| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * মতিঝিলে `বিচ্ছু বাহিনী`র ৫ সদস্য গ্রেফতার   * ফরিদপুরে করোনা-উপসর্গে আরও ১২ জনের মৃত্যু   * করোনাকালে ডেঙ্গু নিয়ে অবহেলা না করার অনুরোধ   * ফেরিতে উঠতে গিয়ে নদীতে পড়ে গেলেন ৩ যাত্রী   * করোনায় আরও ২২৮ জনের মৃত্যু   * মাস্কবিহীন কাউকে ছাড় দেয়া হচ্ছে না   * মহারাষ্ট্রে ভারি বৃষ্টি ও ভূমিধস, নিহত বেড়ে ১৩৮   * টিকা নিতে ১ কোটির বেশি মানুষের নিবন্ধন   * দৌলতদিয়ায় উভয়মুখী যাত্রীর চাপ   * পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা: ফেরির ২ চালককে দায়ী করে প্রতিবেদন  

   তথ্য-প্রযুক্তি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
উইন্ডোজ ১১তে ব্ল্যাক স্ক্রিন

আইটি ডেস্ক : মাইক্রোসফটের নতুন উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে শুধু স্টার্ট মেন্যুতেই ভিজ্যুয়াল পরিবর্তন এনে থামছে না মাইক্রোসফট। বিভিন্ন ত্রুটির কারণে কয়েক বছর ধরে যে ব্লু স্ক্রিন অব ডেথ দেখা যেত সেটিতেও পরিবর্তন আসছে। নতুন অপারেটিং সিস্টেমে ব্লু স্ক্রিনের পরিবর্তে ব্ল্যাক অর্থাৎ কালো রঙের স্ক্রিন দেখা যাবে। ২০১৬ সালে কিউআর কোড যুক্ত করার পর এবারই প্রথম উইন্ডোজ ইন্টারফেসের এই অংশে বড় ধরনের পরিবর্তন আনছে মাইক্রোসফট। এখনো নতুন ব্লু স্ক্রিন অন ডেথ (বিএসওডি) চালু করা হয়, তবে ব্যবহারকারী চাইলে অফিশিয়ালি চালুর আগেই উইন্ডোজ রেজিস্ট্রি থেকে নিজেই এ পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। মাইক্রোসফট বিএসওডির রং কেন পরিবর্তন করছে সেটি এখনো পরিষ্কার নয়। তবে দ্য ভার্জ জানিয়েছে, অপারেটিং সিস্টেমটিকে আরও আধুনিক করতে উইন্ডোজ ইন্টারফেসের বিভিন্ন জায়গাতেই পরিবর্তন আনছে মাইক্রোসফট।

উইন্ডোজ ১১তে ব্ল্যাক স্ক্রিন
                                  

আইটি ডেস্ক : মাইক্রোসফটের নতুন উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে শুধু স্টার্ট মেন্যুতেই ভিজ্যুয়াল পরিবর্তন এনে থামছে না মাইক্রোসফট। বিভিন্ন ত্রুটির কারণে কয়েক বছর ধরে যে ব্লু স্ক্রিন অব ডেথ দেখা যেত সেটিতেও পরিবর্তন আসছে। নতুন অপারেটিং সিস্টেমে ব্লু স্ক্রিনের পরিবর্তে ব্ল্যাক অর্থাৎ কালো রঙের স্ক্রিন দেখা যাবে। ২০১৬ সালে কিউআর কোড যুক্ত করার পর এবারই প্রথম উইন্ডোজ ইন্টারফেসের এই অংশে বড় ধরনের পরিবর্তন আনছে মাইক্রোসফট। এখনো নতুন ব্লু স্ক্রিন অন ডেথ (বিএসওডি) চালু করা হয়, তবে ব্যবহারকারী চাইলে অফিশিয়ালি চালুর আগেই উইন্ডোজ রেজিস্ট্রি থেকে নিজেই এ পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। মাইক্রোসফট বিএসওডির রং কেন পরিবর্তন করছে সেটি এখনো পরিষ্কার নয়। তবে দ্য ভার্জ জানিয়েছে, অপারেটিং সিস্টেমটিকে আরও আধুনিক করতে উইন্ডোজ ইন্টারফেসের বিভিন্ন জায়গাতেই পরিবর্তন আনছে মাইক্রোসফট।

ইমোতে অ্যান্টি-ফ্রড সিস্টেম জোরদার
                                  

আইটি ডেস্ক : বর্তমানের ডিজিটাল বিশ্বে ব্যবহারকারীরা ক্রমবর্ধমান সাইবার ঝুঁকির সম্মুখীন হচ্ছেন। ঝুঁকি রোধে এবং ব্যবহারকারীদের সুরক্ষায় বিস্তৃত পরিসরের একটি অ্যান্টি-ফ্রড সিকিউরিটি মেকানিজম উন্মোচন করাসহ এর সামগ্রিক সুরক্ষাব্যবস্থা জোরদার করতে নতুন নানা ফিচার নিয়ে এসেছে তাৎক্ষণিক যোগাযোগের জনপ্রিয় প্ল্যাটফরম ইমো। ইমো’র ভাইস-প্রেসিডেন্ট ক্রিস্টোফার শু বলেন, ‘আমরা সুরক্ষার বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করি এবং নিজেদের প্ল্যাটফরমের যে কোনো অপব্যবহারের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ দিয়ে লড়াইয়ে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ইমো।’ তিনি আরও বলেন, ‘ক্রমবর্ধমান প্রযুক্তিজ্ঞানসম্পন্ন অপরাধীদের বিরুদ্ধে এ লড়াই নিরন্তর; আমরাও এক্ষেত্রে আমাদের বিনিয়োগ বৃদ্ধির পাশাপাশি দীর্ঘমেয়াদি এ সমস্যা সমাধানে শিল্পসংশ্লিষ্ট সহযোগী ও কর্তৃপক্ষের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করার ব্যাপারে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’ ব্যবহারকারীরা ইমো থেকে যতবার ভেরিফিকেশন কোড পাবেন, এই নতুন অ্যান্টি-ফ্রড সিস্টেম ততবার তাদের সিকিউরিটি রিমাইন্ডার দিবে। এই রিমাইন্ডারের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে, ব্যবহারকারীদের কোড অন্যদের সঙ্গে শেয়ার করাকে প্রতিরোধ করা। নতুন এ সুরক্ষাব্যবস্থা মিউচুয়াল ফ্রেন্ড নয় এমন অপরিচিত কারও পাঠানো ইউআরএল প্রিভিউ ও লিঙ্ক অকার্যকর করে দিবে। কন্ট্যাক্ট লিস্টে নেই এমন ওয়ান-ওয়ে ফ্রেন্ডদের ব্যাপারে ব্যবহারকারীদের সাবধান করতে চ্যাট পেজে সিকিউরিটি রিমাইন্ডার প্রদর্শিত হবে, যাতে করে ব্যবহারকারী সাবধান হতে পারেন এবং কোনো ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার না করেন। পাশাপাশি ব্যবহারকারীদের আইডি হ্যাক করা থেকে সুরক্ষা দিতে বিভিন্ন ডিভাইসে লগইন করার চেষ্টা করা হলে ইমো ব্যবহারকারীকে সিকিউরিটি রিমাইন্ডার পাঠাবে এবং কারো সঙ্গে ভেরিফিকেশন কোড শেয়ার না করতে অবহিত করবে।

হোয়াটসঅ্যাপ লগ ইন আরও সুরক্ষিত হচ্ছে
                                  

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক : হোয়াটসঅ্যাপের জনপ্রিয়তা ধরে রাখতে নিত্য নতুন ফিচার নিয়ে হাজির হচ্ছে কর্তৃপক্ষ। প্রতিনিয়ত হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ গ্রাহকদের সেবার মান উন্নত করার চেষ্টা করছেন। ব্যবহারকারীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এবার নতুন ফিচার আনছে হোয়াটসঅ্যাপ।

খুব শীঘ্রই হোয়াটসঅ্যাপ লগইন ওটিপি-তে পরিবর্তন করতে চলেছে। এর ফলে আরও সুরক্ষিত হবে হোয়াটসঅ্যাপ। সেই সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ-এর ওটিপি লগইন অতীতের কোনো বিষয় অপশনাল হয়ে যেতে পারে। ডব্লিউবিটাইনফো-এর নতুন রিপোর্ট অনুযায়ী, হোয়াটসঅ্যাপ ‘ফ্ল্যাশ কল’ নামে একটি নতুন ফিচার পরীক্ষা করছে, যার উদ্দেশ্য হলো বর্তমানে ওয়ান-টাইম পাসওয়ার্ড (ওটিপি) ইউজার লগইনের অথেন্টিসিটি যাচাইের পরিবর্তন করা।

ফ্ল্যাশ কলের জন্য ব্যবহারকারিদের তাদের ফোনের ডায়ালারের পাশাপাশি কল তালিকাযর অ্যাক্সেস হোয়াটসঅ্যাপকে দিতে হবে। যদিও এই ফিচারটি অপশনাল হবে, তবে হোয়াটসঅ্যাপ লগইন ফ্ল্যাশ কলটিকে আরও সুরক্ষিত বিকল্প হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে। তবে বলা হয়েছে যে কেবল কিছু ব্যবহারকারীরাই এটি ফিচারটি ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন। অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা শীঘ্রই এই ফিচারটি পেতে পারেন। কিন্তু আইওএস ইউজাররা এটি ব্যবহার করতে পারবে না।

হোয়াটসঅ্যাপ ফ্ল্যাশ কলের ফিচারের জন্য ইউজারদের অ্যাপে অনুমতি দিতে হবে। অনুমতি পেয়ে গেলে, হোয়াটসঅ্যাপ সার্ভারটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্যবহারকারীর ফোন থেকে কল করবে, এবং তারপরে সেটি নিজের থেকেই কেটে যাবে।

এটি করে, হোয়াটসঅ্যাপের পুরানো পদ্ধতি ওটিপি পাসওয়ার্ডটি যা ম্যানুয়ালি আপডেট করতে হতো সেটির আর প্রয়োজন হবে না, যে সব সময় নতুন দিভাইসে লগইন করার চেষ্টা করলে দরকার পড়ত। সম্প্রতি, ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ ইনস্টল করার সময়েই ফাঁদ পাতছিল সাইবার অপরাধীরা।

এসএমএস-এর মাধ্যমে যে ওটিপি মোবাইলে আসে, তা কোনোভাবে হ্যাক করা হচ্ছে। সেটির মাধ্যমে হোয়াটসঅ্যাপ ইনস্টল করছে ওই অপরাধী। তারপর ব্যবহারকারীদের অজান্তেই ঘটছে অপরাধ।

বিটা রিপোর্ট অনুযায়ী, এই ফিচারটির উপরে কাজ চলছে, আর ব্যবহারকারীদের কাছে উপস্থাপনের সেরা উপায় সন্ধান করছে হোয়াটসঅ্যাপ। বর্তমানে বিটা আপডেটের রিপোর্টে সামনে এসেছে যে হোয়াটসঅ্যাপ অটোমেটিক ভেরিফিকেশন কল স্ক্রিনটি অ্যাপটিকে জানায় যে কেন তার অনুমতির প্রয়োজন, একক লাইনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে যে হোয়াটসঅ্যাপ কেবল কল লগ এবং ডায়ালার একবারেই অ্যাক্সেস করবে, তার পরে আর নয়। স্ক্রিনটি কল প্রক্রিয়াসহ যাচাইকরণ বর্ণনা করার জন্য একটি পেজেও ব্যবহারকারীদের লিঙ্ক করবে।

তবে এটি অ্যান্ড্রয়েড ইউজারদের জন্য আত্মপ্রকাশ করলেও আইওএস ব্যবহারকারীরা এই ফিচারটির অ্যাক্সেস পাবেন না। কারণ অ্যাপল এমন কোনো এপিআই সরবরাহ করে না যা ব্যবহারকারীর ডায়ালার এবং কল তালিকার কোনো অ্যাপ্লিকেশনকে অ্যাক্সেস দেয়, যার অর্থ আইফোনের সমস্ত ব্যবহারকারী হোয়াটসঅ্যাপে লগইন করতে ওটিপির উপরেই নির্ভর থাকতে হবে।

কলিং সেবা অ্যাপটিকে স্ক্যামারদের হাত থেকে বাঁচাতে সাহায্য করতে পারবে, কারণ এটি সমস্ত ম্যানুয়াল ইনপুটকে বাইপাস করে আর আক্রমণকারীদের ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্ট জোর করে দখলের চেষ্টা করার কোনো উপায় দেয় না।

অ্যাপলের এআর হেডসেট আসছে আগামী বছর
                                  

আইটি ডেস্ক : ডব্লিউডব্লিউডিসি ২০২১-এ নতুন কোনো হার্ডওয়্যারের সঙ্গে প্রযুক্তি বিশ্বকে পরিচয় করায়নি অ্যাপল; তবে আগামী বছরের ডব্লিউডব্লিউডিসি ২০২২-এ সেটির পরিবর্তন দেখা যেতে পারে। বিশ্লেষক মিং-ছি কুউ জানিয়েছেন, আগামী বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে প্রথম অগমেন্টেড রিয়েলিটি (এআর) হেডসেট উন্মোচনের পরিকল্পনা করছে অ্যাপল।

২০১৪ সালে অ্যাপল ওয়াচ উন্মোচনের পর এটি হবে অন্যতম প্রধান পণ্য ক্যাটাগরিতে অ্যাপলের প্রথম অংশগ্রহণ। তবে দ্বিতীয় প্রান্তিকে ঘোষণার পরপরই হেডসেটটি বাজারে চলে আসবে এমনটি নয়। অ্যাপল সাধারণত কোনো নতুন পণ্যের ঘোষণা ও বাজারে উন্মুক্ত করার মধ্যে বেশ কয়েক মাস অপেক্ষা করে।

উদাহরণস্বরূপ বলা যেতে পারে, ২০১৪ সালে সেপ্টেম্বরে অ্যাপল ওয়াচ উন্মোচন করা হলেও সেটি পরবর্তী বছরের মে মাসে বাজারে ছাড়া হয়। ২০১৭ সালের ডব্লিউডব্লিউডিসিতে আইম্যাক প্রোর ঘোষণা দিয়ে পরবর্তী ডিসেম্বরে সেটি উন্মুক্ত করা হয়। এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগামী কয়েক মাস পর ফিজিক্যাল ইভেন্টের মাধ্যমে হেডসেটটির ঘোষণা দিতে পারে অ্যাপল। অ্যাপলের প্রথম হেডসেটটির ফিচার ও স্পেসিফিকেশন কী হবে সেটি এখনো অজানা। তবে শোনা যাচ্ছে, এতে ডুয়াল ফোরকে ডিসপ্লে, অত্যাধুনিক আই ট্র্যাকিং, আঙুলের পরিধানযোগ্য কন্ট্রোলার সুবিধা থাকতে পারে।

নেটফ্লিক্সে নতুন ফিচার
                                  

আইটি ডেস্ক : ভিডিও স্ট্রিমিংয়ের জনপ্রিয় প্ল্যাটফরম নেটফ্লিক্সে নতুন ফিচার এসেছে। নতুন এ ফিচারের মাধ্যমে গ্রাহকরা নেটফ্লিক্সে থাকা সিনেমা বা ওয়েব সিরিজের মজার সব ক্লিপিংস দেখতে পারবেন। অন্যদিকে শেয়ারও করতে পারবেন। নতুন এ ফিচারটির নাম ফাস্ট লাফ।

একইসঙ্গে এ ফিচারটির সাহায্যে স্ট্যান্ড-আপ স্পেশাল শোয়ের মজার ক্লিপিংসও দেখতে পাবেন গ্রাহকরা। গত মার্চ মাসে এ ফিচারটিকে আমেরিকা, ইউকে, কানাডা আর অস্ট্রেলিয়ার গ্রাহকদের জন্য লঞ্চ করা হয়েছিল। এবার ভারতে এ ফিচারটির টেস্টিং শুরু হয়ে গিয়েছে, যা খুব শিগগিরই লঞ্চ করা হবে।

প্রতিষ্ঠানটি এ ফিচারটিকে কিছু নির্দিষ্ট ব্যবহারকারীকে চালু করতে দিয়েছে টেস্ট করা জন্য। এ ফিচারটি ব্যবহার করার জন্য ইউজারকে নেটফ্লিক্স অ্যাপে গিয়ে ন্যাভিগেশন মেন্যুতে যেতে হবে। এখানে গিয়ে ফাস্ট লাফ নামে একই ট্যাব দেখতে পাবেন, সেটিতে ক্লিক করুন। এরপর স্বয়ংক্রিয়ভাবে এক এক করে ক্লিপিংস প্লে হতে শুরু হয়ে যাবে।

নেটফ্লিক্সের ফাস্ট লাফ ফিচারে ইউজাররা যে ক্লিপিংসগুলো দেখতে পাবেন, সেগুলোয় তারা হোয়াটসঅ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম, স্ন্যাপচ্যাট এবং টুইটারে শেয়ার করতে পারবেন। এই ক্লিপিংসগুলো দেখার সময় যদি ইউজার সেই নির্দিষ্ট পুরো সিনেমা বা ওয়েব সিরিজটি দেখতে চান, তাহলে প্লে বাটনে ক্লিক করলেই হবে। সেই সঙ্গে ইউজার যদি ফাস্ট লাফ ক্লিপের সিনেমা বা ওয়েব সিরিজটি পরে দেখবে বলে মনে করেন, তাহলে তারা সেটিকে লিস্টেও যোগ করে নিতে পারবেন।

সারা দেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের দাম নির্ধারণ
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবার ক্ষেত্রে সারাদেশে অভিন্ন দর নির্ধারণ করে দিল সরকার। এখন থেকে ইউনিয়ন পর্যায়ে ৫ এমবিপিএস সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা, ১০ এমবিপিএস সর্বোচ্চ ৮০০ টাকা এবং ২০ এমবিপিএস নিতে সর্বোচ্চ এক হাজার ২০০ টাকা খরচ করতে হবে গ্রাহককে।

রোববার (৬ জুন) রাজধানীর টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি মিলনায়তনে প্রান্তিক পর্যায়ে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট- এর ‘এক দেশ এক রেট’ ট্যারিফ এর উদ্বোধন করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

বিটিআরসি বলছে, সেবাদাতারা চাইলে এই দামের চেয়ে কম দাম নিতে পারবে। তবে কোনোভাবেই নেওয়া যাবে না বাড়তি অর্থ। এতে এই খাতে শৃঙ্খলা ফিরবে বলছে ইন্টারনেট সেবাদাতারা।

বিটিআরসির হিসাবে, বর্তমানে দেশে ২৪০৯ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ ব্যবহৃত হচ্ছে। যার মধ্যে ১০১৭ জিবিপিএস ব্যবহৃত হচ্ছে সাড়ে ১০ কোটি গ্রাহক। আর ১৩৯৮ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করছে ৯৮ লাখ গ্রাহক। যেখানে দামে নিয়ে ছিল অরাজকতা। কোথাও ৫০০ টাকা আবার কোথাও ৭০০ টাকা।

অবশেষে একদেশ একরেট নির্ধারণ করা হয়। দফায় দফায় বৈঠক শেষে গত ২৮ মে ইউনিয়ন পর্যায়ে অভিন্ন দাম নির্ধারণ করে দেওয়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়

এর আগে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক জানিয়েছিলেন, চলতি বছরের মধ্যে দেশের সাড়ে ৪ হাজার ইউনিয়ন পরিষদকে ফাইবার অপটিক হাইস্পিড ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটির আওতায় আনা হবে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের যুগে ব্যবসা-বাণিজ্য, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ সব কার্যক্রম ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে যাওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

পলক জানান, আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদের নির্দেশনা অনুযায়ী, যেসব ইউনিয়ন বাকি থাকবে, সেখানে পাহাড় ও দ্বীপ, যেখানে ফাইবার অপটিক্যাল ক্যাবল নেয়া যাচ্ছে না, সেগুলোতে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের মাধ্যমে যুক্ত করা হবে। এর মাধ্যমে গ্রামে বসেই শহরের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারবে এবং দুর্গম এলাকার তরুণ প্রজন্ম ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেদেরকে উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলতে পারবে।

তিনি আরও জানান, বর্তমান দেশের প্রায় ৩ হাজার ৮০০ ইউনিয়নে হাইস্পিড ফাইবার অপটিক ক্যাবল কানেক্টিভিটি পৌঁছে গেছে। আইসিটি বিভাগের কানেক্টেড বাংলাদেশ প্রকল্পের মাধ্যমে দুর্গম এলাকার ৬১৭ টি ইউনিয়নে ডিজিটাল সেন্টারে হাইস্পিড ইন্টারনেট কানেক্টিভিটি পৌঁছে দেওয়া হবে এবং চলতি বছরে এর মূল অবকাঠামো তৈরির কাজ শেষ হবে।

৫০০ টাকায় মাসব্যাপী ইন্টারনেট, আসছে ঘোষণা
                                  

অনলাইন ডেস্ক : প্রথমবারের মতো দেশব্যাপী ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট প্যাকেজের মূল্য নির্ধারণ করে দিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। এর আওতায় গ্রাম বা শহর, সারাদেশে একটি প্যাকেজের আওতায় একই মূল্যে ইন্টারনেট সেবা পাওয়া যাবে।

দেশের একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বিটিআরসির এই কর্মসূচির নাম দিয়েছে ‘এক দেশ, এক রেট’। এই কর্মসূটির আওতায় ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের জন্য তিনটি প্যাকেজ থাকবে। রোববার (৬ জুন) এ বিষয়ে একটি ঘোষণা দেওয়ার কথা রয়েছে বিটিআরসির।

বিটিআরসির একটি সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, তিনটি প্যাকেটে আওতায় ৫ এমবিপিএস গতির প্রথম প্যাকেজের মূল্য সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা, ১০ এমবিপিএস গতির দ্বিতীয় প্যাকেজের মূল্য সর্বোচ্চ ৮০০ টাকা এবং ২০ এমবিপিএস গতির তৃতীয় প্যাকেজের মূল্য সর্বোচ্চ এক হাজার ২০০ টাকা হতে পারবে।

ইন্টারনেট সেবাদাতারা বলছেন, এই দাম কার্যকর হলে ঢাকায় ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের দাম প্যাকেজ প্রতি মাসে ১০০ থেকে ২০০ টাকা কমবে। সুফল পাবেন জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়নের ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরাও।

ইন্টারনেটের তুলনামূলক দামের হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপনকারী যুক্তরাজ্যভিত্তিক ওয়েবসাইট কেব্‌লডটইউকে দেওয়া তথ্যানুসারে, বাংলাদেশ ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের দামের দিক দিয়ে বিশ্বে ৫৮তম। অর্থাৎ বিশ্বের ৫৭টি দেশে ইন্টারনেটের দাম বাংলাদেশের চেয়ে কম। দেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগের গড় দাম প্রায় ২ হাজার ৬০০ টাকা। ভারতে এর অর্ধেকেরও কম দামে মাসব্যাপী ইন্টারনেট পাওয়া যায়।

ইন্টারনেট সেবাদাতাদের সংগঠন আইএসপিএবির সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল বলেন, ব্যান্ডউইডথ সঞ্চালনের ব্যয় কমাতে পারলে তৃণমূলে কম মূল্যে ইন্টারনেট সেবা দেওয়া সম্ভব। যদি দেখা যায়, সঞ্চালন ব্যয় বেশি পড়ছে, তাহলে কারও পক্ষে কম দামে দেওয়া সম্ভব হবে না।

নতুন দাম বেঁধে দেওয়ার পর মান ঠিক থাকবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, গতি গ্রাহক বুঝে নেবেন। কেউ নির্ধারিত দামের বাড়তি বিক্রি করতে পারবে না।

সারাদেশে এক হচ্ছে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের রেট
                                  

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : প্রত্যন্ত এলাকাসহ সারাদেশের জন্য ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ‘এক দেশ এক রেট’ ট্যারিফের আওতায় আসছে।

আগামীকাল রোববার (৬ জুন) বেলা ৩টায় অনলাইনে প্রেস বিফ্রিং করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

শনিবার (৫ জুন) বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার বলেন, কালই বিস্তারিত জানতে পারবেন।

অনেক আগে থেকেই ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট গ্রামেও সহজলভ্য করার কথা বলে আসছিলেন সরকারের সংশ্লিষ্টরা।

২০১৯ সালের ১২ মার্চ ‘ডিজিটাল সেবায় ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক: বর্তমান ও ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক এক গোলটেবিল আলোচনায় ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছিলেন, ফিক্সড ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সহজলভ্য করতে ‘এক দেশ এক রেট’ নীতি অনুসরণ করতে হবে। প্রত্যন্ত এলাকার মানুষের জন্য ইন্টারনেটের পৃথক রেট গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। ইন্টারনেট সহজলভ্য করতে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহকে একে অপরের প্রতি দোষারোপ না করে সমন্বয়ের মাধ্যমে যে কোনো সমস্যার সমাধানে আন্তরিকতার সাথে করতে হবে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে সম্ভাব্য সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

টুইটারে ভেরিফাইড অনুরোধ বন্ধ
                                  

আইটি ডেস্ক : মাইক্রুব্লগিং সাইট টুইটার ভেরিফাইড টুইটার অ্যাকাউন্টের খাতায় নাম লেখানোর সুযোগ করে দিয়েছিল ব্যবহারকারীদের। কিন্তু প্রবল আবেদনের মুখে ফের তা বন্ধ করে দিয়েছে সাইটটি।

ছোট ওই ভেরিফিকেশন চিহ্নটি পেতে টুইটার ব্যবহারকারীরা যে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিলেন, গোটা বিষয়টি সে দিকেই যেন ইঙ্গিত করল। ব্যবহারকারীদের আশ্বস্ত করতেও টুইটার ভুলে যায়নি। প্রতিষ্ঠানটি লিখেছে, ‘আমরা শিগ্গিরই আবারও অনুরোধ নেওয়া শুরু করব।’

জানা গেছে, এ সময়টিতে টুইটার হাতে থাকা অনুরোধ নিয়ে কাজ করবে।

এর আগে ২০১৭ সালে ভেরিফাইড অ্যাকাউন্টের জন্য অনুরোধ নেওয়া বন্ধ করেছিল টুইটার। আর এবার কর্মসূচিটি শুরু করার কয়েক দিনের মধ্যেই তা বন্ধ করল মাইক্রোব্লগিং সাইটটি।

অতীতে টুইটারের ভেরিফিকেশন নিয়ে কম সমালোচনা হয়নি।

অনেক ভেরিফাইড অ্যাকাউন্টধারী পরবর্তীতে ‘হোয়াইট সুপ্রেমিস্ট’ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। আর তাই হয়তো টুইটার এখন থেকে শুধু ‘উল্লেখযোগ্য, আসল এবং সক্রিয়’ অ্যাকাউন্টকে ভেরিফিকেশন চিহ্ন দেবে বলে জানিয়েছে।

অবৈধ মোবাইল শনাক্ত শুরু ১ জুলাই থেকে
                                  

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : ১ জুলাই থেকে অবৈধ মোবাইল শনাক্তের কাজ শুরু করবে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। এরপর পর্যায়ক্রমে এসব মোবাইল সেট বন্ধ করা হবে। তবে এক্ষেত্রে আগে গ্রাহককে সেট বৈধ করার সুযোগ দেয়া হবে।

অবৈধ মোবাইল শনাক্তে ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্ট্রার (এনইআইআর) সিস্টেম ব্যবহার করবে বিটিআরসি। দেশে প্রথমবারের মত এই ধরনের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে। তবে এতে মোবাইল গ্রাহকদের আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য বলেছে প্রতিষ্ঠানটি।

জানা যায়, যখনই কোনো সিম কার্ড হ্যান্ডসেটে প্রবেশ করানো হবে, তখন এটি বিটিআরসি ডাটাবেসে একটি সংকেত পাঠাবে। হ্যান্ডসেটের আইএমইআই ডাটাবেসের সঙ্গে মিললে তবেই সিম কার্ডটি চালু হবে।

বিটিআরসির মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শহিদুল আলম বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে প্রায় ১৫ কোটি হ্যান্ডসেটের চাহিদা রয়েছে। যার ৪০ শতাংশই অবৈধভাবে বাজারে প্রবেশ করেছে বা বিদেশ থেকে আনা হয়েছে। আমরা এসব শৃঙ্খলার মধ্যে আনার চেষ্টা করছি। মূলত আইনশৃঙ্খলা ঠিক রাখার জন্য এটা কর হচ্ছে। আর সুযোগ দেয়া হবে বৈধ করার জন্য। এজন্য সবার কাছে মেসেজ যাবে। কারো যোগাযোগ ব্যবস্থায় কোনো ব্যাঘাত ঘটবে না। বিদেশ থেকে কেনা হ্যান্ডসেটগুলোর ক্ষেত্রে বিটিআরসিতে বৈধ কাগজপত্র জমা দিয়ে নিবন্ধন করা যাবে।

জানা যায়, বিটিআরসি ইতোমধ্যে বৈধ ফোনগুলোর একটি ডাটাবেস প্রস্তুত করেছে। চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে এনইআরআইআর-এর ইনস্টলেশন কাজ শেষ হবে।

মো. শহিদুল আলম আরও বলেন, এর আগে একটি মেসেজ দেয়া হয়েছিল কীভাবে অবৈধ মোবাইল বৈধ করতে হবে। এখন আমরা মানুষকে অবহিত করছি। এখন আমরা প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে শুরু করে সারা বাংলাদেশে প্রচারণা পরিচালনা শুরু করব।’

তিনি বলেন, যে কেউ এসএমএস প্রেরণের মাধ্যমে ডাটাবেস ব্যবহার করে আমদানি করা হ্যান্ডসেটগুলোর বৈধতা পরীক্ষা করতে পারবে। এনইআইআর পদ্ধতি ১৫ দিনের অস্থায়ী সময়ের জন্য কাজ করবে এবং এর ট্রায়াল রান জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে। যদি সক্রিয় সিম কার্ড মোবাইলে প্রবেশের পর বিটিআরসি ডাটাবেসে কোনও হ্যান্ডসেট না পাওয়া যায়, তাহলে বিটিআরসি ওই হ্যান্ডসেটের আইএমইআইকে ‘সাদা তালিকা’য় সাতদিন রেখে ব্যবহারকারীকে ফোনটি আমদানি বা কেনার আইনি নথি ব্যবহার করে নিবন্ধনের সময় দেবে। যদি কোনো ব্যবহারকারী তার হ্যান্ডসেটটি বিক্রি করতে চান, তবে তাকে নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটের মাধ্যমে হ্যান্ডসেটটি নিবন্ধনভুক্ত করে নতুন ব্যবহারকারীর নামের অধীনে ডাটাবেসে পুনরায় নিবন্ধন করাতে হবে।

তিনি আরও বলেন, প্রথম তিন মাস আমরা সংশোধন, বিচার ও ত্রুটি প্রক্রিয়ার জন্য এনইআইআর প্রযুক্তি ব্যবহার করব। পরবর্তীতে আমরা ব্যবহারকারীদের উত্থাপিত সমস্যাগুলো সমাধান করে প্রক্রিয়াটি পুরোদমে প্রয়োগ করব।

উল্লেখ্য, প্রতিবছর বাংলাদেশে প্রায় তিন কোটি মোবাইল হ্যান্ডসেটের চাহিদা রয়েছে। এর প্রায় অধিকাংশই চোরাই পথে আসে। ফলে প্রতিবছর প্রায় তিন হাজার কোটি টাকার রাজস্ব হারায় সরকার।

ফ্রি ফায়ার ও পাবজি বন্ধ হবে কি না প্রশ্নে যা বললেন টেলিযোগাযোগমন্ত্রী
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ফ্রি ফায়ার ও পাবজির মতো জনপ্রিয় দুই গেম বন্ধ করতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনে সুপারিশ করেছে শিক্ষা ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে বিষয়টি নিয়ে আলোচনাও হয়েছে বলে খবর।

গণমাধ্যমে এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশের পর পরই দেশজুড়ে তুমুল আলোচনার বিষয় হয়ে উঠেছে এটি।

এমন পরিস্থিতিতে ফ্রি ফায়ার ও পাবজি গেম বন্ধ করে দেওয়া হবে কি না প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

জবাবে সরাসরি কোনো বক্তব্য না দিয়ে উল্টো গেমে আসক্ত তরুণ-তরুণীদের অভিভাবকদের এক হাত নিলেন মন্ত্রী।

শনিবার দুপুরে এক প্রতিক্রিয়ায় টেলিযোগাযোগমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা সন্তানদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন না কেন? অদক্ষতা আপনাদের। প্যারেন্টাল কন্ট্রোল আছে সেটা ইউজ করেন। সন্তানের কতটুকু গেম খেলা উচিত, কতটুকু আড্ডা দেয়া উচিত, কতটুকু বাইরে যাওয়া উচিত, কতটুকু ঘরে থাকা উচিত; এসব বাবা-মাকেই নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। সন্তানকে এটুকু আয়ত্বে না নিতে পারা অভিভাবকদের ব্যর্থতা।’

অভিভাবকদের উল্টো প্রশ্ন ছুড়েন মন্ত্রী, ‘ছেলেমেয়েরা আর কোনো কারণে নষ্ট হয় না? তারা যখন মাদক নেয় তখন নষ্ট হয় না? গেমের পেছনে না লেগে কেন লেগে ওগুলো নিয়ন্ত্রণ করুন। গেমের কারণে কী জন্য ইন্টারনেটের সুবিধা থেকে ছেলেমেয়েদের বঞ্চিত করবেন? আপনাদের সমস্ত জেনারেশন খোঁজেন। কোন জেনারেশন গেম খেলে নাই? আমাদের সমায়ে ভিডিও গেমসের দোকান ছিল। আইডিবি ভবনের কম্পিউটার দোকান থেকে গেমের সিডি পাইকারি দরে বিক্রি হয়েছে। আসলে সন্তান ইন্টারনেটে কোন সাইটে যেতে পারবে না পারবে সমস্ত কিছু নিয়ন্ত্রণ করা যায়। কতক্ষণ থাকতে পারবে সেটাও নিয়ন্ত্রণ করা যায়।’

করোনায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীরাপাবজি ও ফ্রি ফায়ারে গেমে চরম আসক্ত হয়ে পড়েছে। এই গেম দুটো কীভাবে বন্ধ করা যায়— এমন প্রশ্নের জবাবে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘ইন্টারনেটের জগতে কিছুই বন্ধ করা যায় না। আর বন্ধ করাও সমাধান নয়। মাথা ব্যথার জন্য মাথা কেটে ফেলা—এটা কোনো সমাধান না। আমরা ফেসবুক বন্ধ করেছিলাম, কিন্তু ভিপিএন (ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক) দিয়ে ফেসবুক চালিয়েছে সবাই। এখন বলুন ভিপিএন বন্ধ করবে কে?’

প্রসঙ্গত, গত ২৬ মে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ ফ্রি ফায়ার ও পাবজি গেম দুটি নিয়ন্ত্রনের দাবি জানিয়েছিলেন।

ফ্রি ফায়ার ও পাবজি আসক্তির ভয়াবহতা তুলে ধরতে উদাহরণ দিয়ে মহিউদ্দিন আহমেদ জানিয়েছিলেন, গত ২১ মে চাঁদপুরে মামুন (১৪) নামে এক তরুণ গেম খেলতে মোবাইলের ডেটা কেনার টাকা না পেয়ে মায়ের সঙ্গে অভিমান করে আত্মহত্যা করে। তাই টেলিযোগাযোগ ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় এবং নিয়ন্ত্রক কমিশনকে দ্রুততার সহিত এ গেমগুলোর অপব্যবহার বন্ধ এবং প্রযুক্তির ভালো দিক তুলে ধরতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের পাশাপাশি জনসচেতনতা গড়তে আহ্বান জানাচ্ছি।

সম্প্রতি নেপালে পাবজি নিষিদ্ধ করে দেশটির আদালত। একই কারণে ভারতের গুজরাটেও এ গেম খেলার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছিল। এমনকি গেমটি খেলার জন্য কয়েকজনকে গ্রেফতারও করা হয়েছিল। বাংলাদেশেও পাবজি সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছিল, পরে আবার চালু করা হয়।

প্রসঙ্গত, চীনা প্রতিষ্ঠানের ২০১৯ সালে তৈরি করা যুদ্ধ গেম ফ্রি ফায়ার ২০১৭ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার গেম ডেভেলপার প্রতিষ্ঠান ব্লু হোয়েলের অনলাইন ভিডিও গেমটির মতোই। ২০১৯ সালে এটি বিশ্বব্যাপী সর্বাধিক ডাউনলোড করা মোবাইল গেম ।

গেমটি অন্য খেলোয়াড়কে হত্যা করার জন্য অস্ত্র এবং সরঞ্জামের সন্ধানে একটি দ্বীপে প্যারাসুট থেকে পড়ে আসা ৫০ জন ও তার অধিক খেলোয়াড়কে অন্তর্ভুক্ত করে।

বর্তমানে ফ্রি ফায়ারের উন্নত সংস্করণে কাজ চলছে যা ফ্রি ফায়ার ম্যাক্স নামে পরিচিত।

অন্যদিকে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে বন্দুক দিয়ে মসজিদে মুসলমানদের হত্যা এবং সেই দৃশ্য ফেসবুক লাইভের বিষয়টি অনেকেই পাবজির সঙ্গে তুলনা করেন।

এসব গেম কোমলমতিদের ওপর মনস্তাত্বিক প্রভাব ফেলছে এবং তরুণদের আগ্রাসী করে তুলছে বলে মত দিয়েছেন মনবিজ্ঞানীরা।

ব্যস্ত তরুণদের পছন্দের শীর্ষে ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারির অপো এফ১৯
                                  

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি : মোবাইল ফোনে গেম খেলা, কনটেন্ট দেখা ও গান শুনতে গিয়ে চার্জ দ্রুত শেষ হয়ে যায়। স্মার্টফোনগুলো নিয়ে গ্রাহকদের এমন অভিযোগই বেশি।

যে কারণে বেশি মিলিঅ্যাম্পিয়ারের শক্তিশালী ব্যাটারির স্মার্টফোনের খোঁজে থাকেন ভোক্তারা।

আর ভোক্তাদের সেই চাহিদার দিকে গুরুত্ব দিয়ে ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার শক্তিশালী ব্যাটারির অপো এফ১৯ স্মার্টফোন নিয়ে এসেছে কোম্পানিটি।

শক্তিশালী ব্যাটারির পাশাপাশি ডিভাইসটিতে রয়েছে ৩৩ ওয়াটের ফ্ল্যাশচার্জিং প্রযুক্তি ও ৪৮ মেগাপিক্সেলের এআই ট্রিপল ক্যামেরা ও ১৬ মেগাপিক্সেলের এআই সেলফি ক্যামেরা।

নিজেদের জীবনের রোমাঞ্চকর মুহূর্তগুলোকে ক্যামেরাবন্দি করতে উন্নতমানের স্মার্টফোনের জুড়িমেলা ভার। আর ক্রেতাদের এসব চাহিদার কথা মাথায় রেখে অপো এফ১৯ ডিভাইসটিতে এসব বৈচিত্র্যপূর্ণ ফিচার যুক্ত করা হয়েছে।

বর্তমানে স্মার্টফোন দিয়েই প্রয়োজনীয় কাজ খুব সহজেই সেরে ফেলা যায়। আর এ কাজগুলোকে নিরবচ্ছিন্ন রাখতে এফ১৯ ডিভাইসটিতে রয়েছে দ্রুত চার্জিং প্রযুক্তির ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের শক্তিশালী ব্যাটারি, যা ব্যবহারকারীকে দীর্ঘক্ষণ স্মার্টফোন ব্যবহারের বিষয়টিকে নিশ্চিত করবে। সাধারণত বড় ব্যাটারির ফোনগুলোতে কম্প্রোমাইজ করতে হয় ডিজাইনের সঙ্গে। কিন্তু এই এফ১৯ ফোনে একজন ব্যবহারকারী পাবেন বিশাল ব্যাটারির সঙ্গে অসাধারণ স্লিম ডিজাইন।

অপো এফ১৯ ডিভাইসটিতে রয়েছে ৩৩ ওয়াটের ফ্ল্যাশ চার্জিং প্রযুক্তি। এই অসাধারণ প্রযুক্তি দিয়ে মাত্র ৭২ মিনিটের মধ্যে ডিভাইসটি পুরোপুরি চার্জপ্রাপ্ত হয় এবং ৩০ মিনিটের মধ্যে ৫৪ শতাংশ চার্জপ্রাপ্ত হয়। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, মাত্র পাঁচ মিনিট চার্জের মাধ্যমে ৫.৭৩ ঘন্টা কথা বলা যাবে কিংবা ১.৩৭ ঘন্টা সময় ধরে ইনস্টাগ্রাম ও ১.৮১ ঘণ্টা ইউটিউব ব্যবহার করা যাবে।

এফ১৯ স্মার্ট ডিভাইসে রয়েছে এআই নাইট চার্জার প্রযুক্তি। ফলে ব্যবহারকারীরা রাতে কোনো রকম চিন্তা ছাড়াই স্মার্টফোনে চার্জ দিতে পারবেন।
ডিভাইসটির বিশেষ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সম্পন্ন ব্যাটারি গার্ড চার্জ প্রযুক্তি ব্যবহারকারীর ঘুমের প্যাটার্ন মনে রেখে ফোনটিকে সারারাত ৮০ শতাংশ পর্যন্ত চার্জ করবে এবং ঘুম থেকে ওঠার আগে ঘণ্টাখানেক আগে বাকি ২০ শতাংশ চার্জপ্রাপ্ত হবে।

উন্নতমানের চার্জিং প্রযুক্তি ছাড়াও এফ১৯ ডিভাইসটিতে রয়েছে ২৪০০ x ১০৮০ অ্যামোলেড এফএইচডি+পাঞ্চ হোল ডিসপ্লে এবং ৪০৯ পিপিই পর্যন্ত পিক্সেল ডেনসিটি। উন্নতমানের ক্যামেরা নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অপো সবসময়ই এক ধাপ এগিয়ে থাকে।

এরই ধারাবাহিকতায় প্রতিষ্ঠানটি এই ডিভাইসটিতে বিস্তৃত পরিসরের ভিডিও এবং ফটোগ্রাফি ফিচার নিয়ে এসেছে। অপো এফ১৯ ডিভাইসটিতে রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল ডেপথ ক্যামেরাসহ ৪৮ মেগাপিক্সেলের এআই ট্রিপল ক্যামেরা, ২ মেগাপিক্সেল মাইক্রো লেন্স এবং এআই সিন এনহ্যান্সমেন্ট প্রতিটি বস্তুকে নিখুঁতভাবে ক্যামেরাবন্দি করে। অপর্যাপ্ত আলো কিংবা রাতের বেলা কোনো ব্যবহারকারী যদি ছবি তুলতে চায়, তবে তিনি ডিভাইসটির নাইট মোড এবং এআই বিউটিফিকেশন মোড স্বয়ংক্রিয়ভাবে দৃশ্য বস্তুকে সমন্বয় করবে।

অপো এফ১৯ ডিভাইসটিতে রয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৬২ চিপ এবং ৬জিবি র্যা ম। অধিকাংশ স্মার্টফোন ব্যবহারকারী একটি স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে দুটি বিষয়কে প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। একটি হলো— অধিক স্টোরেজ। এবং অপরটি হলো— নিরবচ্ছিন্ন পারফরম্যান্স। এ ক্ষেত্রে এফ১৯ ডিভাইসটির দ্রুত গতির র্যা ম ও শক্তিশালী চিপসেট এবং ১২৮ জিবি রমের ব্যবহারকারীদের প্রত্যাশা পূরণ করবে।

এফ১৯ ডিভাইসটি দুটি ভিন্ন রঙে পাওয়া যাচ্ছে। রঙগুলো হলো- প্রিজম ব্ল্যাক, মিডনাইট ব্লু। এফ১৯ ডিভাইস ব্যবহারকারীদের সম্পূর্ণ ব্যতিক্রমী অভিজ্ঞতা প্রদান করবে। এ ছাড়া অল-ডে এআই আই কেয়ার, অ্যাপস লক এবং লো-ব্যাটারি নোটিফিকেশন এসএমএস ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতাকে সমুন্নত করবে।

ডিভাইসটির বাজারমূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২১ হাজার ৯৯০ টাকা।

ইন্টারনেট সেবায় বিঘ্ন ঘটতে পারে ২৮ মে
                                  

অনলাইন ডেস্ক : আগামী ২৮ মে ইন্টারনেট সেবায় বিঘ্ন ঘটতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল)। কক্সবাজারে ভূ-গর্ভস্থ ক্যাবল রক্ষণাবেক্ষণের জন্য উন্নয়ন কাজের কারণে এই বিঘ্ন ঘটতে পারে।

রোববার বিএসসিসিএল থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কক্সবাজার সড়ক বিভাগ এবং কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সড়ক উন্নয়ন কাজের পরিপ্রেক্ষিতে কক্সবাজার ল্যান্ডিং স্টেশন থেকে বিচ ম্যানহােল পর্যন্ত বর্তমান ভূ-গর্ভস্থ ক্যাবলের বিকল্প রুট হিসেবে নতুন একটি ভূ-গর্ভস্থ ক্যাবল রুট স্থাপনের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, নতুন রুটে স্থাপিত অপটিক্যাল ফাইবার ও পাওয়ার ক্যাবলের সঙ্গে এসএমডব্লিউ-৪ সাবমেরিন ক্যাবলের সংযােগ দেওয়ার কার্যক্রমসহ টার্মিনেটেড সার্কিটসমূহের সব ট্রাফিক নতুন ভূ-গর্ভস্থ ক্যাবল (বিচ ম্যানহােল থেকে কক্সবাজার ল্যান্ডিং স্টেশন)-এ স্থানান্তরে আগামী ২৮ মে বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত অর্থাৎ ৮ ঘণ্টা সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখিত সময়কালে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে কক্সবাজার ল্যান্ডিং স্টেশনে টার্মিনেটেড সব সার্কিটসমূহ বন্ধ থাকবে। তবে ওই সময়ে কুয়াকাটার সাবমেরিন ক্যাবল ও আইটিসি অপারেটরসমূহের সার্কিটগুলো চালু থাকবে। রক্ষণাবেক্ষণ কাজ চলাকালীন ইন্টারনেট গ্রাহকরা সাময়িকভাবে ইন্টারনেটের ধীরগতির সম্মুখীন হতে পারেন বলে জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

চলতি বছরে ফাইভজির যুগে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ
                                  

অনলাইন ডেস্ক: ফোরজির যুগ চলছে, এর মধ্যেই ফাইভজির বিস্ময় পৃথিবীর সামনে। বাংলাদেশও যুক্ত হতে চলেছে এর সঙ্গে। সে জন্য প্রস্তুতি নেওয়াও শুরু হয়েছে। চলতি বছরের মধ্যেই দেশে পরীক্ষামূলকভাবে ফাইভজি চালু হবে। রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটকের মাধ্যমে সীমিত পরিসরে চালু হবে এই সেবা। ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এ তথ্য জানিয়েছেন।

মন্ত্রী বলেন, বর্তমান প্রযুক্তিগত বিশ্ব বাস্তবতায় এখনই বিস্তৃত পরিসরে ফাইভজি নয়, তাই ফোরজি সেবাকে আরও মানসম্পন্ন করার বিষয়েও জোর দেওয়া হচ্ছে।

টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শাহাব উদ্দিন জানান, আগামী ডিসেম্বরের শুরুতেই পরীক্ষামূলকভাবে ফাইভজি চালু করবে টেলিটক। তার জন্য এরই মধ্যে কাজ শুরু হয়েছে।

এদিকে, ফাইভজি প্রযুক্তির যন্ত্রপাতি সরবরাহের জন্য পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে দুটি চীনা কোম্পানি- জেডটিই করপোরেশন ও হুয়াওয়ে।

ফাইভজিতে যা থাকছে :আগের থ্রিজি ও ফোরজি প্রযুক্তিতে মোবাইল ইন্টারনেটের গতি বেড়েছে। সেই গতি আরও অনেক বাড়িয়ে দেবে ফাইভজি। এ প্রযুক্তির কারিগরি দিক একেবারেই আলাদা। বিশেষজ্ঞদের ভাষ্য, থ্রিজি ও ফোরজি প্রযুক্তিতে বেতার তরঙ্গ ব্যবহারের ক্ষেত্রে যেসব দুর্বলতা রয়েছে, ফাইভজিতে তা নেই। এ প্রযুক্তিতে অনেক কম বেতার তরঙ্গ ব্যবহার করে অনেক বেশি মানসম্পন্ন সেবা ও দ্রুতগতি নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। ফাইভজি চালুর শুরুতে বড় বিনিয়োগের প্রয়োজন হলেও সেবাদান পর্যায়ে অপারেটররা অনেক সাশ্রয়ী মূল্যে সেবা দিতে পারবে। গ্রাহকরাও একটা পর্যায়ে আগের চেয়ে কম টাকায় উন্নত সেবা পাবেন। তবে এই সেবা সাধারণ গ্রাহকের চেয়ে শিল্প উৎপাদন এবং বৃহৎ ব্যবসায়িক কার্যক্রমের জন্য বেশি উপযোগী। সাধারণ গ্রাহকের জন্য ফোরজি সেবাই এখন পর্যন্ত আদর্শ সেবা।

ফাইভজির মাধ্যমে হাই ডেফিনেশন বা উন্নততর ভিডিওচিত্র আদান-প্রদান সম্ভব হবে খুব সহজে। এর ফলে টেলিচিকিৎসা, টেলিক্লাসরুমের মতো পদ্ধতিগুলো যেমন আরও জনপ্রিয় হবে, তেমনি ‘স্মার্টসিটি’র নতুন ধরনের সেবা চালু সহজ হবে। ‘স্মার্ট কার পার্কিং’, স্মার্ট ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ, ভবনের স্মার্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থাসহ সিটি করপোরেশনের মতো জনসেবা দেওয়া সংস্থাগুলোও সেবার ক্ষেত্রে স্মার্ট ব্যবস্থা চালু করতে পারবে। স্মার্ট শিল্পকারখানা ব্যবস্থাও চালু সম্ভব হবে। উন্নত কয়েকটি দেশে শিল্পকারখানায় এই ‘স্মার্ট ম্যানেজমেন্ট’ সিস্টেম চালু হয়েছে, যা তাদের পরিচালন ব্যয়ও অনেকখানি কমিয়ে দিয়েছে।

এর পাশাপাশি প্রত্যন্ত যেসব অঞ্চলে ফাইবার অপটিক কেবল নিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়, সেখানে ফাইভজির মাধ্যমে মোবাইল ব্রডব্যান্ড সেবা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। বর্তমানে ফোরজি সেবায় দেশে ৪৫ এমবিপিএস (মেগাবাইট পার সেকেন্ড) পর্যন্ত গতিতে মোবাইল ইন্টারনেট সেবা দেওয়া সম্ভব হয়। এমবিপিএস ক্লাস প্রযুক্তিতে এই গতি পাওয়া যাচ্ছে। গিগাবাইট ক্লাস প্রযুক্তি ব্যবহার করলে গতি পরিমাণ এক হাজার এমবিপিএস বা এক জিবিপিএস পর্যন্ত বাড়ানো সম্ভব। কিন্তু ফাইভজিতে গতি হবে ৫ জিবিপিএস থেকে ১০ জিবিপিএস পর্যন্ত। অর্থাৎ ফোরজির তুলনায় ফাইভজিতে ইন্টারনেটের গতি হবে পাঁচ থেকে দশ গুণ বেশি।

প্রযুক্তিপণ্য সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের প্রস্তুতি :চীনা প্রতিষ্ঠান জেডটিই জানিয়েছে, মোবাইল অপারেটরদের ফোরজি সেবাকে পঞ্চম প্রজন্মের সেবায় রূপান্তর করতে ‘ডায়নামিক স্পেকট্রাম শেয়ারিং (ডিএসএস)’ প্রযুক্তির বাস্তব প্রয়োগ এরই মধ্যে শুরু হয়েছে। জেডটিই সুপার ডিএসএস নামে এই প্রযুক্তির মাধ্যমে বর্তমান তৃতীয় ও চতুর্থ প্রজন্মের নেটওয়ার্কের সেবা বজায় রেখে ট্রাই রেডিও অ্যাকসেস টেকনোলজির মাধ্যমে পঞ্চম প্রজন্মের বা ফাইভজি প্রযুক্তিতে রূপান্তর ঘটায়। প্রতিষ্ঠানটি সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকায় এ প্রযুক্তির প্রয়োগ ঘটিয়েছে।

তৃতীয় ও চতুর্থ প্রজন্মের তরঙ্গ সেবায় মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটরদের বরাদ্দ করা ১৫ মেগাহার্টজ ব্যান্ডউইথ সীমার মধ্য থেকে ২ দশমিক ১ গিগাহার্টজ স্পেকট্রামে জেডটিইর সুপার ডিএসএস প্রযুক্তির বাস্তবায়ন করা হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকার অপারেটরদের নেটওয়ার্ক পরীক্ষায় দেখা গেছে, ২ দশমিক ১ গিগাহার্টজ তরঙ্গে ফাইভজি চালু করা সম্ভব।

চীনের অপর বৃহৎ প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা ও সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ফাইভজির পরীক্ষামূলক সেবা চালু করেছে। কোম্পানিটি বাংলাদেশে ফাইভজি প্রযুক্তির সম্ভাবনার দিকগুলো নিয়ে একটি প্রদর্শনী করেছে। কভিড-১৯ মহামারির আগেই ‘ইনোভেশন টু অ্যাডভান্স ডিজিটাল বাংলাদেশ’ প্রদর্শনীতে বাংলাদেশে ফাইভজির সম্ভাবনার অনেক দিক তুলে ধরেছে। বিশেষ করে স্মার্ট সিটি গড়ে তোলার এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে মানুষের এগিয়ে যাওয়ার বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়। সর্বশেষ চলতি বছরে চীনের সেনজেন শহরে এবং ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিশেষজ্ঞদের সংযুক্ত করে অনুষ্ঠিত হুয়াওয়ের গ্লোবাল অ্যানালিটিক সম্মেলন-২০২১-এর আয়োজনেও পুরো আলোচনার মূল বিষয়বস্তু ছিল সামনের বছরগুলোতে ফাইভজির সম্ভাবনা।

কতটা প্রস্তুত বাংলাদেশ :এর আগে থ্রিজি ও ফোরজি সেবা নিয়ে বাংলাদেশের গ্রাহকদের মধ্যে সমালোচনা থাকলেও বাস্তবতা হচ্ছে, টুজির চেয়ে থ্রিজিতে গতি বেশি হয়েছে, ফোরজিতে হয়েছে আরও বেশি। এখন বাংলাদেশের গ্রাহকরা স্মার্টফোনে হাই ডেফিনেশন ভিডিও দেখতে পাচ্ছেন ফোরজি সেবা ব্যবহার করেই।

একটি মোবাইল ফোন অপারেটরের একজন তথ্যপ্রযুক্তি কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ফাইভজি চালুর ক্ষেত্রে অপারেটরদের বড় বিনিয়োগের বিষয় আছে। এ ছাড়া বেতার তরঙ্গের বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ফাইভজির জন্য আদর্শ বেতার তরঙ্গ হচ্ছে ২৬০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ড। পাশাপাশি অন্য ১৮০০ ও ৭০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডেও সেবা দেওয়া সম্ভব। কিন্তু সরকারি নীতিতে সুলভে বেতার তরঙ্গ দেওয়ার এবং সঠিক ব্যান্ডের বেতার তরঙ্গ বরাদ্দ দেওয়ার নীতি গ্রহণ করতে হবে।

তিনি বলেন, থ্রিজি ও ফোরজির ক্ষেত্রে মোবাইল অপারেটররা বেতার তরঙ্গ সুলভে পায়নি। ফলে উচ্চ বিনিয়োগ করে লোকসানের মুখে পড়তে হয়েছে। ফাইভজিতে অপারেটররা এই ঝুঁকি নিতে চায় না।

এখন ফোরজি সেবার মান আরও উন্নত করতেই অপারেটররা বেশি নজর দিচ্ছে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, কভিড-১৯ মহামারির কারণে বিশ্বজুড়েই ফাইভজি প্রযুক্তি চালুর বিষয়টি পিছিয়ে গেছে; বরং ফোরজি প্রযুক্তির সেবার মান বাড়ানোর দিকেই এখন বড় দেশগুলোও নজর দিচ্ছে। বাংলাদেশও একই ধরনের নীতি গ্রহণ করেছে। এর আর একটা বড় কারণ হচ্ছে, ফাইভজি মূলত সাধারণ গ্রাহকের জন্য উপযোগী নয় বা অনেক বেশি উচ্চাভিলাষী প্রযুক্তি। এটা উপযোগী শিল্পপণ্য উৎপাদন খাত, বড় ব্যবসায়িক কার্যক্রমের জন্য। চতুর্থ শিল্পবিপ্লবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, রোবটিকসের মতো যে নতুন শিল্পে বিশ্ব প্রবেশ করবে, সেখানে ফাইভজি খুবই উপযোগী বিবেচিত হবে। তবে বাংলাদেশও ফাইভজি চালুতে পিছিয়ে থাকবে না। চলতি বছরের মধ্যেই টেলিটকের মাধ্যমে পরীক্ষামূলকভাবে ফাইভজি চালু হবে। তার জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি শুরু করেছে টেলিটক।

সূত্র : সমকাল

খবর না পড়লে লিংক শেয়ারে বাধা দেবে ফেইসবুক
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ বিভ্রান্তিকর তথ্যের প্রচার ঠেকাতে নতুন একটি ফিচার আনছে ফেইসবুক। লিংকে ক্লিক করে ভেতরের খবর না পড়লে সেটি শেয়ারে নিরুৎসাহিত করবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম কোম্পানিটি।

ফেইসবুক তাদের টুইটার পেজে নতুন ফিচারের একটি ছবি শেয়ার করেছে। সেখানে দেখা গেছে, লিংকে ক্লিক ছাড়া শেয়ার করতে গেলে একটা পপ-আপ মেসেজ আসছে। তাতে লেখা, ‘আর্টিকেল না খুলেই আপনি এটি শেয়ার করতে যাচ্ছেন।’

এরপরও সেটি শেয়ার করতে গেলে সতর্কবার্তায় ফেইসবুক এভাবে লিখছে, ‘না পড়ে আর্টিকেল শেয়ার কলে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার মিস করতে পারেন।’

প্রায় একই ধরনের একটি ফিচার গত বছর পরীক্ষা করেছিল ফেইসবুক। তিন মাসের পুরোনো আর্টিকেল শেয়ার করতে গেলে বাধা দিচ্ছিল কোম্পানিটি।

গত বছর টুইটার একটি ফিচার যোগ করে। ভাইরাল স্টোরিতে রি-টুইট করার আগে ব্যবহারকারীদের আরেকবার বিবেচনা করতে বলছিল কোম্পানিটি।

ফেইসবুকের নতুন ফিচারের কার্যকরিতা এই প্রতিবেদন লেখার সময় বাংলাদেশ অঞ্চলে দেখা যায়নি। কোনো লিংকে ক্লিক করা ছাড়াই স্বাভাবিক শেয়ারের অপশন আসছে। তার মানে ফেইসবুক এখনো এটি প্রকাশ করেনি; অথবা সব দেশে উন্মুক্ত করেনি।

ফেইসবুকে নিষিদ্ধই থাকছেন ট্রাম্প
                                  

অনলাইন ডেস্ক: ফেইসবুক ও ইনস্টাগ্রামে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের ওপর নিষেধাজ্ঞা বহাল রেখেছে এই সোশাল মিডিয়া কোম্পানির ‘ওভারসাইট বোর্ড’।

তবে ট্রাম্পের ক্ষেত্রে ‘চিরতরে’ নিষিদ্ধের যে সিদ্ধান্ত হয়েছে, তার সমালোচনা করে এই বোর্ড বলেছে, ওই সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা করে এমন একটি যৌক্তিক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে, যা সাধারণের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে। যৌক্তিক শাস্তি নির্ধারণ করতে বোর্ড থেকে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষকে ছয় মাসের সময় বেঁধে দিয়েছে।

ক্যাপিটল হিলে দাঙ্গার পর গত জানুয়ারিতে ফেইসবুক থেকে নিষিদ্ধ করা হয় ডনাল্ড ট্রাম্পকে, যখন তিনি প্রেসিডেন্টের মেয়াদের একেবারে শেষ দিকে ছিলেন। কোনো রাষ্ট্রনেতার ক্ষেত্রে এমন নিষেধাজ্ঞা নজিরবিহীন।

পরে বিষয়টি পর্যালোচনার জন্য ফেইসবুকের ২০ সদস্যের ওভারসাইট বোর্ডে যায়, যা ‘ফেইসবুকের সুপ্রিম কোর্ট’ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।

রয়টার্স লিখেছে, ওভারসাইট বোর্ড কী সিদ্ধান্ত দেয় তা দেখার অপেক্ষায় ছিলেন অনেকেই, কারণ ভবিষ্যতে রাষ্ট্রনেতারা নিয়ম ভাঙলে ফেইসবুক কেমন পদক্ষেপ নেবে, বোর্ডের সিদ্ধান্তেই তার ইংগিত মিলবে।

বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে ওভারসাইট বোর্ডের উপ প্রধান সাবেক ফেডারেল বিচারপতি মাইকেল ম্যাককনেল বলেন, ‘‘ফেইসবুক (ডনাল্ড ট্রাম্পের উপর) অনির্দিষ্টকালের স্থগিতাদেশ বহাল রেখেছে এবং পুরো বিষয়টি এই আশায় ওভারসাইট বোর্ডের কাছে পাঠিয়েছে যে, বোর্ড এমন কোনো সিদ্ধান্ত নেবে যেটা তারা অতীতে কখনো করেনি।”

‘‘এই ধরনের ক্ষেত্রে অনির্দিষ্টকালের শাস্তি আন্তর্জাতিক ভাবে বা আমেরিকায় স্পষ্টতা, ধারাবাহিকতা এবং স্বচ্ছতার বিচারে গ্রহণযোগ্য হবে না।”

ট্রাম্পের জন্য ছয় মাসের মধ্যে একটি যৌক্তিক শাস্তি নির্ধারণের যে সিদ্ধান্ত বোর্ড নিয়েছে এখন ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ তা বিবেচনায় নেবে বলে জানান সংস্থাটির বৈদেশিক সম্পর্ক এবং যোগাযোগ বিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট নিক ক্লেগ।

তিনি বলেন, ‘‘আমরা এখন বোর্ডের সিদ্ধান্ত বিবেচনায় নেব এবং স্পষ্ট ও যৌক্তিক শাস্তি নির্ধারণ করবো।

‘‘একটি সিদ্ধান্তে না আসা পর্যন্ত ডনাল্ড ট্রাম্পের একাউন্ট বন্ধ থাকবে।”

ট্রাম্পের একাউন্ট স্থগিত করার সময় ফেইসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ এক পোস্টে বলেছিলেন, ‘‘এই সময়ে প্রেসিডেন্টকে আমাদের সেবা ব্যবহার করতে দেয়ার ঝুঁকি এক কথায় অনেক বিশাল।”

বিশ্বনেতা এবং রাজনীতিকরা যেভাবে বিভিন্ন প্রযু্ক্তি প্ল্যাটফর্মের নিয়মকানুন লঙ্ঘন করছেন তার বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা গ্রহণ করা যায় সেটা নির্ধারণে কোম্পানিগুলোক রীতিমত ঘাম ঝরাতে হচ্ছে।

ট্রাম্পের ঘটনায় ফেইসবুক কর্তৃপক্ষকে উভয়পক্ষের সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে। একপক্ষ বলেছে, রাজনৈতিক বক্তৃতার ক্ষেত্রে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ যেভাবে হাত তুলে বসে থাকার নীতি গ্রহণ করেছে তাদের সেটা বাদ দেওয়া উচিত। আরেক পক্ষ বলেছে, ট্রাম্পের একাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া সেন্সরশিপের উদ্বেগজনক উদাহরণ।

ফেইসবুকের ওভারসাইট বোর্ডের সিদ্ধান্ত নিয়েও এরই মধ্যে সমালোচনা শুরু হয়ে গেছে।

রিয়্যাল ফেইসবুক ওভারসাইট বোর্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘‘আজকের সিদ্ধান্ত থেকে স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে ফেইসবুক ওভারসাইট বোর্ডের পরীক্ষা-নিরীক্ষা ব্যর্থ হয়েছে।

‘‘এই রায় উভয় নৌকায় পা দিয়ে চলার মত পাগলামী। তারা ট্রাম্পকে প্রকৃতপক্ষে নিষিদ্ধ না করেই তার উপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞায় সমর্থন দিয়েছে। যেখান ফেসবুকে ফিরে আসার বিষয়ে তাদের একটি নির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত দেওয়ার কথা।”

সূত্র: বিডিনিউজ


   Page 1 of 17
     তথ্য-প্রযুক্তি
উইন্ডোজ ১১তে ব্ল্যাক স্ক্রিন
.............................................................................................
ইমোতে অ্যান্টি-ফ্রড সিস্টেম জোরদার
.............................................................................................
হোয়াটসঅ্যাপ লগ ইন আরও সুরক্ষিত হচ্ছে
.............................................................................................
অ্যাপলের এআর হেডসেট আসছে আগামী বছর
.............................................................................................
নেটফ্লিক্সে নতুন ফিচার
.............................................................................................
সারা দেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের দাম নির্ধারণ
.............................................................................................
৫০০ টাকায় মাসব্যাপী ইন্টারনেট, আসছে ঘোষণা
.............................................................................................
সারাদেশে এক হচ্ছে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের রেট
.............................................................................................
টুইটারে ভেরিফাইড অনুরোধ বন্ধ
.............................................................................................
অবৈধ মোবাইল শনাক্ত শুরু ১ জুলাই থেকে
.............................................................................................
ফ্রি ফায়ার ও পাবজি বন্ধ হবে কি না প্রশ্নে যা বললেন টেলিযোগাযোগমন্ত্রী
.............................................................................................
ব্যস্ত তরুণদের পছন্দের শীর্ষে ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারির অপো এফ১৯
.............................................................................................
ইন্টারনেট সেবায় বিঘ্ন ঘটতে পারে ২৮ মে
.............................................................................................
চলতি বছরে ফাইভজির যুগে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ
.............................................................................................
খবর না পড়লে লিংক শেয়ারে বাধা দেবে ফেইসবুক
.............................................................................................
ফেইসবুকে নিষিদ্ধই থাকছেন ট্রাম্প
.............................................................................................
গুগল ম্যাপের ‘মাথা খারাপ’!
.............................................................................................
ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছে কি-না বুঝবেন যেভাবে
.............................................................................................
রাত থেকে মোবাইল নেটওয়ার্ক বিঘ্নিত হতে পারে
.............................................................................................
রাত থেকেই মোবাইল-ইন্টারনেটে সমস্যা
.............................................................................................
গুগল ডুডলে মহান স্বাধীনতা দিবস
.............................................................................................
বিশ্বজুড়ে হোয়াটসঅ্যাপ-ইনস্টাগ্রামে বিভ্রাট, আধা ঘণ্টা পর স্বাভাবিক
.............................................................................................
বেহাল ইন্টারনেট, গতি কমাচ্ছে উন্নয়নের
.............................................................................................
চালু হলো মোবাইল অ্যাপ `মুজিব ১০০`
.............................................................................................
মিয়ানমারের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে ফেসবুক
.............................................................................................
উচ্চমাত্রার সাইবার হামলার শঙ্কা, ফের সতর্কতা জারি
.............................................................................................
ফেসবুকে রাষ্ট্রবিরোধী ভুয়া তথ্য দিলে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার প্রস্তাব
.............................................................................................
যেসব সুবিধা নিয়ে আসছে স্মার্ট চশমা
.............................................................................................
ভুয়া অ্যাপ চেনার উপায়
.............................................................................................
স্মার্টফোনের নতুন সিরিজ আনল সিম্ফনি
.............................................................................................
রিয়েলমির নতুন ফোন কিনলেই পাচ্ছেন ফ্রি ইন্টারনেট
.............................................................................................
৩০ জানুয়ারি রাতে ইন্টারনেটের গতি কমবে
.............................................................................................
চাপের মুখে আপডেট স্থগিত করল হোয়াটসঅ্যাপ
.............................................................................................
২০২০ সালে বাংলাদেশে রেকর্ড সংখ্যক ইমোর ব্যবহার
.............................................................................................
শক্তিশালী ব্যাটারির স্যামসাং গ্যালাক্সি এম৫১
.............................................................................................
গেমিং পারফরমেন্সে বাজার মাতাতে এলো রিয়েলমি নারজো ২০
.............................................................................................
গ্রাহকদের জন্য আইফোন-১২ আনল গ্রামীণফোন
.............................................................................................
বিশ্বজুড়ে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে সমস্যা
.............................................................................................
দেশের তৃতীয় সাবমেরিন কেবল স্থাপিত হবে ৭০০ কোটি টাকায়
.............................................................................................
আইফোন নিয়ে ভুয়া দাবি, অ্যাপলের জরিমানা
.............................................................................................
ইউটিউবে আসছে অডিও বিজ্ঞাপন
.............................................................................................
শীত রুখতে ইলেকট্রিক গেজেট !
.............................................................................................
নতুন ফিচার নিয়ে টুইটার
.............................................................................................
নতুন সংযোজন জিমেইলে
.............................................................................................
জুমে আনলিমিটেড ভিডিও কল ২৬ নভেম্বর
.............................................................................................
ফেসবুকে চালু হলো ভ্যানিস মোড
.............................................................................................
বাজারে এলো রিয়েলমি সি১৫ কোয়ালকম এডিশন
.............................................................................................
বাজারে ফিরছে নকিয়া ৬৩০০
.............................................................................................
নতুন ফিচার নিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ
.............................................................................................
ফেসবুক ভাসছে কাঞ্চনজঙ্ঘা!
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop