| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * নিউজিল্যান্ডে ১০২ দিন পর আবার করোনা সংক্রমণ   * সম্পত্তিতে সমান অধিকার নিয়ে ভারতীয় সুপ্রিমকোর্টের নতুন রায়   * সিনহা হত্যা মামলায় পুলিশের তিন সাক্ষীর রিমান্ড চেয়েছে র‌্যাব   * বিশ্ব বাজারে স্বর্ণের দাম কমতে শুরু করেছে   * করোনার বুলেটিন বন্ধের সিদ্ধান্ত সাময়িক: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর   * এইচএসসি পরীক্ষার সময়সূচি আসছে   * করোনার কারণে দুই সমাপনী পরীক্ষা না নেয়ার প্রস্তাব   * মাথাপিছু আয় ১৫৫ ডলার বেড়ে হয়েছে ২০৬৪ ডলার   * ৩ মাস পর কাপ্তাই হ্রদে শুরু হয়েছে মৎস্য শিকার   * ক্যাটরিনার আর্থিক সহায়তা  

   প্রবাস -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
ভিয়েনায় বঙ্গমাতার ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালন

অনলাইন ডেস্কঃ ভিয়েনায় বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

এ উপলক্ষ্যে দূতাবাস প্রাঙ্গণে এক বিশেষ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। বিকেল পাঁচটয় দূতাবাস প্রাঙ্গনে প্রথম সচিব ও দূতালয় প্রধান মোঃ তারাজুল ইসলামের সঞ্চালনায় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয়।

অনুষ্ঠানে বঙ্গমাতার সংগ্রামী জীবনের ওপর আলোচনা হয়। এমসয় বক্তারা বলেন, জাতির পিতার আন্দোলন সংগ্রামের প্রতিটি ক্ষেত্রে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের প্রেরণা ও অবদান রয়েছে।

বক্তরা বলেন, বঙ্গমাতা বঙ্গবন্ধুর কারাগারে বন্দীকালীন সময়ে সংগ্রাম মুখর জীবনে কোন প্রকার চাপের মধ্যে নতিস্বীকার না করতে বঙ্গবন্ধুকে সাহস জুগিয়েছেন। বেগম মুজিব জাতির পিতা ও রাষ্ট্রপ্রধানের সহধর্মিনী হয়েও আজীবন সাধারণ জীবনযাপন করেছেন। অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত ও স্থায়ী প্রতিনিধি মোহাম্মদ আব্দুল মুহিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সকল শহিদ এবং মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

তিনি বঙ্গমাতার সংগ্রামী জীবনের বিভিন্ন দিক উল্লেখ করে বলেন, শেখ মুজিব থেকে বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধু থেকে জাতির পিতা হওয়ার পেছনে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের অনন্য অবদান রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু ঐতিহাসিক ৭ই মার্চেরভাষণ প্রদানের ক্ষেত্রেও বঙ্গমাতার পরামর্শ নিয়েছিলেন, যা বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ভাষণ হিসেবে ইউনেস্কো কর্তৃক স্বীকৃত।

পরে বিশেষ মোনাজাত ও অতিথিদের আপ্যায়নের মধ্য দিয়ে দিবসটির কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়।

ভিয়েনায় বঙ্গমাতার ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালন
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ ভিয়েনায় বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

এ উপলক্ষ্যে দূতাবাস প্রাঙ্গণে এক বিশেষ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। বিকেল পাঁচটয় দূতাবাস প্রাঙ্গনে প্রথম সচিব ও দূতালয় প্রধান মোঃ তারাজুল ইসলামের সঞ্চালনায় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয়।

অনুষ্ঠানে বঙ্গমাতার সংগ্রামী জীবনের ওপর আলোচনা হয়। এমসয় বক্তারা বলেন, জাতির পিতার আন্দোলন সংগ্রামের প্রতিটি ক্ষেত্রে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের প্রেরণা ও অবদান রয়েছে।

বক্তরা বলেন, বঙ্গমাতা বঙ্গবন্ধুর কারাগারে বন্দীকালীন সময়ে সংগ্রাম মুখর জীবনে কোন প্রকার চাপের মধ্যে নতিস্বীকার না করতে বঙ্গবন্ধুকে সাহস জুগিয়েছেন। বেগম মুজিব জাতির পিতা ও রাষ্ট্রপ্রধানের সহধর্মিনী হয়েও আজীবন সাধারণ জীবনযাপন করেছেন। অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত ও স্থায়ী প্রতিনিধি মোহাম্মদ আব্দুল মুহিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সকল শহিদ এবং মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

তিনি বঙ্গমাতার সংগ্রামী জীবনের বিভিন্ন দিক উল্লেখ করে বলেন, শেখ মুজিব থেকে বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধু থেকে জাতির পিতা হওয়ার পেছনে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের অনন্য অবদান রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু ঐতিহাসিক ৭ই মার্চেরভাষণ প্রদানের ক্ষেত্রেও বঙ্গমাতার পরামর্শ নিয়েছিলেন, যা বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ভাষণ হিসেবে ইউনেস্কো কর্তৃক স্বীকৃত।

পরে বিশেষ মোনাজাত ও অতিথিদের আপ্যায়নের মধ্য দিয়ে দিবসটির কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়।

মালয়েশিয়া প্রবাসী রায়হান কবির ১৩ দিনের রিমান্ডে
                                  

কোডিভ-১৯ মহামারী চলাকালে অভিবাসীদের প্রতি মালয়েশিয়া সরকারের আচরণ নিয়ে গণমাধ্যমে কথা বলায় গ্রেপ্তার বাংলাদেশি তরুণ রায়হান কবিরকে ১৩ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে মালয়েশিয়ার পুলিশ।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ তাকে আদালতে হাজির করে ১৪ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত ১৩ দিনের রিমাণ্ড মঞ্জুর করেন। ফলে ১৯ আগস্ট পর্যন্ত রায়হানকে রিমাণ্ডে থাকতে হবে।

রায়হানের আইনজীবী সুমিতা শান্তিনি কিষনা জানান, বুধবার রাতেই তারা জানতে পারেন রায়হানকে আজ আদালতে হাজির করে ফের রিমান্ড চাইবে পুলিশ। সে অনুযায়ী তারা আদালতে হাজির হন। তবে আদালতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কোনো প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন না।

সুমিতা শান্তিনি কিষনা জানান, রায়হান আগের মতোই বলেছে, তিনি যা দেখেছেন তাই বলেছেন। তবে মালয়েশিয়ার কাউকে আহত করা তাঁর উদ্দেশ্য ছিল না। রায়হানের বিরুদ্ধে এখনো কোনো অভিযোগ আনতে পারেনি পুলিশ।

বেড়াতে গিয়ে কম্বোডিয়ায় আটকে পড়া ৩ বাংলাদেশি থাইল্যান্ডে ঢুকে গ্রেফতার
                                  

কম্বোডিয়া থেকে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে থাইল্যান্ডের সা কায়ো প্রদেশ থেকে তিন বাংলাদেশিকে আটক করেছে সীমান্ত পুলিশ।
মার্চে বেড়াতে গিয়ে মহামারীতে আটকে পড়ে অসহায় অবস্থার মধ্যে নাছোড়বান্দা হয়ে তারা ব্যাংককে বাংলাদেশ দূতাবাসে যেতে চেয়েছিলেন বলে স্থানীয় গণমাধ্যম পাত্তায়া নিউজের প্রতিবেদনে জানানো।

এরা হলেন- সোহেল পারভেজ (৪০), “এমডি”(২৭) ও আব্দুল করিম আলজাদ (৩৩)। তাদের সবার কাছে বাংলাদেশের পাসপোর্ট রয়েছে।পাত্তায়া নিউজ বলছে, কম্বোডিয়ার পইপেট এলাকা দিয়ে একটি খাল পাড়ি দিয়ে থ্যাইল্যান্ডে ঢোকার সময় ক্লোং লোয়েক এলাকা থেকে আটক করে সীমান্ত পুলিশ।

সীমান্ত পুলিশকে উদ্ধৃত করে প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই তিন বাংলাদেশি মার্চে ছুটি কাটাতে কম্বোডিয়ায় গিয়ে করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে আটকে পড়েন। দেশের ফেরার কোনো উপায় খুঁজে না পেয়ে এবং টাকা-পয়সাও অনেক আগেই ফুরিয়ে যাওয়ায় চরম সংকটে পড়েন তারা। কম্বোডিয়ায় বাংলাদেশের দূতাবাস না থাকায় ব্যাংকক দূতাবাসের সহায়তা নিতে থাইল্যান্ডে ঢুকেন তারা।ওই তিনজনকে কোয়ারেন্টিন করে তাদের কোভিড-১৯ শনাক্তের পরীক্ষার পাশাপাশি বাংলাদেশকে তাদের বিষয়ে অবহিত করা হবে বলে পুলিশ কর্মকর্তারা জানান। থাইল্যান্ডে অবৈধ অনুপ্রবেশের অন্যতম প্রধান রুট সা কায়ো। এই সীমান্তে বেশ কড়াকাড়ি রয়েছে।

মিশরের হোটেলে বাংলাদেশি নারীর রহস্যজনক মৃত্যু
                                  

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এক মার্কিন নাগরিক নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে মিশরের কায়রোর একটি হোটেল থেকে।  ফাতেমা খান খুকি (৪৪) নামে ওই নারী পাঁচদিন আগে কায়রোতে ঘুরতে গিয়েছিলেন তিনি।

মঙ্গলবার কায়রোর একটি হোটেলের কক্ষ থেকে স্থানীয় পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক ও নিউ জার্সির বিউটি এক্সপার্ট হিসেবে বাংলাদেশি-আমেরিকান ওই নারী কর্মরত ছিলেন।

কায়রোর মার্কিন দূতাবাস ওই নারীর মৃত্যুর খবর তার পরিবারকে জানিয়েছে।

এখন পর্যন্ত তার মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি। কায়রো পুলিশ এ ঘটনার তদন্তে নেমেছে। বিষয়টি এখনো রহস্যাবৃত বলে জানা গেছে বিভিন্ন সূত্রে।

কনস্যুলেট সেবা থেকে বঞ্চিত হতে যাচ্ছে সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিরা বাড়ছে বিড়ম্বনা রাষ্ট্রদূতের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়ার হুমকি
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান: মরণঘাতী মহামারী  করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ও শ্রমবাজারের সর্বোচ্চ দেশ সৌদি আরবে কনস্যুলেট সেবা নিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীদের বিড়ম্বনা দিন দিন বাড়ছে । সৌদি আরব অনেক বড় দেশ বিধায় দূর দূরান্তের প্রবাসীদের নিকট সহজেপাসপোর্ট সেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য এটুআই প্রকল্পের আওতায় রিয়াদস্থ বাংলাদেশ   দূতাবাসের   রাষ্ট্রদূত   গোলাম   মসীহ   ইডিসি   নামক প্রতিষ্ঠানের   সাথে   চুক্তিবদ্ধ   হয়েছেন।     জেদ্দাস্থ   বাংলাদেশ   কনস্যুলেট জেনারেলের অফিসের অদূরে শিগগিরই পাসপোর্ট সেবা দিতে ইডিসি কেন্দ্র চালু করা হচ্ছে। এতে মরণঘাতী মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের   দুর্দিনে অসহায় প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীদের পাসপোর্ট হাতে পেতে অতিরিক্ত ৪০ রিয়াল এবং গাড়ী ভাড়া গুনতে হবে। জেদ্দা থেকে গতকাল মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা শেখ ফজলুল কবীর ভিকু ও মাহামুদুল হাসান শামীম দৈনিক এশিয়া বাণীকে বলেন, এই গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব কারো হাতে তুলে দেয়ার আগে অবশ্যই তাদের রাজনৈতিক পরিচয় এবং অতীত ইতিহাস পুঙ্খানুপুঙ্খরুপে যাচাই করা   প্রয়োজন ছিল।জেদ্দার এই নতুন ইডিসি সেবা কেন্দ্রের দায়িত্ব এমন কিছু ব্যক্তির হাতে তুলে দেয়া হয়েছে যারা ইতোপূর্বে    প্রথম এম আর পি পাসপোর্ট
ইস্যুর   সময়   আইরিশ   কোম্পানির   সহযোগি   এজেন্সি   হিসেবে   কাজ করেছে।   এরাই   হাজার   হাজার   রোহিঙ্গার   হতে   লক্ষ   লক্ষ   রিয়ালের   বিনিময়ে বাংলাদেশের   পাসপোর্ট   তুলে   দিয়েছিল।   ইস্যুয়েন্স   ব্যতিরেকে   কয়েক হাজার   পাসপোর্ট   প্রবাসীদের   মধ্যে   বিলি   করেছে।   এইপাসপোর্ট ধারীরা এখন তাদের পাসপোর্ট গুলো রিইস্যু করতে পারছে না।এ   ধরণের কলংক জনক   অতীত   ইতিহাস   থাকার   পরেও   কি   কারণে   রাষ্ট্রদূত তড়িঘড়ি একই কোম্পানির হাতেই পাসপোর্টের কাজ তুলে দিয়েছেন,তা’ বোধগম্য নয়।তারা বলেন, জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটে প্রায় ৮৫ জন কর্মকর্তা থাকার পরেও পাসপোর্টের মত স্পর্শকাতর সেবা কখনোই দ্বিতীয় পক্ষের মাধ্যমে প্রদান   করা   ঠিক   হয়নি।   এই   দায়িত্ব   প্রাপ্ত   ব্যক্তিরা   ঢাকায়   একটি বিতর্কিত রাজনৈতিক দলের পরিচালিত প্রতিষ্ঠানের জড়িত রয়েছে বলেও প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতারা অভিযোগ করেন। ইতোপূর্বে     জেদ্দাস্থ   কনস্যুলেট   প্রতি   সপ্তাহে   বিভিন্ন   প্রদেশে পাসপোর্ট সেবা দিত। বর্তমানে ভারতসহ অন্যান্য   দেশের দূতাবাসসেই সেবা দিলেও জেদ্দা কনস্যুলেট কোন রহস্যময় কারণে পাসপোর্ট ট্যুরবন্ধ   রেখে   এই   প্রতিষ্ঠানকে   প্রবাসীদের   পাসপোর্ট   সংগ্রহের   কাজ দিয়েছে।   প্রবাসীদের   অভিযোগ     আসলে   ২০১৫   সালে   তাদের   দেয়া রোহিঙ্গাদের পাসপোর্টগুলো পুনরায় রিইস্যুর জন্যেই আবার ভিন্ন ভিন্ন ধরনের  নামে এই প্রতিষ্ঠানের সৃষ্টি করা হয়েছে।   জেদ্দাস্থ কনসাল জেনারেল মো.ফয়সল আহমেদ   পাসপোর্ট  রিইস্যু  সেবা   বন্ধ   করে   দিয়ে   গরীব   প্রবাসীদের অতিরিক্ত   টাকা   সার্ভিস   চার্জসহ   ইডিসির   মাধ্যমে   পাসপোর্ট রিনিউ করতে   নোটিশ জারি করেছেন। অভিযোগ উঠেছে জেদ্দাস্থ কনসালজেনারেল নতুন ইডিসি প্রতিষ্ঠান থেকে প্রবাসীদের পাসপোর্ট সেবানেয়ার   জন্য   মরিয়া   হয়ে   উঠছেন।   আজ   বুধবার   জেদ্দাস্থ   সিজি   ফয়সল আহমেদের সাথে টেলিফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেনি। গত ৬ জুলাই জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দশ সহযোগি সংগঠন নিয়ে   গঠিত   মোর্চার   প্রধান   সমন্বয়ক   মাহমুদ   হাসান   শামীমের নেতৃত্বে   স্বাধীনতা   বিরোধী   জামাত   এর   পৃষ্ঠপোষক   নিয়ে   গঠিত অসাধু   ব্যবসায়ী   সিন্ডিকেটের   হাতে   ইডিসি   সেবা কেন্দ্রের দায়িত্ব দেয়ার প্রতিবাদে এক সংবাদ সম্মলনের আয়োজন করে। সংবাদস ম্মেলনে  ইডিসি কেন্দ্র  সাময়িক  স্থগিত  এবং তদন্ত  করে  স্বাধীনতা বিরোধী অসাধু ব্যবসায়ী চক্রের কাছে দেয়া দায়িত্ব বাতিলের দাবিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়। রাষ্ট্রদূত   গোলাম   মসীহ   উল্লেখিত   সংবাদ   সম্মেলন   আয়োজনকারী আওয়ামী লীগ নেতাদের বিরুদ্ধে কারণ দর্শানোর নোটিশ স্মারক নং :বিইআর /এএমবি-১/২০২০ (১৬৭) জারি করেছেন। ঐ নোটিশে স্বাধীনতাবিরোধী   অসাধু   ব্যবসায়ীদের   সর্ম্পকে   অভিযোগের   তথ্য   প্রমাণাদি কনসাল   জেনারেলের   মাধ্যমে   জমা   দেয়ার   নিদের্শ   দেয়া   হয়।   রাষ্ট্রদূতসম্পূর্ণ এখতিয়ার বহির্ভূত চিঠি দেয়ায় সংবাদ সম্মেলন আয়োজক আওয়ামী   লীগ   নেতারা   তার   বিরুদ্ধে   শিগগিরই   আইনি   পদক্ষেপ   নেয়ার হুশিয়ারি দিয়েছেন। এ ব্যাপারে আজ বুধবার রিয়াদে রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ’র   সাথে   ফোনে   যোগাযোগ   করা   হলে   তিনি   দুই   ঘন্টা   পড়ে যোগাযোগ করতে বলেন।

ইউরোপের দেশ পর্তুগালে দূতাবাসে হেনস্থার শিকার হচ্ছে প্রবাসীরা ডিজিটাল সেবার নামে দালাল চক্রের হাতে চরম ভোগান্তি
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান :  ইউরোপের দেশ পর্তুগালে বাংলাদেশ দূতাবাসে ডিজিটাল সেবার নামে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে প্রবাসী কর্মীরা। রাষ্ট্রদূতের ঘনিষ্ঠ দালালদের

মাধ্যমে বেশি টাকা দিলে দুই এক ঘন্টার মধ্যেই প্রবাসীরা দূতাবাসের যেকোনো সেবা পাচ্ছে। যারা দালালদের মাধ্যমে অতিরিক্ত ঘুষ দিতে রাজি না হয়  তাদেও দালাল চক্রের হাতে চরম ভোগান্তির অন্ত নেই।   অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ সহ প্রবাসী বাংলাদেশীদের ফেসবুক গ্রুপগুলোতে
প্রতিনিয়ত ভোগান্তির কথা জানাচ্ছেন প্রবাসীরা ।অথচ দূতাবাস থেকে কোনব্যবস্থাই নেয়া হচ্ছে না ।  অনুগ্রহ করে নিম্নের লিংকে দূতাবাসের ফেসবুকপেজে প্রবাসীদের কথাগুলো পড়ে দেখবেন এবং অতি দ্রুত তদন্তের ব্যবস্থানিবেন ।
প্রবাসী বাংলাদেশীদের কিছু লেখা আপনার জানার জন্য এখানে তুলে ধরলাম।বিদেশের মাটিতে দেশের ইমেজকে এভাবে নষ্ট করার জন্য অতি দ্রুত তদন্ত করেশাস্তির ব্যবস্থা করুন । মাত্র ২ ঘন্টা অফিস চালু সেবা গ্রহিতাদের জন্য। পরে একবারখুলবেন শুধু ডেলিভারি দেয়ারজন্য। এই দুই ঘন্টাকি সেবা দেয়ার জন্যযথেষ্ট? সত্যায়িত করার জন্য যে পরিমান চার্জ করা হয় আমার জানা মতেপর্তুগাল এর যে কোন সরকারি অফিসে এর কাছে 
ধারেও না। এখানকার যে কোনোঅফিসে গেলে তারা প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রের কপিঅফিস থেকেই করে রাখে কিন্তুআপনারা সর্বোচ্চ চার্জ নেয়ার পরও তা করেন না। এই সামান্য কাজের জন্যপ্রায়ই হয়রান হতে হয়। কোনকাজে আপনারা ভুল করলেও তা সংশোধন করাতে পুনরায়
ফি দিতে হয়। আপাতত আপনাদের বিচারের ভার আপনাদের বিবেকের কাচেই দিলামবাকিটা শেষ বিচার পর্যন্তঅপেক্ষা করবো।তেল মারি না কর্মকর্তা কর্মচারীদের বেপরোয়া ব্যবহার এর কারনে মানুষ
ক্ষিপ্ত। দুতাবাসের ভাবমূর্তি জন্য তানভীর এবং গাজী নয়, কর্মকর্তাকর্মচারীদের অহংকারী ব্যবহার দায়ী। দুতাবাসের পেইজে সব কমেন্ট এনালাইসিসকরে দেখেন।শত শত তানভীর এবং গাজী হয়রানি শিকার হয়েছে।। দুতাবাস নিজেদের দুষ চাপাচ্ছেন অন্যের ঘাড়ে। মানুষ ভাল সার্ভিস পেলে কেন দুতাবসের পেইজেখারাপ কমেন্ট করে। জাগ বাংলাদেশি জাগ।অসরহঁৎ জধযধসধহ পর্তুগালে এম্বাসেডর সাহেব সকল বাংগালীদের হক মেরে কোননিয়োগ বিজ্ঞপ্তি কিংবা বিজ্ঞাপন ছাড়াই নিজের খেয়াল-খুশিমত তার চার জন
নিকট আত্মীয়কে এম্বাসীতে চাকরী দিছেন ।উনার আস্পর্ধার কারনে তারআত্মীয়রা দুই জন ছেলে আরদুই জন মহিলা সবার সাথে খারাপ ব্যবহার করে। তারানিজেদেরকে রাজা মনে করে। এম্বাসেডর কোন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ছাড়া কিভাবে নিজের আত্মীয়কে এম্বাসীতে নিয়োগ দেয়, তা সকল প্রবাসীর সামনে জবাবদিহিতাকরতে হবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।তধশবৎ গফ অশধংয আমি একদিন পাসপোর্টের বায়োকপি এটাসটেড করতে সকাল৯ টায়গিয়েছিলাম। বিকাল ৩ টায়২ টা মহিলা আমাকে যখন 
ডেলিভারি দিলো তখন দেখলামআমার পাসপোর্টের ৫ নম্বর পাতায় তারা এনট্রি সিল মেরে রেখেছে। জানতেচাইলাম এটা কেনো? মহিলা২ টা বললো এটাই এটাষটেড। আমি কিংকর্তব্যবিমুড় হয়েগেলাম। আমি বললাম পাসপোর্টে কোনো ধরনের 
সিল মারার এখতিয়ার আপনাদের নেই।উত্তরে বললো সমস্যা নাই। কোনো ভাবেই তারা মানতে রাজি নয় এটা তাদের ভুলহয়েছে। এই হলো অপদার্থ কিছু কর্মী। এদের কাছ থেকে কি সুবিধা আশা করবো?আরেকদিন বাংগালী বাসার মালিক ১ মাসের ভাড়া দিতে দেরি হচ্ছে দেখে
জোরপূর্বক বের করে দিচ্ছিলো। আমি তাদের হেল্পচাইলাম বৃহস্পতিবারে আরতারা আমাকে সমাধান দিবে বলেছে সোমবারে। এই হলো তাদের হেল্প। তাই আমিএসব দূতাবাস নিয়ে আর কোনো উচ্চাকাঙ্ক্ষা করিনা। এরা দলীয় তদবির করেএখানে এসেছে। আগের এম্বাসেডর অনেক ভাল ছিলেন। বর্তমান এম্বাসেডর আসারপর থেকেই এম্বাসির সার্ভিস একদম খারাপ হয়ে 
গেছে । আমরা আগে আধা ঘণ্টারমধ্যেই সত্যায়িত করে নিতাম, মাত্র ৫ ইউরো দিয়ে ট্রান্সলেশন নিতাম । উনিআসার পর থেকেই ট্রান্সলেশন বন্ধ, সকাল ০৯টায় কাগজ জমা দিলেও বিকালের আগেদেয় না । কাজের জন্য অন্য কারোকে অথরাইজেশন দিয়ে কাগজ পাঠাইলেও, করে দেয়
না । কিন্তু উনার ঘনিষ্ঠ দালালদের মাধ্যমে বেশী টাকাদিয়ে যে কোন কাজইএক/দুই ঘন্টার মধ্যে করায় নেয়া যায় । আর এখন তো ডিজিটালের নাম করে উনিবাংলাদেশীদের কে চরম ভোগান্তিতে ফেলছেন। আর টাকাও বেশী নিচ্ছেন।পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।
আমি গিয়েছিলাম এক দিন। আমার সাথেও আচরন টা খুবই খারাপ করেছে।জধশরন গধযধসঁফ আমাদের মাননীয় মহোদয়, যেমন লিখিত বক্তব্য দেওয়া হলোদ্রুতাবাস থেকে۔ এমন সুযোগ সবাই পেয়েছেন কিনা যদি সত্যি হয় বাহবা দেওয়া
প্রয়োজন۔ আমি একদিন পাসপোর্ট এটাস্টেশন করতেগেলাম সময় ছিল ১২ টা ১০মিনিট, কিন্তু গেট লক করে দিলো আমি কাজ বন্ধ রেখে গেলাম অনেক দূর থেকেতারা আমাকে কাজটা কমপিট করে দেয় নাই বলছে পরের দিন যাওয়ার জন্য কিন্তুআমি আর ছুটি নিতে পারিনাই۔ তাদের অনুভব করা
ইতালিতে ৬ বাংলাদেশির হাতে ১ বাংলাদেশি খুন
                                  

ইতালিতে রশিদ হাওলাদার (৪৪) নামে এক বাংলাদেশিকে নৃশংসভাবে খুন করা হয়েছে বলা জানিয়েছে দেশটির আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। শনিবার(১৮ জুলাই) রাতে বাণিজ্যিক নগরী মিলানে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, মিলানের প্রাণকেন্দ্র স্তাদেরা এলাকায় মন্তেগানি রোডে পৌর বাজারের সন্নিকটে স্থানীয় সময় রাত ৯টা ২০ মিনিটে তর্কাতর্কির এক ফাঁকে ৬ বাংলাদেশি মিলে রশিদকে খুন করে। এর আগে মারাত্মক আহত অবস্থায় তাকে ফেলে তারা পালিয়ে যান। পরে স্থানীয় সান পাওলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যে সে মারা যায়।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে হাতুড়ি ও চেইনসহ খুনিদের ফেলে যাওয়া বেশ কিছু আলামত উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় ২ খুনিকে ইতোমধ্যে শনাক্ত করা হয়েছে। সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করার পর খুনিদের ধরার চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। অন্য আরেকটি সূত্রে জানা যায়, নিহত বাংলাদেশীর ইতালিতে বৈধ স্টেট পারমিট (পেরমেসসো দি সোজ্জর্নো) ছিলো। হত্যাকান্ডের আগে থেকে স্তাদেরার ওই এলাকাটি পুলিশের খাতায় `ক্রাইম জোন` হিসেবে চিহ্নিত ছিল। নিহত ও খুনিদের বাড়ি বাংলাদেশের মুন্সীগঞ্জে বলে জানা গেছে।

নিউ ইয়র্কে ফাহিমের জানাজা আজ, সাংবাদিকদের যাওয়া নিষেধ
                                  

রাইড শেয়ারিং অ্যাপ পাঠাও-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহের জানাজা আজ। করোনাভাইরাসের কারণে কঠোর বিধিনিষেধের মধ্য দিয়ে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এমনকি সাংবাদিকদেরও সেখানে উপস্থিতি নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

আজ রবিবার নিউ ইয়র্ক সময় দুপুর ১২টায় জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, নিউ ইয়র্ক শহরের পোকেস্পী রুরাল সেমিট্রিতে জানাজা শেষে তাকে সেখানেই সমাহিত করা হবে।

ভাইয়ের জানাজায় অংশ নিতে ফাহিমের বড় বন ও তার স্বামী মধ্যপ্রাচ্য থেকে নিউ ইয়র্কে পৌঁছেছেন।

এদিকে ফাহিম সালেহর জানাজা ও সমাহিত করার আয়োজনে সাংবাদিকদের উপস্থিতির অনুমোদন নেই।

আইনশৃখংলা বাহিনীর পক্ষ থেকে নিহত ফাহিমের পরিবারকে মিডিয়ার সঙ্গে কথা না বলারও উপদেশ দেয়া হয়েছে।  তাই তদন্তের স্বার্থে তাদের দেয়া উপদেশ পালন করছেন ফাহিমের পরিবার।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে আটক ফাহিমের সাবেক সহকারি টাইরেস ডেভো হাসপিলের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় ডিগ্রি হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। স্থানীয় সময় শনিবার অভিযুক্ত হাসপিলকে ম্যানহাটনের ফেডারেল আদালতে নেয়া হলে তার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ গঠন করা হয়।

বিচারক জোনাথন সভেটকি জামিনের সুবিধা ছাড়াই হাসপিলকে আটক রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। একই সাথে আগামী ১৭ আগস্ট আবারো তাকে আদালতে হাজির করার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

ফাহিমের খুনি চিহ্নিত, যেকোনো সময় গ্রেফতার
                                  

শেয়ার রাইডিং অ্যাপ পাঠাও’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহ’র হত্যাকারীকে এখনো ধরতে না পারলেও তাদের চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়েছে নিউইয়র্ক পুলিশ। তাকে যে কোনো সময় গ্রেফতার করতে সক্ষম হবে বলেও পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছ।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র আভাস দিয়েছে, বড় ধরনের কোনো ব্যবসায়িক লেনদেনের জেরে ফাহিম সালেহকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। তবে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত এবং হত্যাকারী গ্রেপ্তার না হওয়া পর্যন্ত পুলিশ এ নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানাবে না।

গত ১৪ জুলাই নিউইয়র্কের নিজ অ্যাপার্টমেন্ট থেকে রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান পাঠাও’য়ের সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহের ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। একদিন পর জানা যায় ফাহিমের মৃতদেহকে বুকের মাঝ বরাবর কেটে  খণ্ডিত করা হয়েছে।

বেরিয়ে এসেছে যে, লাশ ব্যাগে ভরার উদ্দেশেই কাটা হয়েছিল, তবে পরে কেউ চলে আসায় তা আর সম্ভব হয়নি।
 
ফাহিমের পেশাদার ঘাতক সোমবার (১৩ জুলাই) বিকেলে ইলেভেটর দিয়ে ফাহিমের সাথেই সপ্তম তলায় ওঠে।

ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, লোকটি কালো পোশাক পরিহিত ছিল। মাথায় টুপি, মাস্ক-সবকিছু ছিল কালো। হাতে ছিল বড় একটি স্যুটকেস। পুলিশের ধারণা, অত্যন্ত ঠাণ্ডা মাথায় ফাহিমকে হয়তো মাথায় আঘাত করে দুর্বল করা হতে পারে। এরপরই বৈদ্যুতিক করাত দিয়ে নিষ্ঠুরভাবে গলাকাটা হয়। পাশাপাশি দু’হাত ও দু’পা কাটা হয়। বুকের মধ্যেখানেও করাত চালিয়ে দ্বিখণ্ড করা হয়।

এরপর খণ্ড খণ্ড অংশ আলাদা পলিথিন ব্যাগে ভরা হয়। ফ্লোরের রক্ত মুছে ফেলা হয় কৌশলে। করাতেও ছিল না রক্তের দাগ। তদন্ত কর্মকর্তাদের ধারণা, ফাহিমকে হত্যার পর হয়তো টুকরো টুকরো লাশ ঐ স্যুটকেসে ভরে কোথাও নেয়া হতো-যাতে ফাহিম নিখোঁজ রহস্য উদঘাটনেও অনেক সময় পেরিয়ে যায়।

তদন্ত কর্মকর্তা এবং এমন হত্যাকাণ্ডের ওপর গভীর পর্যবেক্ষণকারীরা আরও মনে করছেন, খণ্ড খণ্ড লাশ স্যুটকেসে ভরার আগেই হয়তো ঐ এপার্টমেন্টে আসতে আগ্রহী কেউ নিচে থেকে কলিং বেল টিপেছিলেন। সে শব্দেই ঘাতক সবকিছু ফেলে পালিয়েছে।

এর আগে সোমবার বিকেলে ১০ তলার ঐ এপার্টমেন্ট ভবনের সপ্তম তলায় নিজ এপার্টমেন্টে ফিরেন ফাহিম। এরপর সারারাত এবং পরদিন মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) দুপুর পর্যন্ত চেষ্টা করেও ফাহিমকে ফোনে না পেয়ে তার খালাতো বোন ছুটে আসেন ঐ ভবনে। এরপর এপার্টমেন্টে গিয়ে আঁতকে উঠেন ফাহিমের খণ্ড-বিখণ্ড লাশ পলিথিন ব্যাগে দেখে। সাথে সাথে ফোন করেন ফাহিমের ছোটবোন রিফ-সালেহ। দ্রুত চলে আসেন তিনি এবং এরইমধ্যে ৯১১ এ কল করা হয়।
 
এছাড়া লিফটের একটি সার্ভিলেন্স ক্যামেরায় ফাহিমের গতিবিধির কিছু ফুটেজ পাওয়া গেছে। তাতে সবশেষ সোমবার তাকে লিফটের ভেতর দেখা গেছে। স্যুট, গ্লভস, হ্যাট এবং মাস্ক পরিহিত একটি লোককে ওই সময় তাকে অনুসরণ করতে দেখা যাচ্ছে।

পুলিশের ধারণা, ফাহিম লিফট থেকে বের হওয়ার পরপরই তাকে গুলি করা হয়েছে অথবা ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়া হয়েছে। অপরাধীর কাছে একটি স্যুটকেসও ছিল। সে খুবই পেশাদার খুনি বলেই ধারণা করছে পুলিশ।

ফাহিম যে ভবনে থাকতেন সেটি খুব সম্প্রতি নির্মিত একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভবন। ভবনের পর্দা নামানো ছিল।

প্রায় বিশ কোটি টাকা দিয়ে গত বছর নিউইয়র্কে বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্টটি কিনেছিলেন ৩৩ বছর বয়সী ফাহিম। পাঠাওয়ের মতো তিনি নাইজেরিয়ায় আরো একটি মোটর বাইক শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান চালু করেছিলেন। সে প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার পদে ছিলেন ফাহিম সালেহ।

ইতালিতে বাংলাদেশিদের নিষিদ্ধে দুই যুক্তি
                                  

দুই যুক্তি দেখিয়ে ইতালি বাংলাদেশসহ ১৪টি দেশ থেকে যাত্রী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। বুধবার (১৫ জুলাই) ইতালির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে স্বাস্থ্যমন্ত্রী রবার্তো স্পেরাঞ্জার এ সংক্রান্ত একটি বক্তব্য প্রকাশিত হয়েছে।

ইতালির যুক্তি দুটো হলো, জনসংখ্যার অনুপাতে এই দেশগুলোর করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ হার অনেক বেশি। এবং ওই দেশগুলোতে করোনা মোকাবিলা উদ্যোগ ও নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা খুবই সীমিত।

ইতালিতে যাত্রী প্রবেশে নিষিদ্ধ দেশের তালিকার দেশগুলো হলো, বাংলাদেশ, আর্মেনিয়া, বাহরাইন, ব্রাজিল, বসনিয়া হার্জেগোভিনা, চিলি, কুয়েত, উত্তর মেসিডোনিয়া, মালদোভা, ওমান, পানামা, পেরু ও ডমিনিক প্রজাতন্ত্র।

প্রসঙ্গত, এই দেশগুলোর যাত্রীরাই শুধু নয়, গত ১৪ দিনে ট্রানজিট হিসেবে যাত্রাবিরতি করা ব্যক্তিরাও আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত ইতালিতে ঢুকতে পারবেন না। ইতালি সরকার পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে

নিউ ইয়র্কে ফাহিম হত্যাকাণ্ড ঘিরে অনেক প্রশ্ন
                                  

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণ তথ্য প্রযুক্তি উদ্যোক্তা ফাহিম সালেহর হত্যাকাণ্ডকে ঘিরে রহস্য ঘণীভূত হচ্ছে। পুলিশ এখনো এ নিয়ে কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি। তবে তারা বলছে, অত্যন্ত পরিকল্পনা করে এই হত্যাকাণ্ডটি ঘটানো হয়েছে।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে নিউ ইয়র্ক সিটির ম্যানহাটনের লোয়ার ইস্ট সাইডের বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্ট থেকে পুলিশ ফাহিমের খণ্ড-বিখণ্ড লাশ উদ্ধার করে। নিউ ইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্ট বা এনওয়াইপিডির কর্মকর্তারা বলছেন, তারা হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন ও খুনিকে ধরার চেষ্টা করছেন।  

বাংলাদেশে রাইড শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম ‘পাঠাও’ সার্ভিসের সহপ্রতিষ্ঠাতা ছিলেন ৩৩ বছর বয়সি ফাহিম সালেহ। পরবর্তীকালে তিনি নাইজেরিয়ায় “গোকাডা” নামে একটি রাইড শেয়ারিং কম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন। একই সাথে কলম্বিয়াতেও তার ব্যবসা ছিল।

সিএনএন, নিউ ইয়র্ক টাইমসসহ আমেরিকার প্রধান সংবাদমাধ্যমগুলোয় ফাহিম সালেহ হত্যাকাণ্ডের খবরটি গুরুত্বের সাথে প্রচার করা হচ্ছে। সিএনএন-এর খবরে বলা হয়েছে, “ফাহিমকে সবশেষ সোমবার (১৩ জুলাই) বিকেলে দেখা গেছে। তিনি নিজের ফ্ল্যাটে ফেরার জন্যে লিফটে উঠছিলেন। সম্পূর্ণ কালো পোশাক পরা এক ব্যক্তিকে তখন একই সাথে লিফটে উঠতে দেখা গেছে”।

পুলিশকে উদ্ধৃত করে সিএনএন আরও বলছে, “ঐ ব্যক্তিই ফাহিম সালেহর সম্ভাব্য হত্যকারী।”

সূত্র বলছে, সেদিন লিফটটি সরাসরি ফাহিমের অ্যাপার্টমেন্ট যে তলায়, সেখানে পৌঁছে যায়। ধারণা করা হচ্ছে, সন্দেহভাজন হত্যাকারী পেছন পেছন পেছন বাড়ির ভেতর ঢুকে পড়ে তার ওপর আক্রমণ চালায়।

অন্য একটি খবরে বলা হয়েছে, ফাহিমের সাথে লিফটে ওঠা সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তি স্যুট, হাতে গ্লাভস ও মুখে মাস্ক পরা ছিল। তাঁর হাতে ছিল একটি ব্রিফকেস।

হত্যার ধরন দেখে, হত্যাকারীকে পেশাদার বা ভাড়াটে খুনি বলে সন্দেহ করছে পুলিশ। ফাহিম সালেহর শরীরের বিভিন্ন অংশ অ্যাপার্টমেন্টে ছড়ানো ছিটানো ছিল এবং কিছু অংশ একটি ব্যাগে ঢুকিয়ে রাখা হয়েছিল। সূত্র বলছে, বৈদ্যুতিক করাত দিয়ে ফাহিমের গলা ও শরীরের বিভিন্ন অংশ কেটে কয়েক টুকরা করা হয়।

নিউ ইয়র্ক টাইমস লিখেছে, নৃশংস এই হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে প্রথমে জানতে পারেন ফাহিম সালেহর বোন। তার বোনকে উদ্ধৃত করে নিউ ইয়র্ক টাইমস লিখেছে, মঙ্গলবার সারাদিন ফাহিম সালেহর সাথে কোনো যোগাযোগ না হওয়ায় বিকেল ৩:৩০ মিনিটে সপ্তম তলায় তার সাথে কথা বলতে যান। সেখানে গিয়ে তার বোন ফাহিম সালেহর খণ্ড-বিখণ্ড মরদেহ দেখতে পান। পরে তার ফোন পেয়ে সেখানে পুলিশ যায়।

সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, এনওয়াইপিডি পুরো বিষয়টি তদন্ত করছে। বিশেষ করে হত্যাকারী কিভাবে এবং কোন পথে অ্যাপার্টমেন্ট থেকে বেরিয়ে ভবনটি থেকে বের হয়ে গেল, সেটাও খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। হত্যাকারি একই লিফটে করে সপ্তম তলায় উঠেছে। সেখান থেকে নেমে অনুসরণ করে ফাহিমের ফ্লাটে ঢোকার সময় ধস্তাধস্তি হয়েছে বলে লিখেছে নিউ ইয়র্ক টাইমস। ঘটনাস্থল থেকে বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করে তদন্ত করছেন গোয়েন্দারা। কারা, কী উদ্দেশ্যে ফাহিমকে হত্যা করলো সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। খোঁজা হচ্ছে পেছনের চক্রটিকে।

বীভৎস এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ভেঙে পড়েছে ফাহিমের পরিবার। গভীর কালো মেঘ নেমে এসেছে তাদের ওপর। পরিবারের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “ফাহিমকে যতটা বলা হচ্ছে, সে তার চেয়েও অনেক বড় মাপের মানুষ। যারা এই ঘৃণ্য ঘটনাটি ঘটিয়েছে, তাদের খুঁজে বের করতে এনওয়াইপিডি ও গোয়েন্দারা নিরলস কাজ করবে, দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে, এটাই এখন চাওয়া।”

ফাহিমের প্রতিষ্ঠিত নাইজেরিয়ার রাইড শেয়ার প্রতিষ্ঠান “গোকোডা” এক টুইটে এই ঘটনায় গভীর শোক জানিয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডকে তারা “আকস্মিক” ও “করুণ” বলে বর্ণনা করেছে। তারা বলছে, “ফাহিম আমাদের সকলের জন্য দুর্দান্ত নেতা, অনুপ্রেরণা এবং ইতিবাচক আলো ছিলেন।”

এদিকে সদা হাস্যোজ্জ্বল ফাহিম সালেহর মৃত্যুতে প্রবাসীদের মধ্যে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। তারা এই হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়ে দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন। খুব অল্প বয়সে নিজের মেধার গুণে বিপুল সম্পদের মালিক হওয়ার পরও, তার মধ্যে কোনো অহংকার ছিল না; এমনটা উল্লেখ করে শোকে ভেঙে পড়েছেন তার বন্ধুরা।

সিএনএন-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হাই স্কুলে পড়ার সময়ই প্রার্ক ডায়াল ডট কম নামে একটি প্লাটফর্ম প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ফাহিম। এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রি রেকর্ডের প্রাঙ্ক কল করা হতো। শুরু হওয়ার পর থেকে অল্প সময়ের মধ্যে ১০ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি আয় হয়। এরপর তার কৈশোর এবং বেন্টলি ইউনিভার্সিটিতে ইনফরমেশন সিস্টেমে পড়ার সময়ও নানান উদ্যোগ অব্যাহত রাখেন তিনি।

একজন প্রযুক্তি বিষয়ক উদ্যোক্তা হিসেবে তিনি ছিলেন আন্তর্জাতিক মানের। প্রায়ই কথা বলতেন বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাথে। গত ফেব্রুয়ারিতে সিএনএনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছিলেন নাইজেরিয়ায় তার ব্যবসা সম্পর্কে।

২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে নাইজেরিয়াতে `গোকাডা` নামে একটি রাইড শেয়ারিং সার্ভিস চালু করেন তিনি। তাঁর সাথে সহ-প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে আরো একজন ছিলেন। খবরে বলা হয়েছে, সেখানে মোটসাইকেল ভিত্তিক রাইড “গোকোডা” চালুর পর পাঁচ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি মূলধন ও ৮০০ ড্রাইভার তালিকাভূক্ত হয়েছিল। পরে দেশটির রাজধানী লেগোসে বাণিজ্যিক মটরসাইকেল চালনা নিষিদ্ধ করা হলে, ফাহিমের কম্পানি সমস্যায় পড়ে যায়। এরপর থেকে কম্পানিটি চালিয়ে নেয়ার জন্য বিকল্প খুঁজতে থাকেন তিনি। যাত্রী পরিবহন নিষিদ্ধ হয়ে গেলে ‘গোকাডা’ পার্সেল ডেলিভারি সার্ভিস চালু করে।

টেককাবাল নামে নাইজেরিয়ার একটি প্রযুক্তিবিষয়ক গণমাধ্যম তাদের প্রতিবেদনে বলছে, সংকটে পড়ার আগে এক বছরেই ‘গোকাডা’ ৫৩ লাখ ডলার আয় করে। সম্প্রতি “অ্যাডভেঞ্চার ক্যাপিটাল” নামে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন তিনি, যার মাধ্যমে বিভিন্ন দেশে বিনিয়োগে উদ্যোগী হন।   

ফাহিম সালেহর জন্ম ১৯৮৬ সালে সৌদি আরবে। পরে বাবা-মায়ের সাথে নিউ ইয়র্কে চলে আসেন। এখানেই তার পড়াশোনা ও বেড়ে ওঠা। তাঁর বাবা সালেহ উদ্দিন চট্টগ্রামের, আর মা নোয়াখালীর বলে জানা গেছে। ২০১৪ সালে নিউ ইয়র্ক থেকে ঢাকায় গিয়ে “পাঠাও” চালু করে নতুন প্রজন্মের উদ্যোক্তা হিসেবে খ্যাতি লাভ করেন তিনি। একই সাথে নেপালেও পাঠাও-এর সেবা চালু করা হয়। জানা গেছে, তিনি পাঠাওয়ের নিজের শেয়ার বিক্রি করে নিউ ইয়র্কে চলে আসেন এবং অন্যান্য কয়েকটি দেশে এ ধরনের ব্যবসা শুরু করেন।

ওমান থেকে ফিরলেন ২৫৪ বাংলাদেশি
                                  

 বৈশ্বিক মহামারি করোনায় আটকে পড়া ২৫৪ বাংলাদেশি ওমানের রাজধানী মাস্কাট থেকে দেশে ফিরেছেন। মঙ্গলবার সকালে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি চার্টার্ড ফ্লাইটে তারা দেশে ফিরেন।

জানা গেছে, করোনার প্রাদুর্ভাবে ওমানে আটকা পড়েন এসব বাংলাদেশি। ওমান ও বাংলাদেশ সরকার যৌথ উদ্যোগ নিলে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স চার্টার্ড ফ্লাইট পরিচালনা করে তাদের দেশে ফিরিয়ে আনে। দেশে ফেরাদের মধ্যে ওমানের প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকরাও রয়েছেন।       
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উপ-মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার জানান, যাত্রীরা কোভিড-১৯ নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে ভ্রমণ করায় কাউকেই প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হয়নি।

পাপুল কাণ্ডে এবার কুয়েতের সেনা কর্মকর্তা গ্রেফতার
                                  

মানবপাচার ও মানি লন্ডারিংয়ের দায়ে কুয়েতে আটক বাংলাদেশি এমপি কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের সহযোগী দেশটির বহুল আলোচিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারি মেজর জেনারেল শেখ মাজান আল-জারাহকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

কুয়েতের আরবি দৈনিক আল-কাবাস জানিয়েছে, শুক্রবার দেশটির পাবলিক প্রসিকিউশন তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতে হাজির করার আদেশ দিয়েছেন। তার বিরুদ্ধে এমপি পাপুলের কাছ থেকে ঘুষ নেয়ার মাধ্যমে ব্যবসায়িক সুবিধা দেয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। এর আগে ঐ জেনারেলের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়। তদন্তে পাপুলের কাছ থেকে অবৈধভাবে অর্থ নেয়ার অভিযোগের সত্যতা মেলায় গ্রেফতার করা হলো তাকে।

লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য পাপুলকে গত ৬ জুন রাতে কুয়েতের মুশরিফ এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। মারাফি কুয়েতিয়া কোম্পানির অন্যতম মালিক পাপুলের সেখানে বসবাসের অনুমতি রয়েছে।

পাচারের শিকার ৫ বাংলাদেশির অভিযোগের ভিত্তিতে পাপুলের বিরুদ্ধে মানবপাচার, অর্থপাচার ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের শোষণের অভিযোগ এনেছে কুয়েতি প্রসিকিউশন। ১৭ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের পর এখন তাকে রাখা হয়েছে কুয়েতের কেন্দ্রীয় কারাগারে।

আড়াই লাখের বেশি বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠাতে পারে কুয়েত
                                  

সম্প্রতি অভিবাসীদের সংখ্যা কমিয়ে আনতে একটি প্রবাসী কোটা বিল প্রণয়ন করেছে কুয়েত সরকার।জানা গেছে, ওই খসড়া আইনে বাংলাদেশী অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য মাত্র ৩ শতাংশ কোটা প্রস্তাব করা হয়েছে। বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, এই আইন পাস হলে দেশটিতে অবস্থানরত আড়াই লাখের বেশি অভিবাসীকে ফেরত আসতে হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

সর্বশেষ হিসেব অনুযায়ী, কুয়েতে মোট জনসংখ্যা ৪৩ লাখ। এরমধ্যে ৩০ লাখই অভিবাসী। অর্থাৎ মোট জনসংখ্যার প্রায় ৭০ শতাংশই অভিবাসী। এ কারণে কুয়েত সরকার সম্প্রতি উদ্যোগ নিয়েছে যে, অভিবাসীর সংখ্যা পর্যায়ক্রমে ৩০ শতাংশে নামিয়ে আনা হবে। যেন জনতাত্ত্বিক ভারসাম্য রক্ষা করা যায়।

এ লক্ষ্যে কুয়েতের পার্লামেন্টের একটি কমিটি সম্প্রতি এ সংক্রান্ত খসড়া কোটা বিল অনুমোদন করেছে। সেখানে বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের বিভিন্ন কোটায় ভাগ করে ফেরত পাঠানোর প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

কোটা অনুযায়ী কুয়েত সরকার যদি মাত্র ৩ শতাংশ বাংলাদেশি অভিবাসীকে জায়গা দেয় তাহলে আড়াই লাখেরও বেশি অভিবাসীকে বাংলাদেশে ফিরে আসতে হবে।

তাই প্রস্তাবিত এই বিলটির আইনে পরিণত হওয়া নিয়ে বেশ আতঙ্কে আছেন সেখানে অবস্থানরত প্রবাসীরা।

এক হিসাব অনুযায়ী, কুয়েতে বর্তমানে প্রায় তিন লাখ বাংলাদেশী প্রবাসী রয়েছেন। হাতে গোনা কয়েকজন ছাড়া তাদের সবাই বিভিন্ন অদক্ষ বা স্বল্প-দক্ষ পেশায় নিয়োজিত। বিশেষ করে পরিচ্ছন্নতা কর্মী, নির্মাণ শ্রমিক, গাড়ি চালক বা হোটেল ইত্যাদি বিভিন্ন পেশায় বাংলাদেশি শ্রমিকদের বেশি দেখা যায়।

জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, ১৯৭৬ সাল থেকে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিয়ে আসছে কুয়েত। তখন থেকে বাংলাদেশের রেমিটেন্স আয়ের একটি বড় অংশ আসে কুয়েত থেকেই।

প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের প্রথম পাঁচ মাসে কুয়েত থেকে প্রায় ৫০ কোটি মার্কিন ডলার রেমিটেন্স আয় হয়েছে। এখন দেশটি এতো বিপুল সংখ্যক শ্রমিক পাঠিয়ে দিলে রেমিটেন্স আয়ের ওপর বড় ধরণের চাপ সৃষ্টি হবে।

করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমে যাওয়া এবং উৎপাদন বাধাগ্রস্ত হওয়ায় কুয়েত সরকার অভিবাসীদের কমিয়ে আনতে চাইছে বলে ধারণা বিশেষজ্ঞদের।

তবে কুয়েতে এখন থেকেই নতুন করে আর কোন বিদেশীদের কাজ দেয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ কারণে সম্প্রতি কুয়েতে নতুন ভিসায় আসা বাংলাদেশের অন্তত ১৭শ কর্মী অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছেন।

যাদের কুয়েতে এসে কাজ করার প্রক্রিয়া চলছিল সেগুলো বাতিল করা হয়েছে, যারা এখন কাজ করছেন তাদের অনেকের কাজের মেয়াদ নবায়ন করা হয়নি। এমনকি ছুটি কাটাতে যারা কুয়েত থেকে দেশে এসেছেন, তারা কবে ফিরতে পারবেন, কাজ আদৌ ফিরে পাবেন কিনা তা নিয়েও আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

করোনাকাণ্ড: ১৬৭ বাংলাদেশিকে ফিরিয়ে দিল ইতালি
                                  

বাংলাদেশ ইতালি যাওয়া দু’টি ফ্লাইটের ১৬৭ শেষ পর্যন্ত দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে। বুধবার (৮ জুলাই) তাদের ফেরত পাঠানো হয়েছে। একই দিন দুটি ফ্লাইটে তারা ইতালি গিয়েছিলেন। জানা গেছে, ওই ফ্লাইটে থাকা এক বাংলাদেশি প্রবাসী নারীকে ফিরিয়ে না দিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। একই সঙ্গে থাকা অন্য দেশের বেশ কিছু নাগরিককে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

ইতালির রোম দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) মো. আরফানুল হক গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বুধবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টার দিকে ফিউমিসিনো বিমানবন্দরে ওই বিমানটি অবতরণ করে।

এর আগে সোমবার বাংলাদেশ থেকে যাওয়া যাত্রীদের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করে ইতালি কর্তৃপক্ষ। এরপর বাংলাদেশের সঙ্গে এক সপ্তাহের জন্য সকল ফ্লাইট বাতিল ঘোষণা করে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

তবে বাংলাদেশের সঙ্গে ফ্লাইট বাতিল করলেও কাতারের সঙ্গে ফ্লাইট চালু আছে ইতালির। সেই হিসেবে কাতারের রাজধানী দোহা থেকে যাওয়া ওই ফ্লাইটটির বাংলাদেশি যাত্রীদের ইতালি প্রবেশে কোনো বাধা থাকার কথা ছিল না। কিন্তু তাদের দেশটিতে প্রবেশ করতে না দিয়ে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

এদিকে বুধবার ইতালির বেশি কিছু জাতীয় দৈনিকে বাংলাদেশের রিজেন্ট হাসপাতালের ভুয়া করোনা পরীক্ষা নিয়ে সংবাদ ছেপেছে। দৈনিক ইল মেসসাজ্জেরো প্রিন্ট সংস্করনে প্রথম পাতায় শিরোনাম করেছে, `বাংলাদেশে ভুয়া করোনা সার্টিফিকেট বিক্রয় হয়!

সোমবার বাংলাদেশ থেকে ইতালিতে প্রবেশ করাদের মধ্যে যাদের করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে তাদেরকে আইসোলেয়শন অথবা হাসপাতালে পাঠানো হয়। আর বাকিদের হোম করেন্টাইনে রাখা হয়েছে রোমের হিলটন হোটেলে। জানা গেছে, এই হোটেলে জনপ্রতি এক দিনের ভাড়া বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৫০ হাজার থেকে এক লাখ।

বাহরাইনে ৫০% ছাড়ে মিলছে ভিসা, নিয়মে আসছে পরিবর্তন
                                  

বাহরাইনে করোনাভাইরাসের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক ক্ষতি পুষিয়ে নিতে অর্থনৈতিক সহায়তা হিসেবে ৫০% ছাড়ে ভিসা নবায়ন, মালিক পরিবর্তনে ভিসার সুযোগ দিয়েছে শ্রমবাজার নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (এলএমআরএ)। ১ জুলাই হতে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সবাই রেসিডেন্ট পারমিটের এ সুযোগ গ্রহণ করতে পারবে বলে ঘোষণা দিয়েছে দেশটির শ্রমবাজার নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ।

৬ জুলাই বিষয়টি নিশ্চিত করে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বাহরাইনের বাংলাদেশ দূতাবাস। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় মালিকানা পরিবর্তনের ক্ষেত্রেও এসেছে কিছু নতুন নিয়ম। এলএমআরএ এর নতুন এ ঘোষণা অনুযায়ী কোম্পানির ওয়ার্ক পারমিট নতুন/নবায়ন ফি ২ বছরের জন্য মোট ২৯৪ দিনার পরিশোধ করবে। এছাড়া কোম্পানির ওয়ার্ক পারমিট ১ বছরের জন্য মোট ১২২ দিনার পরিশোধ করবে।
অপর দিকে নতুন ফ্লেক্সি ভিসার ১ বছরের ফ্লেক্সি পারমিট ফিসহ মোট ৩০২ দিনার পরিশোধ করতে হবে। নবায়নকারীদের ক্ষেত্রে ১ বছরের ফ্লেক্সি পারমিট ফিসহ মোট ২০২ দিনার পরিশোধ করতে হবে।

এলএমআরএ এর নতুন নিয়ম অনুযায়ী কোন কর্মী ১ জুলাই হতে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বর্তমান মালিক (স্পন্সর) হতে নতুন মালিকের (স্পন্সর) অধীনে ভিসা পরিবর্তন করতে চাইলে বর্তমান স্পন্সর (মালিক) অবশ্যই কর্মীর ভিসা বাতিল করতে হবে। এক্ষেত্রে কর্মীর ভিসা বাবদ প্রদানকৃত অবশিষ্ট মাসের ফি হিসাব করে নতুন স্পন্সর (মালিক) পূর্ববর্তী স্পন্সরকে (মালিক) বুঝিয়ে দিতে হবে।

তবে কোন কর্মীকে একই কোম্পানি রেজিস্ট্রেশনের এক শাখা থেকে অন্য শাখায় পরিবর্তনে এপয়েন্টমেন্ট নিয়ে সরাসরি এলএমআরএ এর অফিসে সাক্ষাৎ অথবা ই-সাপোর্টের মাধ্যমে আবেদন করে তা সমাধান করতে হবে।


   Page 1 of 9
     প্রবাস
ভিয়েনায় বঙ্গমাতার ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালন
.............................................................................................
মালয়েশিয়া প্রবাসী রায়হান কবির ১৩ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
বেড়াতে গিয়ে কম্বোডিয়ায় আটকে পড়া ৩ বাংলাদেশি থাইল্যান্ডে ঢুকে গ্রেফতার
.............................................................................................
মিশরের হোটেলে বাংলাদেশি নারীর রহস্যজনক মৃত্যু
.............................................................................................
কনস্যুলেট সেবা থেকে বঞ্চিত হতে যাচ্ছে সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিরা বাড়ছে বিড়ম্বনা রাষ্ট্রদূতের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়ার হুমকি
.............................................................................................
ইউরোপের দেশ পর্তুগালে দূতাবাসে হেনস্থার শিকার হচ্ছে প্রবাসীরা ডিজিটাল সেবার নামে দালাল চক্রের হাতে চরম ভোগান্তি
.............................................................................................
ইতালিতে ৬ বাংলাদেশির হাতে ১ বাংলাদেশি খুন
.............................................................................................
নিউ ইয়র্কে ফাহিমের জানাজা আজ, সাংবাদিকদের যাওয়া নিষেধ
.............................................................................................
ফাহিমের খুনি চিহ্নিত, যেকোনো সময় গ্রেফতার
.............................................................................................
ইতালিতে বাংলাদেশিদের নিষিদ্ধে দুই যুক্তি
.............................................................................................
নিউ ইয়র্কে ফাহিম হত্যাকাণ্ড ঘিরে অনেক প্রশ্ন
.............................................................................................
ওমান থেকে ফিরলেন ২৫৪ বাংলাদেশি
.............................................................................................
পাপুল কাণ্ডে এবার কুয়েতের সেনা কর্মকর্তা গ্রেফতার
.............................................................................................
আড়াই লাখের বেশি বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠাতে পারে কুয়েত
.............................................................................................
করোনাকাণ্ড: ১৬৭ বাংলাদেশিকে ফিরিয়ে দিল ইতালি
.............................................................................................
বাহরাইনে ৫০% ছাড়ে মিলছে ভিসা, নিয়মে আসছে পরিবর্তন
.............................................................................................
বাংলাদেশিসহ ১৮০ অভিবাসনপ্রত্যাশীর জন্য দ্বার খুলল ইতালি
.............................................................................................
প্রবাসীদের ভিসার মেয়াদ বাড়িয়েছে সৌদি সরকার- পররাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
প্রবাস ফেরতদের কর্মসংস্থানে জাতিসংঘের সহায়তা চান ড. মোমেন
.............................................................................................
প্রবাস ফেরতদের কর্মসংস্থানে জাতিসংঘের সহায়তা চান ড. মোমেন
.............................................................................................
আবুধাবি থেকে ফিরলেন আরও ১৫২ বাংলাদেশি
.............................................................................................
পাপুলের সাথে সম্পৃক্ততার অভিযোগে কুয়েতের সেনা কর্মকর্তা বরখাস্ত
.............................................................................................
সৌদি আরবে নতুন রাষ্ট্রদূত জাবেদ পাটোয়ারী
.............................................................................................
মানবপাচার সংক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্রের বার্ষিক প্রতিবেদনে বাংলাদেশের উন্নতি: প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী
.............................................................................................
এক লাখ বাংলাদেশি সৌদিতে কর্মসংস্থান হারানোর হুমকিতে
.............................................................................................
কুয়েতের কারাগারে এমপি পাপুল
.............................................................................................
কাতারে করোনা আক্রান্ত হয়ে রাঙ্গুনিয়া এক প্রবাসীর মৃত্যু!
.............................................................................................
সৌদিতে করোনায় ৫ বাংলাদেশি চিকিৎসকের মৃত্যু
.............................................................................................
কাজের সংকট আবুধাবির বিভিন্ন কোম্পানীতে, ৪১২ জন রেমিট্যান্স যোদ্ধা ফিরছে খালি হাতে
.............................................................................................
সৌদি আরবে করোনায় ৪ চিকিৎসকসহ ৩৭৫ বাংলাদেশির মৃত্যু
.............................................................................................
২৫ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশির দুর্বিষহ জীবন যাপন: বেরাকাসে আসিফুল গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা পথ বেছে নেয়
.............................................................................................
ক্ষতিগ্রস্ত বিদেশফেরতদের ৩ কোটি টাকা জরুরি সহায়তা
.............................................................................................
অবৈধ শ্রমিকদের দারুণ সুখবর দিল মালয়েশিয়া
.............................................................................................
করোনায় ফ্রান্সে আরও এক বাংলাদেশির মৃত্যু
.............................................................................................
হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখা বাড়ছে, মালয়েশিয়া থেকে এক মাসে এসেছে ৮৩ বাংলাদেশি কর্মীদের লাশ
.............................................................................................
মালদ্বীপ থেকে খালি হাতে ফিরছে দুইশত বাংলাদেশি, মধ্যপ্রাচ থেকে ফিরছে দশকর্মীর লাশ
.............................................................................................
কুয়েতে ২৫ হাজার অবৈধ বাংলাদেশির ভাগ্য অনিশ্চিত
.............................................................................................
অভিবাসী কর্মী ছাটাইয়ের দিকে অগ্রসর হচ্ছে দুবাই, কূটনৈতিক তৎপরতায় এগিয়ে যেতে বাংলাদেশের দূতাবাসের ভূমিকা নেয়া জরুরি
.............................................................................................
সৌদিতে মৃত বাংলাদেশি নাগরিকের নাম ঠিকানা পরিচয় প্রকাশ
.............................................................................................
ভিসার মেয়াদ শেষ, চুক্তির মেয়াদ না বাড়াতে আদালতের নির্দেশ : চাকরি হারানোর ঝুঁকিতে ওমানের প্রবাসীরা কর্মীরা
.............................................................................................
হাজারের অধিক প্রবাসী বাংলাদেশি মৃত্যদেহ হাসপাতালের মর্গে, ফ্লাইট বন্ধ থাকায় দেশে আনা সম্ভব হচ্ছে না
.............................................................................................
ওমানে প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীরা সঙ্কটে, আজ দুই শতাধিক কর্মী স্বদেশে প্রত্যাবর্তন করছে
.............................................................................................
আমিরাতে বাংলাদেশি প্রবাসীদের জন্য সুখবর
.............................................................................................
আমিরাতে করোনায় প্রাণ গেল ৩১ বাংলাদেশির
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় আটকে পড়াদের নিয়ে প্রথম ফ্লাইট আসছে ১৩ মে
.............................................................................................
অবৈধ অভিবাসী কর্মীরা কাজে যোগদান থেকে বঞ্চিত : নিজ খরচে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা বাধ্যতামূলক
.............................................................................................
অর্থনৈতিক মন্দায় অস্থিতিশীল মধ্যপ্রাচ্যের শ্রমবাজার, রেমিট্যান্স খাতে বিপর্যয়ের আশঙ্কা : সৌদি আরব থেকেই ফিরবে দশ লাখ কর্মী
.............................................................................................
প্রবাসীদের খাবার নাই দুশ্চিন্তায় বাংলাদেশি কর্মীরা, এরমধ্যেই মালয়েশিয়ায় গ্রেফতার হতাশা
.............................................................................................
ব্রুনাইতে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের মধ্যেই চল্লিশ দালাল চক্রের প্রতারণা শিকার প্রবাসীরা
.............................................................................................
হাইকমিশনের দেয়া ত্রাণ পায়নি ক্ষুধার্ত অনাহারি প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীরা
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD