| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * শ্রমিকদের খুশি রাখতে শাজাহান খানকে কিছু কথা বলতে হয় : কাদের   * স্বর্ণ জিততে বাংলাদেশকে করতে হবে ১২৩ রান   * মাদক মামলায় সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে চার্জশিট   * অনেক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এখন দিনে সরকারি, রাতে বেসরকারি   * শুধু আর্থিক নয় সামাজিক-রাজনৈতিক দুর্নীতিও শুরু হয়েছে   * দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতকে উড়িয়ে দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ   * কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে দেখানো হলো ‘ন ডরাই’   * তিন ক্যামেরার সেরা চার স্মার্টফোন   * নিউজিল্যান্ডে আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত, একজনের মৃত্যু   * মিস ইউনিভার্স হলেন আফ্রিকার কৃষ্ণসুন্দরী  

   আবহাওয়া -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
এবার আসছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘রিতা’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বিশ্বজুড়ে একের পর এক সাইক্লোন। কিছুদিন আগেই ভারতে আছড়ে পড়েছিল বুলবুল, সেই জের আজও চলছে। এখনও বহু মানুষ ঘর পায়নি। এরই মধ্যে সাইক্লোন কালমেগির খবরে আতঙ্ক ছড়িয়েছিল, যদিও ‘কালমেগি’ ভারতের দিকে আসেনি। এবার আসছে আরও এক ঘূর্ণিঝড় ‘রিতা’।

গত বছর সাইক্লোন ‘গীতা’র ধাক্কায় তছনছ হয়ে গিয়েছিল বিস্তীর্ণ অঞ্চল। এবার আসছে ‘রিতা’। নিউজিল্যান্ডে আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা সেই ট্রপিক্যাল সাইক্লোনের। আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, সতর্ক থাকা জরুরি। যে কোনো পরিস্থিতির জন্য তৈরি থাকতে হবে।



সাম্প্রতিককালে এটাই সর্ব প্রথম ট্রপিক্যাল সাইক্লোন। ফিজির মেট সার্ভিস প্রথম এই ওয়ার্নিং দিয়েছে। দ্রুত এই সাইক্লোন ‘ক্যাটাগরি-২’ তে পরিণত হবে বলে জানা গেছে। এই ঝড়ের জেরে একটা বড় অঞ্চলে ব্যাপক বৃষ্টিপাত হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

১১০ কিমি প্রতি ঘণ্টা গতিতে এগিয়ে আসছে সেই ঝড়। আছড়ে পড়ার আগে এর গতি হতে পারে ১৬০ কিমি। প্রত্যেক বছর অন্তত একটা করে ট্রপিক্যাল সাইক্লোনের শিকার হয় নিউজিল্যান্ড। নিউজিল্যান্ডসহ দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে এই সময়টা ঘূর্ণিঝড়ের সময়। প্রত্যেক বছরেই ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয় নিউজিল্যান্ড।

কিছুদিন আগেই ভিয়েতনামের দিকে ধেয়ে এসেছিল ঘূর্ণিঝড় কালমেগি। ২০ নভেম্বর ফিলিপিন্সের রাজধানী ম্যানিলা থেকে ১০৯ নটিক্যাল মাইল দূরে অবস্থান করছিল। তখনই সতর্কবার্তা জারি করে আবহাওয়া দফতর।



এরপর ২১ নভেম্বর নাসার অ্যাকোয়া স্যাটেলাইটে ধরা পড়ে সেই ছবি। স্যাটেলাইট ইমেজে দেখা যাচ্ছে, ঝড়ের কোনো আকার নেই। ইতোমধ্যেই এই ঝড়ের জন্য ৫ হাজার মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।


ফিলিপিন্স প্রতি বছরই বড়সড় ঘূর্ণিঝড়ের শিকার হয়। ফিলিপিন্স বাঁচে ঘূর্ণিঝড়ের সঙ্গে লড়াই করে। কিন্তু উল্লেখযোগ্যভাবে গত প্রায় ১ বছরে তেমন কোনো বড়সড় ঘূর্ণিঝড় এই ভূখণ্ডে হানা দেয়নি।

এবার আসছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘রিতা’
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বিশ্বজুড়ে একের পর এক সাইক্লোন। কিছুদিন আগেই ভারতে আছড়ে পড়েছিল বুলবুল, সেই জের আজও চলছে। এখনও বহু মানুষ ঘর পায়নি। এরই মধ্যে সাইক্লোন কালমেগির খবরে আতঙ্ক ছড়িয়েছিল, যদিও ‘কালমেগি’ ভারতের দিকে আসেনি। এবার আসছে আরও এক ঘূর্ণিঝড় ‘রিতা’।

গত বছর সাইক্লোন ‘গীতা’র ধাক্কায় তছনছ হয়ে গিয়েছিল বিস্তীর্ণ অঞ্চল। এবার আসছে ‘রিতা’। নিউজিল্যান্ডে আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা সেই ট্রপিক্যাল সাইক্লোনের। আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, সতর্ক থাকা জরুরি। যে কোনো পরিস্থিতির জন্য তৈরি থাকতে হবে।



সাম্প্রতিককালে এটাই সর্ব প্রথম ট্রপিক্যাল সাইক্লোন। ফিজির মেট সার্ভিস প্রথম এই ওয়ার্নিং দিয়েছে। দ্রুত এই সাইক্লোন ‘ক্যাটাগরি-২’ তে পরিণত হবে বলে জানা গেছে। এই ঝড়ের জেরে একটা বড় অঞ্চলে ব্যাপক বৃষ্টিপাত হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

১১০ কিমি প্রতি ঘণ্টা গতিতে এগিয়ে আসছে সেই ঝড়। আছড়ে পড়ার আগে এর গতি হতে পারে ১৬০ কিমি। প্রত্যেক বছর অন্তত একটা করে ট্রপিক্যাল সাইক্লোনের শিকার হয় নিউজিল্যান্ড। নিউজিল্যান্ডসহ দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে এই সময়টা ঘূর্ণিঝড়ের সময়। প্রত্যেক বছরেই ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয় নিউজিল্যান্ড।

কিছুদিন আগেই ভিয়েতনামের দিকে ধেয়ে এসেছিল ঘূর্ণিঝড় কালমেগি। ২০ নভেম্বর ফিলিপিন্সের রাজধানী ম্যানিলা থেকে ১০৯ নটিক্যাল মাইল দূরে অবস্থান করছিল। তখনই সতর্কবার্তা জারি করে আবহাওয়া দফতর।



এরপর ২১ নভেম্বর নাসার অ্যাকোয়া স্যাটেলাইটে ধরা পড়ে সেই ছবি। স্যাটেলাইট ইমেজে দেখা যাচ্ছে, ঝড়ের কোনো আকার নেই। ইতোমধ্যেই এই ঝড়ের জন্য ৫ হাজার মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।


ফিলিপিন্স প্রতি বছরই বড়সড় ঘূর্ণিঝড়ের শিকার হয়। ফিলিপিন্স বাঁচে ঘূর্ণিঝড়ের সঙ্গে লড়াই করে। কিন্তু উল্লেখযোগ্যভাবে গত প্রায় ১ বছরে তেমন কোনো বড়সড় ঘূর্ণিঝড় এই ভূখণ্ডে হানা দেয়নি।

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের চেয়েও শক্তিশালী ‘নাকরি’
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

এইতো কয়দিন আগেই ঘূর্ণিঝড় বুলবুল সবকিছু তছনছ করে দিয়েছে বাংলাদেশ, ওড়িশা ও পশ্চিমবঙ্গের উপকূল। এখনও সেই আতঙ্কে ভুগছে সাধারণ মানুষ। সেই আতঙ্ক কাটতে না কাটতেই ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘নাকরি’। দক্ষিণ চীন সাগরে তৈরি ‘নাকরি’ বুলবুলের চেয়েও বেশি শক্তিশালী বলে জানা গেছে।

এর উৎসস্থল ছিল দক্ষিণ চীন সাগর। মাতমো থেকেই ছিটকে গিয়ে তৈরি হয়েছিল বুলবুল। সেই বুলবুলের দাপটে দুই বাংলায় অনেক বেশি ক্ষতি হয়ে গেছে। সেই ঘা না শুকাতেই নাকরির দাপটে কি হবে তাই ভাবাচ্ছে জনগণকে।


জানা গেছে, আপাতত ধীরে ধীরে ভিয়েতনামের ভূমি লক্ষ্য করে এগোচ্ছে এই ঝড়। সেখানে বৃষ্টিপাত ঘটিয়ে মিয়ানমারের দক্ষিণ অংশে এসে পৌঁছাবে। তারপরেই প্রায় সমস্ত শক্তি ক্ষয় করে বঙ্গোপসাগরের ওপরে আসবে।

এরপর এই ঘূর্ণিঝড় ঠিক কোনদিকে যাবে সেটা বোঝা যাচ্ছে না এখনই। বঙ্গোপসাগর থেকে ফের একবার শক্তি সঞ্চয় করতে পারে এই ঘূর্নাবর্ত। তারপরে এই ঘূর্ণাবর্ত ঠিক কোনদিকে যাবে, তার নিশ্চয়তা নেই। দুই বাংলাতেও আঁছড়ে পড়তে পারে। আবার তা না হয়ে ‘নাকরি’র মুখোমুখি হতে পারে অন্ধ্রপ্রদেশ ও ওড়িশাও।

 
সোমবার তাপমাত্রা বাড়তে পারে
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাবে সারাদেশে তাপমাত্রা কমে গিয়েছিল। তবে এখন আর সেই দাপট নেই বুলবুলের। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে প্রথমে গভীর নিম্নচাপ এবং পরে নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে আবহাওয়া। ফলে সোমবার (১১ নভেম্বর) ৩ থেকে ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

রোববার (১০ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টা পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে আবহাওয়া অধিদফতর এ তথ্য জানিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, রোববার সন্ধ্যা ৬টা পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা বা দুই দিনে আবহাওয়া পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে। তার পরবর্তী ৫ দিনে সামান্য পরিবর্তন হতে পারে আবহাওয়ার।

সোমবার চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

পূর্বাভাসের তথ্য অনুযায়ী, খুলনা ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ সামান্য উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে প্রথমে গভীর নিম্নচাপে এবং পরবর্তীতে নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এটি আজ (১০ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায় নোয়াখালী, বরিশাল ও পটুয়াখালী অঞ্চলে অবস্থান করছে। এটি আরও উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর ও বৃষ্টি ঝরিয়ে ক্রমশ দুর্বল হতে পারে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছে।

রোববার দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টি হয়েছে বরিশালে, ২৮৮ মিলিমিটার। আর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল তেঁতুলিয়ায়, ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল টেকনাফে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।


ঢাকায় রোববার বৃষ্টিপাত হয়েছে ১৮ মিলিমিটার, সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৪ দশমিক ৯ ডিগ্রি এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২২ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

 
কয়েকটি ফ্লাইট বাতিল, বিকেলে চট্টগ্রামে ওঠানামা বন্ধ
                                  


স্টাফ রিপোর্টার
ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলের’ প্রভাব পড়েছে আকাশপথেও। দেশের অভ্যন্তরীণ বেশ কিছু রুটে কয়েকটি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। আজ বিকেল থেকে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ।

এ ছাড়া চট্টগ্রাম থেকে দুবাইগামী বিমানের একটি ফ্লাইটের যাত্রীদের ঢাকায় আনা হবে। তাঁদের নিয়ে ঢাকা থেকে ফ্লাইটটি দুবাই যাবে।


বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের প্রধান নির্বাহী (সিইও) মোকাব্বির হোসেন বলেন, আজ শনিবার সন্ধ্যার পর ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী বিমানের অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট বিজি ৪১৫ ও ৪১৬ বাতিল করা হয়েছে। চট্টগ্রাম থেকে দুবাইগামী বিমানের একটি ফ্লাইট ঢাকা থেকে ছেড়ে যাবে। ফ্লাইটটি আজ রাত সোয়া আটটার দিকে চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল। এই ফ্লাইটের যাত্রীদের খবর দেওয়া হয়েছে। তাঁদের বিমানের ফ্লাইটে করেই ঢাকায় আনা হচ্ছে। ঢাকা থেকে দুবাইয়ের এই ফ্লাইট আজ বিকেলে রওনা হবে।

বেসরকারি বিমান সংস্থা নভোএয়ারের সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার ঢাকা-যশোর ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।

হজরত শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক উইং কমান্ডার সারোয়ার ই আলম প্রথম আলোকে বলেন, দুপুর পর্যন্ত শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে। বিকেল চারটার পর থেকে এই বিমানবন্দরের ফ্লাইট চলাচল বন্ধ থাকবে।

আজ বিকেল থেকে বরিশাল, কক্সবাজারের অভ্যন্তরীণ রুটের ফ্লাইট বন্ধ হয়ে যাবে বলে জানান বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, ‘আমরা ওই সব বিমানবন্দরে সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। বিকেলে ঢাকা থেকে ওই দুই বিমানবন্দরে কোনো ফ্লাইট যাবে না। যশোরের বিমানবন্দরে জলোচ্ছ্বাসের কোনো আশঙ্কা না থাকলেও এখানে ফ্লাইট চলাচল করবে না।’

 
৯ ঘণ্টায় ১০০ কিমি এগিয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’
                                  

আবহাওয়া ডেস্ক
প্রবল শক্তি নিয়ে ধেয়ে আসা ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ২৮০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। আগের ৯ ঘণ্টায় এই ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশ উপকূলের দিকে এগিয়ে এসেছে ১০০ কিলোমিটার।

ঘূর্ণিঝড়কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে ঝোড়ো হাওয়ার আকারে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ১৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

শনিবার (৯ নভেম্বর) দুপুর ১২টায় দিকে ২৪ নম্বর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে আবহাওয়া অধিদফতর এসব তথ্য জানিয়েছে।

‘বুলবুল’-এর অগ্রবর্তী অংশের প্রভাবে দেশের সমুদ্রবন্দরগুলো, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় শনিবার (৯ নভেম্বর) ভোর থেকে দমকা/ঝোড়ো হাওয়া বইতে শুরু করেছে। এ ছাড়া এটি আরও ঘণীভূত হয়ে উত্তর/উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে শনিবার সন্ধ্যা নাগাদ পশ্চিমবঙ্গ-খুলনা উপকূল (সুন্দরবনের নিকট দিয়ে) অতিক্রম করতে পারে।

আবহাওয়া অফিসের তথ্যানুযায়ী, উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আরও উত্তর দিকে অগ্রসর ও ঘণীভূত হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে।

এটি শনিবার দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৭০ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ২৮০ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩১৭ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল।


এদিকে ভারতের আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, ঘণ্টায় ১৫ কিমি গতিবেগে পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশ উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে বুলবুল। বর্তমানে এটি ভারতের পারাদ্বীপ থেকে ৯৮ কিমি দক্ষিণপশ্চিম ও সাগরদ্বীপ থেকে ১৩৭ কিমি দূরে অবস্থান করছে। যত উপকূলের দিকে এগোচ্ছে ততই শক্তি বৃদ্ধি হচ্ছে বুলবুলের।

 
গতি পাল্টে তীব্র শক্তি নিয়ে ধেয়ে আসছে বুলবুল
                                  

নিউজ ডেস্ক

দশ বছর আগে আয়লার ভয়ঙ্কর স্মৃতি উসকে দিয়ে প্রবল শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় বুলবুল ক্রমশ গতিপথ বদলে তীব্র শক্তি নিয়ে উপকূলীয় অঞ্চলের দিকে ধেয়ে আসছে। শুধু তাই নয়; যে হারে শক্তি বাড়াচ্ছে বুলবুল, তাতে আয়লার ধ্বংসযজ্ঞকেও ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

পশ্চিমবঙ্গের আলিপুর আবহাওয়া দফতর বলছে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল প্রচণ্ড শক্তি সঞ্চয় করেছে। এর ফলে প্রাথমিকভাবে শনিবার মধ্যরাতে পশ্চিমবঙ্গের উপকূলীয় এলাকা ও বাংলাদেশের খেপুপাড়ার দিকে আছড়ে পড়ার কথা থাকলেও তার আগেই অর্থাৎ শনিবার সন্ধ্যা কিংবা তার পরপরই আঘাত হানতে পারে বুলবুল।

বাংলাদেশ আবহাওয়া দফতর বলছে, ঘণ্টায় দেড়শ কিলোমিটার বেগের বাতাসের শক্তি নিয়ে উপকূলের দিকে ছুটে আসছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। বুলবুল উপকূলের দিকে ধেয়ে আসার আগে শনিবার সকাল থেকে বাগেরহাটের মোংলা ও পটুয়াখালীর পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপৎসংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৯ নম্বর বিপৎসংকেত দেখাতে বলা হলেও কক্সবাজারে ৪ নম্বর সতর্কতা সংকেত বহাল রাখা হয়েছে। এছাড়া উপকূলীয় জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ৭ নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে। চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরাঞ্চলকে ৬ নম্বর বিপৎসংকেত দেখা বলা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, ভোলা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৫ থেকে ৭ ফুট বেশি উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।

বাংলাদেশের আবহাওয়া দফতরের কর্মকর্তারা বলেছেন, অতিপ্রবল এই ঘূর্ণিঝড় শনিবার সন্ধ্যার দিকে উপকূল অতিক্রম করতে পারে। যদিও এর আগে বলা হয়েছিল বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুল আঘাত হানতে পারে শনিবার মধ্যরাতে। কিন্তু সময়ে সময়ে গতিপথ ও শক্তি পাল্টে দ্রুত এগোতে থাকায় শক্তিশালী এই ঝড় শনিবার সন্ধ্যায় আঘাত হানার সম্ভাবনা রয়েছে।


আবহাওয়া অফিস বলছে, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ তখন ঘণ্টায় ১৩০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে উপকূল অতিক্রম করার সময় এর শক্তি কিছুটা কমতে পারে।

পশ্চিমবঙ্গের আলিপুর আবহাওয়া দফতর বলছে, বর্তমানে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে চলা এই ঘূর্ণিঝড় ওড়িশার কাছাকাছি পৌঁছে ফের বদল করবে তার গতিপথ। পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপ ও বাংলাদেশের খেপুপাড়ার মধ্যবর্তী স্থান দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করতে পারে বুলবুল। এরপর উপকূলবর্তী অঞ্চলে তাণ্ডব চালানোর পর এটি বাংলাদেশে প্রবেশ করার সম্ভাবনা রয়েছে। গতিবেগ ঘণ্টায় ১১০ থেকে ১১৫ কিলোমিটার থাকলেও ১৩০-১৩৫ কিলোমিটার বেগেও তাণ্ডব চালাতে পারে।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা ও দক্ষিণাঞ্চলীয় শহরগুলোতে ইতোমধ্যে মাঝারি ও কোথাও কোথাও ভারী বর্ষণ শুরু হয়েছে। উপকূলবর্তী জেলাগুলোতে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়তে পারে বলে আভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

মোংলা ও পায়রায় ১০ নম্বর মহাবিপৎসংকেত
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক 

 

মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর বিপৎসংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ১০ নম্বর মহাবিপৎসংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতর।

 

উপকূলীয় জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ১০ নম্বর মহাবিপৎসংকেতের আওতায় থাকবে।

 

চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৬ নম্বর বিপৎসংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ৯ নম্বর মহাবিপৎসংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

 

উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ৯ নম্বর মহাবিপৎসংকেতের আওতায় থাকবে।

 

এ ছাড়া কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

 

আজ দুপুর থেকে দমকা হাওয়া শুরু হতে পারে। অতিক্রমের সময় ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার বেগে দমকা হওয়া বইতে পারে। সেইসঙ্গে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিও হতে পারে।

 

 

ঘূর্ণিঝড়টি আজ শনিবার সকাল ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৫২৫ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৫১০ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৫০ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল।

 

অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৩০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়ার আকারে ১৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটে সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ রয়েছে।

 

আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর অগ্রবর্তী অংশের প্রভাবে সমুদ্রবন্দর, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় শনিবার দুপুর থেকে দমকা/ঝোড়ো হাওয়া অব্যাহত থাকতে পারে। ঘূর্ণিঝড়টি আজ সন্ধ্যানাগাদ পশ্চিমবঙ্গ-খুলনা উপকূল (সুন্দরবনের নিকট দিয়ে) অতিক্রম করতে পারে।

 

ঘূর্ণিঝড় অতিক্রমকালে চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর

ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা জেলা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোয় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার বেগে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

 
শতাধিক কিলোমিটার গতিতে আঘাত হানবে ‘বুলবুল’
                                  

 স্টাফ রিপোর্টার

বঙ্গোপসাগর থেকে উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। আবহাওয়াবিদেরা বলছেন, আজ শনিবার সন্ধ্যা নাগাদ বুলবুল পশ্চিমবঙ্গ ও খুলনা উপকূল দিয়ে সমতলে আঘাত হানবে। এ সময় বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার। উপকূলের আটটি জেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, বরগুনা, পিরোজপুর, পটুয়াখালী, ভোলা ও চাঁদপুর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

 

সাগরে বুলবুলের বেগ আরও বেশি। আজ সকাল সাড়ে নয়টার দিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের সবশেষ বিশেষ বুলেটিনে বলা হয়েছে, অতি প্রবল এই ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ১৩০ কিলোমিটার। যা দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়ার আকারে ১৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

 

 

আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন বলেন, আজ সন্ধ্যা নাগাদ যখন ঘূর্ণিঝড় বুলবুল উপকূলে আঘাত হানবে, সেই সময়টায় এসব অঞ্চলের নদ-নদী গুলো এবং সাগরে জোয়ার থাকবে। জোয়ারের পানি বৃদ্ধির প্রভাবে জলোচ্ছ্বাসের মাত্রা বেশি হবে। তিনি জানান, উপকূলের আটটি জেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, বরগুনা, পিরোজপুর, পটুয়াখালী, ভোলা ও চাঁদপুর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

আরিফ হোসেন বলেন, পশ্চিমবঙ্গ ও খুলনা উপকূলে আঘাত হানার পর ঘূর্ণিঝড় বুলবুল দেশের মধ্যাঞ্চলের ওপর দিয়ে হয়ে যাবে। এর প্রভাবে কাল রোববার ঢাকাসহ বিভিন্ন অঞ্চলে ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

 

আবহাওয়া দপ্তরের সবশেষ বিশেষ বুলেটিনে বলা হয়েছে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে উপকূলীয় এলাকায় ৫ থেকে ৭ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস হতে পারে।

 

সাতক্ষীরার শ্যামনগরের পর্যটন ব্যবসায়ী সালাউদ্দিন বাপ্পী বলেন, ‘ঝড়টি সন্ধ্যায় আঘাত হানবে বলে শুনছি। এতে বড় জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা থাকায় আমরা বিপদে পড়ে যাব। কারণ গতকাল এখানে জোয়ার শুরু হয়েছিল বিকেল পাঁচটায়। আর পূর্ণ জোয়ার হয় রাত সাড়ে আটটায়। তাই সন্ধ্যায় আঘাত হানলে জোয়ার বেশি হয়ে বড় জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা রয়েছে।’

 

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর আর চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৯ নম্বর মহাবিপৎসংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

 
ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ কোথায় আঘাত হানতে পারে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার

 

বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। এর নামকরণ করা হয়েছে ‘বুলবুল’। তবে ঘূর্ণিঝড়টি কোন অঞ্চলের ওপর দিয়ে আঘাত হেনে চলে যাবে, তা এখনো নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না আবহাওয়াবিদেরা। অবশ্য যেখানেই আঘাত হানুক না কেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মহা প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘সিডরের’ মতো ভয়ংকর হবে না বলে মনে করছেন তাঁরা।

 

বুলবুলের প্রভাবে এরই মধ্যে সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। এ কারণে দেশের সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

 

আজ বৃহস্পতিবার আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাসে কথা জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এটি আরও উত্তর উত্তর-পশ্চিম দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আজ সকাল ৯টার দিকে এটি চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৯০০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার থেকে ৮৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৮৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৮৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। ঘূর্ণিঝড়টি আরও শক্তিশালী হয়ে উত্তর উত্তর-পশ্চিম দিকে এগিয়ে আসতে পারে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার, যা ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ জন্য সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত নৌযানগুলোকে গভীর সাগরে না গিয়ে উপকূলের কাছাকাছি থাকতে বলেছে আবহাওয়া দপ্তর।

 

আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক বলেন, এ ধরনের ঘূর্ণিঝড় যেকোনো সময় গতিপথ পাল্টাতে পারে। তাই এখনই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না যে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল উপকূলের কোথায় আঘাত হানবে। তবে এখন যেভাবে এগোচ্ছে, রাতে এটি ভারতের ওডিশার দিকে হয়তো যেতে পারে। আবার গতিপথ বদলে অন্য কোথাও আঘাত হানার বিষয়টিও উড়িয়ে দেওয়া যায় না। অনেক সময় দেখা যায় উপকূলে আঘাত হানার আগে এ ধরনের ঘূর্ণিঝড় দুর্বল হয়ে যায়। তবে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে আগামী কয়েক দিন বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলসহ বেশ কিছু অঞ্চলে বৃষ্টি হতে পারে।

 
কলকাতা থেকে ৯০০ কি.মি. দূরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল
                                  

নিউজ ডেস্ক

কলকাতা থেকে ৯০০ কি.মি. দূরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল
ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতা থেকে ৯শ কি.মি. দূরে অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। আগামী ২৪ ঘণ্টায় আরও শক্তি বাড়বে এই ঘূর্ণিঝড়ের। এরপরই অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে ‘বুলবুল’।

ঘূর্ণিঝড়ের অভিমুখ রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের উপকূলে। পাশাপাশি ঘূর্ণিঝড়টির অভিমুখ বাংলাদেশ উপকূলেও রয়েছে। সে কারণে ঘূর্ণিঝড়টি ঠিক কোথায় আছড়ে পড়তে পারে তা এখনও নিশ্চিত নয়। ফলে দু`দেশই ঘূর্ণিঝড়ের আতঙ্কে রয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গে আবহাওয়ার পরিবর্তন হবে বলে পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে। শুক্রবার বিকেল থেকে উপকূলীয় জেলাগুলোতে বৃষ্টিপাত শুরু হবে। দুই ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুরেও বৃষ্টির পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে। এর সঙ্গে ৬০ কি.মি. বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইতে পারে।

অন্যদিকে মহারাষ্ট্র ও গুজরাটে ঘূর্ণিঝড় মহা আছড়ে পড়ার কথা থাকলেও এর দাপট অনেকটাই কমে গেছে। তবে বঙ্গোপসাগরে শক্তি বাড়াচ্ছে বুলবুল। বাতাসে দূষণের মাত্রা বৃদ্ধি এই ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষমতা বাড়ানোর অন্যতম প্রধান কারণ বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

 
সাগরে ‘বুলবুল’ : ২ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাবে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে সর্তক সংকেত বাড়ল। ১ নম্বরের পরিবর্তে সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হচ্ছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে তাদের গভীর সাগরে বিচরণেও নিষেধ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) ভোর ৬টায় ‘বুলবুল’-এর অবস্থান পর্যবেক্ষণ করে আবহাওয়া অধিদফতরের বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এই হুঁশিয়ারি সংকেত দেয়া হয়। এর আগে বৃহস্পতিবার রাত ৩টা পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড়টির অবস্থান পর্যবেক্ষণ করে এক নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলে আসছিল আবহাওয়া অফিস।

৭ নভেম্বর সকাল ৮টায় আবহওয়া অধিদপ্তরের সর্বশেষ বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ সামান্য উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আজ বৃহস্পতিবার ভোর ৬টায় চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ৯৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার বন্দর থেকে ৮৫৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, মংলা বন্দর থেকে ৯১০ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা বন্দর থেকে ৮৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। এটি আরও ঘণীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঝূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটে সাগর বিক্ষুব্ধ রয়েছে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

 
এবার ঘূর্ণিঝড় বুলবুল, প্রভাব পড়বে বাংলাদেশেও
                                  

নিউজ ডেস্ক

ঘূর্ণিঝড় ‘কিয়ার’ ও ‘মহা’র রেশ কাটতে না কাটতেই আবার সৃষ্টি হচ্ছে ‘বুলবুল’। ভারতের উত্তর আন্দামান সাগরে ঘনীভূত নিম্নচাপ পরিণত হচ্ছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে। যেটির প্রভাব বাংলাদেশেও পড়তে পারে বলে জানিয়েছে ভারতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর।


বুধবার (৬ নভেম্বর) ভারতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তরের বরাতে এমন তথ্যই জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, উত্তর আন্দামান সাগরে ঘনীভূত নিম্নচাপ থেকে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হওয়া বুলবুল আঘাত হানবে পশ্চিমবঙ্গ ও উড়িষ্যা উপকূলে। তবে দিক পরিবর্তন করে এটি বাংলাদেশের দিকেও ধাবিত হতে পারে বলে জানিয়েছে দেশটির আবহাওয়া অধিদপ্তর।

দেশটির আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, আগামী ২৪ ঘণ্টায় পুরোপুরি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে বুলবুল। যার জেরে আগামী ৭ থেকে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত কলকাতাসহ উপকূলীয় অঞ্চলগুলোতে বিভিন্ন মাত্রায় বৃষ্টিপাত হতে পারে।

তবে দিক পরিবর্তন করে ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের দিকে ধাবিত হতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

ঘূর্ণিঝড়ে বাতাসের গতিবেগ ৯০ থেকে ১৪৫ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে আবহাওয়া বার্তায়। একইসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ ও উড়িষ্যা উপকূলে জেলেদের মাছ ধরায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

এর আগে গত ২৫ অক্টোবর ভারতের দিকে ধেয়ে আসে ঘূর্ণিঝড়ে ‘কিয়ার’। সেসময় কর্ণাটক ও গোয়া রাজ্যসহ এর আশপাশের এলাকায় জারি করা হয়েছিল জরুরি সতর্কতা। তবে বড় ধরনের আশঙ্কা করা হলেও শেষ পর্যন্ত তেমন প্রভাব ফেলতে পারেনি শক্তিশালী সেই ঘূর্ণিঝড়টি।

কিয়ারের পর গত ৩১ অক্টোবর সন্ধ্যা থেকেই আরব সাগরে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয় ‘মহা’। সেসময়ও জারি করা হয় সতর্কতা। তবে শেষ পর্যন্ত প্রভাব ফেলতে পারেনি মহাও। সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে যাচ্ছে ঘূর্ণিঝড় মহা। তবে ওই দুই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব বাংলাদেশে পড়ার কোনো সম্ভাবনা ছিল না। কিন্তু এবারের ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে শঙ্কায় রয়েছে বাংলাদেশও।

 
বৃষ্টি হতে পারে আজও
                                  

গেল কয়েকদিন ধরেই কখনো মুষলধারে বা কখনো টিপ টিপ করে ঝরছে বৃষ্টি। আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে আজ শনিবার (২৬) শনিবারও দেশের অধিকাংশ অঞ্চলে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৬টা পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, ঢাকা, ময়মনসিংহ, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে ভারি বৃষ্টি হতে পারে।

দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে শনিবার দিনের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পেতে পারে এবং অন্য জায়গায় তা সামান্য বাড়তে পারে।

আবহাওয়া অফিস জানায়, উপকূলীয় অন্ধ্রপ্রদেশ-উড়িষ্যা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি বর্তমানে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় লঘুচাপ রূপে অবস্থান করছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এ জন্য এই বৃষ্টি হচ্ছে।
আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী, আগামী ৪৮ ঘণ্টায় বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টিপাত ক্রমান্বয়ে কমতে পেতে পারে। তার পরবর্তী ৫ দিনে আবহাওয়া সামান্য পরিবর্তন হতে পারে।

বৃষ্টি হবে আরো ২ দিন
                                  

লঘুচাপের প্রভাবে বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) দেশের অধিকাংশ এলাকাতেই সূর্যের দেখা পাওয়া যায়নি। বৃষ্টি হয়েছে চট্টগ্রাম ছাড়া প্রায় সারা দেশেই। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতের দিকে লঘুচাপটি বাংলাদেশ উপকূলের দিকে অগ্রসর হওয়ায় বৃষ্টি পরিস্থিতি থাকতে পারে আরও দু’দিন। তাপমাত্রাও থাকবে অপরিবর্তিত।

ভারতের অন্ধ্র উপকূলের অদূরে বঙ্গোপসাগরে সুস্পষ্ট এই লঘুচাপটি অবস্থান করছে। এর প্রভাবে সৃষ্ট মেঘমালা বাংলাদেশের আকাশে আসায় মোটামুটি সারাদেশেই গত দু’দিন ধরে বৃষ্টি হচ্ছে। কোথাও ভারী বৃষ্টিপাত না হলেও গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি এবং সূর্যের দেখা না মেলায় ঠাণ্ডা হয়ে গেছে আবহাওয়া। রাজধানীসহ দেশের অধিকাংশ এলাকার তাপমাত্রাও কমে গেছে লক্ষণীয়ভাবে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, সুস্পষ্ট লঘুচাপটির প্রভাবে ২৫ ও ২৬ তারিখ (আজ ও কাল) মোটামুটি সারাদেশেই বৃষ্টি পরিস্থিতি চলমান থাকতে পারে। শুধু চট্টগ্রাম বিভাগে কিছুটা কম বৃষ্টি হতে পারে। ২৭ তারিখ থেকে আবহাওয়া অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে যাবে। তবে, লঘুচাপটি ভূমির দিকে উঠে যাওয়ায় এটি নিম্নচাপে পরিণত হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।

লঘুচাপটির অবস্থান সম্পর্কে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, অন্ধ্র উপকূলের অদূরে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে বর্তমানে উপকূলীয় অন্ধ্র প্রদেশ, ওড়িশা এবং পার্শ্ববর্তী এলাকায় অবস্থান করছে। লঘুচাপের বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে রাজশাহীর তাড়াশে (৪৪ মিলিমিটার)।

এই সময় রাজধানীতে বৃষ্টি হয়েছে ৮ মিলিমিটার। বৃষ্টি কম হলেও সারা দিনই মেঘাচ্ছন্ন ছিল রাজধানীর আকাশ। সঙ্গে ছিল গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি।

এদিকে সূর্যের দেখা না মেলায় সারাদেশেই তাপমাত্রা কমেছে। চট্টগ্রাম বিভাগ ছাড়া দেশের অন্য সব স্থানে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩০ ডিগ্রির নিচে।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, রংপুর, খুলনা, বরিশাল, ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি হতে পারে। কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণও হতে পারে। সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ, সারাদেশে ঝরছে বৃষ্টি
                                  

অনলাইন ডেস্ক : রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে বৃষ্টিপাত হচ্ছে।

আগামী শনিবার নাগাদ বৃষ্টিপাতের প্রবণতা আরও বাড়ার আভাস রয়েছে। অবস্থার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে আগামী মঙ্গলবার নাগাদ। সেদিন আকাশে হাসতে পারে সূর্য।

বৃস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, খুলনা বরিশাল এবং ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, সিলেট এবং চট্টগ্রাম বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে।

এ সময় দক্ষিণ-পশ্চিম অথবা পশ্চিম দিক থেকে বাতাসের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ৫ থেকে ১২ কিলোমিটার। আর সকালের দিকে সারা দেশে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার আবহাওয়ার উল্লেখযোগ্য কোনো পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই বলে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে।

আবহাওয়া চিত্রের সংক্ষিপ্তসারে বলা হয়েছে, উত্তর তামিলনাড়ু-দক্ষিণ অন্ধ্র উপকূল এলাকার অদূরে দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পশ্চিমমধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এটি বর্তমানে পশ্চিমমধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিণপশ্চিম বঙ্গোপসাগরে সুস্পষ্ট লঘুচাপ রূপে অবস্থান করছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।

 
ভারী বর্ষণ হতে পারে
                                  

অনলাইন ডেস্ক : দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

বৃহস্পতিবার সকালে আবহাওয়া অধিদফতরের আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে এতথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ঢাকা, ময়মনসিংহ, রংপুর, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ
হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

আবহাওয়ার সার্বিক পর্যবেক্ষণে বলা হয়, মৌসুমী বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ উত্তর প্রদেশ, মধ্য প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের ওপর কম সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে দুর্বল থেকে মাঝারি অবস্থায় বিরাজ করছে।

সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

 

   Page 1 of 8
     আবহাওয়া
এবার আসছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘রিতা’
.............................................................................................
ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের চেয়েও শক্তিশালী ‘নাকরি’
.............................................................................................
সোমবার তাপমাত্রা বাড়তে পারে
.............................................................................................
কয়েকটি ফ্লাইট বাতিল, বিকেলে চট্টগ্রামে ওঠানামা বন্ধ
.............................................................................................
৯ ঘণ্টায় ১০০ কিমি এগিয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’
.............................................................................................
গতি পাল্টে তীব্র শক্তি নিয়ে ধেয়ে আসছে বুলবুল
.............................................................................................
মোংলা ও পায়রায় ১০ নম্বর মহাবিপৎসংকেত
.............................................................................................
শতাধিক কিলোমিটার গতিতে আঘাত হানবে ‘বুলবুল’
.............................................................................................
ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ কোথায় আঘাত হানতে পারে
.............................................................................................
কলকাতা থেকে ৯০০ কি.মি. দূরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল
.............................................................................................
সাগরে ‘বুলবুল’ : ২ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত
.............................................................................................
এবার ঘূর্ণিঝড় বুলবুল, প্রভাব পড়বে বাংলাদেশেও
.............................................................................................
বৃষ্টি হতে পারে আজও
.............................................................................................
বৃষ্টি হবে আরো ২ দিন
.............................................................................................
বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ, সারাদেশে ঝরছে বৃষ্টি
.............................................................................................
ভারী বর্ষণ হতে পারে
.............................................................................................
কমতে পারে বৃষ্টিপাত
.............................................................................................
ঝড়ো হাওয়ার শঙ্কা: সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্কতা
.............................................................................................
বৃষ্টি ঝরতে পারে আরও ৩ দিন
.............................................................................................
বর্ষায়ও দাবদাহ !
.............................................................................................
মেঘলা আকাশ, বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে
.............................................................................................
আজও অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস
.............................................................................................
থেমে থেমে বৃষ্টি, সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্কতা
.............................................................................................
সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত
.............................................................................................
সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত
.............................................................................................
চট্টগ্রাম ও বরিশালে হতে পারে ভারী বৃষ্টি
.............................................................................................
তীব্র গরমের পর স্বস্তির বৃষ্টি
.............................................................................................
বৃষ্টি হলেও তাপমাত্রা বাড়তে পারে
.............................................................................................
বৃষ্টি থাকবে ৩-৪ দিন, তাপমাত্রা কমছে ১-৩ ডিগ্রি
.............................................................................................
মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা
.............................................................................................
রাজধানীর কোথাও কোথাও স্বস্তির বৃষ্টি
.............................................................................................
৩দিনের মধ্যে শুরু হতে পারে বর্ষার বৃষ্টি
.............................................................................................
দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দর সমূহের জন্য ২ নম্বর সংকেত
.............................................................................................
আজও বৃষ্টি হতে পারে
.............................................................................................
স্বস্তির খবর দিল আবহাওয়া অফিস
.............................................................................................
দুই দিনের মধ্যে মিলবে স্বস্তির বৃষ্টি
.............................................................................................
গরম থেকে রেহাই মিলছে না এখনই
.............................................................................................
আবারো বাড়বে তাপমাত্রা
.............................................................................................
মোংলা-পায়রায় ৭, চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত
.............................................................................................
ফণি`র গতিপথ পরিবর্তন হলে বাংলাদেশে আঘাত হবে ভয়াবহ
.............................................................................................
সমুদ্র বন্দরসমূহকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত
.............................................................................................
আজ তাপমাত্রা কমতে পারে
.............................................................................................
কমতে পারে তাপপ্রবাহ, আছে বৃষ্টির সম্ভাবনা
.............................................................................................
নববর্ষের দিন থাকবে ভ্যাপসা গরম, বিকেলে হতে পারে ঝড়-বৃষ্টি
.............................................................................................
ঝড়-বৃষ্টির তীব্রতা বুধবারও থাকবে, নদীবন্দরে ২ নম্বর সংকেত
.............................................................................................
বৃষ্টির সম্ভাবনা আরও তিনদিন
.............................................................................................
এপ্রিলে আরও ৩টি কালবৈশাখীর আশঙ্কা
.............................................................................................
শিলাবৃ‌ষ্টি হ‌তে পা‌রে, ১ নম্বর সতর্ক সং‌কেত
.............................................................................................
মঙ্গলবার পর্যন্ত বজ্রসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা
.............................................................................................
ঝড়-বৃষ্টি থাকতে পারে আরও একদিন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]