| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * রোজায় অফিস সময় ৯টা থেকে সাড়ে ৩টা   * দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তি দেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর   * সন্ধ্যার পর ওষুধের দোকান ছাড়া সব বন্ধ   * ঢাকায় মোট ৬৪ জনের করোনা শনাক্ত   * নামাজ-প্রার্থনা নিজঘরে, জুমায় সর্বোচ্চ ১০ জন   * চট্টগ্রামে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা পুলিশের   * ফরিদপুরে আইসোলেশনে বৃদ্ধের মৃত্যু   * দেশে করোনায় নতুন করে ২৯ করোনা রোগী শনাক্ত, মোট ১১৭   * করোনায় দেশে একদিনে ৪ জনের মৃত্যু, সংখ্যা বেড়ে ১৩   * এবার বাঘের শরীরে মিললো করোনাভাইরাস  

   আদালত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
আবরার হত্যা হত্যা মামলার শুনা‌নি ৬ এপ্রিল

দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এ স্থানান্ত‌র হচ্ছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার ন‌থি ।আদালতের নি‌র্দেশে আগামী ৬ এপ্রিল অভিযোগ গঠন শুনা‌নি হ‌বে। মামলা‌টি দ্রুতবিচা‌র ট্রাইব্যুনালে স্থানান্ত‌রের বিষ‌য়ে সরকা‌রি গে‌জে‌টের পর আজ বুধবার ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন। এর আগে গত ১৭ ফেব্রুয়া‌রি মামলা‌টি দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্ত‌রে আবরা‌রের বাবা বরকতউল্লাহ সরকা‌রি দফতরে চি‌ঠি দেন। প‌রে গত ১৫ ম‌ার্চ মামলা‌টি দ্রুতবিচার ট্রাইব‌্যুনাল-১ এ স্থানান্ত‌রের আদেশ দি‌য়ে গে‌জেট প্রকাশ ক‌রে আইন মন্ত্রণালয়।

গত ১২ জানুয়া‌রি ঢাকার অতি‌রিক্ত মেট্রোপ‌লিটন ম্যা‌জি‌স্ট্রেট মো. কায়সারুল ইসলাম মামলা‌র বিষ‌য়ে পরবর্তী পদ‌ক্ষেপ নি‌তে মহানগর দায়রা জজ আদাল‌তে বদ‌লির আদেশ দেন। এরপর দুই দফায় অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন রাখা হলেও মামলা‌টি দ্রুত বিচা‌রে স্থানান্তরের গে‌জেট না হওয়ায় শুনা‌নি পি‌ছি‌য়ে যায়।

গত বছর ১৩ ন‌বেম্বর মামলায় ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল ক‌রেন গো‌য়েন্দা পু‌লিশের (ডি‌বি) লালবাগ জোনাল টি‌মের প‌রিদর্শক মো. ওয়া‌হিদুজ্জামান। প‌রে ১৮ নবেম্বর অভিযোগপত্র গ্রহণ করে পলাতক চার আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। প‌রোয়ানা অনুযায়ী গ্রেফতার কর‌তে না পারায় গত ৩ ডি‌সেম্বর তা‌দের সম্পদ ক্রো‌কের নি‌র্দেশ দেওয়া হয়। ৫ জানুয়া‌রির ম‌ধ্যে ক্রোকী প‌রোয়ানা তা‌মি‌লের নি‌র্দেশ দেওয়া হ‌য়ে‌ছিল।

এরপর গত ৫ জানুয়া‌রি পলাতক আসা‌মি‌দের হা‌জি‌রে বিজ্ঞ‌প্তি প্রকাশের আদেশ দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তি প্রকা‌শের বিষ‌য়ে প্র‌তি‌বেদন দা‌খি‌লের এক‌দিন আগে মোর্শেদ অমত্য ইসলাম না‌মে পলাতক এক আসা‌মি আদাল‌তে আত্মসমর্পণ ক‌রে জা‌মিন আবেদন ক‌রেন। আদালত জা‌মিন আবেদন নামঞ্জুর ক‌রে তা‌কে কারাগা‌রে পাঠান। এখন পলাতক থাকলেন আর তিন আসা‌মি। তারা হ‌লেন- মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম ও মোস্তবা রাফিদ। এর ম‌ধ্যে মোস্তবা রা‌ফিদের নাম এজাহা‌রে ছিল না।

মামলায় অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে এজাহারভুক্ত ১৯ জন এবং এজাহার বহির্ভূত ৬ জন। গ্রেফতারদের মধ্যে ৮ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।
তদন্ত চলাকালে মামলায় অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে ২১ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। গ্রেফতারদের ম‌ধ্যে ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মিজানুর রহমান মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত ও এস এম মাহমুদ সেতু ছাড়া বাকি সবাই এজাহারভুক্ত আসামি।

এর ম‌ধ্যে আটজন আদাল‌তে স্বীকা‌রো‌ক্তিমূলক জবানব‌ন্দি দেন। তারা হলেন- ইফতি মোশাররফ সকাল, মেফতাহুল ইসলাম জিওন, অনিক সরকার, মুজাহিদুর রহমান, মেহেদি হাসান রবিন, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভীর, মনিরুজ্জামান মনির ও এএসএম নাজমুস সাদাত। গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলে ছাত্রলীগের কিছু উচ্ছৃঙ্খল কর্মীর হাতে নির্দয় পিটুনির শিকার হয়ে মারা যান বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ।

 
আবরার হত্যা হত্যা মামলার শুনা‌নি ৬ এপ্রিল
                                  

দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এ স্থানান্ত‌র হচ্ছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার ন‌থি ।আদালতের নি‌র্দেশে আগামী ৬ এপ্রিল অভিযোগ গঠন শুনা‌নি হ‌বে। মামলা‌টি দ্রুতবিচা‌র ট্রাইব্যুনালে স্থানান্ত‌রের বিষ‌য়ে সরকা‌রি গে‌জে‌টের পর আজ বুধবার ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন। এর আগে গত ১৭ ফেব্রুয়া‌রি মামলা‌টি দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্ত‌রে আবরা‌রের বাবা বরকতউল্লাহ সরকা‌রি দফতরে চি‌ঠি দেন। প‌রে গত ১৫ ম‌ার্চ মামলা‌টি দ্রুতবিচার ট্রাইব‌্যুনাল-১ এ স্থানান্ত‌রের আদেশ দি‌য়ে গে‌জেট প্রকাশ ক‌রে আইন মন্ত্রণালয়।

গত ১২ জানুয়া‌রি ঢাকার অতি‌রিক্ত মেট্রোপ‌লিটন ম্যা‌জি‌স্ট্রেট মো. কায়সারুল ইসলাম মামলা‌র বিষ‌য়ে পরবর্তী পদ‌ক্ষেপ নি‌তে মহানগর দায়রা জজ আদাল‌তে বদ‌লির আদেশ দেন। এরপর দুই দফায় অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন রাখা হলেও মামলা‌টি দ্রুত বিচা‌রে স্থানান্তরের গে‌জেট না হওয়ায় শুনা‌নি পি‌ছি‌য়ে যায়।

গত বছর ১৩ ন‌বেম্বর মামলায় ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল ক‌রেন গো‌য়েন্দা পু‌লিশের (ডি‌বি) লালবাগ জোনাল টি‌মের প‌রিদর্শক মো. ওয়া‌হিদুজ্জামান। প‌রে ১৮ নবেম্বর অভিযোগপত্র গ্রহণ করে পলাতক চার আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। প‌রোয়ানা অনুযায়ী গ্রেফতার কর‌তে না পারায় গত ৩ ডি‌সেম্বর তা‌দের সম্পদ ক্রো‌কের নি‌র্দেশ দেওয়া হয়। ৫ জানুয়া‌রির ম‌ধ্যে ক্রোকী প‌রোয়ানা তা‌মি‌লের নি‌র্দেশ দেওয়া হ‌য়ে‌ছিল।

এরপর গত ৫ জানুয়া‌রি পলাতক আসা‌মি‌দের হা‌জি‌রে বিজ্ঞ‌প্তি প্রকাশের আদেশ দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তি প্রকা‌শের বিষ‌য়ে প্র‌তি‌বেদন দা‌খি‌লের এক‌দিন আগে মোর্শেদ অমত্য ইসলাম না‌মে পলাতক এক আসা‌মি আদাল‌তে আত্মসমর্পণ ক‌রে জা‌মিন আবেদন ক‌রেন। আদালত জা‌মিন আবেদন নামঞ্জুর ক‌রে তা‌কে কারাগা‌রে পাঠান। এখন পলাতক থাকলেন আর তিন আসা‌মি। তারা হ‌লেন- মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম ও মোস্তবা রাফিদ। এর ম‌ধ্যে মোস্তবা রা‌ফিদের নাম এজাহা‌রে ছিল না।

মামলায় অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে এজাহারভুক্ত ১৯ জন এবং এজাহার বহির্ভূত ৬ জন। গ্রেফতারদের মধ্যে ৮ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।
তদন্ত চলাকালে মামলায় অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে ২১ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। গ্রেফতারদের ম‌ধ্যে ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মিজানুর রহমান মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত ও এস এম মাহমুদ সেতু ছাড়া বাকি সবাই এজাহারভুক্ত আসামি।

এর ম‌ধ্যে আটজন আদাল‌তে স্বীকা‌রো‌ক্তিমূলক জবানব‌ন্দি দেন। তারা হলেন- ইফতি মোশাররফ সকাল, মেফতাহুল ইসলাম জিওন, অনিক সরকার, মুজাহিদুর রহমান, মেহেদি হাসান রবিন, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভীর, মনিরুজ্জামান মনির ও এএসএম নাজমুস সাদাত। গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলে ছাত্রলীগের কিছু উচ্ছৃঙ্খল কর্মীর হাতে নির্দয় পিটুনির শিকার হয়ে মারা যান বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ।

 
সাংবাদিক আরিফুলের সাজার মামলার নথি তলব করেছে আদালত
                                  

কুড়িগ্রামে মধ্যরাতে অভিযান চালিয়ে সাংবাদিক আরিফুল ইসলামকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজার মামলার নথি তলব করেছেন হাইকোর্ট। আজ সোমবারের মধ্যে এ নথি জমা দিতে হবে। একইসঙ্গে সম্ভব হলে আরিফুল ইসলামকেও আসতে বলেছেন আদালত। বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার দুপুরে এ আদেশ দেন।

এদিকে সাংবাদিক আরিফুল ইসলাম রিগ্যানকে ২৫ হাজার টাকায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. সুজাউদ্দৌলা রোববার জামিন দেন। কুড়িগ্রামে মধ্যরাতে সাংবাদিককে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে কারাদণ্ড দেওয়ার অভিযোগের তদন্ত করছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। কুড়িগ্রামের সাংবাদিক আরিফুল ইসলামের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, শুক্রবার (১৩ মার্চ) মধ্যরাতে জেলা প্রশাসনের লোকজন তার বাড়িতে গিয়ে দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকেন।

পরে তাকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নিয়ে বাড়িতে ‘আধা বোতল মদ ও দেড়শ গ্রাম গাঁজা’ পাওয়ার ঘটনায় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। তবে সাংবাদিক আরিফের সহকর্মী ও পরিবারের দাবি, একটি পুকুর সংস্কার নিয়ে পত্রিকায় প্রতিবেদন করায় জেলা প্রশাসক মোছা. সুলতানা পারভীন ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে ফাঁসিয়েছেন।মধ্যরাতে সাংবাদিককে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে জেলে পাঠানোর ঘটনায় ব্যাপক সমালোচনার মধ্যে বিষয়টি আমলে নেয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

 
করোনা আতঙ্ক: সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে রিট
                                  

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। ওই রিটে দেশের স্থল ও নৌবন্দর বন্ধের নির্দেশনাও চাওয়া হয়েছে।

আজ রবিবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট আবেদন করেন আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ। গত ৮ মার্চ প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়। তবে তারা সুস্থ হয়ে গেছেন বলে দাবি সরকারের আইইডিসিআরের। শনিবার (১৪ মার্চ) রাতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সংবাদ সম্মেলন করে জানান, দেশে আরও দুজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারি রূপ নিলেও বাংলাদেশ সরকার বলছে, দেশে এখনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। অনেকে বলছেন, করোনাভাইরাস ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ার আগেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করা দরকার। এরই মধ্যে ইউনুছ আলী আকন্দ এ রিট করলেন।

 
জাতীয় স্লোগান ‘জয় বাংলা’ হাইকোর্টের রায়
                                  

জয় বাংলাকে জাতীয় স্লোগান ঘোষণা করে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার (১০ মার্চ) এ রায় দেন আদালত। একইসঙ্গে রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে বক্তব্যের শেষে জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে বক্তব্য শেষ করতে হবে এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অ্যাসেম্বলি শেষে জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে হবে। আগামী তিন মাসের মধ্যে এ রায় বাস্তবায়ন করে অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। আদালত রায় বলেন, ৭৫ পরবর্তী সময়ে জয় বাংলা স্লোগান এবং ৭ মার্চের ভাষণ প্রচার নিষিদ্ধ করেছিল সে সময়ের সরকার। ইতিহাস কখনো বিবৃত করে দাবিয়ে রাখা যায় না বলেও মন্তব্য করেন হাইকোর্ট।

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে অনুপ্রেরণা যোগানো স্লোগান ‘জয় বাংলা’ কেন জাতীয় স্লোগান হিসেবে ঘোষণা করা হবে না-এ মর্মে জারি করা রুলের ওপর এ রায়ে দেয়া হয়। বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল হাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের বেঞ্চ এ রায় দেন। রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রপক্ষ।

২০১৭ সালের ৪ ডিসেম্বর জয় বাংলাকে কেন জাতীয় স্লোগান ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। পরে ওই রুলের ওপর গত বছরের ৪ ডিসেম্বর বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চে শুনানি শুরু হয়। শুনানিতে ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম, ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, আজমালুল হক কিউসি ও এম আমিন উদ্দিনসহ জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা জয় বাংলাকে জাতীয় স্লোগান করার পক্ষে আদালতে তাদের মতামত তুলে ধরেন।

 
সায়মার ঘটনা আমাদের জন্য লজ্জার: আদালত
                                  

রাজধানী ওয়ারীর সিলভারডেল স্কুলের নার্সারির ছাত্রী সামিয়া আফরিন সায়মাকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনাকে লজ্জাজনক বলেছেন আদালত। সোমবার (৯ মার্চ) মামলার একমাত্র আসামি হারুন অর রশীদকে মৃত্যুদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণার সময় আদালত এ কথা বলেন। বেলা ১১টায় ঢাকার ১ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক কাজী আব্দুল হান্নান এ আদেশ দেন। রায়ের পর রাষ্ট্র পক্ষের কৌঁসুলি আব্দুল বারি জানান, আদালতে আমরা আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করতে পেরেছি। তাই আদালত আসামিকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন।

এছাড়া আদালত রায় ঘোষণার সময় বলেন, এ ধরনের ঘটনা আমাদের জন্য লজ্জাজনক। এদিকে রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন সামিয়ার বাবা আব্দুস ছালাম। তবে রায়ে ন্যায়বিচার পাইনি করে উচ্চ আদালতে আপিল করার কথা জানিয়েছেন আসামি পক্ষের আইনজীবী আনোয়ার উল্যা। গত বছরের ৫ জুলাই শিশু সামিয়াকে খুঁজে পাচ্ছিল না তার পরিবার। পরে ওই বাড়ির নবম তলার নব নির্মিত একটি খালি ফ্ল্যাটের ভেতর তার মৃতদেহ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় পরদিন সামিয়ার বাবা আব্দুস সালাম বাদী হয়ে ওয়ারী থানায় একটি মামলা করেন।

 
জি কে শামিমের জামিন বাতিল চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন
                                  

যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা জি কে শামিমের জামিন বাতিল চেয়ে রোববার (৮ মার্চ) হাইকোর্টে আবেদন করছে রাষ্ট্রপক্ষ। একই সঙ্গে তার জামিন সংক্রান্ত সকল নথি তলব করেছেন প্রধান বিচারপতি। এর আগে শনিবার (৭ মার্চ) জানা যায়, কঠোর গোপনীয়তায় যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা ও বিতর্কিত ঠিকাদার জি কে শামীমকে অস্ত্র ও মাদক মামলায় ৬ মাসের জামিন দিয়েছে হাইকোর্ট। তবে জামিনের বিষয়ে জানা নেই বলে দাবি করেছিলেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ফজলুর রহমান খান।

গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর নিকেতনের অফিস থেকে ৬ দেহরক্ষী ও বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা, এফডিআর ও স্বর্ণালঙ্কারসহ গ্রেফতার করা হয় যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির তৎকালীন সমবায় বিষয়ক সম্পাদক জি কে শামীমকে। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র, অর্থপাচার ও মাদক মামলা রয়েছে। রাজধানীর সবুজবাগ, বাসাবো, মতিঝিলসহ বিভিন্ন এলাকায় জি কে শামীম প্রভাবশালী ঠিকাদার হিসেবেই পরিচিত ছিলো। এছাড়া গণপূর্ত ভবনের বেশিরভাগ ঠিকাদারি কাজই ছিলো জি কে শামীমের নিয়ন্ত্রণে।

গ্রেফতারের পর জি কে শামীমের বিষয়ে বেরিয়ে আসতে থাকে শত শত কোটি টাকার নানা অনিয়মের কথা। এছাড়া গত বছরের ২১ অক্টোবর জিকে শামীমের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন। মামলায় জিকে শামীম অবৈধ উপায়ে মোট ২৯৭ কোটি ৮ লাখ ৯৯ হাজার ৫৫১ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন বলে অভিযোগ আনা হয়। এসব মামলায় একাধিকবার জি কে শামীকে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। মামলাগুলোর মধ্যে অস্ত্র ও মাদক আইনের মামলায় চার্জশিট হয়েছে। বাকিগুলো তদন্তাধীন রয়েছে।

জানা যায়, গ্রেফতারের ৬ মাস না যেতেই অত্যন্ত গোপনীয়তার সঙ্গে গত ৬ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট থেকে ৬ মাসের আগাম জামিন নেন তিনি। তার জামিনের লিখিত আদেশ প্রকাশিত হয় ১২ ফেব্রুয়ারি। জি কে শামীমের জামিনের বিষয়ে জানতে চাইলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ফজলুর রহমান খান জানান, তিনি জামিনের বিষয়ে কিছুই জানেন না। রোববার খোঁজ নিয়ে দেখবেন বলেও জানান তিনি। যদিও জামিন আদেশের একটি কপি ও কার্যতালিকার আলাদা আলদা দুটি নথি সংগ্রহ করে সময় সংবাদ। এতে দেখা যায়, মূল নামের পরিবর্তে আংশিক নাম ব্যবহার করে জামিনের আবেদন করা হয়। আইনজ্ঞরা জানান, জি কে শামীমের আইনজীবী ও আদালতের বেঞ্চ কর্মকর্তাদের যোগসাজসে বিষয়টি করা হতে পারে।

দুদক আইনজীবী বলেন, `ফেব্রুয়ারির কার্যতালিকাটা বের করে দেখলাম ১৫ নাম্বার কোর্টের ১৩৫ নাম্বার সিরিয়ালে আছে। যেখানে নামটা সম্পূর্ণ দেওয়া নেই। যদি জামিন সত্যিই পেয়ে থাকে তাহলে রাষ্ট্রকে দ্রুত আপিল করতে হবে।`

বাসাবো ও এজিবি কলোনির স্থানীয়রা জানান, গ্রাম থেকে ঢাকায় আসার পর এজিবি কলোনি, হাসপাতাল জোন এবং মধ্য বাসাবোতেই পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন শামীম। ৪ নম্বর ওয়ার্ড যুবদলের মাধ্যমেই তার রজনীতি শুরু। পরবর্তী সময়ে মির্জা আব্বাসের ভাই মির্জা কালু ও মির্জা খোকনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা হয় এবং তাদের সহযোগিতায় ধীরে ধীরে গণপূর্ত ভবনের ঠিকাদারি ব্যবসার নিয়ন্ত্রণ নেন তিনি। ঢাকা মহানগর যুবদলের সহসম্পাদকের পদও বাগিয়ে নেন। বিএনপি আমলে গণপূর্ত ভবন ছিল তার দখলে। শামীম ছাড়া ওই মন্ত্রণালয়ের কোনো কাজ অন্য কারো পাওয়া ছিল দুঃসাধ্য ব্যাপার।

ক্ষমতার পালাবদলে শামীমও বদলে গিয়ে এখন কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা। গণপূর্ত মন্ত্রণালয় কিংবা যুবলীগের পার্টি অফিস, বিয়ে বাড়ি কিংবা বন্ধুর বাড়ি, যেখানেই তিনি যান, সঙ্গে থাকে অস্ত্রধারী প্রটোকল বাহিনী। ভারী অস্ত্র নিয়ে ছয়জন নিরাপত্তারক্ষী আগে-পিছে পাহারা দিয়ে তাকে নিয়ে যায়। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর অবৈধ অস্ত্রসহ গ্রেপ্তারও হয়েছিলেন জি কে শামীম।

 
চাচা হত্যার দায়ে ভাতিজার ফাঁসি, ৩ জনের যাবজ্জীবন
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কুষ্টিয়ার কুমারখালীর হোগলা মহেন্দ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুন্সী রবিউল ইসলাম হত্যা মামলায় এক আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ মামলার অপর তিন আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের পাশাপাশি ২০ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০৫ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী জনাকীর্ণ আদালতে আসামিদের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন- কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার দয়রাপুর এলাকার মৃত মুন্সী রেজাউল করিমের ছেলে এবং নিহত শিক্ষক মুন্সী রবিউল ইসলামের ভাতিজা মুন্সী মো. সোহাগ (৩৫)। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- কুমারখালী উপজেলার দয়রামপুর এলকার রাজু আহম্মেদ (৩৫), কোমরকান্দি এলাকার রুবেল (৩৫) এবং দূর্গাপুর এলাকার আজাদ (৪০)। আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ২৪ জানুয়ারি রাত ১টার দিকে হোগলা মহেন্দ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুন্সী রবিউল ইসলাম তার চাচাতো ভাইয়ের ইট-ভাটার কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন।

ইটভাটার দায়িত্ব নেওয়া নিয়ে ভাতিজা সোহাগের সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল তার। এজন্য মোবাইল ফোনে বিভিন্ন সময়ে ওই শিক্ষককে হুমকি ও ভয়ভীতি দিতো। ২৪ জানুয়ারি বাড়ি ফিরে বারান্দার গ্রিলের তালা খুলে ওই মোটরসাইকেলটি বারান্দায় উঠানোর সময় একদল সন্ত্রাসীরা ডান কানের উপর দিকে মাথায় একটি ও ডান পাঁজরে একটি গুলি করে। গুলির শব্দে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে এলে সন্ত্রাসীরা দ্রুত পালিয়ে যায়। আহত অবস্থায় রবিউল ইসলামকে কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় পরদিন ২৫ জানুয়ারি নিহত রবিউল ইসলামের মা হাওয়া খাতুন অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কুমারখালী থানা পুলিশের উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) এসএম আরিফুর রহমান ২০১৬ সালে ৩০ এপ্রিল চারজনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলার রাষ্ট্রপক্ষের কৌশুলি (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী জানান, শিক্ষক রবিউল ইসলাম হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী তার আপন ভাজিতা মুন্সী মো. সোহাগের বিরুদ্ধে ৩০২ ধারায় হত্যার অভিযোগ সন্দেহাতীত ভাবে প্রমাণিত হওয়ায় সবোর্চ্চ শাস্তি ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত।

সেই সঙ্গে মামলার বাকী তিন আসামিকে ৩০২/৩৪ অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ বিজ্ঞ দিয়েছেন আদালত।

 
জুয়ার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টের নির্দেশনা স্থগিত
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
অর্থ ও ভাগ্যের বিনিময়ে জুয়া খেলার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টের দেয়া নির্দেশনা স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগ। তবে জুয়া খেলা অবৈধ ঘোষণার হাইকোর্টের রায় বহাল থাকবে। বৃহস্পতিবার (০৫ মার্চ) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের সাত সদস্যের বেঞ্চ এ স্থগিতাদেশ দেন। মূলত উত্তরা ক্লাব, ঢাকা ক্লাবের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ স্থগিত আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

ঢাক ক্লাবের আইনজীবী হিসেবে শুনানি করেন ব্যারিস্টার আমীর উল ইসলাম। জুয়ার মামলায় আউনজীবী হওয়ায় এ সময় সর্বোচ্চ আদালত তাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনি সংবিধান প্রণয়নের সঙ্গে জড়িত ছিলেন, এ মামলায় সংবিধানের বিপক্ষে দাঁড়িয়েছেন; যা দুঃখজনক।

আদালতের কার্যতালিকা থেকে বাদ সাগর-রুনি হত্যা মামলা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক:
আদালতের কার্যতালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি হত্যা মামলা। মামলার অগ্রগতি প্রতিবেদন শুনানি করেননি হাইকোর্ট। এর আগে বুধবার সকালে সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি হত্যা মামলার অগ্রগতি তদন্ত প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল করা হয়। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে এ অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করেন।

সোমবার অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়ে আদালতে হলফনামা আকারে দাখিলের জন্য র‌্যাবের পক্ষ থেকে অগ্রগতি প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়। উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি রাতে ঢাকার পশ্চিম রাজাবাজারে সাংবাদিক দম্পতি মাছরাঙা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক সাগর সরওয়ার এবং এটিএন বাংলার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক মেহেরুন রুনি তাদের ভাড়া বাসায় নির্মমভাবে খুন হন।

 
শিশু ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় দুই আসামির মৃত্যুদণ্ড
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

গত বছর ডেমরায় দুই শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত দুই আসামির মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার ঢাকার নারী ও শিশু ট্রাইবুনাল ৩ এর বিচারক জয়শ্রী সমদ্দার এই রায় ঘোষণা করেন। আসামিরা হলো গোলাম মোস্তাফা ও আজিজুল বাওয়ানি ওরফে আজিজুল বাওলী। কারাদণ্ডের পাশাপাশি প্রত্যেক আসামিকে ৫০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, সকালে আসামিদের কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। রায় ঘোষণা শেষে সাজা পরোয়ানা ইস্যু করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৯ সালের ৭ জানুয়ারি দুপুরে ডেমরা থানা কোনাপাড়ার বাসার রুমে ডেকে নেওয়া হয় দুই শিশুকে। এরপর সাউন্ডবক্সে গান বাজিয়ে আসামি আজিজুল এক শিশুকে ধর্ষণ করে গামছা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে।

এবং আসামি গোলাম মোস্তফা আরেক শিশুকে গলা টিপে হত্যা করে। এই ঘটনায় ডেমরা থানায় এক শিশুর বাবা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর ডেমরা থানার উপপরিদর্শক শাহ আলম দুই আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন। একই বছর ২৩ মার্চ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হয়। বিভিন্ন সময় ১৫ জন ব্যক্তির জবানবন্দি গ্রহণ করেছেন আদালত।

 
নুসরাত হত্যা- ডেথ রেফারেন্স শুনানির জন্য হাইকোর্ট বেঞ্চ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
ফেনীর মাদরাসা শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদন) ও আসামিদের আপিল অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শুনানির জন্য বেঞ্চ নির্ধারণ করেছেন প্রধান বিচারপতি। বিচারপতি সৌমেন্দ্র সরকারের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে এ মামলার শুনানির জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে বলে সোমবার (০২ মার্চ) জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের স্পেশাল অফিসার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান।

এর আগে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পেপারবুক (মামলার যাবতীয় নথি) ছাপানো শেষ করা হয়েছিলো। পরে প্রয়োজনীয় কাজ শেষে শুনানির জন্য মামলাটি প্রধান বিচারপতি বরাবর উপস্থাপন করা হয়। এরপর প্রধান বিচারপতি শুনানির জন্য হাইকোর্ট বেঞ্চ নির্ধারণ করেন।

গত বছরের ২৯ অক্টোবর আসামিদের মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য (ডেথ রেফারেন্স) মামলার যাবতীয় কার্যক্রম হাইকোর্টে পৌঁছে। ফৌজদারি কার্যবিধি অনুসারে বিচারিক আদালতে মৃত্যুদণ্ডাদেশ হলে মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য মামলার যাবতীয় কার্যক্রম উচ্চ আদালতে পাঠাতে হয়। সে অনুসারে ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে আসে। এছাড়া আসামিরা জেল আপিল ও কয়েকজন আপিল করেছেন।

গত বছরের ২৪ অক্টোবর ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ এ মামলার রায় ঘোষণা করেন। রায়ে প্রত্যেক আসামিকে (১৬ আসামি) মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন। পাশাপাশি প্রত্যেক আসামিকে একলাখ টাকা করে জরিমানা দণ্ডেও দণ্ডিত করেন।

গত বছরের ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ দৌলার বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে মামলা করেছিলেন নুসরাতের মা শিরিন আখতার। ওইদিনই অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর তার অনুগত কিছু ক্যাডার জনমত গঠন করে সিরাজকে জেল থেকে বের করে আনার জন্য।

৩ এপ্রিল খুনিরা সিরাজের সঙ্গে কারাগারে পরামর্শ করে এসে ৪ এপ্রিল মাদরাসার ছাত্রাবাসে নুসরাতকে খুন করার পরিকল্পনা নেয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ৬ এপ্রিল নুসরাত মাদরাসায় আলিম পরীক্ষা দিতে গেলে খুনিরা পরিকল্পিতভাবে সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নিয়ে নুসরাতকে হত্যার চেষ্টা চালায়।

ঘটনাস্থল থেকে নুসরাতকে উদ্ধার করে প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। এরপর তাকে স্থানান্তর করা হয় ফেনী ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে। অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হওয়ায় সেখান থেকে নুসরাতকে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে। এ ঘটনায় নুসরাতের ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান ৮ এপ্রিল মামলা দায়ের করেন। এদিকে ১০ এপ্রিল মারা যান নুসরাত।



এই মামলায় ২৮ মে অভিযোগপত্র দাখিলের পর ২০ জুন অভিযোগ গঠন করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। পরে সাক্ষ্যগ্রহণ ও যুক্তিতর্ক শেষে ৩০ সেপ্টেম্বর আদালত রায়ের জন্য ২৪ অক্টোবর নির্ধারণ করেন। মামলাটিতে মাত্র ৬১ কার্যদিবসে ৮৭ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ ও যুক্ততর্ক গ্রহণ করা হয়।

২৪ অক্টোবর রায়ে ১৬ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেন আদালত। আসামিরা হলেন- সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ এসএম সিরাজ উদ-দৌলা (৫৭), নুর উদ্দিন (২০), শাহাদাত হোসেন শামীম (২০), কাউন্সিলর ও সোনাগাজী পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাকসুদ আলম ওরফে মোকসুদ কাউন্সিলর (৫০), সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের (২১), জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন (১৯), হাফেজ আব্দুল কাদের (২৫), আবছার উদ্দিন (৩৩), কামরুন নাহার মনি (১৯), উম্মে সুলতানা ওরফে পপি (১৯), আব্দুর রহিম শরীফ (২০), ইফতেখার উদ্দিন রানা (২২), ইমরান হোসেন ওরফে মামুন (২২), সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মাদরাসার সাবেক সহ-সভাপতি রুহুল আমিন (৫৫), মহিউদ্দিন শাকিল (২০) ও মোহাম্মদ শামীম (২০)।

 
পুঠিয়ার সাবেক ওসির বিষয়ে হাইকোর্টের রায় বহাল
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

রাজশাহীর পুঠিয়ার শ্রমিক নেতা নুরুল ইসলাম হত্যা মামলায় এজাহার বদলে দেওয়ার ঘটনায় তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাকিল উদ্দিন আহমেদের বিষয়ে তদন্ত করতে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে সাকিল উদ্দিন আহমেদের আবেদন খারিজ করে রবিবার এ আদেশ দেন আপিল বিভাগ। আদালতে সাকিল উদ্দিনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন ও আব্দুল মতিন খসরু। অপরপক্ষে ছিলেন আইনজীবী ফিদা এম কামাল। সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। পরে জ্যোতির্ময় বড়ুয়া সাংবাদিকদের বলেন, হাইকোর্টের আদেশ মতো তদন্ত চলমান থাকা অবস্থায় তিনি আপিল বিভাগে আবেদন করেন।

সেটি খারিজ করা হয়েছে। এখন এফআইআর বদলে দেওয়ার ঘটনায় হাইকোর্ট দুদককে যে তদন্ত করতে বলেছিলেন তা চলবে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে আসা বিভিন্ন অভিযোগ তদন্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কার্যক্রমও চলবে। পুঠিয়া উপজেলার শ্রমিক নেতা নুরুল ইসলাম হত্যা মামলার এজাহার বদলে দেওয়ার অভিযোগে করা রিটের ওপর ১ ডিসেম্বর রায় দেন হাইকোর্ট। হাইকোর্টের রায়ে বলা হয়, ওই ঘটনায় তৎকালীন ওসি সাকিল উদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গুরুতর।

 
দিল্লির সহিংসতায় নিহতের সংখ্যা ২৭
                                  

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক:
ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে সহিংসতায় তিন দিনে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৭। আড়াইশ এর বেশি মানুষ আহত হয়েছে। জাফরাবাদ-মৌজপুর এলাকা থেকে শুরু হয় এ সহিংসতা। জোহরাপুরী-ভজনপুরায় নতুন করে দাঙ্গা হয়েছে। উত্তরপ্রদেশ লাগোয়া জোহরাপুরীতে পুলিশের সঙ্গেও দুষ্কৃতীদের সংঘর্ষ হয়েছে। রাতেও ভজনপুরা থেকে আটকে পড়া মানুষের ফোন এসেছে পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবীদের কাছে। গভীর রাতে ব্রহ্মপুরী ও মুস্তাফাবাদ থেকে খবর আসে, ফের সহিংসতা শুরু হয়েছে।

গত শনিবার থেকে জাফরাবাদেই নাগরিকত্ব সংশোধন আইনের বিরোধীরা রাস্তা অবরোধ করেছিলেন। রবিবার থেকে পাল্টা ওই আইনের পক্ষে জমায়েত শুরু হয়। দিল্লি পুলিশের স্পেশাল কমিশনার সতীশ গোলচা ঘোষণা করলেন, জাফরাবাদ, মৌজপুর সব এখন ফাঁকা। গোটা রাস্তাটাই এখন ফাঁকা করে দেওয়া হয়েছে।

সহিংসতায় অনেকেরই মাথায় গুরুতর চোট। আহতদের অন্তত ৪৬ জনের শরীরে বুলেটের ক্ষত মিলেছে। আর একটি উদ্বেগজনক বিষয়, মুস্তাফাবাদ থেকে আজ বেশ কিছু আহত এসেছেন হাসপাতালে। তাদের অনেকের চোখে অ্যাসিড ঢালা হয়েছে। দৃষ্টি হারিয়েছেন চার জন। খুরশিদ নামে এক জনের দু’চোখই নষ্ট হয়ে গিয়েছে। তেজ বাহাদুর হাসপাতাল থেকে লোকনায়ক জয়প্রকাশ হাসপাতালে আসার জন্য অ্যাম্বুল্যান্সও পাননি তিনি। গিয়েছেন রিকশায়। দুই চোখ-সহ পুরো মুখ ঝলসে গিয়েছে ওয়কিলের।

 
চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার জামিন শুনানি আজ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের ওপরে হাইকোর্টে আজ বৃহস্পতিবার শুনানির দিন ধার্য রয়েছে। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১৮ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় জামিনের আবেদন করেন খালেদা জিয়া। গত রবিবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চে আবেদনের ওপরে শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

ওইদিন (রবিবার) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্যকে বুধবার বিকাল ৫টার মধ্যে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার সর্বশেষ রিপোর্ট দাখিলের নির্দেশ দেন আদালত। অসমাপ্ত থাকা অবস্থায় জামিনের শুনানি বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মুলতবি করা হয়। এদিকে, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা সংক্রান্ত বিএসএমএমইউ উপাচার্যের রিপোর্ট বুধবার সুপ্রিম কোর্টে পৌঁছেছে। গত বছরের ১২ ডিসেম্বর এই মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদন নাকচ করেন আপিল বিভাগ। শারীরিক অসুস্থতার কারণে চিকিৎসার জন্য ওই আবেদন করা হয়েছিল।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে সাত বছরের কারাদণ্ডসহ ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫। ওই বছরের (২০১৮ সাল) ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ডসহ জরিমানা করেন বিচারিক আদালত। ওই দিন থেকে তিনি কারাগারে। তবে পরে অসুস্থতার কারণে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে খালেদা জিয়া চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

 
গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটিতে দুই বারের বেশি কেউ থাকতে পারবে না
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বা সদস্য পদে কোন ব্যক্তি পর পর দুইবারের বেশি থাকতে পারবে না বলে অভিমত দিয়েছে হাইকোর্ট। এ বিষয়ে একটি নীতিমালা তৈরির বিষয়টি বিবেচনা করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা বোর্ডকে বলেছে আদালত। একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির বৈধতা সংক্রান্ত রিট খারিজ করে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার এই অভিমত দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মো. হুমায়ুন কবির এবং রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার। অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির বলেন, স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গভর্নিং বডি ও ম্যানেজিং কমিটি বিধিমালা ২০০৯ এর কোথাও সভাপতি বা সদস্য কতবার হতে পারবেন সে বিষয়ে কোন সুস্পষ্ট বিধান নেই। এ বিষয়টি নজরে আসার পর হাইকোর্ট কোন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বা সদস্য হিসেবে কোন ব্যক্তি পরপর দুইবারের বেশি হতে পারবে না বলে অভিমত দিয়েছেন। মামলার বিবরণে জানা যায়, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ফুলগাছা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করেন অভিভাবক সদস্য নুরুল হক।

রিটে তিনি একই ব্যক্তি বা ব্যক্তিগণ ২০১৪ সাল হতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় একাধিকবার সভাপতি বা সদস্য নির্বাচিত হওয়ার বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করেন। শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট রিট আবেদনটি খারিজ করে উপরোক্ত পর্যবেক্ষণ দেয়।

 
পিকে হালদারের দেড় হাজার কোটি টাকার হদিস নেই
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গবর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ আপিল বিভাগকে জানিয়েছেন, পিকে হালদারসহ কয়েকজন ব্যক্তি ইন্টারন্যাশনাল লিজিং থেকে প্রায় এক হাজার ৫৯৬ কোটি টাকা তুলে নিয়েছেন। এই টাকা কোথায় গেছে তার হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। পূর্ব নির্দেশনা অনুসারে বাংলাদেশের নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দুরবস্থা নিয়ে অভিমত দিতে এসে আজ মঙ্গলবার তিনি প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চকে এসব তথ্য জানান।

আদালতে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের পরিচালকদের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট আহসানুল করিম। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। ১৬ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দুরবস্থা নিয়ে অভিমত দিতে ইব্রাহিম খালেদ এবং একই বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের অবস্থান তুলে ধরতে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালকের নিচে নন এমন একজন কর্মকর্তাকে হাজির হতে নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ। সেই অনুযায়ী আজ ইব্রাহিম খালেদ ও বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শাহ আলম আদালতে তাদের মতামত দেন।

ইব্রাহিম খালেদ আদালতে বলেন, ‘আমানতকারীরা টাকা পাবেন, তবে তাদের টাকা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। পিপলস লিজিংকে অবসায়ন করা হয়েছে। এখন যদি ইন্টারন্যাশনাল লিজিংকেও অবসায়ন করা হয় তাহলে এ সেক্টরে বিরূপ প্রভাব পড়বে। আমি মাত্র দায়িত্ব নিয়েছি। বর্তমান অবস্থা থেকে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংকে বাঁচিয়ে রাখা যাবে কিনা তা এখন বলা সম্ভব হচ্ছে না।’ এরপর শাহ আলম আদালতকে বলেন, ‘ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের অনিয়মের বিষয় যখন জানতে পেরেছি তখনই দুদক ও গোয়েন্দা সংস্থাকে ব্যবস্থা নিতে বলেছি। আর বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা ইউনিট এ বিষয়ে একটা প্রতিবেদন দিয়েছে। পুরো প্রতিবেদন এখনও দেয়নি।

হাইকোর্টের নির্দেশে ইব্রাহিম খালেদকে চেয়ারম্যান নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তাকে সুযোগ দেওয়া হলে তিনি ইন্টারন্যাশনাল লিজিংকে পুনর্গঠন করতে পারবেন।’এরপর ইন্টারন্যাশনাল লিজিং কোম্পানিকে অবসায়ন করা হবে কিনা সে বিষয়ে আদেশের জন্য আগামীকাল বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দিন ধার্য করেন আপিল বিভাগ। এর আগে গত ২১ জানুয়ারি এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার হালদারসহ (পিকে হালদার) ২০ জনের ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আর্থিক খাতের কোম্পানি ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটেড পরিচালনার জন্য স্বাধীন পরিচালক ও চেয়ারম্যান হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদকে নিয়োগ দেন আদালত।

 

   Page 1 of 40
     আদালত
আবরার হত্যা হত্যা মামলার শুনা‌নি ৬ এপ্রিল
.............................................................................................
সাংবাদিক আরিফুলের সাজার মামলার নথি তলব করেছে আদালত
.............................................................................................
করোনা আতঙ্ক: সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে রিট
.............................................................................................
জাতীয় স্লোগান ‘জয় বাংলা’ হাইকোর্টের রায়
.............................................................................................
সায়মার ঘটনা আমাদের জন্য লজ্জার: আদালত
.............................................................................................
জি কে শামিমের জামিন বাতিল চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন
.............................................................................................
চাচা হত্যার দায়ে ভাতিজার ফাঁসি, ৩ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
জুয়ার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টের নির্দেশনা স্থগিত
.............................................................................................
আদালতের কার্যতালিকা থেকে বাদ সাগর-রুনি হত্যা মামলা
.............................................................................................
শিশু ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় দুই আসামির মৃত্যুদণ্ড
.............................................................................................
নুসরাত হত্যা- ডেথ রেফারেন্স শুনানির জন্য হাইকোর্ট বেঞ্চ
.............................................................................................
পুঠিয়ার সাবেক ওসির বিষয়ে হাইকোর্টের রায় বহাল
.............................................................................................
দিল্লির সহিংসতায় নিহতের সংখ্যা ২৭
.............................................................................................
চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার জামিন শুনানি আজ
.............................................................................................
গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটিতে দুই বারের বেশি কেউ থাকতে পারবে না
.............................................................................................
পিকে হালদারের দেড় হাজার কোটি টাকার হদিস নেই
.............................................................................................
সব মসজিদে পুরুষের সাথে নারীদের নামাজের ব্যবস্থা চেয়ে রিট
.............................................................................................
১০০০ কোটি টাকা দেওয়ার নির্দেশ গ্রামীণফোনকে
.............................................................................................
চ্যারিটেবল মামলার জামিন শুনানি রবিবার
.............................................................................................
সব কারখানায় ৬০ দিনের মধ্যে ব্রেস্টফিডিং কর্নার স্থাপনের নির্দেশ
.............................................................................................
কয়লা খনি দুর্নীতি বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ২৯ মার্চ
.............................................................................................
অ্যাটর্নি জেনারেলের পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট
.............................................................................................
ইব্রাহিম খালেদসহ ২ জনকে আপিল বিভাগে তলব
.............................................................................................
শাজাহান খানের বিরুদ্ধে ইলিয়াস কাঞ্চনের মামলা আমলে নিয়েছে আদালত
.............................................................................................
আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ছাড়লেন ব্যারিস্টার সুমন
.............................................................................................
ঢাকা ক্লাবসহ সারা দেশের ১৩ ক্লাবে জুয়া নিষিদ্ধ
.............................................................................................
ডিআইজি মিজানের স্ত্রী ও ভাইয়ের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
.............................................................................................
আওয়ামী লীগ নেতা হত্যা মামলায় ৩ জনের ফাঁসি, ৫ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
নাইকো দুর্নীতি মামলার পরবর্তি শুনানি ৩১ মার্চ
.............................................................................................
বিএনপি নেতা হত্যা মামলায় আদালতে চার্জশিট
.............................................................................................
৩ বছরের কারাদণ্ড ডেসটিনির এমডি রফিকুল আমীনের
.............................................................................................
মুচলেকায় জামিন পেয়েছেন ড. ইউনূস
.............................................................................................
নবম ওয়েজ বোর্ড : হাইকোর্টে রুল নিষ্পত্তির নির্দেশ আপিল বিভাগের
.............................................................................................
নির্বাচনী এলাকায় পলিথিনে মোড়ানো পোস্টারে নিষেধাজ্ঞা হাইকোর্টের
.............................................................................................
আবরার ফাহাদ হত্যায় অভিযোগ গঠন ৩০ জানুয়ারি
.............................................................................................
শিশু ধর্ষণ মামলায় সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড কেন দেয়া হবে না : হাইকোর্ট
.............................................................................................
মতিউর রহমানসহ ছয়জনকে গ্রেফতার ও হয়রানি না করার নির্দেশ
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন : সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত
.............................................................................................
খালেদার দণ্ড স্থগিতে সরকার বিশেষ বিবেচনায় নিতে পারে : অ্যাটর্নি জেনারেল
.............................................................................................
রিফাত হত্যা : মিন্নির জামিন বাতিলের বিষয়ে আদেশ আজ
.............................................................................................
আবরার হত্যা : বিচারের জন্য প্রস্তুত হওয়ায় বদলির আদেশ আদালতের
.............................................................................................
রিফাত হত্যা : ১৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন
.............................................................................................
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাইকোলজিস্ট নিয়োগ দিতে হাইকোর্টের রুল
.............................................................................................
রিজার্ভ চুরি: প্রতিবেদন ২৩ জানুয়ারি
.............................................................................................
২০ জানুয়ারি শমী কায়সারের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল
.............................................................................................
১৪ জানুয়ারি ১০ জঙ্গির অভিযোগ গঠন : কল্যাণপুরে আস্তানায় অভিযান
.............................................................................................
রাজাকারের তালিকায় নাম : তিন মন্ত্রণালয়ে গোলাম আরিফ টিপুর চিঠি
.............................................................................................
গ্রাম পুলিশকে ১৯ ও ২০ গ্রেডে উন্নীত করার নির্দেশ
.............................................................................................
সম্রাট-আরমানের মাদক মামলা আমলে নিয়েছেন আদালত
.............................................................................................
জামিন চাইলেন ডেসটিনির চেয়ারম্যান-এমডি, আদেশ মঙ্গলবার
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD