| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * লকডাউনে বিয়ে: ইউএনও`র আগমনে খাবার রেখেই পালালো বরযাত্রী   * বার্সেলোনার সঙ্গে নেইমারের নতুন চুক্তি   * বগুড়ায় করোনায় নার্সের মৃত্যু   * একদিনে সর্বোচ্চ ১২৩ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি   * চট্টগ্রামে বিধিনিষেধ অমান্য করায় ২১৮ মামলা, জরিমানা লাখ টাকা   * জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের মার্কেটে আগুন   * তিউনিসে আল-জাজিরার ব্যুরো অফিসে অভিযান   * স্বজনের লাশ দেখতে গিয়ে সড়কে ঝরল নারীর প্রাণ   * কক্সবাজারের ঈদগাঁও-কে নতুন উপজেলা ঘোষনা   * করোনায় করণীয় নিয়ে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক বসছে  

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
তিউনিসে আল-জাজিরার ব্যুরো অফিসে অভিযান

অনলাইন ডেস্ক : তিউনিসিয়ায় প্রধানমন্ত্রী হিচাম মেচিচিকে বরখাস্ত করে সংসদ বিলুপ্ত ঘোষণা করার ঘটনায় দেশটিতে সংকট দেখা দিয়েছে।

সোমবার পার্লামেন্ট ভবনের সামনে ইন্নাহদা পার্টি এবং প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন।

এরমধ্যেই রাজধানী তিউনিসে আল জাজিরার ব্যুরো দফতরে অভিযান চালিয়েছে দেশটির পুলিশ। সেখান থেকে সব কর্মীকে বের করে দিয়ে তাদের ফোন বন্ধ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে অন্যান্য সরঞ্জাম বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

তিউনিসিয়ায় আল জাজিরার ব্যুরো প্রধান লতিফ হাজি বলেন, এ ধরনের তল্লাশির কোনো নোটিশ আমাদের আগে দেওয়া হয়নি।

তিউনিসের আল জাজিরার সাংবাদিকরা বলেন, অন্তত ২০ জন সশস্ত্র পুলিশ কার্যালয়ে প্রবেশ করে। কিন্তু তাদের কাছে অভিযানের পরোয়ানা ছিল না।

এই অভিযানে অংশ নেওয়া নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা বলেন, বিচার বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী তারা এ অভিযান চালাচ্ছেন। একই সঙ্গে সেখান থেকে সব সাংবাদিককে বের করে দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে বিক্ষোভের মুখে তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিচাম মেচিচিকে বরখাস্ত করে সংসদ বিলুপ্ত ঘোষণা করেন প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদ।

রোববার প্রেসিডেন্ট সাঈদ জানান, নতুন একজন প্রধানমন্ত্রীর সহায়তায় তিনি নির্বাহী ক্ষমতা গ্রহণ করবেন।

এ ঘোষণার পর পার্লামেন্ট ভবন ঘিরে রেখেছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা। তারা স্পিকারকে সংসদে প্রবেশ করতে দেয়নি।

তিউনিসিয়ার সংসদের স্পিকার রাশেদ ঘানুচি প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থানের অভিযোগ তুলেছেন।

তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট বিপ্লব ও সংবিধানের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থান করেছেন। আমি আশা করি এখনও প্রতিষ্ঠান টিকে আছে।

সংসদের ফেসবুক পেজে দেওয়া এক বিবৃতিতে ঘানুচি বলেন, প্রেসিডেন্টের এ পদক্ষেপ অসাংবিধানিক, অবৈধ এবং ভিত্তিহীন। সংসদ এখনও বহাল রয়েছে এবং সংসদের যে কাজ তা চলবে।

তিউনিসে আল-জাজিরার ব্যুরো অফিসে অভিযান
                                  

অনলাইন ডেস্ক : তিউনিসিয়ায় প্রধানমন্ত্রী হিচাম মেচিচিকে বরখাস্ত করে সংসদ বিলুপ্ত ঘোষণা করার ঘটনায় দেশটিতে সংকট দেখা দিয়েছে।

সোমবার পার্লামেন্ট ভবনের সামনে ইন্নাহদা পার্টি এবং প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন।

এরমধ্যেই রাজধানী তিউনিসে আল জাজিরার ব্যুরো দফতরে অভিযান চালিয়েছে দেশটির পুলিশ। সেখান থেকে সব কর্মীকে বের করে দিয়ে তাদের ফোন বন্ধ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে অন্যান্য সরঞ্জাম বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

তিউনিসিয়ায় আল জাজিরার ব্যুরো প্রধান লতিফ হাজি বলেন, এ ধরনের তল্লাশির কোনো নোটিশ আমাদের আগে দেওয়া হয়নি।

তিউনিসের আল জাজিরার সাংবাদিকরা বলেন, অন্তত ২০ জন সশস্ত্র পুলিশ কার্যালয়ে প্রবেশ করে। কিন্তু তাদের কাছে অভিযানের পরোয়ানা ছিল না।

এই অভিযানে অংশ নেওয়া নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা বলেন, বিচার বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী তারা এ অভিযান চালাচ্ছেন। একই সঙ্গে সেখান থেকে সব সাংবাদিককে বের করে দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে বিক্ষোভের মুখে তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিচাম মেচিচিকে বরখাস্ত করে সংসদ বিলুপ্ত ঘোষণা করেন প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদ।

রোববার প্রেসিডেন্ট সাঈদ জানান, নতুন একজন প্রধানমন্ত্রীর সহায়তায় তিনি নির্বাহী ক্ষমতা গ্রহণ করবেন।

এ ঘোষণার পর পার্লামেন্ট ভবন ঘিরে রেখেছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা। তারা স্পিকারকে সংসদে প্রবেশ করতে দেয়নি।

তিউনিসিয়ার সংসদের স্পিকার রাশেদ ঘানুচি প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থানের অভিযোগ তুলেছেন।

তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট বিপ্লব ও সংবিধানের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থান করেছেন। আমি আশা করি এখনও প্রতিষ্ঠান টিকে আছে।

সংসদের ফেসবুক পেজে দেওয়া এক বিবৃতিতে ঘানুচি বলেন, প্রেসিডেন্টের এ পদক্ষেপ অসাংবিধানিক, অবৈধ এবং ভিত্তিহীন। সংসদ এখনও বহাল রয়েছে এবং সংসদের যে কাজ তা চলবে।

দ. আফ্রিকায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালুর সিদ্ধান্ত
                                  

অনলাইন ডেস্ক : করোনা মহামারির কারণে দেয়া লকডাউন শিথিল করে বেশ কিছু বিধিনিষেধ তুলে নিচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা। একই সঙ্গে ব্যাপকভাবে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সবাইকে টিকার আওতায় আনতে যাচ্ছে দেশটি।

সোমবার (২৬ জুলাই) করোনা পরিস্থিতি নিয়ে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রপতি সিরিল রামাফোসা এ কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনায় নিয়ে সীমিত আকারে সামাজিক, শিক্ষা ও ধর্মীয় এবং বাণিজ্যিক কার্যক্রমে বেশ কিছু বিধিনিষেধ তুলে নিতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এতে প্রতিষ্ঠান ও জনসাধারণের সহযোগিতা করতে হবে। তা না হলে সরকার যে উদ্দেশে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা কোনো কাজে আসবে না।’

এই সময়ে রাষ্ট্রপতি সোমবার থেকে লকডাউন লেভেল তিন ঘোষণা করেন।

এতে বলা হয়, রাত ১০টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত কারফিউ থাকবে। রাত ৯টার মধ্যে রেস্টুরেন্ট ও দোকানপাট বন্ধ করতে হবে। মসজিদ, চার্চসহ ধর্মীয় উপাসনালয়গুলোতে ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক মানুষ উপস্থিত হওয়া যাবে। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাসা-বাড়িতে ৫০ জন ও খোলা মাঠে ১০০ জনের জনসমাগম করা যাবে।

করোনা পরিস্থিতিতে চিকিৎসা বিষয়ক অগ্রগতি নিয়ে রামাফোসা তার বক্তব্যে বলেন, ‘সেপ্টেম্বর থেকে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে ভ্যাকসিন শুরু হবে। অক্টোবর থেকে কেপটাউনে ফাইজারের ভ্যাকসিন উৎপাদন শুরু হবে।’

সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকায় রাজনৈতিক দাঙ্গার বিষয়ে কঠোর হুঁশিয়ার উচ্চারণ করে তিনি বলেন, ‘সহিংসতা প্রতিরোধে অনির্দিষ্টকালের জন্য সেনাবাহিনী মাঠে থাকবে। দাঙ্গা-লুটপাটের সঙ্গে জড়িত ইন্ধনদাতাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ বিচার ও শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।’

হিমাচলে ভূমিধসে ৯ পর্যটকের মৃত্যু
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের হিমাচল প্রদেশে ভূমিধসের ঘটনায় ৯ পর্যটক নিহত হয়েছেন। ওই ঘটনায় আরও তিনজন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন স্থানীয় বাসিন্দা।

স্থানীয় সময় রোববার হিমাচলের কিন্নর জেলার বাদসেরি গ্রামে ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। সে সময় পাহাড় থেকে বড় বড় পাথর গড়িয়ে আসে এবং পর্যটকদের বহনকারী একটি গাড়িতে আঘাত লাগে। এতে ৯ পর্যটক প্রাণ হারান।

ইন্দো-তিব্বত সীমান্ত পুলিশের (আইটিবিপি) বরাত দিয়ে এএনআই জানিয়েছে, গাড়িটিতে ১১ জন আরোহী ছিলেন। আহতদের মধ্যে দু`জন ওই গাড়িতে থাকা পর্যটক এবং একজন পথচারী। ভূমিধসের খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গেই সেখানে একটি উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা ছুটে যান।

স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো বলছে, নিহতরা দিল্লি এবং ভারতের বিভিন্ন স্থান থেকে হিমাচলে ঘুরতে এসেছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যকমে তাদের প্রাণ হারাতে হলো। ভূমিধসে হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

টেলিভিশনের ফুটেজে দেখা গেছে, পাহাড় থেকে গড়িয়ে বড় বড় পাথর নিচে একটি সেতুর ওপর আছড়ে পড়ছে। এতে সেতুটি ভেঙ্গে নদীতে পড়ে যায়। পাথরের আঘাতে বেশ কয়েকটি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এদিকে, কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টিতে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসে বিপর্যস্ত ভারতের মহারাষ্ট্র, মুম্বাই ও গোয়া। বন্যাকবলিত মহারাষ্ট্র ও গোয়ায় এখনো অনেকে নিখোঁজ বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। মহারাষ্ট্রে বন্যা ও ভূমিধসে এ পর্যন্ত ১৩৮ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে।

ওই রাজ্যের ৮৪ হাজার বাসিন্দাকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে। গোয়ায় কয়েকশ ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে চারশোর বেশি মানুষকে। এদিকে, মুম্বাইয়ে এখনো জারি রয়েছে রেড অ্যালার্ট।

যুক্তরাষ্ট্রকে নতুন করে হুঁশিয়ারি দিল চীন
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রকে নতুন করে হুঁশিয়ারি দিল চীন। এক বিবৃতিতে চীনের স্টেট কাউন্সিলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, অপরের সঙ্গে কেমন ব্যবহার করতে হয় তা যদি যদি যুক্তরাষ্ট্র এখনো শিখে না থাকে তাহলে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সঙ্গে নিয়ে আমরা সেটা তাদের শিখিয়ে দেব।

চীনা দৈনিক গ্লোবাল টাইমসে ওয়াং ই’র ওই বক্তব্য প্রকাশ করা হয়। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইসের সাম্প্রতিক এক বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

নেড প্রাইস বলেছিলেন, বেইজিংয়ের সঙ্গে সম্পর্কের ক্ষেত্রে ওয়াশিংটন ‘শক্তিমত্তার অবস্থান’ থেকে কথা বলবে। এর প্রতিক্রিয়ায় ওয়াং ই বলেন, বিশ্বের কোনো দেশের ওপর এখন আর অন্য কোনো দেশের শ্রেষ্ঠত্ব নেই এবং চীন কখনও তার সঙ্গে অন্য কোনো দেশকে সেরকম আচরণ করার অনুমতি দেবে না।

চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্র সব সময় অন্য দেশের ওপর নিজের সিদ্ধান্ত ও কর্তৃত্ব চাপিয়ে দিতে চায়। কিন্তু চীনের সঙ্গে আর এমন আচরণ করা চলবে না।

রোববার মার্কিন উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী উইন্ডি শেরম্যান ও পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশির বেইজিং সফরের মধ্যেই এমন বক্তব্য দিলেন ওয়াং ই। এই দুই মন্ত্রীই চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই’র সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করে চীন। সাত মার্কিন নাগরিক এবং প্রতিষ্ঠানের ওপর শুক্রবার এই নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দেয় বেইজিং। ফলে দু`দেশের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হলো।


চীনে মানবাধিকার লঙ্ঘন, বাণিজ্য, সাইবার নিরাপত্তা এবং করোনাভাইরাসের উৎস নিয়ে বেইজিং এবং ওয়াশিংটনের মধ্যে আগে থেকেই উত্তেজনা বিরাজ করছে। এক পক্ষ আরেক পক্ষের ওপর এর আগেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৪১ লাখ ৭৪ হাজার ছাড়াল
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে আরও আট হাজার ৯৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে চার লাখ ২৮ হাজার ৮০১ জন।

সোমবার (২৫ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৯ কোটি ৪৮ লাখ ১ হাজার ২০৯ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৪১ লাখ ৭৪ হাজার ৮৬৭ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন মোট ১৭ কোটি ৬৭ লাখ ৪৯ হাজার ৯০৫ জনে।

করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে এখনো বিশ্বে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে তিন কোটি ৫১ লাখ ৯৯ হাজার ৪৬৫ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ছয় লাখ ২৬ হাজার ৭৬২ জন। আর সুস্থ হয়েছেন দুই কোটি ৯৫ লাখ ১১ হাজার ৯০৯ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তিন কোটি ১৪ লাখ ৯ হাজার ৬৩৯ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন চার লাখ ২০ হাজার ৯৯৬ জন।

তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। তবে মৃত্যুর দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে দেশটি। সেখানে এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ৪৯ হাজার ৯৯৯ জনে। এছাড়া এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন এক কোটি ৬৮ লাখ ৮৬ হাজার ৬৬৩ জন।

সংক্রমণ ও মৃত্যুর তালিকায় এর পরের স্থানগুলোতে রয়েছে রাশিয়া, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, আর্জেন্টিনা, কলম্বিয়া ও ইতালি।

তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ২৬ নম্বরে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন হয়েছেন ১১ লাখ ৬৪ হাজার ৬৩৫ জনে। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৯ হাজার ২৭৪ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। দেশটিতে করোনায় প্রথম রোগীর মৃত্যু হয় ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি। ওই বছরের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে।

দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। এরপর কয়েক দফায় পরিস্থিতির উন্নতি-অবনতি হয়। তবে গত কয়েক দিনের পরিস্থিতি সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থায় রয়েছে।

তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রী অপসারিত, পার্লামেন্ট স্থগিত
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : তীব্র আন্দোলনের মুখে তিউনিসিয়ার পার্লামেন্ট স্থগিত ঘোষণা করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট কাইস সাইয়েদ। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী হিচাম মেচিচিকে অপসারণ করা হয়েছে।

রোববার নিজ বাসভবনে জরুরি বৈঠক শেষে এক বিবৃতিতে এই ঘোষণা দেন তিউনিসিয়ান প্রেসিডেন্ট। দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের উদ্ধৃতি দিয়ে সোমবার এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আলজাজিরা।

এতে বলা হয়েছে, নতুন প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতায় নির্বাহী ক্ষমতা প্রয়োগ করতে যাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট কাইস সাইয়েদ।

মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মোকাবিলায় ব্যর্থতা এবং ভঙ্গুর অর্থনীতির জন্য সরকারকে দায়ী করে সম্প্রতি দেশটির বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ শুরু হয়। রোববারও রাজধানী তিউনিসসহ বেশ কিছু শহরে বিক্ষোভ করেন হাজার হাজার মানুষ। তারা সরকারের উদ্দেশে ‘চলে যাও, চলে যাও’ বলে চিৎকার করতে থাকেন এবং পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়া ও আগাম নির্বাচনের দাবিতে স্লোগান দেন।

এদিকে নতুন ঘোষণায় যাতে করে বিক্ষোভ দানা না বাধে সেজন্য হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন তিউনিসিয়ান প্রেসিডেন্ট। রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে প্রচারিত বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, কেউ যদি হাতে অস্ত্র তুলে নেয় এবং গুলি নিক্ষেপ করে আমি তাদেরকে সতর্ক করে দিচ্ছি সশস্ত্র বাহিনীও পাল্টা জবাব দেবে গুলি দিয়ে।

মহারাষ্ট্রে ভারি বৃষ্টি ও ভূমিধস, নিহত বেড়ে ১৩৮
                                  

অনলাইন ডেস্ক : টানা কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টিতে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসে বিপর্যস্ত ভারতের মহারাষ্ট্র, মুম্বাই ও গোয়া। বন্যাকবলিত মহারাষ্ট্র ও গোয়ায় এখনো অনেকে নিখোঁজ বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। মহারাষ্ট্রে বন্যা ও ভূমিধসে এ পর্যন্ত ১৩৮ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। এই রাজ্যের ৮৪ হাজার বাসিন্দাকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে। গোয়ায় কয়েকশ ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে চারশোর বেশি মানুষকে। এদিকে, মুম্বাইয়ে এখনো জারি রয়েছে রেড এলার্ট। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে ।

ভারি বৃষ্টি অব্যাহত থাকায় ভারতের দুই রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কয়েক হাজার মানুষকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। মহারাষ্ট্রের উপকূলবর্তী এলাকাগুলোর অবস্থা শোচনীয়। গোটা রাজ্যে বৃষ্টির কারণে দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা দুইশোর কাছাকাছি। মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিকে, নতুন করে বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে গোয়ায়। টানা ভারি বর্ষণে ভূমিধসের ঘটনাও ঘটছে রাজ্যটিতে। বন্যার পানিতে ডুবে গেছে বহু ঘরবাড়িসহ নানা স্থাপনা। মান্ডবী, দুধসাগর, খান্দেপার, চাপোরা, বলবন্তীর মতো বেশ কয়েকটি নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে। পানির তোড়ে ভেঙে যাচ্ছে শহর রক্ষা বাঁধ।

বন্যা আর ভূমিধসের কারণে দক্ষিণ-পশ্চিম রেলওয়ের পরিষেবাও ব্যাহত হচ্ছে গত তিন দিন ধরে। ভারি বৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে কর্নাটকেও। এদিকে, মধ্যপ্রদেশের ২৪টি জেলায় ভারি থেকে অতি ভারি বৃষ্টির ‘অরেঞ্জ অ্যালার্ট’ জারি করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানকার আগর-মালওয়া জেলায় ২১১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আজ রোববার উত্তর গোয়ায় যান রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সবন্ত। তিনি বলেন, ১৯৮২ সালের পরে এতো ভয়ানক পরিস্থিতি আর হয়নি রাজ্যের। এমনকি সেই সময়েও এতো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি যা গত কয়েক দিনের বৃষ্টিতে হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও গোয়ার বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। বন্যা দুর্গতদের সব রকম সাহায্যের আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি।

প্রতিবছর দক্ষিণ এশিয়ায় জুন ও সেপ্টেম্বর মাসের এই সময়ের মধ্যে ভারি বর্ষণে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসে বহু মানুষের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে বৈশ্বিক উষ্ণতা বেড়ে যাওয়ায় অতিবৃষ্টির কারণে এমন দুর্যোগ বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

সূত্র, আনন্দবাজার, এনডিটিভি, বিবিসি

আবারো ভূমধ্যসাগরে ২০৮ অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশী উদ্ধার
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : আবারো ভূমধ্যসাগরের তিউনিসিয়া উপকূলে দুটি আলাদা অভিযান চালিয়ে ২০৮ অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশীকে উদ্ধার করেছে তিউনিসিয়া কর্তৃপক্ষশনিবার (২৪ জুলাই) তুর্কি সংবাদমাধ্যম আনাদোলু এজেন্সির একটি প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তিউনিসিয়ার ন্যাশনাল গার্ডের মুখপাত্র হুস্সাম উদ্দিন আল-জাবালি বলেন, শুক্রবার ২৩ জুলাই ও গতকাল ২৪ জুলাই ২০২১শনিবার এই দুই দিন অবৈধভাবে তিউনিসিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথে ১৬টি চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী। এই দুই অভিযানে ১৫৫ জনকে উদ্ধার হয়। এদের মধ্যে ১০ জন পলাতক আসামি রয়েছে বলে জানান তিনি। তবে তাদের বিষয়ে বিস্তারিত কোনো তথ্য দিতে পারেননি তিনি। আল জাবালি আরো বলেন, মাহদিয়া প্রদেশে গতকাল শনিবার দুটি নৌযান ডুবির পর ৫৩ জন অভিবাসন প্রত্যাশীকে উদ্ধার করা হয়। ন্যাশনাল গার্ডের মুখপাত্র বলেন, ইতালি যাওয়ার প্রস্তুতি নেওয়ার সময় বিভিন্ন জায়গা থেকে ৩৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।সাব-সাহারা অঞ্চলের অভিবাসন প্রত্যাশীরা বেশ কয়েকবছর ধরেই আলজেরিয়া, লিবিয়া, মৌরিতানিয়া, মরক্কো, তিউনিসিয়াকে অবৈধভাবে ইউরোপ যাওয়ার জন্য রুট হিসেবে ব্যবহার করে আসছে।

চীনে গুদামে আগুন, নিহত ১৪
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : চীনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের একটি গুদামে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কমপক্ষে ১৪ জন নিহত হয়েছে। এছাড়া গুরুতর আহত হয়েছে আরও ১২ জন। রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের খবরে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় জিলিন প্রদেশের রাজধানী চ্যাংচুনে ওই গুদামটি অবস্থিত।

রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা শিনহুয়া জানিয়েছে, স্থানীয় সময় শনিবার সন্ধ্যায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। উদ্ধারকাজ এখনও চলছে। ওই ঘটনার প্রকাশিত ছবিতে দেখা গেছে উদ্ধারকর্মীরা মই এবং ক্রেন দিয়ে উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। ওই ভবনটির চারপাশ কাঁচ দিয়ে ঘেরা।


দুর্ঘটনার কারণ এখনও পরিষ্কার নয়। কী কারণে ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে সে বিষয়ে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে শিনহুয়া। চীনে এ ধরনের দুর্ঘটনা প্রায়ই ঘটে। ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে নির্ধারিত নীতিমালা মেনে না চলা এবং অননুমোদিত ভবনগুলো এমন ভাবে তৈরি করা হয় যে, দুর্ঘটনা ঘটলে সেখান থেকে বের হওয়াটাও অনেকটা কঠিন হয়ে পড়ে।

এর আগে গত জুনে চীনের হেনান প্রদেশে একটি বোর্ডিং স্কুলে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ১৮ জন নিহত হয়। এর মধ্যে অধিকাংশই শিশু। পরবর্তীতে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের খবরে জানা যায় যে, ওই স্কুল ভবনে বাধ্যতামূলক অগ্নি নিরাপত্তা নিরীক্ষণের কাজ শেষ করা হয়নি।

ওই স্কুলে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় সামাজিক মাধ্যমে তোলপাড় শুরু হয়। চীনের সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীরা অগ্নি নিরাপত্তার ক্ষেত্রে উন্নত সুরক্ষা মানের নিশ্চয়তা চেয়েছেন।

২০১৭ সালে বেইজিংয়ের অভিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় দুইবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দুই ডজন মানুষ নিহত হয়। এছাড়া ২০১০ সালে সাংহাই আবাসিক ব্লকের একটি ২৮ তলা ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৫৮ জন প্রাণ হারায়।

বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু কমেছে
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা কিছুটা কমেছে। তবে বাড়েনি সুস্থতার সংখ্যা।

বিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা গেছেন আট হাজার ১৮৩ জন। এর আগে মৃত্যু হয়েছিল আট হাজার ৬৫২ জনের।

এছাড়া নতুন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন চার লাখ ৯০ হাজার ৫২৬ জন। এর আগের দিন পাঁচ লাখ ৭৭ হাজার ৪৯১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছিল।

একই সময়ে সুস্থ হয়েছেন তিন লাখ ২৯ হাজার ৮৯২ জন। আগের দিন সুস্থ হয়েছিলেন চার লাখ ৭ হাজার ৬২ জন।

রোববার (২৫ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৯ কোটি ৪৩ লাখ ৭২ হাজার ৪০৮ জনে। এর মধ্যে মারা গেছেন ৪১ লাখ ৬৭ হাজার ৯২৬ জনে। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন মোট ১৭ কোটি ৬৪ লাখ ৫০ হাজার ৪৯ জনে।

করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে এখনো বিশ্বে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে তিন কোটি ৫১ লাখ ৮৪ হাজার ৬৭১ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ছয় লাখ ২৬ হাজার ৭১৩ জন। আর সুস্থ হয়েছেন দুই কোটি ৯৫ লাখ ৭ হাজার ১২৩ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তিন কোটি ১৩ লাখ ৭১ হাজার ৪৮৯ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন চার লাখ ২০ হাজার ৫৮৪ জন।

তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। তবে মৃত্যুর দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে দেশটি। সেখানে এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ৪৯ হাজার ৫০০ জনে। এছাড়া এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন এক কোটি ৯৬ লাখ ৭০ হাজার ৫৩৪ জন।

সংক্রমণ ও মৃত্যুর তালিকায় এর পরের স্থানগুলোতে রয়েছে রাশিয়া, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, আর্জেন্টিনা, কলম্বিয়া ও ইতালি।

তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ২৬ নম্বরে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন হয়েছেন ১১ লাখ ৫৩ হাজার ৩৪৪ জনে। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৯ হাজার ৪৬ জনে।

আফগানিস্তানে সেনা অভিযানে ২৬৯ তালেবান নিহত
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আফগানিস্তানের ১৩ প্রদেশে সেনাবাহিনীর অভিযানে অন্তত ২৬৯ তালেবান সদস্য নিহত হয়েছে। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতির বরাত দিয়ে ইরিব নিউজের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় আফগানিস্তানের লাগমান, নানগারহার, নুরিস্তান, কুনার, গজনি, পাকতিয়া, কান্দাহার, হেরাত, বাল্খ, জুযজান, হেলমান্দ, কুন্দুজ ও কাপিসা প্রদেশে এসব অভিযান চালানো হয়।

এসব অভিযানে আরও ১৭৬ তালেবান সদস্য আহত হয়েছে। এ সময় সেনাবাহিনী তালেবানের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করে। তবে আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এ পরিসংখ্যান প্রত্যাখ্যান করেছে তালেবান।

এদিকে আফগানিস্তানের শতকরা ৯০ ভাগ সীমান্তের ওপর নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করার যে দাবি তালেবান করেছে তা প্রত্যাখ্যান করেছে আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ফুয়াদ আমান বলেছেন, আফগান সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকার পরিধি ক্রমেই বিস্তৃত হচ্ছে এবং হাতছাড়া হয়ে যাওয়া জেলাগুলো তালেবানের কাছ থেকে একের পর এক পুনরুদ্ধার করা হচ্ছে।

আফগানিস্তানের হেরাত প্রদেশ থেকে পাওয়া আরেক খবরে জানা গেছে, সেখানকার কারাখ জেলায় তালেবানের একটি বড় ধরনের অভিযান প্রতিহত করেছে সেনাবাহিনী। শুক্রবার ওই জেলা তালেবানের হাত থেকে পুনরুদ্ধার করেছে আফগানিস্তানের সরকারি সৈন্যরা।

দু`পক্ষের সংঘর্ষে বহু সাধারণ মানুষও নিহত হয়েছে। এছাড়া ঘর-বাড়ি হারিয়েছে লাখ লাখ মানুষ। এদিকে আফগানিস্তানে শরণার্থী সংকট মোকাবিলা এবং মার্কিন অনুগত আফগানদের বিশেষ ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যাওয়ার কাজে ব্যবহারের জন্য ১০০ মিলিয়ন (১০ কোটি) ডলার জরুরি তহবিলের অনুমোদন দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। শুক্রবার হোয়াইট হাউস থেকে জানানো হয়েছে, আফগানিস্তানের বতর্মান প্রেক্ষাপটে শরণার্থী, বাস্তুচ্যুত ও সহিংসতার শিকারসহ যারা নিরাপত্তার ঝুঁকিতে রয়েছেন, তাদের পাশে দাঁড়াতে এ অর্থ সহযোগিতা দেয়া হচ্ছে।

প্রায় দুই দশকের যুদ্ধের ইতি টেনে সম্প্রতি আফগানিস্তান থেকে সকল মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। ফিরে যাচ্ছে ন্যাটো সেনারাও। আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেনা প্রত্যাহার সমাপ্ত হওয়ার কথা রয়েছে। তবে সেনা ফেরানোর এই ঘোষণার পর থেকেই আফগান নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে তালেবানের সংঘর্ষ বেড়ে গেছে। প্রায় প্রতিদিনই সেখানে সাধারণ মানুষ নিহতের ঘটনা ঘটছে।

সিডনিতে লকডাউন-বিরোধী বিক্ষোভ
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : অস্ট্রেলিয়ার সিডনি এবং অন্যান্য বড় বড় শহরে লকডাউন-বিরোধী বিক্ষোভে অংশ নিয়েছেন হাজার হাজার মানুষ। দেশটিতে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বিধিনিষেধ জারি করেছে প্রশাসন। এর বিরোধিতা করেই রাজপথে বিক্ষোভ করছে সাধারণ মানুষ।

এদিকে বিক্ষোভের কারণে পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যাবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে কর্তৃপক্ষ। শনিবার ভিক্টোরিয়া পার্ক থেকে টাউন হলের দিকে লকডাউন-বিরোধী বিক্ষোভ দেখা গেছে। এ সময় বিক্ষোভকারীদের কাউকে মাস্ক পরতে দেখা যায়নি।

বিক্ষোভের সময় বিভিন্ন শহরে পুলিশের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। পুলিশ নিশ্চিত করেছে যে, বিক্ষোভকারীরা ব্যারিকেড ভেঙে বিক্ষোভ, প্লাস্টিকের বোতল ও গাছ নিক্ষেপ করেছে। এরপরেই বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

নিউ সাউথ ওয়েলস (এনএসডব্লিউ) পুলিশ জানিয়েছে, তারা মত প্রকাশের স্বাধীনতা এবং শান্তিপূর্ণ সমাবেশের অধিকারকে স্বীকৃতি দেন এবং সমর্থন করেন। তবে এই প্রতিবাদ জনস্বাস্থ্য বিষয়ক আদেশ লঙ্ঘন করেছে।

পুলিশের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, বিশাল জনগোষ্ঠীর নিরাপত্তার বিষয়টিকেই অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে নিউ সাউথ ওয়েলস পুলিশ। সাম্প্রতিক সময়ে ওই রাজ্যে সংক্রমণ বেড়ে গেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১৬৩ জন, যা গত কয়েকদিনের মধ্যে সর্বোচ্চ।

গত চার সপ্তাহ ধরে লকডাউন জারি রয়েছে গ্রেটার সিডনিতে। লোকজন শুধু প্রয়োজনীয় কাজেই বাড়ির বাইরে যাওয়ার অনুমতি পাচ্ছেন। লোকজনকে ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এদিকে নিউ সাউথ ওয়েলসের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ব্র্যাড হ্যাজার্ড বলেন, আমরা একটি গণতান্ত্রিক দেশে বাস করি। স্বাভাবিকভাবেই আমি জনগণের প্রতিবাদ জানানোর অধিকারকে সমর্থন করি। এই মুহূর্তে সংক্রমণ বাড়ছে অথচ লোকজন ভাবছে এটা ঠিক আছে এবং একে অপরের কাছাকাছি আসা যাবে। কিন্তু এটা ঠিক হবে না।

সিডনির পার্লামেন্টের সদস্য স্টিফেন জোন্স বিক্ষোভের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন। যারা বিক্ষোভ করছেন তাদের তিনি স্বার্থপর এবং বেপরোয়া বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, কেউই লকডাউনে থাকতে চান না। কিন্তু এখনকার পরিস্থিতিতে এছাড়া কোনও উপায় নেই।

এদিকে, মেলবোর্নেও হাজার হাজার মানুষ মাস্ক ছাড়াই বিক্ষোভ করেছেন। তারা স্বাধীনতা চান। অপরদিকে অ্যাডেলেইডে গাড়ি নিয়ে বিক্ষোভের পরিকল্পনাও করা হচ্ছে। সেখানেও লকডাউন জারি রয়েছে। ইতোমধ্যেই পুলিশের পক্ষ থেকে সতর্ক করে বলা হয়েছে, যে কোনও ধরনের বেইআইনি কাজের জন্য গ্রেফতার করা হবে।

অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন শহরে প্রায় আড়াই কোটি মানুষ লকডাউনে আটকা পড়েছেন। এই সংখ্যা দেশটির জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেক। দেশটির মাত্র ১১ শতাংশ মানুষ ইতোমধ্যেই দুই ডোজ ভ্যাকসিন পেয়েছেন।

ডেল্টার পর হানা দিতে পারে করোনার নতুন ভ্যারিয়্যান্ট
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ফরাসি বিজ্ঞানীরা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন, এ বছর শীতের মধ্যেই করোনার নতুন একটি ভ্যারিয়্যান্ট বিশ্বের মাথাব্যথার কারণ হয়ে উঠতে পারে।


ফরাসি সরকারের বিজ্ঞান পরিষদের শীর্ষ কর্মকর্তা জঁ-ফ্রাঁসোয়া দেলফ্রেসি শুক্রবার এ কখা জানান। খবর ফরাসি বার্তা সংস্থা কানেকশনের।

তিনি বলেন, গত বছর প্রথম ঢেউয়ের পর থেকে দ্রুত মিউটেশন ঘটিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে একের পর এক স্ট্রেইন তৈরি করেছে করোনাভাইরাস।

সম্প্রতি ডেল্টা স্ট্রেইনের দাপটে বিশ্বে নতুন করে সংক্রমণ বাড়ছে। এসে গেছে তৃতীয় ঢেউ।

ফ্রান্স অবশ্য জানিয়েছে তারা চতুর্থ ঢেউয়ের মুখে। শুক্রবার ফরাসি সরকারের বিজ্ঞান পরিষদের শীর্ষ কর্মকর্তা শীতের মধ্যেই নতুন ভ্যারিয়্যান্টের আগমন বার্তা জানিয়ে সতর্ক করেছেন।

তবে নতুন ভ্যারিয়্যান্ট কতটা সংক্রামক হবে, ডেল্টার থেকেও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে কিনা সে বিষয়ে এখনই নিশ্চিত কিছু বলা যাবে না বলে জানিয়েছেন তিনি। ফ্রান্সের মানুষকে আগের মতোই মাস্ক পরা ও শারীরিক দূরত্ববিধি মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

দেলফ্রেসির মতে, আগামী কয়েক বছরে পৃথিবীটা দু’দলে ভাগ হয়ে যাবে। এক দল- দেশ যারা টিকা পেয়েছে ও আরেক দল-যারা টিকা পায়নি। এই দুই পৃথিবীর মধ্যে সমন্বয় রেখে চলাই আগামী দিনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে।

চতুর্থ ঢেউ সামাল দিতে ইতিমধ্যে ‘হেলথ্ পাস’ ব্যবস্থা চালু করেছে ফরাসি সরকার। বুধবার থেকে সিনেমা, জাদুঘর, সুইমিং পুল, ময়দানসহ যে কোনও প্রকাশ্য স্থানে যেতে গেলে হয় কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট বা টিকাদান শংসাপত্র দেখাতে হচ্ছে।

রেস্তরাঁ, ক্যাফেতে এই পাস চালু করতে এবং স্বাস্থ্য পরিষেবায় নিযুক্ত কর্মীদের ক্ষেত্রে টিকাদান নিশ্চিত করতে শুক্রবার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে খসড়া আইন পেশ করা হয়েছে। তবে দেশবাসীর একটা অংশ নতুন কড়াকড়িতে বিরক্ত। তারা কোভিড-বিধি লাঘব করার দাবিতে প্যারিসসহ বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ করেছেন।

এ দিকে সিডনিতে গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংক্রমণ ঘটেছে। করোনা এতোটাই ছড়িয়েছে যে শুক্রবার সেখানে ‘জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া সরকার।

দেশটিতে এ পর্যন্ত মাত্র ১২ শতাংশ মানুষের টিকাদান সম্পন্ন হয়েছে। পর্যাপ্ত টিকাদানের অভাবেই যে অস্ট্রেলিয়ায় সংক্রমণ হুহু করে বাড়ছে তা মেনে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। এ জন্য দেশবাসীর কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন তিনি।

বিশ্বে করোনায় একদিনে ৮৬৫২ জনের প্রাণহানি
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে আরও আট হাজার ৬৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ছয় লাখ ৩৯ হাজার ৮৬৩ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন চার লাখ পাঁচ হাজার ১৯৯ জন।

শনিবার (২৩ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

এর আগে গতকাল (২৩ জুলাই) আট হাজার ১৩১ জনের মৃত্যু এবং পাঁচ লাখ ৪৬ হাজার ৬৪৪ জন শনাক্তের খবর জানিয়েছিল ওয়ার্ল্ডোমিটার। আর একদিনে সুস্থ হয়েছিল তিন লাখ ৬৯ হাজার ৮৯৭ জন।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১৯ কোটি ৪০ লাখ ১০ হাজার ৪৬ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৪১ লাখ ৫৯ হাজার ৫১১ জন। এখন পর্যন্ত এ ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৭ কোটি ৬১ লাখ ১৬ হাজার ৬১৭ জন।

করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে এখনো বিশ্বে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে তিন কোটি ৫২ লাখ ৮৩ হাজার ৫০ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ছয় লাখ ২৬ হাজার ৬৫৮ জন। আর সুস্থ হয়েছেন দুই কোটি ৯৪ লাখ ৯৭ হাজার ৮৭৬ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ভারত। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তিন কোটি ১৩ লাখ ৩১ হাজার ১৪৫ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন চার লাখ ২০ হাজার ৩৮ জন। আর এ ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন তিন কোটি চার লাখ ৯৫ হাজার ৩৫২ জন।

তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। তবে মৃত্যুর দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে দেশটি। সেখানে এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ৪৮ হাজার ৪২০ জনে। এছাড়া এখন পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে এক কোটি ৯৬ লাখ ৩২ হাজার ৪৪৩ জন। আর এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন এক কোটি ৮৩ লাখ ৩১ হাজার ৪৬২ জন।

সংক্রমণ ও মৃত্যুর তালিকায় এর পরের স্থানগুলোতে রয়েছে রাশিয়া, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, আর্জেন্টিনা, কলম্বিয়া ও ইতালি।

তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ২৬ নম্বরে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন হয়েছেন ১১ লাখ ৪৬ হাজার ৫৬৪ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৮ হাজার ৮৫১ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন নয় লাখ ৭৫ হাজার ৬১৬ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। দেশটিতে করোনায় প্রথম রোগীর মৃত্যু হয় ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি। ওই বছরের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে।

দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। এরপর কয়েক দফায় পরিস্থিতির উন্নতি-অবনতি হয়। তবে গত কয়েক দিনের পরিস্থিতি সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থায় রয়েছে।

ফিলিপাইনে ৬ দশমিক ৭ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ফিলিপাইনে ৬ দশমিক ৭ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। তবে ভূমিকম্পের কারণে কি পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি। এনডিটিভির খবরে জানা গেছে এ তথ্য।

স্থানীয় সময় শনিবার ভোর ৪টা ৪৮ মিনিটে প্রধান দ্বীপ লুজন থেকে সৃষ্ট ভূমিকম্প ১১২ কিলোমিটার দূরত্ব পর্যন্ত আঘাত হানে বলে জানায় মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ-ইউএসজিএস। এর কিছুক্ষণ আগে একই অঞ্চলে ৫ দশমিক ৮ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হানে।

ফিলিপাইনের বাটানগাসের কালাটাগান মেট্রোপলিটন পুলিশ প্রধান জানিয়েছেন, এটি খুব শক্তিশালী ভূমিকম্প বলে ধারণা করা হচ্ছে যেটি ম্যানিলার দক্ষিণাঞ্চল পর্যন্ত আঘাত হানে। তবে স্থানীয়রা ভূমিকম্পের ঘটনার সঙ্গে অভ্যস্ত বলে তারা সতর্ক থাকেন সব সময়। আমরা নিম্নাঞ্চলগুলো খতিয়ে দেখছি ভূ-কম্পনের ফলে সুনামি আঘাত হেনেছে কি না।

যদিও যুক্তরাষ্ট্রের সুনামি সতর্কতা ব্যবস্থাপনার বরাত দিয়ে দেশটির ভলকোলজি অ্যান্ড সিজমোলজি ইনস্টিটিউট (ফিভলকস) জানিয়েছে, এখনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

পৃথিবীতে যতো ভূমিকম্প হানে তার অধিকাংশই ‘রিং অফ ফায়ার’ এলাকাজুড়ে। এটি জাপান থেকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলজুড়ে প্রসারিত। প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ‘রিং অফ ফায়ার’ এর অবস্থানের কারণে এই দ্বীপপুঞ্জে প্রায়ই ভূ-কম্পন অনুভূত হয়।

ভারতে ভারি বৃষ্টি ও ভূমিধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১১২
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : টানা কয়েকদিনের ভারি বর্ষণ ও ভূমিধসের কারণে ভারতের মহারাষ্ট্রে এ পর্যন্ত ১১২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে এ তথ্য।

রয়টার্সের খবরে আরো বলা হয়, ভারতের পশ্চিমাঞ্চলের উপকূলে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৯৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। ভারি বৃষ্টির কারণে জলোচ্ছ্বাসের আতঙ্কে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে লোকজনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। মহারাষ্ট্রে মুষলধারে বৃষ্টিপাতের কারণে পানির নিচে এখন বহু এলাকা।

মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে জানান, ভারি বৃষ্টির কারণে রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে ভয়াবহ ভূমিধস ও নদীতীরবর্তী অনেক এলাকা বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। নদ-নদীর পানি উপচে পড়ে ভেঙে যাচ্ছে শহর রক্ষা বাঁধ।

বন্যাদুর্গত এলাকাগুলোতে নৌ ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে। নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে নদীতীরের মানুষদের। উদ্ধার কাজে নামানো হয়েছে হেলিকপ্টার। এদিকে, বন্যাকবলিত এলাকাগুলোতে তীব্র হচ্ছে বিশুদ্ধ পানি ও খাবারের সঙ্কট।

মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন এলাকায় বেশ কয়েকটি ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে গত দুই দিনে। এ ছাড়া ভারি বৃষ্টির কারণে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে মৃত্যু হয়েছে আরো ১৫ জনের। টানা বৃষ্টিতে ভূমিধস, বাড়িঘর ভেঙে ও বিদ্যুতায়িত হয়ে বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষের প্রাণহানির ঘটনা ঘটছে বলে জানা গেছে।

উদ্ধারকর্মীরা বলছেন, ভূমিধসে আটকা পড়ে থাকতে পারেন আরো অনেকে। উদ্ধার অভিযানে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছেন তারা।

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ সপ্তাহের শুরুতে টানা ভারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দেয়। বৃষ্টির কারণে গত ২০ জুলাই মুম্বাইয়ে ‘ইয়েলো অ্যালার্ট’ জারি করা হয়। গত ২১ জুলাই জারি করা হয় ‘অরেঞ্জ অ্যালার্ট’। এরপর গত বৃহস্পতিবার প্রবল বৃষ্টির শঙ্কার কথা জানিয়ে আবহাওয়া বিভাগ মুম্বাইসহ কয়েকটি এলাকায় রেড অ্যালার্ট জারি করে। ভারি বর্ষণ অব্যাহত থাকায় বাণিজ্যিক নগরী মুম্বাইসহ রাজ্যের একাধিক জেলায় এখন জারি রয়েছে ‘রেড অ্যালার্ট’।

প্রতিবছর দক্ষিণ এশিয়ায় জুন ও সেপ্টেম্বর মাসের এই সময়ের মধ্যে ভারি বর্ষণে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসে বহু মানুষের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।


   Page 1 of 305
     আন্তর্জাতিক
তিউনিসে আল-জাজিরার ব্যুরো অফিসে অভিযান
.............................................................................................
দ. আফ্রিকায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালুর সিদ্ধান্ত
.............................................................................................
হিমাচলে ভূমিধসে ৯ পর্যটকের মৃত্যু
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রকে নতুন করে হুঁশিয়ারি দিল চীন
.............................................................................................
বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৪১ লাখ ৭৪ হাজার ছাড়াল
.............................................................................................
তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রী অপসারিত, পার্লামেন্ট স্থগিত
.............................................................................................
মহারাষ্ট্রে ভারি বৃষ্টি ও ভূমিধস, নিহত বেড়ে ১৩৮
.............................................................................................
আবারো ভূমধ্যসাগরে ২০৮ অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশী উদ্ধার
.............................................................................................
চীনে গুদামে আগুন, নিহত ১৪
.............................................................................................
বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু কমেছে
.............................................................................................
আফগানিস্তানে সেনা অভিযানে ২৬৯ তালেবান নিহত
.............................................................................................
সিডনিতে লকডাউন-বিরোধী বিক্ষোভ
.............................................................................................
ডেল্টার পর হানা দিতে পারে করোনার নতুন ভ্যারিয়্যান্ট
.............................................................................................
বিশ্বে করোনায় একদিনে ৮৬৫২ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
ফিলিপাইনে ৬ দশমিক ৭ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প
.............................................................................................
ভারতে ভারি বৃষ্টি ও ভূমিধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১১২
.............................................................................................
৪৫ অভিবাসী নিয়ে তুরস্ক উপকূলে নৌকাডুবি
.............................................................................................
ভারতের মহারাষ্ট্রে ভূমিধসে নিহত ৩৬
.............................................................................................
করোনায় একদিনে ৮ হাজারের বেশি মৃত্যু
.............................................................................................
ভারতে করোনায় মৃত্যু-সংক্রমণ কমেছে
.............................................................................................
১৬ আগস্ট পশ্চিমবঙ্গে পালিত হবে `খেলা হবে` দিবস
.............................................................................................
লন্ডনে ১৫০০ মাস্ক দিয়ে তৈরি হলো বিয়ের গাউন
.............................................................................................
ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবে ১৭ বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
প্রথমবার হজে নিরাপত্তার দায়িত্বে নারী সেনা
.............................................................................................
চীনে হাজার বছরের মধ্যে ভয়াবহ বন্যা, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৫
.............................................................................................
মহাকাশ ভ্রমণের স্বপ্ন পূরণ হলো বেজোসের
.............................................................................................
আফগানিস্তানে ঈদের নামাজের সময় রকেট হামলা
.............................................................................................
ইরাকে ঈদের কেনাকাটার সময় আত্মঘাতী হামলায় নিহত ৩৫
.............................................................................................
বিশ্বে ১৯ কোটি করোনা রোগীর মধ্যে সুস্থ ১৭ কোটি
.............................................................................................
পাকিস্তানে যাত্রীবাহী বাস দুর্ঘটনায় নিহত ৩৩
.............................................................................................
আরাফার ময়দানে হজের খুতবা শুরু
.............................................................................................
ইংল্যান্ড থেকে তুলে নেয়া হলো করোনার বিধিনিষেধ
.............................................................................................
বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৪১ লাখ ছাড়াল
.............................................................................................
লাব্বাইক ধ্বনিতে মুখরিত আরাফাত ময়দান
.............................................................................................
দেশে করোনা শনাক্ত ১১ লাখ ছাড়াল
.............................................................................................
ভারি বর্ষণে মুম্বাইয়ে ২০ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
কলকাতা বিমানবন্দরে বোমা আতঙ্কে তল্লাশি
.............................................................................................
সংক্রমণ বাড়লেও মৃত্যু কিছুটা কমেছে ভারতে
.............................................................................................
ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত
.............................................................................................
কানে স্বর্ণ পাম জিতলেন নারী নির্মাতা জুলিয়ার `টাইটেন`
.............................................................................................
করোনায় মৃত্যু ৪১ লাখ ছুঁই ছুঁই
.............................................................................................
`ইয়েমেন থেকে মাসে ৩০-৪০ লাখ ব্যারেল তেল লুট করছে সৌদি জোট`
.............................................................................................
জার্মানিতে বন্যায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩৩, নিখোঁজ অনেকে
.............................................................................................
অলিম্পিক গেমস ভিলেজেও করোনার হানা
.............................................................................................
`ডেল্টা`র হানায় দিশেহারা ইন্দোনেশিয়া, ঘরে ঘরে পড়ে আছে মৃতদেহ!
.............................................................................................
চীনের আরও ৭ কর্মকর্তার ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা
.............................................................................................
করোনার উৎস জানতে চীনের ল্যাবগুলো অডিট করতে হবে
.............................................................................................
বিক্ষোভে উত্তাল দক্ষিণ আফ্রিকায় নিহত দুই শতাধিক
.............................................................................................
বন্যায় জার্মানি-বেলজিয়ামে ১২৯ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
এবার আরাফাত ময়দানে খুতবা পড়বেন শায়েখ ড. বান্দার বালিলা
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT Dynamic Scale BD & BD My Shop