| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * ‘শবে কদর’ হাজার মাসের চেয়ে শ্রেষ্ঠ রজনী   * করোনা টেস্টে জালিয়াতি করে বিলাসবহুল বাড়ি নির্মাণ!   * সিলেটের সাবেক এমপি বিএনপি নেতা সেলিমের মৃত্যু   * দাম বাড়িয়েও মিলছে না আকাশপথের টিকিট   * গণপরিবহনের সঙ্গে ফিরল ঢাকার নিত্য যানজট   * পশ্চিমবঙ্গে লোকাল ট্রেন, শপিংমল, রেস্তোরাঁ, বার বন্ধ   * কোভিড-১৯ এ ভারতের সাবেক মন্ত্রীর মৃত্যু   * সংসদ ভবনে হামলার পরিকল্পনার অভিযোগ, গ্রেপ্তার ২   * মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আসছে   * ফেইসবুকে নিষিদ্ধই থাকছেন ট্রাম্প  

   চট্টগ্রাম -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
বিএনপি টিভি পর্দায় আছে, জনগণের পাশে নেই: তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক: তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি ও তাদের মিত্রদের টেলিভিশনের পর্দায় দেখা গেলেও জনগণের পাশে নেই। মাঝে মধ্যে তাদের ঢাকা শহরে প্রেস ক্লাবের সামনে, নয়াপল্টনে সংবাদ সম্মেলনে এবং বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে দেখা যায়।

অথবা ঘর থেকে অনলাইনে সংযুক্ত হয়ে সরকারের সমালোচনা করেন তারা। তাদেরকে সমগ্র বাংলাদেশের কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা এখন।

শনিবার চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় তথ্য মন্ত্রীর ব্যক্তিগত উদ্যোগে করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট লকডাউন পরিস্থিতিতে দিনমজুর ও দরিদ্রদের মধ্যে খাদ্র্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা কি কাজ করছি সেটাতে কোন ভুল আছে কিনা শুধু সেটা খুঁজে বেড়ায় বিএনপি। তারা শুধু ভুল ধরে। নিজেরা কোন কাজ করে না, তাই তাদের নাম দিয়েছি ‘ভুল ধরা পার্টি’। এই ধরণের ‘ভুল ধরা পার্টি’ রাঙ্গুনিয়ায়ও আছে। তাদেরকে এখন দেখা যাচ্ছে না, ভোট আসলে দেখা যাবে, তখন তাদের জিজ্ঞেস করতে হবে এতদিন কোথায় ছিল?

এসময় ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগ খেটে খাওয়া ও মেহনতি মানুষের দল। গরীব মানুষ ভোট দিয়ে আমাদের দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দিয়েছে, তাই আমাদের দল গরীব মানুষের কথা ভাবে। তাই আওয়ামী লীগ সরকার জনগণের পাশে আছে এবং থাকবে। অন্য কেউ নেই, তারা শুধু গলা ফাটায়। করোনার প্রথম ঢেউ যখন বাংলাদেশে আঘাত হানে তখন সরকারের পক্ষ থেকে সাত কোটির বেশি মানুষকে ত্রাণ দেওয়া হয়। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ১ কোটি ২৫ লাখ মানুষকে ত্রাণ সহায়তা দেয়া হয়েছিল। এরবাইরে অনেকে ব্যক্তিগতভাবে ত্রাণ দিয়েছিল।

রাঙ্গুনিয়া পৌরসভায় মরহুম অ্যাডভোকেট নুরুচ্ছফা তালুকদার অডিটোরিয়ামে তথ্য মন্ত্রীর পারিবারিক দাতব্য প্রতিষ্ঠান এনএনকে ফাউন্ডেশন খাদ্য সামগ্রী বিতরণের আয়োজন করে। এদিন রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা, চন্দ্রঘোনা, মরিয়মনগর, পদুয়া ও শ্রীপুর-খরন্ধীপ ইউনিয়নের দুই হাজার পরিবারে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। ক্রমান্বয়ে দশ হাজার পরিবারে এসহায়তা পৌঁছে দেয়া হবে।

এনএনকে ফাউন্ডেশনের সমন্বয়কারী আবদুর রউফ মাষ্টারের সভাপতিত্বে ও এমরুল করিম রাশেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান স্বজন কুমার তালুকদার, ইউএনও মাসুদুর রহমান, মেয়র শাহজাহান সিকদার, রাঙ্গুনিয়া সার্কেলের এএসপি আনোয়ার হোসেন শামীম, আওয়ামী লীগ নেতা মুহাম্মদ আলী শাহ, কামরুল ইসলাম চৌধুরী, আবুল কাশেম চিশতি, নজরুল ইসলাম তালুকদার, ইদ্রিছ আজগর, শফিকুল ইসলাম, জামাল উদ্দিন, ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার, আবদুল মোনাফ সিকদার, গিয়াস উদ্দিন খাঁন স্বপন, মাস্টার আসলাম খান, আক্তার খাঁন, আক্তার কামাল প্রমুখ।

সূত্র : প্রতিদিনের সংবাদ

বিএনপি টিভি পর্দায় আছে, জনগণের পাশে নেই: তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী
                                  

অনলাইন ডেস্ক: তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি ও তাদের মিত্রদের টেলিভিশনের পর্দায় দেখা গেলেও জনগণের পাশে নেই। মাঝে মধ্যে তাদের ঢাকা শহরে প্রেস ক্লাবের সামনে, নয়াপল্টনে সংবাদ সম্মেলনে এবং বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে দেখা যায়।

অথবা ঘর থেকে অনলাইনে সংযুক্ত হয়ে সরকারের সমালোচনা করেন তারা। তাদেরকে সমগ্র বাংলাদেশের কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা এখন।

শনিবার চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় তথ্য মন্ত্রীর ব্যক্তিগত উদ্যোগে করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট লকডাউন পরিস্থিতিতে দিনমজুর ও দরিদ্রদের মধ্যে খাদ্র্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা কি কাজ করছি সেটাতে কোন ভুল আছে কিনা শুধু সেটা খুঁজে বেড়ায় বিএনপি। তারা শুধু ভুল ধরে। নিজেরা কোন কাজ করে না, তাই তাদের নাম দিয়েছি ‘ভুল ধরা পার্টি’। এই ধরণের ‘ভুল ধরা পার্টি’ রাঙ্গুনিয়ায়ও আছে। তাদেরকে এখন দেখা যাচ্ছে না, ভোট আসলে দেখা যাবে, তখন তাদের জিজ্ঞেস করতে হবে এতদিন কোথায় ছিল?

এসময় ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগ খেটে খাওয়া ও মেহনতি মানুষের দল। গরীব মানুষ ভোট দিয়ে আমাদের দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দিয়েছে, তাই আমাদের দল গরীব মানুষের কথা ভাবে। তাই আওয়ামী লীগ সরকার জনগণের পাশে আছে এবং থাকবে। অন্য কেউ নেই, তারা শুধু গলা ফাটায়। করোনার প্রথম ঢেউ যখন বাংলাদেশে আঘাত হানে তখন সরকারের পক্ষ থেকে সাত কোটির বেশি মানুষকে ত্রাণ দেওয়া হয়। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ১ কোটি ২৫ লাখ মানুষকে ত্রাণ সহায়তা দেয়া হয়েছিল। এরবাইরে অনেকে ব্যক্তিগতভাবে ত্রাণ দিয়েছিল।

রাঙ্গুনিয়া পৌরসভায় মরহুম অ্যাডভোকেট নুরুচ্ছফা তালুকদার অডিটোরিয়ামে তথ্য মন্ত্রীর পারিবারিক দাতব্য প্রতিষ্ঠান এনএনকে ফাউন্ডেশন খাদ্য সামগ্রী বিতরণের আয়োজন করে। এদিন রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা, চন্দ্রঘোনা, মরিয়মনগর, পদুয়া ও শ্রীপুর-খরন্ধীপ ইউনিয়নের দুই হাজার পরিবারে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। ক্রমান্বয়ে দশ হাজার পরিবারে এসহায়তা পৌঁছে দেয়া হবে।

এনএনকে ফাউন্ডেশনের সমন্বয়কারী আবদুর রউফ মাষ্টারের সভাপতিত্বে ও এমরুল করিম রাশেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান স্বজন কুমার তালুকদার, ইউএনও মাসুদুর রহমান, মেয়র শাহজাহান সিকদার, রাঙ্গুনিয়া সার্কেলের এএসপি আনোয়ার হোসেন শামীম, আওয়ামী লীগ নেতা মুহাম্মদ আলী শাহ, কামরুল ইসলাম চৌধুরী, আবুল কাশেম চিশতি, নজরুল ইসলাম তালুকদার, ইদ্রিছ আজগর, শফিকুল ইসলাম, জামাল উদ্দিন, ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার, আবদুল মোনাফ সিকদার, গিয়াস উদ্দিন খাঁন স্বপন, মাস্টার আসলাম খান, আক্তার খাঁন, আক্তার কামাল প্রমুখ।

সূত্র : প্রতিদিনের সংবাদ

পতেঙ্গায় তেলবাহী ট্যাংকারে আগুন, নিহত ২
                                  

অনলাইন ডেস্ক: চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় কর্ণফুলী নদীতে তেলবাহী একটি ট্যাংকারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আলমগীর ও নেজাম উদ্দিন নামের দুজনের মুত্যু হয়েছে। এ সময় দগ্ধ হয়েছেন আরও তিনজন।

কর্ণফুলী নদী সংলগ্ন গুপ্তখাল এলাকায় অবস্থান করা ইরাবতি জাহাজে আজ বৃহস্পতিবার সকালে এ অগ্নিকাণ্ড ঘটে। পরে নৌবাহিনী, বন্দর ও ফায়ার সাভির্সের তিনটি ইউনিট প্রায় তিন ঘণ্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

নৌবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আজ বৃহস্পতিবার সকালে তেলবাহী ট্যাংকারের ইঞ্জিন রুমে আগুনের সূত্রপাত হয়। এ সময় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এরপর জাহাজের ভেতর অবস্থান করা কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়ে বন্দরকে জানায়। পরে নৌবাহিনী, বন্দর ও ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট তিন ঘণ্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

সূত্র : এনটিভি

চট্টগ্রাম মেডিক্যালে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি
                                  

অনলাইন ডেস্ক: চট্টগ্রাম মেডিক‌্যাল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু করেছে।

বুধবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে চমেক কর্তৃপক্ষ, পুলিশ এবং ইন্টার্ন ডক্টর এসোসিয়েশনের সঙ্গে বৈঠকে সমস্যার কোনো সুরাহা না হওয়ায় ইন্টার্ন চিকিৎসকরা কর্মবিরতি চালিয়ে যাচ্ছে।

মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনার পর ইন্টার্ন চিকিৎসদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। এই ঘটনার জের ধরে বুধবার সকাল থেকে পূর্বঘোষণা ছাড়াই কর্মবিরতি শুরু করেন ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

কর্মবিরতির সত্যতা স্বীকার করে চমেক হাসপাতালে পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হুমায়ুন কবির বলেন, ‘ইন্টার্ন চিকিৎসকদের সঙ্গে দুপুরে বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে তাদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছি আমরা। আশা করছি তারা কাজে যোগদান করবে।’

তবে ইন্টার্ন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য সচিব ডা. তাজওয়ার রহমান বলেন, ‘বৈঠকে দাবির ব্যাপারে কোনো সমাধান হয়নি। আমাদের কর্মবিরতি অব্যাহত থাকবে। আমাদের দাবি, মঙ্গলবার ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ওপর যারা হামলা চালিয়েছে তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে হবে। দাবি মানা না পর্যন্ত কর্মবিরতি চলমান থাকবে।’

সূত্র : রাইজিংবিডি

চট্টগ্রামে আরও ৭ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ২০৮
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ কয়েকদিন ধরে কমছে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা। সর্বশেষ গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৩৬১টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২০৮ জন।

এ নিয়ে মোট আক্রান্ত ৪৯ হাজার ৯৫ জন। এসময়ে করোনায় ৭ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদন বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত ২৫ এপ্রিল নমুনা পরীক্ষা করা হয় মাত্র ১ হাজার ৩৩০টি। এছাড়া ২৪ এপ্রিল নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১ হাজার ৮১০টি, ২৩ এপ্রিল ২ হাজার ২৪২টি, ২২ এপ্রিল ১ হাজার ৭৬৫টি, ২১ এপ্রিল ১ হাজার ৪৪৬টি, ২০ এপ্রিল ১ হাজার ৫৫৬টি এবং ১৯ এপ্রিল ১ হাজার ১৩৮টি।

সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ৮টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়। এর মধ্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২৫০টি নমুনা পরীক্ষা করে ৬০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ১২১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় ৩৫ জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ৪৪৭টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৭ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৭ জনের শরীরের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ২০৮টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩০ জন, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৯৬টি নমুনা পরীক্ষা করে ২০ জন, জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ২৭টি নমুনা পরীক্ষায় ১২ জন এবং চট্টগ্রাম মেডিক্যাল সেন্টারে ২৪টি নমুনা পরীক্ষায় ৭ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন।

এদিন ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাব এবং কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের কোনও নমুনা পরীক্ষা করা হয়নি।

সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৩৬১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে আক্রান্ত হয়েছেন ২০৮ জন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ১৫৯ জন এবং উপজেলায় ৪৯ জন। এ পর্যন্ত সর্বমোট মৃত্যু হয়েছে ৫০৪ জনের। এর মধ্যে নগরে ৩৭৫ জন এবং উপজেলায় ১২৯ জন।

সূত্র : বাংলানিউজ

কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্বামী-স্ত্রীসহ ৩ খুন
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ কক্সবাজারের উখিয়া কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে পারিবারিক কলহের জের ধরে স্বামী-স্ত্রীসহ তিনজন খুন হয়েছে। নিহত তিনজনের দুইজন স্বামী-স্ত্রী ও অপরজন শ্যালিকা বলে বলে জানা গেছে।

শুক্রবার বিকাল ৫টার দিকে কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে এ লোমহর্ষক ঘটনা ঘটে। নিহত তিন রোহিঙ্গারা হচ্ছে কুতুপালং মেগা ক্যাম্পের ২/ইষ্ট ক্যাম্পের ডি – ৭ ব্লকের আলী হোসেনের ছেলে নুরুল ইসলাম (৩২) তার স্ত্রী আবদুল হাইয়ের মেয়ে মরিয়ম বেগম (২৬) ও নুরুল ইসলামের শ্যালিকা হালিমা খাতুন (২২)।

কুতুপালং উক্ত ক্যাম্পের আইন শৃঙ্খলার দায়িত্বে থাকা ১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটেলিয়ন (এপিবিএন) অধিনায়ক পুলিশ সুপার নাইমুল হক খুনের ঘটনা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, পারিবারিক কলহের জের ধরে স্বামী-স্ত্রী ও শ্যালিকাসহ তিনজন খুন হয়েছে।

ধারনা করা হচ্ছে প্রথমে স্বামী স্ত্রীকে গলাকেটে হত্যা করে পরে স্বামী ও শ্যালিকা একে অপরকে আঘাত করলে দুইজনই নিহত হন।

প্রতিবেশী ও নিহতের আত্মীয় স্বজনরা জানান, বেশ কিছুদিন ধরে স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ চলে আসছে। তাদের সংসারে ৩টি শিশুও রয়েছে। স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদের ব্যাপারে স্থানীয়ভাবে বেশ কয়েকবার বৈঠক হয়েছে। কিন্তু যারা ব্লক ও হেড মাঝি আছে তারা যথাসময়ে শালিস বিলম্বিত করায় এ খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে তাদের অভিমত।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ সঞ্জুর মোর্শেদ জানান শরণার্থী শিবিরে তিন খুনের ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ তিন জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে। প্রাথমিকভাবে পারিবারিক কলহের জেরে এই খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেলেও বিস্তারিত তদন্তের পর নেপথ্যে কোন বিষয় থাকলে জানা যাবে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে টেকনাফের ২৭ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের কাছে দমদমিয়া ন্যাচার পার্ক এলাকায় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গুলিতে বাংলাদেশি এক সিএনজি অটোরিকশা চালক নিহত হয়। গুলিবিদ্ধ হয় আরও দুইজন।

সুত্রঃ যমুনা টিভি

চট্টগ্রামে নতুন করে করোনা আক্রান্ত ২৭৮, মৃত্যু ৩ জনের
                                  

অনলাইন ডেস্ক: গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৭৬৫টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২৭৮ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত ৪৮ হাজার ১৩৯ জন।

এসময়ে করোনায় ৩ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, এইদিন চট্টগ্রামে ৮টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৪৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) ৫৯৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হয় ৬২ জন। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) ল্যাবে ২৭১টি নমুনা পরীক্ষা করে ১২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ২৬৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ৫১ জনের শরীরের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ১৩৯টি নমুনা পরীক্ষা করে ৪১ জন, শেভরণ ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরিতে ২৫৩টি নমুনা পরীক্ষা করে ৪২ জন, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ল্যাবে ৫৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ১৭ জন, জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) ৪১টি নমুনা পরীক্ষা করে ২১ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন।

অন্যদিকে কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ ল্যাবে চট্টগ্রামের কোনো নমুনা পরীক্ষা করা হয়নি।

সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি জানান, ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৫৫৬ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪৭ জন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে নগরে ২৬৩ জন এবং উপজেলায় ৮৪ জন।

সূত্র : বাংলানিউজ

নূরের বিরুদ্ধে এবার কক্সবাজারে মামলা
                                  

অনলাইন ডেস্ক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে কক্সবাজারে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।ফেসবুক লাইভে এসে ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত করে উসকানিমূলক বক্তব্য ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের নিয়ে মানহানিকর মন্তব্যের অভিযোগে এ মামলা করা হয়। (মামলা নং ৪০/২৫৯- ২১ এপ্রিল ২০২১)।

বুধবার সন্ধ্যায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলাটি করেন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মইন উদ্দীন।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মুনীর উল গীয়াস বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে নুরের বিরুদ্ধে একটি মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

বাদী মইন উদ্দীনের অভিযোগ, নুর তারি নিজের ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে বাংলাদেশের অসংখ্য ধর্মপ্রাণ নেতাকর্মীদের ধর্মীয় মূল্যবোধ বা অনুভূতিতে উসকানি প্রদান, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোসহ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মানহানিকর ও আক্রমণাত্মক মন্তব্য করেছেন। এ কারণে তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ এপ্রিল বিকেলে ফেসবুক লাইভে এসে নুর বলেন, ‘কোনো মুসলমান আওয়ামী লীগ করতে পারে না। যারা এই আওয়ামী লীগ করে তারা চাঁদাবাজ, ধান্ধাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী, চিটার-বাটপার এ ধরনের মুসলমান। ‘আওয়ামী লীগের কেউ প্রকৃত মুসলমান না’ বলেও মন্তব্য করেন নুর। এই ঘটনায় এর আগে ঢাকা- সিলেট, চট্টগ্রাম ও রাজাহীতে নুরের বিরুদ্ধে মামলা হয়।

সূত্র : প্রতিদিনের সংবাদ

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের গুলি মিলছে কক্সবাজার বিমানবন্দর এলাকায়!
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ কক্সবাজার বিমান বন্দর সম্প্রসারণ কাজের বালু তুলতে গিয়ে বাঁকখালী নদীর মোহনায় আবারও এক হাজার ৫৮০টি গুলি উদ্ধার। শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) সন্ধ্যায় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর সদস্যরা গুলিগুলো উদ্ধার করেছে। এর আগে গত ১২ এপ্রিল ওই এলাকা থেকে দুই হাজার ১৯০টি গুলি উদ্ধার করেছিল। বিমান বাহিনীর কর্মকর্তা ও পুলিশের ধারণা, এসব গুলি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় মজুদ করা হয়েছিল।

কক্সবাজার বিমান বন্দরের ম্যানেজার আব্দুল্লাহ আল ফারুক জানান, বিমান বন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণ কাজ করছে চায়নার একটি কম্পানি। ওই কম্পানির নিয়োজিত ঠিকাদার বাঁকখালী নদীর নাজিরারটেক এলাকায় বালি ভরাটের কাজ করছে।

শুক্রবার বিকেলে বালু উত্তোলনের সময় শ্রমিকেরা মাটিতে গুলিগুলো দেখতে পায়। এসময় বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ বিমান বাহিনী শেখ হাসিনা ঘাটির উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের খবর দিলে বিমান বাহিনীর একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে এসব গুলি উদ্ধার করে।

পরে কক্সবাজার সদর থানার পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। সদর থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল থেকে গুলিগুলো থানায় নিয়ে আসে।

বিমান বাহিনীর একটি সূত্র জানিয়েছে, গত ১২ এপ্রিল পাওয়া দুই হাজার গুলি বস্তা ভর্তি নয় মাটির ভেতর গর্তের মতো করে জায়গায় রাখা অবস্থায় পাওয়া গেছে। পরে বস্তাভর্তি করে পুলিশকে হস্তান্তর করা হয়েছিল।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম জানান, এগুলো অনেক পুরনো গুলি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় এখানে বিমান ঘাঁটি ছিল। সে সময় হয়তো গুলিগুলো রাখা হয়েছিল।

এসব গুলির মধ্যে ত্রিনট ত্রি রাইফেল, মেশিন গান এবং পিস্তলের গুলি আছে। গুলির নমুনা সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের কাছে পাঠানো হবে এবং উক্ত জায়গায় এই গুলি কিভাবে আসলো এবং আরো গুলি আছে কিনা তা তদন্ত করে দেখা হবে।

সূত্র : বিডি২৪লাইভ

সৈকতে ভেসে এলো আরেকটি তিমির মরদেহ
                                  

অনলাইন ডেস্ক: কক্সবাজারের হিমছড়ি সৈকতে শুক্রবার দুপুরের জোয়ারের সাথে ভেসে আসা মরা তিমিটি একইদিন দিবাগত রাত ১টার দিকে মাটিতে পুতে ফেলা হয়েছে। গবেষণার জন্য হাড় ও অন্য প্রত্যঙ্গ সংগ্রহের আশায় পুঁতে ফেলা স্থানটি সংরক্ষণ করছেন সমুদ্র ও মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে, শুক্রবারের মরা তিমির দেহ পুঁতে ফেলার ৫ ঘণ্টার মাথায় আরও একটি মরা তিমির দেহাবশেষ বালিয়াড়িতে উঠে এসেছে। হিমছড়ি সৈকতের শুক্রবারের সেই স্থান হতে প্রায় ৫শ’ মিটার দক্ষিণে ক্ষুদ্রকায় তিমির মরদেহ জোয়ারের পানিতে এসে ভাটায় বালিতে আটকে গেছে। ২৫-৩০ ফুট লম্বা এ তিমিটিও অর্ধগলিত এবং দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। এমনটি জানিয়েছেন কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের সদর রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা সমীর কুমার সাহা।

তিনি জানান, শুক্রবার ভেসে আসা মৃত তিমির দেহাবশেষ সৈকতের বালিয়াড়িতে বিশাল গর্ত করে পুঁতে ফেলা হয়েছে। জোয়ারের পানিতে আবার ভেসে যাওয়া থেকে দেহটি আটকাতে বন বিভাগ শতাধিক শ্রমিক দিয়ে প্রচেষ্টা চালায়। এসময় প্রশাসনের বিভিন্ন বিভাগের কর্মী এবং উৎসুক জনতাও এতে সামিল হয়। কিন্তু সন্ধ্যা নামার পর উৎসুক জনতা ও অন্যান্য বিভাগের কর্মীরা ফিরে গেলেও বনবিভাগ, রামু উপজেলা প্রশাসন, মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট ও সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের সংশ্লিষ্টরা ঘটনাস্থলে অবস্থান করেন। ভেটেনারি সার্জনগণ ময়নাতদন্তের পর স্কেবেটরের সাহায্যে গর্ত করে বনবিভাগের লাগানো শতাধিক শ্রমিকের সহযোগিতায় মৃত দেহটি পুঁতে ফেলা হয়। রাত ১টার দিকে এ কার্যক্রম সম্পন্ন করে সংশ্লিষ্টরা বাসায় ফিরতে ২টা বেজে যায়।

রেঞ্জ কর্মকর্তা আরও জানান, শনিবার ভোর ৬টার দিকে একই সৈকতের ভিন্ন পয়েন্টে আরও একটি মৃত তিমির দেহাবশেষ বালিয়াড়িতে উঠে এসেছে। জোয়ার নেমে যাওয়ার পর এটি বালিতে আটকে আছে। শুক্রবারের তিমির চেয়ে এটি সাইজে ছোট। এটিও ক্ষতবিক্ষত, অর্ধগলিত। ধারণা করা হচ্ছে এটিও আগে মরে ভাসতে ভাসতে ঢেউয়ের তোড়ে তীরে উঠে এসেছে। দুর্গন্ধ বেশি ছড়ানোর আগেই গতকালের মতো এটিও পুঁতে ফেলার উদ্যোগ চলছে।

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের সিনিয়র বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও পিএইচডি ফেলো মোহাম্মদ আশরাফুল হক জানান, শুক্রবার তীরে উঠে আসা মরা প্রাণিটি ব্রাইড হুয়েল এবং এটি প্রাপ্ত বয়স্ক। নীল তিমি গ্রুপের একটি প্রজাতি হল ব্রাইড হুয়েল। এটি আমাদের বঙ্গোপসাগরেরই বাসিন্দা। তিমি সাধারণত দলবেঁধে চলে। কোন কারণে দলছুট হলে অনেক সময় তিমি মারা যায়। এটা এবং আজকেরটার (শনিবারে তীরে আসা) ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে এবং এসব তিমি আরও অন্তত ১০-১২দিন আগে মারা গেছে বলে ধারণা বিজ্ঞানী আশরাফের। কিন্তু তিমির মৃত্যুর সঠিক কারণ অজানা।

সূত্রমতে, পৃথিবীর সবচেয়ে বড় প্রাণী নীল তিমির ছবির সাথে প্রায় সকলেই পরিচিত হলেও বাস্তবে মাছটি দেখেছেন দেশের খুব কম মানুষই। এমনকি সমুদ্র উপকূলীয় জেলা কক্সবাজারের মানুষও কদাচিৎ দেখে থাকেন মাছটি। শুক্রবার দুপুরে সামুদ্রিক জোয়ারের সাথে ভেসে আসে ৪৫ ফুট দীর্ঘ মরাপঁচা নীল তিমি। শনিবার সকালেও এসেছে আরও একটি তিমির নিথর দেহাবশেষ। ঘটনাগুলো স্থানীয়দের নজরে এলে বাস্তবে তিমি দেখতে সেখানে ধীরে ধীরে উৎসুক মানুষের ভিড় জমে। গণমাধ্যম ও ফেসবুকের বদৌলতে খবরটি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে কক্সবাজার শহর, রামু, উখিয়া, টেকনাফ এমনকি চকরিয়া থেকেও উৎসুক মানুষ হিমছড়ি সৈকতে এসে হাজির হয়। ঘটনাস্থলে আসেন জেলা প্রশাসন, পরিবেশ অধিদপ্তর, বনবিভাগ, র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবি ও কোস্টগার্ডের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছাড়াও বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউট ও বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীরা। ময়নাতদন্তের জন্য আসেন জেলা প্রাণিসম্পদ ও ওয়াইল্ড লাইফ বিভাগের সার্জনসহ একদল কর্মকর্তা-কর্মচারী।

তীরে ভেসে আসা মরা নীল তিমির কঙ্কাল শিক্ষা ও গবেষণার উদ্দেশ্যে সংরক্ষণ করা উচিৎ মন্তব্য করে পরিবেশবাদী সাংবাদিক আহমদ গিয়াস বলেন, এর আগে ১৯৯০ সালের এই সময়ে শহরের লাবণী পয়েন্ট সৈকতে ভেসে এসেছিল একটি মরা নীল তিমি। যেটি ছিল আকারে প্রায় ৬৫ ফুট। সেই তিমির কঙ্কাল সংরক্ষণ করা হয়েছিল।

রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) প্রণয় চাকমা বলেন, মাটিতে পুতে ফেলা তিমির দেহাবশেষের প্রয়োজনীয় অংশ সমুদ্র ও মৎস্য বিজ্ঞানীদের পরামর্শে শিক্ষা ও গবেষণার কাজে ব্যবহারের লক্ষ্যে সংরক্ষণ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। মাংস পঁচে গেলে হাড়গুলো তুলে যেন সংরক্ষণ করা যায় সেই লক্ষ্যে পুঁতে ফেলা অংশটি ঘিরে রাখা হয়েছে। আজকে (শনিবার) ভেসে আসা তিমির দেহাবশেষও একই পদ্ধতিতে পুঁতে ফেলার উদ্যোগ চলছে।

সুত্র ঃ ইত্তেফাক 

গণপরিবহন না পেয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ গণপরিবহন না পেয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের রায়েরবাগ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অবরোধ করেছেন অফিস ও কর্মস্থলগামী মানুষ। এতে রাস্তায় যানজটের সৃষ্টি হয়। আজ সোমবার (৫ এপ্রিল) সকাল ৯টার দিকে তারা সড়কে অবস্থান নিয়ে অবরোধ শুরু করেন। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পুলিশ এসে অবরোধকারীদের সরিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক করে।

অবরোধকারীরা বলেন, সড়কে প্রায় সব ধরনের যানবাহনই চলাচল করছে। বিশেষ করে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব বাহন, ব্যক্তিগত গাড়ি এবং ট্রাক চলছে স্বাভাবিকভাবেই। সরকারের নির্দেশনার কারণে প্রায় সব কারখানা খোলা রয়েছে। কিন্তু শ্রমিক-কর্মচারীদের যাতায়াতের জন্য গাড়ির তেমন কোনো ব্যবস্থা নেই। এ অবস্থায় তাদের কর্মস্থল খোলা থাকলেও তারা পরিবহন সংকটে গন্তব্যে পৌঁছাতে পারছেন না।

সকালে রাজধানীর কয়েকটি এলাকার সড়কে ব্যক্তিগত গাড়ির আধিক্য দেখা গেছে। এছাড়া, রিকশা ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা চলাচল করছে। সড়কে মানুষের উপস্থিতি কম। তবে সীমিত পরিসরে অফিস খোলা থাকায় অনেকে বের হয়েছেন। কেউবা ব্যক্তিগত কাজে ঘর থেকে বের হয়েছেন। অনেকে আবার আজও কোনো না কোনোভাবে গ্রামের বাড়ি যাওয়ার আশায় বের হয়ে পড়েছেন।

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী ১১ এপ্রিল রাত ১২টা পর্যন্ত গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে দোকানপাট, শপিংমল। কেবল ওষুধ ও খাবারের দোকান খোলা থাকবে। রোববার (৪ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

ফেনীতে একসঙ্গে ৪ শিশুর জম্ম
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ ফেনীর একটি ক্লিনিকে একসঙ্গে চার নবজাতকের জম্ম দিয়েছেন এক গৃহবধু। এদের মধ্যে ২টি ছেলে সন্তান ও ২ জন মেয়ে।

শুক্রবার বিকালে ওই শিশুদের জম্ম হয়। বর্তমানে মা ও তার সন্তানরা ভালো আছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকালে প্রসব বেদনা উঠলে নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার জান্নাতুল ফেরদৌস নামের এক গৃহবধু ফেনীর শহরের দেবীপুরে অবস্থিত প্রাইভেট হাসপাতাল ল্যাপারোস্কোপি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে স্বাভাবিকভাবে গাইনি বিশেষজ্ঞ ডা. আবদুল কাইয়ুমের তত্ত্বাবধানে ৪ সন্তানের জন্ম দেন।

শিশুদের বাবা ফরহাদ হোসেন নিজেকে ভাগ্যবান আখ্যায়িত করে বলেন, আল্লাহ সহায় হলে সব শিশুকে লালন পালন করতে অসুবিধা হবে না। এ ঘটনায় স্বজনদের সবার মধ্যেই আনন্দের বন্যা বইছে।
গ্রামবাসীর ঘরে আগুন দিতে গিয়ে রোহিঙ্গা নারী আটক
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ কক্সবাজারের টেকনাফে গ্রামবাসীর ঘরে আগুন লাগাতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়েছেন এক রোহিঙ্গা নারী। এ ঘটনার পর এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।গত মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) রাত ৯টার দিকে টেকনাফের লেদা ২৪ নম্বর ক্যাম্প এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা ঘটনাস্থল থেকে রোহিঙ্গা নারীকে আটক করে ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন সদস্যদের হাতে সোপর্দ করে।

কেরোসিন দিয়ে বসতঘরে আগুন লাগানোর সময় হাতেনাতে ধরা পড়া রোহিঙ্গা নারীর নাম রকিমা খাতুন (৫০)। তার কাছ থেকে এ সময় কেরোসিনসহ আগুনের সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

আটক রকিমা খাতুন নয়াপাড়া রেজিস্ট্রার্ড ক্যাম্পের বি-ব্লকের ১০৫৪ নম্বর শেডের মৃত আব্দুল গফুরের স্ত্রী। ধারণা করা হচ্ছে, কোনো উগ্রপন্থী সংগঠন লোভের ফাঁদে ফেলে এই নারীকে নাশকতামূলক কাজে ব্যবহার করছিল।

এ বিষয়ে ১৬ এপিবিএন অধিনায়ক (পুলিশ সুপার) তারিকুল ইসলাম তারিক জানান, মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে লেদা ক্যাম্প সংলগ্ন স্থানীয় বাসিন্দা মো. এজাহার মিয়ার বাঁশের ঘরে আগুন লাগানোর উদ্দেশ্যে কেরোসিন তেল ঢালার সময় ওই নারীকে দেখতে পায় ওই বাড়ির এক ছেলে। পরে পালিয়ে যাওয়ার সময় বাড়ির মালিক ও স্থানীয়রা ওই নারীকে আটক করে। টহলরত এপিবিএনের সদস্যরা আটক নারীকে জিজ্ঞাসাবাদের পর মামলা দায়ের করে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করেছে।

বাঘাইছড়িতে জেএসএস’র সামরিক কমান্ডারকে গুলি করে হত্যা
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় জেএসএস এমএন লারমা দলের কমান্ডার বিশ্ব চাকমা ওরফে যুদ্ধকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে উপজেলার বাবুপাড়া এলাকায় সহকর্মী সুজন চাকমা তাকে গুলি করে হত্যা করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

এ সময় ঘাতক সুজন চাকমা যুদ্ধকে হত্যা করে তার সঙ্গে থাকা সাব মেশিন গান (এসএমজি) ও একে- ৪৭ রাইফেল, থ্রি-টু পিস্তল এবং ২৫৭ রাউন্ড গোলাবারুদ নিয়ে পালিয়ে গেছে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

বাঘাইছড়ি উপজেলার জেএসএস এমএন লারমা দলের সভাপতি জ্ঞানজীব চাকমা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সুজন চাকমা দলের ভেতর জেএসএস সন্তু লারমা দলের গুপ্তচর ছিলেন। সন্তু লারমা দলের ইন্ধনে সে আমাদের দলের লোককে হত্যা করে অস্ত্র গোলাবারুদ নিয়ে পালিয়ে গেছে।

বাঘাইছড়ি থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন খান বলেন, খবর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে।

সূত্র : যুগান্তর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সরকারি স্থাপনায় হামলা, ভাঙচুর-আগুন
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়েছে। আজ রোববার বেলা ১১টার পর থেকে জেলা সদর, আশুগঞ্জ, সরাইলের একাধিক স্থানে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারীরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালায়। তারা সরকারি সম্পদ ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল থেকেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানা মসজিদ থেকে শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন এবং কোথাও হামলা না করার আহ্বান জানানো হয়েছিল। কিন্তু বেলা ১১টার পর জেলা পরিষদ ভবনে আগুন দেওয়া হলে সেখানে এসির বিস্ফোরণ হয়। সুরসম্রাট আলাউদ্দিন সংগীতাঙ্গন, পৌরসভায় ভাঙচুর ও আগুন দেওয়া হয়। আগুন দেওয়া হয় সদর উপজেলা ভূমি কার্যালয়ে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশনে আশপাশের ড্রেন থেকে কংক্রিটের স্ল্যাব উঠিয়ে রেললাইনে রাখা হয়েছে, যেন ট্রেন চলাচল করতে না পারে। স্টেশনের কাছের রেলগেটের ব্যারিকেড বাঁকা করে লাইনের ক্ল্যাম খুলে ফেলা হয়েছে। তালশহর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশনের মাঝখানে একটি সেতুতেও আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবেও হামলা হয়েছে, কাচ ভেঙে ফেলা হয়েছে। প্রেসক্লাবের সভাপতি দৈনিক জনকণ্ঠের স্টাফ রিপোর্টার রিয়াজউদ্দিন জামি প্রেসক্লাবে ঢোকার সময় তার ওপর হামলা করা হলে তিনি মাথায় আঘাত পান। ছয়টি সেলাই লেগেছে।

আশুগঞ্জ সৈয়দ নজরুল ইসলাম সেতুর টোল প্লাজায় থাকা পুলিশ ফাঁড়িতে আক্রমণ করে হরতাল সমর্থনকারীরা। এ সময় পুলিশ ফাঁড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে। টোল আদায়ের বুথ ভাঙচুর করা হয়। সরাইলের বিশ্বরোড এলাকায় পুলিশ ফাঁড়িতে হামলার ঘটনা ঘটেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ এবং হরতালের প্রতিবাদে দুপুর ১২টার দিকে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করেন।

সূত্র: আমাদের সময়

কক্সবাজার পর্যন্ত যাবে বুলেট ট্রেন
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ বহু বছরের বঞ্চনা, জনম জনমের প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে স্বাধীনতার দূত শুনিয়েছিলেন মুক্তির গান। ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম’। মুক্তির সেই মন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে পুনর্জন্ম হয়েছে একটি জাতির। রক্তবন্যা পেরিয়ে ধ্বংসস্তূপ থেকে শুরু হওয়া শাপমুক্তি পথের বাঁকে বাঁকে ছিল ষড়যন্ত্র আর চক্রান্ত। কিন্তু মুক্তিপাগল বাঙালিকে থামানো যায়নি, অমঙ্গলের বিষদাঁত ভেঙে ঘুরে দাঁড়িয়েছে নতুন সূর্য হাতে, ছড়িয়েছে নতুন আলো বিশ্বভুবনে। জীবনমান, অর্থনীতি, অবকাঠামোসহ বহু খাতে পেছনে ফেলেছে প্রতিবেশীদের। ঢাকা পোস্টের ধারাবাহিক উন্নয়নের গল্পগাথায় আজ থাকছে রেল খাতের সার্বিক উন্নয়ন…

ঢাকা-কক্সবাজার রেলপথ নির্মাণ করে বুলেট ট্রেন চালুর উদ্যোগ নিয়েছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। শুরুতে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম রুটে ২২৭ কিলোমিটার উড়াল রেলপথ নির্মাণের পরিকল্পনা হয়। পরবর্তী সময়ে এর দৈর্ঘ্য কক্সবাজার পর্যন্ত বাড়ানো হয়। ফলে এ রেলপথের দৈর্ঘ্য ৩০০ কিলোমিটার দাঁড়ায়।

প্রতিদিন এ রেলপথে ৫০ হাজার যাত্রী পরিবহন করা সম্ভব হবে বলে মনে করছেন প্রকল্পসংশ্লিষ্টরা। তারা জানান, বুলেট ট্রেনে যাতায়াতে যাত্রীদের কিলোমিটারপ্রতি ১০ টাকা ভাড়া নেওয়ার প্রস্তাব হয়েছে। সে হিসাবে ঢাকা থেকে কক্সবাজার যেতে লাগবে প্রায় তিন হাজার টাকা।

বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, এ রেলপথে থাকবে স্বয়ংক্রিয় সিগন্যালিং ব্যবস্থা। ট্রেনের গতিবেগ হবে ঘণ্টায় ৩০০ কিলোমিটার। এ প্রকল্পে প্রাথমিকভাবে প্রায় ৯৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। কক্সবাজার পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণ হলে ব্যয় আরও বেড়ে যাবে।

এ রেলপথ নির্মাণে বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছে চায়না রেলওয়ে কনস্ট্রাকশন করপোরেশন (সিরোসিসই) ও চায়না সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন করপোরেশন (সিসিইসিসি)। উভয় প্রতিষ্ঠান রেলপথ নির্মাণের পর পাঁচ বছর পরিচালনা করতে চায়। অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগে (ইআরডি) এ প্রস্তাব পাঠাচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

সিরোসিসই ও সিসিইসিসি তাদের প্রস্তাবে বলেছে, যৌথভাবে তারা কোম্পানি গঠন করবে। উভয় প্রতিষ্ঠান বিনিয়োগ করবে রেলপথ নির্মাণের জন্য। এ বিনিয়োগ ঋণ হিসেবে পরিশোধ করতে হবে বাংলাদেশকে। ঋণ পরিশোধের মেয়াদ হবে ২০ বছর।

ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম পর্যন্ত প্রস্তাবিত রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পের নাম প্রস্তাব করা হয় ‘ডেভেলপমেন্ট অব ঢাকা-চট্টগ্রাম ভায়া কুমিল্লা/লাকসাম হাইস্পিড রেলওয়ে’। সম্প্রতি রেলপথমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন রেল ভবনে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথ কক্সবাজার পর্যন্ত বাড়ানোর প্রস্তাব বাস্তবায়ন হচ্ছে। বুলেট ট্রেন পরিচালনার জন্য নতুন রেলপথ নির্মাণ করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রকল্প পরিচালক কামরুল আহসান ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমরা আগামী বছর (২০২২ সাল) রেলপথ নির্মাণের কাজ শুরু করতে চাই।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ রেলওয়ে ঢাকা-চট্টগ্রামে হাইস্পিড ট্রেন চলাচলের রেলপথ নির্মাণের লক্ষ্যে সম্ভাব্যতা সমীক্ষা ও বিশদ ডিজাইন প্রকল্পের কাজ শুরু হয় ২০১৭ সালে। কাজটি শুরু করে চায়না রেলওয়ে ডিজাইন করপোরেশন ও মজুমদার এন্টারপ্রাইজ। এখন চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত রেলপথ করতে হলে নতুন করে সমীক্ষা ও বিশদ ডিজাইন করতে হবে। অবশ্য ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম পর্যন্ত রেলপথের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের খসড়া প্রতিবেদন সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ রেলওয়ের কাছে উপস্থাপন করেছে। এ রেলপথে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে পৌঁছাতে লাগবে ৫৫ মিনিট। 

চূড়ান্ত সমীক্ষা প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম রেলপথ নির্মাণে ৬২৫ হেক্টর জমি অধিগ্রহণের প্রয়োজন হবে।

চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্যের চাপ সামলাতে এবার বেসরকারি জেটি ব্যবহার
                                  

অনলাইন ডেস্কঃ করোনার ধাক্কা কাটিয়ে গত জানুয়ারি থেকে পণ্য আমদানির চাপ বাড়তে শুরু করেছে। বিশেষ করে শিল্পের কাঁচামাল আমদানি বাড়ছে। আসছে প্রকল্পের সরঞ্জাম ও যন্ত্রপাতি। এই চাপে সাধারণ পণ্যবাহী জাহাজের জট বাড়ছে বন্দরে। বন্দরের নিজস্ব জেটি দিয়ে এই জট সামাল দেওয়া যাচ্ছে না। চাপ সামলাতে তাই এবার বেসরকারি খাতের বিশেষায়িত জেটি ব্যবহারের উদ্যোগ নিয়েছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ।

বন্দর কর্মকর্তারা জানান, পরীক্ষামূলকভাবে কর্ণফুলীর দক্ষিণ পাড়ে বেসরকারি খাতের কর্ণফুলী ড্রাই ডক লিমিটেডের জাহাজ মেরামতের নতুন নির্মিত দুটি জেটি ব্যবহারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরপর আমদানিকারকদের চাহিদানুযায়ী পর্যায়ক্রমে সরকারি-বেসরকারি সংস্থার বিশেষায়িত জেটি ব্যবহারের চিন্তাভাবনা করছে বন্দর।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহান প্রথম আলোকে বলেন, পণ্য আমদানির চাপ বাড়লেও জাহাজ যাতে বহির্নোঙরে অপেক্ষা করতে না হয়, সে জন্যই এই উদ্যোগ। জাহাজ অলস বসে না থাকলে ক্ষতিপূরণ বাবদ বৈদেশিক মুদ্রাও ব্যয় করতে হবে না। দেশের টাকা দেশেই থাকবে। এ জন্য বন্দরের নিজস্ব জেটির বাইরে কর্ণফুলী ড্রাই ডক জেটির মতো সরকারি-বেসরকারি সংস্থার সব বিশেষায়িত জেটি ব্যবহারের আওতায় আনার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

জটের কারণে কয়েক বছর ধরে অনিয়মিতভাবে নৌবাহিনী পরিচালিত জাহাজ মেরামতকারী প্রতিষ্ঠান চিটাগাং ড্রাই ডকের জেটি ব্যবহার করে আসছে বন্দর। এ ছাড়া আমদানিকারকের চাহিদা অনুযায়ী বিচ্ছিন্নভাবে মাঝেমধ্যে আরও কয়েকটি সরকারি সংস্থার বিশেষায়িত জেটি ব্যবহার হতো। তবে বেসরকারি জেটি ব্যবহারের উদ্যোগ এবারই প্রথম।

বন্দর কর্মকর্তারা জানান, কর্ণফুলী নদীর দুই পাড়ে সাধারণ পণ্যবাহী জাহাজ ভেড়ানোর বিশেষায়িত জেটি রয়েছে ১০টি। এর মধ্যে বেসরকারি খাতের তিনটি এবং পাঁচটি সরকারি সংস্থার সাতটি জেটি রয়েছে। বন্দরের জমি লিজ নিয়ে এসব জেটি নির্মাণ করেছে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো। কর্ণফুলী ড্রাই ডকের জেটি দুটি নতুন নির্মাণ হয়েছে এ মাসে। এসব জেটি ব্যবহার হলে মাশুলের ভাগ পাবে সংশ্লিষ্ট সংস্থাও।

বন্দরের তথ্যে দেখা যায়, নতুন দুটি বাদে গত বছর আটটি জেটির ব্যবহারের হার ছিল গড়ে ৩২ শতাংশ। অর্থাৎ বছরের ২৪৮ দিন এসব জেটি ব্যবহারই হয়নি। নিজেদের পণ্য না থাকায় এসব জেটি খালি ছিল। অন্যদিকে বন্দরের সাধারণ পণ্য ওঠানো-নামানোর নিজস্ব ছয়টি জেটি গত বছর ব্যবহারের হার ছিল সাড়ে ৯৬ শতাংশ। অর্থাৎ জোয়ারের সময় জাহাজ আসা-যাওয়ার বিরতি ছাড়া জেটি খালি ছিল না এক দিনও।

বহির্নোঙরে যেসব পণ্য খালাসে অসুবিধা, সেগুলোই মূলত জেটিতে এনে খালাস করা হয়। সাধারণ পণ্যবাহী জাহাজ থেকে পণ্য খালাসের জন্য বন্দরের নিজস্ব জেটি রয়েছে ছয়টি। এই ছয়টিতে বড়জোর পাঁচটি জাহাজ ভিড়ানো যায়। পণ্য আমদানি বাড়ায় জেটি সংকটে বছরের বেশির ভাগ সময় বহির্নোঙরে এ ধরনের জাহাজগুলোকে অপেক্ষায় থাকতে হয়। আমদানি পণ্যের চাপের সঙ্গে এ বছর যুক্ত হয়েছে চালবাহী জাহাজ। এখন বন্দরে প্রায়ই সরকারি চালবোঝাই জাহাজ থেকে চাল খালাসকে সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার দিতে হচ্ছে। জাহাজ থেকে চাল খালাসে সময়ও লাগে বেশি। অথচ খাদ্য বিভাগের বিশেষায়িত জেটি থাকলেও সেখানে জাহাজ ভিড়ানো হচ্ছে না।

আবার গত ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পুরোনো লোহার টুকরাবাহী প্রতিটি জাহাজ গড়ে ১৫ দিন অপেক্ষার পর জেটিতে ভিড়ানো হয়েছে। মাঝারি আকারের এসব জাহাজের ভাড়া এখন দিনে ১১-১২ হাজার ডলার। তাতে একেকটি জাহাজের ক্ষতিপূরণ বাবদ লাখ ডলারের বেশি অর্থ বাড়তি খরচ করতে হয়েছে আমদানিকারকদের। এই মাশুল পরোক্ষভাবে দিচ্ছেন ভোক্তারা। এ পরিস্থিতিতে বিশেষায়িত জেটি ব্যবহার করতে চাইছেন আমদানিকারকেরাও।

জানতে চাইলে বিএসআরএম গ্রুপের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক তপন সেনগুপ্ত প্রথম আলোকে বলেন, বিশেষায়িত জেটি ব্যবহার হলে অবশ্যই সুফল পাবেন শিল্পের কাঁচামাল আমদানিকারকেরা। জেটিতে ভিড়ানোর অপেক্ষায় বহির্নোঙরে জাহাজ অলস বসে থাকার জন্য বৈদেশিক মুদ্রায় ক্ষতিপূরণ দিতে হবে না। জাহাজ যদি দ্রুত খালাস করে বন্দর ছেড়ে যায়, তাহলে বিদেশে এই বন্দরের ভাবমূর্তি বাড়বে।


   Page 1 of 7
     চট্টগ্রাম
বিএনপি টিভি পর্দায় আছে, জনগণের পাশে নেই: তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী
.............................................................................................
পতেঙ্গায় তেলবাহী ট্যাংকারে আগুন, নিহত ২
.............................................................................................
চট্টগ্রাম মেডিক্যালে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি
.............................................................................................
চট্টগ্রামে আরও ৭ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ২০৮
.............................................................................................
কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্বামী-স্ত্রীসহ ৩ খুন
.............................................................................................
চট্টগ্রামে নতুন করে করোনা আক্রান্ত ২৭৮, মৃত্যু ৩ জনের
.............................................................................................
নূরের বিরুদ্ধে এবার কক্সবাজারে মামলা
.............................................................................................
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের গুলি মিলছে কক্সবাজার বিমানবন্দর এলাকায়!
.............................................................................................
সৈকতে ভেসে এলো আরেকটি তিমির মরদেহ
.............................................................................................
গণপরিবহন না পেয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ
.............................................................................................
ফেনীতে একসঙ্গে ৪ শিশুর জম্ম
.............................................................................................
গ্রামবাসীর ঘরে আগুন দিতে গিয়ে রোহিঙ্গা নারী আটক
.............................................................................................
বাঘাইছড়িতে জেএসএস’র সামরিক কমান্ডারকে গুলি করে হত্যা
.............................................................................................
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সরকারি স্থাপনায় হামলা, ভাঙচুর-আগুন
.............................................................................................
কক্সবাজার পর্যন্ত যাবে বুলেট ট্রেন
.............................................................................................
চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্যের চাপ সামলাতে এবার বেসরকারি জেটি ব্যবহার
.............................................................................................
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন
.............................................................................................
চট্টগ্রামে পুলিশের উদ্যোগে ৮ লক্ষাধিক মাস্ক বিতরণ
.............................................................................................
কক্সবাজারের চকরিয়ায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে ৩ ভাইবোনের মৃত্যু
.............................................................................................
কক্সবাজারের চকরিয়ায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে ৩ ভাইবোনের মৃত্যু
.............................................................................................
টেকনাফে বিজিবির সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২
.............................................................................................
ফেনীতে ভয়াবহ বিস্ফোরণে মা-মেয়েসহ দগ্ধ ৩
.............................................................................................
পুকুর পাড়ের ঝোপে যুবকের লাশ
.............................................................................................
এক বছরের মধ্যে চট্টগ্রামের সব সমস্যা নিরসন : সুজন
.............................................................................................
চট্টগ্রামে চিপস কারখানার আগুন ছয় ঘণ্টার চেষ্টায় নিভল
.............................................................................................
চট্টগ্রামে করোনা হাসপাতালের ৫৯ শতাংশ শয্যাই খালি
.............................................................................................
টানা বৃষ্টিতে চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতা, ভূমিধসের আশঙ্কা
.............................................................................................
চট্টগ্রামে ১০০ দিনে করোনা শনাক্ত ১১,৪৯০
.............................................................................................
চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত সাড়ে নয় হাজার ছাড়াল
.............................................................................................
চট্টগ্রামে আরো ২৭১ জনের করোনা শনাক্ত
.............................................................................................
ঘুমের ওষুধ-স্যালাইনেই হাসপাতালের বিল ৯৪ হাজার টাকা!
.............................................................................................
৭০ শয্যার অত্যাধুনিক আইসোলেশন সেন্টার গড়েছেন ৭ ভাই
.............................................................................................
চট্টগ্রামে চিকিৎসক সংক্রমণ ও মৃত্যু আশঙ্কাজনকভাবে বেড়েছে
.............................................................................................
চসিক নির্বাচনে লেমিনেটেড পোস্টার ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা
.............................................................................................
চট্টগ্রাম রেঞ্জে শ্রেষ্ঠ এসআই নির্বাচিত টেকনাফ থানার মশিউর
.............................................................................................
চট্টগ্রামে ছড়িয়ে পড়েছে নির্বাচনী হাওয়া
.............................................................................................
চট্টগ্রামে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধ ৩
.............................................................................................
সিলেট-আখাউড়া রেলের কাজ দ্রুত শুরু হবে: রেলমন্ত্রী
.............................................................................................
চট্টগ্রামে বস্তিতে আগুন, ক্ষতিগ্রস্ত ২ শতাধিক পরিবার
.............................................................................................
কক্সবাজার শহরকে ‘ব্যয়বহুল’ ঘোষণা
.............................................................................................
সীতাকুণ্ডে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ম শিক্ষক গ্রেফতার
.............................................................................................
চট্টগ্রামে বন্য হাতির আক্রমণে ৩ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
চট্টগ্রামে হিযবুত তাহরীরের নেতৃত্বে ক্যান্টনমেন্ট স্কুলের শিক্ষক!
.............................................................................................
চট্টগ্রামে ভবনে বিস্ফোরণ নিয়ে ‘ধূম্রজাল’
.............................................................................................
‘সকালে চুলা জ্বালাতেই গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণ’
.............................................................................................
চট্টগ্রামে গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণ, নিহত ৭
.............................................................................................
চট্টগ্রামের সঙ্গে ঢাকা-সিলেটের রেল যোগাযোগ বন্ধ
.............................................................................................
খাগড়াছড়িতে আ.লীগ নেতার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
.............................................................................................
চট্টগ্রামে টেম্পুর ধাক্কায় স্কুলছাত্রী আহত, মহাসড়ক অবরোধ
.............................................................................................
চট্টগ্রামে সুপার শপে আগুন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop