| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * দেশে করোনাভাইরাসে আরও একজনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ৩   * করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আর ব্রিফিং করবে না আইইডিসিআর   * ভারতে করোনায় আক্রান্ত ১,৬১৬ জন, মৃত্যু বেড়ে ৩৫   * রমজান উপলক্ষে টিসিবির তিন পণ্য বিক্রি শুরু   * শরীয়তপু‌রে আইসোলেশনে থাকা যুব‌কের মৃত্যু   * যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে ৭৭০ মৃত্যুর রেকর্ড, ছাড়াল চীনকেও   * শেষ হলো পদ্মাসেতুর সবক’টি পিলার বসানোর কাজ   * আক্রান্ত ছাড়িয়েছে সাড়ে আট লাখ, মৃত ৪২ হাজার   * অর্থনৈতিক মন্দায় পড়বে উন্নয়নশীল দেশগুলো: জাতিসংঘ   * মৃত শ্বশুরকে দেখতে যাওয়ার পথে জামাই-মেয়েসহ নিহত ৩  

   শিক্ষাঙ্গন -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দীর্ঘ হচ্ছে ছুটি

অনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দীর্ঘ হচ্ছে ছুটি। আসছে ঈদুল ফিতরের আগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আর খোলার সম্ভাবনা নেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানোর ব্যাপারে কাজ করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

নতুন করে আজ মঙ্গলবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানোর ঘোষণা আসছে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। এর আগে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ায় এই সিদ্ধান্তে যাচ্ছে শিক্ষামন্ত্রণালয়। জানা যায়, গতকাল সোমবার ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। কিন্তু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৩১ মার্চ পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা আছে। তাই আজ ছুটি বাড়ানোর বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় বৈঠকের আয়োজন করেছে। এই বৈঠক শেষে সম্মিলিতভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নতুন করে ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আসবে।

তবে জনসমাগম এড়াতে আর সংবাদ সম্মেলন করতে চায় না উভয় মন্ত্রণালয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই ছুটি বাড়ানোর ঘোষণা গণমাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব মো. আকরাম আল হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘সরকার ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। এই ছুটির আওতায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও পড়বে। তবে ৪ এপ্রিলের পর কী হবে সে ব্যাপারে করণীয় ঠিক করতে মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এরপর যা সিদ্ধান্ত আসে তা বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে।’

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বর্ষপঞ্জি অনুসারে রমজান, ঈদুল ফিতরসহ বেশ কিছু ছুটি মিলিয়ে ২৫ এপ্রিল থেকে ৩০ মে পর্যন্ত ছুটি রয়েছে। এ ছাড়া এপ্রিল মাসে শবেবরাত, স্টার সানডে ও পহেলা বৈশাখের ছুটি রয়েছে। সাপ্তাহিক ছুটি ও সরকারি ছুটি বাদে ৪ থেকে ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত মাত্র ১৪ দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রয়েছে। তাই করোনাভাইরাস রোধে এই ১৪ দিনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে চায় উভয় মন্ত্রণালয়। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নয়ন হলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগামী ঈদুল ফিতরের আগে আর খোলার তেমন সম্ভাবনা নেই।

 
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দীর্ঘ হচ্ছে ছুটি
                                  

অনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দীর্ঘ হচ্ছে ছুটি। আসছে ঈদুল ফিতরের আগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আর খোলার সম্ভাবনা নেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানোর ব্যাপারে কাজ করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

নতুন করে আজ মঙ্গলবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানোর ঘোষণা আসছে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। এর আগে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ায় এই সিদ্ধান্তে যাচ্ছে শিক্ষামন্ত্রণালয়। জানা যায়, গতকাল সোমবার ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। কিন্তু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৩১ মার্চ পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা আছে। তাই আজ ছুটি বাড়ানোর বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় বৈঠকের আয়োজন করেছে। এই বৈঠক শেষে সম্মিলিতভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নতুন করে ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আসবে।

তবে জনসমাগম এড়াতে আর সংবাদ সম্মেলন করতে চায় না উভয় মন্ত্রণালয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই ছুটি বাড়ানোর ঘোষণা গণমাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব মো. আকরাম আল হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘সরকার ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। এই ছুটির আওতায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও পড়বে। তবে ৪ এপ্রিলের পর কী হবে সে ব্যাপারে করণীয় ঠিক করতে মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এরপর যা সিদ্ধান্ত আসে তা বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে।’

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বর্ষপঞ্জি অনুসারে রমজান, ঈদুল ফিতরসহ বেশ কিছু ছুটি মিলিয়ে ২৫ এপ্রিল থেকে ৩০ মে পর্যন্ত ছুটি রয়েছে। এ ছাড়া এপ্রিল মাসে শবেবরাত, স্টার সানডে ও পহেলা বৈশাখের ছুটি রয়েছে। সাপ্তাহিক ছুটি ও সরকারি ছুটি বাদে ৪ থেকে ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত মাত্র ১৪ দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রয়েছে। তাই করোনাভাইরাস রোধে এই ১৪ দিনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে চায় উভয় মন্ত্রণালয়। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নয়ন হলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগামী ঈদুল ফিতরের আগে আর খোলার তেমন সম্ভাবনা নেই।

 
আগামী ১ এপ্রিল এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা স্থগিত
                                  

অনলাইন ডেস্ক
করোনাভাইরাসের কারণে এইচএসসি পরীক্ষার প্রবেশপত্র বিতরণ স্থগিত করেছে দেশের সব শিক্ষাবোর্ড। সূচি অনুযায়ী আগামী ১ এপ্রিল এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। তবে শনিবার (২১ মার্চ) এই পরীক্ষার প্রবেশপত্র আগামী ২৮ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে দেশের সব শিক্ষাবোর্ড।

শনিবার ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক এস এম আমিরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল গণমাধ্যমকে জানান, পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়ার স্বার্থে আগামী ২৮ মার্চ পর্যন্ত প্রবেশপত্র বিতরণ স্থগিত করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের অধীনস্থ সব কলেজ ও জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক এস এম আমিরুল ইসলামের স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত পত্রে শনিবারে বলা হয়, ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র বিতরণ কার্যক্রম ২৮ মার্চ ২০২০ তারিখ পর্যন্ত অনিবার্য কারণে স্থগিত করা হল। পরীক্ষার্থীদের নিজ বাসায় থেকে পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়ার অনুরোধ করা হয়েছে।

পহেলা এপ্রিল থেকে চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। সারাদেশের প্রায় ১২ লাখ শিক্ষার্থী এ পরীক্ষায় অংশ নেবে। দেশজুড়ে আড়াই হাজারের বেশি পরীক্ষা কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ১২ লাখ পরীক্ষার্থীর পাশাপাশি এ পরীক্ষায় শিক্ষক, ম্যাজিস্ট্রেট, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কর্মকর্তা-কর্মচারী মিলিয়ে আরও প্রায় তিন লাখ মানুষের সম্পৃক্ততা রয়েছে। এদিকে, কারোনা পরিস্থিতে সরকার থেকে বড় ধরনের লোক সমাগম আয়োজনে নিষেধাজ্ঞা থাকায় আগামী ১ এপ্রিল থেকে দেশজুড়ে এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হবে কিনা সে বিষয়ে মন্ত্রণালয় এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি।

 
দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা
                                  

মরণঘাতী করোনা ভাইরাস আতঙ্কে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সোমবার (১৬ মার্চ) দুপুরে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এ তথ্য জানিয়েছেন। বিকেলে এ বিষয়ে আদেশ জারি করা হবে বলেও জানান তিনি। এছাড়া ১৮ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকবে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এর আগে রোববার (১৫ মার্চ) শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছিলেন, দেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার মতো পরিস্থিতি এখনও তৈরি হয়নি। তিনি বলেন, স্কুল বন্ধ হবে কি, হবে না সেটাও একটা ব্যাখ্যা থাকতে হবে। তবে আমাদের এখানে তো স্থানীয় পর্যায়ে কোনো সংক্রমণ নেই। বিদেশ থেকে সংক্রমণ নিয়ে আসা আমরা বন্ধ করার চেষ্টা করছি।

তিনি আরও বলেন, যদি কখনো স্থানীয় পর্যায়ে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে দেখা যায়, সেক্ষেত্রে অবশ্যই প্রয়োজন হলে স্কুল বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেব। প্রসঙ্গত, দেশে এখন পর্যন্ত আটজনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন দুই সহস্রাধিক। বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৬ হাজার ৫১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে ৭৭ হাজার ৭৫৩ জন সুস্থ হয়েছেন।

ভাইরাসটিতে এখনও পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ১ লাখ ৬৯ হাজার ৫১৫ জন। আক্রান্তদের মধ্যে চিকিৎসা নিচ্ছেন ৮৫ হাজার ২৪৭ জন। চিকিৎসাধীন ৭৯ হাজার ৩২৬ জনের অবস্থা স্থিতিশীল। আর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছেন ৫ হাজার ৯২১ জন। চীনে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৮০ হাজার ৮৫৯ জন; আর প্রাণ হারিয়েছেন ৩ হাজার ২১৩ জন। ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ হাজার ৭৪৭ জন এবং মারা গেছেন ১ হাজার ৮০৯ জন।

 
নুরকে সাহসী যুবক বলেও মন্তব্য জার্মান রাষ্ট্রদূতের
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
ঢাকায় নিযুক্ত জার্মান রাষ্ট্রদূত পিটার ফাহরেনহল্টজের সঙ্গে বুধবার সাক্ষাৎ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর। টুইটারে জার্মান রাষ্ট্রদূতের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এসময় নুরকে `সাহসী যুবক` বলেও মন্তব্য করেন জার্মান রাষ্ট্রদূত। সাক্ষাতের বিষয়ে নুর গণমাধ্যমকে জানান, ২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন হওয়ায় শিক্ষার্থীদের নির্বাচিত প্রতিনিধি এবং বাংলাদেশের দুটি আন্দোলনে (কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়ক আন্দোলন) নেতৃত্ব দেয়ার কারণে আমাকে জার্মান দূতাবাসে আমন্ত্রণ করা হয়েছে। সাক্ষাতে সেখানে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক পরিবেশ কীভাবে ফিরিয়ে আনা যায় এবং বাংলাদেশকে কীভাবে মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা যায় সে বিষয়ে তারুণ্যের ভাবনা ও ভূমিকা নিয়ে কথা বলা হয়েছে জানান নুর।

 
নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে ববি হলের শিক্ষার্থীরা
                                  

নিজস্ব প্রতিনিধি:
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) আবাসিক হলগুলোতে নেই কোনো সিসি ক্যামেরা। ফলে নানা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন হলের শিক্ষার্থীরা। কর্তৃপক্ষ বলছে, হলগুলো সিসি ক্যামেরার আওতায় আনতে উদ্যোগ নেয়া হবে। তবে পুলিশ বলছে, নিরাপত্তার স্বার্থে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা উচিত। ২০১৬ সালে শিক্ষার্থীদের আবাসনের জন্য শেরে বাংলা, শেখ হাসিনা ও বঙ্গবন্ধু হল চালু করা হয় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে।

কিন্তু গত চার বছরেও হল তিনটিতে কোনো সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়নি। শিক্ষার্থীরা বলছেন, হলগুলোতে প্রায়ই ঘটছে নানা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। সবশেষ মঙ্গলবার রাতে এক শিক্ষার্থীকে তার রুম থেকে ডেকে অন্য রুমে নিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। ভাঙচুর করা হয়েছে অপর একটি কক্ষ। এ অবস্থায় নিরাপত্তাহীনতার কথা জানালেন হলগুলোর শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা বলেন, এর আগেও অনেক ঘটনা ঘটেছে। সিসি ক্যামেরা থাকলে বহিরাগতরা ঢুকতে সাহস পেত না। আমরাও নিরাপত্তা পেতাম।

কর্তৃপক্ষ বলছে, হলগুলো সিসি ক্যামেরার আওতায় আনতে উদ্যোগ নেয়া হবে। এদিকে নিরাপত্তার স্বার্থে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা উচিত বলে মনে করে পুলিশ। ববি প্রোক্টর ড. সুব্রত কুমার দাস বলেন, আমাদের হলগুলো সিসি ক্যামেরার বাইরে। বিষয়গুলো আমার জানা ছিল না। ভিসি স্যারকে জানাব যাতে দ্রুত হলগুলো সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়। বিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার প্রলয় চিসিম বলেন, কোনো ঘটনা ঘটে গেলে সিসি ক্যামরার যে ফুটেজ থাকে তা বিশ্লেষণ করা জরুরি।

এ জন্য গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা প্রয়োজন। ক্যাম্পাসে তিন ধাপে অর্ধ শতাধিক ক্যামেরা স্থাপন করা হলেও আবাসিক হলগুলোতে বসানো হয়নি। ২০১৯ সালের ২৬ মার্চ সার্ভার রুমে অগ্নিকাণ্ডে এনভিআর পুড়ে যায়। এরপর থেকে সবগুলো ক্যামেরাও অচল।

 
২৮ মার্চ ঢাবি ছাত্রলীগের হল সম্মেলন
                                  

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক:
মার্চের শেষ সপ্তাহে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শাখা ছাত্রলীগের হল সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। বিষয়টি নিশ্চিত করে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের অন্তর্গত হল সংসদগুলোর সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। আগামী ২৮ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, সংগঠনকে আরো চাঙ্গা করতে সম্মেলনের বিকল্প নেই। ভবিষ্যতে ছাত্র আন্দোলনে ভূমিকা রাখতে ও সংগঠনকে শক্তিশালী করতে তাই সম্মেলন আহ্বান করা হয়েছে। তিনি বলেন, ছাত্রলীগ নিয়মিত শিক্ষার্থীদের সংগঠন। ফলে নিয়মিত শিক্ষার্থীরা দলের নেতৃত্ব দিয়ে থাকে। নিয়মিত শিক্ষার্থীদেরকে নেতৃত্বে নিয়ে আসতেই সংগঠনে সম্মেলন অনুষ্ঠিত করা হয়। আগামী সম্মেলনের মধ্য দিয়ে হল শাখাগুলো নতুন নেতৃত্ব পাবে।

ইউরোপিয়ান আইটি ইন্সটিটিউটের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক :
‘কারিগরি শিক্ষা নেবো, বেকারত্ব নয় স্বাবলম্বী হবো’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো ইউরোপিয়ান আইটি ইন্সটিটিউটের নবীন বরণ অনুষ্ঠান। ২০২০ শিক্ষাবর্ষের ডেভেলপমেন্ট, ডিজাইনিং এবং নেটওয়ার্কিং ডিপার্টমেন্ট এর ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যাটাচমেন্ট শিক্ষার্থীদের জন্য এই বরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে প্রতিষ্ঠানটি।
শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর মিরপুরে ইউরোপিয়ান আইটি ইন্সটিটিউট ক্যাম্পাসে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে প্রতিষ্ঠানটির কান্ট্রি ডিরেক্টর মো. মামুন উর রসিদ বলেন, ‘বাংলাদেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে কারিগরি শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম। আমাদের দেশে সাধারণ শিক্ষা ব্যবস্থায় শিক্ষার্থীরা পাশ করে যাচ্ছে আর বেকারত্বের সংখ্যা বাড়ছে। কিন্তু কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত হলে চাকুরি না হলেও কেউ বেকার থাকছে না।’
তিনি বলেন, ‘শিক্ষার মাধ্যমে মানুষ যদি মেধাভিত্তিক জনশক্তিতে রুপান্তর না হয় তাহলে জাতির অগ্রগতি হয় না, জাতীয় জীবনে সমৃদ্ধি আসেনা। তাই বর্তমানে বিশেষভাবে প্রয়োজন কারিগরি শিক্ষার। সর্বোপরি কারিগরি শিক্ষা জাতিকে দিতে পারে আত্মকর্মসংস্থানের উপায়।’
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আর এইস এম আলাওল কবির, সিনিয়র কনসালটেন্ট, রিসার্চ এন্ড ইনোভেশন স্পেশালিষ্ট (টিম লিডার), স্টার্টআপ বাংলাদেশ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুহাম্মাদ রনি ইসলাম, হেড অব ডিএসই ট্রেইনিং একাডেমী, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ লিমিটেড এবং মো. বজলুল কাদির, প্রকিউরমেন্ট কনসালটেন্ট, মাল্টি লেটারেল ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক।
এসময় নবীন শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন প্রতিষ্ঠানটির কান্ট্রি ডিরেক্টর ও অতিথিগণ।
প্রসঙ্গত, ইউরোপিয়ান আইটি ইন্সটিটিউট মানসম্মত প্রফেশনাল এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যাটাচমেন্ট ট্রেইনিং এর জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যেই দক্ষ ও অভিজ্ঞ প্রশিক্ষক এবং প্রগতিশীল পরিচালনা পরিষদের নেতৃত্বে একটি নির্ভরযোগ্য অবস্থান প্রতিষ্ঠা করেছে। এখানে রয়েছে বাস্তবভিত্তিক কাজ দেখা ও শেখার সুযোগ।

 
ঢাবিতে আজীবন বহিষ্কৃত ৬৩ জনের পরিচয়
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৬৩ শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যায় কর্তৃপক্ষ। বহিস্কৃতদের মধ্যে বিশ জন ছাত্রী। গত ২৮ জুন তাদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয়। এর আগেও একই অপরাধে ১৫ জনকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। মঙ্গলবার (০৪ ফেব্রুয়ারি) বহিষ্কৃতদের তালিকা আবাসিক হলগুলোর প্রাধ্যক্ষদের পাঠিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তালিকা তাদের নাম, বিভাগ ও শিক্ষাবর্ষ উল্লেখ রয়েছে।

তালিকায় যাদের নাম রয়েছে তারা হলেন:
শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট:
১. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র মো. আব্দুল ওয়াহিদ।
২. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. ইছহাক আলী।
৩. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের আনিকা বৃষ্টি।
৪. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ফিওনা মহিউদ্দিন মৌমি।
৫. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মো. মাসুদ রানা ৷

সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট:
৬. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের সালমান এফ রহমান হৃদয়।
৭. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. রাকিবুল হাসান।
৮. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের সৌভিক সরকার।
৯. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. মেহেদী হাসান।
১০. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. হাসিবুর রশীদ।
১১. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. মারুফ হাসান খান।
১২. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ইসরাত জাহান ছন্দা।

ইংলিশ ফর স্পিকারস অব আদার ল্যাংগুয়েজেস বিভাগ:
১৩. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সাফায়াতে নূর সাইয়ারা নৌশিন।

ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ভালনারেবিলিটি স্টাডিজ বিভাগ:
১৪. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের জি এম রাফসান কবির ৷

পরিসংখ্যান বিভাগ:
১৫. ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের মো. আবু জুনায়েদ সাকিব ৷

তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগ:
১৬. ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের মোস্তাফিজ-উর-রহমান।
১৭. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মো. তৌহিদুল হাসান আকাশ৷

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ:
১৮. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. লাভলুর রহমান লাভলু।
১৯. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শরমিলা আক্তার আশা।
২০. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের জাকিয়া সুলতানা।
২১. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের জেরিন হোসাইন।
২২. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের আবির হাসান হৃদয় ৷

অর্থনীতি বিভাগ:
২৩. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সামিয়া সুলতানা।
২৪. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সিনথিয়া আহম্মেদ।
২৫. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের জান্নাত সুলতানা ৷

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ:
২৬. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের আমরিন আলম জুটি।
২৭. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মো. আশরাফুল ইসলাম আরিফ।
২৮. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের আল আমিন পৃথক।
২৯. ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের নওশীন আফরিন মিথিলা ৷

টেলিভিশন ফিল্ম অ্যান্ড ফটোগ্রাফি বিভাগ:
৩০. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মেহেজাবিন অনন্যা।
৩১. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মো. শাদমান শাহ ৷

সমাজবিজ্ঞান বিভাগ:
৩২. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মোছা. আফসানা নওরীন ঋতু ৷

ইতিহাস বিভাগ:
৩৩. ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ফাতেমা আক্তার তামান্না৷

বাংলা বিভাগ:
৩৪. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের এম ফাইজার নাঈম।
৩৫. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের জিয়াউল ইসলাম ৷

ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ:
৩৬. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের তাজুল ইসলাম সম্রাট।
৩৭. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের নুরুল্লাহ।
৩৮. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সাদিয়া সুলতানা ৷

ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগে:
৩৯. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. মাসুদ রানা।
৪০. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. শাবিরুল ইসলাম।
৪১. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ফাতেমা তুজ জোহরা ৷

ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ:
৪২. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের নাফিসা তাসনিম বিন্তী।
৪৩. ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ইফতেখারুল আলম জিসান ৷

বিশ্বধর্ম ও সংস্কৃতি বিভাগ:
৪৪. ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের শাশ্বত কুমার ঘোষ।
৪৫. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সাদিয়া সিগমা ৷

ফিন্যান্স বিভাগ:
৪৬. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শেখ জাহিদ বিন হোসেন ইমন।
৪৭. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মো. আশেক মাহমুদ জয়।

ফার্মেসি বিভাগ:
৪৮. ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের মো. মোহায়মেনুল ইসলাম।
৪৯. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মো. সাইদুর রহমান।
৫০. ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের আব্দুর রহমান ৷

আইন বিভাগ:
৫১. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সুবহা লিয়ানা তালুকদার।
৫২. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সালমান হাবীব আকাশ।
৫৩. ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের আজলান শাহ ফাহাদ ৷

মনোবিজ্ঞান বিভাগ:
৫৪. ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের বেলাল হোসেন।
৫৫. ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের মো. মশিউর রহমান।
৫৬. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মোরশেদা আক্তার।
৫৭. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের তানজিনা সুলতানা ইভা ৷

স্বাস্থ্য অর্থনীতি বিভাগ:
৫৮. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মো. মোহাইমিনুল রায়হান ফারুক ৷

পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ:
৬৯. ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের আবুল কালাম আজাদ ৷

সংস্কৃত বিভাগ:
৬০. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিহাব হাসান খান ৷

যোগাযোগ বৈকল্য বিভাগ:
৬১. ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. আবু মাসুম ৷

ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগ:
৬২. ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শাহাৎ আল ফেরদৌস ফাহিম ৷

মার্কেটিং বিভাগ:
৬৩. ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের মাহবুব আলম সিদ্দিকী সম্রাট ৷

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু আজ
                                  

অনলাইন ডেস্ক:
মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আজ সোমবার থেকে। ১লা ফেব্রুয়ারি এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের তারিখ পিছিয়ে যাওয়ায় এসএসসি পরীক্ষার তারিখ পরিবর্তন করা হয়। এ বছর সারা দেশের তিন হাজার ৫১২টি কেন্দ্রে অংশগ্রহণ করবে ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন শিক্ষার্থী।

 
ইউজিসি চাকরির পথ দেখালো গ্র্যাজুয়েটদের
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিশ্বমানের শিক্ষা অর্জনের সঙ্গে সঙ্গে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থেকে বের হওয়া গ্র্যাজুয়েটদের চাকরির বাজারে প্রবেশের উপযোগী করে তুলতে বেশকিছু সুপারিশ করেছে উচ্চ শিক্ষালয়গুলোর নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)।


ইউজিসির সুপারিশে নতুন প্রযুক্তিগত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় নতুন ফ্ল্যাগশিপ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন এবং শিক্ষকদের দক্ষ করতে আধুনিক প্রশিক্ষণকেন্দ্র স্থাপনেরও কথা বলা হয়েছে। পাশাপাশি ইউজিসির ক্ষমতায়নে জনবল বাড়ানো এবং গবেষণার জন্য জোর দিয়ে সম্প্রতি রাষ্ট্রপতির কাছে বার্ষিক প্রতিবেদন জমা দিয়েছে সংস্থাটি।

বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে মানসম্মত শিক্ষা, গবেষণা, উদ্ভাবন ও নতুন জ্ঞান সৃষ্টি ও উৎকর্ষ সাধনে ইউজিসি ২৯ দফা সুপারিশ করেছে।

ফ্ল্যাগশিপ বিশ্ববিদ্যালয় ও কর্মসংস্থান
ইউজিসি তার প্রতিবেদনে বলছে, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলায় শিক্ষক-শিক্ষার্থী, গবেষক যাতে উচ্চমানের গবেষণায় আত্মনিয়োগ করতে পারে সেজন্য একটি স্বতন্ত্র, আধুনিক ও আন্তর্জাতিক মানের সেন্ট্রাল রিসার্স ল্যাবরেটরি স্থাপন করতে হবে; যা রিসার্স কাউন্সিলের তত্ত্বাবধানে কাজ করবে।

বর্তমান সময় ও ভবিষ্যৎ ধারণ করার লক্ষ্যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, শক্তি, পরিবেশ, সামাজিক বিজ্ঞান এবং গ্রিন আর্কিটেকচার বিষয়ে উন্নত শিক্ষাদানের জন্য বিশ্বমানের ফ্ল্যাগশিপ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করতে হবে; যা দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থার বিচারে জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে গবেষণা পরিচালনার মাধ্যমে দেশে বিদ্যমান ও ভবিষ্যত সমস্যা সমাধানে কার্যকরী ভূমিকা রাখতে পারবে বলে মনে করে ইউজিসি।

ইউজিসি বলছে, গ্র্যাজুয়েটদের চাকরির বাজারে প্রবেশের ক্ষেত্রে জ্ঞান ও দক্ষতার উন্নয়নের জন্য কাঠামোবদ্ধ শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও শিল্প-প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সহযোগিতা স্থাপন করতে হবে। এক্ষেত্রে তিন থেকে ছয় মাসের বাধ্যতামূলক ও কার্যকরী ইন্টার্নশিপ চালু করলে তা চাকরিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে গ্র্যাজুয়েটদের দক্ষতা বাড়বে।

উচ্চশিক্ষার সার্বিক মানোন্নয়নের জন্য হেকেপের অনুরূপ বৃহৎ আঙ্গিকে প্রকল্প গ্রহণ করতে হবে। যাতে প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণার জন্য প্রয়োজনীয় গবেষণাগার স্থাপন করা যায় এবং ছাত্র, শিক্ষক ও কর্মকর্তাদের মান ও দক্ষতা বাড়ানো যায়।

ইউজিসি মনে করে, বিদেশে কর্মরত বাংলাদেশি গবেষকদের সংক্ষিপ্ত বৃত্তান্ত সংবলিত একটি ডিরেকটরি তৈরি করা গেলে তাদের গবেষণা কাজে সম্পৃক্ত করা যাবে। এই বিষয়ে প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারে।

এসজিজি-২০৩০ এর আলোকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বিভিন্ন প্রোগ্রামের কারিকুলাম পরিমার্জন করতে হবে।

বিডিরেনের তত্ত্বাবধানে প্রতিষ্ঠিত ভার্চুয়াল ক্লাসরুমের মাধ্যমে দেশ-বিদেশের প্রথিতযশা অধ্যাপকদের লেকচার শিক্ষার্থীদের কাছে উপস্থাপন করা যেতে পরে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে প্রযুক্তি নির্ভর ক্লাসরুমের ব্যবস্থা করতে হবে। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে একই বিষয়ে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারে।

সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বর্তমানে মেম্বারশিপ এগ্রিমেন্টের আওতায় ইউজিসি ডিজিটাল লাইব্রেরির মাধ্যমে ই-রিসোর্স সেবা দেওয়া হচ্ছে। এটিকে আরও সম্প্রসারণ, টেকসই ও কার্যকর করতে হবে।

গবেষণা ও শিক্ষকদের দক্ষতা অর্জন
গবেষণা ও শিক্ষকদের দক্ষতা অর্জনে গুরুত্ব দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, একটি দেশের শিল্পান্নয়ন ও অর্থনৈতিক উন্নয়নসহ সামগ্রিক উন্নয়নে শিক্ষাখাতে গবেষণার অপরিসীম গুরুত্ব রয়েছে। সরকারের ২০২১, ২০৩০ এবং ২০৪১ সালে লক্ষ্যমাত্র অর্জনে গবেষণা বরাদ্দ বৃদ্ধির বিকল্প নেই। ইতোমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর গবেষণা বরাদ্দ আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে বাড়ানো হয়েছে। সরকার শিক্ষাখাতে মোট বরাদ্দের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ গবেষণায় ব্যয় করার ব্যাপারে নির্দেশনা দিতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী অনুমোদিত স্ট্রাটেজিক প্ল্যান ফর হায়ার এডুকেশন ইন বাংলাদেশ ২০১৮-৩০ (এসপিএইচই ২০১৮৩০) অনুযায়ী ২০২২ সালের মধ্যে জাতীয় বাজেটের ২ শতাংশ এবং ২০৩০ সালের মধ্যে ৬ শতাংশ উচ্চ শিক্ষায় বরাদ্দ রাখার বিষয়ে এখন থেকেই প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে বলে মনে করে সংস্থাটি।

শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়নের প্রধান শর্ত হিসেবে শিক্ষকদের পাঠদান সক্ষমতা ও দক্ষতা বাড়ানোর লক্ষ্যে অগ্রাধিকারভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জন্য আন্তর্জাতিক মানের ইউনিভার্সিটি টিচার্চ ট্রেনিং একাডেমি প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সেলক্ষ্যে সরকারের দিকনির্দেশনা অনুযায়ী ইউজিসি যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারে।

ইউজিসি বলছে, একটি স্বতন্ত্র ও স্বায়ত্তশাসিত ন্যাশনাল রিসার্স কাউন্সিল গঠন করা প্রয়োজন। এই কাউন্সিল হবে সর্বোচ্চ পর্যায়ের একটি স্বায়ত্তশাসিত রেগুলেটরি বডি। বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, গবেষক এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রয়োজনীয় অভিজ্ঞতা ও দক্ষতাসম্পন্ন ব্যক্তিরা এই কাউন্সিলে অন্তর্ভুক্ত হবেন। এই বিষয়টি বাস্তবায়নে সরকার যথাযথ ভূমিকা পালন করতে পারে।

শিক্ষক ও গবেষকদের জন্য আকর্ষণীয় আর্থিক সুবিধাসহ অন্যান্য চাহিদা পূরণের সুযোগ থাকতে হবে। শিক্ষকদের গবেষণালব্ধ ফলাফল আন্তর্জাতিক মানের জার্নালে প্রকাশিত হলে গবেষক এবং সংশ্লিষ্ট বিভাগকে আর্থিক প্রণোদনা দেওয়ার সুপারিশ করেছে ইউজিসি।

সর্বোপরি, উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়নের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের পৃথক বেতনস্কেল ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার বিষয়ে যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করা যেতে পারে বলে মনে করে সংস্থাটি।

 
ফের ঢাবির হলে চার শিক্ষার্থীকে রাতভর নির্যাতন
                                  

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক


ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি আনোয়ার ও যুগ্ম সম্পাদক আমির হামজা
বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার চার মাস না পেরুতেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলে চার শিক্ষার্থীকে আবরারের স্টাইলে রাতভর নির্যাতন করেছে ছাত্রলীগ। নির্যাতনের পর আহত শিক্ষার্থীদের হল প্রশাসন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিম ও পুলিশের মাধ্যমে শাহবাগ থানায় নেয়া হয়। পরে শিক্ষার্থীদের রাতের বেলায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায় পুলিশ।

ছাত্রলীগের একটি সূত্র জানায়, রাত সাড়ে ১১টায় সন্দেহবশত তারা দ্বিতীয় বর্ষের এক শিক্ষার্থীকে শিবির করে কি না সে বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য গেস্টরুমে ডেকে আনে। শিবিরের সঙ্গে তার সংশ্লিষ্টতা রয়েছে এমন অভিযোগে তাকে মানসিকভাবে চাপ দিতে থাকে। স্বীকার না করায় মারধর করে। এ সময় তার মোবাইলে আরও তিন বন্ধুর সঙ্গে ‘যোগাযোগ তালিকায়’ নাম থাকায় তাদেরও ডেকে গেস্টরুমে আনা হয়। এ সময় হল শাখা ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমির হামজা, হল সংসদের সহ-সভাপতি সাইফুল্লাহ আব্বাসী অনন্তসহ বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগের নেতারা এসে রড, লাঠি দিয়ে মারধর করে। মারধরে গুরুতর আহত হয় ওই চার শিক্ষার্থী।



প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ১১টার দিকে জহুরুল হক হলের গেস্টরুমে ছাত্রলীগের নিয়মিত গেস্টরুম চলছিল। তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. মুকিম চৌধুরীকে শিবির সন্দেহে গেস্টরুমে ডাকা হয়। সেখানে হল শাখা ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আমির হামজা তাদের অনুসারীদের দিয়ে মুকিমকে প্রথমে মানসিকভাবে চাপ দেয়। এতে স্বীকার না করায় তাকে লাঠি, স্টাম্প ও রড দিয়ে বেধড়ক মারধর করতে থাকে। পরে তার ফোনের কললিস্ট দেখে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সানওয়ার হোসেনকে গেস্টরুমে আনা হয়। সেখানে তাকেও বেধড়ক মারধর করে ছাত্রলীগের নেতারা। মারধর সহ্য করতে না পেরে উভয়ই মেঝেতে বসে ও শুয়ে পড়ে। এর একটু পর ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মিনহাজ উদ্দীন এবং একই বর্ষের আরবি বিভাগের শিক্ষার্থী আফসার উদ্দীনকে ধরে গেস্টরুমে আনা হয়। সেখানে রাত দুটা পর্যন্ত তাদের ওপর নির্যাতন করতে থাকেন ছাত্রলীগ নেতারা। পরে রাত ২টার পর তাদের প্রক্টরিয়াল টিমের মাধ্যমে শাহবাগ থানায় হস্তান্তর করা হয়। পরে পুলিশ তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

নির্যাতনের বিষয়ে ছাত্রলীগের নেতারা দাবি করেছে, আহত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে শিবির সংশ্লিষ্ট বই উদ্ধার করা হয়েছে। তবে তার কোনো নাম অথবা প্রমাণ দিতে পারেনি তারা। এমনকি শিবির সন্দেহে তাদের গেস্টরুমে ডাকা হলেও তাদের কাছে শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার কোনো প্রমাণ দিতে পারেনি ছাত্রলীগ।

ছাত্রলীগের নির্যাতনে আহত মুকিম ও সানওয়ারকে রাত দুটার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ।

নির্যাতনের বিষয়ে হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আমির হামজা বলেন, আমরা তাদের মারধর করেনি। শুধুমাত্র জিজ্ঞাসা করেছি। তাদের কাছ থেকে শিবিরের দুটি বই উদ্ধার করেছি। তবে বইয়ের ছবি ও নামের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে আমির হামজা কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেনি।

 

উল্লেখ্য, ঢাকা মেডিকেলে চাঁদা চেয়ে এক ওষুধ ব্যবসায়ীকে মারধরের কারণে ঢাবি শাখা ছাত্রলীগ থেকে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছিল। এর কিছুদিন পর ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত থাকায় তাকে হল থেকে নামিয়ে দেয়া হয়। পরে ছাত্রলীগের তৎকালীন সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের ছত্রছায়ায় আবার হলে উঠে।

জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার এক পর্যায়ে মুখ ফসকে বলে ফেলেন, শালাদের অনেক মেরেছি। কিন্তু একটাও স্বীকার করেনি। একজনের নামও বলেনি।

নির্যাতনকারী আনোয়ার হোসেন ও আমির হামজা দুজনেই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়ের অনুসারী।

শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বলেন, গতকাল রাত আনুমানিক তিনটার দিকে হলে চার শিক্ষার্থীকে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

 
আজীবন বহিষ্কার ঢাবির ৬৩ শিক্ষার্থী
                                  

নিউজ ডেস্ক

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ভর্তি জালিয়াতির অভিযোগে ৬৩ শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কারের সুপারিশ করা হয়েছে।


মঙ্গলবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী সাংবাদিকদের বলেন, মোট ৮৭ জনের বিরুদ্ধে প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ উঠেছিল। এরমধ্যে ৬৩ জনকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের সুপারিশ করা হয়েছে। ৯ জনকে আগেই সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছিল। তাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।’

এর আগে গত বছরের ৬ আগস্ট ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ও জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ঢাবির ৬৯ শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।

একইসঙ্গে এসব শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশও দেয়া হয়, যার জবাবের ওপর ভিত্তি করে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় স্থায়ী ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলা হয়।

পাঁচ মাসেরও বেশি সময় পর সাময়িক বহিষ্কার হওয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৬৩জনকে আজীবন বহিষ্কার করা হলো আজ।

২০১২-১৩ থেকে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে বিভিন্ন বিভাগে ভর্তি হওয়া এসব শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে সিআইডি চার্জশিট দেয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা পরিষদের সভায় সাময়িক বহিষ্কারের সিদ্ধান্তটি নেয়া হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ও জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গত বছরের ২৩ জুন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮৭ শিক্ষার্থীসহ ১২৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় সিআইডি।

 
ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনা তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
                                  

:: অনলাইন ডেস্ক ::

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ঘটনাটি শুনেছি, মেয়েটি বেশ রাতে ফিরেছে। তার অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্ত করছে। আমাদের কয়েকটি টিম এ নিয়ে কাজ করছে। আমরা এখনও সুনিশ্চিত নই, কী কারণে, কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তবে তদন্ত প্রতিবেদন পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

সোমবার বিকালে রাজারবাগ পুলিশ লাইনস মাঠে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, গতকালকের ঘটনার তদন্ত চলছে, সত্যতা যাচাই করা হচ্ছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সবগুলো সংস্থা ঘটনাটি তদন্ত করছে।

 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আগে অনেক বড় বড় ঘটনা তদন্ত করে বের করেছে। এ ঘটনায়ও দ্রুত সময়ের মধ্যে হবে এবং দোষীদের দ্রুত সময়ের মধ্যে আইনের আওতায় আনা হবে।

পুলিশের বিভিন্ন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কামাল বলেন, মাঠ পর্যায়ে পুলিশের সব অভিযোগ প্রধানমন্ত্রী শুনেছেন। তিনি তাদের সব দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

রোবরাত রাতে রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পাশে ঢাকির ওই ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হওয়ার খবর ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়ে। রাতেই রাজপথে নামে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ ও ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে আলাদা আলাদা বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়।

একদিকে সহপাঠীকে ধর্ষণের নিন্দা ও বিচার দাবিতে মানববন্ধন, বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এ সময় তাদের ‘নো মোর মার্সি টু রেপিস্ট’ (ধর্ষকদের আর ক্ষমা নয়) স্লোগানে উত্তাল হয়ে ওঠে ক্যাম্পাস।

 

 

প্রাথমিকে পাস ৯৫.৫০, ইবতেদায়িতে ৯৫.৯৬ শতাংশ
                                  

 

নিজস্ব প্রতিবেদক   

 

  

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। প্রাথমিকে পাসের হার ৯৫ দশমিক ৫০ শতাংশ আর ইবতেদায়িতে ৯৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ। মঙ্গলবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন এসব তথ্য তুলে ধরেন।

 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রাথমিকে পাসের হার ৯৫ দশমিক ৫০ শতাংশ আর ইবতেদায়িতে ৯৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ। প্রাথমিকে জিপিএ-৫ পেয়েছে তিন লাখ ২৬ হাজার ৮৮ জন, ইবতেদায়িতে ১১ হাজার ৮৭৭ জন।

 

 

এবার সমাপনীতে মোট ২৪ লাখ ৫৪ হাজার ১৫১ জন অংশগ্রহণ করে। তাদের মধ্যে ২৩ লাখ ৪৩ হাজার ৭৪৩ জন পাস করেছে। পাসের হার ৯৫ দশমিক ৫০ শতাংশ। উত্তীর্ণদের মধ্যে ১০ লাখ ৭২ হাজার ১৫৪ জন ছাত্র ও ১২ লাখ ৭১ ৫৮৯ জন ছাত্রী। জিপিএ-৫ পেয়েছে তিন লাখ ২৬ হাজার ৮৮ জন। এদের মধ্যে ছাত্র এক লাখ ৪১ হাজার ৪৫১ ও ছাত্রী এক লাখ ৮৪ ৬৩৭ জন।

 

অন্যদিকে ইবতেদায়িতে এবার তিন লাখ চার হাজার ১৭৮ জন অংশগ্রহণ করে। তাদের মধ্যে পাস করেছে এক লাখ ৫৭ হাজার ৯৩৬ জন। পাসের হার ৯৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ। ছাত্র সংখ্যা এক লাখ ৫০ হাজার ৮৩৫ জন ও ছাত্রী এক লাখ ৪১ হাজার ৪০ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১১ হাজার ৮৭৭ জন। জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের মধ্যে ছাত্র সংখ্যা ৫৬৮৫ জন ও এক হাজার ১৯২ জন ছাত্রী।

 

ফল বিশ্লেষণে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বলেন, এবার ইবতেদায়ি পরীক্ষায় ছাত্রদের সংখ্যা বেশি হলেও গড় পাসের দিক থেকে মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। ছাত্রদের পাসের হার ৯৫ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং ছাত্রীদের পাসের হার ৯৬ দশমিক ৪৪ শতাংশ।

 

তিনি বলেন, সর্বোচ্চ পাসের হার বিবেচনায় ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় দেশের আট বিভাগের মধ্যে রাজশাহী বিভাগ শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। এ বিভাগে পাসের হার ৯৭ দশমিক ৮১ শতাংশ। নওগাঁ জেলায় পাসের হার শতভাগ।

 

 

তিনি আরও বলেন, এবার সারাদেশে বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ২৪০ জন এবং ডিআরভুক্ত হয়ে ২১৪ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। তার মধ্যে ১৯৭ জন পাস করেছে। তার মধ্যে ছাত্র ১১৪ জন এবং ছাত্রী ৮৩ জন। এ স্তরে পাসের হার ৯২ দশমিক ০৬ শতাংশ।

 

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন, অধিদফতরের মহাপরিচালক এ এফ এম মনজুর কাদির, মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা প্রমুখ।

প্রাথমিক সমাপনীতে পাস ৯৫.৫০, ইবতেদায়িতে ৯৫.৯৬
                                  

 

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এবার পরীক্ষায় পাসের হার ৯৫ দশমিক ৫০ শতাংশ। আর সমমানের ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় পাসের হার ৯৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ।


মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) দুপুরে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফলের এ তথ্য জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।

এর আগে গণভবনে সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। এরপর বিভিন্ন বোর্ডের চেয়ারম্যানরা নিজ নিজ বোর্ডের ফলাফল প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন।

দুপুর ১২টার কিছু আগে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এরপর দুপুরে ঘোষণা করা হয় প্রাথমিক সমাপনী ও ইবতেদায়ি পরীক্ষার ফল।

পাস করেনি কেউ ১৯টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক

জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এবারের ফলাফলে শুন্য ভাগ পাস করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ১৯টি। গত বছরের তুলনায় এবার এ সংখ্যা কমেছে চারটি।


মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) সকালে গণভবনে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত ফল প্রকাশের সময় এতথ্য জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

এর আগে, সকাল ১০টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। এরপর বিভিন্ন বোর্ডের চেয়ারম্যানরা নিজ নিজ বোর্ডের ফলাফল প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন।

এবছর ১৭ থেকে ২৪ নভেম্বর অনুষ্ঠিত প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষায় দেশব্যাপী ২৯ লাখ ৩ হাজার ৬৩৮ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। একই সময় অনুষ্ঠিত জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষায় অংশ নেয় ২৬ লাখ ৬১ হাজার ৬৮২ জন।


   Page 1 of 17
     শিক্ষাঙ্গন
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দীর্ঘ হচ্ছে ছুটি
.............................................................................................
আগামী ১ এপ্রিল এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা স্থগিত
.............................................................................................
দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা
.............................................................................................
নুরকে সাহসী যুবক বলেও মন্তব্য জার্মান রাষ্ট্রদূতের
.............................................................................................
নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে ববি হলের শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
২৮ মার্চ ঢাবি ছাত্রলীগের হল সম্মেলন
.............................................................................................
ইউরোপিয়ান আইটি ইন্সটিটিউটের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
ঢাবিতে আজীবন বহিষ্কৃত ৬৩ জনের পরিচয়
.............................................................................................
এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু আজ
.............................................................................................
ইউজিসি চাকরির পথ দেখালো গ্র্যাজুয়েটদের
.............................................................................................
ফের ঢাবির হলে চার শিক্ষার্থীকে রাতভর নির্যাতন
.............................................................................................
আজীবন বহিষ্কার ঢাবির ৬৩ শিক্ষার্থী
.............................................................................................
ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনা তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
প্রাথমিকে পাস ৯৫.৫০, ইবতেদায়িতে ৯৫.৯৬ শতাংশ
.............................................................................................
প্রাথমিক সমাপনীতে পাস ৯৫.৫০, ইবতেদায়িতে ৯৫.৯৬
.............................................................................................
পাস করেনি কেউ ১৯টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে
.............................................................................................
২০২০ শিক্ষাবর্ষ : প্রাথমিকের ক্লাস-পরীক্ষার সূচি প্রকাশ
.............................................................................................
জেএসসি পরীক্ষা : বিদেশ কেন্দ্রে পাসের হার ৯৬.৯৯%
.............................................................................................
জেএসসি-জেডিসি : শতভাগ পাস শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৫২৪৩, ৩৩টিতে সবাই ফেল
.............................................................................................
জেএসসি-জেডিসিতে পাসের হার ৮৭ দশমিক ৯০ শতাংশ
.............................................................................................
যেভাবে জানতে পারবেন পিইসি-জেএসসি পরীক্ষার ফল
.............................................................................................
মধুর ক্যান্টিনের সামনে ফের ককটেলবাজি
.............................................................................................
নিজ শিক্ষার্থীদের প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করবেন শিক্ষকরাই
.............................................................................................
ঢাবির মধুর ক্যান্টিনে ককটেল ‘বিস্ফোরণ’
.............................................................................................
তুহিন ফারাবির অবস্থার উন্নতি : লাইফ সাপোর্ট খুলে নেয়া হয়েছে
.............................................................................................
থমথমে ঢাবি: বিভিন্ন স্পটে পুলিশের সতর্ক অবস্থান
.............................................................................................
প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক পর্যায়ের পাঠ্যপুস্তকে পরিবর্তন আসছে
.............................................................................................
অনেক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এখন দিনে সরকারি, রাতে বেসরকারি
.............................................................................................
ভিপি নুরকে পদত্যাগের আহ্বান রাব্বানীর
.............................................................................................
রুম্পা হত্যার বিচারের দাবিতে উত্তাল স্টামফোর্ড
.............................................................................................
দুই ইউনিটে ফেল, অন্য ইউনিটে প্রথম শিক্ষকের বোন!
.............................................................................................
খালেদার জামিন না হওয়ায় ঢাবিতে ছাত্রদলের বিক্ষোভ
.............................................................................................
র‍্যাগিং ও রাজনীতিতে জড়িত হলে বুয়েট থেকে বহিষ্কার
.............................................................................................
৪১তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি বিকেলে
.............................................................................................
প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা শুরু
.............................................................................................
সংশোধিত প্রাথমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির নীতিমালা জারি
.............................................................................................
ইডেন কলেজে এক নেত্রীকে কোপালেন আরেক নেত্রী
.............................................................................................
নিষেধাজ্ঞার দ্বিতীয় দিনেও জাবিতে বিক্ষোভ-সমাবেশ
.............................................................................................
বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও পাবেন গৃহঋণ
.............................................................................................
হল থেকে বেরিয়ে বিক্ষোভে জাবি শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
আতঙ্ক নিয়ে হল ছাড়ছেন জাবি শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
জাবিতে আন্দোলনে সংহতি প্রকাশ করেন সমবেত বিশিষ্টজনেরা
.............................................................................................
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা
.............................................................................................
ঢাবি অধিভুক্ত সাত কলেজে ডিগ্রীর ফল বিপর্যয়: সুষ্ঠু সমাধানের দাবীতে মানববন্ধন
.............................................................................................
জাবিতে আন্দোলনরতদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা
.............................................................................................
জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষায় বসেছে সাড়ে ২৬ লাখ শিক্ষার্থী
.............................................................................................
রাজনৈতিক নয়, শিক্ষাগত যোগ্যতায় হবে প্রাইমারি স্কুলের কমিটি
.............................................................................................
খুবিতে চলছে ১ম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষা
.............................................................................................
জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা শুরু
.............................................................................................
ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ, ফেল ৮৬.৭৪ শতাংশ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD