| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * ফেরিতে গাদাগাদি করে ভ্রমণে সংক্রমণ বাড়ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   * খিলক্ষেতে ক্রেনের ধাক্কায় শ্রমিক নিহত   * চালের বাজারে কিছুটা স্বস্তি, বেড়েছে মাছ-মুরগি-চিনির দাম   * বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা সরকারি হিসাবের দ্বিগুণ: আইএইচএমই   * দৌলতদিয়ায় ঘরমুখো মানুষের উপচেপড়া ভিড়   * স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই গণপরিবহনে, চলছে আন্তঃজেলা বাসও   * উন্নত দেশগুলোর চেয়ে একাই বেশি গ্রিনহাউস গ্যাস ছড়ায় চীন   * জার্মানিতে একদিনে ১০ লাখ মানুষের টিকা গ্রহণ   * করোনা থেকে মুক্তি পেতে জুমাতুল বিদায় বিশেষ দোয়া   * মাস্ক পরা নিয়ে সরকারের ৮ নির্দেশনা  

   আদালত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
‘লকডাউন’ নিয়ে রিটকারী আইনজীবীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা

অনলাইন ডেস্ক: লকডাউনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট শুনানিতে উপস্থিত না হওয়ায় আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইউনুছ আলী আকন্দকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন হাইকোর্ট। আজ বুধবার (৫ মে) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালত বলেন, রিট করে তিনি পত্রপত্রিকায় নিউজ দেন। কিন্তু মামলা তালিকায় আসার পর তিনি আর কোর্টে থাকেন না।

এর আগে জরুরি অবস্থা জারি ছাড়া লকডাউনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গত ২৫ এপ্রিল হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আইনজীবী ড. ইউনুছ আলী আকন্দ এ রিট দায়ের করেছিলেন। রিট আবেদনে বলা হয়েছিল, দেশে জরুরি অবস্থা জারি করা ছাড়া জনগণের চলাফেরার অধিকার, আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার স্থগিত রাখা যায় না। এটা সংবিধানপরিপন্থী। এ কারণে রিটে চলমান লকডাউন স্থগিত চাওয়া হয়। একই সঙ্গে রিট আবেদনে পুনরায় লকডাউন না দেওয়ার নির্দেশনা চাওয়া হয়। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের এ রিটে বিবাদী করা হয়।

প্রসঙ্গত, এর আগে আদালত নিয়ে ফেসবুকে বিরূপ স্ট্যাটাস দেওয়ায় ড. ইউনুছ আলী আকন্দকে পেশা পরিচালনা থেকে তিন মাসের অব্যাহতি দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে তাকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে ১৫ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেছিলেন আদালত।

সূত্র : বিডি২৪লাইভ

‘লকডাউন’ নিয়ে রিটকারী আইনজীবীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা
                                  

অনলাইন ডেস্ক: লকডাউনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট শুনানিতে উপস্থিত না হওয়ায় আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইউনুছ আলী আকন্দকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন হাইকোর্ট। আজ বুধবার (৫ মে) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালত বলেন, রিট করে তিনি পত্রপত্রিকায় নিউজ দেন। কিন্তু মামলা তালিকায় আসার পর তিনি আর কোর্টে থাকেন না।

এর আগে জরুরি অবস্থা জারি ছাড়া লকডাউনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গত ২৫ এপ্রিল হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আইনজীবী ড. ইউনুছ আলী আকন্দ এ রিট দায়ের করেছিলেন। রিট আবেদনে বলা হয়েছিল, দেশে জরুরি অবস্থা জারি করা ছাড়া জনগণের চলাফেরার অধিকার, আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার স্থগিত রাখা যায় না। এটা সংবিধানপরিপন্থী। এ কারণে রিটে চলমান লকডাউন স্থগিত চাওয়া হয়। একই সঙ্গে রিট আবেদনে পুনরায় লকডাউন না দেওয়ার নির্দেশনা চাওয়া হয়। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের এ রিটে বিবাদী করা হয়।

প্রসঙ্গত, এর আগে আদালত নিয়ে ফেসবুকে বিরূপ স্ট্যাটাস দেওয়ায় ড. ইউনুছ আলী আকন্দকে পেশা পরিচালনা থেকে তিন মাসের অব্যাহতি দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে তাকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে ১৫ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেছিলেন আদালত।

সূত্র : বিডি২৪লাইভ

স্পিডবোট দুর্ঘটনায় চালক-মালিকসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ মাদারীপুরের শিবচরে বাংলাবাজার ফেরিঘাটে বালুবাহী বাল্কহেডের সঙ্গে স্পিডবোটের সংঘর্ষে ২৬ জন নিহতের ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। সোমবার (৩ মে) মধ‌্যরাতে শিবচর থানায় নৌ পুলিশ বাদি হয়ে স্পিডবোটের মালিক-চালকসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় চালক শাহ আলমকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

মঙ্গলবার (৪ মে) সকালে শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিরাজ উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, আসামিদের মধ্যে আছেন ঘাটের ইজারাদার। তবে চালক ছাড়া অন্য আসামিদের বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি।

ঘাট কর্তৃপক্ষ, উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ সূত্র জানায়, সোমবার সকালে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট থেকে ৩১ জন যাত্রী নিয়ে স্পিডবোট মাদারীপুরের শিবচরের বাংলাবাজারের দিকে যাচ্ছিল। বাংলাবাজার ফেরিঘাটের কাছাকাছি এলে নোঙর করা বালুবোঝাই বাল্কহেডের সঙ্গে সেটির সংঘর্ষ হয়। এতে স্পিডবোটটি সজোরে ধাক্কা খেয়ে উল্টে যায়।

খবর পেয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে ফায়ার সার্ভিস ও নৌ পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে ২৬ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সাঁতরে তীরে উঠছেন ৫ জন। তাদের উদ্ধার করে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে সেখানে এক নারীর মৃত্যু হয়।

শিমুলিয়ার নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী পরিচালক শাহাদাত হোসেন জানান, স্পিডবোটটির নিবন্ধন ছিল না। চালকের যোগ্যতা সনদও নেই। এই নৌরুটের বেশির ভাগ নৌযানের একই অবস্থা।

এদেকে এ সংঘর্ষে প্রাণহানির ঘটনা তদন্তে ৬ সদস্যের তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে। মাদারীপুর জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক আজহারুল ইসলামকে কমিটির প্রধান করা হয়েছে। মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক রহিমা খাতুন গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র : ইত্তেফাক

মুনিয়ার সঙ্গে আনভীরের কল রেকর্ডের ফরেনসিক চেয়ে নোটিশ
                                  

অনলাইন ডেস্ক : বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরের সঙ্গে কলেজছাত্রী মুনিয়ার ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া কল রেকর্ড ফরেনসিক পর্যালোচনার জন্য আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

নোটিশটি সোমবার (০৩ মে) স্বরাষ্ট্রসচিব বরাবর পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইয়াদিয়া জামান। রেজিস্ট্রি ডাকযোগে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়েছে, সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান ও নুসরাত জাহান মুনিয়ার মধ্যে কথোপকথনের একটি রেকর্ড ফাঁস হয়েছে। ওই কল রেকর্ডে সায়েম সোবহান যেসব শব্দ ভিকটিম মুনিয়ার ক্ষেত্রে ব্যবহার করেছেন, তা যেকোনো নারীর জন্য অত্যন্ত অপমানজনক। উল্লিখিত কল রেকর্ড ফরেনসিক পর্যালোচনার জন্য এবং যদি ফরেনসিক পর্যালোচনায় দেখা যায়, ওই `অশ্লীল শব্দ` প্রয়োগকারী ব্যক্তি সায়েম সোবহান, তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে যেন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বা দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

আইনজীবী ইয়াদিয়া জামান সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ভাইরাল হওয়া ওই কল রেকর্ড ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। নোটিশের উল্লিখিত বিষয়ে দৃশ্যমান কোনো কার্যক্রম না দেখা গেলে পরে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এর আগে ২৬ এপ্রিল রাতে গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে কলেজছাত্রী মোসারাতের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে মোসারাতের বোন নুসরাত জাহান বাদী হয়ে গুলশান থানায় মামলা করেন। এ মামলার একমাত্র আসামি বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। সূত্র: সময় সংবাদ

ভার্চুয়াল কোর্টে জামিন পেয়েছেন ১৪২২ জন
                                  

অনলাইন ডেস্ক: চলমান ‘লকডাউনে’র মধ্যে সারাদেশের অধস্তন আদালতে বুধবার (২৮ এপ্রিল) ভার্চ্যুয়ালি জামিন পেয়েছেন এক হাজার ৪২২ জন হাজতি। ১২ কার্যদিবসে মোট ২১ হাজার ৪৬১ হাজতি জামিন পেয়ে কারামুক্ত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) সকালে এ তথ্য জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র মোহাম্মদ সাইফুর রহমান।

তিনি জানান, গত ১২ এপ্রিল থেকে করোনা সংক্রমণ রোধে দ্বিতীয় দফায় সারাদেশে অধস্তন আদালত এবং ট্রাইব্যুনালে শারীরিক উপস্থিতি ব্যতিরেকে ভার্চ্যুয়াল পদ্ধতিতে জামিন ও অতি জরুরি ফৌজদারি দরখাস্ত শুনানি হচ্ছে।

এর মধ্যে বুধবার ভার্চ্যুয়াল শুনানি নিয়ে সারাদেশে অধস্তন আদালতে দুই হাজার ৭৩৬টি জামিন-দরখাস্ত নিষ্পত্তি হয় এবং তাতে এক হাজার ৪২২ জন অভিযুক্ত ব্যক্তি জামিন পেয়ে কারাগার থেকে মুক্ত হন।

এছাড়া মোট ১২ কার্যদিবসে ভার্চ্যুয়াল আদালতের মাধ্যমে মোট জামিনপ্রাপ্ত শিশুর সংখ্যা ২৬৯ জন বলে জানান তিনি।

সূত্র : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

আগাম জামিন আবেদন করলেন সায়েম সোবহান আনভীর
                                  

অনলাইন ডেস্ক: কলেজছাত্রী মোসারাত জাহান ওরফে মুনিয়াকে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে করা মামলায় হাইকোর্টে আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেছেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীর। আনভীর বিদেশ চলে গেছেন- এমন গুঞ্জনের মধ্যেই আজ তার পক্ষে হাইকোর্টে এ আবেদন করা হয়েছে।

আগামীকাল বৃহস্পতিবার বিচারপতি মামুনুন রহমান ও বিচারপতি খন্দকার দিলীরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চে এই জামিন আবেদনটি শুনানির জন্য কার্যতালিকায় রয়েছে। এই আদালতের দৈনন্দিন কার্যতালিকার ১৪ নম্বর ক্রমিকে এটি শুনানির জন্য অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এ ব্যাপারে ওই আদালতে নিয়োজিত ডেপুটি অ্যার্টনি জেনারেল মো. তাহিরুল ইসলাম জানান, জামিন আবেদনের কপি এখনো পাননি। কপি দেখে বিস্তারিত বলা যাবে।

আনভীরের পক্ষে আইনজীবী হিসেবে কে আছেন তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। নিয়ম অনুযায়ী আগাম জামিন আবেদনের শুনানির জন্য আসামিদের সশরীরে হাজির হওয়ার বিধান রয়েছে। তবে ভার্চুয়ালি শুনানি হওয়ায় আসামি ভার্চুয়ালি আদালতে সংযুক্ত হতে পারেন।

গত সোমবার সন্ধ্যায় গুলশানের ১২০ নম্বর সড়কের ১৯ নম্বর বাসার একটি ফ্ল্যাটে থেকে কলেজছাত্রী মুনিয়ার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান তানিয়া বাদী হয়ে বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি সায়েম সোবহান আনভীরের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, সায়েম সোবহানের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল মুনিয়ার। ১ লাখ টাকা ভাড়ার ওই ফ্ল্যাটে নিয়মিত যাতায়াত করতেন করতেন সায়েম সেবহান। তারা স্বামী-স্ত্রীর মতো করে থাকতেন। মুনিয়ার বোন নুসরাত জাহান তানিয়া অভিযোগ করেন, তার বোনকে বিয়ের কথা বলে ওই ফ্ল্যাটে রেখেছিলেন আনভীর। একটি ছবি ফেসবুকে দেওয়াকে কেন্দ্র করে সায়েম সোবহান তার বোনের ওপর ক্ষিপ্ত হয়। মুনিয়াকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

সূত্র : আমাদের সময়

আদালতে তোলা হবে মামুনুলকে, নিরাপত্তা জোরদার
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ হেফাজতে ইসলামের সাবেক কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরের সেক্রেটারি মাওলানা মামুনুল হকের সাতদিনের রিমান্ড সোমবার (২৬ এপ্রিল) শেষ হচ্ছে। রিমান্ড শেষে সকালেই তাকে আবারও আদালতে হাজির করবে পুলিশ। এজন্য পুরান ঢাকার নিম্ন আদালত প্রাঙ্গণ ও আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

আজ সোমবার (২৬ এপ্রিল) সকাল থেকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আশপাশের এলাকা ঘিরে সাধারণ লোকজনের চলাফেরা নজরদারি ও তল্লাশি করা হচ্ছে। আদালতে আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থীদেরও তল্লাশির আওতায় রাখা হয়েছে।

রাজধানীর মতিঝিল ও পল্টন থানার নাশকতার দুই মামলায় মাওলানা মামুনুল হকের ২০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে বলে জানিয়েছে ডিবি পুলিশ। এই দুই মামলায় প্রথমে তাকে গ্রেফতার দেখানো হবে। এরপর অনুষ্ঠিত হবে রিমান্ডের শুনানি।

মোহাম্মদপুর থানার ওসি আব্দুল লতিফ বলেন, মামুনুলকে মোহাম্মদপুর থানার মামলায় সাত দিনের রিমান্ড শেষে সকালে আদালতে হাজির করা হবে।

আদালত এলাকায় পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, মামুনুল হককে আদালতে হাজির করা হবে, সেজন্য আশপাশের এলাকা এবং আদালতের চত্বরে সকাল থেকেই আমরা নিরাপত্তা জোরদার করেছি। মামুনুল হককে আদালত হাজির করা থেকে শেষ পর্যন্ত এ সতর্কতা অব্যাহত থাকবে।

 

শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবির ঘটনায় বিআইডব্লিউটিএর মামলা
                                  

অনলাইন ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে বেপরোয়া গতিতে পণ্যবাহী জাহাজ চালিয়ে সাবিত আল হাসান নামে মুন্সিগঞ্জগামী একটি লঞ্চ ডুবিয়ে ৩৪ জন যাত্রীকে হত্যার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে বিআইডব্লিউটিএ।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) দিনগত রাতে নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানায় মামলাটি দায়ের করেন বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের উপ-পরিচালক (নৌ নিট্রা) বাবু লাল বৈদ্য।

মামলায় হত্যার উদ্দেশে বেপরোয়া গতিতে পণ্যবাহী জাহাজ চালিয়ে লঞ্চটি ডুবিয়ে ৩৪ জনের প্রাণহানি ঘটানো হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে মামলায় আসামি হিসেবে কারো নাম উল্লেখ করা হয়নি।

মামলার বাদী বাবু লাল বৈদ্য জানান, পেনাল কোড ২৮০, ৩০৪, ৩৩৭, ৩৩৮, ৪২৭, ৪৩৭ ধারাসহ ইনল্যান্ড শিপিং অর্ডিন্যান্স ১৯৭৬ এর ৭০ ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। হত্যার উদ্দেশে ও বেপরোয়া গতিতে নৌযান চালিয়ে ৩৪ জনকে হত্যা সংঘটিত করার অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলায় আসামি হিসেবে কারো নাম উল্লেখ করা হয়নি।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা জানান, বিআইডব্লিউটিএ’র কর্মকর্তা বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলাটি দায়ের করেছেন। এতে হত্যার উদ্দেশে বেপরোয়া গতিতে জাহাজ চালিয়ে হত্যা সংঘটিত করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আশা করছি, খুব শিগগিরই দোষীদের গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।

শীতলক্ষ্যা নদীর উপর নির্মাণাধীন সৈয়দপুর-মদনগঞ্জের শীতলক্ষ্যা ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় এসকেএল-৩ নামের কোস্টার ট্যাংকারের ধাক্কায় সাবিত আল হাসান নামের নারায়ণগঞ্জ থেকে মুন্সিগঞ্জগামী লঞ্চটি অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যায়। মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত ৩৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে ঘটনার দু’দিন পেরিয়ে গেলেও অদ্যাবধি আটক হয়নি ঘাতক এসকেএল-৩ নামের কোস্টার ট্যাংকার জাহাজটি।

 সূত্র : বাংলানিউজ

 

নাশকতার মামলায় মামুনুল হকসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন ২৭ মে
                                  

অনলাইন ডেস্ক : স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে (২৬ মার্চ) বায়তুল মোকাররমে নাশকতার ঘটনায় করা মামলায় হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ২৭ মে দিন ধার্য করেছেন আদালত।

আজ মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম ধীমান চন্ড মন্ডল মামলার এজহার গ্রহণ করেন। একই সঙ্গে মামলার প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ২৭ মে দিন ধার্য করেন আদালত।

সোমবার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের উপ-দফতর সম্পাদক খন্দকার আরিফুজ্জামান বাদি হয়ে পল্টন থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক ও হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিবের ষড়যন্ত্র ও নির্দেশনায় অজ্ঞাতনামা দু` থেকে তিন হাজার হেফাজত, জামায়াত, শিবির ও বিএনপি`র জঙ্গি কর্মীরা সারাদেশে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ও লুটতরাজ চালায় বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়।

গত ২৬ মার্চ জুমার নামাজ শেষে মসজিদের বাইরে উত্তর গেটে সিঁড়িতে কয়েক হাজার জামাত-শিবির-বিএনপির ও হেফাজতের উগ্র মৌলবাদীরা নাশকতামূলক কার্যক্রম শুরু করে।

আসামিরা দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে গোপন বৈঠকে মিলিত হয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর কর্মসূচি বানচাল করতে ঢাকাসহ সারাদেশে ব্যাপক তান্ডব চালিয়ে নৈরাজ্য সৃষ্টির পরিকল্পনা ও ষড়যন্ত্র করে।

এ সময় তারা মিছিল থেকে রাষ্ট্র ও সরকারবিরোধী নানা স্লোগান দিতে থাকে। হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের প্রত্যক্ষ নির্দেশে পূর্বপরিকল্পিতভাবে ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের দেশি-বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্রসহ দা, ছোরা, কুড়াল, কিরিজ, হাতুড়ি, তলোয়ার, বাঁশ, গজারি, সাবল, পাইপ ও রিভলবারসহ অন্যান্য আগ্নেয়াস্ত্র সজ্জিত হয়ে অতর্কিতভাবে সাধারণ মুসল্লিদের উপর হামলা করে।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়, আসামিরা বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের টাইলস ভেঙে ফেলে, বিভিন্ন হাদিস, কোরআন শরিফসহ ধর্মীয় পুস্তকে অগ্নিসংযোগ করে ইসলামের অপূরণীয় ক্ষতিসাধন করে।
এছাড়া মামুনুল হকসহ অন্যনা আসামিদের পূর্ব পরিকল্পনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ভাংচুর এবং কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ অফিস ও বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর করা হয়।

মামলার অপর আসামিরা হলেন, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব, যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা লোকমান হাবিব, যুগ্ম-মহাসচিব নাসির উদ্দিন মনির, নায়েবে আমির মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া, মাখজান মাওলানা নুরুল ইসলাম জেহাদী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া নায়েবে আমির মাজেদুর রহমান, মাওলানা হাবিবুর রহমান, মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ আইয়্যুবী, সহকারি মহাসচিব মাওলানা জসিম উদ্দিন, টঙ্গীর সহ-সাংগঠনিক মাওলানা মাসুদুল করিম, অর্থ সম্পাদক মুফতি মনির হোসাইন কাশেমী, প্রচার সম্পাদক মাওলানা যাকারিয়া নোমান ফয়েজী, মাওলানা ফয়সাল আহমেদ, সহকারি দাওয়া সম্পাদক মাওলানা মুশতাকুন্নবী, ছাত্র ও যুব সম্পাদক মাওলানা হাফেজ মো. জোবায়ের ও দফতর সম্পাদক মাওলানা হাফেজ মো. তৈয়ব। বাসস

শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা: ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় জনসভাস্থলে বোমা রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্রের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ১৪ আসামির ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন) হাইকোর্টে এসে পৌঁছেছে।

মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল অফিসার ব্যারিস্টার সাইফুর রহমান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ‘সোমবার সন্ধ্যায় ডেথ রেফারেন্সের কপি হাইকোর্টে এসে পৌঁছেছে।’

এর আগে গত ২৩ মার্চ ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন।

রায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ১৪ আসামি হলেন- মফিজুর রহমান, মাহমুদ আজহার, রাশেদুজ্জামান, তারেক, ওয়াদুদ শেখ ওরফে গাজী খান, আজিজুল হক, লোকমান, ইউসুফ ওরফে মোছহাব মোড়ল, মোছহাব হাসান ওরফে রাশু, শেখ মো. এনামুল হক, আনিসুল ইসলাম, সারোয়ার হোসেন, আমিরুল ইসলাম ও রফিকুল ইসলাম খান।

সুত্র ঃ বাংলাদেশ জার্নাল

এনআইডি সংশোধন: আবেদন বাতিল হলে চারবার আপিলের সুযোগ
                                  

অনলাইন ডেস্ক: জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সংশোধন নিয়ে ভোগান্তির শেষ নেই। অনেকের আবেদন মাঠ পর্যায়েই পড়ে থাকে বছরের পর বছর।

আর এ অবস্থায় অনেকেই আশ্রয় নেন দ্বিতীয়বার ভোটার হওয়ার মতো দণ্ডনীয় কর্মকাণ্ডে। এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য কারো আবেদন বাতিল হলে চারবার আপিল করার সুযোগ সৃষ্টি করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নাগরিকদের ভোগান্তি দূর করতে এবং দ্বিতীয়বার ভোটার হওয়ার অপচেষ্টা রোধ করার লক্ষ্যে এনআইডি সংশোধনের জন্য একটি নীতিমালা করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে কারও আবেদন বাতিল হলে তিনি সেই বাতিল আদেশের বিপক্ষে আরও চারবার আপিলের সুযোগ পাবেন। এছাড়া আবেদন যাতে কারো টেবিলে বছরের পর পড়ে না থাকে, সেজন্যও একটি নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দেওয়া হবে। এতে কারও আবেদন সংশোধনযোগ্য হোক না হোক, তা নিষ্পত্তি করে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই আবেদনকারীকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

নীতিমালার ওপর আলোচনার জন্য একটি বৈঠকও ডাকা হয়েছে বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল)। এক্ষেত্রে খসড়া নীতিমালার ওপর এবং মাঠ পর্যায় থেকে আসার কর্মকর্তাদের সুপারিশের ওপর আলোচনা করবেন নির্বাচন কমিশন ও তার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

খসড়া নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়েছে- উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে কোনো আবেদন বাতিল হয়েছে গেলে সিনিয়র জেলা বা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে আপিল করতে হবে। আবেদন যাচাই-বাছাই করবেন অতিরিক্ত জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বা নির্বাচন কর্মকর্তা। তিনি ৬০ দিনের মধ্যে আপিল আবেদন নিষ্পত্তি করবেন।

জেলা পর্যায়ে আপিল আবেদন না টিকলে পুনরায় আপিল করা যাবে আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে। এক্ষেত্রে আগের আদেশের ৪৫ দিনের মধ্যে আবেদন করতে হবে। তিনি পরবর্তী ৬০ দিনের মধ্যে তা নিষ্পত্তি করবেন।

আঞ্চলিক কার্যালয়েও আবেদন না টিকলে আপিল করা যাবে এনআইডি অনু্বভিাগের মহাপরিচালকের কাছে। এক্ষেত্রে আগের আদেশের ৪৫ দিনের মধ্যে আবেদন করতে হবে। আপিল নিষ্পত্তি হবে আবেদনের পরবর্তী ৬০ দিনের মধ্যে।

সেখানে আবেদন না টিকলে সর্বশেষ পন্থা হিসেবে নির্বাচন কমিশন বরাবর আপিল করা যাবে। আগের মতোই এবারও ৪৫ দিনের মধ্যে আবেদন করতে হবে। নির্বাচন কমিশন গঠিত কমিটির দ্বারা যাচাই-বাছাই ও নথি উপস্থাপন এবং শুনানি শেষে কমিশন আদেশ দেবেন ৬০ দিনের মধ্যে। এক্ষেত্রে কমিশনের আদেশই চূড়ান্ত হবে।

নীতিমালা প্রণয়ন কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্তদের একজন ইসির যুগ্ম সচিব এসএম আসাদুজ্জামান। তিনি বলেন, খসড়া নীতিমালার ওপর সবার মতামত চাওয়া হয়েছে। আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সূত্র : বাংলানিউজ

দ্বৈত পাসপোর্টধারী ১৪ হাজার নাগরিকের তালিকা আদালতে
                                  

অনলাইন ডেস্ক: দ্বৈত পাসপোর্টধারীর ১৩ হাজার ৯৩১ জন নাগরিকের তালিকা হাইকোর্টে দাখিল করেছে ইমিগ্রেশন পুলিশ। বুধবার পুলিশের বিশেষ শাখার পুলিশ সুপারের পক্ষে (ইমিগ্রেশন) অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়ে ১৩ হাজার ৯৩১ দ্বৈত নাগরিকের তালিকাসহ এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।

বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চে এই প্রতিবেদনের ওপর শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। আদালতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশিদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।

এর আগে গত ২১ ডিসেম্বর অর্থ পাচার ও দুর্নীতির মাধ্যমে যারা বিদেশে বাড়ি নির্মাণ করেছে অথবা কিনেছে, সেই বাংলাদেশিদের মধ্যে যাদের দ্বৈত নাগরিকত্ব ও পাসপোর্ট আছে এবং যারা দেশের তিনটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে দেশে-বিদেশে ঘন ঘন আসা-যাওয়া করছেন, তাদের তালিকা চান হাইকোর্ট।

পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন নজরে নিয়ে গত বছরের ২২ নভেম্বর বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের হাইকোর্ট বেঞ্চ স্বপ্রণোদিত হয়ে এক আদেশে বিদেশে অর্থ পাচারকারীদের সব ধরনের তথ্য চান।

পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, রাজনীতিবিদরা নন, বিদেশে বেশি অর্থ পাচার করেন সরকারি চাকুরেরা। সম্প্রতি ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) আয়োজিত মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

গোপনে কানাডার টরেন্টোতে অবস্থিত বাংলাদেশিদের বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হয়েছে জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমার ধারণা ছিল- রাজনীতিবিদদের সংখ্যা বেশি হবে, কিন্তু আমার কাছে যে তথ্য এসেছে, যদিও এটি সামগ্রিক তথ্য নয়, সেটিতে আমি অবাক হয়েছি। সংখ্যার দিক থেকে আমাদের অনেক সরকারি কর্মচারীর বাড়িঘর সেখানে বেশি আছে এবং তাদের ছেলে-মেয়েরা সেখানে থাকে। মন্ত্রী বলেন, আমার কাছে ২৮টি কেস এসেছে এবং এর মধ্যে রাজনীতিবিদ হলেন চারজন। এ ছাড়া কিছু আছেন তৈরি পোশাকশিল্পের ব্যবসায়ী। আমরা আরও তথ্য সংগ্রহ করছি। পাচারে শুধু কানাডা নয়, মালয়েশিয়াতেও একই অবস্থা। তবে তথ্য পাওয়া খুব কঠিন। বিভিন্ন মিডিয়ায় যে তথ্য বের হয়, হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার হচ্ছে, আসলে সংখ্যাটি তত নয়।

সূত্র : ঢাকাটাইমস

বায়তুল মোকাররম এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা, আসামি ৬০০
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম এলাকায় ২৬ মার্চ (শুক্রবার) সংঘর্ষের ঘটনায় অজ্ঞাত অন্তত ৬০০ জনকে আসামি করে মামলা করেছে পুলিশ। 

সোমবার (২৯ মার্চ) সকালে পল্টন থানার ওসি আবু বকর সিদ্দিক এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান,  ২৬ মার্চ পুলিশের কাজে বাধা, মারধরের ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে।  ওইদিন রাতেই মামলাটি করা হয়েছে। পুলিশ বাদী হয়ে দায়ের করা এ মামলায় ৫০০-৬০০ জন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার (২৬ মার্চ) জুমার নামাজের পর বিক্ষিপ্তিভাবে এক দল মুসল্লি মোদিবিরোধী স্লোগান দিয়ে মিছিল করার চেষ্টা করে। এসব তারা রাস্তায় বের হতে চাইলে পুলিশ লাঠি চার্জ করে এবং মসজিদ প্রাঙ্গণে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। মুসল্লিরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছুড়তে থাকে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এর আগে বেশ কিছু ইসলামি দল মোদিবিরোধী বিক্ষোভ করে আসছিলো। বৃহস্পতিবার সমমনা ইসলামি দলগুলোর ব্যানারে বায়তুল মোকাররমে বিক্ষোভ হয়।

কোটালীপাড়ায় শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা : ১৪ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড
                                  

অনলাইন ডেস্ক: গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ২০০০ সালে ৭৬ কেজি বোমা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার মামলার ১৪ আসামিকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার রায় ঘোষণা করেন ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জমান।

মামলার আসামিরা হলো মো. আজিজুল হক ওরফে শাহনেওয়াজ, মো. লোকমান, মো. ইউসুফ ওরফে মোছহাব মোড়ল, মোছহাব হাসান ওরফে রাশু, শেখ মো. এনামুল হক, মো. মফিজুর রহমান ওরফে মফিজ, মো. মাহমুদ আজহার ওরফে মামুনুর রশিদ, মো. রাশেদুজ্জামান ওরফে শিমুল, মো. তারেক, মো. ওয়াদুদ শেখ ওরফে গাজী খান, মো. আনিসুল ইসলাম ও সারোয়ার হোসেন মিয়া, মাওলানা আমিরুল ইসলাম ওরফে জেন্নাত মুন্সী ও মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান। আসামিদের মধ্যে শেষের দুজন জামিনে রয়েছে।

রায় ঘোষণার আগে আজ কারাগারে থাকা নয়জন আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়। রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে আদালত ও তার আশপাশের এলাকায় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

এই ঘটনায় মোট তিনটি মামলা হয়েছিল। তার মধ্যে দুটি মামলার রায় বিচারিক আদালতে আগেই হয়। আজ অপর মামলাটির রায় হলো।

গত ১১ মার্চ মামলাটির যুক্তিতর্কের শুনানি শেষে রায় ঘোষণার জন্য তারিখ ধার্য করা হয়। মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্রের জন্য রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে করা হয়। মামলায় ৫০ সাক্ষীর মধ্যে ৩৪ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন। আসামিদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড দাবি করা হয় বলে গতকাল জানিয়েছিলেন সংশ্লিষ্ট আদালতের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর আবু আবদুল্লাহ ভূঁইয়া।

একই ঘটনায় বিস্ফোরক আইনের মামলায় ২০১৭ সালের ২০ আগস্ট ১০ আসামিকে গুলিতে মৃত্যুদণ্ড, একজনের যাবজ্জীবন এবং অন্য তিন আসামির ১৪ বছর করে কারাদণ্ডের রায় দেন ঢাকার ২ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল। মামলার প্রধান আসামি ছিলেন হরকাতুল জিহাদ নেতা মুফতি হান্নান। তবে ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরী হত্যাচেষ্টা মামলায় তার ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, ২০০০ সালের ২২ জুলাই গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ার শেখ লুৎফর রহমান সরকারি আদর্শ কলেজ মাঠে সমাবেশ করার কথা ছিল শেখ হাসিনার। সমাবেশের প্যান্ডেল তৈরির সময় ২০ জুলাই ওই কলেজের পাশ থেকে ৭৬ কেজি শক্তিশালী বোমা উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওইদিনই কোটালীপাড়া থানার এসআই নূর হোসেন একটি মামলা করেন।

সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার মুন্সী আতিকুর রহমান ২০০১ সালের ৮ এপ্রিল এ মামলায় ১৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন। পরবর্তী সময়ে রমনা বটমূলে বোমা হামলার মামলায় হরকাতুল জিহাদ নেতা মুফতি হান্নান স্বীকারোক্তি করে, সে নিজে এবং অন্য আসামিরা এসব ঘটনায় জড়িত। তাই সিআইডি পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার মো. নজরুল ইসলাম মামলা দুটিতে সম্পূরক চার্জশিট দাখিল করেন। ওই চার্জশিটে মুফতি হান্নানসহ মোট ২৫ জনকে আসামি করা হয়।

চার্জশিটে বলা হয়, মুফতি আবদুল হান্নান আফগানিস্তানে মুজাহিদ ট্রেনিংপ্রাপ্ত এবং সেখানে তিনি তালেবানদের পক্ষে যুদ্ধ করেন। দেশে ফিরে হরকাতুল জিহাদ আল ইসলামী বাংলাদেশি নামক সংগঠনের সদস্য হন। তার সন্ত্রাসী কার্যকলাপ পরিচালনার জন্য গোপালগঞ্জে বিসিক এলাকায় অবৈধভাবে সোনার বাংলা কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ নামে একটি সাবানের কারখানা স্থাপন করেন। ওই কারখানায় আসামিদের নিয়োগ এবং থাকার ব্যবস্থা করেন তিনি। সাবান তৈরির কাঁচামাল আনার আড়ালে আসামি মুফতি হান্নান ও তার সহযোগীরা কারখানায় এনে রাখতেন বোমা তৈরির উপকরণ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় আসার কথা শুনে মুফতি হান্নানসহ আসামিরা ওই সাবান কারখানায় তৈরি করেন ৭৬ কেজি ওজনের শক্তিশালী বোমা। ২০০০ সালের ১৯ জুলাই সেটি গাড়িতে করে কোটালীপাড়া শেখ লুৎফর রহমান সরকারি আদর্শ কলেজ মাঠে জনসভাস্থলের পাশের দোকানঘরের সামনে মাটির নিচে রাতের আঁধারে পুঁতে রাখে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ তার সফরসঙ্গী মন্ত্রিপরিষদের সদস্য এবং সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাদের এবং জনগণের জীবন ও সরকারি সম্পত্তির ক্ষতি সাধনের জন্য আসামিরা এটি করেন।

তারেক রহমানসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলা
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, যুক্তরাজ্য বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কয়ছর আহমেদসহ ২৫ জনকে আসামি করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেছেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী মঈনুল হক।

সুনামগঞ্জের আদালতে আজ সোমবার (২২ মার্চ) সকালে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সদরের বিচারক কুদরত-এ-এলাহীর আদালতে এই মামলাটি করা হয়।

আদালত মামলাটি গ্রহণ করে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন, মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আখতারুজ্জামান সেলিম। তিনি গণমাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, তারেক রহমানসহ অন্য আসামিরা ডিজিটাল মাধ্যমে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, জাতির পিতা, জাতীয় সংগীত ও জাতীয় পতাকার বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও প্রচারণা চালিয়ে এবং বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ও ডিজিটাল মাধ্যমে আক্রমণাত্মক মিথ্যা তথ্য-উপাত্ত প্রেরণ, প্রকাশ ও প্রচার করে বাংলাদেশের সংবিধান, স্বাধীনতা, স্বার্বভৌমত্ব, মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, জাতির পিতা, জাতীয় সংগীত ও জাতীয় পতাকার অবমাননা করেছেন।

মামলায় অভিযোগে বলা হয়েছে, তারেক রহমানসহ অন্য আসামিরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে অপমান করেছে, হেয় করেছে, তাকে ছোট করেছেন। তারেক রহমান তার ইউটিউব চ্যানেলে তার বাবা জিউয়ার রহমানকে বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি এবং স্বাধীনতার ঘোষক দাবি করে বক্তব্য রেখেছেন। তারেক রহমানসহ অন্য সব আসামিরা যোগসাজশে এসব অপকর্ম ও অপরাধ করেছেন।

মামলায় বাদী উল্লেখ করেন, গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর ও চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি সুনামগঞ্জ শহরের তেঘরিয়া হাসররাজা জাদুঘরের সামনে অপেক্ষারত অবস্থায় তিনি তারেক রহমানের ইউটিউব চ্যানেলে এসব অপরাধ প্রচারের বিষয়টি দেখেছেন। বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করতে সময় অতিবাহিত হওয়ায় মামলা দায়ের করতে বিলম্ব হয়েছে।

কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি ২০ মে
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ৯ আসামির বিরুদ্ধে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানির তারিখ পিছিয়ে আগামী ২০ মে ধার্য করেছেন আদালত।

সোমবার (২২ মার্চ) কেরানীগঞ্জ কারাগারে নবনির্মিত ২ নম্বর ভবনে স্থাপিত ঢাকার অস্থায়ী বিশেষ জজ আদালত-২ এর ভারপ্রাপ্ত বিচারক নজরুল ইসলাম আসামিপক্ষের সময় আবেদন মঞ্জুর করে এ দিন ধার্য করেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট হান্নান ভূঁইয়া এ তথ্য জানান।

সময়ের আবেদন খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে অসুস্থ এবং করোনাভাইরাসের ঝুঁকি থাকায় আদালতে হাজির হতে পারেননি বলে আইনজীবীরা উল্লেখ করেন।

মামলায় অভিযুক্ত আসামির সংখ্যা ১৩ জন। কিন্তু জামায়াত নেতা নিজামী ও মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকর ও সাবেক ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী ব্যারিস্টার মো. আমিনুল হক ও এম কে আনোয়ার মারা যাওয়ায় এখন আসামির সংখ্যা ৯ জন।

খালেদা জিয়া ছাড়া অন্য আসামিরা হলেন সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন, সাবেক তথ্যমন্ত্রী এম শামসুল ইসলাম, মো. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, হোসাফ গ্রুপের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন, সাবেক জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ সচিব নজরুল ইসলাম, পেট্রোবাংলার সাবেক পরিচালক মঈনুল আহসান, সাবেক জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশারফ হোসেন।

২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়া ও তার মন্ত্রিসভার সদস্যসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা দায়ের করে দুদক। শাহবাগ থানায় মামলাটি করেন দুর্নীতি দমন কমিশনের তৎকালীন সহকারী পরিচালক মো. সামছুল আলম।

কনসোর্টিয়াম অব চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি ইম্পোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট করপোরেশনকে (সিএমসি) বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির অনুমোদন দিয়ে রাষ্ট্রের কয়লা উত্তোলনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দরদাতা সিএমসির সঙ্গে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির উৎপাদন, ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণ চুক্তি করায় সরকারের প্রায় ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকার ক্ষতি হয়।

পরে এ মামলা দায়েরের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন খালেদা জিয়া। ২০০৮ সালের ১৬ অক্টোবর বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেন হাইকোর্ট।

ইয়াহিয়ার সঙ্গে নিষ্ফল বৈঠক
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ ১৮ মার্চ, ১৯৭১। চারদিকে বাঙালির গগনবিদারী রণধ্বনি। একাত্তরের এদিন পাক প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়ার সঙ্গে ৯০ মিনিটের বৈঠক শেষ করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। কিন্তু বৈঠক যে নিষ্ফল তা বের হওয়ার পরই বঙ্গবন্ধুর অবয়বে ধরা পড়ে। বাইরে তখন জনতার ভিড়। উৎসুক চোখে তারা তাকিয়ে আছে প্রিয় নেতার মুখের দিকে।

বৈঠককে ঘিরে ভিড়ের মধ্যে দেশি-বিদেশি সাংবাদিকরাও সেদিন উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকের অগ্রগতি সম্পর্কে যদি কিছু জানা যায়। পুরো বিশ্বের সংবাদমাধ্যম তখন আগ্রহ নিয়ে তাকিয়ে ছিল পূর্ব পাকিস্তান নামে পরিচিত ছোট এ ভূখণ্ডের চলমান ঘটনাবলির দিকে। তৃতীয় দিনের মতো পাক প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠক শেষে বঙ্গবন্ধু বেরিয়ে আসামাত্রই চারদিক থেকে ঘিরে ধরেন সাংবাদিকরা। কালো পতাকাশোভিত সাদা গাড়ি থেকে নামেন বঙ্গবন্ধু। উপস্থিত জনতা ও সাংবাদিকদের উদ্দেশ করে বলেন, দাবি না মেটা পর্যন্ত আমরা জাতীয় পরিষদে বসতে পারি না। সাধারণ মানুষের ওপর সেনাবাহিনীর শুলিবর্ষণের তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, টঙ্গী-জয়দেবপুরসহ বহু স্থানে সেনাবাহিনী গুলিবর্ষণ করে চলছে। তাহলে এ আলোচনার অর্থ কী? শহিদদের রক্তের সঙ্গে আমি বিশ্বাসঘাতকতা করতে পারব না।

তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে উচ্চারণ করেন, ‘আমরা আবার কথা বলব পাক প্রেসিডেন্টের সঙ্গে। তবে কোনো আপস নয়।’ অগ্নিঝরা একাত্তরে এ দিনে জয়দেবপুরে গুলিবর্ষণের পর কারফিউ জারি করা হয়। বঙ্গবন্ধু এক বিবৃতিতে বলেন, তারা (পাকিস্তানি শাসক) যদি মনে করে থাকে যে, বুলেট দিয়ে জনগণের সংগ্রাম বন্ধ করতে সক্ষম হবে, তাহলে তারা আহাম্মকের স্বর্গে বাস করছে। কিন্তু ওই বৈঠক সম্পর্কে শহরে নানা গুজব ছড়িয়ে পড়ে। মুসলিম লীগ ও জামায়াতে ইসলামীসহ বিশেষ মহল গুজব ছড়িয়ে দেয়, শেখ মুজিব ক্ষমতার লোভে প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়ার সঙ্গে আপসরফা করে ক্ষমতা ভাগাভাগি করতে যাচ্ছেন। তারা দেশব্যাপী প্রচারণা চালায়, পাকিস্তানের অখণ্ডতা রক্ষায় ইসলাম ও কোরআনি মুসলমানরা জীবন বাজি রেখে শেখ মুজিবুরের এই হালুয়া-রুটি ভাগাভাগির ষড়যন্ত্র রুখে দেবে।

যদিও দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় এ দিনেই প্রথম পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলে জয়দেবপুরের মানুষ। গর্জে ওঠে প্রথম বাঙালি অস্ত্র। সে সময় জয়দেবপুরের ঐতিহাসিক ভাওয়াল রাজবাড়ীতে অবস্থান ছিল দ্বিতীয় ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের। এ রেজিমেন্টে ২৫-৩০ জন জওয়ান ও অফিসার ছাড়া সবাই ছিলেন বাঙালি।

এদিন ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের এক বিবৃতিতে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে বিশ্বের মুক্তিকামী জনগণের সমর্থন কামনা করা হয়। বিবৃতিতে আমেরিকা, ব্রিটেন, রাশিয়া, চীন প্রভৃতি শক্তির প্রতি তাদের সরবরাহ করা অস্ত্রের দ্বারা বাংলাদেশ ওপর গণহত্যা চালানের প্রয়াস বন্ধ করারও আবেদন জানানো হয়। পশ্চিম পাকিস্তান থেকে সামরিক বাহিনী ও অস্ত্রশস্ত্র বোঝাই বিমান চলাচল বন্ধের জন্য প্রতিবেশী দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানান সংগ্রাম পরিষদ নেতারা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার, বিশ্ববিদ্যালয় এবং বুদ্ধিজীবীদের কাছে অসংখ্য তারবার্তা পাঠায়। তারবার্তায় পশ্চিম পাকিস্তানি সামরিক চক্রের গণহত্যা চক্রান্তের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে গণহত্যা থেকে তাদের নিবৃত্ত করার জন্য তাদের কাছে অনুরোধ জানানো হয়।

এছাড়া এদিন চট্টগ্রামে সেনাবাহিনীর সাম্প্রতিক গুলিবর্ষণ ও অন্যান্য ঘটনার সরজমিন তদন্তের জন্য বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে তিন সদস্যের একটি দলীয় তদন্ত কমিটি চট্টগ্রামে যায়। ঢাকায় বিমানবাহিনীর সাবেক বাঙালি সৈনিকরা স্বাধীনতা সংগ্রামের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে সংগ্রাম কমিটি গঠন করেন।


   Page 1 of 50
     আদালত
‘লকডাউন’ নিয়ে রিটকারী আইনজীবীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা
.............................................................................................
স্পিডবোট দুর্ঘটনায় চালক-মালিকসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা
.............................................................................................
মুনিয়ার সঙ্গে আনভীরের কল রেকর্ডের ফরেনসিক চেয়ে নোটিশ
.............................................................................................
ভার্চুয়াল কোর্টে জামিন পেয়েছেন ১৪২২ জন
.............................................................................................
আগাম জামিন আবেদন করলেন সায়েম সোবহান আনভীর
.............................................................................................
আদালতে তোলা হবে মামুনুলকে, নিরাপত্তা জোরদার
.............................................................................................
শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবির ঘটনায় বিআইডব্লিউটিএর মামলা
.............................................................................................
নাশকতার মামলায় মামুনুল হকসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন ২৭ মে
.............................................................................................
শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা: ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে
.............................................................................................
এনআইডি সংশোধন: আবেদন বাতিল হলে চারবার আপিলের সুযোগ
.............................................................................................
দ্বৈত পাসপোর্টধারী ১৪ হাজার নাগরিকের তালিকা আদালতে
.............................................................................................
বায়তুল মোকাররম এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা, আসামি ৬০০
.............................................................................................
কোটালীপাড়ায় শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা : ১৪ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড
.............................................................................................
তারেক রহমানসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলা
.............................................................................................
কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি ২০ মে
.............................................................................................
ইয়াহিয়ার সঙ্গে নিষ্ফল বৈঠক
.............................................................................................
ইরফান সেলিমের হাইকোর্টে জামিন
.............................................................................................
পি কে হালদারের বান্ধবীসহ গ্রেফতার তিনজন রিমান্ডে
.............................................................................................
ক্ষমা চাইলেন ড. ইউনূস
.............................................................................................
আল-জাজিরার প্রতিবেদন সরাতে হাইকোর্টের রায় প্রকাশ
.............................................................................................
খালেদার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বেড়েছে
.............................................................................................
অনলাইন থেকে আল জাজিরার প্রতিবেদন সরাতে রায় প্রকাশ
.............................................................................................
আবরার হত্যা মামলা: আদালতে ২২ আসামির নির্দোষ দাবি
.............................................................................................
তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল পেছাল ৭৯ বার
.............................................................................................
সুপ্রিম কোর্ট বারের ভোট শুরু
.............................................................................................
হাজী সেলিমের ১০ বছরের সাজা বহাল
.............................................................................................
হাজী সেলিমের মামলার রায় আজ
.............................................................................................
ধর্ষণের শিকার নারীর ছবি-পরিচয় প্রকাশে নিষেধাজ্ঞা
.............................................................................................
কুরুচিপূর্ণ লেখা ও বক্তব্য দেয়ার বিষয়ে সতর্ক করলেন প্রধান বিচারপতি
.............................................................................................
৮ জনের যাবজ্জীবন আলেক হত্যা মামলায়
.............................................................................................
সাপাহারে অনুমোদন বিহীন গুঁড়া দুধ বিক্রয়ের দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতে অর্থদন্ড
.............................................................................................
আদালতে চার্জশিট আপন জুয়েলার্সের মালিকের বিরুদ্ধে
.............................................................................................
খালেদার অব্যাহতির আবেদনের শুনানি ফের ১৮ মার্চ
.............................................................................................
দিহানের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন জমার সময় পেছাল
.............................................................................................
মাদক মামলায় ইরফান সেলিমকে অব্যাহতি
.............................................................................................
প্রাথমিক বিদ্যালয়ের টাইমস্কেল সংক্রান্ত রিট খারিজ
.............................................................................................
সভাপতি সহ ১৪ টি পদে আওয়ামী লীগ ও সাধারণ সম্পাদক সহ ৮ পদে বিএনপির প্রার্থী বিজয়ী
.............................................................................................
ঢাকা বারের নির্বাচনে দ্বিতীয় দিনের ভোট চলছে
.............................................................................................
আলজাজিরার সেই ৪ ব্যক্তির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা ফেরত দিল আদালত
.............................................................................................
সামিসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে করা মামলার আদেশ ২৩ ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
ড. ইউনূসকে হাইকোর্টে তলব
.............................................................................................
আল জাজিরার প্রতিবেদন নিয়ে হাইকোর্টের নির্দেশনা
.............................................................................................
আল জাজিরার তথ্যচিত্র: সামিসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা
.............................................................................................
দীপন হত্যা: হাইকোর্টে পৌঁছেছে আট আসামির ডেথ রেফারেন্স
.............................................................................................
শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা: বহাল থাকল ১০ জনের ফাঁসির আদেশ
.............................................................................................
অভিজিৎ হত্যা: ৫ আসামির মৃতুদণ্ড, ফারাবীর যাবজ্জীবন
.............................................................................................
দেশে আল-জাজিরার সম্প্রচার বন্ধে আনা রিটের পরবর্তী শুনানি বুধবার
.............................................................................................
মানবতাবিরোধী অপরাধ : ৩ জনের আমৃত্যু, ৫ জনের ২০ বছর কারাদণ্ড
.............................................................................................
দীপন হত্যা: বরখাস্ত মেজর জিয়াসহ ৮ আসামির ফাঁসি
.............................................................................................
আল জাজিরার প্রতিবেদন: ফেসবুক ও ইউটিউব থেকে সরাতে রিট
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop