বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * রাজধানীতে মাদক সেবন ও বিক্রির অভিযোগে গ্রেফতার ৭৪   * ঝাড়খণ্ডে মধ্যরাতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, বহু রুটের ট্রেন বন্ধ   * সাত বছরে প্রথমবার তেলের দাম ৯০ ডলার ছুঁলো   * বিরোধী দলের পদত্যাগের ডাক প্রত্যাখ্যান করেছেন বরিস জনসন   * ভারতে `অসমতা` নিরসনের বাজেট চায় আইএমএফ   * মিসরের কাছে ২৫০ কোটি ডলারের অস্ত্র বিক্রি করছে আমেরিকা   * বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্ত আরও ৩৫ লাখ   * সাফারি পার্কে ৯ জেব্রার মৃত্যু তদন্তে পাঁচ সদস্যের কমিটি   * সিঁড়িতে খেলতে গিয়ে প্রাণ গেলো শিশুর   * মিশরকে ২৫০ কোটি ডলারের সামরিক সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র  

   অর্থ-বাণিজ্য
  মুরগির দাম কমেছে
 

নিজস্ব প্রতিবেদক : অস্বাভাবিক দাম বাড়ার পর মুরগির দাম কমতে শুরু করেছে। গেলো সপ্তাহে রাজধানীর বাজারগুলোতে ব্রয়লার মুরগির দাম কেজিতে ১০ টাকা এবং পাকিস্তানি কক বা সোনালি মুরগির দাম কেজিতে ২০ টাকা পর্যন্ত কমেছে। এতে দুই সপ্তাহে ব্রয়লার মুরগির দাম কেজিতে ২৫ টাকা এবং আর সোনালি মুরগি ৮০ টাকা পর্যন্ত কমলো।

সপ্তাহের ব্যবধানে মুরগির দাম কমলেও ভরা মৌসুমেও চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের সবজি। এমনকি সপ্তাহের ব্যবধানে কিছু সবজির দাম বাড়ার ঘটনা ঘটেছে। সব থেকে বেশি বেড়েছে শশার দাম। সপ্তাহের ব্যবধানে শশার দাম বেড়ে প্রায় তিনগুণ হয়েছে। দাম বাড়ার তালিকায় রয়েছে ফুলকপি ও শিম।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্যবসায়ীরা ব্রয়লার মুরগির কেজি বিক্রি করছেন ১৭০ থেকে ১৭৫ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ১৮০ থেকে ১৮৫ টাকা। আর দুই সপ্তাহ আগে ছিল ১৯৫ থেকে ২০০ টাকা।

ব্রয়লার মুরগির পাশাপাশি গেলো এক সপ্তাহে কমেছে সোনালি ও লাল লেয়ার মুরগি দাম। সোনালি মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৪০ থেকে ২৬০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ২৬০ থেকে ২৮০ টাকা। আর দুই সপ্তাহ আগে ছিল ৩০০ থেকে ৩৪০ টাকা। গত সপ্তাহে ২৪০ থেকে ২৫০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া লাল লেয়ার মুরগি কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৩০ থেকে ২৪০ টাকা।

মুরগির দামের বিষয়ে খিলগাঁওয়ের বাজারের ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম বলেন, কিছুদিন আগে ব্রয়লার মুরগির কেজি ২০০ টাকা বিক্রি করেছি। সরবরাহ কম থাকায় এমন দাম বেড়েছিল। তবে এখন মুরগির সরবরাহ বাড়তে শুরু করেছে। তাই দাম কমেছে। আমাদের ধারণা সামনে মুরগির দাম আরও কমবে।

রামপুরা বাজারে মুরগি কিনতে আসা মহিউদ্দিন বলেন, গত সপ্তাহে সোনালি মুরগি ২৮০ টাকা কেজি কিনেছিলাম। আজ ২৬০ টাকা নিয়েছে। আমার মতে মুরগির দাম আরও কমা উচিত। দেখেন ব্রয়লার মুরগির কেজি ১৭০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। আমি মনে করি ব্রয়লার মুরগির কেজি ১২০ থেকে ১৪০ টাকার মধ্যে থাকলে সেটা স্বাভাবিক। এর থেকে বেশি হওয়া উচিত না।

সবজির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্যবসায়ীরা শশার কেজি বিক্রি করছেন ৬০ থেকে ৮০ টাকা। গত সপ্তাহে শশার কেজি ছিল ২৫ থেকে ৩০ টাকা। অর্থাৎ এক সপ্তাহে শশার দাম বেড়ে প্রায় তিনগুণ হয়েছে।

শশার দামের বিষয়ে রামপুরার ব্যবসায়ী মো. মিলন বলেন, শশার বাজারে আগুন লেগেছে। আড়তে শশার দাম শুনে প্রথমে আমরাই অবাক হয়েছি। গত সপ্তাহের তুলনায় প্রায় তিনগুণ বেশি দামে শশা কিনে এনেছি। বেশি দামে কেনার কারণে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।

কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ী আলী হোসেন বলেন, হঠাৎ করেই বাজারে শশার সরবরাহ কমে গেছে। আজ বাজারে শশা অনেক কম এসেছে। এ কারণে এমন দাম বেড়েছে। তবে আমাদের ধারণা শশার এই দাম বেশি দিন থাকবে না। অল্প সময়ের মধ্যেই শশার দাম কমে যাবে।

শশার পাশাপাশি গেলো এক সপ্তাহে বেড়েছে ফুলকপির দাম। গত সপ্তাহে ৩০ থেকে ৪০ টাকা পিস বিক্রি হওয়া ফুলকপির দাম বেড়ে ৪০ থেকে ৬০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। এর সঙ্গে বেড়েছে শিমের দাম। শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৮০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪০ থেকে ৬০ টাকার মধ্যে।

এদিকে সপ্তাহের ব্যবধানে দাম অপরিবর্তিত রয়েছে পাকা টমেটো, গাজর, মুলা, শালগমের। গত সপ্তাহের মতো পাকা টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা। গাজরের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা। মুলার কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা, শালগমের (ওল কপি) কেজি ৩০ থেকে ৪০ টাকা।

এছাড়া বরবটির কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৭০ টাকা। লালশাকের আঁটি ১০ থেকে ১৫ টাকা, মুলাশাকের আঁটি ১০ থেকে ১৫ টাক বিক্রি হচ্ছে। আর পালংশাকের আঁটি বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। এগুলোর দামও সপ্তাহের ব্যবধানে অপরিবর্তিত রয়েছে।

ভরা মৌসুমেও শীতের সবজির দাম বাড়ার বিষয়ে মালিবাগের ব্যবসায়ী আজগর আলী বলেন, কয়েক দিন ধরে ফুলকপির দাম লম্ফঝম্প করছে। পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে সামনে আরও দাম বাড়বে। আর ফুলকপির দাম বাড়লে অন্য সবজির দামও বাড়তে পারে।

বাজারটিতে সবজি কিনতে আসা হারুন অর রশিদ বলেন, এখন শীতের সবজির ভরা মৌসুম। স্বাভাবিক ভাবেই এখন সবজির দাম কম হওয়ায় কথা। কিন্তু দেখেন সবজির দামে যেন আগুন লেগেছে। ৩০ টাকার শশা ৮০ টাকা হয়েছে। ৩০ টাকার ফুলকপি ৫০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। এটা কীভাবে স্বাভাবিক ঘটনা হতে পারে। আসলে বাজারে কারও কোনো নজরদারি নেই। যে কারণে হুটহাট করে সবকিছুর দাম বেড়ে যায়।

মাছবাজার ঘুরে দেখা গেছে, রুই মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৪৫০ টাকা। একই দামে বিক্রি হচ্ছে কাতল মাছ। শিং ও টাকি মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা। শোল মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা। তেলাপিয়া ও পাঙাশ মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ১৭০ টাকা।

এক কেজি ওজনের ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে ১০০০ থেকে ১২০০ টাকা। ছোট ইলিশ মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা। নলামাছ বিক্রি হচ্ছে ১৭০ থেকে ২০০ টাকা কেজি। চিংড়ি বিক্রি হচ্ছে ৬০০ থেকে ৬৫০ টাকা কেজি। সপ্তাহের ব্যবধানে মাছের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।



সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 48        
   শেয়ার করুন
Share Button
   আপনার মতামত দিন
     অর্থ-বাণিজ্য
আস্থার সংকট কাটিয়ে উঠবে ই-কমার্স: শমী কায়সার
.............................................................................................
এবার ইকমার্স প্রতিষ্ঠান নিয়ে এলেন সাকিব আল হাসান
.............................................................................................
ছুটির দিনে বাণিজ্যমেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের ভিড়
.............................................................................................
৩০ টাকা কেজিতে নেমেছে পেঁয়াজ
.............................................................................................
শুরুতে শেয়ারবাজারে বড় উত্থান
.............................................................................................
বছরের শুরুতেই মালয়েশিয়ার পাম অয়েল রফতানি কমেছে
.............................................................................................
আপাতত ১৫ দিন বাড়ছে না তেলের দাম
.............................................................................................
বিশ্ববাজারে বেড়েছে স্বর্ণের দাম
.............................................................................................
মুরগির দাম কমেছে
.............................................................................................
হিলিতে পেঁয়াজ আমদানি বেড়েছে
.............................................................................................
বছরের শুরুতেই বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের বড় লাফ
.............................................................................................
বিশ্ববাজারে কমেছে স্বর্ণের দাম
.............................................................................................
কমেছে মুরগির দাম
.............................................................................................
আপাতত ভোজ্যতেলের দাম বাড়ছে না
.............................................................................................
বেড়েই চলেছে সূচক, ৩২ কার্যদিবসের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন
.............................................................................................
সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ৮ টাকা বাড়াতে চান ব্যবসায়ীরা
.............................................................................................
পোশাকশিল্পে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি ৫৩ শতাংশ
.............................................................................................
আগামী অর্থবছরে অর্থনীতির আকার ৫০০ বিলিয়ন ডলার হবে: অর্থমন্ত্রী
.............................................................................................
বিশ্ববাজারে বাড়লো স্বর্ণের দাম
.............................................................................................
মুরগির দাম আরও বেড়েছে, অর্ধেকে নেমেছে টমেটো
.............................................................................................
Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale
Digital Load Cell
Digital Indicator
Digital Score Board
Junction Box | Chequer Plate | Girder
Digital Scale | Digital Floor Scale

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Dynamic Scale BD