সিদ্দিকীর জামিন প্রশ্নে চার সপ্তাহের রুল জারি করে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের হাই কোর্ট বেঞ্চ। কিন্তু এর শুনানি না করার সিদ্ধান্ত নিয়ে গত ২২ অগাস্ট আবেদন ফিরিয়ে নেন লতিফ সিদ্দিকীর আইনজীবী।

পরে গত ২৪ সেপ্টেম্বর হাই কোর্টে আবার জামিন আবেদন করেন লতিফ সিদ্দিকী। বিচারপতি সহিদুল করিম ও বিচারপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন খানের হাই কোর্ট বেঞ্চ গত ১ অক্টোবর জামিন না দিয়ে রুল জারি করতে চাইলে আবার আবেদনটি ফেরত নেন তার আইনজীবীরা।

ওই আবেদনটিই সম্প্রতি বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের হাই কোর্ট বেঞ্চে উপস্থাপন করা হয়; যার ওপর শুনানি শেষে ছয় মাসের জামিন হল লতিফ সিদ্দিকীর।

টাঙ্গাইল-৪ আসনের সাবেক সাংসদ লতিফ সিদ্দিকী ২০০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ সরকারের পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ছিলেন। ওই সময় তিনি দুর্নীতি করেছেন অভিযোগ করে ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর বগুড়ার আদমদীঘি থানায় এই মামলা করেন দুদকের সহকারী পরিচালক মো. আমিনুল ইসলাম।

সেখানে বলা হয়, মন্ত্রী থাকাকালে লতিফ ক্ষমতার অপব্যবহার করে বাংলাদেশ জুট করপোরেশনের অধীনে থাকা বগুড়ার আদমদীঘির রানীনগর ক্রয় কেন্দ্রের ২ দশমিক ৩৮ একর জমি দরপত্রের বিজ্ঞপ্তি ছাড়াই বেগম জাহানারা রশিদ নামে এক নারীর কছে বিক্রির নির্দেশ দেন, তাতে সরকারের ৪০ লাখ ৬৯ হাজার ২১ টাকার আর্থিক ক্ষতি হয়

মামলায় বেগম জাহানারা রশিদকেও আসামি করা হয়। তদন্ত শেষে গতবছর ১৮ ফেব্রুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দেয় দুদক।

গত ২০ জুন লতিফ সিদ্দিকী এ মামলায় বগুড়ার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে বিচারক তা নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

পরে লতিফ সিদ্দিকীর অসুস্থতার কথা উল্লেখ করে তার স্ত্রী গত ৩০ জুন হাই কোর্টে জামিন আবেদন করেন। কয়েক দফা ব্যর্থ হওয়ার পর সোমবার ছয় মাসের জামিন পেলেন সাবেক এই আওয়ামী লীগ নেতা।

 

   Page 1 of 35
     আদালত
গ্রামীণফোনের পাওনা টাকার মীমাংসা বাইরে নয় : আপিল বিভাগ
.............................................................................................
আবরার হত্যা : চারজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
.............................................................................................
দুদকের মামলায় সম্রাট ৬ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়স হবে ৬০ বছর
.............................................................................................
৬৯ বার পেছাল সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন
.............................................................................................
চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদার জামিন খারিজের বিরুদ্ধে আপিল
.............................................................................................
২০০ কোটি টাকা বিটিআরসিকে দিতে রাজি গ্রামীণ ফোন
.............................................................................................
কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের সভাপতি শফিকুলের বিরুদ্ধে চার্জশিট
.............................................................................................
আবরার হত্যার প্রতিবেদন দাখিল পিছিয়ে গেল
.............................................................................................
ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতা অনুসন্ধানে তদন্তের নির্দেশ
.............................................................................................
মুক্তিযোদ্ধা কোটায় চাকরিতে প্রতারণা : রাজস্ব কর্মকর্তার কারাদণ্ড
.............................................................................................
দণ্ডিত শিশুদের মুক্তির আদেশের খোঁজ জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট
.............................................................................................
খালেদার ৮ মামলায় অ‌ভি‌যোগ গঠন শুনা‌নি ২৯ জানুয়া‌রি
.............................................................................................
ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট
.............................................................................................
ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিলেন নুসরাতের দুই বন্ধু
.............................................................................................
দুর্নীতি মামলায় হাই কোর্টে লতিফ সিদ্দিকীর জামিন
.............................................................................................
হাইকোর্টের আদেশের পরও মুক্তি পাচ্ছে না শিশুরা
.............................................................................................
দণ্ডপ্রাপ্ত ১২১ শিশুকে মুক্তির নির্দেশ হাইকোর্টের
.............................................................................................
আজহারুলের মৃত্যুদণ্ড বহাল
.............................................................................................
অশীতিপর রাবেয়া খাতুনকে মামলা থেকে অব্যাহতি : হাইকোর্ট রায়
.............................................................................................
এসকে সিনহার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন আগামী ৫ ডিসেম্বর
.............................................................................................
ড. ইউনূসকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ
.............................................................................................
পাবলিক প্লেসে নিরাপদ মাতৃদুগ্ধ পানের ব্যবস্থা করতে হাইকোর্টের নির্দেশ
.............................................................................................
মুন সিনেমা হলের রেজিস্ট্রি ১০ নভেম্বরের মধ্যে সম্পন্নের নির্দেশ
.............................................................................................
জি কে শামীম ও খালেদের ৭ দিনের রিমান্ড
.............................................................................................
৫ দিনের রিমান্ডে পাগলা মিজান
.............................................................................................
নুসরাত হত্যায় অধ্যক্ষ সিরাজসহ ১৬ আসামির ফাঁসি
.............................................................................................
ফিটনেসহীন গাড়িতে জ্বালানি নয় : হাইকোর্ট
.............................................................................................
ফেনীর নুসরাত হত্যার রায় বৃহস্পতিবার
.............................................................................................
বিএনপির এমপি হারুন অর রশীদের ৫ বছরের কারাদণ্ড
.............................................................................................
আইনজীবীর সহকারী হত্যার দায়ে ১২ জনের মৃত্যুদণ্ড
.............................................................................................
শপথ নিলেন নতুন ৯ বিচারপতি
.............................................................................................
সাগর-রুনি হত্যা: তদন্ত শেষ না হওয়ায় হাইকোর্টের ক্ষোভ
.............................................................................................
হাইকোর্ট বিভাগে ৯ অতিরিক্ত বিচারপতি নিয়োগ
.............................................................................................
যুদ্ধাপরাধ মামলায় রাজশাহীর টিপুর রায় যেকোন দিন
.............................................................................................
১০ দিনের রিমান্ডে সম্রাট
.............................................................................................
মানবতাবিরোধী অপরাধে গাইবান্ধার পাঁচ আসামির মৃত্যুদণ্ড
.............................................................................................
মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় গাইবান্ধার পাঁচ আসামীর রায় আজ
.............................................................................................
ড. ইউনূসের গ্রেফতারি পরোয়ানা হাইকোর্টে স্থগিত
.............................................................................................
এক মাসের মধ্যে রাজীবের পরিবারকে ১০ লাখ টাকা দেয়ার নির্দেশ
.............................................................................................
আবরার হত্যার আসামি অমিত-তোহা ৫ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
স্কুলছাত্রী রিশা হত্যা মামলার রায় আজ
.............................................................................................
সম্রাটের রিমান্ড শুনানি পিছিয়ে ১৫ অক্টোবর
.............................................................................................
সেলিম প্রধানের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন
.............................................................................................
রিশা হত্যার রায় ফের পেছাল
.............................................................................................
সেলিম প্রধান ৪ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
সেফুদার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
.............................................................................................
প্রধান বিচারপতির এজলাসে টাঙানো হলো বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি
.............................................................................................
নুসরাত হত্যার রায় ২৪ অক্টোবর
.............................................................................................
সুপ্রিম কোর্ট বারে মিন্নি
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]