বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * পদত্যাগ করছেন পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী   * করোনায় আরও ৪৫৪ মৃত্যু, শনাক্ত আড়াই লাখের নিচে   * পঞ্চগড়ে নৌকাডুবি : মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৮, এখনো নিখোঁজ ৬৫   * সেনাবাহিনীতে যুক্ত হলো নতুন সামরিক বিমান   * ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি রিভা আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেলে   * শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ‘চোখ ওঠা’ ছড়াচ্ছে দ্রুত   * পঞ্চগড়ে নৌকাডুবি : করতোয়ার তীরে শোকের মাতম, নিহত বেড়ে ২৪   * দেশীয় মাছ ও শামুক সংরক্ষণে সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহ্বান   * জাপানে শক্তিশালী টাইফুনের আঘাত, ২ জনের মৃত্যু   * একদিনে আরও ৪৪০ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে  

   রাজনীতি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
নির্বাচন ছাড়া সরকার পরিবর্তনের কোনো সুযোগ নেই: কাদের

অনলাইন ডেস্ক : নির্বাচন ও জনগণের ম্যান্ডেট ছাড়া সরকার পরিবর্তনের কোনো সুযোগ নেই বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগ যখন রাজপথে নামবে জনগণকে সঙ্গে নিয়েই নামবে। আওয়ামী লীগ বিশ্বাস করে তাদের উন্নয়ন ও অর্জনের সঙ্গে এদেশের জনগণ রয়েছে, কাজেই অগণতান্ত্রিক পথে বিএনপির ক্ষমতা দখলের খোয়াব অচিরেই ভেঙে যাবে।

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

সরকারের পদত্যাগ দাবি প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় পাল্টা প্রশ্ন রেখে ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকার কেন পদত্যাগ করবে? আর কার কাছে পদত্যাগ করবে?

তিনি বলেন, সরকার একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নির্বাচিত হয়েছে। যথাসময়ে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সরকার পরিবর্তন চাইলে বিএনপিকে ইতিবাচক রাজনীতিতে ফিরে আসতে হবে। নৈরাজ্য সৃষ্টি করে সরকার পরিবর্তনের দুঃস্বপ্ন দেখে কোনো লাভ নেই।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার একটি মীমাংসিত ইস্যু। এ নিয়ে মাতামাতি করে কোনো লাভ নেই।

নির্বাচন ছাড়া সরকার পরিবর্তনের কোনো সুযোগ নেই: কাদের
                                  

অনলাইন ডেস্ক : নির্বাচন ও জনগণের ম্যান্ডেট ছাড়া সরকার পরিবর্তনের কোনো সুযোগ নেই বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগ যখন রাজপথে নামবে জনগণকে সঙ্গে নিয়েই নামবে। আওয়ামী লীগ বিশ্বাস করে তাদের উন্নয়ন ও অর্জনের সঙ্গে এদেশের জনগণ রয়েছে, কাজেই অগণতান্ত্রিক পথে বিএনপির ক্ষমতা দখলের খোয়াব অচিরেই ভেঙে যাবে।

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

সরকারের পদত্যাগ দাবি প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় পাল্টা প্রশ্ন রেখে ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকার কেন পদত্যাগ করবে? আর কার কাছে পদত্যাগ করবে?

তিনি বলেন, সরকার একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নির্বাচিত হয়েছে। যথাসময়ে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সরকার পরিবর্তন চাইলে বিএনপিকে ইতিবাচক রাজনীতিতে ফিরে আসতে হবে। নৈরাজ্য সৃষ্টি করে সরকার পরিবর্তনের দুঃস্বপ্ন দেখে কোনো লাভ নেই।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার একটি মীমাংসিত ইস্যু। এ নিয়ে মাতামাতি করে কোনো লাভ নেই।

বিএনপি আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচাল করতে চায় : এডভোকেট কামরুল ইসলাম
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : বিএনপি আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে বানচাল করতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম। বিএনপি বিদেশিদের কাছে মিথ্যা গুমের তথ্য দেয় বলেও জানান আওয়ামী লীগ নেতা। আজ ২৩ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকেলে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সে কেন্দ্রীয় ১৪ দল আয়োজিত এক প্রতিবাদ সমাবেশ ও আলোচনা সভায় তিনি বক্তব্য দেন।

এডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি বলেন, নির্বাচন কমিশনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য বিএনপি ষড়যন্ত্র করছে। কিন্তু তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেয়া হয়েছে। কাজেই আগামী নির্বাচনও হবে বর্তমান সরকারের অধীনে। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমন্বয়ক আমির হোসেন আমু বলেন, ফাইনাল খেলার আগে মিড খেলা খেলতে খেলতেই পা ভেঙে যাবে বিএনপির। বিএনপি নির্বাচন এবং জনগণকে ভয় পায়। তাই কৌশলে নির্বাচন থেকে দূরে থাকে। অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, গণতন্ত্র, ভোট, নির্বাচন যারা মানে না তাদের বাংলাদেশে থাকার কোনো অধিকার নেই। আজীবন যাতে শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকেন, সেই লক্ষ্যে কাজ করা হবে। কারণ শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে বাংলাদেশ ভালো থাকে। বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, বিএনপি বলছে পাকিস্তান আমল ভালো ছিল। আর এদিকে পাকিস্তান বলছে বাংলাদেশ এখন অনেককে ভালো অবস্থানে আছেন। আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

সেই নৈরাজ্য-বিশৃঙ্খলার পথেই হাঁটছে বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী
                                  

 

অনলাইন ডেস্ক : আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি ২০১৩, ১৪, ১৫ সালে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছে, ২০১৮ সালেও নৈরাজ্য সৃষ্টির অপচেষ্টা চালিয়েছিল। এখনো তারা একই পথে হাঁটছে। এ পথে হেঁটে বিএনপির কোনো লাভ হবে না।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর বসুন্ধরায় নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শরৎকালীন পর্বের (Fall Semester) নবীনবরণ ও পরিচিতি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিএনপির সাম্প্রতিক মিছিল-সমাবেশ নিয়ে প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমরা গত কয়েক দিন ধরে দেখছি বিএনপির বাঁশের লাঠি, কাঠের লাঠি, লোহার রড নিয়ে মিছিল করছে। তারা অতীতে জনগণ ও পুলিশের ওপর হামলা পরিচালনা করেছে, বুধবারও মুন্সিগঞ্জে পুলিশের ওপর হামলা করে। এতে সহজেই অনুমেয় যে এখন তারা আবার নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে চাচ্ছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি জানে যে জনগণ তাদের সঙ্গে নেই। এমনকি তাদের প্রান্তিককর্মীরাও সঙ্গে নেই। তাদের কর্মসূচি শুধু ঢাকা এবং কিছু কিছু শহরভিত্তিক। গ্রামে-গঞ্জে তাদের কর্মীদের কোনো সাড়া নেই। কারণ নেতাদের ওপর তাদের কোনো আস্থা নেই। এজন্য তারা নিজেরা আতংকিত। আর জনগণ তাদের কাছ থেকে সরে গেছে, সেটি তারা ভালো করেই জানে এবং বুঝে। সেজন্য তারা দেশে একটা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায়।

জনগণের জানমালের নিরাপত্তা বিধান করা সরকারের দায়িত্ব উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, কেউ যদি রাষ্ট্রের কোনো এলাকায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যখন তারা পুলিশের ওপর চড়াও হয় তখন পুলিশ মাঝে- মধ্যে ব্যবস্থা নেয়। সে কারণে বিভিন্ন জায়গায় পুলিশের সঙ্গে তারা সংঘর্ষে জড়িয়েছে আবার নিজেরা নিজেরা মারামারি করে চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জায়গায় নিজেদের সমাবেশ ভন্ডুল করেছে।

এ অবস্থায় আমাদের দলের কর্মীদের আমরা সতর্ক পাহারায় থাকার জন্য নির্দেশনা দিয়েছি। যাতে কেউ যদি জনগণের ওপর হামলা করে, জনগণ প্রতিরোধ করলে সঙ্গে আমাদের দলও সহায়তা করবে বলে জানান তিনি।

এর আগে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন অধ্যাপক ড. আব্দুল হান্নান চৌধুরী, অধ্যাপক ড. আব্দুর রব খান, অধ্যাপক ড. জাভেদ বারী, অধ্যাপক ড. হাসান মাহমুদ রেজা, ট্রাস্টি বোর্ড সদস্য ইয়াসমিন কামাল প্রমুখ।

বক্তারা এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. শরীফ উদ্দীন আহমদ সম্পাদিত ‘ফিফটি ইয়ারস অভ বাংলাদেশ: আ টেল অভ আ মিরাকল’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন এবং ভর্তি পরীক্ষায় অধিক নম্বর পাওয়া ৫৯ জন শিক্ষার্থীর হাতে বিশেষ বৃত্তিসনদ তুলে দেন।

গণতন্ত্রকে ধ্বংসস্তূপে পরিণত করেছে আওয়ামী লীগ সরকার: রিজভী
                                  

অনলাইন ডেস্ক : আওয়ামী লীগ সরকার গণতন্ত্রকে ধ্বংসস্তূপে পরিণত করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, একনায়কতন্ত্রের পথে এগিয়ে যাওয়ার জন্যই রাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলো মুখ থুবড়ে পড়েছে। বাকশালী ইতিহাসের পুনর্লিখনে নতুন অধ্যায় যুক্ত হচ্ছে। বিচার, প্রশাসন, জাতীয় সংসদ ও নির্বাচন কমিশন সবাই মুখোশের আড়ালে বাকশালী চেতনা ধারণ করে আওয়ামী সরকারের পক্ষে কাজ করে চলছে।

দেশে মত প্রকাশের স্বাধীনতা নেই জানিয়ে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব বলেন, বিরোধী রাজনীতির কর্মসূচিতে সহিংস আক্রমণ কোন গণতান্ত্রিক রীতির আওতায় পড়ে? আমরা আওয়ামী গণতন্ত্রের আরেকটি নমুনা দেখলাম গতকাল, মুন্সিগঞ্জে পুলিশের সহিংস তাণ্ডবে। পুলিশ এবং পুলিশের ভেতর থেকে খালিগায়ে ‘জয়বাংলা’ স্লোগান দিয়ে বৃষ্টির মতো গুলি করছিল বিএনপির সমাবেশে, তারা কারা?

একতরফা নির্বাচন, বিরোধী কণ্ঠস্বরকে দমন, গুম বিচারবহির্ভূত হত্যা আওয়ামী লীগের প্রকৃত উন্নয়নের নমুনা বলে উল্লেখ করেন রুহুল কবির রিজভী।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, মুক্তারপুরে দলের কর্মসূচিতে গুলি ও নেতাকর্মীদের রক্তাক্ত করার পর পুলিশ এবং আওয়ামী সন্ত্রাসীরা বিএনপির নেতাকর্মীদের বাসা ও তাদের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে তাণ্ডবলীলা চালাচ্ছে। আওয়ামী লীগের সশস্ত্রকর্মী মো. মাসুদ, নমুসা ও তোফাজ্জলের নেতৃত্বে ১৫-২০ জন ও তিন পুলিশ সদস্যসহ একটি দল মুন্সিগঞ্জ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আ. হাই সাহেবের ভাগিনা মো. নিজাম উদ্দিনের শিল্পপ্রতিষ্ঠান ও তার বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে। এতে তার সুতার ফ্যাক্টরিটি ভস্মীভূত হয়, এই ঘটনায় আনুমানিক দুই কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, এরই মধ্যে নিজেদের অপকর্ম আড়াল করতে উল্টো হামলার শিকার বিএনপি নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা হয়েছে। মামলায় আসামি করা হয়েছে-মুন্সিগঞ্জ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, সদর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মহিউদ্দিন আহমেদ, শহর বিএনপির আহ্বায়ক এরাদত হোসেন মানু, সদর থানা বিএনপির সদস্য সচিব মুনির হোসেন ও জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আতাউর হোসেন বাবুলসহ অসংখ্য নেতাকর্মীকে।

বিএনপি আবারও সন্ত্রাস-সহিংসতার পাঁয়তারা চালাচ্ছে: কাদের
                                  

 

অনলাইন ডেস্ক : আন্দোলনের নামে বিএনপি আবারও রাজপথে সন্ত্রাস ও সহিংসতা সৃষ্টির পাঁয়তারা চালাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেছেন, আজকাল বিএনপির নেতাকর্মীদের হাতে বাঁশের লাঠির সঙ্গে জাতীয় পতাকা দেখা যাচ্ছে। এটা কীসের আলামত? এগুলো কি জাতীয় পতাকার অবমাননা নয়?

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির দুর্নীতি বিশ্ববিদিত, এমন দাবি করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করে নিজেদের দলকে দুর্নীতিবাজদের নিরাপদ আশ্রয়স্থলে পরিণত করেছে বিএনপি। বিএনপি কখনো কোনো দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের সাহস দেখাতে পারেনি। এ কারণেই তারা দুর্নীতি নিয়ে বড় বড় কথা বললে মানুষ হাসে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের মেগা প্রজেক্ট বাস্তবায়নের সক্ষমতায় বিএনপি আত্মদহনে দগ্ধ, এমন দাবি করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন- বিএনপি নেতারা এখন মেগা হতাশায় ভুগছে।

বিএনপি নেতাদের অতীত বক্তব্য স্মরণ করিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা একসময় বলেছিলেন- জোড়াতালির পদ্মাসেতু যে কোনো সময় ভেঙে পড়বে। অথচ বিএনপি নেতারা এখন ঠিকই পদ্মাসেতু পার হচ্ছেন।

বিএনপি নেতাদের নির্বাচন ও নির্বাচন কমিশন বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বিএনপি জন্মলগ্ন থেকেই প্রহসনের নির্বাচন জাতির ঘাড়ে চাপিয়ে দিয়েছিল। হ্যাঁ/না ভোটের মাধ্যমে সামরিক উর্দি পরে, আবার কখনো ভোটারবিহীন নির্বাচন করে, কখনো গায়েবি ভোটার তৈরি করে জনগণের নির্বাচনের অধিকার হরণ করেছিল। কাজেই বিএনপির মুখে নিরপেক্ষ নির্বাচন ভূতের মুখে রাম নাম।

তিনি বলেন, বিএনপি নিজেদের অপকর্ম ভুলে থাকতে চাইলেও জনগণ কিন্তু তাদের অতীত অপকর্ম ভুলে যায়নি।

সরকার নাকি জণগণ থেকে দূরে সরে গেছে, বিএনপি নেতাদের এমন মন্তব্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকারের নয়, বিএনপির সঙ্গেই জনগণের যোজন যোজন দূরত্ব তৈরি হয়েছে।

বিএনপি এদেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে নির্বাচনের মতো আন্দোলনেও ব্যর্থ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, অতীতে যখন বিএনপি ক্ষমতায় ছিলো তখন জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য এবং জনগণের চোখে পড়ার মতো তেমন কোনো উন্নয়ন করতে পারেনি। যে কারণে জনগণের সঙ্গে তাদের দূরত্ব বৃদ্ধি শুরু হয়।

তিনি বলেন, শুধুমাত্র লিপ সার্ভিস দিয়ে এবং বক্তৃতা-বিবৃতিতে বিষোদগার করে জনগণের সঙ্গে দূরত্ব ঘুচানো সম্ভব নয়।

এর আগে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত জাইকার প্রধান সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এসময় জাইকার অর্থায়নে বাংলাদেশে চলমান বিভিন্ন প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা হয়।

যেখানেই বিএনপি-জামায়াতের অরাজকতা সেখানেই প্রতিরোধ: যুবলীগ
                                  

অনলাইন ডেস্ক : আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াত গোষ্ঠী দেশে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন যুবলীগের নেতারা। এছাড়াও বিএনপি-জামায়াত অরাজকতার চেষ্টা করলে তাদের প্রতিরোধের ঘোষণা দেন তারা।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ যুবলীগ আয়োজিত পৃথক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে এসব কথা বলেন যুবলীগের নেতারা। যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশের নির্দেশে ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের আহ্বানে এ বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন মহানগর উত্তর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল। মহানগর উত্তর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেনের সঞ্চালনায় সংগঠনের নেতারা বলেন, আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াত যেখানে অরাজকতার চেষ্টা করবে সেখানেই তাদের প্রতিরোধ করবে যুবলীগ। তারা আন্দোলনের নামে পেট্রল বোমা দিয়ে মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছিল। তারা দেশকে জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণত করেছিল। বিএনপি-জামায়াত আবারও আন্দোলনের নামে মানুষকে হত্যার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। বাংলাদেশের জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে।

যুবলীগ নেতারা বলেন, বিএনপি-জামায়াত গোষ্ঠী আন্দোলনের নামে বাংলাদেশে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করতে চায়। যুবলীগের নেতাকর্মী সাধারণ জনগণকে সঙ্গে নিয়ে দেশবিরোধী সব ষড়যন্ত্র প্রতিহত করবে।

তারা আরও বলেন, লন্ডন থেকে তারেক রহমান ‘টেকব্যাক বাংলাদেশ’ নামে আবারও বাংলাদেশকে পাকিস্তানে ফিরিয়ে নিতে চায়! বিএনপি-জামায়াত চক্র যেখানেই নৈরাজ্য সৃষ্টি করবে, রাজপথেই তাদের বিরুদ্ধে ‘খেলা হবে’।

এদিকে, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাইনুদ্দিন রানার সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজার সঞ্চালনায় মুগদায় পৃথক আরেক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতারা বলেন, বিএনপি-জামায়াত কোনো আঘাত হানার চেষ্টা করলে যুবলীগের প্রত্যেকটি নেতাকর্মী রাজপথেই তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে।

পৃথক দুই বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ বদিউল আলম, কার্যনির্বাহী সদস্য ও বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড. আশিকুর রহমান শান্ত, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন পাভেল, উপ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক সফেদ আশফাক তুহিন, উপ-তথ্য ও যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক মো, মিছির আলী, উপ-বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক রাশেদুল হাসান সুপ্ত, উপ-শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক খালিদ আল মামুন টুকু, কার্যনির্বাহী সদস্য শহিদুল ইসলাম লাকি, ড. রায়হান রিজভী প্রমুখ।

শেখ হাসিনা হেরে গেলে বাংলাদেশ হেরে যাবে: ওবায়দুল কাদের
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ‘শেখ হাসিনা হেরে গেলে বাংলাদেশ হেরে যাবে’ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ষড়যন্ত্রকারীরা এটা হয়তো জানে না বঙ্গবন্ধুর মতো শেখ হাসিনাও পিছু হটতে জানেন না, ভয় পান না। যদি শেখ হাসিনা ক্ষমতায় না থাকেন, বাংলাদেশ আর বাংলাদেশ থাকবে না। তিনি (শেখ হাসিনা) হেরে গেলে বাংলাদেশ হেরে যাবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা হেরে যাবে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা হেরে যাবে।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর লালবাগের নবাবগঞ্জ পার্কে লালবাগ থানা ও ২৩, ২৪, ২৫ ও ২৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

‘রাজপথ এখন থেকে বিএনপির দখলে থাকবে’ মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আন্দোলন করতে চাইলে শান্তিপূর্ণভাবে রাজপথে আন্দোলন করুন। আন্দোলনের নামে কোনো ধরনের নৈরাজ্য সৃষ্টি করবেন না। রাজপথ কাউকে ইজারা দেওয়া হয়নি। আপনারা ফাঁকা মাঠে আন্দোলন করবেন, আর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বসে বসে আঙুল চুষবে, তা তো হবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি আন্দোলন করার জন্য মাঠে কিছু লোক নামিয়েছে। কারা কত দিন থাকেন আমরাও দেখবো। গতবার নির্বাচনের সময়ে ২০ দলীয় জোটের অবস্থা ছিল জগাখিচুড়ি। এখন তাদের অবস্থা আষাঢ়ের তর্জন-গর্জনের মতো।

দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ না করতে নেতাকর্মীদের হুঁশিয়ার করে তিনি বলেন, যারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবেন, তাদেরকে শেখ হাসিনা ছাড় দেবেন না। স্লোগান দিয়ে, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে, শক্তি প্রদর্শন করে নেতা হতে পারবেন না। যে যার এলাকায় জনপ্রিয়, তিনিই সেখানে নেতা হবেন।

সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক ও কামরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, আইনবিষয়ক সম্পাদক নজিবুল্লাহ হিরু, কেন্দ্রীয় নেতা ডা. মোস্তাফা জালাল মহিউদ্দিন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমদ মন্নাফি, সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির প্রমুখ।

এতে সভাপতিত্ব করেন লালবাগ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান।

বিএনপি জামায়াত জোট রাজনীতির নামে নতুন করে নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে: নসরুল হামীদ বিপু
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : রাজধানী ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা আয়োজিত ‘ওপেন হাউজ ডে’ অনুষ্ঠানে আজ ১৯ সেপ্টেম্বর সোমবার বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু এমপি বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত জোট রাজনীতির নামে নতুন করে নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে। বিদ্যুতের আলো থাকা সত্ত্বেও তারা মশাল মিছিল ও মোমবাতি জ্বালিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মিছিল করে শান্ত পরিবেশকে অশান্ত করে তুলছে, রাজধানী ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা আয়োজিত ‘ওপেন হাউজ ডে’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামীদ বিপু বলেন, বিএনপি আগামী নির্বাচনকে ঘিরে মিছিলের নামে অটোরিকশা পুড়িয়ে সাধারণ মানুষকে কষ্ট দিয়ে রাজনীতিতে জনপ্রিয়তা পাওয়ার চেষ্টা করছে। বিকালে ৩ টায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা প্রাঙ্গনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান পিপিএম বার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু এমপি ।

অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কেরানীগঞ্জ সার্কেল শাহাবুদ্দিন কবিরের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি শাহীন আহমেদ, ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার প্রশাসন মোঃ নূর আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অপরাধ আমিনুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ডিবি মোবাশ্বিরা হাবিবা খান, কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদী হাসান, নিটোল গ্রুপের সিইও মোঃ শহিদুল ইসলাম, কেরানীগঞ্জ মডেল থানা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও জিনজিরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী মোঃ সাকুর হোসেন সাকু, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম মামুন, কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মামুন অর রশিদ, কেরানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাজী মোঃ রায়হান খান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নসরুল হামিদ বিপু বলেন জনগণের বন্ধু শত্রু নয়, পুলিশকে সঠিক তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করে সঠিক সেবা গ্রহণ করতে হবে, পুলিশ জনগণের সেবক হয়ে সবসময় পাশে থেকে কাজ করছে,পুলিশের পাশাপাশি সাধারণ জনগণেরও দায়িত্ব মাদক, ইভটিজিং ও সমাজবিরোধী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো, তিনি আরো বলেন মাদকের সঙ্গে কোনো আপোষ নেই, মাদক বিক্রেতা ও সেবনকারী সহ যে কোনো অপরাধীদের ব্যাপারে তথ্য দেওয়ার জন্য সকলকে আহ্বান জানান।

এসময় পুলিশের কাজে সহযোগিতা করার জন্য কেরানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ এর পক্ষ থেকে ২টি ও নিটোল টাটা কোম্পানির পক্ষ থেকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ কে ১টি সহ মোট ৩টি গাড়ি প্রদান করা হয়, এছাড়াও অনুষ্ঠানে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, শিক্ষক, রাজনৈতিক ব্যক্তি, কমিউনিটি পুলিশিং ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

দুর্বার গণআন্দোলনের মধ্য দিয়ে এ সরকারকে পদত্যাগ করানো হবে : মির্জা ফখরুল ইসলাম
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে এ সমাবেশে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নিয়েছেন। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আপনাদের (বর্তমান সরকারকে) সতর্ক করে দিয়ে বলতে চাই, এখনও সময় আছে পদত্যাগ করুন। সংসদ বিলুপ্ত করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা দিন। সেই তত্ত্বাবধায়কের অধীনে একটি স্বাধীন নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন করে নিরপেক্ষ ভোটের মাধ্যমে জনগণ তাদের নতুন সরকার নির্বাচিত করবে। তিনি বলেন, ‘আজকে বিভিন্ন জায়গায় বিএনপির কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছেন, হামলা করছেন। এগুলো করবেন না। এগুলো করে বাংলাদেশের মানুষকে দাবিয়ে রাখা যাবে না। দুর্বার গণআন্দোলনের মধ্য দিয়ে আপনাদেরকে পদত্যাগ করানো হবে। ১৮ সেপ্টেম্বর রোববার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও উত্তর বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপির মহাসচিব এসব কথা বলেন। রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।ফখরুল বলেন, ‘মিয়ানমার সীমান্তে বোমা মারছে। সরকার নীরব। তারা রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রতিবাদ জানাচ্ছে। আসলে সরকারের কোমর সোজা নাই। তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত না, সেজন্য আজ বুক ফুলিয়ে মিয়ানমারের বোমাবর্ষণের প্রতিবাদ করতে পারছে না। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘রাজনৈতিক দল হিসেবে আমাদের বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল( বিএনপির) কাজ হচ্ছে— জনগণকে সঙ্গে নিয়ে ভয়াবহ দানবীয় শক্তি যারা জোর করে ক্ষমতা দখল করে বসে আছে, তাদেরকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করা।’

এসময় সব রাজনৈতিক দল ও গণতন্ত্রকামী মানুষকে আহ্বান জানিয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আরো বলেন, ‘আসুন, আমরা একসঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হয়ে যারা আমাদের সব অর্জনকে ধ্বংস করেছে, বাংলাদেশ আত্মাকে বিসর্জন দিয়েছে, তাদেরকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করি।’

ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি`র আহ্বায়ক সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও ডাকসু ভিপি আলহাজ আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে এবং উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব যথাক্রমে রফিকুল ইসলাম মজনু ও আমিনুল হকের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, আবুল খায়ের ভূইয়া,বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট রুহুল কবির রিজভী, যুবদলের সভাপতি সুলতান সালাউদ্দীন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এস এম জিলানী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

দেশের রাজনীতিকে বিএনপি কলুষিত করতে চায় : এডভোকেট কামরুল ইসলাম
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : দেশের রাজনীতিকে বিএনপি কলুষিত করতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক খাদ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এডভোকেট কামরুল ইসলাম। এ আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, জামায়াতকে সঙ্গে নিয়ে প্রকাশ্যে মাঠে নেমেছেন বিএনপি। কোনো সন্ত্রাসীকে বাংলাদেশে রাজনীতি করতে দেয়া হবে না। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিহত করা হবে। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ রোববার বিকেলে রাজধানী ঢাকার কেরানীগঞ্জের শাক্তা ইউনিয়নের আটিবাজারে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক সমাবেশে এডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি এসব কথা বলেন।

এডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি আরো বলেন, বিএনপির আন্দোলনের আলামত ভালো না। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উসকে দিচ্ছেন তারা। বিএনপি যদি নাশকতার পথে হাঁটে, তাহলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিহত করা হবে। বিএনপিকে অহেতুক উসকানিমূলক কথাবার্তা না বলার আহ্বান জানান আওয়ামী লীগের নেতা। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, বিএনপি পাকিস্তানের এজেন্ট। ভোটের মাধ্যমে ক্ষমতা পরিবর্তন চান না তারা। দেশের জনগণ তাদের সঙ্গে নেই। তাদের সাংগঠনিক শক্তি নেই।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এডভোকেট কামরুল ইসলাম। এ আওয়ামী আরো বলেন, নির্বাচন কমিশন মানে না বিএনপি। নির্বাচন বর্জনের অভিজ্ঞতা তাদের আছে। এই নির্বাচনে না আসলে সাংগঠনিক সংকটে পড়বে বিএনপি। নির্বাচন বানচালের হুমকি দিচ্ছেন তারা। এটা গণতন্ত্রের কোনো ভাষা নয়। নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র সফল হবে না মন্তব্য করে এডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, বিএনপি বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য। শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির নামে নৈরাজ্য করতে চান তারা নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতার পরিবর্তন হবে। সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। তত্ত্বাবধায়ক সরকার আর বাংলাদেশে আসবে না কোন দিন। উপস্থিত ছিলেন কেরানীগঞ্জ মডেল থানা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ইউসূফ আলী চৌধুরী সেলিম,সহসভাপতি হাজী সফিউল আজম খান বারকু,সাধারণ সম্পাদক হাজী আলতাফ হোসেন বিপ্লব, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মনির হোসেন মনির, ইঞ্জিনিয়ার মোঃ হান্নান, মোঃ বিল্লাল হোসেন প্রমুখ।

সরকারের কোমর সোজা নাই: ফখরুল
                                  

অনলাইন ডেস্ক : বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, মিয়ানমার সীমান্তে বোমা মারছে। সরকার নীরব। তারা রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রতিবাদ জানাচ্ছে। আসলে সরকারের কোমর সোজা নাই। তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত না। সেজন্য আজ বুক ফুলিয়ে মিয়ানমারের বোমাবর্ষণের প্রতিবাদ করতে পারছে না।

রোববার ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল বলেন, রাজনৈতিক দল হিসেবে আমাদের (বিএনপির) কাজ হচ্ছে, ভয়াবহ দানবীয় শক্তি যারা জোর করে ক্ষমতা দখল করে বসে আছে, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তাদের ক্ষমতা থেকে সরিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করা।

সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনাদের সতর্ক করে দিয়ে বলতে চাই, এখনো সময় আছে, পদত্যাগ করুন। সংসদ বিলুপ্ত করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা দিন। সেই তত্ত্বাবধায়কের অধীনে একটি স্বাধীন নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন করে, নিরপেক্ষ ভোটের মাধ্যমে জনগণ তাদের নতুন সরকার নির্বাচন করবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজ বিভিন্ন জায়গায় বিএনপির কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছেন, হামলা করছেন। এগুলো করবেন না। এগুলো করে বাংলাদেশের মানুষকে দাবিয়ে রাখা যাবে না। দুর্বার গণআন্দোলনের মধ্য দিয়ে আপনাদের পদত্যাগ করানো হবে।

এসময় সব রাজনৈতিক দল ও গণতন্ত্রকামী মানুষকে আহ্বান জানিয়ে ফখরুল বলেন, যারা আমাদের সব অর্জনকে ধ্বংস করেছে, বাংলাদেশের আত্মাকে বিসর্জন দিয়েছে, তাদের ক্ষমতা থেকে সরিয়ে, আসুন আমরা একসঙ্গে, ঐক্যবদ্ধ হয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করি।

ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে এবং উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল ইসলাম মজনু এবং আমিনুল হকের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, আবুল খায়ের ভূইয়া, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী, যুবদলের সভাপতি সুলতান সালাউদ্দীন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এস এম জিলানী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিতের মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ছে
                                  

অনলাইন ডেস্ক : বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিত করে আগের দুটি শর্তেই মুক্তির মেয়াদ আরও ছয় মাস বাড়ছে।

রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আনিসুল হক জানান, বর্ধিত মেয়াদে খালেদা জিয়া ঢাকার নিজ বাসায় থেকে তার চিকিৎসা গ্রহণ করবেন এবং এই সময়ে তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন না- আগের মতো এই দুটি শর্তে খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ানোর বিষয়ে মতামত দেওয়া হয়েছে।

আইন মন্ত্রণালয়ের মতামতের পর এখন এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষাসেবা বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

এ নিয়ে ষষ্ঠবারের মতো কারাবন্দি খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ছে। খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিত করে মুক্তির মেয়াদ আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর শেষ হবে।

কয়েক দিন আগে খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দিতে তার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেন।

খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ধরে আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, লিভার, ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন। গত ২২ আগস্ট স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য এভারকেয়ার হাসপাতালে যান বিএনপি চেয়ারপারসন। এর পাঁচদিন পর ২৮ আগস্ট ফের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের নানা প্রক্রিয়া শেষ করে তিনি ৩১ আগস্ট বাসায় ফেরেন।

দুটি মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়া কারাবন্দি ছিলেন। নির্বাহী আদেশে খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিত রয়েছে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বকশীবাজার আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আদালত। রায় ঘোষণার পর খালেদাকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রাখা হয়। এরপর ৩০ অক্টোবর এই মামলায় আপিলে তার আরও পাঁচ বছরের সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করেন হাইকোর্ট।

একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন একই আদালত। রায়ে সাত বছরের কারাদণ্ড ছাড়াও খালেদা জিয়াকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

২০২০ সালের মার্চে করোনা মহামারি শুরু হলে পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাহী আদেশে দণ্ড স্থগিত করে কারাবন্দি খালেদা জিয়াকে সরকার শর্তসাপেক্ষে ছয় মাসের জন্য মুক্তি দেয়। প্রথম দফা মুক্তির মেয়ার শেষ হয়ে এলে ওই বছরের ২৫ আগস্ট বেগম জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে স্থায়ী মুক্তি চেয়ে আবেদন করা হয়। এই পরিপ্রেক্ষিতে সরকার দ্বিতীয় দফায় গত বছরের ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ছয় মাসের জন্য তার মুক্তির মেয়াদ বাড়ায়। খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসার আবেদনও করে পরিবার। কিন্তু সরকার সেই প্রস্তাব আমলে না নিয়ে আরও তিনদফা মুক্তির মেয়াদ বাড়ায়, যার মেয়াদ শেষ হবে আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর।

কুমিল্লায় হামলায় রক্তাক্ত বিএনপি নেতা বুলুকে হাসপাতালে ভর্তি
                                  

অনলাইন ডেস্ক : কুমিল্লায় হামলায় আহত বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলুকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাত ১২টার দিকে তাকে ভর্তি করা হয় বলে জানিয়েছেন বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান খান।

এর আগে কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলায় বরকত উল্লাহ বুলুর ওপর হামলার অভিযোগ উঠে। তার সহধর্মিণী ও সফর সঙ্গীদের ওপরও হামলার খবর পাওয়া যায়।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার বিপুলাসার এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। বিএনপির কুমিল্লা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

সরকারের নতজানু নীতির কারণে বাংলাদেশে মিয়ানমারের হামলা: ফখরুল
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : বর্তমান সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারণেই মিয়ানমার বার বার বাংলাদেশের অভ্যন্তরে হামলা করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ডাকা জরুরি সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এসময় দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সরকারকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার জোর আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে আন্তর্জাতিক মহল কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হওয়ায় বর্তমান পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরাতে প্রধানমন্ত্রীকে কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘শুধু মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রতিবাদ জানানো যথেষ্ট নয়। আর কতবার শুধু প্রতিবাদলিপি পাঠাবে সরকার?’

জাতীয় পার্টি কোনো জোটে নেই: জিএম কাদের
                                  

অনলাইন ডেস্ক : জাতীয় পার্টি (জাপা) আর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটে নেই বলে জানিয়েছেন দলটির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের।

শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে আয়োজিত বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের সঙ্গে জাতীয় পার্টি এখন জোটে নেই। কাজেই ভাঙা গড়ার প্রশ্ন নেই। যেদিন থেকে আমরা বিরোধী দল হিসেবে কাজ করছি, সেদিন থেকেই আমরা আর আওয়ামী লীগে নেই, জোটে নেই।

তিনি বলেন, আমরা একসঙ্গে নির্বাচন করেছি। বন্ধুত্বপূর্ণভাবে কাজ করেছি। আমাদের একটা ভালো সম্পর্ক ছিল, এখনো কিছুটা আছে।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, দেশ ও জাতির স্বার্থে ভালো কাজ করলে আমরা আওয়ামী লীগের সঙ্গে থাকতে পারি। কিন্তু আওয়ামী লীগ যদি গণমানুষের আস্থা হারিয়ে ফেলে, তাহলে ভবিষ্যতে আমরা তাদের সঙ্গে নাও থাকতে পারি।

ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনকে (ইভিএম) শান্তিপূর্ণ কারচুপির মেশিন আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ইভিএমের মাধ্যমে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে না। কারচুপি করে সরকার যাকে চাইবে তাকেই পাস করিয়ে দিতে পারবে।

তবে নির্বাচন বর্জনের বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে জানান জিএম কাদের।

তিনি আরও বলেন, এটা অনেক কঠিন একটা সিদ্ধান্ত। রাজনৈতিক পরিস্থিতি আমাকে দেখতে হবে। জনগণকে বাঁচাতে হবে, নিজেকে বাঁচাতে হবে। তার জন্য সামনে আমরা অবস্থা, পরিবেশ বুঝে আমরা ব্যবস্থা নেবো।

ফখরুলের পাকিস্তানপ্রীতি অত্যন্ত দুঃখজনক: কাদের
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ‘আমরা পাকিস্তান আমলে আর্থিক ও জীবনযাত্রার দিক থেকে বর্তমান সময়ের চেয়ে ভালো ছিলাম’- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এ বক্তব্যকে অত্যন্ত দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ফখরুলের ওই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, বাংলাদেশের অগ্রগতি, সাফল্য, উন্নয়ন ও অর্জন যখন বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত তখন বিএনপি মহাসচিব পাকিস্তান আমলের প্রশংসা করেন। এ ধরনের বক্তব্যে পাকিস্তানপ্রীতির বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। যা দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র ও রাষ্ট্রদ্রোহিতামূলক।

শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুলের এ বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে নিজ জেলা ঠাকুরগাঁওয়ের কালীবাড়ির বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ফখরুল বলেন, পাকিস্তান সরকার থেকে বর্তমান সরকার আরও নিকৃষ্ট। আমরা পাকিস্তান আমলে আর্থিক ও জীবনযাত্রার দিক থেকে এর চেয়ে ভালো ছিলাম। তারপরও পাকিস্তান সরকার যেহেতু আমার অধিকার ও সম্পদ হরণ করত, সে কারণে আমরা যুদ্ধ করেছি। কিন্তু এখন তার থেকেও খারাপ অবস্থায় আমরা আছি।

বিএনপি মহাসচিবের এ বক্তব্যের মধ্য দিয়ে দলটির চিরাচরিত রাষ্ট্রবিরোধী অবস্থান ও স্বাধীনতাবিরোধী অপরাজনীতির গোপন অভিসন্ধির আবারও বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র, প্রগতি ও দেশপ্রেমে বিশ্বাসী কোনো ব্যক্তি বা সংগঠন মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী এ ধরনের মন্তব্য করতে পারেন না। বিএনপি নেতাদের এ ধরনের পাকিস্তানপ্রীতি প্রমাণ করে মহান স্বাধীনতাকে অস্বীকার করে তারা এখনো বাংলাদেশে পাকিস্তানি ধারার রাজনীতি প্রবর্তন করতে চায়।

তিনি বলেন, পাকিস্তান পার্লামেন্ট ও গণমাধ্যমে যখন বাংলাদেশের অগ্রসরমান অর্থনীতির উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করা হচ্ছে, তখন বিএনপি মহাসচিব নির্লজ্জভাবে পাকিস্তানের দালালি করছেন।

বিবৃতিতে ওবায়দুল কাদের বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশে যারা রাজনৈতিক ও পারিবারিকভাবে পাকিস্তানি দর্শনের রাজনীতিকে লালন করে তারা স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পর এখনো ‘পেয়ারে পাকিস্তান’ মন্ত্র জপছে।

বিএনপি মহাসচিবের এ ধরনের বক্তব্য শুধু রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিলই নয়, ত্রিশ লাখ শহীদের রক্তের সঙ্গে বেইমানি বলেও মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।


   Page 1 of 98
     রাজনীতি
নির্বাচন ছাড়া সরকার পরিবর্তনের কোনো সুযোগ নেই: কাদের
.............................................................................................
বিএনপি আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচাল করতে চায় : এডভোকেট কামরুল ইসলাম
.............................................................................................
সেই নৈরাজ্য-বিশৃঙ্খলার পথেই হাঁটছে বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
গণতন্ত্রকে ধ্বংসস্তূপে পরিণত করেছে আওয়ামী লীগ সরকার: রিজভী
.............................................................................................
বিএনপি আবারও সন্ত্রাস-সহিংসতার পাঁয়তারা চালাচ্ছে: কাদের
.............................................................................................
যেখানেই বিএনপি-জামায়াতের অরাজকতা সেখানেই প্রতিরোধ: যুবলীগ
.............................................................................................
শেখ হাসিনা হেরে গেলে বাংলাদেশ হেরে যাবে: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
বিএনপি জামায়াত জোট রাজনীতির নামে নতুন করে নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে: নসরুল হামীদ বিপু
.............................................................................................
দুর্বার গণআন্দোলনের মধ্য দিয়ে এ সরকারকে পদত্যাগ করানো হবে : মির্জা ফখরুল ইসলাম
.............................................................................................
দেশের রাজনীতিকে বিএনপি কলুষিত করতে চায় : এডভোকেট কামরুল ইসলাম
.............................................................................................
সরকারের কোমর সোজা নাই: ফখরুল
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিতের মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ছে
.............................................................................................
কুমিল্লায় হামলায় রক্তাক্ত বিএনপি নেতা বুলুকে হাসপাতালে ভর্তি
.............................................................................................
সরকারের নতজানু নীতির কারণে বাংলাদেশে মিয়ানমারের হামলা: ফখরুল
.............................................................................................
জাতীয় পার্টি কোনো জোটে নেই: জিএম কাদের
.............................................................................................
ফখরুলের পাকিস্তানপ্রীতি অত্যন্ত দুঃখজনক: কাদের
.............................................................................................
খালেদা-তারেক দুজনই নির্বাচনের অযোগ্য: কাদের
.............................................................................................
শাহ মোয়াজ্জেম হোসেনের জানাজা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মোয়াজ্জেম হোসেনের ইন্তেকাল
.............................................................................................
মশিউর রহমান রাঙ্গাকে জাপা থেকে অব্যাহতি
.............................................................................................
বিএনপির আন্দোলনের নেতা কে, প্রশ্ন কাদেরের
.............................................................................................
বিএনপি এখন পুলিশকে প্রতিপক্ষ বানাচ্ছে: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
‘ভারতে গিয়ে তো খালেদা জিয়া গঙ্গা চুক্তির কথা ভুলেই গিয়েছিলেন’
.............................................................................................
‘বাংলাদেশ-ভারতের বন্ধুত্ব আস্থাপূর্ণ হওয়ায় বিএনপির গাত্রদাহ’
.............................................................................................
ভারত সফরে দেশবাসীর প্রত্যাশা পূরণ হলেও বিএনপির হয়নি
.............................................................................................
বিএনপির আন্দোলন মানেই নৈরাজ্য সৃষ্টি: কাদের
.............................................................................................
‘বিএনপি ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরকে সবাই ইতিবাচক দেখছেন’
.............................................................................................
জাপার কাউন্সিল কমিটিতে আরও সাত জ্যেষ্ঠ নেতা
.............................................................................................
আ’লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য হলেন হাছান মাহমুদ
.............................................................................................
২০ হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলায় ২শ জন গ্রেফতার হয়েছে : মির্জা ফখরুল
.............................................................................................
জাতীয় পার্টি কখনোই আওয়ামী লীগের বি-টিম নয় আওয়ামী লীগ,বিএনপি দেশের মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করেছে : জি এম কাদের
.............................................................................................
দেশ ধ্বংসে নানামুখী ষড়যন্ত্র চলছে: শিল্প প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি : দ্বিতীয় ধাপে ৪ লাখ ৬৭ হাজার গাছ লাগালো যুবলীগ
.............................................................................................
দেশে আবার লাশের রাজনীতি শুরু হয়েছে: হানিফ
.............................................................................................
আগামী নির্বাচনে ফাইনাল খেলা হবে: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
বিএনপির সন্ত্রাস-নৈরাজ্যের দাঁতভাঙা জবাব দেবে যুবলীগ: পরশ
.............................................................................................
বিএনপি নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করার পাঁয়তারা করছে: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জ পুলিশের গুলিতে নিহত যুবদল নেতা শাওনের বাড়িতে যাচ্ছেন নেতারা
.............................................................................................
বিএনপির ৪৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ
.............................................................................................
খুনি জিয়া দেশে গুমের রাজনীতির প্রবর্তক: পরশ
.............................................................................................
বিএনপি অস্থিরতা করলে কঠোরভাবে প্রতিহত করা হবে: কৃষিমন্ত্রী
.............................................................................................
জিয়া-খালেদা উভয়ে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সুরক্ষাকারী: শ ম রেজাউল
.............................................................................................
জনগণের অভূতপূর্ব সাড়া পেয়েছি, কর্মসূচি চলবে: ফখরুল
.............................................................................................
বিএনপি-জামায়াত সম্পর্ক কখনো ছিন্ন হবে না, এটা তাদের কৌশল: হানিফ
.............................................................................................
সন্ধ্যায় স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে যাবেন খালেদা
.............................................................................................
নজরুলের কবিতা-গান আমাদের প্রেরণা: রিজভী
.............................................................................................
১৫০ আসনে ইভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক: চরমোনাই পির
.............................................................................................
বিএনপির রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবি শেখ পরশের
.............................................................................................
যুবলীগ থেকে বহিষ্কৃত কি না জানি না: সম্রাট
.............................................................................................
দীর্ঘদিন পর আ’লীগ কার্যালয়ে সোহেল তাজ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Dynamic Scale BD