| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * বিশ্বের দূষিত শহরের তালিকায় সবার শীর্ষে ঢাকা   * পল্লীকবি জসীম উদদীন সাহিত্য উৎসব   * ট্রাম্পকে ফোন করার কোনো পরিকল্পনা নেই বাইডেনের   * ঘুষ-দুর্নীতি ও সন্ত্রাসীদের দল বিএনপি : তথ্য প্রতিমন্ত্রী   * দেশে কমল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা   * পোশাক শ্রমিকদের ৩০ শতাংশ ঝুঁকি ভাতা প্রদানের দাবি   * পঞ্চগড়ে শৈত্যপ্রবাহ, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯.৬ ডিগ্রি   * ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে ফ্লাইট চলাচল স্বাভাবিক   * ভারতের কর্ণাটকে রহস্যজনক বিস্ফোরণে ভূমিকম্প, নিহত ৮   * প্রধানমন্ত্রীকে দিয়ে ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু হলে জনগণ আগ্রহী হবে: জাফরুল্লাহ  

   প্রবাস -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
করোনাভাইরাস: মালয়েশিয়ায় আতঙ্কে দিন কাটছে প্রবাসীদের

মিয়া আবদুল হান্নান : মালয়েশিয়ায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দেড় লাখ ছাড়িয়েছে। একদিনে দেশটিতে শনাক্ত হয়েছে সর্বোচ্চ ৪ হাজার ২৯ জন। অন্যদিকে এ পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫৯৪ জন। এমন পরিস্থিতিতে ব্যাপক আতঙ্ক আর অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন স্থানীয় নাগরিকসহ প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

জরুরি অবস্থার মধ্যেও প্রতিদিন বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। ৬টি রাজ্যে দ্বিতীয় দফার লকডাউন থাকলেও দেশটিতে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। তবে আন্তঃরাজ্য ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির পাশাপাশি সবাইকে ১০ কিলোমিটারের বেশি পথ ভ্রমণের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। সাধারণ মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন করা হয়েছে সেনাবাহিনী। রাস্তাঘাটসহ বিভিন্ন জায়গায় বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। এ অবস্থায় আতঙ্ক আর অনিশ্চয়তায় দিন কাটছে প্রবাসীদের।

এক প্রবাসী বাংলাদেশি বলেন, আগের তুলনায় মালয়েশিয়ায় করোনা পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ। আমরা জানি না কবে আবার সেই সুস্থ স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারব।

আরেক প্রবাসী বাংলাদেশি বলেন, করোনায় লকডাউনের কারণে সামগ্রিক পরিস্থিতির কারণে আমরা বেকার হয়ে গেছি। বর্তমানে ধৈর্য ধরা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই।

নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রীর দোকানপাট বাদে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। বিনা কারণে ঘর থেকে বের হওয়ায় ইতোমধ্যে কয়েকশ’ জনকে জরিমানাও করেছে কর্তৃপক্ষ। করোনা থেকে বাঁচতে প্রবাসীদের আরও সচেতন ও সরকারের বিধিনিষেধ মেনে চলার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

এদিকে করোনাকালীন বিধিনিষেধের মধ্যেও প্রবাসী বাংলাদেশিদের হাতে দ্রুত পাসপোর্ট পৌঁছে দিতে সরকারের বিধিনিষেধ মেনে গত তিন দিনে আড়াই হাজারের বেশি পাসপোর্ট বিতরণ করা হয়েছে।

মহামারি করোনার এই প্রকোপ নিয়ন্ত্রণে সবাইকে সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য সচেতনতা ও সম্পূর্ণ প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন মালয়েশিয়ার স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

করোনাভাইরাস: মালয়েশিয়ায় আতঙ্কে দিন কাটছে প্রবাসীদের
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : মালয়েশিয়ায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দেড় লাখ ছাড়িয়েছে। একদিনে দেশটিতে শনাক্ত হয়েছে সর্বোচ্চ ৪ হাজার ২৯ জন। অন্যদিকে এ পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫৯৪ জন। এমন পরিস্থিতিতে ব্যাপক আতঙ্ক আর অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন স্থানীয় নাগরিকসহ প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

জরুরি অবস্থার মধ্যেও প্রতিদিন বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। ৬টি রাজ্যে দ্বিতীয় দফার লকডাউন থাকলেও দেশটিতে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। তবে আন্তঃরাজ্য ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির পাশাপাশি সবাইকে ১০ কিলোমিটারের বেশি পথ ভ্রমণের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। সাধারণ মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন করা হয়েছে সেনাবাহিনী। রাস্তাঘাটসহ বিভিন্ন জায়গায় বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। এ অবস্থায় আতঙ্ক আর অনিশ্চয়তায় দিন কাটছে প্রবাসীদের।

এক প্রবাসী বাংলাদেশি বলেন, আগের তুলনায় মালয়েশিয়ায় করোনা পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ। আমরা জানি না কবে আবার সেই সুস্থ স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারব।

আরেক প্রবাসী বাংলাদেশি বলেন, করোনায় লকডাউনের কারণে সামগ্রিক পরিস্থিতির কারণে আমরা বেকার হয়ে গেছি। বর্তমানে ধৈর্য ধরা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই।

নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রীর দোকানপাট বাদে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। বিনা কারণে ঘর থেকে বের হওয়ায় ইতোমধ্যে কয়েকশ’ জনকে জরিমানাও করেছে কর্তৃপক্ষ। করোনা থেকে বাঁচতে প্রবাসীদের আরও সচেতন ও সরকারের বিধিনিষেধ মেনে চলার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

এদিকে করোনাকালীন বিধিনিষেধের মধ্যেও প্রবাসী বাংলাদেশিদের হাতে দ্রুত পাসপোর্ট পৌঁছে দিতে সরকারের বিধিনিষেধ মেনে গত তিন দিনে আড়াই হাজারের বেশি পাসপোর্ট বিতরণ করা হয়েছে।

মহামারি করোনার এই প্রকোপ নিয়ন্ত্রণে সবাইকে সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য সচেতনতা ও সম্পূর্ণ প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন মালয়েশিয়ার স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

করোনায় খালি নেই বেড, অ্যাম্বুলেন্সেই চিকিৎসা
                                  

অনলাইন ডেস্ক : যুক্তরাজ্যে ভয়াবহ রূপে হাজির হয়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। কোনোভাবেই থামানো যাচ্ছে না সংক্রমণ। প্রতিদিন বেড়েই চলেছে আক্রান্ত। সঙ্গে মৃত্যুর মিছিলেও যুক্ত হচ্ছে নতুন সংখ্যা। মহামারিতে খালি নেই হাসপাতালের বেড, অ্যাম্বুলেন্সেই চলছে তাদের চিকিৎসা।

যুক্তরাজ্যে করোনায় মঙ্গলবার নতুন করে একদিনে রেকর্ড সংখ্যক ৫৩ হাজার ১৩৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৪১৪ জনের। যা মহামারি শুরুর পর থেকে একদিনে সর্বাধিক সংখ্যক আক্রান্তের রেকর্ড। এর আগে গত সোমবার সর্বাধিক আক্রান্ত হয়েছিলেন ৪১,৩৮৫ জন।

এদিকে মঙ্গলবার করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন ৪১৪ জন। যা গত সোমবার ছিল ৩৫৭ জন, রোববার ছিল ৩১৬ জন। দেশটিতে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭১ হাজার ৫৬৭ জনে। মঙ্গলবার সকাল ৯টা পর্যন্ত হাসপাতালে ও হাসপাতালের বাইরে করোনায় মৃতের সংখ্যা যুক্ত করা হয়েছে।

এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থামাতে আরো কঠিন বিধি-নিষেধ আরোপ করতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড। এরই মধ্যে ইংল্যান্ডে চলছে টিয়ার ৪ লকডাউন। এর থেকেও কড়াকড়ি আরোপকে টিয়ার ৫ লকডাউন বলে খবর প্রকাশ করেছে দেশটির গণমাধ্যম `দ্য গার্ডিয়ান`।

খবরে বলা হয়েছে, টিয়ার ৪ লকডাউন মহামারি নিয়ন্ত্রণে যথেষ্ট নয় বলে সাবধান করেছেন বিশেষজ্ঞরা। এরই ভিত্তিতে টিয়ার ৫ লকডাউন ঘোষণা করা হতে পারে এমন ইঙ্গিত দিয়েছে সরকারি সূত্র।

প্রায় দুই সপ্তাহজুড়ে লন্ডন, সাউথ-ইস্ট ইংল্যান্ড এবং দেশটির পূর্বাঞ্চলে কঠিন লকডাউন চলছে। এর অধিনে মানুষকে বাড়িতে অবস্থান করতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে নিষিদ্ধ করা হয়েছে হাউজহোল্ড মিক্সিং।বাড়ির বাইরে সর্বোচ্চ একজনের সঙ্গে দেখা করা যাবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিভিন্ন অঞ্চলে কড়াকড়ি আরও কিছুদিন স্থায়ী করা উচিত। বড়দিনের ছুটি চলায় দেশটিতে করোনা পরীক্ষায় ধীরগতি দেখা গেছে। ফলে সাময়িকভাবে সেখানে পরিস্থিতি খারাপের দিকে বলে জানিয়েছে গার্ডিয়ান।

তবে সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, সমগ্র ইংল্যান্ডকেও যদি টিয়ার ৪ লকডাউনের আওতায় আনা হয় তারপরেও ছড়িয়ে পড়া করোনার নতুন স্ট্রেইনকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে না। তাই এখন টিয়ার ৪ এর থেকেও কঠিন লকডাউন আরোপের সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে বলে জানিয়েছে গার্ডিয়ান।

হোয়াইট হল সূত্র থেকে জানা গেছে, টিয়ার ৪ লকডাউন আর কাজ করছে না। সরকার তাই টিয়ার ৪ লকডাউনের আরও একটি স্তর যুক্ত করতে যাচ্ছে। বুধবার প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন নতুন কড়াকড়ি আরোপ করতে পারে।

তবে এই নতুন লকডাউন কেমন হবে তা নিয়ে এখনো কোনো বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যায়নি। একে টিয়ার ৫ লকডাউন বলে ডাকা হবে কিনা তাও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, নতুন পদক্ষেপে স্কুল কলেজগুলো বন্ধ করে দেয়া হবে এবং অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চালু করা হবে।

এদিকে পূর্ব লন্ডনের বাঙালি অধ্যুষিত এলাকায় বেড়েছে করোনায় আক্রান্ত রোগী। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লন্ডনে বসবাসরত অসংখ্য বাংলাদেশি পরিবারের আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে। ফলে প্রবাসী বাংলাদেশির মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

পূর্ব লন্ডনের রয়েল লন্ডন হাসপাতালে করোনা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় লন্ডন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস ও হাসপাতাল রোগীদের সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে। হাসপাতালে বাইরে দাঁড়িয়ে আছে সারি সারি অ্যাম্বুলেন্স। পর্যাপ্ত বেড খালি না থাকায় অনেক রোগীকে অ্যাম্বুলেন্সেই চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

স্পেনে শহীদ বীরমুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ মহান বিজয় দিবস পালিত
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : মহান বিজিয় দিবস উপলক্ষে স্পেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি`র উদ্যোগে এক আলোচনা সভা মাদ্রিদের দিল্লী এক্সপ্রেস রেষ্টুরেন্টে অতিসম্প্রতি বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস ১৬ ডিসেম্বর ২০২০ অনুষ্টিত হয়েছে। সল্প পরিশরে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রবাসী স্পেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল - বিএনপি`র সভাপতি রমিজ উদ্দিন। অত্র সংগঠনের সহ সভাপতি এস এম আহমেদ মনিরের সভাপতিত্বে ,অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মোজাম্মেল হক মনু, মাসুদুর রহমান নাসিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু জাফর রাশেল, যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম ইব্রাহিম, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সাওন আহমেদ,সাংগঠনিক সম্পাদক সুজন মুন্সি,জয়নাল আবেদিন রানা প্রমুখ। উক্ত অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন স্পেন যুবদলের সভাপতি কাজী জসিম। উক্ত সভায় বক্তারা বলেন, নিশীরাতের সরকারের হাতে আজো বাংলাদেশের মানুষ গুম, খুন হচ্ছে, হামলা, মামলায় অনেকে ঘর,বাড়ি, দেশ ছাড়া। স্বাধীন বাংলাদেশের জনগন আজ পরাধীনতার শিকল পরে পালিয়ে বেড়াচ্ছে, তাদের চিৎকারে দেশের আকাশ বাতাস ভারী হচ্ছে তাই দেশের ৪৯ তম মহান বিজয় দিবসে স্বাধীনতা এবং সার্বভৌমত্ব রক্ষা, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা অপরিহার্য হয়ে পড়েছে, দেশ নায়ক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তারেক রহমানের নেতৃত্বে আরেকটি গনতন্ত্র উদ্ধারের মাধ্যমে দেশকে পুর্নঃ স্বাধীনতা অর্জন করতে হবে। সভায় দেশের সকল শহীদ বীরমুক্তিযোদ্ধাদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং সদ্য ইন্তেকাল করেন (ইন্না-লিল্লাহ ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন) বেলজিয়াম শাখার বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি`র সভাপতি আহমদ শাজার রুহের মাগফেরাত ও শোকসন্তপ্ত পরিবার পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

ওমানে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই ভাইসহ তিন বাংলাদেশির মৃত্যু
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ওমানে কর্মরত অবস্থায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দুই ভাইসহ তিন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। তাদের বাড়ি নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলায়। তাদের অকাল মৃত্যুতে পরিবার ও সুবর্ণচরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) রাত ৮টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নিহতদের স্বজন জিয়া উদ্দিন ফারুক। স্থানীয় সময় সকাল ৭টার দিকে তারা মারা যান।

নিহতরা হলেন- সুবর্ণচর উপজেলার চরআমান উল্যা ইউনিয়নের সাতাশদ্রোণ গ্রামের হাজী ফখরুল ইসলামের ছেলে মো. মোস্তফা (৫০), নূর হোসেন নাছির (৪০) ও একই উপজেলার খাসেরহাট বাজার সংলগ্ন আনছার মিয়ারহাট এলাকার বাহার উদ্দিনের ছেলে আলমগীর হোসেন (৩৫)।

তাদের স্বজন জিয়া উদ্দিন ফারুক জানান, জীবিকার সন্ধানে গত ২০বছর আগে ওমানে যান মো. মোস্তফা। এর প্রায় ৫ বছর পর নিজের ছোট ভাই নাছিরকেও ওমানে নিয়ে যান তিনি।
পরবর্তীতে ইলেক্ট্রনিক মিস্ত্রি হিসেবে একই কোম্পানিতে চাকরি নেন মোস্তাফা ও নাছির। গত ৮বছর আগে একই উপজেলার আলমগীর হোসেন ওমানে যান। তারা তিনজন আল ওয়াফা শহরের একই কোম্পানিতে কাজ করতেন। আর তারা একই সঙ্গে বসবাস করতেন। প্রতিদিনের ন্যায় স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকালে তারা একটি কূপে বিদ্যুতের কাজ করতে যায়। প্রথমে আলমগীর হোসেন ওই কূপের মধ্যে নামেন। অনেক সময় পার হলেও সে বাহিরে না আসায় মোস্তফা কূপের ভেতরে যান। কিন্তু দীর্ঘ সময় পার হওয়ার পর আলমগীর ও মোস্তফার কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে নূর হোসেন নাছিরও কূপের ভেতর যান। পরে তাদের তিনজনের কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে সহকর্মীরা বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন ও ফায়ার সার্ভিসকে অবগত করে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা গিয়ে মোস্তফা, আলমগীর ও নাছিরের মরদেহ কূপ থেকে উদ্ধার করেন। মরদেহ স্থানীয় একটি হাসপাতালের মর্গে রাখা রয়েছে জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, মোস্তফা ও নাছিরের বড় ভাই ওমান প্রবাসী মো. ইব্রাহিম মঙ্গলবার দুপুরের দিকে মোবাইলের ফোনে বাড়িতে বিষয়টি জানান। কাজ করার সময় কূপের মধ্যে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তাদের তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে দুই ছেলেকে হারিয়ে বাবা হাজী ফখরুল ইসলাম নির্বাক হয়ে পড়েছেন।

তিনি আরও বলেন, কান্না করতে করতে মুর্চ্ছা যাচ্ছেন মোস্তফার স্ত্রী মাহবুবা সুলতানার। তাদের দুই মেয়ে এক ছেলে, নাছিরের স্ত্রী কুলছুম বেগম তার দুই ছেলে ও দুই মেয়ে। একই অবস্থায় অপর নিহত আলমগীরের বাড়িতেও। নিহতদের পরিবারের লোকজন তাদের মরদেহ দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশ সরকারের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

চরজব্বার থানার ওসি জিয়াউল হক তালুকদার জানান, ওমানে তিন বাংলাদেশি নিহতের বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারের মাধ্যমে আমরা জেনেছি। তবে নিহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ আমাদের অবগত করেনি।

কুয়েত প্রবাসীদের দ্বিতীয় দফা বৈধ হওয়ার সুযোগ
                                  

অনলাইন ডেস্ক : নির্দিষ্ট জরিমানা পরিশোধ করে কুয়েতে থাকা অবৈধ অভিবাসীদের দ্বিতীয় দফায় বৈধ হওয়ার সুযোগ দিয়েছে, দেশটির সরকার। চলতি বছর এপ্রিলে প্রথম দফায় সাধারণ ক্ষমার সুযোগ গ্রহণ করেন প্রায় ৫ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশি।

কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অফিসিয়াল টুইটের বরাত দিয়ে, স্থানীয় ইংরেজি দৈনিক কুয়েত টাইমসের প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, কুয়েতে চলতি বছরের ১ জানুয়ারি বা এর আগে যেসব অভিবাসী অবৈধ হয়েছেন, তাদের জন্য দ্বিতীয় দফা সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছেন কুয়েত সরকার।

যেসব অবৈধ প্রবাসী বৈধভাবে কুয়েতে থাকতে আগ্রহী, তারা সংশ্লিষ্ট কোম্পানি বা অফিসে যোগাযোগ করে, তার ওপর অর্পিত জরিমানা পরিশোধ করে, আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সংশ্লিষ্ট শর্ত ও নিয়ম মেনে আকামা নবায়ন করতে পারবেন।

এ ছাড়া যেসব প্রবাসী কুয়েত ত্যাগে আগ্রহী, তারা অবশ্যই নির্ধারিত জরিমানা পরিশোধ করবেন। যখনই কুয়েত ত্যাগের ঘোষণা দেয়া হবে, তখন চলে যেতে পারবেন তারা। পরবর্তীতে নতুন ভিসায় কুয়েতে প্রবেশের সুযোগ পাবেন তারা।

আর যেসব অবৈধ প্রবাসী নির্ধারিত সময়ে বৈধ হওয়ার সুযোগ গ্রহণ করবেন না, তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তাদেরকে কুয়েত ত্যাগে বাধ্য করা হবে এবং তারা পরবর্তীতে কুয়েতে প্রবেশ করতে পারবেন না। সূত্র: সময় সংবাদ

ইতালিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি যুবক নিহত
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ইতালিতে ইয়াসিন আহম্মেদ সোহাগ নামে এক বাংলাদেশি যুবক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন।

রাজধানী রোমের মন্তেভেরদে নামক স্থানে রোববার স্থানীয় সময় আনুমানিক রাত সাড়ে ১০টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

খান সোহাগ নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশি জানান, কেনাকাটা করে বাসায় ফিরছিলেন ইয়াসিন। রাস্তা পার হওয়ার সময় প্রাইভেটকারের ধাক্কায় তিনি ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

নিহতের গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবায়। তার ২ বছরের একটি কন্যাসন্তান রয়েছে।

ইয়াসিনের মৃত্যুতে ইতালির ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

মরিশাসে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি নিহত
                                  

প্রবাস ডেস্ক : মরিশাসে সড়ক দুর্ঘটনায় চার বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আরও কয়েক ডজন লোক।

বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ভারত মহাসাগরের দ্বীপরাষ্ট্রটির রাজধানী পোর্ট লুইসের পাইল নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, আহতদের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের পার্শ্ববর্তী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হতাহত সবাই দেশটির হাইবেক পার্টনার নির্মাণ কোম্পানিতে কাজ করতেন।

এক প্রবাসী বাংলাদেশি জানান, শ্রমিকরা বাসযোগে কাজে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাইল নামক স্থানে একটি বাসস্ট্যান্ডের ভেতরে ঢুকে পড়ে। এতে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

নিহত চারজনের মরদেহ যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দেশে পাঠানো হবে বলে দূতাবাস থেকে জানানো হয়েছে। এ ঘটনায় দেশটিতে প্রবাসী বাংলাদেশি কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

দূতাবাস কর্মকর্তা মো. অহিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, যত দ্রুত সম্ভব মরদেহ দেশে পাঠানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এখানকার শ্রম মন্ত্রণালয় যেন ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করে সেজন্য দূতাবাস কাজ করছে।

তিনি বলেন, মরিশাসে বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতাকর্মীরা আমাদের সার্বিক সহযোগিতা করছে। হাইকমিশন আহত সবার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। আগামীকাল তাদের জানাজা হবে।

এখনই কাটছে না প্রবাসী কর্মীদের অনিশ্চয়তা
                                  

অনলাইন ডেস্ক : কোভিড-১৯ দ্বিতীয় তরঙ্গের কারণে মহামারী দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। ফলে প্রবাসী কর্মীদের সংকট আরও ঘনীভূত হচ্ছে। বিদেশে চাকরি হারিয়ে প্রতিদিনই কর্মীরা দেশে ফিরছেন। নতুন করে কর্মী কোনো দেশে পাঠানো যাচ্ছে না।

প্রবাসী কর্মসংস্থানে একটা অনিশ্চিত পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। সরকার মনে করছে, মহামারীর উন্নতি না হলে বিদেশে নতুন করে কর্মী পাঠানো সম্ভব হবে না। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিদেশফেরত কর্মীদের দেশে পুনর্বাসনের চেষ্টা করছে সরকার।

মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত ২ লাখ ২৫ হাজার বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। এছাড়া মহামারীর আগে প্রতিমাসে ৫০ থেকে ৬০ হাজার কর্মী চাকরি নিয়ে বিদেশ যেতেন। এখন কর্মীদের বিদেশ পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না। ফলে গেল ৭ মাসে ৪ লাখ কর্মী বিদেশ যাওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। আবার ছুটিতে যারা দেশে এসেছিলেন, তারাও অনেকে যেতে পারেননি।

এ অবস্থায় কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় তরঙ্গ `মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা` হিসেবে দেখা দিয়েছে। ইউরোপে ইতোমধ্যে দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়ে গেছে। স্পেনে রাতে কারফিউ এবং দিনে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। ইউরোপের অপরাপর দেশগুলোর অবস্থাও একই। মধ্যপ্রাচ্যসহ বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী শ্রমবাজারে দ্বিতীয় তরঙ্গ না এলে পরিস্থিতির উন্নতি হবে বলে সংশ্লিষ্টরা আশা করছেন। শীত মৌসুম শেষ না হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশের অবস্থা কোনদিকে যাচ্ছে, তা বোঝা যাচ্ছে না।

মহামারীর সময়ে কোম্পানিগুলো বন্ধ থাকায় কর্মীরা কাজ হারিয়ে দেশে ফিরে আসেন। পাশাপাশি কোনো কোনো দেশ তাদের কারাগারে থাকা বন্দিদের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছেন। সাজাপ্রাপ্ত বাংলাদেশিরা কারামুক্তি পেয়ে ফিরে এসেছেন।

জানতে চাইলে জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো (বিএমইটি) মহাপরিচালক মো. সামছুল আলম সোমবার যুগান্তরকে বলেন, `বিগত সাত মাসে দুই লাখের বেশি কর্মী দেশে ফিরেছেন। মহামারীর আগে প্রতিদিন কমপক্ষে তিন হাজার কর্মী বিদেশ যেতেন। এখন কর্মী বিদেশ যাওয়া বন্ধ। তবে মহামারী পরিস্থিতির উন্নতি হলে দ্রুত সংকট কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে। এছাড়া ফিরে আসা কর্মীদের আবার পাঠানো সম্ভব না হলে দেশে পুনর্বাসনের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।`

তিনি আরও বলেন, `সরকার বিদেশফেরতদের জন্য প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের মাধ্যমে চার শতাংশ সুদে ঋণ দেয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। এজন্য পর্যাপ্ত তহবিল আছে। এর বাইরে বিদেশ থেকে বিভিন্ন কাজের অভিজ্ঞতা নিয়ে ফিরে আসাদের সংক্ষিপ্ত প্রশিক্ষণ দিয়ে সনদপত্র দেয়া হবে। এর মাধ্যমে কর্মীরা ভবিষ্যতে বিদেশে বেশি কাজের সুযোগ পাবেন।`

বিদেশে নতুন কোনো শ্রমবাজার খোঁজা হচ্ছে কি না জানতে চাইলে বিএমইটি মহাপরিচালক বলেন, `মহামারী পরিস্থিতির উন্নতি হলে নতুন বাজার খোঁজা সম্ভব হবে। বিশেষ করে মালয়েশিয়ার বাজার খোলার চেষ্টা করা হচ্ছে। সবকিছুই পরিস্থিতির উন্নতির ওপর নির্ভর করছে।`

জানতে চাইলে রিফিউজি অ্যান্ড মাইগ্রেটরি মুভমেন্ট ইউনিট (রামরু) প্রধান অধ্যাপক তাসনীম সিদ্দিকী যুগান্তরকে বলেন, `বর্তমান সংকটের কারণে আগামী বছরের রেমিটেন্সে প্রভাব পড়বে। বিদেশ থেকে ফিরে আসা কর্মীদের অনেকের বেতন পাওনা রয়ে গেছে। সেগুলো আদায়ে সরকারের পদক্ষেপ নেয়া দরকার`।

তিনি আরও বলেন, `প্রবাসী কর্মীরা নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন। এবার সৌদি আরব ফিরে যাওয়ার বিমান টিকিট পেতে এবং ভিসার মেয়াদ বাড়াতে কী পরিমাণ ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছে। সরকারের দফতরগুলোর সমন্বয়ের অভাব ছিল। প্রবাসী কর্মীদের জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকারের কোনো নীতিমালা নেই। এটা থাকা খুবই জরুরি।`

জানতে চাইলে ব্র্যাকের অভিবাসন বিভাগের প্রধান শরিফুল হাসান যুগান্তরকে বলেন, `সংকট থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে মধ্যপ্রাচ্যে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা বাড়ানোর পাশাপাশি বিকল্প শ্রমবাজার খুঁজতে হবে।

তেলের দাম কমে যাওয়াসহ নানা কারণে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো সংকটে আছে। এখন বিকল্প বাজার খোঁজতে হবে।` তিনি আরও বলেন, `বিদেশে কর্মী পাঠানো বন্ধ থাকায় মানবপাচার প্রবণতা বাড়তে পারে। এটা যাতে না বাড়ে, সেদিকে বিশেষ নজর রাখতে হবে।` সূত্র: যুগান্তর

কানাডায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি
                                  

অনলাইন ডেস্ক : এবার দুর্গাপূজা শুরু হচ্ছে এক মাস পর; অর্থাৎ আগামী ২১ অক্টোবর থেকে। এদিন দেবীর বোধন।

বরফাচ্ছন্ন কানাডার ক্যালগেরিতে আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু হবে আগামী ২১ অক্টোবর থেকে।

কিন্তু এবারের আয়োজনে প্রবাসী বাংলাদেশীরা করোনাকালে শুধু ধর্মীয় রীতিনীতি মেনে পূজা-অর্চনার মাধ্যমে মন্দির প্রাঙ্গণের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে সব আয়োজন। বয়স্ক ব্যক্তি ও শিশু এবার পূজায় আসতে পারবে না। তাদের জন্য ভার্চুয়ালি অঞ্জলির ব্যবস্থা থাকবে সব আয়োজনে।

এবার দুর্গাপূজায় স্বাস্থ্যবিধি ও গাইডলাইন কঠোরভাবে পুণ্যার্থীদের মেনে চলতে হবে। এর মধ্যে মন্দির প্রাঙ্গণে নারী-পুরুষের প্রবেশ ও বের হওয়ার পথ আলাদা থাকবে।

এ ছাড়া পূজামণ্ডপে আসা ব্যক্তিরা নির্দিষ্ট দূরত্ব (কমপক্ষে দুই মিটার) বজায় রেখে লাইন ধরে সারিবদ্ধভাবে প্রবেশ করবেন এবং প্রণাম শেষে বের হয়ে যাবেন।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে পুষ্পাঞ্জলি প্রদানের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে এবং ভক্তের সংখ্যা অধিক হলে একাধিকবার পুষ্পাঞ্জলির ব্যবস্থা করতে হবে।

পূজাণ্ডপে আসা সবার মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। মাস্ক না পরে এলে কাউকে পূজামণ্ডপে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। এ ছাড়া মন্দিরের প্রবেশ পথে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা সাবান দিয়ে হাত ধোয়া এবং তাপমাত্রা পরিমাপের জন্য থার্মাল স্ক্যানারের ব্যবস্থা থাকবে।

গত বছরের মতো এ বছর আলোকসজ্জ্বা হবে না পূজামণ্ডপে। নানা মাত্রিক আচার অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শারদীয় উৎসবে চলবে দেবী দুর্গার আরাধনা।

ক্যালগেরির `আমরা সবাই`-এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রূপক দত্ত বলেন, আসছে শুভ দিনে মায়ের আশীর্বাদে দেশে ও বিশ্বের মধ্যে শান্তি বিরাজ করবে, আগামী দিনগুলো আরও সুন্দর হয়ে উঠবে, করোনাসহ সব জড়াব্যাধি, পাপ ও পঙ্কিলতা দূর হয়ে মানুষের মধ্যে শান্তি ফিরে আসবে এমনটিই আমাদের প্রত্যাশা।

ক্যালগেরি বঙ্গীয় পরিষদের সাবেক সভাপতি, বিশিষ্ট রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী কিরণ বণিক শংকর বলেন, ক্যালগেরি বঙ্গীয় পরিষদ এই শহরে সর্বপ্রথম এবং সর্ববৃহৎ পূজার আয়োজন করে আসছে। কিন্ত এবার ভিন্ন প্রেক্ষাপটে পূজা হবে।

বাংলাদেশ পূজা পরিষদ অব ক্যালগেরির এক্সকিউটিভ কমিটির সদস্য প্রকৌশলী সুব্রত বৈরাগী বলেন- দুর্গতি বিনাশ করার জন্য দেবীর আবির্ভাব। তাই দেবীর নামকরণ ‘দুর্গা’। আমরা বিশ্বাস করি, দেবী সর্বত্র আছেন, মঙ্গলের বার্তা দিয়ে তিনি পৃথিবীকে শান্তিময় করে তুলবেন।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশীদের জন্য সেকেন্ড হোম অবস্থান তৃতীয়
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : আট হাজারেও বেশি বাংলাদেশী নাগরিক স্ব-পরিবারে বসবাস ও ব্যবসা চাকরি করতেছে। মালয়েশিয়ায় সেকেন্ডহোম সুবিধা নিয়ে ফ্লাট কিনে বসবাস করছেন। সেকেন্ড হোম হিসেবে যেসব বিদেশি নাগরিক মালয়েশিয়াকে বেছে নিচ্ছেন তাদের মধ্যে বাংলাদেশিদের অবস্থান তৃতীয়। এই কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া বিদেশিরা স্থাবর সুবিধা ও রাজস্ব হিসেবে দেশটির জাতীয় অর্থনীতিতে যোগ হচ্ছেন। বিশ্লেষকরা বলছেন, মালয়েশিয়ায় টাকার উৎস নিয়ে প্রশ্ন না করায় অনেক বাংলাদেশী এই সুযোগ নিচ্ছেন। সম্প্রতি দেশটির সারওয়াকে সেকেন্ড হোম কর্মসূচিতে নতুন সংশোধিত প্রয়োজনীয়তা এবং বিধিমালা রাজ্য মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পেয়েছে। এতে করে নতুন নীতিমালায় রাজ্যে বাড়ি নির্মাণে বা সেকেন্ড করতে বিদেশিদেরা আকৃষ্ট হবেন বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট বিভাগ।

ভিসার মেয়াদ বাড়াতে কফিলেই শেষ ভরসা
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ভিসা ও ইকামার মেয়াদ বাড়াতে নিরুপায় হয়ে প্রবাসীরা নিজ উদ্যোগে কফিলের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছেন। কেউ আবার নিচ্ছেন দালালের সহায়তা।

যে কোনো মূল্যে ভিসা নবায়ন করে কাজে ফিরতে মরিয়া হাজার হাজার সৌদি প্রবাসী। গত মার্চ মাসে যারা ভিসা নিয়ে করোনার কারণে যেতে পারেননি তাদেরও নতুন করে ভিসা নিতে হবে।

এ সংখ্যা প্রায় ২৫ হাজার। সময়মতো টিকিট না পাওয়ায় ভোগান্তি কাটছে না সৌদি প্রবাসীদের। নানা জায়গায় ধরনা দিয়েও সংশ্লিষ্টরা ভিসা নবায়নের সুনির্দিষ্ট আশ্বাস পাচ্ছেন না।

অন্যান্য দিনের মতো বৃহস্পতিবারও টিকিটের জন্য মতিঝিলে বিমান ও সোনারগাঁও হোটেলে সাউদিয়া এয়ারলাইন্স অফিসের সামনে ছিল ভিড়।

সকাল থেকে কয়েক হাজার কর্মী সেখানে জড়ো হন। যাদের ভিসার মেয়াদ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে তাদের অনেকেও আসেন সেখানে। ভিসা ও আকামার মেয়াদ না থাকায় তাদের কোনো টিকিট দেয়া হচ্ছে না। গতকাল সাউদিয়া এয়ারলাইন্সে ৪০০ টিকিট দেয়া হয়।

এর মধ্যে ‘এ’ সিরিয়ালের ২০০ এবং ‘বি’ সিরিয়ালের ২০০ টিকিট দেয়া হয়। টিকিটের জন্য ৪ অক্টোবর থেকে নতুন টোকেন দেয়ার কথা রয়েছে সৌদি এয়ারলাইন্সের। মতিঝিলের বিমান অফিসে সকাল ১০টা থেকে টিকিট দেয়া শুরু হয়েছে।

যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পথে তারাই ভিড় করছেন বিমান অফিসের সামনে। গতকাল ৫ অক্টোবরের ঢাকা-জেদ্দা, ঢাকা-দাম্মামের টিকিট দেয়া হয়।

কফিল না চাইলে ভিসার মেয়াদ বাড়ানো সম্ভব নয়। এ নিয়ে তাদের কিছু করার নেই। সরকারের এমন ঘোষণার পর মেয়াদ শেষ এমন অধিকাংশ প্রবাসী হতাশ হয়ে পড়েন। মেয়াদ বাড়াতে সরকার কোনো উদ্যোগ নেবে না- এমনটা ধরে নিয়ে অনেকেই নিজ উদ্যোগে কাজ শুরু করেছেন। তারা নিজেরাই কফিলের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।

সৌদি দূতাবাসের নির্দেশিত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আনার চেষ্টা করছেন। কিন্তু বেশির ভাগ সৌদি প্রবাসী কফিলের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারছেন না। বিশেষ করে যারা বড় কোম্পানিতে কাজ করেন তাদের সঙ্গে কফিলের সরাসরি কোনো যোগাযোগই নেই।

নিজেরা না পেরে এ ক্ষেত্রে অনেকে নিচ্ছেন দালালের সহায়তা। প্রয়োজনীয় কাগজ এনে দেয়ার বিনিময়ে অনেকের কাছে মোটা অঙ্কের টাকাও দাবি করছেন তারা। টাকা দেয়ার পরও তা পাবেন কিনা সেই ভরসাও করতে পারছেন না কেউ।

আবার করোনার কারণে সৌদির অনেক প্রতিষ্ঠান এখনও পুরোপুরি খোলেনি। তাই ওইসব প্রতিষ্ঠানে কর্মরতরা কফিলের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না।

জানা গেছে, সৌদি আরবে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালুর পর অর্থাৎ ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে কাজে ফেরা শুরু হয়। সৌদি এয়ারলাইন্সের পাশাপাশি বাংলাদেশ বিমানও তাদের ফ্লাইট চালু করেছে। দুই এয়ারলাইন্স মিলে এখন পর্যন্ত সাড়ে তিন হাজারের মতো সৌদি প্রবাসী সেদেশে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছেন।

বাকিদের মধ্যে যাদের ভিসার মেয়াদ আছে তারা যাওয়ার অপেক্ষায় আছেন। ২৬ সেপ্টেম্বর ফ্লাইট শুরুর পর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে সৌদি আরবে গেছেন ৯১০ জন। ২৬ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিনটি ফ্লাইট পরিচালনা করে বিমান।

এদিকে ২৩ সেপ্টেম্বর ফ্লাইট চালুর পর সাউদিয়া এয়ারলাইন্সে গেছেন ২৪০৮ জন প্রবাসী। ২৩ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৮টি ফ্লাইট পরিচালনা করে এয়ারলাইন্সটি। তবে গতকাল থেকে দুটি এয়ারলাইন্সেই ফ্লাইট সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ঢাকা থেকে সৌদি আরবের উদ্দেশে এখন থেকে সপ্তাহে ২০টি করে ফ্লাইট যাবে। এর মধ্যে সাউদিয়া এয়ারলাইন্সের ১০টি এবং বিমান বাংলাদেশের ১০টি।

২৫ হাজার সৌদি প্রবাসীর নতুন করে ভিসা নিতে হবে
                                  

অনলাইন ডেস্ক : বাংলাদেশে অবস্থানরত প্রায় ২৫ হাজার সৌদি প্রবাসীকে পুনরায় ভিসা নিতে হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) গালফ অঞ্চলের ছয়টি দেশ এবং মালয়েশিয়ার প্রতিনিধিদের সঙ্গে প্রবাসী এবং শ্রমিক ইস্যুতে বৈঠকে বসেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন এবং প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী ইমরান আহমদ। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একথা জানান।

তিনি জানান, দেশটিতে যাদের কর্মসংস্থান আছে কিন্তু করোনাকালে দেশে আসার পর ভিসার মেয়াদ পেরিয়ে যায়, তাদের আবারও ভিসা নিয়েই দেশটিতে ফিরতে হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, যারা দেশে চলে এসেছিলেন তাদের মধ্য থেকে যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে কিন্তু সেখানে চাকরি আছে তাদের নতুন করে ভিসা নিতে হবে। সৌদি কর্তৃপক্ষ ভিসা নতুন করে ইস্যু করবে বলে জানিয়েছে।

এছাড়া, দেশে অবস্থানরত প্রবাসীদের সৌদি আরবে কাজের জন্য যেতে চাইলে সেখানকার নিয়োগকর্তাদের ছাড়পত্র লাগবে বলে জানান তিনি।

খাওয়ার পয়সা নেই লেবানন প্রবাসী বাংলাদেশিদের
                                  

অনলাইন ডেস্ক : লেবাননের বৈরুত বিস্ফোরণের পর দেশটির রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক অচলাবস্থা আরও প্রকট হয়েছে। বন্ধ হতে বসেছে শ্রমবাজার। মাসের পর মাস বেতন না পাওয়া, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও অর্থের মান কমে যাওয়ায় দেশটিতে থাকার আশা একেবারেই ছেড়ে দিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রবাসী বলেন, `গেল কয়েক বছর ধরেই নানামুখী সংকটে লেবাননের শ্রম বাজার। আগস্টের ভয়াবহ বিস্ফোরণ এ সংকটের কফিনে শেষ পেরেকটিও ঠুকেছে। দেশটিতে বাংলাদেশিদের বেশিরভাগেরই কাজ নেই। যাদেরও বা কাজ রয়েছে তারা এখন অনেক কম পারিশ্রমিক পাচ্ছেন`।

তিনি বলেন, `দেশে অর্থ পাঠানো তো দূরের কথা, নিজেই তিন বেলা খেয়ে-পরে থাকতে পারছি। এ অবস্থায় দেশে ফেরাকেই একমাত্র সমাধান দেখছি`। মাসের পর মাস বেতন না পাওয়া, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও অর্থের মান কমে যাওয়ায় ধস নেমেছে অর্থনীতিতে। এছাড়া রাজনৈতিক দলগুলোর বিভাজন ও ফ্রান্সসহ পশ্চিমা দেশগুলোর আধিপত্যেও সংকট আরও ঘোলা হয়েছে।

দেশটিতে অর্থনৈতিক মন্দা, ডলার সংকট ও করোনা পরিস্থিতিসহ খাদ্যদ্রব্যের কয়েকগুণ মূল্য বৃদ্ধির কারণে দেড় লাখ বাংলাদেশির জীবন জীবিকা হুমকির মুখে। পরিস্থিতি বাধ্য করছে অনেক বৈধ প্রবাসীকেই বাংলাদেশে ফিরে যেতে।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘদিন বিমান চলাচল বন্ধ থাকার পর লেবানন থেকে ফিরেছে আটকেপড়া আরও ৪শ ১২ জন বাংলাদেশি। বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইট বৃহস্পতিবার বৈরুতের রফিক হারিরি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়ন করে।

বিশেষ বিমানে ফিরতে পেরে আটকেপড়া বাংলাদেশিরা বাংলাদেশ সরকার ও বাংলাদেশ দূতাবাসকে ধন্যবাদ জানিয়েছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় দীর্ঘদিন যাবত নিবন্ধিত বাংলাদেশিদের দেশে ফেরার পথ বন্ধ ছিল।

লেবাননে দেড় লাখের বেশি বাংলাদেশি বাস। দূতাবাস বলছে, আগ্রহীদের দেশে পাঠাতে সাধ্য মতো কাজ চলছে। খাদ্যপণ্য ও জরুরি চিকিৎসা সামগ্রীর পর এবার বৈরুতের ক্ষতিগ্রস্ত ভবনগুলোর জন্য ত্রাণ সামগ্রী পাঠিয়েছে বাংলাদেশ।

১৯৯১ সালে ২৫ জন নারী কর্মীর মাধ্যমে লেবাননে বাংলাদেশি কর্মী যাওয়া শুরু। বর্তমানে মোট বাংলাদেশি আছেন প্রায় ১ লাখ ৬৮ হাজার। এছাড়া নারী শ্রমিক প্রায় এক লাখ।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিদের প্রবেশে সুখবর
                                  

অনলাইন ডেস্ক : বাংলাদেশসহ প্রায় ২৩টি দেশের নাগরিকদের মালয়েশিয়া প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারির মাত্র দুই দিন পর তা শিথিল করেছে মালয়েশিয়া।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) দেশটির মন্ত্রিসভার বিশেষ বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এরপর কোভিড-১৯ এর নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানিয়েছেন দেশটির জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী দাতুক সেরি ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব।

তিনি বলেন, প্রবাসী এবং পেশাদারদের মালয়েশিয়ায় প্রবেশের আগে ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট থেকে অনুমোদন নিতে হবে। তাদের আবেদনের সঙ্গে মালয়েশিয়ান ইনভেস্টমেন্ট ডেভেলপমেন্ট অথরিটিস অথবা সম্পর্কিত সংস্থা থেকে একটি সাপোর্ট লেটার থাকতে হবে।

এর আগে গত ৭ সেপ্টেম্বর শুরুতে মালয়েশিয়া সরকার জানায়, যেসব দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দেড় লাখের বেশি সেই দেশগুলো মালয়েশিয়া প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার অন্তর্ভুক্ত থাকবে। কিন্তু দুইদিনের মাথায় ২৩টি দেশের নাগরিকদের ওপর আরোপিত ‘প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা’ শিথিল করলো মালয়েশিয়া।

এছাড়া স্থায়ী বাসিন্দাদের পাশাপাশি মালয়েশিয়ান নাগরিকদের ভিনদেশি স্ত্রীদের প্রবেশেও বাধা নেই। তবে এটি হবে ‘ওয়ান-ওয়ে’ জার্নি, অর্থাৎ সেখানে গিয়ে তাদের থেকে যেতে হবে এবং পাস-হোল্ডার শিক্ষার্থীরাও দেশটিতে যেতে পারবেন। তবে নতুন কোনো শিক্ষার্থী পরবর্তী ঘোষণার আগে আবেদন করতে পারবেন না।

মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিকদের জন্য আবাসন : বাস্তবায়নে টালবাহানা
                                  

অনলাইন ডেস্ক : মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিকদের আবাসন আইন বাস্তবায়নে চলছে টালবাহানা। এর বাস্তবায়নে আরও সময় চেয়েছে দেশটির চাকরিজীবী ফেডারেশন। তবে সময় না বাড়িয়ে দ্রুত এটি কার্যকর করতে সরকারকে আহ্বান জানিয়েছে দেশটির ট্রেড ইউনিয়ন কংগ্রেস (এমটিইউসি)।

গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে মালয়েশিয়ায় কর্মরত বিদেশি শ্রমিকদের আবাসন আইন কার্যকর করেছে সরকার। আর এ আইন অমান্য করলে ৫০ হাজার রিঙ্গিত জরিমানার বিধানও করা হয়েছে।

এদিকে, মালয়েশিয়ার নিয়োগকর্তারা বলছেন, করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে বিদেশি কর্মীদের ভালো আবাসন সরবরাহ করতে তাদের নতুন বিধিবিধানগুলো পূরণের জন্য আরও সময় প্রয়োজন।

এর আগে সরকার মার্চ মাসে ঘোষণা করেছিল, নিয়োগকর্তাকে অবশ্যই তাদের আইনের অধীনে সমস্ত খাতে কর্মীদের আবাসন সরবরাহ করতে হবে।

নতুন নিয়মে নিয়োগকর্তাদের প্রতিটি কর্মীকে একটি বিছানা প্রদান করতে হবে যা ১.৭ বর্গ মিটারের চেয়ে কম নয়। প্রতিটি কর্মীকে অবশ্যই একটি গদি দিতে হবে যা কমপক্ষে ১০ সেন্টি মিটার, একটি বালিশ এবং একটি কম্বলও প্রদান করতে হবে। প্রতিটি কর্মীকে অবশ্যই লকসহ একটি আলমারি দিতে হবে।

মালয়েশিয়ার এমপ্লয়ার্স ফেডারেশনের নির্বাহী পরিচালক শামসুদ্দীন বরদান বলেছেন, কোভিড-১৯ মহামারির কারণে নিয়ম মেনে চলার জন্য আরও বেশি সময় প্রয়োজন। নিয়োগকর্তাদের গাইড করার জন্য কমপক্ষে এক বছর সময় আমাদের দরকার। তবে এই চেষ্টা চলাকালীন সময়ে চাপ সৃষ্টি না করার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিকদের জন্য আবাসন : বাস্তবায়নে টালবাহানা

তিনি বলেন, নির্দিষ্ট আকারের ঘন গদি এবং আলমারি সরবরাহের মতো নির্দিষ্ট শর্তগুলো পূরণে সময় লাগবে।

মালয়েশিয়ায় ২২ লাখ নিবন্ধিত বিদেশি কর্মী রয়েছেন এবং আরও দুই মিলিয়নেরও বেশি যারা অবৈধভাবে কাজ করেন।

তবে কেবলমাত্র নিবন্ধিত কিছু অভিবাসী শ্রমিককে তাদের নিয়োগকর্তারা বাড়িঘর ভাড়া দিয়ে থাকেন, ভাড়া সংক্রান্ত শপ লট এবং নির্মাণ সাইটের অস্থায়ী কোয়ার্টারে।

ফেডারেশন অফ মালয়েশিয়ার ম্যানুফ্যাকচারার্স সভাপতি সোহ থিয়ান লাই বলেন, চলমান সংকটে ৫০ হাজার রিঙ্গিত জরিমানার কারণে সরকারের এই পরিকল্পনা বেশিরভাগ শিল্পের ব্যবসায়িক পুনরুজ্জীবন উদ্যোগকে মারাত্মকভাবে বাধাগ্রস্ত করবে।

এমটিইউসি বলছে, বিদেশি শ্রমিকদের আবাসন ও সুযোগ-সুবিধাগুলো বাস্তবায়নে বিলম্ব হওয়াই অভিবাসীদের পদ্ধতিগত শোষণের কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

সংস্থার সেক্রেটারি জেনারেল জে. সলোমন বলছেন, মালয়েশিয়ার নিয়োগকারী ফেডারেশন (এমইএফ) দ্বারা শ্রমিকদের আবাসনের বিষয়ে নতুন আইন কার্যকর না করার জন্য সরকারকে অনুরোধ করার কারণগুলো হতাশাজনক। কারণ নিয়োগকর্তারা শ্রমিকদের শালীন জীবনযাপনের মৌলিক অধিকার অস্বীকার করে চলেছে। অল্প দক্ষ এবং স্থানীয়ভাবে অভিবাসী শ্রমিকদের স্বল্প বেতনে নিয়োগ দিয়ে প্রচুর মুনাফা অর্জন করে চলেছে তারা। এটি অবশ্যই লক্ষ্য করা উচিত যে, প্রতিবার মালয়েশিয়ায় নিয়োগকর্তাদের শ্রমিকদের জীবিকা নির্বাহের জন্য বা তাদেরকে কিছুটা চাকরির সুরক্ষার ব্যবস্থা করার জন্য বলা হয়।

তিনি আরও বলেন, অভিবাসী শ্রমিকরা স্বল্প বেতনের পাশাপাশি নানা সমস্যায় ভুগছেন, তারা সামান্য আইনি সুরক্ষাসহ জটিল ও অস্বাস্থ্যকর পরিস্থিতিতেও জীবনযাপন করতে বাধ্য হচ্ছেন। দেরি না করে শ্রমিকদের আবাসন, সুযোগ-সুবিধার আইন বাস্তবায়নে সরকারকে আহ্বান জানিয়েছেন এ কংগ্রেস নেতা।

পাঁচ মাসে ২৭ দেশ থেকে ফিরেছেন লক্ষাধিক কর্মী
                                  

সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ বিশ্বের ২৭টি দেশ থেকে গত পাঁচ মাসে (১ এপ্রিল থেকে ১ সেপ্টেম্বর) দেশে ফেরত এসেছেন এক লাখ দুই হাজার ২২৬ জন প্রবাসী। তাদের মধ্যে পুরুষ ৯৪ হাজার ২১০ জন ও নারী আট হাজার ১৬ জন। এদের অর্ধেকেরই বেশি মাত্র দুটি দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত ও সৌদি আরব থেকে ফেরত এসেছেন।

ফেরত আসাদের কেউ বিভিন্ন মেয়াদে কারাভোগ করে আউটপাস, কেউ করোনার কারণে কাজ না বা চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়া আবার কেউ ভিসার মেয়াদ না থাকায় সাধারণ ক্ষমার আওতায় দেশে ফেরত এসেছেন।

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। সূত্র জানায়, বিদেশফেরত কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে অনেকেরই ফিরে আসার কারণ জানা গেছে। আবার কারও কারও ফিরে আসার কারণ জানা যায়নি।

২৭টি দেশের মধ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে ফেরত আসেন ৩১ হাজার ৩৯৪ জন (পুরুষ ২৯ হাজার ৭৩২ জন ও নারী এক হাজার ৬৬২ জন)। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কাজ না থাকায় তারা কর্মীদের পাঠিয়ে দিয়েছে। কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তাদের আবার নেয়ার কথা বলে দেশে ফেরত পাঠিয়েছে। অনেকেই বলছেন তারা ছুটিতে এসেছেন।

সৌদি আরব থেকে ২২ হাজার ৪২৭ জন (পুরুষ ১৯ হাজার ৮২৯ জন ও নারী দুই হাজার ৫৯৮ জন) ফেরত আসেন। বিভিন্ন মেয়াদে কারাভোগ করে আউটপাস নিয়ে তারা দেশে আসেন।

মালদ্বীপ থেকে আট হাজার ৮২৩ জন (পুরুষ আট হাজার ৭৬৬ ও নারী ৫৭ জন) ফেরত আসেন। পর্যটননির্ভর দেশ হওয়ায় করোনার কারণে কাজ নেই তাই মালিক/কোম্পানি তাদের ফেরত পাঠিয়েছে।

কুয়েত থেকে আট হাজার ২৩৭ জন (পুরুষ আট হাজার ১৩৪ জন ও নারী ১০৩ জন) ফেরত আসেন। আকামা বা ভিসার মেয়াদ না থাকায় বা অবৈধ হওয়ায় সাধারণ ক্ষমার আওতায় ফেরত আসেন আবার অনেক কর্মী বিভিন্ন মেয়াদে কারাভোগ করে দেশে ফিরেছেন।

কাতার থেকে ফেরত এসেছেন আট হাজার ২২১ জন (পুরুষ সাত হাজার ৬১৫ জন ও নারী ৬০৬ জন)। কাজ নেই তাই ফেরত এসেছেন। ওমান থেকে ফেরত এসেছেন ছয় হাজার ৭১৫ জন (পুরুষ ছয় হাজার ১৫৩ জন ও নারী ৫৬২ জন)। বিভিন্ন মেয়াদে কারাভোগ করে আউটপাস নিয়ে তারা দেশে আসেন।

মালয়েশিয়া থেকে ফেরত এসেছেন তিন হাজার ৪৩৫ জন (পুরুষ তিন হাজার ২৩৩জন ও নারী ২০২ জন)। কাজ নেই তাই ফেরত এসেছেন। দক্ষিণ কোরিয়া থেকে ফেরত এসেছেন ১০০ জন এবং তাদের সবাই পুরুষ। চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ায় তারা দেশে ফিরে আসেন।

ইরাক থেকে ফেরত এসেছেন তিন হাজার ১০১ জন (পুরুষ তিন হাজার ৯৬ জন ও নারী পাঁচজন)। কাজ নেই তাই ফেরত এসেছেন তারা। শ্রীলঙ্কা থেকে ফেরত এসেছেন ১৩৫ জন এবং তাদের সকলেই পুরুষ। কাজের মেয়াদ শেষে তারা ফেরত আসেন।

তুরস্ক থেকে ফেরত আসেন দুই হাজার ৯৯৮ জন। (পুরুষ দুই হাজার ৭৩৯ জন ও নারী ২৬০ জন)। কী কারণে ফেরত আসেন তা উল্লেখ করা হয়নি। লেবানন থেকে ফেরত আসেন দুই হাজার ১৮৫ জন (পুরুষ এক হাজার ৪০১ জন ও নারী ৭৮৪ জন)। কী কারনে ফেরত আসেন তার উল্লেখ নেই।

জর্দান থেকে ফেরত এসেছেন এক হাজার ৩৯২ জন (পুরুষ ২৭২ জন ও নারী এক হাজার ১২০ জন)। তাদের সবাই গার্মেন্টস শ্রমিক। চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ায় ফিরে এসেছেন তারা। সিঙ্গাপুর থেকে ফেরত এসেছেন এক হাজার এক হাজার ৬০৪ জন (পুরুষ এক হাজার ৬০০ জন ও নারী চারজন)। কাজের বা চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ায় তারা দেশে ফেরত আসেন।

বাহরাইন থেকে ফেরতে এসেছেন ৭৪৬ জন এবং তাদের সকলেই পুরুষ। বিভিন্ন মেয়াদে কারাভোগ করে আউটপাস নিয়ে দেশ আসেন। এছাড়া অসুস্থ ও চাকরি হারিয়ে অনেকেই ফেরত আসেন।

ইতালি থেকে ফেরত এসেছেন ১৫১ জন। তাদের সকলেই পুরুষ। ৬ জুলাই বাংলাদেশ থেকে যাওয়া ১৫১ জন বাংলাদেশ কর্মীকে করোনা সন্দেহে দেশে ফেরত পাঠানো হয়। এদের সকলকেই সেনাবাহিনীর অধীন কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়। ভিয়েতনাম থেকে ফেরত এসেছেন ১২২ জন এবং তাদের সকলেই পুরুষ। কাজের মেয়াদ শেষে তারা দেশে ফিরে আসেন।

রাশিয়া থেকে ১০০ জন ফেরত আসেন। তাদের সকলেই পুরুষ। কী কারণে ফেরত আসেন তা উল্লেখ করা হয়নি। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ৭১ জন থেকে ফেরত আসেন এবং তাদের সকলেই পুরুষ। কাজ নেই তাই ফেরত এসেছেন। নেপাল থেকে ফেরত আসেন ৫৫ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ৪০ জন ও নারী ১৫ জন)। কী কারণে ফেরত আসেন তার উল্লেখ নেই।

কম্বোডিয়া থেকে ৪০ জন ফেরত আসেন এবং তারা সকলেই পুরুষ। কাজ নেই তাই ফেরত এসেছেন তারা। মিয়ানমার থেকে ফেরত এসেছেন ৩৯ জন। তাদের সবাই পুরুষ। কাজ নেই তাই ফেরত এসেছেন। মরিশাস থেকে ফেরত এসেছেন ৩৬ জন। (পুরুষ ১৬ হাজার ১৫৩ জন ও নারী ২০ জন)। কাজের মেয়াদ শেষে তারা দেশে ফিরে আসেন।

থাইল্যান্ড থেকে ফেরত এসেছেন ৩২ জন (পুরুষ ৩০ জন ও নারী দুইজন)। কাজ নেই তাই ফেরত এসেছেন। হংকং থেকে ফেরত আসেন ১৬ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ১২ জন ও নারী চারজন। কী কারণে ফেরত আসেন তার উল্লেখ নেই।

জাপান থেকে ফিরে আসেন আটজন। তারা সকলেই পুরুষ। আইএম জাপানের মাধ্যমে যাওয়া প্রথম ব্যাচের আটজন তিন বছর মেয়াদ শেষে ছুটিতে আসেন। লন্ডন থেকে ফেরত আসেন ৪৩ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ৩০ জন ও নারী ১৩ জন। কী কারণে ফেরত আসেন তার উল্লেখ নেই। সূত্র: জাগোনিউ২৪


   Page 1 of 10
     প্রবাস
করোনাভাইরাস: মালয়েশিয়ায় আতঙ্কে দিন কাটছে প্রবাসীদের
.............................................................................................
করোনায় খালি নেই বেড, অ্যাম্বুলেন্সেই চিকিৎসা
.............................................................................................
স্পেনে শহীদ বীরমুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ মহান বিজয় দিবস পালিত
.............................................................................................
ওমানে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই ভাইসহ তিন বাংলাদেশির মৃত্যু
.............................................................................................
কুয়েত প্রবাসীদের দ্বিতীয় দফা বৈধ হওয়ার সুযোগ
.............................................................................................
ইতালিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি যুবক নিহত
.............................................................................................
মরিশাসে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
এখনই কাটছে না প্রবাসী কর্মীদের অনিশ্চয়তা
.............................................................................................
কানাডায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশীদের জন্য সেকেন্ড হোম অবস্থান তৃতীয়
.............................................................................................
ভিসার মেয়াদ বাড়াতে কফিলেই শেষ ভরসা
.............................................................................................
২৫ হাজার সৌদি প্রবাসীর নতুন করে ভিসা নিতে হবে
.............................................................................................
খাওয়ার পয়সা নেই লেবানন প্রবাসী বাংলাদেশিদের
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিদের প্রবেশে সুখবর
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিকদের জন্য আবাসন : বাস্তবায়নে টালবাহানা
.............................................................................................
পাঁচ মাসে ২৭ দেশ থেকে ফিরেছেন লক্ষাধিক কর্মী
.............................................................................................
স্পেনে করোনা আক্রান্ত ২ শতাধিক বাংলাদেশি
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় মসজিদে নামাজের অনুমতি বিদেশিদের
.............................................................................................
ভিয়েনায় বঙ্গমাতার ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালন
.............................................................................................
মালয়েশিয়া প্রবাসী রায়হান কবির ১৩ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
বেড়াতে গিয়ে কম্বোডিয়ায় আটকে পড়া ৩ বাংলাদেশি থাইল্যান্ডে ঢুকে গ্রেফতার
.............................................................................................
মিশরের হোটেলে বাংলাদেশি নারীর রহস্যজনক মৃত্যু
.............................................................................................
কনস্যুলেট সেবা থেকে বঞ্চিত হতে যাচ্ছে সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিরা বাড়ছে বিড়ম্বনা রাষ্ট্রদূতের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়ার হুমকি
.............................................................................................
ইউরোপের দেশ পর্তুগালে দূতাবাসে হেনস্থার শিকার হচ্ছে প্রবাসীরা ডিজিটাল সেবার নামে দালাল চক্রের হাতে চরম ভোগান্তি
.............................................................................................
ইতালিতে ৬ বাংলাদেশির হাতে ১ বাংলাদেশি খুন
.............................................................................................
নিউ ইয়র্কে ফাহিমের জানাজা আজ, সাংবাদিকদের যাওয়া নিষেধ
.............................................................................................
ফাহিমের খুনি চিহ্নিত, যেকোনো সময় গ্রেফতার
.............................................................................................
ইতালিতে বাংলাদেশিদের নিষিদ্ধে দুই যুক্তি
.............................................................................................
নিউ ইয়র্কে ফাহিম হত্যাকাণ্ড ঘিরে অনেক প্রশ্ন
.............................................................................................
ওমান থেকে ফিরলেন ২৫৪ বাংলাদেশি
.............................................................................................
পাপুল কাণ্ডে এবার কুয়েতের সেনা কর্মকর্তা গ্রেফতার
.............................................................................................
আড়াই লাখের বেশি বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠাতে পারে কুয়েত
.............................................................................................
করোনাকাণ্ড: ১৬৭ বাংলাদেশিকে ফিরিয়ে দিল ইতালি
.............................................................................................
বাহরাইনে ৫০% ছাড়ে মিলছে ভিসা, নিয়মে আসছে পরিবর্তন
.............................................................................................
বাংলাদেশিসহ ১৮০ অভিবাসনপ্রত্যাশীর জন্য দ্বার খুলল ইতালি
.............................................................................................
প্রবাসীদের ভিসার মেয়াদ বাড়িয়েছে সৌদি সরকার- পররাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
প্রবাস ফেরতদের কর্মসংস্থানে জাতিসংঘের সহায়তা চান ড. মোমেন
.............................................................................................
প্রবাস ফেরতদের কর্মসংস্থানে জাতিসংঘের সহায়তা চান ড. মোমেন
.............................................................................................
আবুধাবি থেকে ফিরলেন আরও ১৫২ বাংলাদেশি
.............................................................................................
পাপুলের সাথে সম্পৃক্ততার অভিযোগে কুয়েতের সেনা কর্মকর্তা বরখাস্ত
.............................................................................................
সৌদি আরবে নতুন রাষ্ট্রদূত জাবেদ পাটোয়ারী
.............................................................................................
মানবপাচার সংক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্রের বার্ষিক প্রতিবেদনে বাংলাদেশের উন্নতি: প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী
.............................................................................................
এক লাখ বাংলাদেশি সৌদিতে কর্মসংস্থান হারানোর হুমকিতে
.............................................................................................
কুয়েতের কারাগারে এমপি পাপুল
.............................................................................................
কাতারে করোনা আক্রান্ত হয়ে রাঙ্গুনিয়া এক প্রবাসীর মৃত্যু!
.............................................................................................
সৌদিতে করোনায় ৫ বাংলাদেশি চিকিৎসকের মৃত্যু
.............................................................................................
কাজের সংকট আবুধাবির বিভিন্ন কোম্পানীতে, ৪১২ জন রেমিট্যান্স যোদ্ধা ফিরছে খালি হাতে
.............................................................................................
সৌদি আরবে করোনায় ৪ চিকিৎসকসহ ৩৭৫ বাংলাদেশির মৃত্যু
.............................................................................................
২৫ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশির দুর্বিষহ জীবন যাপন: বেরাকাসে আসিফুল গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা পথ বেছে নেয়
.............................................................................................
ক্ষতিগ্রস্ত বিদেশফেরতদের ৩ কোটি টাকা জরুরি সহায়তা
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop