বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * গঙ্গাস্নানে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনা, নারী-শিশুসহ নিহত ২২   * পিলখানা হত্যাকাণ্ডে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন   * ঢাকাসহ ৮ অঞ্চলে হতে পারে ঝোড়ো বৃষ্টি   * শবেবরাত সবার জন্য রহমত ও কল্যাণ বয়ে আনুক : রাষ্ট্রপতি   * দফায় দফায় বাড়ছে খেজুরের দাম   * ডেঙ্গুর প্রকোপ : এবার আগেভাগেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার নির্দেশ   * পবিত্র শবে বরাত আজ   * জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস আজ   * রোজার আগেই ভার‌ত থে‌কে দে‌শে পেঁয়াজ ঢুক‌বে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী   * যুদ্ধের দুই বছর : হাল ছাড়তে চান না ক্লান্ত ইউক্রেনীয়রা  

   জাতীয় -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
পিলখানা হত্যাকাণ্ডে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন

রাজধানীর পিলখানায় বিডিআর (বর্তমানে বিজিবি) সদরদপ্তরে নারকীয় হত্যাকাণ্ডের ১৫ বছর পূর্ণ হলো আজ রোববার। এই উপলক্ষ্যে পিলখানা হত্যাকাণ্ডে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে।

রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা ৮মিনিটে বনানীর সামরিক কবরস্থানে শহীদদের কবরে পুস্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শাহাদত বরণকারী সেনাকর্মকর্তাদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

প্রথমে রাষ্ট্রপতির পক্ষে রাষ্ট্রপতির সামরিক সচিব এবং প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

পরবর্তীতে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল এম নাজমুল হাসান ও বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

তিন বাহিনী প্রধানের পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিবের পক্ষে জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশরাফুজ্জামান সিদ্দিকী শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর শহীদ পরিবারের সদস্য ও নিকট আত্মীয়রা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

পুস্পস্তবক অর্পণ শেষে শহীদদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয় এবং কর্মরত সামরিক সদস্যরা স্যালুট প্রদান করেন। পরে শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। এ সময় সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তা, জেসিও এবং অন্যান্য পদবির সেনাসদস্য, শহীদ পরিবারের সদস্য ও নিকটাত্মীয়রা উপস্থিত ছিলেন।

পিলখানা হত্যাকাণ্ডে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন
                                  

রাজধানীর পিলখানায় বিডিআর (বর্তমানে বিজিবি) সদরদপ্তরে নারকীয় হত্যাকাণ্ডের ১৫ বছর পূর্ণ হলো আজ রোববার। এই উপলক্ষ্যে পিলখানা হত্যাকাণ্ডে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে।

রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা ৮মিনিটে বনানীর সামরিক কবরস্থানে শহীদদের কবরে পুস্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শাহাদত বরণকারী সেনাকর্মকর্তাদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

প্রথমে রাষ্ট্রপতির পক্ষে রাষ্ট্রপতির সামরিক সচিব এবং প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

পরবর্তীতে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল এম নাজমুল হাসান ও বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

তিন বাহিনী প্রধানের পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিবের পক্ষে জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশরাফুজ্জামান সিদ্দিকী শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর শহীদ পরিবারের সদস্য ও নিকট আত্মীয়রা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

পুস্পস্তবক অর্পণ শেষে শহীদদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয় এবং কর্মরত সামরিক সদস্যরা স্যালুট প্রদান করেন। পরে শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। এ সময় সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তা, জেসিও এবং অন্যান্য পদবির সেনাসদস্য, শহীদ পরিবারের সদস্য ও নিকটাত্মীয়রা উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকাসহ ৮ অঞ্চলে হতে পারে ঝোড়ো বৃষ্টি
                                  

ঢাকাসহ দেশের ৮টি অঞ্চলের ওপর দিয়ে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) ভোর থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক স্বাক্ষরিত পূর্বাভাসে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, কুমিল্লা এবং সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে, সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা কমতে পারে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তরের অপর এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

শবেবরাত সবার জন্য রহমত ও কল্যাণ বয়ে আনুক : রাষ্ট্রপতি
                                  

রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন বলেছেন, ‘পবিত্র শবেবরাত সবার জন্য রহমত, বরকত, সমৃদ্ধি ও কল্যাণ বয়ে আনুক, মহান আল্লাহর দরবারে এ প্রার্থনা করি।

রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) ‘পবিত্র শবেবরাত’ উপলক্ষে দেওয়া এক বাণীকে তিনি এ কথা বলেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, মাহে রমজান ও সৌভাগ্যের আগমনী বারতা নিয়ে পবিত্র লায়লাতুল বরাত আমাদের মাঝে সমাগত। উপমহাদেশে শবেবরাত প্রধানত মুক্তির রজনী হিসেবে পালিত হয়। পবিত্র এ রজনী আল্লাহ তা’য়ালার বিশেষ অনুগ্রহ ও ক্ষমা লাভের অপার সুযোগ এনে দেয়। ইসলাম শান্তি ও কল্যাণের ধর্ম। মানুষের ইহকালীন কল্যাণ ও পরকালীন মুক্তির জন্য ইসলামের সুমহান আদর্শ আমাদের পাথেয়।

তিনি বলেন, শবেবরাতের এই পবিত্র রজনীতে আমরা সর্বশক্তিমান আল্লাহর দরবারে অশেষ রহমত ও বরকত কামনার পাশাপাশি দেশের অব্যাহত অগ্রগতি, কল্যাণ এবং মুসলিম উম্মাহর বৃহত্তর ঐক্যের প্রার্থনা জানাই। পবিত্র শবেবরাতের পূর্ণ ফজিলত আমাদের ওপর বর্ষিত হোক।

তিনি আরও বলেন, পবিত্র শবেবরাত মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত মহিমান্বিত ও বরকতময় এক রজনী। এ উপলক্ষে দেশবাসীসহ সমগ্র মুসলিম উম্মাহকে আন্তরিক মোবারকবাদ জানাই।

রাষ্ট্রপতি বলেন, আর কিছুদিন পরই আসছে পবিত্র রমজান মাস। বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক সংকটের জন্য দেখা দিয়েছে মূল্যস্ফীতির ঊর্ধ্বগতি। এ পরিপ্রেক্ষিতে সমাজের অসহায়, দরিদ্র ও দুর্দশাগ্রস্ত মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসতে আমি বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। পরম করুণাময় সব সংঘাত-সংকট থেকে বিশ্ববাসীকে রক্ষা করুন।

ডেঙ্গুর প্রকোপ : এবার আগেভাগেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার নির্দেশ
                                  

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ২০২৩ সালে সারাদেশে এক হাজার ৭০৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর এ যাবৎকালে গত বছরই রেকর্ডসংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়। মৃত্যুর এ দীর্ঘ মিছিলে ছিল শিক্ষার্থীরাও। বিশেষ করে শিশুশিক্ষার্থী বেশি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়। ডেঙ্গু কেড়ে নেয় দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শতাধিক শিক্ষার্থীর তাজা প্রাণ।

সার্বিক দিক মাথায় রেখে এবার আগেভাগেই প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার। মশাবাহিত এ রোগের প্রকোপ ঠেকাতে শীতের শেষেই দেশের সব সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আঙিনা নিয়মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

একইসঙ্গে সব সরকারি-বেসরকারি অফিস, হাসপাতাল, ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বসতবাড়ি নিয়মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে ও সচেতনতামূলক প্রচারপ্রচারণা জোরদার করতে বলা হয়েছে।

গত বছরের মতো ডেঙ্গুর সংক্রমণের ভয়াবহতা ঠেকাতে চলতি বছরের শুরুতেই পরিচ্ছন্নতা ও প্রচার প্রচারণা জোরদার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডেঙ্গুসহ মশাবাহিত অন্যান্য রোগ প্রতিরোধ বিষয়ক জাতীয় কমিটি। কমিটির সিদ্ধান্ত আমলে নিয়ে এরইমধ্যে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ও প্রচারণা চলানোর নির্দেশনা দেওয়া শুরু করেছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো।

দেশের সব মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আঙিনা নিয়মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার নির্দেশ দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরকে নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর গত ২২ ফেব্রুয়ারি সব কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আঙিনা নিয়মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে নির্দেশনাও জারি করেছে।

চালানোর নির্দেশনা দিতে কমিটির পক্ষ থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগকে চিঠি পাঠিয়েছে। আর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়কে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আঙিনা পরিচ্ছন্ন রাখার ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মাধ্যমিক বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন বলেন, ‘কমিটির নির্দেশনাগুলো যাতে মাউশির অধীনস্থ দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যথাযথভাবে অনুসরণ করা হয়, সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস আজ
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস আজ রোববার। এ উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। পৃথক বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

স্থানীয় সরকার বিভাগ দ্বিতীয়বারের মতো স্থানীয় সরকার দিবস উদযাপন করছে। এবার দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে ‘স্মার্ট হবে স্থানীয় সরকার, নিশ্চিত করবে সেবার অধিকার’।

রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) ঢাকায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস ২০২৪’ উদযাপন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সভায় সভাপতিত্ব করবেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে সারাদেশের স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের প্রায় তিন হাজার জনপ্রতিনিধি ও সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস-২০২৪ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানটি বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।

রোজার আগেই ভার‌ত থে‌কে দে‌শে পেঁয়াজ ঢুক‌বে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী
                                  

রোজার আগে ভার‌ত থে‌কে দে‌শে কিছু পেঁয়াজ ঢুক‌বে ব‌লে জা‌নি‌য়ে‌ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শনিবার জাতীয় সংসদ ভবন প্রাঙ্গণে এলডি হল চত্বরে ‘রাঙ্গুনিয়া সমিতি, ঢাকা’ আয়োজিত সংবর্ধনা, মেজবান ও মিলন মেলা অনুষ্ঠানে শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান মন্ত্রী।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ব‌লেন, ভারত থেকে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ দেশে আসছে। রোজার আগেই কিছু পেঁয়াজ বাজারে ঢুকবে।

বাজার কারসাজির বিরুদ্ধে ইশতেহার অনুযায়ী সরকার কঠোর ব্যবস্থা নেবে জা‌নি‌য়ে মন্ত্রী ব‌লেন, নির্বাচনী ইশতেহারে আমরা বলেছিলাম, দ্রব্যমূল্য যেন মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে থাকে সেটার ওপর আমরা অগ্রাধিকার দিচ্ছি। এই সরকারের যাত্রার শুরু থেকে সেই অগ্রাধিকার নিয়ে আমরা কাজ করছি এবং বাজারের অসাধু সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে সরকার সব রকম ব্যবস্থা নেবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাজারের অসাধু সিন্ডিকেট কারণে-অকারণে নানা অজুহাতে বিভিন্ন পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি করে। আমরা দেখেছি, একটি কোল্ড স্টোরেজের ভেতর থেকে দেড় লাখ ডিম উদ্ধার করা হয়েছে। অতীতে পেঁয়াজের সংকট তৈরি করা হয়েছিল। আবার যখন বিদেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হলো, বাজারে পেঁয়াজ সয়লাব হয়ে গেলো, তখন স্টোরেজ থেকে জমিয়ে রাখা পচা পেঁয়াজ ফেলে দেওয়া হয়েছে। এই ধরনের সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে আমাদের সরকার সমস্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

হাছান মাহমুদ বলেন, যারা সরকারকে টেনে নামাতে চায়, এই সিন্ডিকেটের সঙ্গে তারাও যে যুক্ত, সেটি সঠিক। তবে আপনারা দেখছেন, বাজার মোটামুটি স্থিতিশীল আছে। কেবল পাইকারি বিক্রেতা না, খুচরা বিক্রেতাদের মধ্যেও একটু বেশি মুনাফা করার প্রবণতা দেখা দিয়েছে। আমরা এটির বিরুদ্ধে জনগণকে সচেতন হতে বলেছি। সরকারও সর্বাত্মক ব্যবস্থা নেবে।

বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম খানের মন্তব্য নি‌য়ে হাছান মাহমুদ ব‌লেন, সরকার তো অবশ্যই পাঁচ বছর পর পরিবর্তন হবে। তখন দেশে নির্বাচন হবে, তারপর নতুন সরকার গঠন করা হবে। আশা করি, জনগণের ভোটে সেই সরকারেরও প্রধান হবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশে আসছেন বিশ্বব্যাংকের এমডি
                                  

ঝটিকা সফরে বাংলাদেশ সফরে আসছেন বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অ্যানা বেজার্ড। বাংলাদেশে এটিই তার প্রথম সরকারি সফর।

একদিনের সফরে তিনি আজ শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যার পর ঢাকায় পৌঁছাবেন বলে জানিয়েছে বিশ্বব্যাংকের ঢাকা অফিস।

বিশ্বব্যাংকের ঢাকা অফিস জানায়, অ্যানা বেজার্ড বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী এবং অন্যান্য ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা, সুশীল সমাজ এবং বেসরকারি খাতের নেতাদের সঙ্গে দেখা করবেন। তার সঙ্গে থাকবেন দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্টিন রাইসার।

সংস্থাটি আরও জানায়, স্বাধীনতার পর বাংলাদেশকে সহায়তাকারী প্রথম উন্নয়ন সহযোগীদের মধ্যে বিশ্বব্যাংক ছিল অন্যতম। দেশ স্বাধীনের পর বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশে ৪১ বিলিয়নের বেশি প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। এই ঋণের বেশিরভাগই অনুদান বা রেয়াতি ঋণ। বাংলাদেশে বর্তমানে বিশ্বব্যাংক গ্রুপের ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট অ্যাসোসিয়েশন (আইডিএ) দ্বারা সমর্থিত বৃহত্তম চলমান কর্মসূচি রয়েছে।

বিদ্যুৎ সুবিধা বজায় রাখতে সমন্বয় করতে হবে: কাদের
                                  

 

বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, বিদ্যুতে যথেষ্ট ভর্তুকি দিতে হচ্ছে সরকারকে। এই ভর্তুকি ধীরে ধীরে কমাতে চাই। সে কারণে সমন্বয় করাটা জরুরি হয়ে পড়েছে। বিদ্যুৎ সুবিধা যদি বজায় রাখতে চাই, তাহলে আমাদের সমন্বয় করতে হবে।

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন সেতুমন্ত্রী।

তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে দিনে ১৮ ঘণ্টা লোডশেডিং হতো। আর বিদ্যুতের দাম পাঁচ বছরে তারা ৯ বার বাড়িয়েছিল। আওয়ামী লীগ সরকার শতভাগ বিদ্যুৎ দিয়েছে। শেখ হাসিনার সরকারের আমলে বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২৯ হাজার ৭০০ মেগাওয়াটে উন্নীত হয়েছে।

দ্রব্যমূল্যের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের দাবি করেন, অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে বিএনপি সিন্ডিকেট লালন-পালন করেছ, এবং মজুতদারদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে।

মন্ত্রী বলেন, বিএনপি সরকার ছিল ব্যবসায়ী সরকার। আর আওয়ামী লীগ ব্যবসা করতে আসেনি। এখানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকার হাল ছেড়ে দিয়েছে- এ কথা মনে করার কোনো কারণ নেই। যে অশুভ চক্র দ্রব্যমূল্য বাড়িয়ে জন অসন্তোষের কারণ সৃষ্টি করছে, তাদের কোনো অবস্থাতেই ছাড় দেওয়া হবে না। প্রধানমন্ত্রী নিজেই জোরালোভাবে সেটি বলেছেন।

‘বিএনপি গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবে এবং আন্দোলনে সরকারের পতন অবশ্যই হবে’- বিএনপির এক নেতার এমন মন্তব্যের বিষয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, এখন প্রশ্ন হচ্ছে দেশে একটা নির্বাচন হয়ে গেলো। তারা নির্বাচনে অংশ নেয়নি। আন্দোলনের নামে সন্ত্রাসের মহড়া দিয়েছে। আগুন সন্ত্রাস করেছে। কত ভয়ংকর বিএনপি হতে পারে সেটা তারা করে দেখিয়েছে। জনগণের সম্পৃক্ত ছিল না বলে অতীতে তারা ব্যর্থ হয়েছে।

দেশের মানুষের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে
                                  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমি চাই, আমার দেশের মানুষ ন্যায়বিচার পাবে। আমাদের মতো যেন বিচারহীনতায় তাদের কষ্ট পেতে না হয়। তারা যেন ন্যায়বিচার পায় এবং দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার এবং অর্থনৈতিক-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অধিকার সুনিশ্চিত হয়। বাংলাদেশ যেন এগিয়ে চলে এবং ভারত-বাংলাদেশ বন্ধুত্ব যেন চিরস্থায়ী হয়।

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘দক্ষিণ এশিয়ার একবিংশ শতাব্দীর সাংবিধানিক আদালত: ভারত-বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সরকারের নেওয়া নানান উদ্যোগ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা সরকারে আসার পর থেকে মানুষ যাতে ন্যায়বিচার পায়, তার জন্য আমরা বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন শুরু করি।

শেখ হাসিনা বলেন, মানবাধিকারের কথা শুনি, ন্যায়বিচারের কথা শুনি। সেই ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার কি আমাদের ছিল না? আমি অনেকবারই হাইকোর্টে গিয়েছি, অনেক অনুষ্ঠানে গেছি। আমি যখন গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম করি, আমি বারবার এ প্রশ্নটাই করেছি, বিচারের বাণী নিভৃতে কাঁদে। আমরা বিচার পাবো না?

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজ দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নতিটা হচ্ছে, সেটা গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত আছে বলে এবং একটা স্থিতিশীল পরিবেশ আছে বলেই এটা সম্ভব হয়েছে। আজকে এটা প্রমাণিত সত্য যে, মানুষের জীবনে ন্যায়বিচার প্রাপ্তি, আর্থ-সামাজিক উন্নতি, এটা একমাত্র হতে পরে যখন মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণ করার সুযোগ হয় এবং দেশটা উন্নয়নের পথে এগিয়ে যেতে পারে।

আওয়ামী লীগ সরকারই বিচার বিভাগ ও নির্বাচন কমিশনকে স্বাধীন করেছে বলে উল্লেখ করেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সংবিধানে তো বিচার পাওয়ার অধিকার সকলেরই আছে কিন্তু সেখানে আমাদের প্রশ্ন যে, আমরা কি অপরাধ করেছিলাম? ১৯৮১ সালের আগে ছয় বছর আমাকে প্রবাসে থাকতে হয়, কারণ তখনকার মিলিটারি ডিকটেটর আমাকে আসতে দেবে না দেশে। রেহানাকেও আসতে দেবে না এবং তার পাসপোর্টটাও রিনিউ করতে দেয়নি।

তিনি বলেন, সে অবস্থায় আমাকে যখন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি আমার অবর্তমানে নির্বাচিত করা হয়, এক রকম জোর করে, জনগণের সমর্থন নিয়েই আমি দেশে ফিরে আসি। আমি যখন আমার বাবা-মা, ভাইয়ের হত্যার বিচারের জন্য মামলা করতে যাই, সেখানে মামলা করা যাবে না। ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স দিয়ে খুনীদের বিচারের হাত থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। এটা কেমন ধরনের কথা?

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ভারতের প্রধান বিচারপতি ধনঞ্জয় যশবন্ত চন্দ্রচূড় (ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়) এবং বাংলাদেশের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

খারাপ হয়েছে ঢাকার বায়ু
                                  

বায়ুদূষণের শীর্ষে উঠে এসেছে ভারতের দিল্লি। তবে দূষণ মাত্রার দিক থেকে রাজধানী ঢাকার অবস্থান চতুর্থ। শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা ৫ মিনিটে বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের (আইকিউএয়ার) সূচক থেকে জানা গেছে এ তথ্য।

তবে গতকাল বৃষ্টির প্রভাবে বায়ুমানে বেশ উন্নতি ঘটলেও একদিনের ব্যবধানে আবারও অস্বাস্থ্যকর হয়ে উঠেছে ঢাকার বায়ু। গতকাল ঢাকার স্কোর ছিল ১৬১ এবং তালিকায় ঢাকার অবস্থান ছিল ষষ্ঠ।

আজ তালিকার শীর্ষে অবস্থান করা দিল্লির বায়ুর মানের স্কোর হচ্ছে ১৮১ অর্থাৎ সেখানকার বায়ু ‘অস্বাস্থ্যকর’ পর্যায়ে রয়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে পাকিস্তানের করাচি। শহরটির স্কোর হচ্ছে ১৭০ অর্থাৎ সেখানকার বায়ুর মানও অস্বাস্থ্যকর।

সূচকে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারতের কলকাতা এবং শহরটির স্কোর হচ্ছে ১৬৭। এর অর্থ দাঁড়ায় সেখানকার বায়ুর মানও অস্বাস্থ্যকর।

দূষণের তালিকায় আজ ঢাকার অবস্থান চতুর্থ। রাজধানী ঢাকার দূষণমাত্রার স্কোর হচ্ছে ১৬৪ অর্থাৎ এখানকার বায়ু মান আজ অস্বাস্থ্যকর।

স্কোর শূন্য থেকে ৫০ এর মধ্যে থাকলে বায়ুর মান ভালো বলে বিবেচিত হয়। ৫১ থেকে ১০০ হলে মাঝারি বা সহনীয় ধরা হয় বায়ুর মান। সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর হিসেবে বিবেচিত হয় ১০১ থেকে ১৫০ স্কোর। ১৫১ থেকে ২০০ পর্যন্ত অস্বাস্থ্যকর হিসেবে বিবেচিত হয়। স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে খুবই অস্বাস্থ্যকর বলে বিবেচনা করা হয়। এছাড়া ৩০১-এর বেশি হলে তা দুর্যোগপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়।

ভূমি মন্ত্রণালয়ের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা নাগরিক জীবনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনতে পারে: মন্ত্রী
                                  

ঢাকা: ভূমিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ বলেছেন, বাংলাদেশের সীমানা জুড়ে যে ভূমি ও সমুদ্র রয়েছে সেগুলো ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতায়। প্রতিটি নাগরিক ও প্রাণি এর সঙ্গে জড়িত।

কারণ সবাই আমরা ভূমিতে থাকি। তাই এ মন্ত্রণালয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ মন্ত্রণায়লেয়ের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা নাগরিক জীবনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনতে পারে।
শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়রি) সকালে ভূমি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে নারায়ণ চন্দ্র চন্দ দায়িত্ব গ্রহণ করায় তাকে সংবর্ধনা দেয় বাংলাদেশ ভূমি অফিসার্স কল্যাণ সমিতি।

রাজধানীর কাকরাইলে অবস্থিত ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশে আয়োজিত সে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ভূমিমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন, ভূমির মালিক এক সময় জমিদাররা ছিলেন। এখন জমিদারের পরিবর্তে ভূমির মালিক সরকার। মূলত এখন জনগণই মালিক। কারণ এখন স্থায়ী সত্ত্ব দেওয়া হয়েছে। আগে উৎখাত করা যেতো, এখন উৎখাত করা যায় না। প্রয়োজনে কিনে নেওয়া যায়, এর জন্য দাম দিতে হয়। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী তিনগুণ দামও দিচ্ছেন। সত্ত্ব চলে গেছে জনগণের হাতে। দেশের জনগণই ভূমির মালিক। অতএব এর ব্যবস্থাপনা যদি সুষ্ঠু না হয়, তাহলে পুরো জনগোষ্ঠী ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ফলে আপনাদের (ভূমি কর্মকর্তা) দায়িত্ব পালনের ওপরই নির্ভর করবে, জনগণ কতটা সন্তুষ্ট থাকছেন।

তিনি বলেন, ভূমি কর্মকর্তাদের নিয়ে অতীতে যে কথাগুলো রয়েছে, সে কথাগুলো থেকে আমাদের মুক্ত হতে হবে। আমরা স্বচ্ছতায় ফিরে যেতে চাই। অনেক পথ আমরা পার হয়েছি। অনেক পরিবর্তনও হয়েছে। নিজেদের ত্রুটির পাশাপাশি এখানে তৃতীয় পক্ষ (দালাল) রয়েছে। যারা মধ্যস্থতা করে অনেক কিছু করে।

নারায়ন চন্দ্র চন্দ আরও বলেন, আমি ৬ বার চেয়ারম্যান ছিলাম। ভূমি বিষয়ে কি কারচুপি তা পুঙ্খানুপুঙ্খ জানি। আমি জমি বন্দবস্তো দিয়েছি গরিবদের। সেই গরিবদের ভুলায়ে ১৫ বছর পর পুরো জমি একটি লোক নিয়ে গেছে। এখানে সহযোগিতা করেছে নায়েব। নায়েব সহযোগিতা না করলে এটা করতে পারতো না। আমাদের এই জায়গা থেকে বের হয়ে আসতে হবে। ভূমি ব্যবস্থাপনা দুর্নীতিমুক্ত হোক।

তিনি বলেন, তহসিল অফিসে বিল্ডিং করা হচ্ছে। যেগুলো হয়নি, সেগুলোও দ্রুত ছাড়ার ব্যবস্থা করবো। কিন্তু আপনাদের খাস জমি রক্ষা ও ব্যবস্থাপনা করতে হবে। খাস জমি যদি আগে থেকে রক্ষা করতে পারি, তাহলে ১০তলা বিল্ডিং ভাঙতে হবে না। আপনারা এগিয়ে আসুন।

তিনি আরো বলেন, তৃতীয় পক্ষ (দালাল) যেনো ভূমি অফিসে না ঢুকে। আপনারা সাধারণ মানুষকে সহযোগিতা করবেন এবং বলবেন তারা যেনো দালালের কাছে না যায়।

ই-নাম জারির বিষয়ে তিনি বলেন, এখানেও তৃতীয় পক্ষ হস্তক্ষেপ করছে। এখানেও দুর্নীতি চলছে। এখানে সমস্যা হয়েছে, আমাদের প্রতিটি নাগরিক কম্পিউটার অপারেট করতে পারে না। যার কারণে তারা তৃতীয় পক্ষের কাছে যাচ্ছে। নাগরিকরা যতদিন পর্যন্ত এটা অপারেট করতে পারবে না, ততদিন পর্যন্ত সঠিক সফলতা আসবে না। কিন্তু ১৬-১৭ কোটি নাগরিককে তো ট্রেনিং দেওয়া সম্ভব না। আমরা এজন্য মাঠ পর্যায়ে যাবো। গিয়ে সেখানে প্রচার করতে চাই, যিনি নিজে পারবেন না, তিনি যেন তহসিল অফিস বা ইউনিয়ন পরিষদ বা হাই স্কুলের কম্পিউটার অপারেটরদের সাহায্য নেন। তাহলে স্বচ্ছতা ফিরে আসবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মুন্সিগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, আজকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী খ ও গ তফসিলের মাধ্যমে ভূমির অনেক ঝামেলা নিরসন করেছেন। আমি ভূমিমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানাতে চাই, ক তফসিলের ব্যাপারেও যদি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপ করে ব্যবস্থা নেন, তাহলে সমগ্র জাতি বেঁচে যাবে।

বাংলাদেশ ভূমি অফিসার্স কল্যাণ সমিতির সভাপতি মো. মোতাহার হোসেন খানের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব মো. আসাদুজ্জামানের স্বাগত বক্তব্যে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সমিতির কার্যকরী সভাপতি আবুল হোসেন, প্রধান উপদেষ্টা মো. ফারুক খান, সহ-সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন, মো. নাসির উদ্দিন, মো. মৌদুদুর রহমান কল্লোল ও অর্থ সম্পাদক মো. মনিরুজ্জামান।

অনুষ্ঠানে ভূমিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দকে বাংলাদেশ ভূমি অফিসার্স কল্যাণ সমিতির পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

কিশোর গ্যাংয়ের মদদদাতাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে: র‌্যাব
                                  

ঢাকা: কিশোর গ্যাং গ্রুপের মদদদাতা হিসেবে যারা কাজ করছে তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১ এর অধিনায়ক (সিও) লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোস্তাক আহমেদ।

তিনি বলেন, বিভিন্ন এলাকায় কিশোর গ্যাং গ্রুপের সদস্যরা স্থানীয় বড় ভাইদের হয়ে কাজ করে।

অনেকেই এসব গ্রুপের সদস্যদের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে। যারা এসব গ্যাং গ্রুপের মদদদাতা রয়েছে তাদের আইনের আওতায় আনতে অভিযান চলমান রয়েছে।
শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর উত্তরায় র্যাব-১ এর কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে কিশোর গ্যাং গ্রুপ প্রসঙ্গে এসব কথা বলেন তিনি।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাজধানী ঢাকার মহাখালী, বনানী, বিমানবন্দর, টঙ্গি ও গাজীপুর এলাকায় একাধিক অভিযান চালিয়ে ৬টি কিশোর গ্যাং গ্রুপের দলনেতাসহ ৩৭ জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-১।

গ্রেপ্তাররা হলেন- কিশোর গ্যাংয়ের মধ্যে `০০৭` গ্রুপের দলনেতা আল-আমিন (২৪), `জাউরা` গ্রুপের দলনেতা মাহাবুব (১৯), `বাবা` গ্রুপের দলনেতা সাদ (২২), `ভোল্টেজ` গ্রুপের- মনা (২৮), `ডি কোম্পানি` গ্রুপের- (লন্ডন পাপ্পু চালায়) মো. আকাশ (৩০) ও মো. আমির হোসেন (৩৬), `জাহাঙ্গীর` গ্রুপ ওরফে বয়রা জাহাঙ্গীর গ্রুপের দলনেতা। এসব গ্রুপের গ্রেপ্তার বাকি সদস্যরা হলেন- রাসেল (১৭), আরাফাত (১৭), রবিন (১৫), ইসলাম (২৯), জুয়েল (২২), রবিউল (১৬), মুরাদ (১৭), রোহান (২২), হৃদয় (২০), ওবায়েদ (১৮), মো. জিসান (১৯), মো. ঈমন (২০), মো. রমজান (২১), মো. সজিব (১৮), মো. শাকিব (২২), মো. রাজিব (১৯), শাহজাহান সাজু ওরফে রাসেল (৪৫), মো. জিলাদ মিয়া (২০), মো. হৃদয় (১৯), আ. রায়হান (১৫), মো. বাবু মিয়া (২২), মো. শাহজাহান (২১), মো. জালাল মিয়া (২৮), লামিম মিয়া (১৫), মো. রাকিব (১৬), মো. হিরা মিয়া (১৭), ইমরুল হাসান (১৭), মো. সাকিন সরকার রাব্বি (১৮), মো. সুজন মিয়া (১৯), খাইরুল (১৯) ও রাহাত (১৯)।

অভিযানে আসামিদের কাছ থেকে ৫০০ গ্রাম গাজা, ২৪ টি মোবাইল, ১টি ব্লেড, ১টি কুড়াল, ১টি পাওয়ার ব্যাংক, ৫টি রড, ১৬টি চাকু, ৩টি লোহার চেইন, ১টি হাতুড়ি, ১টি মোটরসাইকেল এবং নগদ ২৪ হাজার ২৫০ টাকা উদ্ধার করা হয়।

র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোস্তাক আহমেদ বলেন, বর্তমান সময়ে কিশোর গ্যাং, গ্যাং কালচার, উঠতি বয়সি ছেলেদের মাঝে ক্ষমতা বিস্তারকে কেন্দ্র করে এক গ্রুপের সঙ্গে অন্য গ্রুপের মারামারি করা বহুল আলোচিত ঘটনা। গ্যাং সদস্যরা এলাকায় নিজেদের অস্তিত্ব জানান দিতে উচ্চ শব্দে গান বাজিয়ে দলবেঁধে ঘুরে, বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল চালায়, পথচারীদের উত্ত্যক্ত করে এবং ছোটখাটো বিষয় নিয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে মারামারি করে।

এছাড়াও তারা নিজেদের আধিপত্য বিস্তারে তাদের বিশৃঙ্খলায় কেউ প্রতিবাদ করলেও খুন করতেও দ্বিধাবোধ করে না। এরই ধারাবাহিকতায় রাজধানীর মহাখালী, বনানী, বিমানবন্দর, টঙ্গি ও গাজীপুর এলাকায় একাধিক অভিযানে কিশোর গ্যাং গ্রুপ ‘০০৭ গ্রুপের দলনেতা আল-আমিন, জাউরা গ্রুপের দলনেতা মাহাবুব, বাবা গ্রুপের দলনেতা সাদ, হাই ভোল্টেজ গ্রুপের মনা, ডি কোম্পানির দলনেতা পাপ্পু ওরফে লন্ডন পাপ্পু ও তার অন্যতম দুই সহযোগী আকাশ ও আমির হোসেন, জাহাঙ্গীর গ্রুপের দলনেতা বয়রা জাহাঙ্গীরসহ ৩৭ জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোস্তাক আহমেদ বলেন, প্রতিটি গ্রপের আনুমানিক সদস্য ১০ থেকে ১৫ জন। তারা টাকার বিনিময়ে মারামারি, দখলবাজি, ছিনতাই, ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।

গ্রেপ্তাররা জিজ্ঞাসাবাদে র‍্যাবকে আরও জানায়, তাদের মধ্যে ১৭ জনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় চুরি, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, মাদক, অস্ত্র, ধর্ষণ ও হত্যা চেষ্টাসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

কিশোর গ্যাং গ্রুপের মদদদাতা কারা, তাদের আইনের আওতায় আনা হবে কি-না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোস্তাক আহমেদ বলেন, আপনারা জানেন কিশোর গ্যাং গ্রুপের দলনেতাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এসব গ্যাং সদস্যদের কিছু ব্যক্তি ব্যবহার করে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করতে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে।

তিনি আরও বলেন, কিশোর গ্যাং গ্রুপের সদস্যরা মদদদাতাদের হয়ে মারামারি করে। অনেকেই এ গ্রুপের সদস্যদের মূলত হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে এমন তথ্য আমরা পেয়েছি। তাদের হয়ে কাজ করার কারণে অপরাধ করে শেল্টার পায়। যারা তাদের নানাভাবে মদদদাতা হিসেবে কাজ করছে তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক বলেন, গণমাধ্যম ও র‍্যাব সদরদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত নিয়ে কিশোর গ্যাং সম্পর্কে আমরা অনুসন্ধান করছি। আগেও এভাবে অনেককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। র‍্যাব-১ এর দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় আগে অনেকের নাম পেয়েছি। তাদের আইনের আওতায় আনা হয়েছে। এখন কিশোর গ্যাং নিয়ে নির্দেশনা পাওয়ার পরে গত ১৫ থেকে ২০ দিন ধরে কাজ করেছি। এ সময়ে নতুন গ্রুপগুলোকে দলনেতাসহ সদস্যদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কার্যক্রম, মামলাসহ তাদের বিষয় অনুসন্ধান চলছে। আমাদের অভিযান থেমে নেই। নতুন করে কোনো গ্রুপের তথ্য পেলে গ্রেপ্তার করা হবে।

কিশোর গ্যাং গ্রুপের সদস্যরা ওয়ার্ড ও থানা পর্যায়ের নেতাদের ছত্রছায়ায় বিভিন্ন সময় রাজনৈতিক মিছিল মিটিংয়ে দেখা যায়। এসব মদদদাতাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোস্তাক আহমেদ বলেন, আমি সুস্পষ্টভাবে বলতে চাই অপরাধীদের কোনো দল বা ঠিকানা থাকতে পারে না। তাদের কোনো পরিচয় বিষয় না। তারা কার হয়ে কাজ করে সেটিও বিবেচ্য বিষয় নয়। কোনো অপরাধ করলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে বিপাকে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীরা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : আর কিছুক্ষণের মধ্যেই শুরু হতে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের আন্ডারগ্র্যাজুয়েট ভর্তি পরীক্ষা। এ পরীক্ষায় অংশ নিতে নির্ধারিত সময়ের অনেক আগে থেকেই কেন্দ্রের সামনে ভিড় করতে দেখা গেছে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা শিক্ষার্থীদের। পরীক্ষা শুরুর আগে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে বেশ বিপাকে পড়েছেন তারা।

শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। পরীক্ষা চলবে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত। কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ তথা ‘খ’ ইউনিটের পরীক্ষার মাধ্যমে এবারের ভর্তি পরীক্ষার সূচনা হবে।

সরেজমিনে রাজধানীর ঢাকা কলেজ ও গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্র ঘুরে সকাল থেকেই অভিভাবক-শিক্ষার্থীসহ অসংখ্য মানুষের উপস্থিতি দেখা গেছে। মানুষের চাপে মিরপুর সড়কে তৈরি হয়েছে দীর্ঘ যানজট। পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে ট্র্যাফিক সদস্যদের। কেন্দ্রে প্রবেশের লাইন দীর্ঘ হয়ে চলে এসেছে মূল সড়কে।

এর মধ্যেই আবার সকাল সাড়ে ৯টার পর থেকে শুরু হয় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। অনেকটা অনাকাঙ্ক্ষিত এই বৃষ্টিতে অধিকাংশই ছাতা নিয়ে আসেননি। ফলে নিরুপায় হয়ে বৃষ্টির মধ্যেই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায় অনেককে।

ফরিদপুর থেকে পরীক্ষা দিতে আসা জুয়েল রানা বলেন, দূর থেকে আসা-যাওয়া খুবই ঝামেলার। তাছাড়া বৃষ্টি হতে পারে এটি আমার মাথায়ই ছিল না। এখন ভিজতে হচ্ছে। কিছু করার নেই।

আব্দুল বাতেন নামের এক অভিভাবক বলেন, শুক্রবার দিন যানজটের আশঙ্কায় অনেক আগেই কেন্দ্রের সামনে চলে এসেছি। ফুটপাতে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছিলাম। কিন্তু গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে ঝামেলা হয়ে গেল। বৃষ্টি না থাকলে এখানে দাঁড়িয়ে থাকতে কোনো সমস্যা হতো না। তাছাড়া সকাল বেলা আশপাশের সব মার্কেটই বন্ধ। সেজন্য বৃষ্টিতে কিছু সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে। তবে সন্তানের ভালোর জন্য এই কষ্টটুকু স্বীকার করে নিতেই হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবারের ‘খ’ ইউনিটের পরীক্ষায় দুই হাজার ৯৩৪ টি আসনের বিপরীতে আবেদন পড়েছে এক লাখ ২২ হাজার ২৭৯টি। সে হিসেবে প্রতিটি আসনের জন্য ৪২ জন শিক্ষার্থী লড়াই করবেন। পরীক্ষায় সময় থাকবে এক ঘণ্টা ৩০ মিনিট। এর মধ্যে ৬০ নম্বরের এমসিকিউ অংশের জন্য বরাদ্দ থাকবে ৪৫ মিনিট। ৪০ মার্কের লিখিত অংশের জন্য বরাদ্দ থাকবে ৪৫ মিনিট।

উল্লেখ্য, এ বছর ঢাকার মধ্যে ৬৬টি কেন্দ্রের পাশাপাশি বিভাগীয় শহরগুলোসহ মোট ৮০টি কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিট, ১ মার্চ (শুক্রবার) বিজ্ঞান ইউনিট ও ৯ মার্চ (শনিবার) চারুকলা ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা হওয়ার কথা রয়েছে।

বিশ্ব ব্যাংকের সহায়তা অব্যাহত থাকবে
                                  

বাংলাদেশের উচ্চ-মধ্যম আয় ও উচ্চ-আয়ের দেশের পর্যায়ে উত্তীর্ণ হওয়ার কাঙ্ক্ষিত পথে বিশ্ব ব্যাংকের সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলে প্রধানমন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেছেন প্রতিষ্ঠানটির উন্নয়ন নীতি ও অংশীদারিত্ব বিষয়ক জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপনা পরিচালক আক্সেল ভন টলেনবার্গ।

জার্মানি সফর নিয়ে আজ (শুক্রবার) আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এসব কথা বলেন শেখ হাসিনা। ১৬-১৮ ফেব্রুয়ারি জার্মানির মিউনিখ শহরে অনুষ্ঠিত হয় ৬০তম মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্স।

আজকের সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব ব্যাংকের উন্নয়ন নীতি ও অংশীদারিত্ব বিষয়ক জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সাথে সাক্ষাতে বাংলাদেশ ও বিশ্বব্যাংকের ৫০ বছরের অংশীদারিত্বের প্রেক্ষাপটে আমি মধ্যম আয়ের দেশভুক্ত হওয়ার ক্ষেত্রে তাদের অবদানের আলোকে বর্তমান অর্থবছরে বাজেট সহায়তা হিসেবে বিশ্বব্যাংক হতে অঙ্গীকারকৃত ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দ্রুত ছাড়ের আহ্বান জানাই। পাশাপাশি আমি জোরপূর্বক স্থানান্তরিত রোহিঙ্গাদের সাহায্যার্থে এবং এই সমস্যার বিরূপ প্রভাবে আক্রান্ত দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে প্রদত্ত ৭০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের অর্থায়ন সহায়তার জন্যও তাকে ধন্যবাদ জানাই।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক ডা. আধানম গেব্রিয়েসুস আমার সাথে সাক্ষাৎ করেন। তিনি বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাতে বিশেষ করে মৌলিক স্বাস্থ্যসেবায় আমাদের অর্জনের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি আসন্ন বিশ্ব স্বাস্থ্য সমাবেশে আমাকে আমন্ত্রণ জানান এবং বিশ্বের বাকি দেশগুলোকে বাংলাদেশের কম্যুনিটি ক্লিনিক মডেল অনুসরণ করার বিষয়ে অনুপ্রাণিত করার জন্য আমাকে অনুরোধ করেন। আলোচনাকালে আমি বর্তমান সরকারের সেকেন্ডারি ও টার্শিয়ারি স্বাস্থ্যসেবা, টিকা উৎপাদন, এন্টি-মাইক্রোবিয়াল প্রতিরোধ,নার্সিং ও অন্যান্য স্বাস্থ্যখাতে মানব সম্পদ উন্নয়ন ক্ষেত্রে গৃহীত পদক্ষেপগুলোর কথা উল্লেখ করে এতে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার সহায়তা আশা করি। এ বিষয়ে মহাপরিচালক আমাকে আশ্বস্ত করেন এবং আন্তর্জাতিক অভিমারি চুক্তি-এর দ্রুত সমাপনে বাংলাদেশের কূটনৈতিক সমর্থন কামনা করেন। এইদিন আমার সঙ্গে আরও সাক্ষাৎ করেন মেটার গ্লোবাল অ্যাফেয়ার্স প্রেসিডেন্ট ও যুক্তরাজ্যের সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী স্যার নিক্ রেগ। তিনিও আমাকে পুনঃনির্বাচিত হওয়ায় অভিনন্দন জানান। বাংলাদেশের ডিজিটাল খাতের উন্নয়ন ও অনলাইন প্ল্যাটফর্ম ব্যবহারের মাধ্যমে ডিজিটাল বাণিজ্যের ক্ষেত্র সুবিস্তারে সরকারের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি। আমি ডিজিটাল বাংলাদেশ অর্জনে আমাদের সফলতা তুলে ধরি এবং ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ বিনির্মাণ ও তথ্য নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ে মেটার সহযোগিতা আশা করি। এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশে বিভিন্ন মেটা প্ল্যাটফর্ম যেমন ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ইন্সটাগ্রাম প্রভৃতির ব্যক্তিগত ও বাণিজ্যিক ব্যবহারকারীর সুউচ্চ সংখ্যার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে আমি বাংলাদেশে মেটার একটি কার্যালয় স্থাপনের পরামর্শ দিই।

বড় শক্তিগুলোর প্রতিদ্বন্দ্বিতা নিয়ে আলোচনা হয়েছে
                                  

অনলাইন ডেস্ক : এবারের মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্সে বড় শক্তিগুলোর প্রতিদ্বন্দ্বিতা এবং আঞ্চলিক সংঘাত, অর্থনৈতিক নিরাপত্তা, নিউক্লিয়ার নিরাপত্তা, খাদ্য নিরাপত্তা, জলবায়ু নিরাপত্তা, তথ্য নিরাপত্তা, পানি নিরাপত্তা, অভিবাসন, সাপ্লাই চেইন, আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স, মহামারি ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা হয় বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জার্মানি সফরের বিষয়ে আজ (শুক্রবার) সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান শেখ হাসিনা। ১৬-১৮ ফেব্রুয়ারি জার্মানির মিউনিখ শহরে অনুষ্ঠিত হয় ৬০তম মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্স।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্সে মূলত রাষ্ট্র/সরকার প্রধান, আন্তর্জাতিক সংস্থা ও এনজিও নেতৃবৃন্দ, মিডিয়া, সুশীলসমাজ, সরকারি এবং বেসরকারি খাতের শীর্ষস্থানীয় প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণ করেন। এটি সমকালীন ও ভবিষ্যত নিরাপত্তার স্বার্থে উচ্চ-পর্যায়ের নিয়মিত আলোচনার একটি শীর্ষস্থানীয় ফোরাম হিসেবে বিবেচিত। এ বছরের ফোরামে ৩৫-জনেরও বেশি রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান অংশগ্রহণ করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী জানান, সফরের প্রথম দিন ১৬ ফেব্রুয়ারি আমি ফ্রম পকেট টু প্ল্যানেট : স্কেলিং আপ ক্লাইমেট ফাইন্যান্স’ সংক্রান্ত একটি উচ্চ পর্যায়ের প্যানেল আলোচনায় অংশগ্রহণ করি। এই আলোচনায় আমার সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র সরকারের জলবায়ু বিষয়ক বিশেষ দূত জন কেরি, বারবাডোসের প্রধানমন্ত্রী মিয়া আমোর মটলে এবং মালদ্বীপের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোসা জামির। প্যানেলটিতে উদ্বোধনী বক্তা হিসেবে আমি বক্তব্য প্রদান করি। বক্তব্যের শুরুতেই আমি গাজা ও বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তে চলমানযুদ্ধ-বিগ্রহ, অবৈধ দখলদারিত্ব এবং নিরস্ত্র মানুষের, বিশেষ করে মহিলা ও শিশুদের, অমানবিক হত্যার কবল থেকে মুক্ত করে সকল প্রকারযুদ্ধ অবিলম্বে বন্ধ করার জোর আহ্বান জানাই।

তিনি আরও বলেন, অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা ও পাল্টা-নিষেধাজ্ঞার বিরূপ প্রভাব যে যুদ্ধক্ষেত্র থেকেও বহুদূর পর্যন্ত অনুভূত হয়, এ বিষয়ে আমি সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করি। এ প্রসঙ্গে আমি অর্থহীন অস্ত্র-প্রতিযোগিতার সমাপ্তি ঘটিয়ে জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় রসদ ও অর্থায়ন সহজলভ্য ও কার্যকর করার জন্য সকলকে অনুরোধ করি। মানবতার অস্তিত্বের সংকট কালে ক্ষুদ্র স্বার্থ যে শুধু অনর্থই বয়ে আনে - এই রূঢ় বাস্তবতা আমি সকলের সামনে তুলে ধরি। আর তাই, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট ক্রমবর্ধমাননিরাপত্তা ঝুঁকি এবং তা মোকাবিলায় অবিলম্বে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আন্তর্জাতিক মহলের প্রতি আহ্বান জানাই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট সমস্যা মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় অর্থায়নের বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে বিবেচনার জন্য বিশ্বের সকলকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানাই। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত বহুবিধ নিরাপত্তা ঝুঁকি মোকাবিলায় ক্ষতিগ্রস্থ দেশ ও জনগোষ্ঠীর জন্য অর্থায়নের পরিমাণ বৃদ্ধি, প্রতিশ্রুত অর্থের বাস্তবিক হস্তান্তর, ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোতে আর্থিক ও প্রযুক্তিগত সহায়তা নিশ্চিত করার ওপর আমি বিশেষভাবে জোর দেই।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের বৈশ্বিক ঝুঁকি মোকাবিলায় আমি ধনী দেশগুলোর রাজনৈতিক অঙ্গীকারের দ্রুত বাস্তবায়ন এবং সংশ্লিষ্ট সকলকে পারস্পরিক অংশীদারিত্ব ও সহযোগিতার ভিত্তিতে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানাই। এদিন আমার হোটেল স্যুইটে ওমেন পলিটিক্যাল লিডারসের সভাপতি ও প্রতিষ্ঠাতা সিলভানা খক্ মেহরিন আমার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে তিনি আমাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পুনঃনির্বাচিত হওয়ার জন্য অভিনন্দন জানান এবং গত দেড় দশকে বাংলাদেশে নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের ভূয়সী প্রশংসা করেন। নারীর রাজনৈতিকক্ষমতায়নে অসামান্য অবদানের জন্য আমাকে ডব্লিউপিএলের ট্রেইলব্লেজার অ্যাওয়ার্ড ২০২৩ গ্রহণের জন্য তিনি আমাকে আগামী ২০ মার্চ ২০২৪ তারিখ এথেন্সে অনুষ্ঠিতব্য সামিটে অংশগ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানান। আলোচনায় আমি আমাদের সরকারের- বিশেষ করে নারীর রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন সংক্রান্ত নীতিগুলোর বিষয়ে আলোকপাত করলে এ বিষয়ে পশ্চিমাবিশ্বের বাংলাদেশের নীতি ও কার্যক্রমগুলো থেকে শিক্ষা নেওয়া উচিত বলে তিনি মন্তব্য করেন।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, একইদিন আমি কাতারের প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ বিন্ আব্দুলরামান আল-থানির সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করি। তিনি আমাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পুনঃনির্বাচিত হওয়ায় অভিনন্দন জ্ঞাপনের পাশাপাশি আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে আরও জোরদার করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। আলোচনাকালে পারস্পরিক ব্যবসা-বাণিজ্য, বিনিয়োগ, এলএনজি সরবরাহ প্রভৃতির পাশাপাশি রোহিঙ্গা সমস্যার টেকসই ও দ্রুত সমাধানে কাতারের অব্যাহত সমর্থনের ব্যাপারে তিনি আশ্বস্ত করেন। গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি সহিংসতা বন্ধে একযোগে কাজ করার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কেও আমরা আলোচনা করি।

মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগ দিতে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি জার্মানি যান প্রধানমন্ত্রী। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়লাভের পর সরকারপ্রধান হিসেবে এটি ছিল তার প্রথম কোনো রাষ্ট্রীয় সফর।

তিন দিনের সরকারি সফর শেষে ১৯ ফেব্রুয়ারি দেশে ফেরেন প্রধানমন্ত্রী।

আগামীতে পেঁয়াজ আমদানি করতে হবে না : সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পেঁয়াজ আমাদের যথেষ্ট উৎপাদন হচ্ছে। সেটা আমরাই শুরু করেছি। পেঁয়াজের বীজ উৎপাদন আমরা শুরু করেছি। আগামীতে আমদানি করতে হবে না। আপনার যখন নিউজ করেন তখন তারাই লুকিয়ে রাখা পেঁয়াজ বের করে। বাজারে তার একটা প্রভাব আছে। সেজন্য দামগুলো সামঞ্জস্য হয়। এগুলো বাস্তব কথা, আমি খোলামেলা কথা বলছি, লুকানোর কিছু নাই।

আজ (শুক্রবার) সকালে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে তিনদিনের জার্মানি সফর সম্পর্কে জাতিকে অবহিত করতে সংবাদ সম্মেলন তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ষড়যন্ত্র চলছে, ষড়যন্ত্র আছে। আমি আসার পর থেকে বারবার আমাকে বাধা দেওয়া হয়েছে, আমি যেন ক্ষমতা না যেতে পারি। ৭৫-এ জাতির পিতা হত্যাকে ধরেন না কেন? রাসেলকে তো তারা ছাড়েনি। কেন? ওই রক্তের কেউ বাংলাদেশে ক্ষমতায় আসতে না পারে। আমি আর আমার ছোট বোন বিদেশে ছিলাম বেঁচে গেছি, তারপরও ফিরে এসে দায়িত্ব নিয়েছি। আমার চেষ্টায় হচ্ছে, যে স্বপ্ন নিয়ে জাতির পিতা দেশ স্বাধীন করেছেন সেটা পূরণ করা। সেক্ষেত্রে ষড়যন্ত্র বারবার হচ্ছে। ভোটের অধিকার আন্দোলনের মধ্যে আমরাই প্রতিষ্ঠিত করেছি। গণতান্ত্রিক ধারা ফিরিয়ে এনেছি।

তিনি বলেন, নির্বাচন যাতে না হয় তার জন্য বিরাট চক্রান্ত ছিল আপনারা জানেন। ২৮ অক্টোবরের কথাটা চিন্তা করেন, ২০১৩ সালে অগ্নিসন্ত্রাস, এগুলো হঠাৎ করে করার কথা না, এগুলো পরিকল্পিতভাবে করা। যারা নির্বাচন বানচালের পক্ষে, তারা যখন দেখল যে নির্বাচন কোনোভাবে আটকাতে পারবে না, তখন চক্রান্ত হলো জিনিসের দাম বাড়বে। তারপর সরকার জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হবে। তখন আন্দোলন করে সরকারকে উৎখাত করব। এটা তাদের পরিকল্পনার অংশ। এ চক্রান্তটা আছে।

তিনি আরও বলেন, মাঘের শেষেও বৃষ্টি হলো, আবার ফাল্গুনের শুরুতে বৃষ্টি, আমের মুকুলগুলো আবার তরতাজা হয়ে উঠছে। সেচের প্রয়োজন হবে না বৃষ্টি হচ্ছে। খাদ্যপণ্যের উৎপাদনে কোনো অসুবিধা হবে না।


   Page 1 of 562
     জাতীয়
পিলখানা হত্যাকাণ্ডে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন
.............................................................................................
ঢাকাসহ ৮ অঞ্চলে হতে পারে ঝোড়ো বৃষ্টি
.............................................................................................
শবেবরাত সবার জন্য রহমত ও কল্যাণ বয়ে আনুক : রাষ্ট্রপতি
.............................................................................................
ডেঙ্গুর প্রকোপ : এবার আগেভাগেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার নির্দেশ
.............................................................................................
জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস আজ
.............................................................................................
রোজার আগেই ভার‌ত থে‌কে দে‌শে পেঁয়াজ ঢুক‌বে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
বাংলাদেশে আসছেন বিশ্বব্যাংকের এমডি
.............................................................................................
বিদ্যুৎ সুবিধা বজায় রাখতে সমন্বয় করতে হবে: কাদের
.............................................................................................
দেশের মানুষের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে
.............................................................................................
খারাপ হয়েছে ঢাকার বায়ু
.............................................................................................
ভূমি মন্ত্রণালয়ের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা নাগরিক জীবনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনতে পারে: মন্ত্রী
.............................................................................................
কিশোর গ্যাংয়ের মদদদাতাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে: র‌্যাব
.............................................................................................
গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে বিপাকে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
বিশ্ব ব্যাংকের সহায়তা অব্যাহত থাকবে
.............................................................................................
বড় শক্তিগুলোর প্রতিদ্বন্দ্বিতা নিয়ে আলোচনা হয়েছে
.............................................................................................
আগামীতে পেঁয়াজ আমদানি করতে হবে না : সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
রাজধানীতে কিশোর গ্যাংয়ের ৩৮ সদস্য গ্রেফতার
.............................................................................................
বৃষ্টিতে ঢাকার বায়ুর মানের সামান্য উন্নতি
.............................................................................................
লিবিয়া থেকে ফিরলেন ১৪৪ অনিয়মিত বাংলাদেশি
.............................................................................................
নিরাপত্তা সম্মেলন নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
‘দেশে ৪০ শতাংশ শিশু নির্যাতনের শিকার’
.............................................................................................
জাতিসংঘ সদর দপ্তরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন
.............................................................................................
‘যাত্রীদের টার্গেট করে ছিনতাই করতো তারা’
.............................................................................................
সাব-রেজিস্ট্রার পদ ভূমি মন্ত্রণালয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা নেই: আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীকে ইউরোপীয় কমিশন প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন
.............................................................................................
সমুদ্রসীমার সম্পদ আহরণ করে কাজে লাগানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
খতনা করাতে গিয়ে মৃত্যু : ওটিতে প্রবেশের আগমুহূর্তে বাবাকে যা বলেছিল শিশু আহনাফ
.............................................................................................
বন্ধ পোস্তগোলা সেতু, বিকল্প যেসব পথে চলতে হবে
.............................................................................................
১ মার্চ বিমা দিবস উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
বিশ্বের ৮ শহরের বায়ু আজ অস্বাস্থ্যকর, ঢাকা দ্বিতীয়
.............................................................................................
বিশ্বে ৩৫ কোটির বেশি বাংলা ভাষাভাষী : হাছান মাহমুদ
.............................................................................................
ভাষা শহীদদের প্রতি আইজিপির শ্রদ্ধা
.............................................................................................
স্মৃতিসৌধে ফুলেল শ্রদ্ধা জানাতে সর্বস্তরের মানুষের ঢল
.............................................................................................
আজ অমর একুশে, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস
.............................................................................................
ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন শুক্রবার
.............................................................................................
একুশ বরণে প্রস্তুত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার
.............................................................................................
বইমেলার সংস্কৃতি সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের দ্বিতীয় ধাপের ফল প্রকাশ, পাস ২০৬৪৭
.............................................................................................
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার : হুমকি না থাকলেও সব ধরনের প্রস্তুতি আছে র‌্যাবের: ডিজি
.............................................................................................
তিউনিসিয়া উপকূলে নৌযানে অগ্নিকাণ্ডে মৃতদের আটজনই বাংলাদেশি
.............................................................................................
সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলার রায় ফের পেছালো
.............................................................................................
এক বছরে আর্থিক খাতে সন্দেহজনক লেনদেন বেড়েছে ৬৫ শতাংশ
.............................................................................................
একুশে পদক পেলেন ২১ বিশিষ্টজন
.............................................................................................
ঢাকার বায়ু আজ অস্বাস্থ্যকর
.............................................................................................
ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টির আভাস
.............................................................................................
আজ একুশে পদক তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
২১ ফেব্রুয়ারিতে বন্ধ থাকবে ঢাবির যেসব রাস্তা
.............................................................................................
অভিযোগ নিয়ে মোবাইল অপারেটরদের সঙ্গে বসবে বিটিআরসি
.............................................................................................
অভিযোগ নিয়ে মোবাইল অপারেটরদের সঙ্গে বসবে বিটিআরসি
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Dynamic Scale BD