| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * সাদা পোশাক সুরক্ষিত রাখবেন যেভাবে   * করোনার পর চীনে এবার ছড়িয়ে পড়ছে নরোভাইরাস   * রাজধানীতে বাসের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু   * রাঙ্গামাটিতে অটোরিকশা উল্টে কলেজছাত্রীর মৃত্যু   * ২৪ বছর পর ফের অর্থনৈতিক মন্দায় ভারত   * ফিফা র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের উন্নতি   * মাগুরায় ট্রাকের চাকায় পিষ্ট ২ মোটরসাইকেল আরোহী   * ঘুষ লেনদেনে এশিয়ায় শীর্ষে ভারত   * জনতার মুখোমুখি হবেন ডিএনসিসি মেয়র   * চিরনিদ্রায় শায়িত আলী যাকের  

   শিক্ষাঙ্গন -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
স্কুলে ভর্তির পদ্ধতি জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : ২০২১ শিক্ষাবর্ষে স্কুলে ভর্তি হতে কোনো পরীক্ষা নেওয়া হবে না। প্রথম থেকে নবম পর্যন্ত সব শ্রেণিতেই লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী বাছাই করে ভর্তি করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

বুধবার (২৫ নভেম্বর) দুপুরে সরকারি ও বেসরকারি স্কুলে প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তি সংক্রান্ত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে শুধু প্রথম শ্রেণিতে লটারি এবং অন্য ক্লাসগুলোর জন্য ভর্তি পরীক্ষা হয়। তবে চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে লটারি অনুষ্ঠানের সময় আগের মতো অভিভাবকরা শারীরিকভাবে উপস্থিত থাকতে পারবেন না।

দীপু মনি বলেন, ঢাকা মহানগরীতে ক্যাচমেন্ট এরিয়ায় (বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকা) কোটা বিদ্যমান ৪০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে এবার ৫০ শতাংশ করা হবে। ক্লাস্টার ভিত্তিক লটারিতে বিদ্যমান একটি স্কুল পছন্দের পরিবর্তে পাঁচটি স্কুল পছন্দের সুযোগ দেওয়া হবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, লটারিতে পূর্ণ স্বচ্ছতার মাধ্যমেই ভর্তি করানো হবে। ভর্তির সময় কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অতিরিক্ত ফি নিলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ভর্তি কার্যক্রম ১০ থেকে ১৫ জানুয়ারির মধ্যে শেষ করা হবে।

আসন্ন বই উৎসবকে কেন্দ্র করে দীপু মনি বলেন, প্রতিবছরের মতো এবারও পহেলা জানুয়ারিতেই বই উৎসব উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে এ বছর সমাবেশ করে বই বিতরণ করা হবে না। কোন পদ্ধতিতে বই দেওয়া হবে তার নির্দেশনা স্কুলগুলোকে দিয়ে দেওয়া হবে।

ডিসেম্বরের মধ্যেই ২০২০ সালের এইচএসসির ফল প্রকাশ করা হবে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, কবে থেকে আবার ক্লাস শুরু হবে তা নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির ওপর। তবে যখনই ক্লাস শুরু হবে শুরুর দিকে বেশ কিছু স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে সবাইকে। সেক্ষেত্রে হয়তো সবার সব দিন ক্লাস নাও হতে পারে। তবে এসএসসি ও এইচএসসি শিক্ষার্থীদের ক্লাসে জোর দেওয়া হবে বেশি। তাদের হয়তো একদিন বাদে বাকি সব দিনই ক্লাস নেওয়া হবে।

স্কুলে ভর্তির পদ্ধতি জানালেন শিক্ষামন্ত্রী
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ২০২১ শিক্ষাবর্ষে স্কুলে ভর্তি হতে কোনো পরীক্ষা নেওয়া হবে না। প্রথম থেকে নবম পর্যন্ত সব শ্রেণিতেই লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী বাছাই করে ভর্তি করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

বুধবার (২৫ নভেম্বর) দুপুরে সরকারি ও বেসরকারি স্কুলে প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তি সংক্রান্ত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে শুধু প্রথম শ্রেণিতে লটারি এবং অন্য ক্লাসগুলোর জন্য ভর্তি পরীক্ষা হয়। তবে চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে লটারি অনুষ্ঠানের সময় আগের মতো অভিভাবকরা শারীরিকভাবে উপস্থিত থাকতে পারবেন না।

দীপু মনি বলেন, ঢাকা মহানগরীতে ক্যাচমেন্ট এরিয়ায় (বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকা) কোটা বিদ্যমান ৪০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে এবার ৫০ শতাংশ করা হবে। ক্লাস্টার ভিত্তিক লটারিতে বিদ্যমান একটি স্কুল পছন্দের পরিবর্তে পাঁচটি স্কুল পছন্দের সুযোগ দেওয়া হবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, লটারিতে পূর্ণ স্বচ্ছতার মাধ্যমেই ভর্তি করানো হবে। ভর্তির সময় কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অতিরিক্ত ফি নিলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ভর্তি কার্যক্রম ১০ থেকে ১৫ জানুয়ারির মধ্যে শেষ করা হবে।

আসন্ন বই উৎসবকে কেন্দ্র করে দীপু মনি বলেন, প্রতিবছরের মতো এবারও পহেলা জানুয়ারিতেই বই উৎসব উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে এ বছর সমাবেশ করে বই বিতরণ করা হবে না। কোন পদ্ধতিতে বই দেওয়া হবে তার নির্দেশনা স্কুলগুলোকে দিয়ে দেওয়া হবে।

ডিসেম্বরের মধ্যেই ২০২০ সালের এইচএসসির ফল প্রকাশ করা হবে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, কবে থেকে আবার ক্লাস শুরু হবে তা নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির ওপর। তবে যখনই ক্লাস শুরু হবে শুরুর দিকে বেশ কিছু স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে সবাইকে। সেক্ষেত্রে হয়তো সবার সব দিন ক্লাস নাও হতে পারে। তবে এসএসসি ও এইচএসসি শিক্ষার্থীদের ক্লাসে জোর দেওয়া হবে বেশি। তাদের হয়তো একদিন বাদে বাকি সব দিনই ক্লাস নেওয়া হবে।

এইচএসসির ফল ডিসেম্বরেই: শিক্ষামন্ত্রী
                                  

ডেস্ক রিপাের্ট : চলতি বছরের বাতিল হওয়া উচ্চ মাধ্যমিকের (এইচএসসি) ফলাফল ডিসেম্বরের মধ্যেই প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

বুধবার (২৫ নভেম্বর) দুপুরে সরকারি ও বেসরকারি স্কুলে প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তি সংক্রান্ত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি। আগেই বলা হয়েছিল, এবারের এইচএসসির ফলাফল প্রকাশ করা হবে জেএসসি ও এসএসসি এবং সমমানের পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে।

ডিসেম্বরের মধ্যেই ২০২০ সালের এইচএসসির ফল প্রকাশ করা হবে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, কবে থেকে আবার ক্লাস শুরু হবে তা নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির ওপর। তবে যখনই ক্লাস শুরু হবে শুরুর দিকে বেশ কিছু স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে সবাইকে। সেক্ষেত্রে হয়তো সবার সব দিন ক্লাস নাও হতে পারে। তবে এসএসসি ও এইচএসসি শিক্ষার্থীদের ক্লাসে জোর দেওয়া হবে বেশি। তাদের হয়তো একদিন বাদে বাকি সব দিনই ক্লাস নেওয়া হবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ২০২১ শিক্ষাবর্ষে স্কুলে ভর্তি হতে কোনো পরীক্ষা নেওয়া হবে না। প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত সব শ্রেণিতেই লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী বাছাই করে ভর্তি করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

এ সময় দীপু মনি বলেন, বর্তমানে শুধু প্রথম শ্রেণিতে লটারি এবং অন্য ক্লাসগুলোর জন্য ভর্তি পরীক্ষা হয়। তবে চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে লটারি অনুষ্ঠানের সময় আগের মতো অভিভাবকরা শারীরিকভাবে উপস্থিত থাকতে পারবেন না।

দীপু মনি বলেন, ঢাকা মহানগরীতে ক্যাচমেন্ট এরিয়ার কোটা বিদ্যমান ৪০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে এবার ৫০ শতাংশ করা হবে। ক্লাস্টার ভিত্তিক লটারিতে বিদ্যমান একটি স্কুল পছন্দের পরিবর্তে পাঁচটি স্কুল পছন্দের সুযোগ দেওয়া হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, লটারিতে পূর্ণ স্বচ্ছতার মাধ্যমেই ভর্তি করানো হবে। ভর্তির সময় কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অতিরিক্ত ফি নিলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ভর্তি কার্যক্রম ১০ থেকে ১৫ জানুয়ারির মধ্যে শেষ করা হবে।

আসন্ন বই উৎসবকে কেন্দ্র করে দীপু মনি বলেন, প্রতিবছরের মতো এবারো পহেলা জানুয়ারিতেই বই উৎসব উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে এ বছর সমাবেশ করে বই বিতরণ করা হবে না। কোন পদ্ধতিতে বই দেওয়া হবে তার নির্দেশনা স্কুলগুলোকে দিয়ে দেওয়া হবে।

ডেঙ্গুতে ঝরল জাবি শিক্ষার্থীর প্রাণ
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে রনজীত দাস চৌহান নামের জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) এক ছাত্র মারা গেছেন।

রোববার (১৫ নভেম্বর) দিবাগত রাত ১টা ৪০ মিনিটে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

রনজীত বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের ৪৬তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি শহীদ রফিক-জব্বার হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ছিলেন। একই সঙ্গে জাহাঙ্গীরনগর সিনে সোসাইটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলায়।

রনজীতের বন্ধু সাইফুল ইসলাম পরশ বলেন, `রনজীত দীর্ঘদিন জন্ডিসে ভুগছিলেন। গুরুতর অসুস্থবোধ করলে রোববার সকালে তাকে কুমিল্লার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে রনজীতের শরীরে ডেঙ্গু জ্বর ধরা পড়ে। এ সময় তার রক্তের প্লাটিলেট অনেক কম পাওয়া যায়। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হলে চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন।`

তিনি আরও জানান, রনজীতকে রাত ১টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর ৪০ মিনিট পরেই তার মৃত্যু হয়।

রনজীতের মৃত্যুতে ক্যাম্পাসে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

ঢাবির ঘ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা না নেয়ার সিদ্ধান্ত
                                  

অনলাইন ডেস্ক : আগামী বছর থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তিতে `ঘ` ইউনিটের পরীক্ষা না নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

রোববার সকালে ঢাবির ডিনস কমিটির এক মিটিংয়ে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ডিনস কমিটির বৈঠকে আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে `ঘ` ইউনিটের পরীক্ষা না নেয়ার পক্ষে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। সামনের একাডেমিক কাউন্সিলের মিটিংয়ে এ বিষয়টি চূড়ান্ত করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

অন্যান্য ইউনিটে বিদ্যমান সিট বাড়বে কিনা এ বিষয়ে কোনো কিছু জানায়নি সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন। এ বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিজ্ঞ শিক্ষকরা আরও পর্যবেক্ষণ করবেন বলে জানান তিনি।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষা হচ্ছে না
                                  

অনলাইন ডেস্ক : পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষার সক্ষমতা এখনও তৈরি হয়নি। অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষা নিলে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হতে পারে। এমনকি নেটওয়ার্ক ও টেকনিক্যাল সমস্যার কারণে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন সঠিক নাও হতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. কাজী শহীদুল্লাহর সভাপতিত্বে ইউজিসি অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত পর্যালোচনা সভায় বিশেষজ্ঞরা এ মতামত দেন।

পর্যালোচনায় বক্তরা বলেন, অনলাইনে তথা `প্রক্টরড রিমোট এক্সামিনেশন সিস্টেম` সফটওয়্যার ব্যবহার করে বর্তমান অবস্থায় ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া ঠিক হবে না। বিশ্বের কোনো দেশে একটি সফটওয়্যার দিয়ে বড় পরিসরে পরীক্ষা নেওয়া হয় না। সফটওয়্যার দিয়ে যদি ভর্তি পরীক্ষা নিতে হয় সেক্ষেত্রে ইউজিসিকে একটি নীতিমালা প্রণয়ণ করে দিতে কমিটি সুপারিশ করে।
ইতোমধ্যে সমন্বিত বা গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণের বিষয়ে ১ নভেম্বর শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ইতোমধ্যে ঢাকা, রাজশাহী, জাহাঙ্গীরনগর ও বুয়েট গুচ্ছ বা সমন্বিত পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নিতে সম্মত হয়েছে।

সভায় ইউজিসি চেয়ারম্যান ও কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. দিল আফরোজা বেগম ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হন। কমিশনে অনুষ্ঠিত সভায় ইউজিসি সদস্য প্রফেসর ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন, প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর, সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. ফেরদৌস জামান, কমিটির সদস্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. হাফিজ মো. হাসান বাবু, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. মো. মোস্তফা আকবর, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব বিজনেসের ডিন প্রফেসর মোস্তফা আজাদ কামাল, এডুকেন ইন্টারন্যাশনালের নির্বাহী পরিচালক সোহেল নাদিম রহমান শুভ, এটুআই এর টেকনোলজি এক্সপার্ট মো. ফজলে মুনীম, ওরেঞ্জ বিজনেস ডেভেলপমেন্ট লিমিটেডের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর শামীম হোসেন, ডিএসআই এর টেকনিক্যাল ডিরেক্টর মুশরাফুল হক অনিক এবং হেড অব প্রোডাক্ট অ্যান্ড বিজনেস ডেভেলপমেন্ট মইনুল ইসলাম অংশ নেন।

ফের বাড়লো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি
                                  

অনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাসের কারণে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত ফের বাড়লো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি।

এই সময়ের মধ্যে কিন্ডারগার্ডেন ও বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।

আজ ভার্চুয়াল এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ কথা জানান।
উল্লেখ্য, করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। বাসস

সরাসরি ভর্তি পরীক্ষা নেবে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
                                  

অনলাইন ডেস্ক : দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব না কমলেও আগের মতো সরাসরি ভর্তি পরীক্ষা নেবে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি)। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের ডিন মোহাম্মদ নাসিম হাসান।

রোববার (২৫ অক্টোবর) বিকেলে ডিনস কমিটির সভায় স্নাতক প্রথম বর্ষে (২০২০-২১) ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, গতবার ছিল ১২০ নম্বরের পরীক্ষা। যার ১০০ নম্বর নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্ন, আর ২০ নম্বর যোগ হয় এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ থেকে। তবে এবার ১০০ নম্বরের পরীক্ষা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে ডিন নাসিম হাসান বলেন, করোনার প্রাদুর্ভাব না কমলেও ভর্তি পরীক্ষা হবে। শিক্ষার্থীরা সরাসরি এসে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবেন। এবারও ১০০ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নে পরীক্ষা হবে। অবশ্য বাকি ২০ নম্বর কীভাবে যুক্ত হবে, পরীক্ষা কত দিনে হবে, কোথায় হবে—এসব বিষয়ে ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এর আগে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ও সরাসরি ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার কথা জানিয়েছিল।

মাধ্যমিকে বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল
                                  

অনলাইন ডেস্ক : মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করতে এনসিটিবি নতুন করে একটি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়ন করেছে। তার আলোকে শিক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট করতে দেয়া হবে। এটি মূল্যায়নের মাধ্যমে মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করা হবে।

বুধবার (২১ অক্টোবর) ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ তথ্য জানান।

এ সময় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক গোলাম ফারুক চৌধুরী এবং শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) প্রণয়ন করা সিলেবাস থেকে চারটি অ্যাসাইনমেন্ট এক মাসের মধ্যে শেষ করতে হবে। এ সিলেবাসটি এনটিসিটির মাধ্যমে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানদের কাছে পাঠানো হবে। শিক্ষকদের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের কাছে তা পৌঁছে দেয়া হবে। শিক্ষার্থীরা অনলাইনে বা খাতায় লিখে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে পারবে।’

তিনি আরও বলেন, এর বাইরে শিক্ষার্থীদের কোনো ধরনের বাসার কাজ দেয়া যাবে না। চার সপ্তাহে শুধু চারটি অ্যাসাইনমেন্ট তৈরি করে শিক্ষকদের কাছে শিক্ষার্থীরা পৌঁছে দেবে।

১ নভেম্বর থেকে শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট দেয়ার কাজ শুরু হবে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ‘প্রতি সপ্তাহে একটি করে অ্যাসাইনমেন্ট তৈরি করে শিক্ষার্থী বা তার অভিভাবক সশরীরে বিদ্যালয়ে গিয়ে শিক্ষকদের হাতে পৌঁছে দিতে পারবেন। তবে কেউ চাইলে অনলাইনের মাধ্যমেও শিক্ষকদের কাছে তা পৌঁছে দিতে পারবেন। যদি তা সম্ভব না হয় তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে একটি ই-মেইল ঠিকানা দেয়া থাকবে, সেখানে সাপ্তাহিক অ্যাসাইনমেন্ট পাঠাতে পারবেন। সকল অ্যাসাইনমেন্টগুলো জমা দেয়ার পর ধারাবাহিকভাবে শিক্ষকরা মূল্যায়ন করবেন।’


শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘একজন শিক্ষার্থীর তার ক্লাস থেকে পরবর্তী ক্লাসে যেতে যতটুকু শিখনজ্ঞান প্রয়োজন তা বিশ্লেষণ করে ৩০ দিনের এ সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়েছে। এটি মূল্যায়ন করে সকলকে পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করা হবে। যে সকল শিক্ষার্থীরা ভার্চুয়াল বা টেলিভিশন ক্লাস থেকে একেবারে বঞ্চিত রয়েছে, তাদের এগিয়ে নেয়ার জন্য শিক্ষকদের মাধ্যমে ছোট ছোট দল করে সেসব শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নেয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘এরপরও যদি কেউ বঞ্চিত থাকে, তার কারণ ও তাদের কীভাবে এগিয়ে নেয়া যায় তা বিবেচনা করা হবে। আগামী বছরের জানুয়ারিতে সকলকে নতুন ক্লাসে উন্নীত করা হবে। তাদের মধ্যে কেউ পিছিয়ে থাকলে তাদের চিহ্নিত করে বাড়তি পরিচর্যা নেয়া হবে।’

করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। কিছু ক্ষেত্রে অবশ্য অনলাইন ও টেলিভিশনে ক্লাস নেয়া হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে এ বছরের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী, ইবতেদায়ি সমাপনী, জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি), জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) এবং উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে না।

টানা সাত মাস ধরে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় স্কুলগুলোতে বার্ষিক পরীক্ষা নিয়েও অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। অবশেষে করোনা পরিস্থিতিতে মাধ্যমিকে বার্ষিক পরীক্ষা হচ্ছে না বলে ঘোষণা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

এদিকে প্রাথমিকে সরাসরি অটো প্রমোশন দেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে।

আজও আন্দোলনে নর্থ সাউথের শিক্ষার্থীরা
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ছয় দফা দাবি আদায়ে দ্বিতীয় দিনের মতো আজও আন্দোলন করছেন নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সোমবার দুপুরে ক্যাম্পাসের এক নম্বর গেটের সামনে অবস্থান নিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনকারীরা জানান, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে প্রায় সবাই আর্থিক সঙ্কটে রয়েছেন। এ কারণে শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে গত সেমিস্টারে ২০ শতাংশ টিউশন ফি মওকুফ করে নর্থ সাউথ কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি আরও তীব্রতর হওয়ার আশঙ্কা শুরু হলে কোন নোটিশ ছাড়াই এ সুবিধা বাতিল করে নর্থ সাউথ কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি দৃষ্টি আকর্ষণ করতে একাধিকবার নানা মাধ্যমে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও কোন সাড়া দেয়নি কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে তারা বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নেমেছেন বলে জানান। দাবি আদায়ে গতকাল রোববার প্রায় তিন ঘণ্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রাখেন আন্দোলনকারীরা। সেদিনের মত আন্দোলন স্থগিত করা হলো আজ সোমবার দুপুর ১২টা থেকে ফের আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা।

এদিকে সোমবার সকাল থেকে আন্দোলনকারীরা নর্থ সাউথ ক্যাম্পাসে সমবেত হতে থাকেন। দুপুর ১২টায় শতাধিক শিক্ষার্থী প্ল্যাকার্ড নিয়ে ছয় দফা দাবি আদায়ে ক্যাম্পাসে অবস্থান নেন।

তাদের দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- ২০ শতাংশ টিউশন ফি ওয়েভার, কোটা এবং ফলাফলের ওপর প্রাপ্ত ওয়েভারের সঙ্গে অতিরিক্ত ২০ শতাংশ যুক্ত, অর্থনৈতিক সমস্যাগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের শতভাগ ওয়েভার প্রদান, সেমিন্টার ফির সঙ্গে অতিরিক্ত অর্থ আদায় না করা, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন পরিশোধের দাবি রয়েছে।

শিক্ষার্থীরা বলেন, ছয় দফা দাবিতে সকাল থেকে আমাদের আন্দোলন চলছে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। প্রয়োজনে আজকে বিকেলে সব গেট বন্ধ করে দিয়ে উপাচার্যসহ ভেতরের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবরুদ্ধ করে রাখা হবে।

২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে এইচএসসির ফল
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় সবাই অটোপাস। এখন জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে তাদের গ্রেড পয়েন্ট নির্ধারণ করা হবে। টেকনিক্যাল কমিটির পরামর্শ নিয়ে আগামী ২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে শিক্ষা বোর্ডগুলো থেকে এ ফলাফল প্রকাশের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক রোববার বলেন, জেএসসি-জেডিসি ও এসএসসি-সমমান পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে এইচএসসি-সমমানের ফলাফল প্রকাশ করা হবে। আগের দুই পরীক্ষার ফলের ওপর শিক্ষার্থীর গ্রেড পয়েন্ট নির্ধারণ করা হবে। এ বিষয়ে টেকনিক্যাল কমিটির পরামর্শ অনুসরণ করা হবে।

তিনি বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে একটি টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করা হচ্ছে। এ কমিটি নভেম্বরের শুরুতে একটি গাইডলাইন তৈরি করবে তার ভিত্তিতে ডিসেম্বরের শেষ দিকে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের এক কর্মকর্তা জানান, আগামী ২০ থেকে ২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে এইচএসসি-সমমান পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে। সেই লক্ষ্যমাত্রা সামনে নিয়ে ফলাফল তৈরির কাজ শুরু করা হয়েছে।

এদিকে গত সপ্তাহে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা মূল্যায়নে কমিটি গঠন করার কথা থাকলেও এখনো হয়নি। এ সংক্রান্ত ফাইল তোলা হলেও মন্ত্রীর দফতরে তা আটকে রয়েছে বলে জানা গেছে। এ কমিটি গঠন করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে বলে শিক্ষামন্ত্রীর দফতর থেকে জানা গেছে।

জানা গেছে, চলতি সপ্তাহে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা মূল্যায়নে কমিটি গঠন করা হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিবের সমন্বয়ে আট সদস্যের এ কমিটির সদস্যরা অটোপাস শিক্ষার্থীদের গ্রেডিং পদ্ধতি নির্ধারণ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করবেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে আট সদস্যের এ কমিটিতে ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান সদস্য সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, স্বাস্থ্যশিক্ষা অধিদফতরের প্রতিনিধি এবং কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান সদস্য হিসেবে থাকবেন।

তাদের পরামর্শে বিভাগ পরিবর্তনকারীদের বিষয়েও সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। বিভাগ পরিবর্তনজনিত (যারা বিজ্ঞান থেকে মানবিক বা অন্য বিভাগ পরিবর্তন করেছেন) কারণে যে সমস্যাটি হতে পারে তা ঠিক করতেও বিশেষজ্ঞ কমিটি কাজ করবে।

করোনা মহামারির কারণে সম্প্রতি বাতিল করা হয় এ বছরের এইচএসসি পরীক্ষা। জেএসসি ও এসএসসির ফলাফলের গড়ের মাধ্যমে নির্ধারণ করা হবে এবারের এইচএসসির ফল। গত ৭ অক্টোবর শিক্ষা মন্ত্রণালয় আয়োজিত ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী।

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ভিসি অবরুদ্ধ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাড়তি ফি আদায় বন্ধ, ২০ শতাংশ টিউশন ফি মওকুফসহ ছয় দফা দাবিতে উপাচার্য ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবরুদ্ধ করে রেখেছেন নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

ছয় দফা দাবি আদায়ে রোববার সকালে অবস্থান কর্মসূচির পর বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশের সব গেট অবরুদ্ধ করে রাখেন আন্দোলনকারীরা।

আন্দোলনকারীরা জানান, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে প্রায় সবাই আর্থিক সংকটে রয়েছেন। এ কারণে শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে গত সেমিস্টারে ২০ শতাংশ টিউশন ফি মওকুফ করে নর্থ সাউথ কর্তৃপক্ষ।

বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি আরও তীব্রতর হওয়ার আশঙ্কা শুরু হলে কোনো নোটিশ ছাড়াই এ সুবিধা বাতিল করে কর্তৃপক্ষ।

বিষয়টি দৃষ্টি আকর্ষণ করতে একাধিকবার নানা মাধ্যমে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও কোনো সাড়া দেয়নি কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নেমেছেন তারা।

তাদের দাবির মধ্যে রয়েছে- ২০ শতাংশ টিউশন ফি ওয়েভার, কোটা এবং ফলাফলের ওপর প্রাপ্ত ওয়েভারের সঙ্গে অতিরিক্ত ২০ শতাংশ যুক্ত, অর্থনৈতিক সমস্যাগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের শতভাগ ওয়েভার প্রদান, সেমিস্টার ফির সঙ্গে অতিরিক্ত অর্থ আদায় না করা এবং শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন পরিশোধের ব্যবস্থা করা।

আন্দোলনে নেতৃত্বদানকারী নর্থ সাউথের শিক্ষার্থী আহাদুল ইসলাম আহাদ বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে ২০ শতাংশ মওকুফ করা হলেও হঠাৎ করে তা বন্ধ করে দেয়া হয়। বর্তমানে ল্যাব ও লাইব্রেরি শিক্ষার্থীরা ব্যবহার না করলেও এ বাবদ ফি পরিশোধ করতে বলা হচ্ছে।

তিনি বলেন, আমরা ছয় দফা দাবিতে সকাল থেকে দিনভর আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি। বিকেলে শিক্ষার্থীদের পাঁচ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ভিসি স্যারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলে দাবি মেনে নেয়া সম্ভব নয় বলে জানান। বাধ্য হয়ে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশের সব গেট বন্ধ করে ভিসিসহ শিক্ষক-কর্মকর্তাদের অবরুদ্ধ করে রেখেছি। আমাদের দাবি মেনে না নেয়া পর্যন্ত তাদের ক্যাম্পাসের মধ্যে অবরুদ্ধ করে রাখা হবে।

এ বিষয়ে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও নর্থ সাউথের ভিসি অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম ফোন রিসিভ করেননি।

নেপালে সেরা লেখকের সম্মাননা পেলেন জাবি শিক্ষক
                                  

অনলাইন ডেস্ক : নেপালের জাতীয় ইংরেজী দৈনিক খবরহাবের বিবেচনায় সেরা লেখক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) সরকার ও রাজনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মাদ তারিকুল ইসলাম।

গবেষণা ও লেখার উৎকর্ষতার বিবেচনায় আন্তর্জাতিক ক্যাটাগরিতে তারিকুল ইসলামকে এ সম্মাননা দেয়া হবে বলে জানিয়েছে খবরহাব কর্তৃপক্ষ।

১৪ অক্টোবর এ তথ্য জানিয়েছেন তারিকুল ইসলাম। গতকাল খবরহাবের পক্ষ থেকে তাকে এ বিষয়ে নিশ্চিত করা হয়।

তারিকুল ইসলাম বলেন, ২০২০ সালের আন্তর্জাতিক ক্যাটাগরিতে `সেরা লেখক` সম্মাননায় আমাকে মনোনীত করা হয়েছে। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে খবরহাবের প্রতিষ্ঠাবার্ষীকিতে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ পুরস্কার দেয়া হবে।

স্থানীয় সরকার, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, সুশাসন, টেকসই উন্নয়ন ও রোহিঙ্গা সমস্যাসহ বিভিন্ন বিষয়ে এ বছরে তিনি ৫টি সাক্ষাৎকারসহ ২০টি প্রবন্ধ রচনা করেছেন তিনি।

ড. মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার পূর্বে জাতিসংঘে দীর্ঘ সাত বছর বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনার সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন।

এছাড়া তিনি ভারতের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় এবং নেপালের ত্রিভূবন বিশ্ববিদ্যালয়য়ে গেস্ট ফ্যাকাল্টি হিসেবে কাজ করেছেন। তিনি লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্সের দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক ব্লগ এবং নয়াদিল্লিভিত্তিক পলিসি ওয়েব জার্নাল `সাউথ এশিয়া মনিটর` এ নিয়মিত লেখক হিসেবে অবদান রাখছেন।

তিনি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং রিসার্চ ফেলো এবং কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং স্কলার। তারিকুল ইসলাম বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণকেন্দ্রে প্রশিক্ষক হিসেবেও অবদান রাখছেন। সুশাসন ও উন্নয়ন বিষয়ে বর্তমানে ব্যাপক জনপ্রিয় `লোকাল গভর্মেন্ট, সেন্টার ফর সোশ্যাল হারমোনি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট` শীর্ষক অনলাইন মাধ্যমের প্রতিষ্ঠাতা তিনি।

মাধ্যমিকে আগের ক্লাসের ফলের ভিত্তিতে পরবর্তী ক্লাস!
                                  

অনলাইন ডেস্ক : মূল বিষয়ের ওপর অনলাইন পরীক্ষা অথবা আগের বছরের ফল মূল্যায়নের মাধ্যমে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করার ঘোষণা দিতে যাচ্ছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। চলতি সপ্তাহে এ পদ্ধতি অনুসরণ করে পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করার নির্দেশনা দেয়া হবে বলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) থেকে জানা গেছে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। বিভিন্ন পর্যায়ে মেয়াদ বাড়িয়ে এটি আগামী ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত করা হয়েছে। শীতে করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকায় এ বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা নেই বলে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইঙ্গিত দিয়েছেন। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা না হলেও সংসদ টেলিভিশন, রেডিও, অনলাইনে ক্লাস কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হয়েছে।


জানা গেছে, এমন পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সরাসরি ক্লাস-পরীক্ষা শুরু করা সম্ভব না হলেও প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের অনলাইনে প্রধান বিষয়গুলোর পরীক্ষা নেয়ার ঘোষণা আসতে পারে। তবে যেখানে অনলাইনে পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হবে না সেখানে আগের ক্লাসের বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল মূল্যায়নের ভিত্তিতে পরবর্তী ক্লাসে পাস দিয়ে শ্রেণি রোল নির্ধারণ করার নির্দেশনা দেবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। চলতি সপ্তাহে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি অনলাইন মাধ্যমে সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে ঘোষণা দিতে পারেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুক রোববার বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিম্ন মাধ্যমিক থেকে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে কীভাবে উন্নীত করা হবে সে বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়ে দেবেন। চলতি সপ্তাহে এ-সংক্রান্ত ঘোষণা দেয়া হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক অতিরিক্ত সচিব জানান, যে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অনলাইন ক্লাস-পরীক্ষা নেয়ার সুযোগ রয়েছে, সেখানে অনলাইনে মাধ্যমে বাংলা, ইংরেজি, অংক এবং বিজ্ঞান বিষয়ের পরীক্ষার মাধ্যমে পরীক্ষা নিতে বলা হবে। এ জন্য প্রতিটি বিষয়ে পূর্ণমান ৫০ নম্বর করে পরীক্ষা নিতে বলা হবে। আর যেখানে সেই সুযোগ থাকবে না সেখানে আগের ক্লাসের বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল মূল্যায়ন করে পাস করানো হবে।

অন্যদিকে আগের ক্লাসের ফলাফলের ভিত্তিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীকে পাস করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই)। বার্ষিক পরীক্ষা নেয়া সম্ভব না হওয়ায় এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে (ডিপিই) থেকে জানা গেছে।


এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিপিই মহাপরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো. সোহেল বলেন, বর্তমানে স্কুল খোলা বা পরীক্ষা নেয়ার মতো পরিস্থিতি নেই। এ জন্য আগের ক্লাসের বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল মূল্যায়ন করে পাস দেয়া হতে পারে। এর মাধ্যমে পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনার আগেই রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে টিউশন ফি ও পরীক্ষা ফি আদায় করতে অনলাইনে বার্ষিক পরীক্ষা নেয়া শুরু হয়েছে। তবে শিক্ষা মন্ত্রণায়ের নির্দেশনা ছাড়া পরীক্ষা শুরু করলে তা অন্যায় বলে বিবেচ্য হবে। এ ধরনের কার্যক্রম না করতে মাউশির মহাপরিচালক সৈয়দ গোলাম ফারুক সতর্ক থাকতে পরামর্শ দিয়েছেন।

এমন পরিস্থিতিতে পরীক্ষা দিতে আপত্তি জানিয়েছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। আগের ক্লাসের ফলের ভিত্তিতে সকল শিক্ষার্থীদের পাস দেয়ার দাবি জানান তারা।

ফেব্রুয়ারির এসএসসি পরীক্ষা আয়োজন অনিশ্চিত
                                  

অনলাইন ডেস্ক : দেশে দ্বিতীয় ধাপে করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরুর আশঙ্কা রয়েছে। এ কারণে অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে ডিসেম্বরের মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা। মূলত শীতকালজুড়ে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের প্রকোপ চলমান থাকবে বলে আশঙ্কা করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। আর এতে ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষা আয়োজন নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

সংশ্লিষ্টদের মতে, করোনা দেশের অর্থনীতির ক্ষতির পাশাপাশি চরম ক্ষতি করেছে শিক্ষা খাতের। প্রায় এক বছর নষ্ট হয়েছে ইতোমধ্যে। তবে সরকার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে অনলাইন ক্লাস, টেলিভিশন পাঠদান চলমান রাখলেও সে সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে শিক্ষার্থীদের বড় একটি অংশ। সামনে করোনার দ্বিতীয ঢেউ আসলে পাঠদানের ক্ষতির পাশাপাশি এসএসসি পরীক্ষা নিয়ে নতুন সংশয় তৈরি হবে।

সাধারণত বছরের জুলাই মাসে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রাক-নির্বাচনী আর অক্টোবরে নির্বাচনী পরীক্ষা নেয়া হয়। আর দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রাক-নির্বাচনী বা অর্ধবার্ষিক পরীক্ষা জুলাই-আগস্টে এবং ডিসেম্বরে নির্বাচনী পরীক্ষা হয়। এরপর নভেম্বরে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণ এবং ডিসেম্বর-জানুয়ারি মাসে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণ করা হয়। ইতোমধ্যে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা বাতিল হয়ে গেছে। আগামী বছরের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের একাদশ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষাও হয়নি। একাদশ শ্রেণিতে কলেজ পর্যায়ে নেয়া বিভিন্ন ক্লাস টেস্ট আর অর্ধবার্ষিক পরীক্ষার ফলের ওপর ভিত্তি করে এসব শিক্ষার্থীকে ‘অটো পাস’ দেয়া হয়েছে।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, প্রতি বছর ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি এবং এপ্রিলে এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। করোনাকালে প্রাতিষ্ঠানিক পাঠদান বন্ধ। সরাসরি পরীক্ষা বা ক্লাস টেস্ট নেয়ারও কোনো সুযোগ নেই। এ কারণে পরীক্ষা যথাসময়ে শেষ করাটা কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পরীক্ষা ও ক্লাস সংক্রান্ত যেকোনো সিদ্ধান্ত নেয়া বাস্তবায়ন করা যেতে পারে।

জানা গেছে, নভেম্বরে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হবে, তখন সংক্রমন আরও বাড়তে পারে। সম্প্রতি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেনম দ্বিতীয় ঢেউ এলে, সংক্রমণ বাড়লে তখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে সংশয় রয়েছে। সে হিসেবে এ বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা অনিশ্চিত। তাছাড়া শীতকালে করোনার প্রকোপ থাকলে সে হিসেবে নতুন বছরের শুরুতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা যাবে কিনা তা নিয়েও সংশয় রয়েছে।

জানতে চাইলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব আকরাম আল হোসেন বলেন, যেহেতু শীত প্রধান দেশে এর প্রকোপ বেশি। আমাদের দেশে শীত শুরু হয় মূলত নভেম্বরের শেষ থেকে। ডিসেম্বর থেকে এর প্রকোপ বাড়তে থাকে। এ সময়ের মধ্যে করোনার প্রকোপ বাড়তে পারে। আর করোনা বাড়লে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সুযোগ নেই। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে শিক্ষার্থীদের সশরীরে কোনো ক্লাস বা পরীক্ষা নেয়া যাবে না। পরিস্থিতি অনুযায়ী সরকার সিদ্ধান্ত নেবে।

পরীক্ষা দিয়েই ভর্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে
                                  

অনলাইন ডেস্ক : এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা না হলেও ভর্তি পরীক্ষা দিয়েই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে হবে। তবে কোন পদ্ধতিতে পরীক্ষা নেওয়া হবে তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি।

জানা গেছে, করোনাভাইরাসের কারণে এইচএসসি না হলেও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে অনেকেই উদ্বিগ্ন। জানুয়ারি মাসে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি কার্যক্রম শুরুর কথা বলা হলেও, করোনাভাইরাসের কারণে পরীক্ষা পেছাতে পারে। সেক্ষেত্রে শীতের শেষে ফেব্রুয়ারি বা মার্চে পরীক্ষা নেয়া হতে পারে।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যদি অপেক্ষা করতে না চায় তাহলে জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে আয়োজন করা হলেও স্বশরীরে পরীক্ষাটি হবে না। এ সংক্রান্ত আলোচনার লক্ষ্যে ইউজিসি আগামী ১৫ অক্টোবর বৈঠক ডেকেছে বলে জানা গেছে।

এদিকে গত বুধবার সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। সমন্বিতভাবে এ পরীক্ষা নেয়া হবে। আগামী জানুয়ারিতে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কার্যক্রম শুরু হতে পারে।

তবে স্বশরীরে পরীক্ষাটি নেয়া যাবে কি-না, সেটা কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারছে না এখনই। পরীক্ষার ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ই সিদ্ধান্ত নেবে। প্রথম বর্ষে শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য ইতোমধ্যে তিনটি পদ্ধতির প্রস্তাব এসেছে। প্রথমে গুচ্ছ পদ্ধতিতে শিক্ষার্থী ভর্তির চিন্তা নিয়ে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে ইউজিসি বৈঠকে বসেছিল গত বছরের শেষের দিকে। প্রথম বৈঠকে এ পদ্ধতি বাদ দিয়ে সমন্বিত এবং পরে ক্যাট পদ্ধতিতে পরীক্ষা নেয়ার বিষয়ে আলোচনা হয়। এ লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিদের সমন্বয়ে একটি কমিটিও করা হয়। ওই কমিটিই ভর্তিতে ক্যাট পদ্ধতির প্রস্তাব করে।

কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান গণমাধ্যমে বলেন, গত ২৩ মার্চ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিদের নিয়ে একটি সভা ছিল। করোনার কারণে পিছিয়ে দেয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কবে খুলবে এ বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। ভর্তি পরীক্ষার মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে অনলাইনে সভা করে সব সিদ্ধান্ত নেওয়া যায় না।

তিনি আরও বলেন, তারপরও সরকার যেহেতু এইচএসসির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এখন আমাদের ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে ভাবতে হবে। পরিস্থিতি ভালো হলে অবশ্যই ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে, এর বিকল্প নেই।

অন্যদিকে ইউজিসির সদস্য অধ্যাপক ড. মো. আলমগীর বলেন, আমরা গুচ্ছ পদ্ধতিতে পরীক্ষা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তি করাবো। এক্ষেত্রে তিনটি গুচ্ছ হবে। এগুলো হচ্ছে- কৃষি, প্রকৌশল ও প্রযুক্তি এবং সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি। আগামী ১৫ অক্টোবর এ নিয়ে একটি বৈঠক আছে। সেখানে বিষয়টি আলোচনা হবে বলে আশা রাখছি।

একাদশ শ্রেণীর ক্লাস শুরু রোববার
                                  

অনলাইন ডেস্ক : চলমান মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় রোববার (৪ অক্টোবর) শুরু হচ্ছে একাদশ শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাস। এরই মধ্যে সব কলেজে চিঠি পাঠিয়ে ৪ অক্টোবর থেকে অনলাইনে ক্লাস শুরুর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা বোর্ডগুলো।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ আন্তশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ তথ্য জানানো হয়।

ওই চিঠিতে বলা হয়, কোভিড-১৯-এর কারণে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান সম্ভব হচ্ছে না। শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া যাতে বিঘ্নিত না হয় সে উদ্দেশ্যে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের আগামীকাল রোববার (৪ অক্টোবর) থেকে অনলাইনে ক্লাস নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতির কারণে অনলাইনেই এই ক্লাস চলবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার পর স্বাভাবিক শ্রেণিকক্ষে পাঠদান কার্যক্রম শুরু হবে।

এদিকে মহামারি করোনার কারণে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। আগের ঘোষণা অনুযায়ী, এই ছুটির মেয়াদ ছিল ৩ অক্টোবর পর্যন্ত। সেই মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই ছুটি বাড়ানোর ঘোষণা দেয়া হলো।


   Page 1 of 22
     শিক্ষাঙ্গন
স্কুলে ভর্তির পদ্ধতি জানালেন শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
এইচএসসির ফল ডিসেম্বরেই: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
ডেঙ্গুতে ঝরল জাবি শিক্ষার্থীর প্রাণ
.............................................................................................
ঢাবির ঘ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা না নেয়ার সিদ্ধান্ত
.............................................................................................
পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষা হচ্ছে না
.............................................................................................
ফের বাড়লো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি
.............................................................................................
সরাসরি ভর্তি পরীক্ষা নেবে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
.............................................................................................
মাধ্যমিকে বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল
.............................................................................................
আজও আন্দোলনে নর্থ সাউথের শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে এইচএসসির ফল
.............................................................................................
নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ভিসি অবরুদ্ধ
.............................................................................................
নেপালে সেরা লেখকের সম্মাননা পেলেন জাবি শিক্ষক
.............................................................................................
মাধ্যমিকে আগের ক্লাসের ফলের ভিত্তিতে পরবর্তী ক্লাস!
.............................................................................................
ফেব্রুয়ারির এসএসসি পরীক্ষা আয়োজন অনিশ্চিত
.............................................................................................
পরীক্ষা দিয়েই ভর্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে
.............................................................................................
একাদশ শ্রেণীর ক্লাস শুরু রোববার
.............................................................................................
একাদশের অনলাইন ক্লাস শুরু ৪ অক্টোবর
.............................................................................................
আগামী সপ্তাহে এইচএসসির রুটিন
.............................................................................................
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা-এইচএসসি নিয়ে বুধবার সিদ্ধান্ত
.............................................................................................
ফের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ছে
.............................................................................................
এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত বৃহস্পতিবার
.............................................................................................
এইচএসসি পরীক্ষার সিদ্ধান্ত চলতি সপ্তাহে
.............................................................................................
একাদশে ভর্তির সময় আরও ৪ দিন বাড়ল
.............................................................................................
পরীক্ষা ছাড়াই অষ্টম থেকে নবম শ্রেণিতে উত্তীর্ণের নির্দেশনা
.............................................................................................
অক্টোবর থেকে একাদশের অনলাইন ক্লাস শুরু
.............................................................................................
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগ ডে নিষিদ্ধ
.............................................................................................
একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি: সুযোগ না পাওয়া শিক্ষার্থীকে ফের আবেদন করতে হবে
.............................................................................................
৩ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি
.............................................................................................
সংশোধন হচ্ছে জাতীয় শিক্ষানীতি : শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
প্রথম ধাপে সাড়ে ১২ লাখ শিক্ষার্থী কলেজ পেল
.............................................................................................
এ বছর পিইসি ও ইইসি পরীক্ষা হচ্ছে না
.............................................................................................
পিইসি, জেএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত
.............................................................................................
একাদশে ভর্তির আবেদন করেনি আড়াই লাখের বেশি শিক্ষার্থী
.............................................................................................
বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা পেছাচ্ছে
.............................................................................................
ঢাবি শিক্ষার্থীদের মৌখিক পরীক্ষা নেয়া হবে অনলাইনে
.............................................................................................
২৫ আগস্টের পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত
.............................................................................................
এইচএসসি পরীক্ষা নিতে প্রস্তুত মন্ত্রণালয়, বাড়ছে সেন্টারের সংখ্যা
.............................................................................................
এইচএসসি পরীক্ষার সময়সূচি আসছে
.............................................................................................
করোনার কারণে দুই সমাপনী পরীক্ষা না নেয়ার প্রস্তাব
.............................................................................................
বাতিল হচ্ছে পিইসি-জেএসসি পরীক্ষা
.............................................................................................
কলেজে ভর্তি শুরু
.............................................................................................
কাল থেকে শুরু হচ্ছে একাদশে ভর্তি আবেদন
.............................................................................................
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আরো ১ মাস ছুটির ঘোষণা আসছে
.............................................................................................
কলেজের সভাপতি থাকতে পারবেন না সংসদ সদস্যরা
.............................................................................................
`সেপ্টেম্বরে স্কুল খুললে ডিসেম্বরেই প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা`
.............................................................................................
শিগগিরই খুলছে না শিক্ষালয় ছুটি বাড়বে
.............................................................................................
অনলাইন ক্লাসে যুক্ত করতে শিক্ষার্থীদের বিনা সুদে ঋণ
.............................................................................................
একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির সময়সূচি প্রকাশ
.............................................................................................
একাদশে ভর্তি শুরুর সিধান্ত, ভর্তি ফি কিস্তিতে নেওয়ার আহ্বান শিক্ষামন্ত্রীর
.............................................................................................
সবার অনার্স-পিএইচডি ডিগ্রির প্রয়োজন নেই : শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD