| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * কর্নাটকে ১০ মে থেকে দুই সপ্তাহের লকডাউন   * ডব্লিউএইচওর অনুমোদন পেল চীনের সিনোফার্মের টিকা   * শেখ হাসিনার প্রত্যাবর্তন গণতন্ত্রের অগ্নিবীণার দেশে ফেরা : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী   * নীলফামারীতে বজ্রপাতে নারীর মৃত্যু   * শনি বা রোববার পৃথিবীতে আছড়ে পড়বে চীনা রকেট : পেন্টাগন   * হাওরের ধান কাটা শেষ   * ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট : ঝুঁকিতে বেনাপোলের ২০ হাজার মানুষ   * বোরো ধান-চাল সংগ্রহ সফল করতে ১৩ নির্দেশনা   * দেশে করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত আরও কমল   * ফেরিতে গাদাগাদি করে ভ্রমণে সংক্রমণ বাড়ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী  

   ইসলাম
  পুণ্য অর্জনের অফুরন্ত সুযোগের পবিত্র মাহে রমজান মাস
 

মিয়া আবদুল হান্নান : মানব জীবনের যাবতীয় পাপ থেকে নিজেকে পবিত্র করা ও পরকালীন জীবনের পাথেয় পুণ্য অর্জনের অফুরন্ত সুযোগের মাস পবিত্র মাহে রমজান। রহমতের ১০ দিন বিদায় নিয়েছে, বরকতের ১০ দিনের মধ্যে ১৭ রমজান বাকি আছে ৩ দিন ও মাগফিরাতের ১০ শুরু হবে ৪ মে মঙ্গলবার থেকে পয়গাম নিয়ে উপস্থিত ইবাদতের বসন্তকাল। পুণ্যময় এ মাসে মহান রবের ইবাদত উপাসনায় আলোকিত হয় মুমিনের জীবন। ব্যর্থ সে ব্যক্তি, যে রমজান মাস পেয়েও এর যথাযথ মূল্যায়ন করতে পারলো না এবং নিজের পাপমোচন করাতে পারলো না। যে ব্যক্তি রমজান পেয়েও পাপ ক্ষমা করানো থেকে বঞ্চিত হলো আখেরী মহানবী (সাল্লুল্লাহ্ আলাইহি ওয়াসাল্লাম ) তাকে ধিক্কার দিয়ে বলেছেন, `ওই ব্যক্তির নাক ধুলায় ধূসরিত হোক, যার কাছে রমজান মাস এসে চলে গেল অথচ তার পাপগুলো ক্ষমা করা হয়নি।` (আদাবুল মুফরাদ : ৫০২) দীর্ঘদিনের পাপের অভ্যাস ছাড়া অনেকের পক্ষে কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। ১১ মাস পাপের সমুদ্রে নিমজ্জিত থাকার ফলে এ মাসেও লাগামহীনভাবে পাপনিদ্রায় বিভোর থাকে। বড় আক্ষেপের বিষয়, এ পবিত্র মাসেও ভেসে আসে গান-বাজনার আওয়াজ।

অনেকে আবার রোজাদারের সামনে প্রকাশ্যে পানাহার করে বেড়ায়। নামাজ-রোজার কথা ভুলে গিয়ে চলে খেলাধুলার প্রতিযোগিতা। অবসরতা কাটাতে কোথাও জমে ওঠে জুয়া ও আড্ডার আসর। এসব রমজানের

