| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * সৌরভ গাঙ্গুলির বায়োপিকে হৃত্বিক!   * আপিলেও আদেশ বহাল ২০ জনের ব্যাংক হিসাব জব্দের   * ১৭২ শিক্ষার্থীকে স্বর্ণপদক দিলেন প্রধানমন্ত্রী   * চিকিৎসার জন্য লন্ডনে যেতে রাজি খালেদা জিয়া   * গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটিতে দুই বারের বেশি কেউ থাকতে পারবে না   * বাংলাদেশ কে হারাতে হবে শুল্কমুক্ত সুবিধা   * উত্তাল দিল্লি নিহত ১৮   * এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে ২৭০০ জনের মৃত্যু   * করোনা আতঙ্কে ইতালিতে শুকনো খাবার মজুদ   * পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে যানবাহনের দীর্ঘ লাইন  

   আদালত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটিতে দুই বারের বেশি কেউ থাকতে পারবে না

স্টাফ রিপোর্টার:
স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বা সদস্য পদে কোন ব্যক্তি পর পর দুইবারের বেশি থাকতে পারবে না বলে অভিমত দিয়েছে হাইকোর্ট। এ বিষয়ে একটি নীতিমালা তৈরির বিষয়টি বিবেচনা করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা বোর্ডকে বলেছে আদালত। একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির বৈধতা সংক্রান্ত রিট খারিজ করে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার এই অভিমত দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মো. হুমায়ুন কবির এবং রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার। অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির বলেন, স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গভর্নিং বডি ও ম্যানেজিং কমিটি বিধিমালা ২০০৯ এর কোথাও সভাপতি বা সদস্য কতবার হতে পারবেন সে বিষয়ে কোন সুস্পষ্ট বিধান নেই। এ বিষয়টি নজরে আসার পর হাইকোর্ট কোন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বা সদস্য হিসেবে কোন ব্যক্তি পরপর দুইবারের বেশি হতে পারবে না বলে অভিমত দিয়েছেন। মামলার বিবরণে জানা যায়, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ফুলগাছা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করেন অভিভাবক সদস্য নুরুল হক।

রিটে তিনি একই ব্যক্তি বা ব্যক্তিগণ ২০১৪ সাল হতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় একাধিকবার সভাপতি বা সদস্য নির্বাচিত হওয়ার বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করেন। শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট রিট আবেদনটি খারিজ করে উপরোক্ত পর্যবেক্ষণ দেয়।

 
গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটিতে দুই বারের বেশি কেউ থাকতে পারবে না
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বা সদস্য পদে কোন ব্যক্তি পর পর দুইবারের বেশি থাকতে পারবে না বলে অভিমত দিয়েছে হাইকোর্ট। এ বিষয়ে একটি নীতিমালা তৈরির বিষয়টি বিবেচনা করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা বোর্ডকে বলেছে আদালত। একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির বৈধতা সংক্রান্ত রিট খারিজ করে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার এই অভিমত দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মো. হুমায়ুন কবির এবং রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার। অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির বলেন, স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গভর্নিং বডি ও ম্যানেজিং কমিটি বিধিমালা ২০০৯ এর কোথাও সভাপতি বা সদস্য কতবার হতে পারবেন সে বিষয়ে কোন সুস্পষ্ট বিধান নেই। এ বিষয়টি নজরে আসার পর হাইকোর্ট কোন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বা সদস্য হিসেবে কোন ব্যক্তি পরপর দুইবারের বেশি হতে পারবে না বলে অভিমত দিয়েছেন। মামলার বিবরণে জানা যায়, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ফুলগাছা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করেন অভিভাবক সদস্য নুরুল হক।

রিটে তিনি একই ব্যক্তি বা ব্যক্তিগণ ২০১৪ সাল হতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় একাধিকবার সভাপতি বা সদস্য নির্বাচিত হওয়ার বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করেন। শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট রিট আবেদনটি খারিজ করে উপরোক্ত পর্যবেক্ষণ দেয়।

 
পিকে হালদারের দেড় হাজার কোটি টাকার হদিস নেই
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গবর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ আপিল বিভাগকে জানিয়েছেন, পিকে হালদারসহ কয়েকজন ব্যক্তি ইন্টারন্যাশনাল লিজিং থেকে প্রায় এক হাজার ৫৯৬ কোটি টাকা তুলে নিয়েছেন। এই টাকা কোথায় গেছে তার হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। পূর্ব নির্দেশনা অনুসারে বাংলাদেশের নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দুরবস্থা নিয়ে অভিমত দিতে এসে আজ মঙ্গলবার তিনি প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চকে এসব তথ্য জানান।

আদালতে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের পরিচালকদের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট আহসানুল করিম। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। ১৬ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দুরবস্থা নিয়ে অভিমত দিতে ইব্রাহিম খালেদ এবং একই বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের অবস্থান তুলে ধরতে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালকের নিচে নন এমন একজন কর্মকর্তাকে হাজির হতে নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ। সেই অনুযায়ী আজ ইব্রাহিম খালেদ ও বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শাহ আলম আদালতে তাদের মতামত দেন।

ইব্রাহিম খালেদ আদালতে বলেন, ‘আমানতকারীরা টাকা পাবেন, তবে তাদের টাকা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। পিপলস লিজিংকে অবসায়ন করা হয়েছে। এখন যদি ইন্টারন্যাশনাল লিজিংকেও অবসায়ন করা হয় তাহলে এ সেক্টরে বিরূপ প্রভাব পড়বে। আমি মাত্র দায়িত্ব নিয়েছি। বর্তমান অবস্থা থেকে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংকে বাঁচিয়ে রাখা যাবে কিনা তা এখন বলা সম্ভব হচ্ছে না।’ এরপর শাহ আলম আদালতকে বলেন, ‘ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের অনিয়মের বিষয় যখন জানতে পেরেছি তখনই দুদক ও গোয়েন্দা সংস্থাকে ব্যবস্থা নিতে বলেছি। আর বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা ইউনিট এ বিষয়ে একটা প্রতিবেদন দিয়েছে। পুরো প্রতিবেদন এখনও দেয়নি।

হাইকোর্টের নির্দেশে ইব্রাহিম খালেদকে চেয়ারম্যান নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তাকে সুযোগ দেওয়া হলে তিনি ইন্টারন্যাশনাল লিজিংকে পুনর্গঠন করতে পারবেন।’এরপর ইন্টারন্যাশনাল লিজিং কোম্পানিকে অবসায়ন করা হবে কিনা সে বিষয়ে আদেশের জন্য আগামীকাল বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দিন ধার্য করেন আপিল বিভাগ। এর আগে গত ২১ জানুয়ারি এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার হালদারসহ (পিকে হালদার) ২০ জনের ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আর্থিক খাতের কোম্পানি ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটেড পরিচালনার জন্য স্বাধীন পরিচালক ও চেয়ারম্যান হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদকে নিয়োগ দেন আদালত।

 
সব মসজিদে পুরুষের সাথে নারীদের নামাজের ব্যবস্থা চেয়ে রিট
                                  

স্টাপ রিপোর্টার:
দেশের সব মসজিদে নারীদের নামাজের সুব্যবস্থা চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। রিটে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ডিজিকে বিবাদী করা হয়েছে। সোমবার জনস্বার্থে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. মাহমুদুল হাসান (মামুন) সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট দায়ের করেন।

রিটে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের সংবিধানের ৪১ ধারা অনুযায়ী নারী-পুরুষ সকলের ধর্ম পালন ও প্রচারের অধিকার রয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশের মুসলিম নারীরা ধর্ম পালনে বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। মুসলমানদের ধর্ম চর্চার কেন্দ্রবিন্দু হলো মসজিদ। পুরুষের পাশাপাশি নারীদেরও মসজিদে নামাজ আদায়ের পূর্ণ অধিকার রয়েছে। তাই এই রিট আবেদন।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে আইনজীবী মো. মাহমুদুল হাসান বলেন, আগামী সপ্তাহে হাইকোর্টের বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়েরুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে রিট আবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে। রিটে হাদিস গ্রন্থ সহীহ মুসলিম শরীফের রেফারেন্স দিয়ে বলা হয়েছে, সালেম থেকে তার পিতার সূত্রে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘তোমাদের কারো স্ত্রী তার স্বামীর কাছে মসজিদে যাওয়ার অনুমতি চাইলে সে যেন তাকে নিষেধ না করে’।

 
১০০০ কোটি টাকা দেওয়ার নির্দেশ গ্রামীণফোনকে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
বিটিআরসির নিরীক্ষা দাবির সাড়ে ১২ হাজার কোটি টাকার মধ্যে ১০০০ কোটি টাকা সোমবারের মধ্যে পরিশোধ করতে নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ।
গ্রামীণফোনের করা রিভিউ আবেদনের শুনানি করে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন সাত বিচারকের আপিল বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেয়।

আদালত বলেছে, এ বিষয়ে সোমবার পরবর্তী আদেশ দেওয়া হবে। সর্বোচ্চ আদালতে বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মাহবুবে আলম ও খন্দকার রেজা-ই-রাকিব। গ্রামীণফোনের পক্ষে শুনানি করেন এ এম আমিন উদ্দিন ও মোহাম্মদ মেহেদী হাসান চৌধুরী।
আপিল বিভাগ গত ২৪ নবেম্বর গ্রামীণ ফোনকে দুই হাজার কোটি টাকা পরিশেধ করতে নির্দেশ দিয়েছিল। সেজন্য তাদের দেওয়া হয়েছিল তিন মাস সময়, যা ২৪ ফেব্রুয়ারি শেষ হচ্ছে। ওই সময় শেষ হওয়ার আগে বিটিআরসিকে ১০০ কোটি টাকা দিয়ে আলোচনা চালু রাখার প্রস্তাব দিয়েছিল গ্রামীণফোন। কিন্তু নিয়ন্ত্রক সংস্থা তাতে রাজি হয়নি বলে বুধবার জানান গ্রামীণফোনের হেড অব রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স হোসেন সাদাত।

সে বিষয়টি তুলে ধরে বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগে রিভিউ শুনানিতে ছয় মাসের কিস্তিতে ওই দুই হাজার কোটি টাকা পরিশোধের অনুমতি চাওয়া হয়। কিন্তু শুনানি শেষে আদালত সোমবারের মধ্যে এক হাজার টাকা পরিশোধের নির্দেশ দিয়ে বিষয়টি সেদিনই পরবর্তী আদেশের জন্য রাখে। বিটিআরসি বলে আসছে, গ্রামীণফোনের কাছে নিরীক্ষা আপত্তির ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকার পাশাপাশি রবির কাছে ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকা পাওনা রয়েছে তাদের। কয়েক দফা চেষ্টায় সেই টাকা আদায় করতে না পেরে বিটিআরসি লাইসেন্স বাতিলের হুমকি দিয়ে দুই অপারেটরকে নোটিস পাঠায়। বিটিআরসি সালিশের মাধ্যমে বিষয়টি নিষ্পত্তিতে রাজি না হওয়ায় দুই অপারেটর আদালতের দ্বারস্থ হয়। পরে অর্থমন্ত্রীর উদ্যোগে গ্রামীণফোন ও বিটিআরসির কর্মকর্তাদের মধ্যে দুই দফা বৈঠক হলেও তাতে সফলতা আসেনি।

গ্রামীণফোনের আবেদনে গত ১৭ অক্টোবর বিটিআরসির নিরীক্ষা আপত্তি দাবির নোটিসের ওপর দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা দেয় হাইকোর্ট। বিটিআরসি লিভ টু আপিল করলে আপিল বিভাগ ২৪ নবেম্বর গ্রামীণ ফোনকে দুই হাজার কোটি টাকা দিতে নির্দেশ দেয়। ওই আদেশ পুনর্বিবেচনার জন্য ২৬ জানুয়ারি সুপ্রিমকোর্টে আবেদন (রিভিউ) করে গ্রামীণফোন, যার ওপর শুনানি শেষে আদালত বৃহস্পতিবার এক হাজার কোটি টাকা পরিশোধের জন্য সোমবার পর্যন্ত সময় দিল।

 
চ্যারিটেবল মামলার জামিন শুনানি রবিবার
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

জিয়া চ্যারিটেবল মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার করা জামিন আবেদনের উপর আগামী রবিবার শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। তার আইনজীবীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের ডিভিশন বেঞ্চ আজ বুধবার শুনানির জন্য এই দিন ধার্য করেন। দিন ধার্যের বিষয়টি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার গুরুতর অসুস্থতার বিষয়টি উল্লেখ করে জামিন চেয়েছি। আশা করছি আদালত মানবিক দিক বিবেচনা করবেন।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় খালেদার জামিন আবেদনটি দাখিল করেন আইনজীবী সগির হোসেন লিয়ন। আজ সকালে খালেদা জিয়ার অন্যতম আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন হাইকোর্টে এই আবেদনের শুনানির দিন ধার্যের জন্য আবেদন করেন। এ সময় বেঞ্চের জেষ্ঠ্য বিচারপতি ওবায়দুল হাসান বলেন, এই মামলা নিয়ে এর আগেও একবার আমাদের বেঞ্চে এসেছিলেন। পরবর্তী সময়ে আপনারা আপিল বিভাগে যান।

তখন খন্দকার মাহবুব বলেন, ‘আমরা নতুন গ্রাউন্ডে জামিন চেয়ে আপনাদের বেঞ্চে এসেছি। এতে আইনগত কোনো বাধা নেই।’ পরে আদালত জানান, রবিবার শুনানির জন্য জামিন আবেদনটি কার্যতালিকায় আসবে। হাইকোর্টে দাখিলকৃত এই জামিন আবেদনে বলা হয়েছে, গত দুই বছর ধরে কারাগারে আছেন খালেদা জিয়া। তিনি তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও একজন বয়ষ্ক নারী। দিনের পর দিন তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছে। অন্যদের সাহায্য ছাড়া সে চলাফেরা করতে পারে না। এমনকি নিজে কোন খাবার ও অন্যের সহযোগিতা ছাড়া সে ওষুধও গ্রহণ করতে পারেন না। এ কারণে যুক্তরাজ্যের মত দেশে অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট নেওয়ার প্রয়োজন। এজন্য মানবিক কারণে তিনি হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করেছেন।

২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা করে ঢাকার বিশেষ আদালত-৫। ওই সাজার বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করে জামিন চান তিনি। বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন সরাসরি খারিজ করে দেন। ওই খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন খালেদা জিয়া। সর্বোচ্চ আদালত খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যগত প্রতিবেদন চান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষের কাছে। পরে খালেদা জিয়ার মেডিকেল রিপোর্ট প্রদানের বিষয়ে বোর্ড গঠন করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ওই প্রতিবেদন আসার পর প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ গত ১২ ডিসেম্বর খালেদা জিয়াকে জামিন না দিয়ে আবেদনটি নিষ্পত্তি করে দেয়।

আদালত বলেন, খালেদা জিয়ার সম্মতি পেলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট দিবে। এদিকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় ১০ বছরের সাজার বিরুদ্ধে আপিল করেছেন খালেদা জিয়া। ওই আপিল আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট দীর্ঘদিন ধরে পরে আছে। কিন্তু শুনানির কোনো উদ্যোগ নেননি আইনজীবীরা।

সব কারখানায় ৬০ দিনের মধ্যে ব্রেস্টফিডিং কর্নার স্থাপনের নির্দেশ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

দেশের সব কল-কারখানায় দুই মাসের মধ্যে ব্রেস্টফিডিং কর্নার স্থাপন করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ আদেশ পালন করে ৬০ দিনের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দিতে শ্রম সচিব ও শ্রম অধিদপ্তরের চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।

বাংলাদেশ শ্রম আইন, ২০০৬ এর শিশু কক্ষ সংক্রান্ত ৯৪ (৭) ধারায় বলা হয়েছে, ‘উক্তরূপ কোনো কক্ষ যথেষ্ট আসবাবপত্র দ্বারা সজ্জিত থাকিবে এবং বিশেষ করিয়া প্রত্যেক শিশুর জন্য বিছানাসহ একটি খাট বা দোলনা থাকিবে এবং প্রত্যেক মা যখন শিশুকে দুধ পান করাইবেন বা পরিচর্যা করিবেন, তখন তাহার ব্যবহারের জন্য অন্তত একটি চেয়ার বা এই প্রকারের কোনো আসন থাকিতে হইবে এবং তুলনামূলকভাবে বয়স্ক শিশুদের জন্য যথেষ্ট ও উপযুক্ত খেলনার সরবরাহ থাকিতে হইবে।’

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ইশরাত হাসান। তিনি জানান, ২০০৬ সালে এটা করার জন্য আইন করা হয়েছে। কিন্তু তা এখনো বাস্তবায়ন হয়নি। তাই আমাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গার্মেন্টসসহ দেশের সব কল-কারখানায় দুই মাসের মধ্যে ব্রেস্টফিডিং ও বেবিকেয়ার কর্নার স্থাপন করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ আদেশ পালন করে ৬০ দিনের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দিতে শ্রম সচিব ও শ্রম অধিদপ্তরের চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে ৯ মাস বয়সী এক শিশু ও তার মায়ের করা এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গত বছরের ২৭ অক্টোবর সরকারি অথবা স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, কর্মস্থল, হাসপাতাল, শপিং মল, বিমানবন্দর, বাস ও রেলওয়ে স্টেশনের মতো জনসমাগমস্থলে ব্রেস্টফিডিং কর্নার স্থাপনে পদক্ষেপ নিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে সরকারি অথবা স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, কর্মস্থল, হাসপাতাল, শপিং মল, বিমানবন্দর, বাস ও রেলওয়ে স্টেশনের মতো জনসমাগমস্থলে ব্রেস্টফিডিং কর্নার স্থাপনের পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থতা কেন অবৈধ হবে না এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, শপিংমলে ব্রেস্টফিডিং ও বেবিকেয়ার কর্নার স্থাপনে একটি প্রস্তাবনা তৈরি করতে মহিলা ও শিশু বিষয়ক সচিবকে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তাও জানতে চেয়েছেন আদালত।

আইনজীবী ইশরাত হাসান জানান, মায়েরা দুধ পান করা শিশুদের নিয়ে জনসমাগমস্থলে প্রায়ই বিড়ম্বনায় পড়েন। তাই এমন পরিবেশে ব্রেস্টফিডিং কর্নার স্থাপন করতে হবে, যেখানে কোনো মা সন্তানকে বুকের দুধ পান করাতে যেন কোনো অস্বস্তি বোধ না করেন। এ কারণে রিট করা হয়েছে।

 
কয়লা খনি দুর্নীতি বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ২৯ মার্চ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য ২৯ মার্চ দিন ধার্য করেছেন আদালত। সোমবার কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে নবনির্মিত ২ নম্বর ভবনে স্থাপিত অস্থায়ী ঢাকার ২ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক এ এইচ এম রুহুল ইমরান এ দিন ধার্য করেন।

এদিন মামলার অভিযোগ গঠন শুনানির দিন ধার্য ছিল। তবে মামলার আসামি খালেদা জিয়া রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন থাকায় তাকে আদালতে উপস্থিত করা হয়নি। এ জন্য রাষ্ট্রপক্ষ সময়ের আবেদন করেন। আদালত সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে এদিন ধার্য করেন। খালেদা জিয়ার আইনজীবী জিয়া উদ্দিন জিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির কয়লা উত্তোলন, ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণে ঠিকাদার নিয়োগে অনিয়ম এবং রাষ্ট্রের ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকার ক্ষতি ও আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানায় মামলাটি করা হয়। ওই বছরের ৫ অক্টোবর ১৬ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মামলায় খালেদা জিয়া ছাড়া অন্য আসামিরা হলেন-সাবেক অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান (মৃত), সাবেক স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী আবদুল মান্নান ভূঁইয়া (মৃত), সাবেক শিল্পমন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামী (মৃত), সাবেক সমাজকল্যাণমন্ত্রী আলী আহসান মো. মুজাহিদ (মৃত), ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন,এম কে আনোয়ার (মৃত), এম শামসুল ইসলাম (মৃত), আলতাফ হোসেন চৌধুরী, ব্যারিস্টার আমিনুল হক, এ কে এম মোশাররফ হোসেন, জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব নজরুল ইসলাম, পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান এস আর ওসমানী, সাবেক পরিচালক মঈনুল আহসান, বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সিরাজুল ইসলাম ও খনির কাজ পাওয়া কোম্পানির স্থানীয় এজেন্ট হোসাফ গ্রুপের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন।

 
অ্যাটর্নি জেনারেলের পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে। কোন কর্তৃত্ববলে মাহবুবে আলম অ্যাটর্নি জেনারেল পদে বহাল আছেন, রিটে তা জানতে চেয়ে রুল জারির আর্জি জানানো হয়েছে। সোমবার রিট আবেদনটি করেন অ্যাডভোকেট ইউনুছ আলী আকন্দ। বিষয়টি নিশ্চিত করে তিনি জানান, আগামী রবিবার হাইকোর্টের বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে রিট আবেদনটির ওপর শুনানি হবে। ইউনুছ আলী আকন্দ বলেন, সংবিধানের ৬৪(১) ও ৯৬(১) অনুচ্ছেদে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ও রাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল নিয়োগের ক্ষেত্রে সমান যোগ্যতা-দক্ষতার কথা বলা হয়েছে।

৬৪(১) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে,‘ সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হবার যোগ্য কোনো ব্যক্তিকে রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ প্রদান করিবেন।’ ‘৯৬(১) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা ৬৭ বছর বয়সে অবসরে যাবেন।’ ‘বিচারপতিরা ৬৭ বছর বয়সে অবসরে গেলেও অ্যাটর্নি জেনারেল ৭১ বছর বয়সেও পদে বহাল আছেন। এটা সংবিধানের সঙ্গে সাংর্ঘষিক। তাই অ্যাটর্নি জেনারেলের পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করেছি’,- বলেন তিনি।

 
ইব্রাহিম খালেদসহ ২ জনকে আপিল বিভাগে তলব
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিসেস লিমিটেডের (আইএলএফএসএল) স্বাধীন চেয়ারম্যান (হাইকোর্টের নির্দেশে নিয়োগপ্রাপ্ত) খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালকের নিচে নয় এমন একজন কর্মকর্তাকে ডেকেছেন আপিল বিভাগ।
আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্স সার্ভিসেস লিমিটেডের আর্থিক অবস্থার বিষয়ে আপিল বিভাগে হাজির হয়ে খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ ও বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন কর্মকর্তাকে ব্যাখ্যা দিতে বলেছেন আদালত।

আজ রবিবার প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্স সার্ভিসেস লিমিটেডের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন অ্যাডভোকেট আহসানুল করিম। এর আগে, গত ২১ জানুয়ারি এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফিন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার হালদারসহ (পি কে হালদার) ২০ জনের ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দের নির্দেশ দেন বিচারপতি মোহাম্মদ খুরশিদ আলম সরকারের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ। এছাড়া, প্রতিষ্ঠানের বর্তমান চেয়ারম্যান এমএ হাশেমসহ কোম্পানির পরিচালকদের সম্পদের হিসাব দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

একইসঙ্গে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আর্থিক খাতের কোম্পানি ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্স সার্ভিস লিমিটেড পরিচালনার জন্য স্বাধীন পরিচালক ও চেয়ারম্যান হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ইব্রাহিম খালেদকে নিয়োগ দেন হাইকোর্ট।

পি কে হালদার ছাড়াও যাদের ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তারা হলেনকোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম. নুরুল আলম, পরিচালক জহিরুল আলম, এমএ হাশেম, নাসিম আনোয়ার, বাসুদেব ব্যানার্জী, পাপিয়া ব্যানার্জী, মোমতাজ বেগম, নওশেরুল ইসলাম, আনোয়ারুল কবির, প্রকৌশলী নুরুজ্জামান, আবুল হাশেম, মো. রাশেদুল হক, পি কে হালদারের মা লীলাবতী হালদার, স্ত্রী সুস্মিতা সাহা, ভাই প্রিতুষ কুমার হালদার, চাচাতো ভাই অমিতাব অধিকারী, অভিজিৎ অধিকারী, ব্যাংক এশিয়ার সাবেক পরিচালক ইরফান উদ্দিন আহমেদ, পি কে হালদারের বন্ধু উজ্জ্বল কুমার নন্দী।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, পি কে হালদার বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে থেকে লোপাট করেছেন অন্তত সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা। তিনি প্রথমে রিলায়েন্স ফিন্যান্স এবং পরে এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ (এমডি) বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, এফএএস ফিন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড ও বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফিন্যান্স কোম্পানি (বিআইএফসি) প্রভৃতি।

পি কে হালদারের বিরুদ্ধে ওইসব প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন ও নতুন আরও কিছু কাগুজে প্রতিষ্ঠান তৈরির মাধ্যমে প্রায় তিন হাজার ৬০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ ও বিদেশে পাচার করার অভিযোগ ওঠে। এদিকে দেশব্যাপী ক্যাসিনো অভিযানের ধারাবাহিকতায় পি কে হালদারের বিরুদ্ধে প্রায় ২৭৫ কোটি টাকা অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়। এ ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ বাদী হয়ে মামলা করেন।

শাজাহান খানের বিরুদ্ধে ইলিয়াস কাঞ্চনের মামলা আমলে নিয়েছে আদালত
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান ও অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চনের দায়ের করা ১০০ কোটি টাকার মানহানি মামলায় সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খানকে আদালতে হাজির হতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার ঢাকার প্রথম যুগ্ম জেলা জজ উৎপল ভট্টাচার্য মামলাটি আমলে নিয়ে এ আদেশ দেন। শাজাহান খানের বিরুদ্ধে মানহানি এ মামলা দায়ের করার বিষয়টি গতকাল বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) নিরাপদ সড়ক চাই কর্তৃপক্ষ থেকে জানানো হয়।

বলা হয়, পরিবহন শ্রমিক নেতা শাজাহান খান এমপির বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগ এনে ঢাকার প্রথম যুগ্ম জেলা জজ আদালতে ১০০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলা করেছেন নিরাপদ সড়ক চাইয়ের (নিসচা) প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। মামলা নং- ০৯/২০২০। ইলিয়াস কাঞ্চনের পক্ষে মামলাটি করেন সুপ্রিমকোর্টের অ্যাডভোকেট মো. রেজাউল করিম।

 
আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ছাড়লেন ব্যারিস্টার সুমন
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। প্রসিকিউটর পদ থেকে অব্যাহতি চেয়ে বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) চিফ প্রসিকিউটরের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি। পদত্যাগের বিষয়টি ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন সাংবাদিকদের নিশ্চিত করে বলেন, সামাজিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে স্বেচ্ছায় জড়িত হয়ে যাওয়ায় ট্রাইব্যুনালে সময় দিতে পারছি না। এ অবস্থায় সরকারের কোষাগার থেকে বেতন নেয়া অনৈতিক মনে করায় পদত্যাগ করেছি।

ব্যারিস্টার সুমন ২০১২ সালের ১৩ নভেম্বর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর পদে যোগ দেন। ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটরের কাজ ছাড়াও হাইকোর্টের এ আইনজীবী ফেসবুক লাইভে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বেশ পরিচিত লাভ করেন।

ঢাকা ক্লাবসহ সারা দেশের ১৩ ক্লাবে জুয়া নিষিদ্ধ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে ক্লাবে জুয়া খেলা নিষিদ্ধ করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে জুয়া বন্ধে এ সংক্রান্ত আইনে সংশোধনী এনে তা যুগোপযোগী করতে বলেছেন আদালত। বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ এবং মো. মাহমুদ হাসান তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ আজ এ রায় দেন। একই সঙ্গে জুয়া খেলার কোন উপকরণ পাওয়া গেলে তা জব্ধ করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে আদেশ দেয়া হয়েছে। ২০১৬ সালের ৪ ডিসেম্বর রাজধানীর ঢাকা ক্লাবসহ দেশের ১৩টি ক্লাবে টাকার বিনিময়ে জুয়া খেলা বন্ধে রুল করেন আদালত। অন্যান্য ক্লাবগুলো হলো- গুলশান ক্লাব, বনানী ক্লাব, অফিসার্স ক্লাব ঢাকা, ঢাকা লেডিস ক্লাব, ক্যাডেট কলেজ ক্লাব গুলশান, চিটাগাং ক্লাব, চিটাগাং সিনিয়র্স ক্লাব, নারায়ণঞ্জ ক্লাব ও খুলনা ক্লাব।

জাতীয় অবৈধ ইনডোর গেম যেমন কার্ড, ডাইস ও হাউজি খেলা অথবা এমন কোনো খেলা যাতে টাকা বা অন্য কোনো বিনিময় হয়ে থাকে তা বন্ধের নির্দেশনা কেন দেয়া হবে না- রুলে তা জানতে চান আদালত। রিটের পক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার রেদোয়ান আহমেদ বলেন, ঢাকা মেট্রোপলিন পুলিশ অধ্যাদেশ ১৯৭৬, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ অধ্যাদেশ ১৯৭৮ এবং পাবলিক গেম্বলিং অ্যাক্ট ১৮৬৭ অনুযায়ী কোনো প্রকার জুয়া খেলা দণ্ডনীয় অপরাধ। একইসঙ্গে সংবিধানের ১৮(২)অনুচ্ছেদ অনুযায়ী সরকারকে পতিতাবৃত্তি ও জুয়া খেলা বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা বলা হয়েছে।

ডিআইজি মিজানের স্ত্রী ও ভাইয়ের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও মুদ্রাপাচার আইনের মামলায় পুলিশের বরখাস্ত উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মিজানুর রহমানের স্ত্রী ও ভাইয়ের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে।
আজ রবিবার ঢাকা মহানগর জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ কে এম ইমরুল কায়েশের কাছে অভিযোগপত্র উপস্থাপন করা হয়। বিচারক অভিযোগপত্র গ্রহণের পর মামলাটি বিচারের জন্য প্রস্তুত করে ঢাকার চার নম্বর বিশেষ জজ আদালতে স্থানান্তর করেন বলে আদালতের পেশকার ফয়েজ আহমেদ জানান।

গত ৩০ জানুয়ারি দুদকের পরিচালক মঞ্জুর মোর্শেদ আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। অভিযোগপত্রের অন্য আসামিরা হলেন- মিজানের স্ত্রী সোহেলিয়া আনার রত্না ওরফে রত্মা রহমান, ছোট ভাই মাহবুবুর রহমান ও ভাগ্নে মাহমুদুল হাসান। মিজানুর রহমান এবং তার ভাগ্নে মাহমুদুল হাসান এখন করাগারে রয়েছেন। পলাতক থাকায় মিজানের স্ত্রী সোহেলিয়া আনার রত্না ও ছোট ভাই মাহবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। একই সঙ্গে আদালত আগামী ৩ মার্চ গ্রেফতার সংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ ধার্য করেন। অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ অনুসন্ধান শেষে গত ২৪ জুন দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে (ঢাকা-১) দুদকের পরিচালক মঞ্জুর মোর্শেদ বাদী হয়ে চারজনের বিরুদ্ধে এই মামলা করেন।

আসামিদের বিরুদ্ধে তিন কোটি ২৮ লাখ ৬৮ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন ও তিন কোটি সাত লাখ পাঁচ হাজার টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগ আনা হয়েছে মামলায়। এ মামলায় মিজান গতবছরের ১ জুলাই হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করলে তা নাকচ হয় এবং হাইকোর্ট বেঞ্চ তাকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেয়। তার ভাগ্নে মাহমুদুল হাসান ৪ জুলাই একই আদালতে আত্মসমর্পণ করলে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকেও কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়। মাহমুদুল রাজধানীর কোতয়ালী থানায় এসআই হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

এক নারীকে জোর করে বিয়ের পর নির্যাতন চালানোর অভিযোগ ওঠায় গত বছরের জানুয়ারিতে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনারের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় মিজানুর রহমানকে। তার বৈধ সম্পদের অনুসন্ধান চলার মধ্যেই দুদক পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছিরকে ঘুষ দেওয়ার অভিযোগে গত বছরের ১৬ জুলাই আরেকটি মামলা হয়। এই মামলায় মিজান-বাছির দুইজনই আসামি। ঘুষকাণ্ডের পর এনামুল বাছিরও সাময়িক বরখাস্ত হন।

আওয়ামী লীগ নেতা হত্যা মামলায় ৩ জনের ফাঁসি, ৫ জনের যাবজ্জীবন
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক:

লক্ষ্মীপুরে চাঞ্চল্যকর আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মান্নান হত্যা মামলায় ৩ জনের ফাঁসি ও আরো ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে সাজাপ্রাপ্ত প্রত্যেক আসামির ১০ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দেয়া হয়। আজিআজ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. শাহেনুর আসামিদের বিরুদ্ধে এ রায় দেন। ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হচ্ছে, কফিল উদ্দিন, জয়নাল আবদীন ও আবদুর রহমান।
যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত অপর ৫ আসামিরা হচ্ছে, ইয়াছিন আরাফাত রাফি, জুলফিকার আলী, মোক্তার হোসেন, জালাল আহমদ ও খোরশেদ আলম।

রায়ের সময়ে আদালতে সাজাপ্রাপ্তদের মধ্যে কফিল উদ্দিন ব্যতীত অপর আসামিরা উপস্থিত ছিলেন না। আদালত সুত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ২২ মে বুধবার রাত ১১ টার দিকে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চরশাহী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান ভূঁইয়াকে বাড়ী থেকে মুঠোফোনে ডেকে নিয়ে গলাকেটে হত্যা করা হয়। পরে নিজ বাড়ীর পাশের রাস্তার ওপর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনার চারদিন পর নিহতের স্ত্রী আঞ্জুমানারা বেগম নিজে বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে সদর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২০১৫ সালের ২ জুন জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ তদন্ত করে ৮ জনের বিরুদ্ধে আদলতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। দীর্ঘ সাক্ষ্য গ্রহণ ও শুনানী শেষে আদালত বৃহস্পতিবার এ রায় দেন। এদিকে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারি কৌশুলি (পিপি) মো. জসিম উদ্দিন মামলার রায়ের পর সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মান্নান ভূঁইয়াকে বিএনপির সন্ত্রাসীরা গলা কেটে হত্যা করে।

আদালতে সাক্ষ্য প্রমানে এটি নৃশংশ হত্যাকান্ড প্রমাণিত হওয়ায় আসামিদের বিরুদ্ধে এ রায় দেন। তবে আসামি পক্ষের আইনজীবী একেএম হুমায়ুন কবির আদালতের রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে আসামিদের মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে বলে জানান আসামি পক্ষের এ আইনজীবী।

 
নাইকো দুর্নীতি মামলার পরবর্তি শুনানি ৩১ মার্চ
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

নাইকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ফের পিছিয়েছে। অসুস্থ খালেদা জিয়া হাজির হতে না পারায় আগামী ৩১ মার্চ এ মামলার শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার সকালে কেরানীগঞ্জে অবস্থিত কেন্দ্রীয় কারাগারে বিশেষ জজ আদালত-৯ এর বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান এ আদেশ দেন। কিন্তু মামলার প্রধান আসামি খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন।

এ কারণে কারা কর্তৃপক্ষ তাকে আদালতে হাজির করতে পারেনি। এ জন্য তার আইনজীবীরা অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছানোর আবেদন করেন। কানাডার কোম্পানি নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের আর্থিক ক্ষতি ও দুর্নীতির অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে ২০০৭ সালে তেজগাঁও থানায় মামলাটি করে দুদক। পরের বছরের ৫ মে ওই মামলায় খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন দুদকের সহকারী পরিচালক এস এম সাহেদুর রহমান।

অভিযোগপত্রে প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকার রাষ্ট্রীয় ক্ষতির অভিযোগ আনা হয়। ২০১৭ সালের ২০ নভেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর মোশাররফ হোসেন কাজল আদালতে খালেদা জিয়াসহ মামলার ১১ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আবেদন জানান।

 
বিএনপি নেতা হত্যা মামলায় আদালতে চার্জশিট
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি:

বগুড়ার বিএনপি নেতা ও পরিবহন ব্যবসায়ী অ্যাড. মাহবুব আলম শাহীন হত্যা মামলায় বগুড়া পৌরসভার কাউন্সিলর আমিনুল ইসলামকে প্রধান করে ১৪ জনের নামে চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে। শনিবার বিকেলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক আমবার হোসেন বগুড়ার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই চার্জশিট দাখিল করেন।
ওই কর্মকর্তা বলেন, এজাহার ভুক্ত ৬ জনের মধ্যে মাহমুদ নামের একজনের জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া না যাওয়ায় তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করা হয়েছে।

এছাড়াও এজাহারের বাইরে হত্যায় আরও ৯ জনের জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় তাদের চার্জশিটে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ১৪ জন আসামির মধ্যে ৫ জন গ্রেফতার এবং ৯ জন পলাতক রয়েছেন। উল্লেখ্য, গত বছরের ১৪ এপ্রিল রাত ১০টায় শহরের উপশহর বাজার এলাকায় কুপিয়ে হত্যা করা হয় মাহবুব আলম শাহীনকে। তিনি বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও আইনজীবী ও পরিবহন ব্যবসায়ী ছিলেন। ঘটনায় পরদিন ১৫ এপ্রিল নিহতের স্ত্রী আকতার জাহান শিল্পী বাদি হয়ে বগুড়া পৌরসভার কাউন্সিলর ও পরিবহন ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলামসহ ৬ জনের নামে বগুড়া সদর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলা তদন্তকালে আমিনুল ইসলামসহ ৫ জন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়। এদের মধ্যে চারজন আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন। আসামিদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পরিবহন মালিক সমিতির দ্বন্দ্বের জের ধরে আমিনুল ইসলামের পরিকল্পনায় শাহীনকে হত্যা করা হয়।


   Page 1 of 39
     আদালত
গভর্নিং বডি বা ম্যানেজিং কমিটিতে দুই বারের বেশি কেউ থাকতে পারবে না
.............................................................................................
পিকে হালদারের দেড় হাজার কোটি টাকার হদিস নেই
.............................................................................................
সব মসজিদে পুরুষের সাথে নারীদের নামাজের ব্যবস্থা চেয়ে রিট
.............................................................................................
১০০০ কোটি টাকা দেওয়ার নির্দেশ গ্রামীণফোনকে
.............................................................................................
চ্যারিটেবল মামলার জামিন শুনানি রবিবার
.............................................................................................
সব কারখানায় ৬০ দিনের মধ্যে ব্রেস্টফিডিং কর্নার স্থাপনের নির্দেশ
.............................................................................................
কয়লা খনি দুর্নীতি বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ২৯ মার্চ
.............................................................................................
অ্যাটর্নি জেনারেলের পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট
.............................................................................................
ইব্রাহিম খালেদসহ ২ জনকে আপিল বিভাগে তলব
.............................................................................................
শাজাহান খানের বিরুদ্ধে ইলিয়াস কাঞ্চনের মামলা আমলে নিয়েছে আদালত
.............................................................................................
আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ছাড়লেন ব্যারিস্টার সুমন
.............................................................................................
ঢাকা ক্লাবসহ সারা দেশের ১৩ ক্লাবে জুয়া নিষিদ্ধ
.............................................................................................
ডিআইজি মিজানের স্ত্রী ও ভাইয়ের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
.............................................................................................
আওয়ামী লীগ নেতা হত্যা মামলায় ৩ জনের ফাঁসি, ৫ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
নাইকো দুর্নীতি মামলার পরবর্তি শুনানি ৩১ মার্চ
.............................................................................................
বিএনপি নেতা হত্যা মামলায় আদালতে চার্জশিট
.............................................................................................
৩ বছরের কারাদণ্ড ডেসটিনির এমডি রফিকুল আমীনের
.............................................................................................
মুচলেকায় জামিন পেয়েছেন ড. ইউনূস
.............................................................................................
নবম ওয়েজ বোর্ড : হাইকোর্টে রুল নিষ্পত্তির নির্দেশ আপিল বিভাগের
.............................................................................................
নির্বাচনী এলাকায় পলিথিনে মোড়ানো পোস্টারে নিষেধাজ্ঞা হাইকোর্টের
.............................................................................................
আবরার ফাহাদ হত্যায় অভিযোগ গঠন ৩০ জানুয়ারি
.............................................................................................
শিশু ধর্ষণ মামলায় সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড কেন দেয়া হবে না : হাইকোর্ট
.............................................................................................
মতিউর রহমানসহ ছয়জনকে গ্রেফতার ও হয়রানি না করার নির্দেশ
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন : সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত
.............................................................................................
খালেদার দণ্ড স্থগিতে সরকার বিশেষ বিবেচনায় নিতে পারে : অ্যাটর্নি জেনারেল
.............................................................................................
রিফাত হত্যা : মিন্নির জামিন বাতিলের বিষয়ে আদেশ আজ
.............................................................................................
আবরার হত্যা : বিচারের জন্য প্রস্তুত হওয়ায় বদলির আদেশ আদালতের
.............................................................................................
রিফাত হত্যা : ১৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন
.............................................................................................
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাইকোলজিস্ট নিয়োগ দিতে হাইকোর্টের রুল
.............................................................................................
রিজার্ভ চুরি: প্রতিবেদন ২৩ জানুয়ারি
.............................................................................................
২০ জানুয়ারি শমী কায়সারের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল
.............................................................................................
১৪ জানুয়ারি ১০ জঙ্গির অভিযোগ গঠন : কল্যাণপুরে আস্তানায় অভিযান
.............................................................................................
রাজাকারের তালিকায় নাম : তিন মন্ত্রণালয়ে গোলাম আরিফ টিপুর চিঠি
.............................................................................................
গ্রাম পুলিশকে ১৯ ও ২০ গ্রেডে উন্নীত করার নির্দেশ
.............................................................................................
সম্রাট-আরমানের মাদক মামলা আমলে নিয়েছেন আদালত
.............................................................................................
জামিন চাইলেন ডেসটিনির চেয়ারম্যান-এমডি, আদেশ মঙ্গলবার
.............................................................................................
১৬ ডিসেম্বর থেকে ‘জয় বাংলা’ জাতীয় স্লোগান
.............................................................................................
ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা
.............................................................................................
ভুয়া ওয়ারেন্টওয়ালা খুঁজে বের করতে সিআইডিকে নির্দেশ
.............................................................................................
ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন
.............................................................................................
মাদক মামলায় সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে চার্জশিট
.............................................................................................
সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বিচারপতিদের সৌজন্য সাক্ষাৎ
.............................................................................................
বাড়াবাড়ির একটা সীমা আছে: প্রধান বিচারপতি
.............................................................................................
বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা আদালত অবমাননা করেছেন
.............................................................................................
খালেদার মেডিকেল বোর্ডের প্রতিবেদন দাখিল করেনি কর্তৃপক্ষ
.............................................................................................
খালেদার জামিন শুনানি, হট্টগোলে এজলাস ছাড়লেন বিচারকরা
.............................................................................................
খালেদার বিষয়ে জাতি উচ্চ আদালতের দিকে তাকিয়ে
.............................................................................................
অনিয়মের অভিযোগে সুপ্রিম কোর্টের এফিডেভিট শাখার সবাইকে বদলি
.............................................................................................
এফিডেভিট শাখার অনিয়ম নিয়ে হতাশ প্রধান বিচারপতি
.............................................................................................
রাজীব-দিয়ার মৃত্যু : জাবালে নূরের চালকসহ তিনজনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]