| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * শ্রমিকদের খুশি রাখতে শাজাহান খানকে কিছু কথা বলতে হয় : কাদের   * স্বর্ণ জিততে বাংলাদেশকে করতে হবে ১২৩ রান   * মাদক মামলায় সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে চার্জশিট   * অনেক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এখন দিনে সরকারি, রাতে বেসরকারি   * শুধু আর্থিক নয় সামাজিক-রাজনৈতিক দুর্নীতিও শুরু হয়েছে   * দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতকে উড়িয়ে দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ   * কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে দেখানো হলো ‘ন ডরাই’   * তিন ক্যামেরার সেরা চার স্মার্টফোন   * নিউজিল্যান্ডে আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত, একজনের মৃত্যু   * মিস ইউনিভার্স হলেন আফ্রিকার কৃষ্ণসুন্দরী  

   রেসিপি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
মুচমুচে জিলাপি তৈরির সবচেয়ে সহজ রেসিপি

জিলাপি দেখলে জিভে জল আসে? উপরটা মুচমুচে আর ভেতরটা রসে ভরা জিলাপি দেখে লোভ সামলে রাখা সত্যিই কষ্টকর। কিন্তু বাইরে থেকে কেনা জিলাপি স্বাস্থ্যকর নাও হতে পারে। তাই বলে কি জিলাপি খাবেন না? জেনে নিন ঘরেই কীভবে মুচমুচে জিলাপি তৈরি করতে পারবেন-

উপকরণ:
এক কাপ ময়দা
দেড় টেবিল চামচ কর্ন ফ্লাওয়ার
দেড় টেবিল চামচ ময়দা
দুই টেবিল চামচ ঘি
এক চিমটি লবণ
এক চা চামচ চিনি
এক চা চামচ ইস্ট
এক কাপ পরিমাণ গরম পানি
অরেঞ্জ ফুড কালার।

চিনির সিরা তৈরিতে:
দেড় কাপ চিনি
এক কাপ পানি
তিনটি লবঙ্গ
দুইটি এলাচ গুঁড়া
এক চিমটি পরিমাণ জাফরান।

প্রণালি:
আধা কাপ পরিমাণ গরম পানিতে চিনি ও ইস্ট মিশিয়ে ঢেকে রেখে দিতে হবে। বড় একটি পাত্রে ময়দা, বেসন ও লবণ একসাথে মেশাতে হবে। এতে ঘি দিয়ে আবার মেশাতে হবে। এতে ইস্ট মিশ্রিত পানি দিয়ে ভালো করে মেশাতে হবে। এরপর এতে গরম পানি মিশিয়ে প্যানকেকের মতো স্মুদ ব্যাটার তৈরি করতে হবে।

ফুড কালার যোগ করতে চাইলে তবে এক-দুই ফোঁটা ফুড কালার দিয়ে মিশিয়ে তুলনামূলক উষ্ণ স্থানে গাঁজনের জন্য ২-৩ ঘণ্টা রেখে দিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে, এই সময়টুকুর মাঝে পাত্রটি একেবারেই নাড়াচাড়া করা যাবে না। ব্যাটারে গাঁজন হয়ে গেলে চিনির সিরা তৈরি করতে হবে। একটি সসপ্যানে চিনি, পানি, লবঙ্গ, এলাচ গুঁড়া ও জাফরান একসাথে মিশিয়ে মাঝারি তাপে ৭-১০ মিনিট জ্বাল দিতে হবে। চিনির সিরা খুব বেশি ঘন ও স্টিকি হবে না।

এবার ফ্রাইপ্যানে পর্যাপ্ত পরিমাণ তেল নিয়ে গরম করে তেলের তাপমাত্রা মাঝারি আঁচে রাখতে হবে। জিপলক ব্যাগে জিলাপির ব্যাটার নিয়ে ব্যাগের এক কোনার অংশ অল্প একটু কেটে নিতে হবে। তেল গরম হলে তেলের উপরে জিপলক ব্যাগ ধরে ধীরে ধীরে ব্যাগ চাপ দিয়ে ব্যাটার তেলে ছাড়তে হবে। ব্যাটার তেলে ছাড়ার সময় জিপালির মতো গোলাকৃতির প্যাঁচ তৈরি করতে হবে।

প্রতিটি জিলাপি ভাজার জন্য ৫-৬ মিনিট সময় লাগবে। জিপালি বাদামি রঙের হলে তেল থেকে তুলে সরাসরি চিনির সিরাতে দিয়ে দিতে হবে। চিনির সিরায় মিনিট দুয়েক ভিজিয়ে উঠিয়ে নিয়ে গরম গরম পরিবেশন করতে হবে।

মুচমুচে জিলাপি তৈরির সবচেয়ে সহজ রেসিপি
                                  

জিলাপি দেখলে জিভে জল আসে? উপরটা মুচমুচে আর ভেতরটা রসে ভরা জিলাপি দেখে লোভ সামলে রাখা সত্যিই কষ্টকর। কিন্তু বাইরে থেকে কেনা জিলাপি স্বাস্থ্যকর নাও হতে পারে। তাই বলে কি জিলাপি খাবেন না? জেনে নিন ঘরেই কীভবে মুচমুচে জিলাপি তৈরি করতে পারবেন-

উপকরণ:
এক কাপ ময়দা
দেড় টেবিল চামচ কর্ন ফ্লাওয়ার
দেড় টেবিল চামচ ময়দা
দুই টেবিল চামচ ঘি
এক চিমটি লবণ
এক চা চামচ চিনি
এক চা চামচ ইস্ট
এক কাপ পরিমাণ গরম পানি
অরেঞ্জ ফুড কালার।

চিনির সিরা তৈরিতে:
দেড় কাপ চিনি
এক কাপ পানি
তিনটি লবঙ্গ
দুইটি এলাচ গুঁড়া
এক চিমটি পরিমাণ জাফরান।

প্রণালি:
আধা কাপ পরিমাণ গরম পানিতে চিনি ও ইস্ট মিশিয়ে ঢেকে রেখে দিতে হবে। বড় একটি পাত্রে ময়দা, বেসন ও লবণ একসাথে মেশাতে হবে। এতে ঘি দিয়ে আবার মেশাতে হবে। এতে ইস্ট মিশ্রিত পানি দিয়ে ভালো করে মেশাতে হবে। এরপর এতে গরম পানি মিশিয়ে প্যানকেকের মতো স্মুদ ব্যাটার তৈরি করতে হবে।

ফুড কালার যোগ করতে চাইলে তবে এক-দুই ফোঁটা ফুড কালার দিয়ে মিশিয়ে তুলনামূলক উষ্ণ স্থানে গাঁজনের জন্য ২-৩ ঘণ্টা রেখে দিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে, এই সময়টুকুর মাঝে পাত্রটি একেবারেই নাড়াচাড়া করা যাবে না। ব্যাটারে গাঁজন হয়ে গেলে চিনির সিরা তৈরি করতে হবে। একটি সসপ্যানে চিনি, পানি, লবঙ্গ, এলাচ গুঁড়া ও জাফরান একসাথে মিশিয়ে মাঝারি তাপে ৭-১০ মিনিট জ্বাল দিতে হবে। চিনির সিরা খুব বেশি ঘন ও স্টিকি হবে না।

এবার ফ্রাইপ্যানে পর্যাপ্ত পরিমাণ তেল নিয়ে গরম করে তেলের তাপমাত্রা মাঝারি আঁচে রাখতে হবে। জিপলক ব্যাগে জিলাপির ব্যাটার নিয়ে ব্যাগের এক কোনার অংশ অল্প একটু কেটে নিতে হবে। তেল গরম হলে তেলের উপরে জিপলক ব্যাগ ধরে ধীরে ধীরে ব্যাগ চাপ দিয়ে ব্যাটার তেলে ছাড়তে হবে। ব্যাটার তেলে ছাড়ার সময় জিপালির মতো গোলাকৃতির প্যাঁচ তৈরি করতে হবে।

প্রতিটি জিলাপি ভাজার জন্য ৫-৬ মিনিট সময় লাগবে। জিপালি বাদামি রঙের হলে তেল থেকে তুলে সরাসরি চিনির সিরাতে দিয়ে দিতে হবে। চিনির সিরায় মিনিট দুয়েক ভিজিয়ে উঠিয়ে নিয়ে গরম গরম পরিবেশন করতে হবে।

যেভাবে ফিশ টিক্কা তৈরি করবেন
                                  

লাইফস্টাইল ডেস্ক : আপনার ঘরে যদি যেকোনো বড় মাছের টুকরা আর কিছু মশলা থাকে, তবে খুব সহজেই তৈরি করতে পারবেন সুস্বাদু ফিশ টিক্কা। এটি বেশ মুখরোচক ও স্বাস্থ্যকর খাবার। অতিথি আপ্যায়নে কিংবা নাস্তায় তৈরি করতে পারেন ফিশ টিক্কা। চলুন রেসিপি জেনে নেয়া যাক-

উপকরণ:
মাছ ৪ টুকরা
লেবুর রস ২ টেবিল চামচ
আদা বাটা ১ চা চামচ
জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ
বিট লবণ ১/২ চা চামচ
মেথি বাটা ১/২ চা চামচ
ক্রিম ১ টেবিল চামচ
রসুন ১ চা চামচ
লবণ স্বাদমতো
তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি: মাছে লবণ, লেবুর রস মাখিয়ে ২০ মিনিট রাখুন। বাকি সব উপকরণ একসঙ্গে মাছে মাখিয়ে ফ্রিজে রাখুন। ঘণ্টাখানেক পর বের করে কড়াইয়ে তেল গরম করে ব্রাউন কালার করে ভেজে নিন। সালাদের সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন।

বৃষ্টির বিকালে মজাদার মাটন কাটলেট
                                  

বৃষ্টিভেজা বিকেলে তৈরি করে ফেলুন মচমচে মাটন কিমা কাটলেট। জানালার পাশে অথবা টিভির সামনে অথবা আড্ডায় বসে যান কাটলেটের বাটি নিয়ে।

মাটন কিমা ২ কাপ, মাঝারি মাপের আলু ৩টি, পাউরুটির গুঁড়ো ১ কাপ, বিস্কুটের গুঁড়ো ১ কাপ, লাল মরিচগুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, চাট মসলা ১ টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, গরম মসলা গুঁড়ো ২ চা চামচ, আদা রসুন বাটা ২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ ২টি, ধনেপাতা কুঁচি ২ টেবিল চামচ, জিরে গুঁড়ো ২ চা চামচ, ধনে গুঁড়ো ২ চা চামচ, ডিম ৩টি, কর্নফ্লাওয়ার ৩ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, তেল ২ কাপ।

প্রথমে পেঁয়াজ লাল করে ভেজে নিন। এর মধ্যে সিদ্ধ মাটন কিমা, আলু সিদ্ধ, আদা-রসুন বাটা, ধনে গুঁড়ো, জিরে গুঁড়ো, ধনেপাতা কুঁচি, লবণ, হলুদ, লাল মরিচগুঁড়ো, গরম মসলা গুঁড়ো ও চাট মসলা দিয়ে ভাল করে কষিয়ে নিতে হবে।

এর মধ্যে পাউরুটির গুঁড়ো মিশিয়ে পছন্দমত আকারে কাটলেট গড়ে নিন। এবার ডিম, কর্নফ্লাওয়ার ও লবণের মিশ্রণে এই কাটলেট ডুবিয়ে বিস্কিটের গুঁড়ো মাখিয়ে নিতে হবে। তারপরে কড়াইয়ে ডুবো তেলে ভাল করে ভেজে তুলে নিন।

আলুর টিকিয়া তৈরি
                                  

বিকেলের নাস্তায় একটি মজাদার খাবার হতে পারে আলুর টিকিয়া। এটি তৈরি করতেও সময় লাগে কম। ঘরেই তৈরি করে নিলে তা অস্বাস্থ্যকর হওয়ার ভয়ও নেই। জেনে নিন রেসিপি-

উপকরণ :
বড় আলু- ৪টি (সেদ্ধ করে নেয়া)
মটর সেদ্ধ- ১/২ কাপ
ব্রেডক্রাম্ব- ৮ টেবিল চামচ
কর্ন ফ্লাওয়ার- ১ টেবিল চামচ
আদা কুঁচি- ১ চা চামচ
ধনেপাতা কুঁচি- ২ টেবিল চামচ
কাঁচামরিচ- ২ টি, কুঁচি
লাল মরিচের গুঁড়ো- ১/২ চা চামচ
গরম মশলার গুঁড়ো- ১/২ চা চামচ
লেবুর রস- ১ চা চামচ
চিনি- ১/২ চা চামচ
লবণ
তেল।


প্রণালি :
একটি বোলে সেদ্ধ আলু ও সেদ্ধ মটর ভালোভাবে চটকে তাতে ৪ টেবিল চামচ ব্রেডক্রাম্ব, কর্ন ফ্লাওয়ার, আদা কুঁচি, ধনেপাতা কুঁচি, কাঁচামরিচ কুঁচি, লাল মরিচের গুঁড়ো, গরম মশলার গুঁড়ো, লেবুর রস, চিনি ও লবণ মেশান (চাইলে গাজর কুঁচি, সুইট কর্ন বা মটরশুঁটিও মেশাতে পারেন)। সব ভালোভাবে মেখে একটি বড় ডো তৈরি করুন এবং তা থেকে সমান আকারের ১০-১২ টি ছোট বল বানিয়ে হাতের তালুর সাহায্যে আসতে আসতে চেপে পেটি তৈরি করুন টিকিয়ার জন্য।

এবার বাকি ৪ চামচ ব্রেডক্রাম্ব একটি প্লেট-এ নিন। পেটিগুলোকে ভালো করে ব্রেডক্রাম্ব-এ উভয় পিঠে মাখুন। একটি প্যান চুলায় গরম করে তাতে ২-৩ চা চামচ তেল নিয়ে গরম করে তাতে পেটিগুলো গোল্ডেন ব্রাউন করে উভয় পিঠ খুব ভালো করে ভাঁজুন অল্প আঁচে, যেন না পোড়ে।

তৈরি হয়ে গেল মজাদার সুস্বাদু আলুর টিকিয়া। যদি ব্রেডক্রাম্ব না থাকে, তবে এটা বাদ দিতে পারেন এবং টিকিয়ার কোটিংটা কর্ন ফ্লাওয়ার দিয়েও করতে পারেন। স্বাদ বাড়াতে একটু পনিরও ব্যবহার করতে পারেন।

জাম ভর্তা
                                  

লাইফস্টাইল ডেস্ক : ছোটবেলায় ছড়ার বই ‘পাকা জামের মধুর রসে রঙিন করি মুখ’ এই লাইনটি আমরা সবাই পড়েছি। জাম আসলে এমনই একটি রসালো ফল, যা খেলে মুখ রঙিন হবেই। মিষ্টি স্বাদের এই ফলটি পাওয়া যাচ্ছে বাজারে। এটি দিয়ে তৈরি করা যায় জিভে জল আনা ভর্তা। চলুন জেনে নেই রেসিপি-

উপকরণ :
জাম ২৫০ গ্রাম
লবণ স্বাদ অনুযায়ী
ধনেপাতা ১ টেবিল চামচ
কাঁচামরিচ ২টি
গুঁড়ামরিচ আধা চা চামচ।

প্রণালি :
প্রথমে জাম ভালো করে ধুয়ে নিন। এরপর সব উপকরণ একসঙ্গে ঢাকনিসহ কৌটায় নিয়ে ভালো করে ঝাঁকাতে থাকুন। জাম নরম হয়ে এলে পরিবেশন করুন সাজিয়ে।

ইফতারে বিফ টিকিয়া কাবাব
                                  

ইফতারে ঝাল ঝাল কাবাব খেতে নিশ্চয়ই মন্দ লাগবে না। আজ জেনে নেবো জিভে জল আনা বিফ টিকিয়া কাবাব তৈরির রেসিপি। এটি আপনি খুব সহজেই তৈরি করতে পারবেন। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক-

উপকরণ :
গরুর মাংস ১/২ কেজি (চর্বি ও হাড় ছাড়া ছোট টুকরা করে কাটা)
বুটের ডাল ১/২ কাপের কম (৩/৪ ঘণ্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখা)
এলাচ ৩-৪ টি
দারুচিনি ১-২ টি
লং ৪-৫ টি
তেজপাতা ১ টি
আদা কুঁচি ১ টেবিল চামচ
রসুন কুঁচি ১ টেবিল চামচ
পেঁয়াজ কুঁচি ২ টেবিল চামচ
শুকনো মরিচ ২-৩ টি
মরিচ গুঁড়ো ১/২ চা চামচ
হলুদ গুঁড়ো ১/৪ চা চামচ
ধনে গুঁড়ো ১/২ চা চামচ
জিরা গুঁড়ো ১/২ চা চামচ
গরম মশলা গুঁড়ো ১/২ চা চামচ
জায়ফল ও জয়ত্রি গুঁড়ো সামান্য
পেঁয়াজ বেরেস্তা ১/২ কাপ
লবণ স্বাদ মতো
ডিম ২ টি
তেল পরিমাণ মতো


প্রণালি :
মাংসের টুকরা, ডাল, আদা, রসুন, পেঁয়াজ কুঁচি, শুকনা মরিচ, এলাচ, তেজপাতা, দারুচিনি, লং, হলুদ, মরিচ, লবণ আর পরিমাণমতো পানি দিয়ে শুকনা শুকনা করে সেদ্ধ করে নিতে হবে।

এবার ফুড প্রসেসর বা পাটায় মিশ্রণটা বেটে নিন। ইচ্ছে করলে গরম মশলাসহ বেটে নেয়া যাবে। এই বাটা মিশ্রণে একে একে গরম মশলা গুঁড়ো, জায়ফল-জয়ত্রি গুঁড়ো, ধনে-জিরা গুঁড়ো, পেঁয়াজ বেরেস্তা, ডিম দিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে।

তেল গরম করে গোল-চ্যাপ্টা শেপের টিকিয়া বানিয়ে ডুব তেলে মিডিয়াম আঁচে ভেজে তুলতে হবে। চাইলে কাবাবের মধ্যে ধনেপাতা, পুদিনাপাতা, কাঁচা মরিচ ও পেঁয়াজের, কুঁচি, কিশমিশ, একটু লেবুর রস মিশিয়ে পুর দিতে পারেন।

ইফতারে পোড়া আমের শরবত
                                  

ইফতারে ঠান্ডা ঠান্ডা শরবত না হলে কি চলে! কিন্তু প্রতিদিন একইরকম শরবত না তৈরি করে, শরবতের রেসিপিতে আনতে পারেন ভিন্নতা। এখন পাওয়া যাচ্ছে কাঁচা আম। ইফতারে তৈরি করতে পারেন ভিন্ন স্বাদের পোড়া আমের শরবত-

উপকরণ :
কাঁচা আম ২টি
পরিমাণমতো চিনি
বিট লবণ
কাঁচা মরিচ
বরফকুচি।

প্রণালি :
প্রথমে ২টি আম খোসা সহ পুড়িয়ে নিন। তারপর ঠান্ডা হলে আমের খোসা ছাড়িয়ে নিন। দেখবেন আমের ভেতরটা নরম হয়ে গেছে। এবার একটি বাটিতে পরিমাণমতো চিনি, বিট লবণ, মরিচ নিন। আমের সাথে সব ভালো করে মিশিয়ে কিছুক্ষণ রাখুন।

সব একসাথে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করুন। ব্যস, তৈরি হয়ে গেল পোড়া আমের শরবত। বরফকুচি দিয়ে ব্লেন্ড করতে পারেন বা পরিবেশনের সময় উপরে বরফকুচি ছড়িয়ে দিতে পারেন।

ইফতারে সুস্বাদু কলিজা সিঙ্গাড়া তৈরির রেসিপি
                                  

লাইফস্টাইল ডেস্ক : ইফতারে ঝাল জাতীয় কিংবা ভাজাভুজি খেতে পছন্দ করেন না এমন মানুষ কমই আছেন। তাই স্বাস্থ্যের অযুহাতে যতই নিষেধ করা হোক, ইফতারে পেঁয়াজু, বেগুনি কিংবা আলুর চপ থাকবেই। প্রতিদিন একইরকম না খেয়ে একদিন একটু ব্যতিক্রম তৈরি করতে পারেন। এক্ষেত্রে আদর্শ একটি রেসিপি হতে পারে কলিজা সিঙ্গাড়া। চলুন রেসিপি জেনে নেয়া যাক-

উপকরণ :
৩ কাপ ময়দা,
পানি পরিমাণমতো,
তেল (ডো তৈরি ও ভাজার জন্য),
লবণ স্বাদ মতো,
কালোজিরা ১ চা চামচ।

পুরের জন্য :
১ কাপ কলিজা (ছোট কিউব করে টুকরো করা),
১ কাপ গাজর (ছোট কিউব করে টুকরো করা),
১ কাপ আলু (ছোট কিউব করে টুকরো করা),
১ কাপ পেঁয়াজ কুচি, ১ টেবিল চামচ ধনে পাতা কুচি,
চা চামচ আদা-রসুন বাটা,
আধা চা চামচ গরম মসলা গুঁড়ো,
তেল পরিমাণ মতো।

প্রণালি :
প্রথমে ময়দা, লবণ ও তেল পরিমাণ মতো দিয়ে ভালো করে মেখে ডো তৈরি করে নিন। ডো তৈরি করে ১ ঘণ্টা ঢেকে রেখে দিন। একটি প্যানে তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে নরম করে ভেজে নিয়ে তাতে দিন আদা-রসুন বাটা, গরম মসলাগুঁড়ো এবং লবণ।

খানিকক্ষণ নেড়ে নিয়ে এতে দিন কলিজার টুকরোগুলো। কলিজা একটু কষে এলে আলু, গাজর দিয়ে ভালো করে নেড়ে মিশিয়ে সেদ্ধ করার জন্য পরিমাণমতো পানি দিয়ে রান্না করতে থাকুন। রান্না শেষ হলে চুলা থেকে নামিয়ে নিয়ে ঠান্ডা হতে দিন। ময়দার ডো থেকে ছোট ছোট বল তৈরি করে রুটি বেলে নিন।

এবার রুটি ৩ কোনা করে কেটে ঠোঙার মতো তৈরি করে নিন। এরপর ঠোঙার মধ্যে কলিজার পুর দিয়ে মুখ বন্ধ করে সিঙ্গারা তৈরি করে নিন। প্যানে ডুবো তেলে ভাজার জন্য তেল গরম করে নিন। এরপর সিঙ্গাড়া লালচে করে ভেজে তুলে নিন। সস, পেঁয়াজ অথবা সালাদের সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন।

রেসিপি : ইফতারে সুস্বাদু চিকেন ললিপপ
                                  

ইফতারে মুখরোচক কতকিছুই না থাকে। থাকে চিকেনের নানা আইটেমও। আজ চলুন জেনে নেয়া যাক চিকেন ললিপপ তৈরির রেসিপি। এটি ঝটপট তৈরি করা যায় তাই সহজেই তৈরি করতে পারবেন-

উপকরণ :
ডিম ১টি
কর্নফাওয়ার আধা কাপ
গোলমরিচগুঁড়ো ১ চা চামচ
আদাবাটা আধা চা চামচ
রসুনবাটা আধা চা চামচ
সয়াসস ১ টেবিল চামচ
স্বাদ লবণ সামান্য
লবণ সামান্য
তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি :
চিকেন ললিপপের সব উপকরণ দিয়ে কমপক্ষে ২ ঘণ্টা মাখিয়ে রাখুন। তার পর ডুবো তেলে সোনালি করে ভেজে নিন। এমনভাবে ভাজবেন যেন ভেতরে সিদ্ধ হয় আর বাইরে গোল্ডেন ব্রাউন হয়।

চিকেন ললিপপের সস :

উপকরণ :
বারবিকিউ সস আধা কাপ
১ কোয়া রসুন সদ্য মিহি করে ছেঁচে নেওয়া
চিলিসস ১ টেবিল চামচ
টমেটো সস ১ টেবিল চামচ
চিনি স্বাদমতো
সামান্য একটু লেবুর রস
চিকেন স্টক অল্প।

প্রণালি :
এসব উপকরণ খুব ভালো করে মিশিয়ে মসৃণ পেস্ট তৈরি করুন। বেশি ঘন মনে হলে চিকেন স্টক মিশিয়ে পাতলা করুন। চুলায় দিয়ে ফুটে উঠলেই তৈরি আপনার সস। গরম গরম চিকেন ললিপপের ওপর এই সস ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

ক্রিম জাম মিষ্টি রেসিপি
                                  

অনেকে মিষ্টি খেতে খুব পছন্দ করেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তাদের তালিকায় ক্রিম জাম থাকে। আপনি কিংবা আপনার পরিবারের কেউ ক্রিম জাম খেতে পছন্দ করলে সহজে তা ঘরেই বানিয়ে নিতে পারবেন। দেখুন কীভাবে ক্রিম জাম বানাবেন।

উপকরণ
গুঁড়া-দুধ ১ কাপ, ময়দা ১/৩ কাপ, ঘি ২ চা-চামচ, লাল রং অল্প, বেকিং পাউডার আধা চা-চামচ, তেল ভাজার জন্য, হুইপড ক্রিম এক কাপ/পরিমাণমতো, মাওয়া ২ টেবিল-চামচ (মিষ্টির ওপরে দেওয়ার জন্য)।
সিরার জন্য
চিনি ২ কাপ, পানি ৪ কাপ, এলাচ ৩-৪টি।
ক্রিমের জন্য
তরল দুধ ১ কাপ, হুইপড ক্রিম ১/৩ কাপ, কনডেন্সড মিল্ক ১/৪ কাপ।

পদ্ধতি
প্রথমে পানি, চিনি ও এলাচ দিয়ে সিরা করে নিন।
এবার একটা বাটিতে গুঁড়া-দুধ, ময়দা, ঘি আর বেকিং পাউডার দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে, পরিমাণমতো হুইপড ক্রিম ও রং দিয়ে ডো তৈরি করুন। ডো থেকে খানিকটা করে নিয়ে লম্বা আকারে মিষ্টি বানিয়ে নিন। তারপর প্যানে তেল দিয়ে মিষ্টিগুলো ধীরে ধীরে ভাজতে হবে।

সব ভাজা হয়ে গেলে সিরায় দিয়ে মাঝারি আঁচে ঢাকনা দিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট জ্বাল দিন। তারপর মিষ্টিগুলো সিরা থেকে তুলে ঠাণ্ডা করুন। এই ফাঁকে ক্রিমটা তৈরি করে ফেলতে হবে।
প্যানে তরল দুধ, হুইপড ক্রিম ও কনডেন্সড মিল্ক মিশিয়ে চার থেকে পাঁচ মিনিট জ্বাল দিয়ে ঘন হয়ে গেলে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন। এবার মিষ্টিগুলোর মাঝখানে কেটে ক্রিম দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন দারুণ মজার ক্রিম জাম।

সহজেই তৈরি করুন চিকেন উইংস ফ্রাই
                                  

রেস্টুরেন্টে গিয়ে মচমচে চিকেন উইংস ফ্রাই খেতে ভালোবসেন নিশ্চয়ই। মজার এই খাবারটি তৈরি করা যায় ঘরে বসেও। রেস্টুরেন্টের মতো স্বাদ আনতে চাইলে জেনে নিতে হবে এই রেসিপি-


চামড়াসহ চিকেন উইংস ১২ টুকরা
ময়দা ১ কাপ
গোল মরিচ গুঁড়া ১/২ চা চামচ
গার্লিক পাউডার ১/২ চা চামচ
লবণ পরিমাণমতো
পাপরিকা ১/২ চা চামচ
ডিম ১টি
দুধ সামান্য।


প্রণালি:
প্রথমে ময়দা, গোল মরিচের গুঁড়া, পাপরিকা, গার্লিক পাউডার সব এক সঙ্গে মিশিয়ে নিন। অন্য একটি পাত্রে ডিম ও দুধের মিশ্রণ তৈরি করে রাখুন।

উইংসগুলোকে ডিমের মিশ্রণে ডুবিয়ে এরপর শুকনো ময়দার মিশ্রণে মেখে নিন। এরপর আরও একবার ডিমের মিশ্রণে দিয়ে আবারও ভালো করে শুকনো ময়দার মিশ্রণ লাগিয়ে নিন।

তেল ভালো করে গরম হলে উইংসগুলো দিয়ে ডুবু তেলে মাঝারি আঁচে ১৫ মিনিট ভাজুন। সোনালি রং হলে নামিয়ে নিন। সস ও সালাদ দিয়ে পরিবেশন করুন মচমচে দারুণ মজার উইংস ফ্রাই।

নিজেই তৈরি করুন কনডেন্সড মিল্ক
                                  

শুধু চা তৈরিতে কনডেন্সড মিল্ক ব্যবহার হয় তা নয়। এছাড়া মিষ্টি কিছু খাবার তৈরিতেও এটা ব্যবহার করা হয়। এসব কাজে ব্যবহারের জন্য বাজার থেকে কেনার চেয়ে কনডেন্সড মিল্ক ঘরেই বানিয়ে নিতে পারবেন আপনি।

উপকরণ
দুধ ২ কাপ (ফুল ফ্যাট), চিনি ১ কাপ।

প্রস্তুত প্রণালি
চুলায় একটি গভীর প্যান বসিয়ে দুধ ঢেলে দিন। মিডিয়াম আঁচে বলক আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। মাঝে মাঝে নেড়ে দেবেন। বলক এলে চিনি দিয়ে নেড়ে নিন। চিনি গলে গেলে চুলার আঁচ কমিয়ে চামচ দিয়ে অনবরত নাড়তে থাকুন দুধ।

প্রায় ২০ থেকে ২৫ মিনিট জ্বাল দিন। দুধের রং বদলে যেতে শুরু করবে ১৫ মিনিট পর থেকেই। দুধ কমে অর্ধেক হয়ে গেলে নামিয়ে ফেলুন। গরম অবস্থায় খুব বেশি ঘন হবে না কনডেন্সড মিল্ক। ঠাণ্ডা হলে তারপর পুরোপুরি ঘনত্বটা পাওয়া যাবে। ঠাণ্ডা করে সংরক্ষণ করুন এটি। মুখবন্ধ বয়ামে ১ সপ্তাহ পর্যন্ত ফ্রিজে রেখে ব্যবহার করতে পারবেন এই কনডেন্সড মিল্ক।

মজাদার রস কদম
                                  

কদম ফুলের মতো দেখতে মিষ্টিকে রস কদম বলা হয়। এটা আপনার কিংবা আপনার পরিবারের পছন্দের হলে সহজেই ঘরে বানিয়ে নিতে পারবেন। দেখে নিন কীভাবে রস কদম বানাবেন।

উপকরণ
ছানা ২কাপ, মাওয়া আধা কাপ, ছোট মিষ্টি এক কাপ, চিনির দানা ১কাপ।

ছানা তৈরি
তরল দুধ- ২ লিটার, সাদা ভিনেগার-৩ টেবিল চামচ। প্রথমে দুধ জ্বাল দিয়ে ফুটে উঠলে ভিনেগার দিয়ে নিন। ছানা ছেঁকে কলের পানিতে ধুয়ে নিন।

মাওয়া
আধা কাপ গুঁড়া দুধে ১ টেবিল চামচ ঘি ও ১ টেবিল চামচ গুঁড়া চিনি দিয়ে মেখে ফ্রিজে ১ ঘণ্টা রেখে মাওয়া তৈরি করে নিতে পারেন

মিষ্টি
এবার ছোট মিষ্টিগুলো তৈরি করতে হবে। হাড়িতে চিনি, এলাচ এবং পানি মিশিয়ে সিরা করে নিন। এক কাপ ছানার সঙ্গে চিনি, এক চা চামচ করে সুজি ও ময়দা মিশিয়ে ছোট ছোট বল বানিয়ে ফুটন্ত সিরায় দিয়ে ৩০ মিনিট ঢেকে জ্বাল দিন। অল্প আঁচে এক ঘণ্টার জন্য রেখে দিন। একটু বাদামি রং হলে চুলা বন্ধ করে দিন। মিষ্টিগুলো ঠাণ্ডা করে নিন।
এবার ছানার সাথে চিনি মিশিয়ে জ্বাল দিন। পানি শুকালে মাওয়া দিয়ে কম আঁচে নাড়তে থাকুন। আঠালো ভাব হলে নামিয়ে নিন। এবার মিষ্টিগুলো মিশ্রণে ডুবিয়ে চিনির দানায় গড়িয়ে নিন। ব্যস, তৈরি হয়ে গেলো দারুণ মজার মিষ্টি। এবার কদমের মতো করে পরিবেশন করুন।

রেসিপি: চিকেন রেজালা
                                  

লাইফস্টাইল ডেস্ক : অতিথি আপ্যায়নে চিকেন রেজালা আপনার জন্য বেশ সহায়ক হতে পারে। এটা তৈরি করা তুলনামূলকভাবে সহজ এবং ঝটপট তৈরি করে ফেলা যায়। দেখুন চিকেন রেজালা কীভাবে তৈরি করবেন-

উপকরণ
মুরগির মাংস আধা কেজি, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, পেঁয়াজ বাটা ১/৪ অর্থাৎ সিকি কাপ, টক দই ১/৪ কাপ, হলুদ গুঁড়ো আধা চা-চামচ, মরিচের গুঁড়ো ১ চা-চামচ, ভাজা জিরার গুঁড়ো আধা চা-চামচ, ধনে গুঁড়ো আধা চা-চামচ, পোস্তদানা বাটা আধা টেবিল চামচ, তেল সিকি কাপ, ঘি ১ টেবিল চামচ, লবণ ১ থেকে দেড় চা-চামচ অথবা স্বাদ অনুযায়ী, কাঁচা মরিচ ৮টি, তেজপাতা ১টি, দারচিনি ২ টুকরা, এলাচ ২টি, দেশি পেঁয়াজ মিহি কুচি আধ কাপ, কেওড়া জল ১ টেবিল চামচ।

প্রণালি
মাংস টুকরো করে কেটে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। তেল গরম করে দারচিনি, এলাচ ও তেজপাতার ফোড়ন দিয়ে মাঝারি আঁচে পেঁয়াজ বাদামি করে ভাজুন। এবারে মাংস ও লবণ দিয়ে কিছুক্ষণ ভেজে নিন। মাংস ভাজা হলে তাতে পোস্তদানা বাটা ও জিরার গুঁড়ো বাদে অন্যান্য বাটা মসলা দিয়ে কিছুক্ষণ কষিয়ে ঢেকে দিন।

এবার টক দই ভালো করে ফেটিয়ে দিয়ে দিন। ঢাকনা দিয়ে রান্না করুন। ১০ মিনিট পর এক কাপ গরম পানি দিয়ে মাঝারি আঁচে ১০ মিনিট রান্না করুন। তেল ভেসে উঠলে কাঁচা মরিচ ও কেওড়া দিয়ে হালকা নেড়ে ১ টেবিল চামচ ঘি ছড়িয়ে ঢেকে দিন। ৩ মিন পরে নামিয়ে নিন।

রেসিপি: বটি কাবাব
                                  

উপকরণ: গরুর মাংস ১ কেজি (হাড় ও চর্বি ছাড়া) এক ইঞ্চি চৌক করে কাটা। কাঁচা-মরিচ বাটা ১ টেবিল-চামচ। আদা ও রসুন বাটা আধা টেবিল-চামচ করে। টক দই ১/৪ কাপ। লেবুর রস ৩ চা-চামচ। খোসা-সহ পেঁপে-বাটা ২ টেবিল-চামচ। গরম মসলার গুঁড়া আধা চা-চামচ। সরিষা-বাটা আধা চা-চামচ। টালা ধনেগুঁড়া ১ টেবিল-চামচ। টালা শুকনা মরিচ ৩,৪টি গুঁড়া করে নেওয়া। ঘি ১ টেবিল-চামচ। সয়াবিন তেল ৪ টেবিল-চামচ। জিরা-গুঁড়া এক চা-চামচ। লবণ পরিমাণ মতো। পেঁয়াজ-কুচি ৫,৬টি। পুদিনা-পাতা ১ মুঠ।

পদ্ধতি: মাংস চৌক করে কেটে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।

তেল, ঘি, পেঁয়াজ, টালা ধনে, টালা শুকনা মরিচ ও পুদিনা-পাতা ছাড়া বাকি সব উপাদান দিয়ে মাংস এক ঘণ্টা মেরিনেইট করে রাখুন ফ্রিজে।

এবার প্যানে তেল গরম করে মাংস দিয়ে রান্না করুন। প্রয়োজনে অল্প পানি দিন।

মাংস সিদ্ধ হয়ে এলে পেঁয়াজ কুচি-সহ টালা মসলা মিশিয়ে ঢেকে চুলার আঁচ কমিয়ে আরও পাঁচ মিনিট রান্না হতে দিন। ভাজা ভাজা করে নামিয়ে নিন।

নামানোর আগে ঘি ও পুদিনা-পাতা কুচি ছড়িয়ে দিয়ে নামান। ইচ্ছে করলে মাংসগুলো শিকে গেঁথে গ্রিল করে নিতে পারেন।

বিকেলের নাস্তায় সবজি পাকোড়া
                                  

বিভিন্নরকম সবজি দিয়ে খুব সহজেই তৈরি করা যায় সবজি পাকোড়া। সব বয়সীর কাছেই এটি পছন্দের একটি খাবার। বিকেলের নাস্তায় একটু ভাজাপোড়া ধরনের খাবার খেতে চাইলে তৈরি করতে পারেন সবজি পাকোড়া। রইলো রেসিপি-

উপকরণ
ময়দা ৩ কাপ
কর্ণফ্লাওয়ার ২ চা চামচ
বেকিং পাউডার ১ চা চামচ
নুডলস ১ কাপ
ডিম ১ টি
গাজর কুচি ১ কাপ
আলু কুচি ১ কাপ
সিম কুচি ১ কাপ
পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ
বাঁধাকপি ১ কাপ
মরিচ কুচি ৭-৮ টি
গোলমরিচ গুঁড়া ১/২ চা চামচ (ঝাল খেলে মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ)
লবণ পরিমাণমতো
তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি: প্রথমে নুডলস সিদ্ধ করে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। গাজর, আলু, বাঁধাকপি, সিম সেদ্ধ করে নিয়ে পেঁয়াজ, মরিচ, ডিম, কর্নফ্লাওয়ার, ময়দা ও লবণ দিয়ে সামান্য পানিসহ মেখে নিতে হবে।

এরপর হাত দিয়ে ছোট ছোট পাকোড়া বানিয়ে ডুবো তেলে ভালোভাবে লাল করে ভেজে তুলে নিতে হবে। এরপর সস দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন মচমচে মিক্সড সবজি পাকোড়া।


   Page 1 of 5
     রেসিপি
মুচমুচে জিলাপি তৈরির সবচেয়ে সহজ রেসিপি
.............................................................................................
যেভাবে ফিশ টিক্কা তৈরি করবেন
.............................................................................................
বৃষ্টির বিকালে মজাদার মাটন কাটলেট
.............................................................................................
আলুর টিকিয়া তৈরি
.............................................................................................
জাম ভর্তা
.............................................................................................
ইফতারে বিফ টিকিয়া কাবাব
.............................................................................................
ইফতারে পোড়া আমের শরবত
.............................................................................................
ইফতারে সুস্বাদু কলিজা সিঙ্গাড়া তৈরির রেসিপি
.............................................................................................
রেসিপি : ইফতারে সুস্বাদু চিকেন ললিপপ
.............................................................................................
ক্রিম জাম মিষ্টি রেসিপি
.............................................................................................
সহজেই তৈরি করুন চিকেন উইংস ফ্রাই
.............................................................................................
নিজেই তৈরি করুন কনডেন্সড মিল্ক
.............................................................................................
মজাদার রস কদম
.............................................................................................
রেসিপি: চিকেন রেজালা
.............................................................................................
রেসিপি: বটি কাবাব
.............................................................................................
বিকেলের নাস্তায় সবজি পাকোড়া
.............................................................................................
তৈরি করুন বাদামের হালুয়া
.............................................................................................
কালা ভুনা !
.............................................................................................
বাতাসা তৈরি করবেন যেভাবে
.............................................................................................
রিভার প্রন ককটেল সালাদ
.............................................................................................
খুব সহজে রান্না করুন নবাবী সেমাই
.............................................................................................
সহজে রান্না করুন মজাদার গরুর কোপ্তার
.............................................................................................
সহজেই তৈরি করুন চিকেন কিমা কাটলেট
.............................................................................................
মজাদার আমড়ার চাটনি
.............................................................................................
মেজবানি মাংস
.............................................................................................
চিকেন ভেজিটেবল স্যুপ
.............................................................................................
পুডিং তৈরির সহজ রেসিপি
.............................................................................................
বর্ষার দিনে ইলিশ-খিচুড়ি
.............................................................................................
চিংড়ির মালাইকারি
.............................................................................................
রেসিপি : চকলেট ডোনাট
.............................................................................................
বৃষ্টিভেজা বিকেলে ঝাল ঝাল চিকেন পাকোড়া
.............................................................................................
রেসিপি: চিংড়ির দোপেয়াজা
.............................................................................................
আম দিয়ে দই-চিড়া
.............................................................................................
চিকেন সাসলিক তৈরির সহজ উপায়
.............................................................................................
বর্ষায় ইলিশ খিচুড়ি
.............................................................................................
ঈদে রান্না করুন মালাই সেমাই
.............................................................................................
রেসিপি : মজাদার লুচি
.............................................................................................
ঈদের নাশতায় ফ্রুটস ফালুদা
.............................................................................................
রেসিপি : ফিরনি আম্রপালী
.............................................................................................
রেসিপি : গরুর মাংসের কোরমা
.............................................................................................
রেসিপি : ট্যাঙ্গি ফ্রাইড চিকেন
.............................................................................................
রেসিপি: বিফ পাকোড়া
.............................................................................................
বিফ দই বড়া
.............................................................................................
রেসিপি: শাহী ছোলা ভুনা
.............................................................................................
বিফস্টেক চাউমিন
.............................................................................................
তৈরি করুন সুস্বাদু লালমোহন মিষ্টি
.............................................................................................
নিজেই তৈরি করুন মজাদার বোরহানি
.............................................................................................
বেদানা লেবুর জুস
.............................................................................................
ইফতারে সুস্বাদু চিকেন ফ্লাওয়ার পট
.............................................................................................
রেসিপি : আম পান্না
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]