পবিত্রতা ও মহত্ত্বকে ধ্বংস করে। অনেকে দিনভর রোজা রাখে, আবার গীবত, পরনিন্দা ও মিথ্যা কথাসহ বিভিন্ন পাপ কাজেও লিপ্ত থাকে— এমন ব্যক্তির ভাগ্যে শুধু ক্ষুধাই জোটে। এ জন্যই রাসুলুল্লাহ (সাল্লুল্লাহ্ আলাইহি ওয়াসাল্লাম ) বলেছেন, `কতো রোজাদার আছে, যাদের রোজার বিনিময়ে ক্ষুধা ছাড়া আর কিছুই জোটে না। কতো সালাত আদায়কারী আছে যাদের রাত জাগরণ ছাড়া আর কিছুই জোটে না।` (ইবনে মাজা : ১৬৯০)। অন্য হাদিসে এসেছে, `যে ব্যক্তি মিথ্যা বলা ও তদানুযায়ী আমল করা বর্জন করেনি, তার এই পানাহার পরিত্যাগ করায় আল্লাহর কোনো প্রয়োজন নেই।` (বুখারি : ১৯০৩) পাপের উপসর্গ নিয়ে বেড়ে উঠেছে যার জীবন, অন্যায়ের প্রবণতা মিশে আছে রক্ত বিন্দু বিন্দু কণিকায়, পবিত্র রমজান মাসেও যে ব্যক্তি পাপ-পঙ্কিলতা থেকে নিজেকে বাঁচাতে পারছে না— তার উচিত আল্লাহর কাছে বেশি বেশি প্রার্থনায় মনোনিবেশ করা। কেননা দোয়া হলো মুমিনের হাতিয়ার। যেভাবে আল্লাহ শারীরিক অসুস্থতা থেকে সুস্থ করেন, সেভাবেই তিনি আত্মার ব্যাধির প্রতিকার করেন। আল্লাহর দরবারে ঝরা অশ্রু, কখনো বৃথা যায় না । পাপের ভারে ন্যুব্জ বান্দা যখন আল্লাহকে ডাকে তখন তিনি সাড়া দেন। আল্লাহ তায়ালা বলেন, `তোমরা আমাকে ডাকো, আমি সাড়া দেবো।` (সুরা গাফির : ৬০)। অন্য আয়াতে ইরশাদ হয়েছে, `কে তিনি যিনি, আর্তের ডাক শোনেন যখন সে তাকে ডাকে এবং কে তার দুঃখ দূর করেন?` (সুরা: নামল : ৬২)। পাপের আঁধারে নিমজ্জিত ব্যক্তির পক্ষে রাতারাতি পাপমুক্ত হওয়া দুষ্কর, এর জন্য চাই ধৈর্য ও অবিরাম চেষ্টা। আর যে ব্যক্তি আল্লাহর পথে পরিচালিত হওয়ার চেষ্টা করে আল্লাহ তার পথ খুলে দেন। আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআনে ইরশাদ করেন, `যারা আমার পথে সাধনায় আত্মনিয়োগ করে, আমি অবশ্যই তাদেরকে আমার পথে পরিচালিত করব। নিশ্চয় আল্লাহ সৎকর্মপরায়ণদের সঙ্গে আছেন।` (সুরা আনকাবুত : ৬৯) পাপের আনন্দ শেষ হয়ে থেকে যায় এর অশুভ পরিণাম। ইবাদতের কষ্ট শেষ হয়ে থেকে যায় এর শুভ পরিণাম। তাই পাপের শাস্তি ও এর ভয়াবহ পরিণতি সম্পর্কে চিন্তার মাধ্যমে পাপমুক্ত হওয়া সহজ। আখেরাতের অপেক্ষমাণ কঠিন আজাব ছাড়াও এই পৃথিবীতে পাপের নগদ শাস্তি হলো— দুঃখ, দুর্দশা, অশান্তি, অস্থিরতা ও হতাশা। এ ছাড়াও পাপের কারণে আল্লাহর সঙ্গে বান্দার দূরত্ব তৈরি হয়; পাপী ব্যক্তি থেকে তাঁর রহমতের দৃষ্টি উঠে যায়। তারা বিপদাপদ ও বিপর্যয়ে আপতিত হয়, দূরারোগ্য রোগ-ব্যাধি, মহামারি আক্রান্ত হয় এবং রুজিরোজগারের সঙ্কটে জর্জরিত হয়। গুনাহ যেমনভাবে মানুষের শারীরিক কষ্ট ও শাস্তির কারণ, তেমনিভাবে তা আত্মিক রোগ-ব্যাধিরও কারণ। কারও থেকে একটি গুনাহ সংগঠিত হলে সেটি আরেকটি গুনাহতে লিপ্ত হওয়ার কারণ হয়। হাফেজ ইবনুল কাইয়্যুম (রহঃ) বলেন, গুনাহের একটি নগদ শাস্তি হলো, এর দ্বারা সে আরেকটি গুনাহের শিকার হয়। অনুরূপভাবে নেক কাজের একটি নগদ পুরস্কার হলো, একটি নেক কাজ আরেকটি নেক কাজের দিকে টেনে নেয়। (মায়ারিফুল কুরআন : ৭/৭০১)। রমজানে অভিশাপ্ত শয়তানকে বন্দি করে রাখা হলেও প্রত্যেকের সঙ্গে `নফসে আম্মারা` কিন্তু ঠিকই রয়েছে— যা মানুষের মনে কুমন্ত্রণা দেয় এবং কুপ্রবৃত্তির প্রতি আহবান করে। তাই সব ধরনের গুনাহের উপকরণ থেকে দূরে থাকতে হবে, বিশেষত দৃষ্টিকে হেফাজত রাখতে হবে। সেহরি ও ইফতারে পরিমিত পানাহার করা উচিত। কারণ, মাত্রাতিরিক্ত খাবার আহারের ফলে ইবাদতে অলসতা তৈরি হয় এবং গুনাহের প্রবৃত্তি জাগ্রত হয়। আমরা যদি ভোজনবিলাসী না হয়ে মহানবীর (সা.) প্রকৃত সুন্নত এবং সাহাবিদের রোজা রাখার পদ্ধতি অনুসরণ করে ভোজনে সংযমী হয়ে সীমিতভাবে সেহরি ও ইফতার করি, তা হলে এর মধ্যদিয়ে আমাদেও কৃপ্রবৃত্তিকে দুর্বল হবে এবং সুকুমারবৃত্তিগুলো বিকশিত হবে। রমজান সংযমের মাস, সাধনার মাস, ত্যাগের মাস। কিন্তু আমরা রমজানের এই বার্তাকে ভুলে গিয়ে, মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ও সাহাবিদের অনুসৃত পথ পরিহার করে সেহরি ও ইফতারে এতটাই ভোজনবিলাসী, খাদ্য ভোগী হয়ে উঠি যা রমজানের সংযম, সাধনা ও ত্যাগের বার্তাকে ভুলিয়ে দেয়। ফলে আমাদের কুপ্রবৃত্তি দুর্বল না হয়ে আরও হিংস্র ও পাশবিক হয়ে ওঠে। কাম, লিপ্সা, রাগ, মোহ আরও বেড়ে যায়। আমাদের সুকুমারবৃত্তিগুলো বিকশিত না হয়ে আরও নিস্তেজ হয়ে যায়। মাহে রমজানে গুনাহ থেকে বাঁচতে হলে অসৎ সঙ্গ ত্যাগ করে সৎ সঙ্গ গ্রহণ করতে হবে। কেননা মানুষ পাপ কাজে অসৎ সঙ্গীদের দ্বারা প্রভাবিত হয়। তাই পাপ থেকে বেঁচে থাকতে সৎ ও ভালো মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করা উচিত। মহানবী (সা.) ভালো মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করতে বলেছেন। তিনি বলেন, `তুমি মুমিন ব্যক্তি ছাড়া অন্য কারও সঙ্গী হবে না এবং তোমার খাদ্য যেন পরহেজগার লোকে খায়।` (আবু দাউদ : ৪৮৩২)। রোজার প্রধান উদ্দেশ্য হলো, তাকওয়া বা খোদাভীতি

আল্লাহ তায়ালা বলেন, `হে মুমিনগণ! তোমাদের জন্য রোজা ফরজ করা হলো, যেমন ফরজ করা হয়েছিল তোমাদের পূর্বে যারা ছিল তাদের ওপরও; যাতে তোমরা মুত্তাকি হতে পারো।` (সুরা বাকারা : ১৮৩)। আমাদের সবার মনে সর্বদা এই চেতনা জাগ্রত রাখতে হবে যে, প্রতি মুহূর্তে আমরা যা করছি আল্লাহ তায়ালা তা দেখছেন। যেমন পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, `তোমরা যা কর আল্লাহ তা দেখেন।` (সুরা হুজরাত : ১৮) আর এভাবে আল্লাহর ধ্যান দিলে জাগরুক রাখতে পারলেই পাপমুক্ত জীবনযাপন সম্ভব। তখন কেউ কারও ওপর জুলুম করবে না, একে অন্যের হক নষ্ট করবে না। আল্লাহ তায়ালার কোনো বিধান লঙ্ঘন করবে না এবং যাবতীয় অন্যায়-অপরাধ ও পাপাচারে লিপ্ত হবে না। এরই নাম তাকওয়া। রহমতের এই বসন্তকালে আসুন আমরা খোদাভীতি অর্জন করি এবং নিজেদের পাপ কর্মের জন্য খাঁটি মনে তওবা করে ভবিষ্যতেও যাবতীয় পাপকর্ম থেকে বেঁচে থাকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞা করে একটি পুণ্যময় রমজান কাটাই। তবেই অনিন্দ্য সুন্দর হবে আমাদের ইহকাল ও পরকাল।



সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 94        
   শেয়ার করুন
Share Button
   আপনার মতামত দিন
     ইসলাম
করোনা থেকে মুক্তি পেতে জুমাতুল বিদায় বিশেষ দোয়া
.............................................................................................
করোনা থেকে পরিত্রাণ পেতে জুমাতুল বিদায় বিশেষ দোয়া
.............................................................................................
‘শবে কদর’ হাজার মাসের চেয়ে শ্রেষ্ঠ রজনী
.............................................................................................
পবিত্র কাবার হাজরে আসওয়াদের স্বচ্ছ ছবি প্রকাশ
.............................................................................................
রমজান মাসেও পাপ মোচন না হওয়া চরম দুর্ভাগ্যজনক
.............................................................................................
নারীরা কোথায় এবং কীভাবে ইতিকাফ করবেন
.............................................................................................
বছরের মাঝে সম্পদ কমে গেলে জাকাত দিতে হবে?
.............................................................................................
রোজা মোমেনদের জন্য ঢালস্বরূপ হেদায়েত পুর্ণ সৎ পথের সুস্পষ্ট নিদর্শন
.............................................................................................
ঐতিহাসিক বদর দিবস আজ
.............................................................................................
পুণ্য অর্জনের অফুরন্ত সুযোগের পবিত্র মাহে রমজান মাস
.............................................................................................
যেসব নিয়ম-কানুন মেনে পালন করা যাবে এবারের ওমরাহ
.............................................................................................
ইদুল ফিতরের জামাত নিয়ে সিদ্ধান্ত আগামীকাল
.............................................................................................
যেসব কারণে রমজানে কোরআন তেলাওয়াত গুরুত্বপূর্ণ
.............................................................................................
রোজা কবুল হওয়ার জন্য ৬ আমল
.............................................................................................
ক্ষমার দশকের প্রথম তারাবিহ পড়া হবে আজ
.............................................................................................
বড় পীর আবদুল কাদের জিলানী, এই রমজান মাসে যার জন্ম
.............................................................................................
এ বছরের জনপ্রতি ফিতরা নির্ধারণ
.............................................................................................
রোজাদারের জন্য ১০টি সুসংবাদ!
.............................................................................................
রোজাদারের জন্য আল্লাহর বিশেষ পুরস্কার
.............................................................................................
সৌদি আরবে ওমরায় বিদেশীদের মানতে হবে যে নিয়ম
.............................................................................................
Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale
Digital Load Cell
Digital Indicator
Digital Score Board
Junction Box | Chequer Plate | Girder
Digital Scale | Digital Floor Scale

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop