| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ল ছুটি   * দেশে করোনায় নতুন আক্রান্ত ১৮ জন, মোট ৮৮   * ৫ বিভাগে ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস   * কেউ যেন ঢাকায় প্রবেশ বা বের হতে না পারে, আইজিপির নির্দেশ   * সামনে মারা যাবে বহু মানুষ, কিছুই করার নেই মেনে নিতেই হবে: ট্রাম্প   * চাকরিহারা প্রবাসীদের প্রণোদনা দেবে সরকার   * ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর   * বিমানের ফ্লাইট বন্ধের সময়সীমা বাড়ল   * দেশে আরও ৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত   * করোনায় বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা ৫৯ হাজার ছাড়িয়েছে  

   সু-সংবাদ -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
পূর্বাচলে ৯৬ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে সিকদার গ্রুপ


নিজস্ব প্রতিবেদক:
পূর্বাচলে ৯৬ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে দেশের অন্যতম শিল্পগোষ্ঠী সিকদার গ্রুপ। ২০১৮ সালে ‘সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিকট’ (সিবিডি) নির্মাণের লক্ষে পূর্বাচল নতুন টাউনশিপ প্রকল্পের ১৯ সেক্টরে মোট ১১৪ একর জমি বরাদ্দ পায় পাওয়ার প্যাক হোল্ডিংস লিমিটেড এবং কাজিমার করপোরেশন। প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৬ হাজার কোটি টাকা। যার মধ্যে ৬০ হাজার কোটি টাকার বৈদেশিক বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি ইতিমধ্যে পাওয়া গেছে। আর নির্মাণের প্রথম দুই বছরে নির্মাণ সামগ্রী বাবদ ৩০,০০০ কোটি টাকার খরচ করা হবে।

সোমবার দুপুরে পূর্বাচল উপশহরের পূর্বাচল নিউটাউন এরিয়া ‘সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিকট’ (সিবিডি) প্রকল্প পরিদর্শন করেন বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। এসময় সিকদার গ্রুপের চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদার, জেডএইচ সিকদার ওম্যানস মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের চেয়ারম্যান মিসেস মনোয়ারা সিকদার, সিকদার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রন হক সিকদার উপস্থিত ছিলেন। এ সময় তারা প্রকল্পের অগ্রগতি ঘুরে দেখেন।

এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে সামগ্রিক অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে, এমনটাই মনে করেন অর্থনীতি বিশেষজ্ঞরা। ১১১ তলা বিশিষ্ট আইকনিক লিগ্যাসি টাওয়ারসহ মোট ৪২টি আকাশচুম্বী স্থাপনা এখানে রাখা হবে। যেখানে ৯৬ তলাটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য উৎসর্গ করা হয়েছে। আর ৭১ তলা বিশিষ্ট ভবনটি হবে ১৯৭১ সালের যুদ্ধের স্মৃতি নিদর্শন। এছাড়া ৫২তলা সুউচ্চ ভবনটি তুলে ধরা হবে ১৯৫২ সালের ত্যাগ ও মহিমার নিদর্শন তুলে ধরা হবে। ১১৪ একর জমির আয়তন সম্পন্ন পুরো প্রকল্পটি একটি আধুনিক ও উচ্চ প্রযুক্তি সুরক্ষা প্রাচীর স্থাপন করা হবে। সর্বোপরি এ মহাযোগ্যটি দ্রুত বাস্তবায়নে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন উপস্থিত প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

 
পূর্বাচলে ৯৬ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে সিকদার গ্রুপ
                                  


নিজস্ব প্রতিবেদক:
পূর্বাচলে ৯৬ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে দেশের অন্যতম শিল্পগোষ্ঠী সিকদার গ্রুপ। ২০১৮ সালে ‘সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিকট’ (সিবিডি) নির্মাণের লক্ষে পূর্বাচল নতুন টাউনশিপ প্রকল্পের ১৯ সেক্টরে মোট ১১৪ একর জমি বরাদ্দ পায় পাওয়ার প্যাক হোল্ডিংস লিমিটেড এবং কাজিমার করপোরেশন। প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৬ হাজার কোটি টাকা। যার মধ্যে ৬০ হাজার কোটি টাকার বৈদেশিক বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি ইতিমধ্যে পাওয়া গেছে। আর নির্মাণের প্রথম দুই বছরে নির্মাণ সামগ্রী বাবদ ৩০,০০০ কোটি টাকার খরচ করা হবে।

সোমবার দুপুরে পূর্বাচল উপশহরের পূর্বাচল নিউটাউন এরিয়া ‘সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিকট’ (সিবিডি) প্রকল্প পরিদর্শন করেন বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। এসময় সিকদার গ্রুপের চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদার, জেডএইচ সিকদার ওম্যানস মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের চেয়ারম্যান মিসেস মনোয়ারা সিকদার, সিকদার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রন হক সিকদার উপস্থিত ছিলেন। এ সময় তারা প্রকল্পের অগ্রগতি ঘুরে দেখেন।

এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে সামগ্রিক অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে, এমনটাই মনে করেন অর্থনীতি বিশেষজ্ঞরা। ১১১ তলা বিশিষ্ট আইকনিক লিগ্যাসি টাওয়ারসহ মোট ৪২টি আকাশচুম্বী স্থাপনা এখানে রাখা হবে। যেখানে ৯৬ তলাটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য উৎসর্গ করা হয়েছে। আর ৭১ তলা বিশিষ্ট ভবনটি হবে ১৯৭১ সালের যুদ্ধের স্মৃতি নিদর্শন। এছাড়া ৫২তলা সুউচ্চ ভবনটি তুলে ধরা হবে ১৯৫২ সালের ত্যাগ ও মহিমার নিদর্শন তুলে ধরা হবে। ১১৪ একর জমির আয়তন সম্পন্ন পুরো প্রকল্পটি একটি আধুনিক ও উচ্চ প্রযুক্তি সুরক্ষা প্রাচীর স্থাপন করা হবে। সর্বোপরি এ মহাযোগ্যটি দ্রুত বাস্তবায়নে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন উপস্থিত প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

 
করোনামুক্ত সেই উহান, আতশবাজি ফুটিয়ে উদযাপন
                                  

অনলাইন ডেস্ক: বর্তমানে চীনের বাইরে বিভিন্ন দেশে তাণ্ডব চালাচ্ছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। এই ভাইরাসের প্রকোপে এখন ইউরোপের দেশ ইতালি যেন এক মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে। তবে ভাইরাসটির উৎপত্তিস্থল চীনের সেই উহান বলা যায় এখন করোনামুক্তি। কেননা, টানা তিন দিন সেখানে কোনও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ধরা পড়েনি। ফলে স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে সেখানকার জনজীবন।

সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে শহরের তল্লাশিচৌকিগুলো। এসব চৌকি বসানো হয়েছিল মানুষের চলাচল ঠেকাতে। উহানের এই স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসাকে বিশ্বব্যাপী বড় অর্জন হিসেবে দেখা হচ্ছে। আর এই অর্জন উদযাপন করছে উহানবাসী। আতশবাজি পুড়িয়ে তল্লাশিচৌকি অপসারণ উদযাপন করছে শহরটির অনেক অধিবাসী।
করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর গত জানুয়ারি মাসে উহান শহর লকডাউন ঘোষণা করা হয়। এরপরও মানুষ যাতে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাতায়াত করে ভাইরাসটি ছড়াতে না পারে, সে জন্য তল্লাশিচৌকি বসানো হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে এমনটা জানিয়ে ইতোমধ্যে উহানে স্থাপিত ১৬টি অস্থায়ী হাসপাতাল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। চীনের বিভিন্ন প্রদেশ থেকে আসা চিকিৎসক, নার্স ও স্বেচ্ছাসেবীরা নিজ নিজ প্রদেশে চলে গেছেন। মানুষ কাজে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছে। গত শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে উহানের তল্লাশিচৌকি অপসারণ। তবে শহরের বাইরে যাওয়ার ওপর এখনো কড়াকড়ি অব্যাহত আছে।

এদিকে, চীনে ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণে আসলেও এখনও গোটা বিশ্ব আতঙ্কে কাঁপছে। এরই মধ্যে চীনের বাইরে বিশ্বের ১৮৭টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী ভাইরাস। এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে বিশ্বব্যাপী আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ৭ হাজার ৬১৩ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৩ হাজার ৫০ জনের। চীনের উহান থেকে এই ভাইরাসের উৎপত্তি হলেও তা সবচেয়ে ভয়ঙ্কর রূপ নিয়েছে ইতালিতে গিয়ে। বর্তমানে ইউরোপের দেশটিতে এই ভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৮২৫ জনে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে ৫৩ হাজার ৫৭৮ জন।

আর চীনে মোট আক্রান্ত হয়েছে ৮১ হাজার ৫৪ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ২৬১ জন। সূত্র: সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট, ওয়াল্ড ওমিটার

 
করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ডিএনসিসির ২৫টি স্থানে হাত ধোয়া কর্মসূচির উদ্বোধন
                                  

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ২৫টি স্থানে পথচারীদের জন্য হাত ধোয়ার কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ডিএনসিসির নবনির্বাচিত মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলাম এবং প্যানেল মেয়র মোঃ জামাল মোস্তফা আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে এগারটায় গুলশান ২ নম্বর ডিএনসিসি মার্কেটের সামনে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

২৫টি স্থান হচ্ছে উত্তরায় রবীন্দ্র সরণি (বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চ), রাজলক্ষী মার্কেটের সামনে, মাসকট প্লাজার সামনে, খিলক্ষেত বাস স্ট্যান্ড, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার গেইটের সামনে, মিরপুরে সনি সিনেমা হলের সামনে, গ্রামীন ব্যাংকের বিপরীত দিকে ডিএনসিসি আঞ্চলিক কার্যালয়ের সামনে, মিরপুর ১০ নম্বর গোলচত্বরে ফায়ার সার্ভিসের সামনে, মিরপুর ১২ নম্বর বাস স্ট্যান্ড, মিরপুর ১৪ নম্বর মার্ক মেডিক্যলের সামনে, মিরপুর ১০ নম্বর গোলচত্বরে শাহ আলী মার্কেটের কোনায়, মিরপুর শপিং মলের নিচে (মিরপুর সরকারি কলেজের বিপরীতে), মিরপুর ১ নম্বর কো-অপারেটিভ মার্কেটের সামনে, গাবতলী পশু হাট, শ্যাওড়াপাড়া বাসস্ট্যান্ড, ফার্মগেট আনন্দ সিনেমা হলের সামনে, মোহাম্মদপুর টাউন হলের সামনে, মোহাম্মদপুর বসিলা রোডের নতুন রাস্তার কালভার্টের উপর, কারওয়ান বাজার (কিচেন মার্কেটের সামনে), আগারগাঁও পঙ্গু হাসপাতালের সামনে, গুলশান-২ ডিএনসিসি মার্কেটের সামনে, গুলশানে পুলিশ প্লাজার সামনে, কাকলী বাস স্ট্যান্ড, মহাখালী ডিএনসিসি আঞ্চলিক অফিসের সামনে এবং রামপুরা বাজার।

পর্যায়ক্রমে ডিএনসিসির অন্যান্য জনসমাগমস্থলেও হাত ধোয়ার এ কর্মসূচি সম্প্রসারণ করা হবে। কর্মসূচির উদ্বোধনকালে আতিকুল ইসলাম বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। সচেতনতার প্রথম শর্ত হচ্ছে হাত ধোয়া। মূলত পথচারীদের সচেতন করে তুলতেই হাত ধোয়ার এ কর্মসূচির উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। পথচারী, বাসযাত্রী এবং পথচারীরা এ সব স্থানে হাত ধুতে পারবেন। এজন্য সাবান ও পানি ডিএনসিসি থেকে সরবরাহ করা হবে।

তিনি বলেন, করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য প্রয়োজন হলে মহাখালীতে ডিএনসিসির নতুন মার্কেটটি ব্যবহার করা যেতে পারে। হাত ধোয়া কর্মসূচি উদ্বোধনের পরে বর্জ্য পরিবহনের জন্য ডিএনসিসি কর্তৃক নতুন কেনা ২০টি ট্রাকের চাবি ড্রাইভারদেরকে হস্থান্তর করা হয়। এ সকল ট্রাক ২০টি ওয়ার্ডে বর্জ্য সংগ্রহে ব্যবহার করা হবে। কর্মসূচির উদ্বোধনকালে অন্যান্যের মধ্যে ১৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মফিজুর রহমান, ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আবদুল হাই, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর রহমান মামুন, প্রধান বর্জ্য কর্মকর্তা কমডোর মঞ্জুর হোসেন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

 
প্রথম দফায় আক্রান্ত তিনজনই করোনামুক্ত
                                  

দেশে প্রথমবারের মতো করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তিন রোগীকে ‘সংক্রমণমুক্ত’ ঘোষণা করলো রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। আজ রবিবার দুপুরে রাজধানীর মহাখালীতে আইইডিসিআর’র সম্মেলন কক্ষে করোনাভাইরাস সম্পর্কিত নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সাবরিনা ফ্লোরা এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রটোকল অনুসারে ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে আক্রান্ত ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষায় নেগেটিভ ফলাফল এলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে করোনা সংক্রমণমুক্ত ঘোষণা করা হয়। প্রকোটল অনুসারে নমুনা পরীক্ষার পর গত ১৩ মার্চ দুজনকে করোনামুক্ত ও ১৫ মার্চ অপর আরেকজনকে করোনামুক্ত ঘোষণা দেয়া হলো।

ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, সারাদেশে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন মোট ২৩১৪ জন। এরা সবাই বিদেশে থেকে এসেছেন। তাছাড়া আজকে ইতালিসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে অনেকে এসেছেন। তারা এখন হাজী ক্যাম্পে আছেন। এছাড়া গতকাল রাতে আসা প্রবাসীদের মধ্যে গাজীপুরে আছেন ৪৮ জন। হাজী ক্যাম্পে ৭২ জন ছিলেন। তাদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে প্রশাসনের মাধ্যমে বাড়িতে পাঠানো হয়েছে। তারা যেন হোম কোয়ারেন্টাইনে নিশ্চিত করতে পারে।

‘২৪ ঘণ্টায় ২০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। সর্বমোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ২৩১ জনের। এদের মধ্যে দুইজন করোনা ভাইরাস (কভিড-১৯) শনাক্ত হয়েছে। তারা হাসপাতালে আইসোলেশন আছে। দুই জনের মধ্যে একজনের বয়স ২৯ বছর। অন্য একজনের বয়স ৪০ বছর। এক ব্যক্তির ডায়াবেটিস ও উচ্চরক্তচাপ রয়েছে। এতে দুজনেরই ঝুঁকি আছে বলে মনে করেন আইইডিসিআর। এখন পর্যন্ত ১০ জন হসপিটালের আইসোলেশন আছে। এছাড়া ৪ জন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আছে।’

এর আগে শনিবার (১৪ মার্চ) রাতে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, নতুন করে আরও দুই বাংলাদেশির শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। এ দুজন ইতালি ও জার্মানি থেকে এসেছেন।

 
হজে যেতে না পারলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী
                                  

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ বলেছেন, হজে নিবন্ধনকারীদের আর্থিক বা মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা নেই। টাকা জমা দিয়ে কেউ যদি করোনাভাইরাসের জন্য যেতে না পারে তাদের টাকা মার যাবে না। এবার যেতে না পারলে আগামীবার যেতে পারবেন।

আজ সচিবালয়ে ২০২০ সালের হজ নিবন্ধন কার্যক্রম নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৩০ জুলাই অর্থাৎ ৯ জিলহজ হজ অনুষ্ঠিত হবে। চলতি বছরে হজের জন্য আগামী ২৩ জুন শুরু হবে হজ ফ্লাইট। আর ১৫ মার্চের মধ্যে নিবন্ধন শেষ করতে হবে।

 
করোনা মোকাবিলায় সজাগ সরকার: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
করোনা মোকাবিলায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, মুজিববর্ষ উদযাপনে বিদেশি অতিথিদের আগমনের বিষয়ে সতর্ক সরকার। শনিবার (০৭ মার্চ) সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। মন্ত্রী বলেন, করোনা ভাইরাস সারা বিশ্বে একটা আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে। এতে যথেষ্ট প্রভাব পড়বে এবং আমরা এ ব্যাপারে সজাগ রয়েছি।

তিনি আরও বলেন, কিছু কিছু লোক অভিযোগ করছেন ভারতে যে দাঙ্গা-হাঙ্গামা হয়েছে, ভারতের যেটা ঐতিহাসিক অবস্থান সেখান থেকে অনেকটুকু সরে পড়ছে বলে মনে হয়। আমরা ওনাকে (মোদি) দাওয়াত দিয়েছি, তিনি দাওয়াত গ্রহণ করেছেন, মেহমানের নিরাপত্তাও আমরা দেই। এটা আমাদের মজ্জাগত।

 
চিকিৎসককে দিয়ে করোনার ভ্যাকসিন নিরীক্ষা!
                                  

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক:
মহামারী করোনাভাইরাসের এখনো কোনো চিকিৎসা পদ্ধতির সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে বিজ্ঞানীরা নানা রকম ভ্যাকসিন নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাচ্ছেন। তেমনই এক ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন চীনের এক চিকিৎসক। ৫৪ বছর বয়সী সেই চিকিৎসকের নাম চেন উই। তিনি চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির মেজর জেনারেলও। একটি ছবিতে দেখা গেছে, সাদা পোশাকের এক ব্যক্তি তার শরীরে ভ্যাকসিনটি দিয়ে দিচ্ছে।

ওই ভ্যাকসিন তার দলের আরো পাঁচজনের শরীরে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। ভ্যাকসিনটি এখনো পশুপ্রাণীর ওপরও প্রয়োগ করা হয়নি। এটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর্যায়ে আছে। ভ্যাকসিনটি কার্যকরভাবে প্রয়োগের জন্য নিরলসভাবে কাজ চলছে। এর আগে ২০১৪ সালে ইবোলার ভ্যাকসিন সবার আগে আবিষ্কার করে বিশ্বব্যাপী আলোচনার শিরোনামে চলে আসেন চেন উই। ২০০০ সালে সার্স মোকাবেলায়ও তার অবদান রয়েছে।

 
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে কুকুর দিলো ভারত
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি:
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ১০টি কুকুর উপহার দিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।বুধবার (৪ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২টায় বেনাপোল চেকপোস্টে কুকুরগুলো হস্তান্তর করা হয়।বেনাপোল আইসিপি বিজিবি ক্যাম্পের কমান্ডার সুবেদার আব্দুল ওয়াহাব জানান, ভারতের মিরাট সেনানিবাস থেকে কুকুরগুলো প্রথমে কলকাতার চাষাড়া সেনানিবাসে আনা হয়। পরে আজ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে পেট্রাপোল বিএসএফ ক্যাম্প থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ নিয়ে বাংলাদেশে দ্বিতীয় চালানে মোট ২০টি কুকুর এলো।

এর আগে গত বছরের ৭ ডিসেম্বর ১০টি কুকুরের আরও একটি চালান এসেছিল। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর লে. কর্নেল মিজানুর রহমান বলেন, ভারতীয় সেনাবাহিনীর উপহার দেওয়া প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ১০টি কুকুর আমরা গ্রহণ করেছি। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত এই কুকুরগুলো মাদক, অস্ত্র ও দুষ্কৃতিকারী শনাক্ত করতে সক্ষম।

 
ঢাকার বাইরে যেখানে পাবেন ই-পাসপোর্ট
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

বহুল প্রতীক্ষিত ইলেক্ট্রনিক পাসপোর্ট বা ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম এরই মধ্যে চালু হয়েছে। রাজধানী ঢাকার উত্তরা, আগারগাঁও ও যাত্রাবাড়ীতে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চলছে। তবে ঢাকার বাইরে প্রথম গাজীপুরে চালু হচ্ছে ই-পাসপোর্ট। সোমবার গাজীপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক মো. সালেহ উদ্দিন গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, মঙ্গলবার (৩ মার্চ) থেকে গাজীপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে ই-পাসপোর্টের আবেদন জমা নেওয়ার জন্য সব ধরনের সরঞ্জাম বসানোর কাজ শুরু হবে। প্রযুক্তিগত বিষয়গুলো চেক করতে সর্বোচ্চ দু’দিন সময় লাগবে।

পরে ই-পাসপোর্টের জন্য সেন্ট্রাল সার্ভারের সঙ্গে সংযুক্ত করা হবে গাজীপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস। আনুষঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করে চলতি সপ্তাহেই গাজীপুর থেকে ই-পাসপোর্টের আবেদন জমা নেওয়া হবে। মো. সালেহ উদ্দিন আরও বলেন, ঢাকার পরেই ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে পারবেন গাজীপুরবাসী। আশা করা যাচ্ছে, চলতি সপ্তাহ থেকে গাজীপুরে আবেদন শুরু হবে। প্রথমে স্বল্প পরিসরে কাজ শুরু হবে। ধীরে ধীরে ই-পাসপোর্টের আবেদন সংখ্যা বাড়বে বলে আশা করছি।

ই-পাসপোর্ট হবে ৪৮ ও ৬৪ পাতার। আর মেয়াদ হবে পাঁচ ও ১০ বছর। ৪৮ পৃষ্ঠার পাঁচ বছর মেয়াদি সাধারণ পাসপোর্টের জন্য ফি লাগবে ৩ হাজার ৫০০ টাকা। আর সাতদিনের মধ্যে (জরুরি) পেতে হলে ৫ হাজার ৫০০ টাকা ও দু’দিনে (অতি জরুরি) পাওয়ার জন্য লাগবে ৭ হাজার ৫০০ টাকা। একই সংখ্যক পৃষ্ঠার ১০ বছর মেয়াদি সাধারণ ই-পাসপোর্টের জন্য ৫ হাজার, জরুরি ৭ হাজার ও অতি জরুরির জন্য ৯ হাজার টাকা হাজার টাকা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে।

 
ইসিএলইআই সাউথ এশিয়া ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে SLD কর্মশালা অনুষ্ঠিত
                                  

স্টাফ রিপোর্টার: 

কার্বন নিঃসরণ হ্রাসকরণ প্রকল্পের আওতায় আইসিএলইআই সাউথ এশিয়া ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এর উদ্যোগে Shared Learning Dialogue (SLD) কর্মশালা নগরীর কার্বন নিঃসরণ হ্রাসকরণ প্রকল্পের (Urban LEDS II) আওতায় এবং রাজশাহী সিটির জন্য জলবায়ু পরিবর্তন কর্ম পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আইসিএলইআই সাউথ এশিয়া (ICLEI South Asia) ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (রাসিক) এর উদ্যোগে (Shared Learning Dialogue-SLD) নামক সম্মিলিত অভিজ্ঞতা বিনিময় কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি সকাল সাড়ে ১০ টায় নগর ভবনের সরিৎ দত্ত গুপ্ত সভা কক্ষে কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয়। রাসিকের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল হক সঞ্চালনায় ও সচিব আবু হায়াত মোঃ রহমতুল্লাহ সভাপতিত্বে কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন আইসিএলইআই সাউথ এশিয়া’র সিনিয়র প্রোগ্রাম কোঅরডিনেটর মিস বেদোশ্রুতি সাধুয়ান, এনার্জি এন্ড ক্লাইমেটের ম্যানেজার মি: নিখিল কোলসেপাতিল, বাংলাদেশ আইসিএলইআই সাউথ এশিয়া’র অপারেশন’স ম্যানেজার মো. জোবায়ের রশিদ এবং প্রজেক্ট অফিসার (রাজশাহী) আব্দুল্লাহ – আল কাফি। কর্মশালায় আরো উপস্থিত ছিলেন নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ গোলাম মুর্শেদ এবং মোঃ নূর ইসলাম সহ রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু। এছাড়া বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী প্রৌকশলী মো: ইকবাল হোসেন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ রোকনুজ্জামান , বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আহমেদ নাইমুর রাহমান সহ নগরের আরো বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিনিধিবৃন্দ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন ।

কর্মশালায় রাসিক এর প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল হক বলেন, রাজশাহী সিটিকে একটি পরিবেশ বান্ধব এবং মডেল সিটি হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে রাসিক কাজ করে যাচ্ছে । তিনি আরও বলেন, রাসিককে সবুজ নগরী এবং জলবায়ু পরিবর্তন সহনশীল হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে আইসিএলইআই সাউথ এশিয়া (ICLEI South Asia) ২০০৯ সাল থেকে রাসিক এলাকার বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে সহায়তা করে যাচ্ছে ।

আইসিএলইআই সাউথ এশিয়া’র সিনিয়র প্রোগ্রাম কোঅরডিনেটর মিস বেদোশ্রুতি সাধুখান বলেন, গত ৪ অগাস্ট,২০১৯ এ অনুষ্ঠিত Shared Learning Dialogue-SLD কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের মতামতের প্রেক্ষিতে ছয়টি ঝুঁকিপূর্ণ নগর ব্যবস্থা যেমন “ পানি সরবরাহ; স্বাস্থ্য; জীব বৈচিত্র্য; অর্থনীতি; বর্জ্য ব্যবস্থাপনা; এবং ওয়েস্ট ওয়াটার চিহ্নিত করা হয় যেগুলো জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ক্ষতিগ্রত্থ । এসব ঝুঁকিপূর্ণ নগর ব্যবস্থার উপর ভিত্তি করে রাসিকের ৩০ টি ওয়ার্ডকে কেন্দ্র করে “বিশদ ঝুঁকিপূর্ণ মূল্যায়ন প্রতিবেদন (Vulnerability Assessment Report)” তৈরি করা হয়েছে। এছাড়াও রাসিকের বিভিন্ন সেক্টর যেমন আবাসিক ভবন, বাণিজ্যিক এবং প্রাতিষ্ঠানিক ভবন, উত্পাদন / নির্মাণ শিল্প, কৃষি / বনজ / ফিশিং কার্যক্রম, পরিবহন এবং বর্জ্য হতে কি পরিমাণ গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ হয় তার উপর “গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ তালিকা প্রতিবেদন(Green House Gas Emission Report)” নিয়ে আলোচনা করা হয় ।

কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীরা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় এবং রাসিককে পরিবেশ বান্ধব সিটি হিসেবে গড়ে তুলতে হলে রাসিকের জলাধার গুলোকে সংরক্ষণ করা এবং নগরীতে সবুজ অঞ্চল গড়ে তোলার কোন বিকল্প নেই । উল্লেখ,আগামী ১লা মার্চ, ২০২০ হতে আইসিএলইআই সাউথ এশিয়া (ICLEI South Asia) রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এলাকায় “সবুজ উন্মুক্ত স্থান পরিকল্পনার (Green Open Space Plan)” কাজ শুরু করবে যা রাসিককে পরিবেশ বান্ধব সবুজ নগরী এবং জলবায়ু পরিবর্তন সহনশীল হিসেবে গড়ে তুলতে সাহায্য করবে ।

এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ করোনামুক্ত: আইইডিসিআর
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
এখন পর্যন্ত সিঙ্গাপুরে ৫ জন, আরব আমিরাতে ১ জন বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত হলেও বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত করোনা মুক্ত রয়েছে বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর।ন সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টায় প্রতিদিনের নিয়মিত ব্রিফিং এ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আইইডিসিআর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, জরুরি প্রয়োজন না হলে বিদেশ ভ্রমণ থেকে বিরত থাকা এবং বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশিরা সেখানে ভাষাগত সমস্যায় পড়লে প্রয়োজনে আইইডিসিআরের হটলাইনে যোগাযোগ করবেন।

 
বাংলাদেশ ভারতের চেয়ে এগিয়ে তথ্য হিন্দুস্তান টাইমস
                                  

অনলাইন ডেস্ক

ভারত বাংলাদেশের জনগণকে নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রস্তাব করলে অর্ধেক বাংলাদেশ জনমানব শূন্য হয়ে যাবে বলে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জে কৃষ্ণ রেড্ডি যে বক্তব্য দিয়েছেন তার কঠোর জবাব দিলেন দেশটির সাংবাদিক করণ থাপার। তিনি ভারতীয় মন্ত্রীর চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলেন- বাংলাদেশ এখন আর ভারতের চেয়ে পিছিয়ে নেই। যেসব ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এখন ভারতের চেয়ে এগিয়ে তা তুলে ধরেছেন ওই সাংবাদিক।

আর এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে দেশটির জনপ্রিয় দৈনিক ‘হিন্দুস্তান টাইমস’।
* জিডিপি প্রবৃদ্ধিতে ভারত যেখানে শতকরা ৫ শতাংশ গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে, বাংলাদেশ সেখানে ৮ শতাংশ হারে এগিয়ে যাচ্ছে।
* ভারতের অর্থমন্ত্রী সীতারাম ১৫ শতাংশ হারে করপোরেট ট্যাক্স নির্ধারণ করে যেখানে চীনা বিনিয়োগ আকর্ষণে মরিয়া, সেখানে চীন বাংলাদেশে বিনিয়োগ করছে।
* বিশ্বের ধনী শহরগুলো যেমন— লন্ডন ও নিউইয়র্ক যখন বাংলাদেশে তৈরি পোশাকে ভরে গেছে, সেখানে লুধিয়ানা ও ত্রিপুরায় বানানো কাপড়ের ছোট্ট একটা অংশ জায়গা পেয়েছে।
* বাংলাদেশ যেখানে রফতানি দ্বিগুণ করেছে, সেখানে ভারতের রফতানি কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে।
* বাংলাদেশের পুরুষ ও নারীদের গড় আয়ু যথাক্রমে ৭১ ও ৭৪ বছর; ভারতে তা যথাক্রমে ৬৭ ও ৭০ বছর।
* ভারতে নবজাতকের মৃত্যুর হার প্রতি ১ হাজার জনে ২২ দশমিক ৭৩, বাংলাদেশে সে হার ১৭ দশমিক ১২।
* ভারতে শিশু মৃত্যুর হার ২৯ দশমিক ৯৪, বাংলাদেশে ২৫ দশমিক ১৪।
* ৫ বছরের কম বয়সী শিশুর মৃত্যুহার বাংলাদেশে ৩০ দশমিক ১৬ শতাংশ, যা ভারতে ৩৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ।
* বাংলাদেশে ১৫ বছরের বেশি বয়সী ৭১ ভাগ নারীই স্বাক্ষর জ্ঞানসম্পন্ন, ভারতে এ হার ৬৬ শতাংশ।
* বাংলাদেশে ৩০ শতাংশের বেশি নারী শ্রমে যোগ দিচ্ছেন ; ভারতে এ হার মাত্র ২৩ শতাংশ।একযুগে তা ৮ শতাংশ কমেছে।
* ছেলে-মেয়েদের উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তির হারে ০ দশমিক ১৯ শতাংশ হারে এগিয়ে ভারত, সেখানে বাংলাদেশ ১ দশমিক ১৪ শতাংশ হারে এগিয়ে এগিয়ে।
* সীমান্তের ওপারের অবস্থা শুধু আমাদের চেয়ে ভালোই নয়, বরং তা আরও ভালোর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু আমরা পিছিয়ে পড়ছি।
* ‘কিছু ভারতীয় অর্থনৈতিক কারণে অবৈধভাবে বাংলাদেশে ঢুকে পড়ছে’, কথাটা বাস্তবতার নিরিখে সঠিক। মানুষ খুব স্বাভাবিকভাবেই উন্নত জীবনযাপনের জন্য ভালো জায়গায় পাড়ি দেয়। যদি আমেরিকা আজ ঘোষণা করে যে তারা নাগরিকত্ব দেবে, তাহলে দেখা যাবে অর্ধেক ভারত খালি হয়ে গেছে। বলতে গেলে এর চেয়েই বেশি খালি হবে। আরেকটা বিষয়, আমেরিকার দরজা এখন বন্ধ থাকলেও আমাদের থামানো যাচ্ছে না।’

 
ল’রিয়েল-ইউনেস্কো পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী ড. ফিরদৌসী কাদরী
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

বাংলাদেশের চিকিৎসাবিজ্ঞানী ও জ্যেষ্ঠ গবেষক ড. ফিরদৌসী কাদরী আন্তর্জাতিক সম্মাননা ল’রিয়েল-ইউনেস্কো উইমেন ইন সায়েন্স অ্যাওয়ার্ডে (এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চল) ভূষিত হয়েছেন। উন্নয়নশীল দেশে শিশুদের সংক্রামক রোগ প্রতিরোধে অবদান রাখায় মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) এ পুরস্কারজয়ী হিসেবে তার নাম ঘোষণা করা হয়।

এ বিষয়ে পুরস্কারদাতা ‘ফর উইমেন ইন সায়েন্স’র বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ঢাকার আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্রের (আইসিডিডিআরবি) জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানী এবং মিউকোসাল ইমিউনোলজি অ্যান্ড ভ্যাকসিনোলজি ইউনিটের প্রধান ড. ফিরদৌসী বিজ্ঞানে নারী ও মেয়ে বিষয়ক আন্তর্জাতিক দিবসে এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের সেরা বিজ্ঞানী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। আগামী ১২ মার্চ ফ্রান্সের প্যারিসে ইউনেস্কো সদরদফতরে আনুষ্ঠানিকভাবে তার হাতে এ পুরস্কার তুলে দেয়া হবে। পুরস্কারের অর্থমূল্য এক লাখ ইউরো (৯২ লাখ ৬৩ হাজার টাকার বেশি)।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চের (আইইআর) সাবেক অধ্যাপক নওশাবা খাতুন ও জাতীয় সংসদের সাবেক স্পিকার শামসুল হুদা চৌধুরীর কন্যা ফিরদৌসী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণরসায়ন বিভাগ থেকে প্রথম শ্রেণিতে স্নাতক-স্নাতকোত্তর শেষ করার পর যুক্তরাজ্যের লিভারপুল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি সম্পন্ন করেন। লেখাপড়া শেষে দেশে ফিরে ১৯৮৮ সালে তিনি আইসিডিডিআরবিতে যোগ দেন।

২০১০ সালে তিনি আমেরিকান সোসাইটি ফর মাইক্রোবায়োলজির ‘মজিলো ক্যাচিয়ার পুরস্কার’ লাভ করেন। এরপর ২০১২ সালে ভূষিত হন ইন্সতিতুত দ্য ফ্রাঁস-এর ‘ক্রিস্তোফ মেরো’ পুরস্কারে। ফিরদৌসী ছাড়াও ল’রিয়েল-ইউনেস্কো পুরস্কারে আরও চার নারী বিজ্ঞানী ভূষিত হয়েছেন। অঞ্চলভেদে পুরস্কারপ্রাপ্ত এ চারজন হলেন- লেবাননের আমেরিকান ইউনিভার্সিটির প্রফেসর আবলা মেহিও সিবাই, কলেজ দ্য ফ্রান্সের প্রফেসর এডিথ হার্ড, মেক্সিকোর ন্যাশনাল অটোনোমাস ইউনিভার্সিটির জেনোমিক সায়েন্স সেন্টারের প্রফেসর এসপারেনজা মার্তিনেজ-রোমেরো এবং যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব কলোরাডোর প্রফেসর ক্রিস্টি আনসেট।

পদ্মা সেতুর দৃশ্যমান হলো ৩৬০০ মিটার
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
পদ্মা সেতুর ২৪তম স্প্যান (সুপার স্ট্রাকচার) বসেগেছে। আজ মঙ্গলবার সকাল ‘৫-এফ’ নম্বর স্প্যানটি সেতুর শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তের ৩০ ও ৩১ নম্বর খুঁটির উপর বসানো হয় ঠিক দুপুর ১টা ২০ মিনিটে। ২৩তম স্প্যান বসানোর ৯ দিনের মাথায় ২৪ তম স্প্যানটিও বসানো হল। এতে পদ্মা সেতু ৩৬০০ মিটার দৃশ্যমান হয়েছে।

এর আগে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তের অস্থায়ীভাবে সেতুর ১২ ও ১৩ নম্বর খুঁটির ওপর বসানো স্প্যানটি এখানে নিয়ে আসা হয়। আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টায় ১২ ও ১৩ নম্বর পিলার থেকে স্প্যান নিয়ে রওয়ানা হয় ভাসমান ক্রেন। সকাল পৌনে ১১টার দিকে নির্ধারিত পিলারের সামনে এসে পৌঁছায়। সেতু বিভাগের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, পদ্মা সেতু আরেক ধাপ এগিয়ে গেল। ৬.১৫ কিলোমিটার সেতুর এখন স্প্যান বসানো বাকী থকলো ১৭টি স্প্যান।

তিনি জানান, ৪২টি পিয়ারের (খুঁটি) মধ্যে ৩৭টি পিলারের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বাকি আছে ৫টি পিলারের কাজও চলছে পুরোদমে। শীঘ্রই পিয়ার-২৬ এর সাতটি পাইলে রিবার ইন্সটল ও কংক্রিটিং করা হবে। পিয়ার-৮, ১০ এবং ১১ এর কাজ শেষ পর্যায়ে। আগামী এপ্রিলের মধ্যে সব খুঁটির কাজই সম্পন্ন হয়ে যাবে। ৪১টির মধ্যে বাকী ১৭টি স্প্যান আগামী জুলাইয়ের মধ্যে বসানোর কথা রয়েছে। চীন থেকে এপর্যন্ত ৩৭টি স্প্যান মাওয়ায় এসে পৌঁছেছে। বাকী ৪টি স্প্যান শিঘ্র চলে আসছে।

বাংলাদেশের সফলতায় বিশ্বজুড়ে হচ্ছে আরও বিদ্যুৎকেন্দ্র
                                  

নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের সাফল্য দেখে বিশ্বজুড়ে আরও পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে একত্রিত হতে পারে রাশিয়া-ভারত। এতে তাদের মধ্যে সম্পর্ক আরও গভীর হবে বলে মনে করা হচ্ছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র কী তাদের এ বিষয়ে আর এগোতে দেবে?

এর সাধারণ উত্তর না হলেও রাশিয়া ভারত এক হয়ে আরও কাজ করবে এটা নিশ্চিত। কেননা, এর আগেও বহু মার্কিন বাধা ডিঙিয়েছে প্রতিবেশী ভারত। সম্প্রতিও রুশ ‘এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা’ কেনায় মার্কিন বাধা অতিক্রম করছে দেশটি। এছাড়া ইন্দো-রাশিয়া যৌথভাবে এর আগেও পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে কাজ করেছে।

রুশ সংবাদমাধ্যম আরটি বলছে, রাশিয়ায় নিয়োজিত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত ভেঙ্কাতেশ ভার্মা সম্প্রতি ঘোষণা দিয়ে বলেছেন, আফ্রিকা ও মধ্যপ্রাচ্যে নতুন পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প চালু করতে রাশিয়ার সঙ্গে সহযোগিতা করতে পারে ভারত।

ভেঙ্কাতেশ এও বলেন, রাশিয়া এরইমধ্যে বেশ কয়েকটি আফ্রিকান দেশের সঙ্গে এমন চুক্তি করেছে। ইথিওপিয়া এরমধ্যে একটি। এছাড়া কয়েকটি দেশ রয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের। যা করা হয়েছে বাংলাদেশেরটির সফলতা দেখে।

এছাড়া আন্তর্জাতিক বাণিজ্যিক পারমাণবিক জ্বালানি বাজারের শীর্ষস্থানীয় এবং সুদক্ষ ব্যবসায়ী রাশিয়া ইতোমধ্যে বিশ্বজুড়ে ৩৩ টিরও বেশি দেশের টার্নকি প্রজেক্টের প্রস্তাব পেয়েছে। যাতে ভারতের নিজস্ব পারমাণবিক শক্তি কর্মসূচি মূল অংশীদার হয়েছে।

মূলত দক্ষিণ ভারতের কুদানকুলামে পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি রাশিয়ার সহায়তায় নির্মিত হয়েছিল। এরপর রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পারমাণবিক শক্তি করপোরেশন রোসাটমের সহযোগিতায় শুরু হয় বাংলাদেশের রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের কাজ। এই প্রকল্পটি ১৩ বিলিয়ন ডলার ব্যয়ে ২০২৫ সালের মধ্যে শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

২০১৫ সালের ২৫ ডিসেম্বর রোসাটমের প্রকৌশল বিভাগ এটমস্ট্রয় এক্সপোর্ট (এএসই) জেনারেল কন্ট্রাক্টর হিসেবে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়নের দায়িত্ব পায়। প্রকল্পটির আওতায় ১২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন দুটি ভিভিইআর ১২০০ রিয়্যাক্টর স্থাপন করা হবে। রুশ ডিজাইনের ৩+ প্রজন্মের এই রিয়্যাক্টর সর্বোচ্চ নিরাপত্তার আর্ন্তর্জাতিক চাহিদা মেটাতে সক্ষম।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে ৬০ বছর নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে। এর পেছনে বার্ষিক খরচ হবে মাত্র এক হাজার কোটি টাকা। বলা হচ্ছে, প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে বাংলাদেশ বিশ্ব পরিমণ্ডলে দশ অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে যাবে।

 
মানব উন্নয়ন সূচকে তিন ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ
                                  

অনলাইন ডেস্ক
বৈশ্বিক মানব উন্নয়ন সূচকে আগের বারের চেয়ে তিন ধাপ এগিয়ে ১৩৬তম স্থান অর্জন করেছে বাংলাদেশ। আগেরবার বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৩৯তম। শুক্রবার ইউএনডিপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।
গড় আয়ু, জনস্বাস্থ্য, শিক্ষা ও মাথাপিছু আয়সহ বিভিন্ন আর্থসামাজিক ক্ষেত্রে অগ্রগতির ফলে বাংলাদেশের অবস্থানের এ উন্নতি হয়েছে। জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি ইউএনডিপির মানব উন্নয়ন প্রতিবেদন অনুযায়ী ১৮৯টি দেশকে নিয়ে এই সূচক তৈরি করা হয়েছে।
প্রকাশিত সূচকে ভারত এক ধাপ এগিয়ে অবস্থান করছে ১৩০তম স্থানে। অন্যদিকে পাকিস্তানের অবস্থান ১৫০তম।
১৮৯ দেশ ও অঞ্চল নিয়ে তৈরি করা সূচকের প্রথম দিকে আছে নরওয়ে, সুইজারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, আয়ারল্যান্ড ও জার্মানি। শেষের দিকে আছে নাইজার, মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র, দক্ষিণ সুদান, চাদ ও বুরুন্ডি।


   Page 1 of 2
     সু-সংবাদ
পূর্বাচলে ৯৬ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে সিকদার গ্রুপ
.............................................................................................
করোনামুক্ত সেই উহান, আতশবাজি ফুটিয়ে উদযাপন
.............................................................................................
করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ডিএনসিসির ২৫টি স্থানে হাত ধোয়া কর্মসূচির উদ্বোধন
.............................................................................................
প্রথম দফায় আক্রান্ত তিনজনই করোনামুক্ত
.............................................................................................
হজে যেতে না পারলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
করোনা মোকাবিলায় সজাগ সরকার: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
চিকিৎসককে দিয়ে করোনার ভ্যাকসিন নিরীক্ষা!
.............................................................................................
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে কুকুর দিলো ভারত
.............................................................................................
ঢাকার বাইরে যেখানে পাবেন ই-পাসপোর্ট
.............................................................................................
ইসিএলইআই সাউথ এশিয়া ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে SLD কর্মশালা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ করোনামুক্ত: আইইডিসিআর
.............................................................................................
বাংলাদেশ ভারতের চেয়ে এগিয়ে তথ্য হিন্দুস্তান টাইমস
.............................................................................................
ল’রিয়েল-ইউনেস্কো পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী ড. ফিরদৌসী কাদরী
.............................................................................................
পদ্মা সেতুর দৃশ্যমান হলো ৩৬০০ মিটার
.............................................................................................
বাংলাদেশের সফলতায় বিশ্বজুড়ে হচ্ছে আরও বিদ্যুৎকেন্দ্র
.............................................................................................
মানব উন্নয়ন সূচকে তিন ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ
.............................................................................................
হজযাত্রীরা পাচ্ছেন ফ্রি বাস সার্ভিস
.............................................................................................
নৌবাহিনীর যৌথ টহল শুরু আজ
.............................................................................................
যমজ পুত্রসন্তানের বাবা হলেন রেলমন্ত্রী
.............................................................................................
হজযাত্রীদের জন্য ভিসা প্রক্রিয়া সহজ হচ্ছে
.............................................................................................
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আজ নেপিডো’তে সমঝোতা সই
.............................................................................................
পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) ২ ডিসেম্বর
.............................................................................................
দাউদকান্দি-হোমনা নৌপথে ক্যাপিটাল ড্রেজিংয়ের উদ্যোগ
.............................................................................................
৬৮ রোহিঙ্গা ছাত্রকে স্কলারশীপ দিচ্ছে তুরস্ক
.............................................................................................
৫০ হাজার শিক্ষার্থীকে প্রশিক্ষণ প্রদানে স্থানীয় প্রতিষ্ঠানের সাথে মাইক্রোসফট যুক্ত
.............................................................................................
আগস্টে কর্ণফুলী নদীর টানেল নির্মাণ কাজ শুরু হবে
.............................................................................................
চট্টগ্রাম ৫শ` শয্যাবিশিষ্ট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল নির্মাণ করবে বাংলাদেশ রেলওয়ে
.............................................................................................
নববর্ষে নতুন রূপে ঢাকা-কলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস
.............................................................................................
নাটোরে রসুনের উৎপাদন ২ লাখ টন ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD