বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার : প্রধানমন্ত্রী   * রাস্তা বন্ধ না করে আদালতে আসুন : শিক্ষার্থীদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   * পশ্চিমবঙ্গে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৬ জন নিহত   * বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী   * কোটা ইস্যুতে কাউকে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে দেবে না ছাত্রলীগ   * শিগগির ক্লাসে ফিরছেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা   * দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি   * শেষ ধাপেও কলেজ পায়নি ১২ হাজার শিক্ষার্থী   * তিস্তার ১১০ পয়েন্টে গণ-অবস্থান   * স্কুলের ভবন ধসে নাইজেরিয়ায় বহু হতাহতের শঙ্কা  

   প্রবাস -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
আজ থেকে ১৫ দেশের শ্রমিক মালয়েশিয়ায় ঢুকতে পারবেন না

অনলাইন ডেস্ক : মালয়েশিয়া সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী ৩১ মে’র পর বাংলাদেশসহ ১৫ দেশের শ্রমিক দেশটিতে ঢুকতে পারবেন না। সে হিসাবে আজ থেকে এসব দেশের কোনো শ্রমিক মালয়েশিয়ার ঢুকতে পারবেন না। তবে ভিসা পেয়েও যেসব বাংলাদেশি মালয়েশিয়ায় যেতে পারছেন না, তাদের দ্রুত নেওয়ার ব্যাপারে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. শামীম আহসান।

পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে শুক্রবার রাতে কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর পরিদর্শন করেছেন মো. শামীম আহসান। রাতভর বিমানবন্দরে তিনি অবস্থান করেন এবং সেখানকার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, কাউন্সেলর (লেবার) সৈয়দ শরিফুল ইসলাম, প্রথম সচিব প্রেস সুফি আব্দুল্লাহিল মারুফ ও ওয়েলফেয়ার অ্যাসিসট্যান্ট শিহাব হোসাইন।

সুফি আব্দুল্লাহিল মারুফ জানান, মালয়েশিয়া রাত ১২টার পর বাংলাদেশ থেকে আসা কর্মীরা নির্বিঘ্নে ইমিগ্রেশন পার করছেন। মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছে। ৩১ মে বাংলাদেশ ত্যাগ করে যারা মালয়েশিয়ায় আসছেন ১২টার পরেও তারা ইমিগ্রেশন পার হয়েছেন।

এখন পর্যন্ত যারা দেশটিতে পোঁছেছেন তাদের অনেকেই বিমানবন্দরে আটকা পড়েছেন। এই মুহূর্তে বিমানবন্দরের বিভিন্ন স্থানে শ্রমিকদের অবস্থান করতে দেখা গেছে। এ অবস্থায় এয়ারপোর্টের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সার্বক্ষণিক সজাগ দৃষ্টি রাখছে কর্তৃপক্ষ।

হাইকমিশনার বলেন, ভিসা পাওয়ার পরও যেসব বাংলাদেশি মালয়েশিয়ায় আসতে পারছেন না, তাদের যেন দ্রুত নিয়ে আসা যায় তার জন্য চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

তিনি বলেন, ৫ লাখ ২৭ হাজারের বেশি ডিমান্ড লেটার সত্যায়ন করেছে হাইকমিশন। এ পর্যন্ত ৪ লাখ ৭২ হাজারের বেশি কর্মী মালয়েশিয়ায় এসেছে। আমরা নিয়োগকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি, তারা যেন প্রতিশ্রুত কাজে যোগদান করতে পারেন। বিভিন্ন জটিলতায় হয়তো তারা আসতে পারছেন না। কিন্তু আমাদের প্রচেষ্টা চলমান।

বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শ্রমবাজার মালয়েশিয়া। দেশটিতে বর্তমানে প্রায় ১৫ লাখ বাংলাদেশি কর্মী রয়েছেন। গত বছর সেখানে গেছেন ৩ লাখ ৫১ হাজার ৬৮৩ জন কর্মী। এ পর্যন্ত ৪ লাখ ৭২ হাজারের বেশি কর্মী মালয়েশিয়ায় এসেছেন।

শনিবার (১ জুন) থেকে বন্ধ হয়েছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার। প্রায় ৩০ হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশী বাংলাদেশি অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ছেন।

বাংলাদেশসহ ১৫টি দেশ থেকে কোনো কর্মীকে দেশটিতে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না। গত জানুয়ারি মালয়েশিয়ার মন্ত্রিপরিষদ এ সিদ্ধান্ত নেয়। একই সঙ্গে বাংলাদেশসহ ১৫টি দেশের সঙ্গে এ সংক্রান্ত সমঝোতা চুক্তি পুনরায় করার অনুমোদন দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ ছাড়াও থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া, নেপাল, মিয়ানমার, লাওস, ভিয়েতনাম, ফিলিপাইন, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, তুর্কমেনিস্তান, উজবেকিস্তান, কাজাখস্তান, ভারত ও ইন্দোনেশিয়া থেকে কর্মী যায় মালয়েশিয়ায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইসলামিক ইউনিভার্সিটি মালয়েশিয়ার পিএইচডি গবেষক মো. আরিজ মিথুন বলেন, মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি শ্রমিকদের নিয়ে যা হচ্ছে, তা দুর্বৃত্তপনা। এখানে সিন্ডিকেটের জয়জয়কার। এটা কোনো নিয়ম হতে পারে না, ভিসার মেয়াদ থাকার পরও ওই দেশে ঢুকতে পারবে না।

তিনি বলেন, দুই দেশের এখানে দায় রয়েছে। এতে ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের জয় হয়েছে, হেরেছেন প্রবাসী শ্রমিকেরা। অথচ এই প্রবাসী শ্রমিকদের টাকায় দেশ চলে। আমরা চাই সরকার এ ঘটনায় স্বাধীন তদন্ত কমিশন করে প্রকৃত সত্য খতিয়ে দেখুক। সেই অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে জোর দাবি জানান তিনি।

আজ থেকে ১৫ দেশের শ্রমিক মালয়েশিয়ায় ঢুকতে পারবেন না
                                  

অনলাইন ডেস্ক : মালয়েশিয়া সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী ৩১ মে’র পর বাংলাদেশসহ ১৫ দেশের শ্রমিক দেশটিতে ঢুকতে পারবেন না। সে হিসাবে আজ থেকে এসব দেশের কোনো শ্রমিক মালয়েশিয়ার ঢুকতে পারবেন না। তবে ভিসা পেয়েও যেসব বাংলাদেশি মালয়েশিয়ায় যেতে পারছেন না, তাদের দ্রুত নেওয়ার ব্যাপারে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. শামীম আহসান।

পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে শুক্রবার রাতে কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর পরিদর্শন করেছেন মো. শামীম আহসান। রাতভর বিমানবন্দরে তিনি অবস্থান করেন এবং সেখানকার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, কাউন্সেলর (লেবার) সৈয়দ শরিফুল ইসলাম, প্রথম সচিব প্রেস সুফি আব্দুল্লাহিল মারুফ ও ওয়েলফেয়ার অ্যাসিসট্যান্ট শিহাব হোসাইন।

সুফি আব্দুল্লাহিল মারুফ জানান, মালয়েশিয়া রাত ১২টার পর বাংলাদেশ থেকে আসা কর্মীরা নির্বিঘ্নে ইমিগ্রেশন পার করছেন। মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছে। ৩১ মে বাংলাদেশ ত্যাগ করে যারা মালয়েশিয়ায় আসছেন ১২টার পরেও তারা ইমিগ্রেশন পার হয়েছেন।

এখন পর্যন্ত যারা দেশটিতে পোঁছেছেন তাদের অনেকেই বিমানবন্দরে আটকা পড়েছেন। এই মুহূর্তে বিমানবন্দরের বিভিন্ন স্থানে শ্রমিকদের অবস্থান করতে দেখা গেছে। এ অবস্থায় এয়ারপোর্টের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সার্বক্ষণিক সজাগ দৃষ্টি রাখছে কর্তৃপক্ষ।

হাইকমিশনার বলেন, ভিসা পাওয়ার পরও যেসব বাংলাদেশি মালয়েশিয়ায় আসতে পারছেন না, তাদের যেন দ্রুত নিয়ে আসা যায় তার জন্য চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

তিনি বলেন, ৫ লাখ ২৭ হাজারের বেশি ডিমান্ড লেটার সত্যায়ন করেছে হাইকমিশন। এ পর্যন্ত ৪ লাখ ৭২ হাজারের বেশি কর্মী মালয়েশিয়ায় এসেছে। আমরা নিয়োগকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি, তারা যেন প্রতিশ্রুত কাজে যোগদান করতে পারেন। বিভিন্ন জটিলতায় হয়তো তারা আসতে পারছেন না। কিন্তু আমাদের প্রচেষ্টা চলমান।

বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শ্রমবাজার মালয়েশিয়া। দেশটিতে বর্তমানে প্রায় ১৫ লাখ বাংলাদেশি কর্মী রয়েছেন। গত বছর সেখানে গেছেন ৩ লাখ ৫১ হাজার ৬৮৩ জন কর্মী। এ পর্যন্ত ৪ লাখ ৭২ হাজারের বেশি কর্মী মালয়েশিয়ায় এসেছেন।

শনিবার (১ জুন) থেকে বন্ধ হয়েছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার। প্রায় ৩০ হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশী বাংলাদেশি অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ছেন।

বাংলাদেশসহ ১৫টি দেশ থেকে কোনো কর্মীকে দেশটিতে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না। গত জানুয়ারি মালয়েশিয়ার মন্ত্রিপরিষদ এ সিদ্ধান্ত নেয়। একই সঙ্গে বাংলাদেশসহ ১৫টি দেশের সঙ্গে এ সংক্রান্ত সমঝোতা চুক্তি পুনরায় করার অনুমোদন দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ ছাড়াও থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া, নেপাল, মিয়ানমার, লাওস, ভিয়েতনাম, ফিলিপাইন, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, তুর্কমেনিস্তান, উজবেকিস্তান, কাজাখস্তান, ভারত ও ইন্দোনেশিয়া থেকে কর্মী যায় মালয়েশিয়ায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইসলামিক ইউনিভার্সিটি মালয়েশিয়ার পিএইচডি গবেষক মো. আরিজ মিথুন বলেন, মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি শ্রমিকদের নিয়ে যা হচ্ছে, তা দুর্বৃত্তপনা। এখানে সিন্ডিকেটের জয়জয়কার। এটা কোনো নিয়ম হতে পারে না, ভিসার মেয়াদ থাকার পরও ওই দেশে ঢুকতে পারবে না।

তিনি বলেন, দুই দেশের এখানে দায় রয়েছে। এতে ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের জয় হয়েছে, হেরেছেন প্রবাসী শ্রমিকেরা। অথচ এই প্রবাসী শ্রমিকদের টাকায় দেশ চলে। আমরা চাই সরকার এ ঘটনায় স্বাধীন তদন্ত কমিশন করে প্রকৃত সত্য খতিয়ে দেখুক। সেই অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে জোর দাবি জানান তিনি।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ৫২ অবৈধ অভিবাসী আটক
                                  

মালয়েশিয়ায় ৯ বাংলাদেশিসহ ৫২ অবৈধ অভিবাসীকে আটক করেছে রাজ্যের ইমিগ্রেশন বিভাগ। বুধবার জোহরের ইস্কান্দার পুতেরি এলাকায় একটি অ্যালুমিনিয়াম কারখানা এবং বেকারি থেকে তাদের আটক করা হয়।

একই সঙ্গে এসব শ্রমিককে আশ্রয় দেওয়ার জন্য ওই কারখানা এবং বেকারির ব্যবস্থাপকদের আটক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভারপ্রাপ্ত স্টেট ইমিগ্রেশন ডিরেক্টর মোহাম্মদ ফয়জল শামসুদিন এক বিবৃতিতে বলেছেন, রাজ্যে কর্মরত অবৈধ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান জনসাধারণের তথ্যের ভিত্তিতে পরিচালিত হয়েছিল।

তিনি বলেন, উভয় অভিযানে প্রায় ৭৬ ব্যক্তির কাগজপত্র পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে অভিবাসন আইন ১৯৫৯/৬৩ এর অধীনে প্রবিধান লঙ্ঘনের দায়ে ৫২ জনকে আটক করা হয়।

এরমধ্যে বেলা ১১টার দিকে অ্যালুমিনিয়াম তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়ে এর ম্যানেজারসহ ২৬ জনকে আটক করা হয়।

ওই কারখানায় আটকদের মধ্যে রয়েছেন বাংলাদেশের ৯ জন, পাকিস্তানের ১০, চীনের ৪ এবং মিয়ানমারের ৩ জন। যাদের বয়স ২০-৪৬ বছরের মধ্যে। কারখানার ম্যানেজার ৪৩ বছর বয়সী এক স্থানীয় নারীকেও আটক করা হয়েছে।

অন্যদিকে বেকারি থেকে গ্রেফতারদের মধ্যে ১৪ জন পুরুষ এবং ৯ জন নারী মিয়ানমারের, দুজন পাকিস্তানের এবং নেপালের একজন পুরুষ। যাদের প্রত্যেকের বয়স ২১-৪২ বছর। এছাড়া আটক করা হয়েছে ৩৬ বছর বয়সী স্থানীয় এক ব্যক্তিকে যিনি ওই বেকারির পরিচালক।

ফয়জল বলেন, বিদেশিরা তাদের সামাজিক ভিজিট ভিসা লঙ্ঘন করেছেন এবং অতিরিক্ত অবস্থান করেছেন। আবার কেউ কেউ অবৈধভাবে দেশে প্রবেশ করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। নির্বাসনের আগে আটকদের রাজ্যের সেটিয়া ট্রপিকা ইমিগ্রেশন ডিপোটে রাখা হয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত স্টেট ইমিগ্রেশন ডিরেক্টর মোহাম্মদ ফয়জল জানান, অবৈধ অভিবাসী রোধে জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবে মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ। পাশাপাশি এদের নিয়োগকর্তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

মালয়েশিয়ায় ১৩২ প্রবাসী বাংলাদেশি গ্রেফতার
                                  

মালয়েশিয়ার জোহর রাজ্যে অভিযান চালিয়ে ১৩২ বাংলাদেশিসহ ২০৬ অভিবাসীকে গ্রেফতার করেছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ। গ্রেফতারদের বয়স ১৮ থেকে ৬১ বছরের মধ্যে।

শনিবার (২৭ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছেন জোহর রাজ্যের অভিবাসন বিভাগের পরিচালক বাহার উদ্দিন তারি। এর আগে গতকাল শুক্রবার রাজ্যের পাসির গুদাং এলাকায় অপস মাহির নামের অভিযানে এসব অবৈধ অভিবাসীকে গ্রেফতার করা হয়।

বাহার উদ্দিন তারি জানান, ওই এলাকার একটি নির্মাণস্থলে অভিযান চালিয়ে মোট ৫৩০ জন বিদেশি ও স্থানীয়দের কাগজপত্র পরীক্ষা করে অভিবাসন বিভাগ। এরপর সেখান থেকে ২০৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারদের মধ্যে ১৩২ জন বাংলাদেশি ও ৫৩ জন চীনা নাগরিক রয়েছেন। এছাড়া ১০ জন মিয়ানমারের, ৬ জন পাকিস্তানি, ৩ জন ইন্দোনেশিয়ান, ২ জন ভিয়েতনামের এবং একজন স্থানীয় বাসিন্দা।

অভিযানে গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে অভিবাসন আইন ১৯৫৯/৬৩ (অ্যাক্ট ১৫৫) এর ধারা ১৫(১)(সি) এবং ৫৬(১)(ডি), রেগুলেশন ১৭(বি) এবং রেগুলেশন ১১(৭)(এ) অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত জোহর রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এক হাজার ৯৩৬ জন অবৈধ অভিবাসীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলেও বিবৃতিতে জানিয়েছে অভিবাসন বিভাগ।

ইতালি থেকে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স পাঠিয়ে সম্মাননা পেলেন ৫ বাংলাদেশি
                                  

অনলাইন ডেস্ক : বৈধ পথে রেমিটেন্স পাঠানোয় উৎসাহিত করতে রোমে বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে সম্মাননা দেওয়া হয়েছে। এতে একজন নারীসহ পাঁচ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে ‘রেমিট্যান্স পুরস্কার’ দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে ৪টায় দূতাবাসে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ পুরস্কার দেওয়া হয়।

ইতালি থেকে বাংলাদেশে জুলাই ২০২২ থেকে জুন ২০২৩ সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স প্রেরণকারী হিসেবে তাদের এ পুরস্কার দেওয়া হয়। ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. মনিরুল ইসলাম এ পুরস্কার বিতরণ করেন।

দূতাবাসের আয়োজিত অনুষ্ঠানে ছিল বাংলাদেশ সরকারের প্রবাসীদের জন্য গৃহীত বিভিন্ন সেবা এবং কার্যক্রম বিষয়ক আলোচনা, সর্বজনীন পেনশন স্কিমের সুবিধা এবং রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সহজিকরণ, বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণে সরকারের উদ্যোগগুলো নিয়ে আলোচনা ও রেমিট্যান্স পুরস্কার প্রদান। অনুষ্ঠানে রেমিট্যান্স পুরস্কার অর্জনকারী ব্যক্তিরাও বক্তব্য দেন এবং এ স্বীকৃতি প্রদানের জন্য দূতাবাসকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

রাষ্ট্রদূত মো. মনিরুল ইসলাম তার বক্তব্যে পুরস্কার প্রাপ্তদের আন্তরিক অভিনন্দন জানান এবং রেমিট্যান্স প্রেরণের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার জন্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের ধন্যবাদ জানান।

রাষ্ট্রদূত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারকে প্রবাসীবান্ধব সরকার উল্লেখ করে প্রবাসীদের জন্য দূতাবাসের সেবার মান আরও বৃদ্ধির আশাবাদ ব্যক্তি করেন।

ইতালি প্রবাসীদের উদ্দেশে রাষ্ট্রদূত বলেন, পাসপোর্ট সংক্রান্ত সমস্যা সমাধান এবং অন্যান্য সেবার মান বৃদ্ধি করার জন্য দূতাবাস আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

২০২৩ সালের রেমিট্যান্স পুরস্কার প্রাপ্তরা হলেন– ব্যক্তি ক্যাটাগরি (পুরুষ) জিয়া উদ্দিন, মো. মাহফুজুল হক, মো. ওমর ফারুক এবং ব্যক্তি ক্যাটাগরি (মহিলা) মেহেনাস তাব্বাসুম। প্রতিষ্ঠান ক্যাটাগরিতে কাফ পিসি পয়েন্টের স্বত্বাধিকারী নিবাশ চক্রবর্তী।

বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণকারীদের উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে ২০১৯ সালে বাংলাদেশ দূতাবাস, রোম ‘রেমিট্যান্স পুরস্কার’ চালু করে।

তুরস্কে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন
                                  

তুরস্কের আংকারায় উৎসবমুখর আবহে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস।


মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) দিবসের শুরুতে রাষ্ট্রদূত এম আমানুল হকের নেতৃত্বে দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতিতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। এরপর রাষ্ট্রদূতের নেতৃত্বে বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আবক্ষ ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।

দ্বিতীয় পর্বে দূতাবাসের মিলনায়তনে একটি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে নিহত শহীদদের আত্মার মাগফিরাত এবং দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এরপর রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাণী পাঠ এবং মুক্তিযুদ্ধের ওপর নির্মিত একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

পরে দিবসটির গুরুত্ব ও তাৎপর্যের ওপর একটি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা পর্বে অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ কমিউনিটির পক্ষ থেকে অবসরপ্রাপ্ত লেফট্যানেন্ট কর্নেল নাসির হায়দার, দূতাবাসের প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ ইফতেকুর রহমান এবং তুরস্কে অবস্থানরত কন্ট্রোলার জেনারেল অব অ্যাকাউন্টস আবুল কালাম আজাদ।

শেষে রাষ্ট্রদূত সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে বক্তব্য দেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা ও নির্যাতিতা বীরাঙ্গনাদের অবদানের কথা সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করেন, যাদের চূড়ান্ত আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত হয় বাংলাদেশের স্বাধীনতা।

তিনি বলেন, ২৬ মার্চ প্রথম প্রহরে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার আগে বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মাতৃভূমিকে মুক্ত করার লক্ষ্যে স্বাধীনতার ঘোষণা প্রদান করেন। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে পাকিস্তানের কারাগারে দীর্ঘ ৯ মাস বঙ্গবন্ধুকে বন্দি করে রাখা হয়। পাকিস্তানের পরাধীনতা থেকে মুক্তির লড়াইয়ে ৩০ লাখ মানুষ শহীদ হয়। ৯ মাসের যুদ্ধে এত বেশি মানুষ হত্যার ঘটনা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল।

রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল ও দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশের আর্থসামাজিক ক্ষেত্রে সাম্প্রতিক উন্নয়নের চিত্র, বৈশ্বিক অর্থনীতিতে বাংলাদেশের বর্তমান অগ্রসরতা ও বাংলাদেশের অর্জনগুলোর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। তিনি জাতির পিতার সুখী, সমৃদ্ধ, শোষণ ও বৈষম্যহীন স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত ‘ভিশন-২০৪১’ বাস্তবায়ন করে বাংলাদেশকে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধশালী রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয়ে সবাইকে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ থাকার এবং প্রবাসীদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে অবদান রাখার আহ্বান জানান।

রিয়াদে গণহত্যা দিবস পালিত
                                  

ঢাকা: সৌদি আরবের রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসে যথাযথ মর্যাদায় সোমবার (২৫ মার্চ) জাতীয় গণহত্যা দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে মুক্তিযুদ্ধে নিহত সব শহীদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
দূতাবাসের অডিটোরিয়ামে আয়োজিত আলোচনা সভায় রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, ইয়াহিয়া ও ভুট্টোর নীল নকশায় ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাতে বাংলাদেশের নিরস্ত্র মানুষের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী। নির্মমভাবে হত্যা করে শত শত নিরস্ত্র মানুষকে, রচনা করে মানব ইতিহাসের এক কলঙ্কজনক অধ্যায়। এদিন মধ্যরাতের পর ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরেই বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ঘোষণা দেন, যা তৎকালীন ইপিআর ট্রান্সমিটারের মাধ্যমে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ে। বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে সাড়া দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে বাংলার মানুষ।

তিনি বলেন, ২৫ মার্চকে জাতীয় গণহত্যা দিবস হিসেবে পালনের প্রস্তাব ২০১৭ সালে জাতীয় সংসদে সর্বসম্মতভাবে গৃহীত হয় এবং তখন থেকে থেকে দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। গণহত্যা দিবস পালন বাংলাদেশের মুক্তিসংগ্রামে নিহত ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগের স্বীকৃতির পাশাপাশি পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর নির্মম গণহত্যার বিরুদ্ধে প্রতিবাদের প্রতীক।

রাষ্ট্রদূত বলেন, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে সংঘটিত গণহত্যার বিচার হয়েছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ভয়াবহ গণহত্যা থেকে শুরু করে বিভিন্ন গণহত্যার বিচার হয়েছে। তাই ১৯৭১ সালে সংঘটিত ভয়াবহ গণহত্যা, যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার ও আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি জরুরি। আর এ স্বীকৃতি আদায়ে সরকারের পাশাপাশি বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশি কমিউনিটি, বুদ্ধিজীবী, পেশাজীবী সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

দূতাবাসের কাউন্সেলর মো. বেলাল হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে মিশন উপ-প্রধান মো. আবুল হাসান মৃধা, ডিফেন্স অ্যাটাশে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. গোলাম ফারুক বক্তব্য দেন। এ ছাড়া বক্তব্য দেন রিয়াদে বাংলাদেশি কমিউনিটির বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, ব্যবসায়ী এম আর মাহাবুব। বক্তারা সবাই ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাতে সংঘটিত ভয়াল গণহত্যার বিচার ও আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দাবি করেন।

অনুষ্ঠানে জহির রায়হানের স্টপ জেনোসাইড চলচ্চিত্রটি প্রদর্শন করা হয়। এ ছাড়া বাংলাদেশের সঙ্গে মিল রেখে শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ১ মিনিটের জন্য দূতাবাসে ব্লাকআউট কর্মসূচি পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধের সব শহিদ, জাতির পিতা ও তার পরিবারের শহিদ সদস্য ও দেশ জাতির মঙ্গল কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়।

মালয়েশিয়ায় ট্রেনের ধাক্কায় তিন বাংলাদেশি নিহত
                                  

মালয়েশিয়ায় ট্রেনের ধাক্কায় তিন বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। রোববার (৩ মার্চ) রাতে সেলাঙ্গর রাজ্যের কাজাং কেটিএম পুনচাক উতামা জেড হিল ট্র্যাকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম বারনামার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘রাত সোয়া ১২টার দিকে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশের কাছে হস্থান্তর করা হয়েছে।’

মালয়েশিয়ায় ট্রেনের ধাক্কায় ৩ বাংলাদেশি নিহতকাজাং কেটিএম পুনচাক উতামা জেড হিল ট্র্যাক

সেলাঙ্গর রাজ্যের ফায়ার অ্যান্ড রেসকিউ বিভাগের (জেপিবিএম) পরিচালক ওয়ান মো. রাজালি ওয়ান ইসমাইল জানান, রাত ১০টা ৫৩ মিনিটে দুর্ঘটনার খবর পান তারা। এরপর কাজাং স্টেশন থেকে পাঁচজনের একটি দলকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়।

তিনি বলেন, নিহতদের মরদেহ রেললাইনের পাশে পড়েছিল। তাদের বয়স ৩০ থেকে ৪০ বছর। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নিহত বাংলাদেশিদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

মালয়েশিয়ায় ৫৪ দিনে ১৪ হাজারেরও বেশি অবৈধ অভিবাসী আটক
                                  

অনলাইন ডেস্ক : দুই মাসেরও কম সময়ে ১৪ হাজারেরও বেশি অবৈধ অভিবাসীকে আটক করেছে মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছেন দেশটির অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক রুসলিন জুসোহ।

১ জানুয়ারি থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মোট ২ হাজার ৫২৮টি অভিযান পরিচালনা মাধ্যমে ১৪ হাজার ৩৬১ জন অবৈধ অভিবাসীকে আটক করা হয়। তবে আটক অবৈধ অভিবাসীদের মধ্যে কতজন বাংলাদেশি রয়েছেন তা উল্লেখ করা হয়নি।

মহাপরিচালক রুসলিন জুসোহ বলেন, একই সময়ে অভিবাসন আইনের অধীনে অবৈধ অভিবাসীদের নিয়োগ ও আশ্রয় দেওয়ার অপরাধে ১৩৯ নিয়োগকর্তাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা বার্নামা টিভিতে দেওয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে বলছিলেন, এ অভিযান কেবল অবৈধ অভিবাসীদের লক্ষ্যে করা হচ্ছে না, নিয়োগকর্তাদেরও করা হচ্ছে। কিছু নিয়োগকর্তা আছেন যারা বিদেশি কর্মী নিয়োগের প্রক্রিয়া এড়াতে চান, তারা লেভি দিতে চান না। এটি ভুল, কারণ দেশে আইন রয়েছে যা অবশ্যই অনুসরণ করা উচিৎ।

১ মার্চ থেকে অভিবাসী প্রত্যাবাসন কর্মসূচি (পিআরএম) শুরু হলেও অভিবাসন বিভাগ অনথিভুক্ত বিদেশিদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন রুসলিন জুসোহ।

প্রত্যাবাসন কর্মসূচি যা ১ মার্চ থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাস্তবায়িত হবে, এ কর্মসূচির মাধ্যমে অবৈধ অভিবাসীরা ইমিগ্রেশন বিভাগের নির্ধারিত শর্ত পূরণ করার পরে নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হবে। এর মধ্যে বৈধ ভ্রমণ নথি এবং একটি ফিরতি টিকিট অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

এ বছর অভিবাসন বিভাগ মালয়েশিয়াজুড়ে ২২০টি ‘হটস্পট’-এ অভিযান পরিচালনা করবে। ২২০টি ‘হটস্পট’-এ অন্যান্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সঙ্গে সমন্বিত অপারেশন পরিচালনা করার জন্য চিহ্নিত করা হয়েছে।

বিদেশিদের আগমন রোধে অভিবাসন বিভাগ যে ব্যবস্থা নিয়েছে তার মধ্যে রয়েছে বিদেশি শ্রম, পাইকারি বাজার এবং আন্তর্জাতিক ছাত্রদের গ্রহণকারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়োগকারী ব্যবসার পরিদর্শন।

এছাড়া ইমিগ্রেশন বিভাগ দেশের সীমান্তে নিয়ন্ত্রণ ও পরিদর্শনও কঠোর করেছে। মালয়েশিয়ায় প্রবেশকারী বিদেশি দর্শকদেরও তাদের মূল দেশে ফিরতি টিকিট উপস্থাপন করতে হবে।

১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মালয়েশিয়ায় সক্রিয় বিদেশি কর্মীদের তথ্য হিসাবে রুসলিন বলেছেন, মালয়েশিয়ায় মোট ২১ লাখ ২৩ হাজার ৪৯ জন বিদেশি কর্মী রয়েছে, যার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৭ লাখ ৮৬ হাজার ৭৯৫ বাংলাদেশ থেকে এসেছেন। তারপর ইন্দোনেশিয়া থেকে ৪ লাখ ৯৬ হাজার ৮৩, নেপাল থেকে ৩ লাখ ৬৭ হাজার ৪৯৮, মায়ানমার থেকে ১ লাখ ৬৩ হাজার ৩২৪ এবং ভারত থেকে এসেছেন ১ লাখ ১৯ হাজার ৭০৬ জন।

এ দেশগুলি ছাড়াও কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম, পাকিস্তান এবং তুর্কমেনিস্তানসহ অন্যান্য দেশ থেকে বিদেশি কর্মীদের প্রবেশের অনুমতি দেয় মালয়েশিয়া।

যুক্তরাষ্ট্রে বাড়ছে অবৈধ অভিবাসী, এক বছরে গ্রেফতার ১২ হাজার
                                  

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে অবৈধ অভিবাসীদের প্রবেশ দিন দিন বেড়েই চলছে। গত বছর (২০২৩ সালে) উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্ত দিয়ে এক লাখ ৯১ হাজার ৬০৩ অভিবাসী যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেন। এই সংখ্যা ২০২২ সালের থেকে ৪১ শতাংশ বেশি। শুধুমাত্র কানাডা থেকে অবৈধভাবে প্রবেশের দায়ে ১২ হাজারের বেশি অভিবাসীকে গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে দীর্ঘদিন ধরে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ সীমান্তে ভিড় করছেন অভিবাসীরা। ফলে কম সুরক্ষিত এবং আরও বিস্তৃত যুক্তরাষ্ট্র-কানাডা সীমান্ত দিয়ে অভিবাসী পারাপারের সংখ্যা বাড়ছে।

তবে অভিবাসীদের বেশিরভাগ সীমান্ত পারাপারের বৈধ বন্দর ব্যবহার করছেন। তারপরও ২০২৩ সালে কানাডা থেকে ১২ হাজার ২০০ জনের বেশি অভিবাসীকে অবৈধভাবে প্রবেশের দায়ে গ্রেফতার করা হয়। এই সংখ্যা আগের বছর গ্রেফতার হওয়া তিন হাজার ৫৭৮ জন থেকে ২৪১ শতাংশ বেশি।

বেশির ভাগ অবৈধ অভিবাসী শনাক্তকরণ এড়াতে কানাডা থেকে প্রবেশ করেন বলে জানা গেছে। গত তিন মাসে নিউ ইয়র্ক, ভারমন্ট ও নিউ হ্যাম্পশায়ারের কাউন্টিগুলোতে সীমান্ত পারাপারের রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে।

মেক্সিকো থেকে কানাডায় ভ্রমণকারীদের প্রবেশের জন্য ভিসার প্রয়োজন হয় না। ফলে পরিচয় এড়াতে উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোর সঙ্গে সোয়ান্টন সেক্টর নামে পরিচিত সীমান্তের ২৯৫ মাইল অংশ দিয়ে অভিবাসীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের হার বাড়ছে।

এনওয়াই’র (নিউ ইয়র্ক) চ্যামপ্লেইনে এক নাগরিকের দেওয়া খবরের ভিত্তিতে ১০ বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করা হয়।

ইউএস বর্ডার প্যাট্রোল সোয়ান্টন সেক্টরের চিফ পেট্রোল এজেন্ট রবার্ট গার্সিয়া ৮ ফেব্রুয়ারি সোশ্যাল মিডিয়ায় এক পোস্টে লেখেন, ‘এজেন্টরা আমাদের কমিউনিটির সতর্কতার ওপর নির্ভর করে। আপনি যদি কিছু দেখেন তবে কিছু বলুন! ১-৮০০-৬৮৯-৩৩৬২ নম্বরে কল করুন।’

২০২৩ সালের ১ অক্টোবর থেকে তিন মাসে ‘সোয়ান্টন সেক্টর’ বর্ডার পেট্রোল এজেন্টরা ৫৫টি দেশের তিন হাজার ১০০ জনের বেশি লোককে গ্রেফতার করেছে।

এরই মধ্যে চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে নিউ ইয়র্কের কাছে বাংলাদেশ থেকে আসা চার পুরুষকে গ্রেফতার করা হয়।

নিউ ইয়র্কের ক্লিনটন, এসেক্স, ফ্র্যাঙ্কলিন, সেন্ট লরেন্স ও হারকিমার কাউন্টি, এবং নিউ হ্যাম্পশায়ারের কুস, গ্রাফটন ও ক্যারল কাউন্টি ও ভার্মন্ট নিয়ে ‘সোয়ান্টন সেক্টর’ গঠিত।

ফেডারেল কর্মকর্তারা জানান, বর্তমানে প্রায় দুই হাজার ২০০ বর্ডার পেট্রোল এজেন্ট যুক্তরাষ্ট্র-কানাডা সীমান্ত পর্যবেক্ষণ করে। এই সীমান্ত পাঁচ হাজার ৫২৫ মাইল প্রসারিত এবং বিশ্বের দীর্ঘতম আন্তর্জাতিক সীমান্ত হিসেবে বিবেচিত।

বর্ডার পেট্রোল কর্মকর্তারা জানান, ১৫টি মিশন ২০২২ সালের অক্টোবর থেকে উত্তর সীমান্তে ৩৭ অভিবাসীকে উদ্ধার করেছে। গত দুই বছরে ইউএস-কানাডা সীমান্ত অতিক্রম করার সময় শিশু ও এক গর্ভবতী নারীসহ অন্তত এক ডজন অভিবাসীকে নদী বা জঙ্গলে মৃত পাওয়া যায়। যাদের মরদেহ বরফ হয়ে গিয়েছিল।

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি দম্পতি নিহত
                                  

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের অরেঞ্জ কাউন্টিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি দম্পতি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় তাদের ছেলে ও মেয়ে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

স্থানীয় সময় শুক্রবার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- হাফিজ ও সাকি আহমেদ।

জানা গেছে, শুক্রবার রাতে বিন হ্যাম্পটন থেকে ফেরার পথে তারা সপরিবারে এ দুর্ঘটনার শিকার হন। নিউইয়র্কের অরেঞ্জ কাউন্টিতে একটি দুষ্কৃতকারীদের গাড়ি ধাওয়া করছিল পুলিশ। এ সময় তাদের গাড়ির সঙ্গে হাফিজ দম্পতির গাড়ির ধাক্কা লাগলে ঘটনাস্থলেই নিহত হন তারা।

পুলিশ জানিয়েছে ময়নাতদন্ত শেষে তাদের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মালয়েশিয়ায় ১০১ বাংলাদেশিসহ ১৩৪ নির্মাণশ্রমিক আটক
                                  

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ১৩৪ অবৈধ নির্মাণশ্রমিককে আটক করেছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ। বুধবার রাতে ৯টি স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) মেলাকার ইমিগ্রেশনের পরিচালক অনির্বান ফৌজি মোহম্মদ আইনী এক বিবৃতিতে বলেন, জনসাধারণের অভিযোগ এবং বিদেশিদের আগমন সংক্রান্ত গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

একজন নারীসহ আটকদের মধ্যে ১০১ জন বাংলাদেশি, ২৬ জন ইন্দোনেশিয়ার, ৬ জন মিয়ানমারের এবং একজন নেপালি নাগরিক। তাদের বয়স ২৫ থেকে ৪৮ বছর।

মেলাকার ইমিগ্রেশনের পরিচালক বলেন, অভিবাসন আইন লঙ্ঘনের মধ্যে পরিচয়পত্রহীন, মেয়াদ অতিবাহিত হওয়া, জাল নথিপত্র বা পাসপোর্ট রাখা এবং ইমিগ্রেশন অ্যাক্ট ১৯৫৯/৬৩ (অ্যাক্ট ১৫৫)/ইমিগ্রেশন রেগুলেশন ১৯৬৩ এবং অ্যান্টি-ট্রাফিকিং ইন পার্সন এবং অ্যান্টি স্মাগলিং অব মাইগ্রেন্টস (অটিপসম) ২০০৭ আইনের অধীনে অন্যান্য অপরাধে তাদের আটক করা হয়। ইমিগ্রেশন পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য আটক হওয়া লোকদের মাচাপ উম্বু ইমিগ্রেশন ডিপোতে পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে একই সময়ে সেলাঙ্গর রাজ্যের ক্লাং-এর জালান আমান পেরদানার একটি অ্যাপার্টমেন্টে, অপ খাস আমান নামের অভিযানে ৪৯০ জন অবৈধ অভিবাসীকে আটক করা হয়। আটকদের মধ্যে বাংলাদেশ, নেপাল, আফগানিস্তান ও ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক রয়েছেন। তবে এ অভিযানে আটকদের মধ্যে কতজন বাংলাদেশি রয়েছেন তা জানা যায়নি।

লিবিয়া থেকে প্রত্যাবাসন হবেন আরও ২৬৩ বাংলাদেশি
                                  

অনলাইন ডেস্ক : উত্তর আফ্রিকার দেশ লিবিয়া থেকে আরও ২৬৩ অনিয়মিত বাংলাদেশিকে ফেরত আনা হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিকল্প মুখপাত্র মোহাম্মদ রফিকুল আলম। তিনি বলেন, ৫ ডিসেম্বর তাদের প্রত্যাবাসন করা হবে।

রোববার (৩ ডিসেম্বর) বিকেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নতুন ভবনে সাপ্তাহিক নিয়মিত ব্রিফিংয়ে তিনি এমন তথ্য দেন।

রফিকুল আলম বলেন, বাংলাদেশ দূতাবাস, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় ত্রিপোলির আইনজেরা ডিটেনশন সেন্টারে আটক ১৪৩ জন অনিয়মিত বাংলাদেশি নাগরিককে ২৮ নভেম্বর এবং ৩০ নভেম্বর আরও ১১০ জনকে প্রত্যাবাসন করা হয়েছে। ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের পর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও আইওএমের কর্মকর্তারা বিমানবন্দরে এসব নাগরিকদের অভ্যর্থনা জানান। এ সময় আইওএমের পক্ষ থেকে তাদের প্রত্যেককে পকেট মানি হিসেবে ৫৮৯৬ টাকা এবং কিছু খাদ্য সামগ্রী উপহার দেওয়া হয়। এর ধারাবাহিকতায় ৫ ডিসেম্বর আরও ২৬৩ জন অনিয়মিত বাংলাদেশি নাগরিককে লিবিয়া থেকে বাংলাদেশে প্রত্যাবাসন করা হবে।

লিবিয়া থেকে আনা এসব বাংলাদেশিরা মানবপাচারের শিকার কি না এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, অনেকেই ইচ্ছাকৃতভাবে লিবিয়ায় যাচ্ছেন, তাদের জোর করে নেওয়া হচ্ছে না। আসলে তাদের যেখানে নিয়ে যাওয়ার কথা বলা হচ্ছে, সেই জায়গায় তারা শেষ পর্যন্ত পৌঁছাতে পারছেন না। কাজেই এটা ব্যাখ্যার ওপর নির্ভর করে।

এ কূটনীতিক আরও বলেন, আমি যেটা বুঝি, যদি কেউ আইন লঙ্ঘন করে যেতেন, তাহলে তাদের ইমিগ্রেশন ক্রস করার কথা না। বাংলাদেশে থেকে ইমিগ্রেশন পার হওয়া পর্যন্ত হয়তো তিনি আইনটা ঠিকঠাক অনুসরণ করেই যাচ্ছেন, পরে ট্রানজিট পয়েন্ট কিংবা ল্যান্ডিং পয়েন্ট যেটিই থাকুক না কেন, সেখানে পৌঁছানোর পর ভিকটিম হয়ে যাচ্ছেন। এখানে প্রতিটি ক্ষেত্রে নিজস্ব ব্যাখ্যা দাঁড় করানোর একটা সুযোগ আছে।

কানাডায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন কবি আসাদ চৌধুরী
                                  

অনলাইন ডেস্ক : কানাডার স্থানীয় সময় শুক্রবার বাদ জুমা একুশে পদকপ্রাপ্ত ও বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কারপ্রাপ্ত কবি আসাদ চৌধুরীর জানাজার নামাজ টরন্টোর নাগেট মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জানাজার পর কবির মরদেহ সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা ও সম্মান জানানোর জন্য মসজিদের অভ্যন্তরে আধা ঘণ্টা রাখা হয়। সর্বসাধারণের দেখা সম্পন্ন হলে কবির মরদেহ অন্টারিও’র পিকারিং ডাফিন মেডোজ কবরস্থানে দাফন করা হয়।

কবি আসাদ চৌধুরী কানাডার স্থানীয় সময় ৫ অক্টোবর ভোররাত তিনটার সময় কানাডার অশোয়া শহরের লে’ক রিজ হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। ইন্নাল ইল্লা হি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজেউন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। তিনি গত এক বছর ব্লাড ক্যান্সার রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি দুই ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন।

কবি আসাদ চৌধুরী দীর্ঘদিন কানাডার টরেন্টোতে তার একমাত্র মেয়ে নুসরাত জাহান চৌধুরী’র সাথে থাকতেন। কবির জামাতা নাদিম ইকবাল জানান, কবি আসাদ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গতমাসে তাকে কানাডার লেকরিজ হেলথ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়।

কবি আসাদ চৌধুরী ১৯৪৩ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জের উলানিয়া জমিদার বাড়ির এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

মালয়েশিয়ায় ২৫২ বাংলাদেশিসহ ৪২৫ অভিবাসী আটক
                                  

অনলাইন ডেস্ক : মালয়েশিয়ায় ৪২৫ অভিবাসীকে আটক করেছে, দেশটির কুয়ালালামপুর ইমিগ্রেশন বিভাগ। রাজধানী কুয়ালালামপুরের চেরাসের তামান কনটের তিনটি ভিন্ন ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। যাদের বয়স ৮ থেকে ৫৪ বছর।

শুক্রবার মধ্যরাত ১টায় অভিযানে ৮০ জন ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা মোট ৬০০ জন দেশি-বিদেশি নাগরিকের কাগজপত্র চেক করেন এবং এর মধ্য থেকে যাদের কাগজপত্র নেই এমন ৪২৫ জন বিদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করেছে। যার মধ্যে ৩৭২ জন পুরুষ এবং ৫৩ জন নারী রয়েছেন।

আটকদের মধ্যে বাংলাদেশের ২৫২, মিয়ানমার ১০৮, ইন্দোনেশিয়া ৩০, নেপাল ২০, পাকিস্তান ৭, কম্বোডিয়া ৬ এবং ফিলিপাইনের ২ জন রয়েছেন।

কুয়ালালামপুর ইমিগ্রেশন অধিদপ্তরের পরিচালক শ্যামসুল বদরিন মহসিন সাংবাদিকদের বলেছেন, পাস বা পারমিটের অপব্যবহার, অবৈধভাবে পরিচয়পত্র ছাড়াই (অতিরিক্ত অবস্থান) ও বিভিন্ন অরাধের কারণে তাদের আটক করা হয়।

অভিযান শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি কুয়ালালামপুর ইমিগ্রেশন অধিদপ্তরের পরিচালক শ্যামসুল বদরিন মহসিন / ছবি সংগৃহীত।

আটকদের বুকিত জলিল ইমিগ্রেশন ডিটেনশন ডিপোতে রাখা হয়েছে। ইমিগ্রেশন অ্যাক্ট ১৯৫৯/৬৩, পাসপোর্ট অ্যাক্ট ১৯৬৬ এবং ইমিগ্রেশন রেগুলেশনস ১৯৬৩ এর অধীনে আরও বেশি তদন্ত করা হবে বলেও যোগ করেন শ্যামসুল বদরিন মহসিন।

কুয়ালালামপুর ইমিগ্রেশন অধিদপ্তরের পরিচালক শ্যামসুল বদরিন মহসিন বলেন, আমরা সবসময় জনগণের দেওয়া অভিযোগ এবং তথ্যের ভিওিতে ব্যবস্থা নেবো এবং যারা অবৈধভাবে মালয়েশিয়ায় থাকেন, তাদের পাসের অপব্যবহার এবং এই দেশে অনৈতিক কার্যকলাপ পরিচালনাকারী বিদেশি নাগরিকদের সঙ্গে আপস করব না।

বিদেশে দক্ষ কর্মীর চাহিদা বাড়ছে, হাতছাড়া হতে হচ্ছে ইউরোপ
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : বাংলাদেশে কাজ করছে পাঁচ লাখের বেশি বিদেশিকর্মী : ঘাটতি হচ্ছে বৈদেশিক মুদ্রা। বাংলাদেশ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জনশক্তি রফতানি করলেও এদেশেই কাজ করছেন বিপুল সংখ্যক বিদেশিকর্মী। সরকারি হিসেবে সেটি এক লাখ বলা হলেও এটির প্রকৃত সংখ্যা পাঁচ লাখের বেশি বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছে। দুই বছর আগে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবির একটি গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশে ২১টি খাতে ৪৪টি দেশের আড়াই লাখ কর্মী কাজ করছেন। যারা বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর নিয়ে যাচ্ছেন ২৬ হাজার ৪০০ কোটি টাকা। শিক্ষাবিদ, ব্যবসায়ী ও জনশক্তি রপ্তানির সঙ্গে জড়িতরা বলছেন, দেশের শিক্ষাব্যবস্থা যুগোপযোগি, দক্ষতা ভিত্তিক না হওয়ার কারণে প্রতিবছর বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী উচ্চশিক্ষা নিয়ে বের হলেও শিল্প প্রতিষ্ঠানে যে রকম দক্ষকর্মী প্রয়োজন সেটির চাহিদা পূরণ করতে পারছে না। কারিগরি শিক্ষার দক্ষতার অভাবে বহিঃবিশ্বের বাজারেও অন্যান্য দেশের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকতে পারছে না। ফলে প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে যারা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে যাচ্ছেন তাদের বেশির ভাগই অদক্ষ শ্রমিক। আগামী দিনে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব, প্রযুক্তি, রোবটিক ও আইওটির (ইন্টারনেট অব থিংস) যুগে টিকে থাকতে হলে সকল জনশক্তিকে কারিগরি ও প্রযুক্তি শিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলার তাগিদ দিয়েছেন তারা। একই সঙ্গে পররাষ্ট্র, শিক্ষা, শ্রম ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়কে সমন্বিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।গোটা বিশ্বই এখন প্রস্তুত হচ্ছে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য। কারণ প্রযুক্তির এই বিপ্লবে বিপ্লব ঘটবে মানুষের জীবনমান, পরিবর্তিত-পরিবর্ধিত হবে শিল্প, অর্থনীতি, যোগাযোগ। সবকিছুর কেন্দ্রে থাকবে মেশিন, রোবট, ইন্টারনেট অব থিংক (আইওটি)সহ প্রযুক্তির নতুন নতুন সব উদ্ভাবন। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দক্ষ জনশক্তির চাহিদাও বাড়ছে দিনে দিনে। এজন্য প্রযুক্তির এসব উদ্ভাবন ও পরিবর্তনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে উন্নত দেশগুলো উন্নত যুগোপযোগী শিক্ষায়, কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষায় বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। জার্মানিতে ৭৩, জাপানে ৬৬, সিঙ্গাপুরে ৬৫, অস্ট্রেলিয়ায় ৬০, চীনে ৫৫, দক্ষিণ কোরিয়ায় ৫০ শতাংশ মানুষ কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত ও দক্ষ। সব উন্নত দেশে যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে তাদের শিক্ষাব্যবস্থার কারিকুলামও তৈরি করে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, তারা যতটা এগুচ্ছে বাংলাদেশ এক্ষেত্রে পিছিয়ে পড়ছে ততটাই। মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রতিদিনই দক্ষ কর্মীর চাহিদা বাড়লেও কেবল প্রয়োজনীয় দক্ষতার অভাবে বাংলাদেশ এই বাজার ধরতে ব্যর্থ হচ্ছে বলে মনে করেন তারা। পিছিয়ে পড়ছে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত ও নেপাল থেকেও। যদিও প্রতি বছরই ৬ থেকে ৮ লাখ জনশক্তি রপ্তানি করছে বাংলাদেশ। বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মাধ্যমও তাদের পাঠানো রেমিট্যান্সই।

শিক্ষাবিদ ও জনশক্তি রপ্তানিকারকরা বলছেন, শিক্ষার্থীদের যদি প্রয়োজনভিত্তিক, দক্ষতাভিত্তিক শিক্ষা দেয়া যায় এবং যারা বিদেশের শ্রমবাজারে যাচ্ছেন তাদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ করে গড়ে তোলা যায় তাহলে এই চিত্র পরিবর্তন হতে পারে। এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. এ বি এম রাশেদুল হাসান বলেন, এখন আর গতানুগতিক ধারার শিক্ষায় কিছু হবে না। আমাদের নজর দিতে হবে বিশ্ব কোন দিকে ধাবিত হচ্ছে, কি ধরনের পরিবর্তন হচ্ছে, কেমন দক্ষতা প্রয়োজন? কারণ এখনই মেশিন হিউম্যান রিসোর্সের জায়গা নিচ্ছে। তিনি বলেন, প্রযুক্তির কল্যাণে সামনের দিনে যে চ্যালেঞ্জ আসছে সেটিকে কাজে লাগাতে হলে প্রয়োজন হবে কারিগরি শিক্ষা, কম্পিউটারের দক্ষতা। এর কোনো বিকল্প নেই।পার্শ্ববর্তী দেশের উদাহরণ দিয়ে এই শিক্ষাবিদ বলেন, ভারত তাদের পলিটেকনিক ইনস্টিটিউশন ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কারিগরি শিক্ষার ওপর জোর দেয়ার কারণে এখন তারা এই ক্ষেত্রে এগিয়েছে, অনেক জায়গায় নেতৃত্ব দিচ্ছে। তিনি আরো বলেন, আমাদের ভুড়ি ভুড়ি বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো দরকার নেই। কৃষিতে, শিল্পে যেরকম প্রয়োজন, তেমন দক্ষ জনশক্তি তৈরি করা।
কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের তথ্যমতে, কারিগরি শিক্ষার হার প্রায় ২০ শতাংশ। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের তথ্য মতে, প্রতিবছর কয়েক লাখ শিক্ষার্থী উচ্চশিক্ষা শেষ করে কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করছে। যাদের বেশিরভাগই সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিত। ফলে প্রশাসনিক পদে থাকছে বিপুল প্রতিযোগিতা থাকলেও কর্মক্ষেত্রে যে ধরনের দক্ষতা প্রয়োজন সেটি শিক্ষার্থীদের মধ্যে না থাকায় বিভিন্ন কর্পোরেট সেক্টর ও বেসরকারি সংস্থাকে বিদেশ থেকে লোক আনতে হচ্ছে।

জানা যায়, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষায় প্রথম শ্রেণি পেলেও দেশে ভালো চাকরির নিশ্চয়তা নেই। উচ্চশিক্ষায় দুর্দান্ত ফল অর্জনকারীদের মধ্যে ২ থেকে সাড়ে ৩৪ শতাংশ বেকার। আবার যারা চাকরি পান, তাদের ৭৫ শতাংশেরই বেতন চল্লিশ হাজার টাকার নিচে। উচ্চশিক্ষিত মেধাবীদের চাকরি, বেতন ও বেকারত্বের এ হতাশাজনক চিত্র উঠে এসেছে বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের এক গবেষণায়। ওই গবেষণায় দেখানো হয়েছে, শিক্ষিতদের (এসএসসি, এইচএসসি, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী) এক-তৃতীয়াংশই বেকার। তাদের মধ্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী বেকার বেশি অর্থাৎ যাদের পেছনে দেশ ও পরিবার বেশি অর্থ ব্যয় করেছে, তারাই বেশি বেকার। বিআইডিএসের গবেষণা অনুযায়ী, সার্বিকভাবে শিক্ষিতদের মধ্যে ৩৩ শতাংশের বেশি বেকার। আর এসএসসি, এইচএসসি, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে যারা প্রথম শ্রেণি পেয়েছে, তাদের মধ্যে বেকারত্ব ১৯ থেকে সাড়ে ৩৪ শতাংশ। বিশেষ করে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে প্রথম শ্রেণিপ্রাপ্তদের মধ্যে ৩৪ দশমিক ৪ শতাংশই বেকার। স্নাতক পর্যায়ে এমন মেধাবীদের বেকারত্বের হার প্রায় ২৮ শতাংশ।সাধারণ শিক্ষার্থীদের কর্মবাজারের উপযোগী কারিগরি শিক্ষা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীদের কর্মবাজারের উপযোগী করতে কারিগরি শিক্ষাকে সুলভ ও আকর্ষণীয় করার চেষ্টা করছে সরকার।

প্রবসীদের প্রতি আমাদের অনেক দায়িত্ব রয়েছে, প্রবাসীদের নিকট আমরা ঋণী : ফয়সাল বিন করিম
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : শপথ নেবো পাচার রোধে, বিদেশ যাবো বৈধ পথে -এই স্লোগানকে সামনে রেখে - অনিয়মিত অভিবাসন ও মানব পাচার রোধে আজ সোমবার ২২ মে সকাল ১১ টায় কেরানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে ব্র্যাক আয়োজিত এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ ফয়সাল বিন করিম, ব্র্যাক জেলা প্রতিনিধি মোঃ বজলুর রশিদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, কেরানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোসাম্মৎ আলো বেগম। মতবিনিময় সভার সঞ্চালন করেন ডিস্ট্রিক্ট ম্যানেজার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন শুরুতেই সবাইকে অভিনন্দন জানিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করেন। মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন বাংলাদেশের মূল তিনটি চালিকা শক্তির একটি হলো কৃষি, দ্বিতীয় টি হলো গার্মেন্টস শিল্প এবং অন্যটি হলো প্রবাসীদের পাঠানোর রেমিটেন্স, যার উপর ভিত্তি করে বাংলাদেশের অর্থনীতির চাকা শক্তিশালী হচ্ছে। তাই এ বিষয়টি নিয়ে উপস্থিত সবাইকে গুরুত্ব দেওয়ার জন্য আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে এছাড়া উপস্থিত ছিলেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, কেরানীগঞ্জ উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা, কেরানীগঞ্জ উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা, সমাজসেবা কর্মকর্তা, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক, কেরানীগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা, উপজেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা সমবায় অফিসার, হযরতপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন আয়নাল, রুহিতপুর ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার শামীমা বেগম, বিদেশ ফেরত ও প্রতারিত ব্যক্তি, ব্যাংক প্রতিনিধ, মাইগ্রেশন ফোরাম সদস্য, শিক্ষক, ইমাম, এনজিও প্রতিনিধি, সাংবাদিক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি প্রমুখ। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ ফয়সাল বিন করিম, বলেন অনিয়মিত অভিবাসন ও মানব পাচার রোধে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য গুরুত্ব দিয়ে তিনি বলেন মাঠ পর্যায়ে বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে প্রচারণার পাশাপাশি ডিজিটাল প্লাটফর্ম ব্যবহার করে সচেতনতা বাড়াতে হবে। কারণ প্রবাসীরা বিদেশ গিয়ে কষ্ট করে টাকা ইনকাম করে দেশে পাঠায়। প্রবাসীদের ঘামে টাকা, দেশের চাকা উন্নত হচ্ছে, প্রেরিত রেমিটেন্স দিয়ে আমাদের দেশের অর্থনীতি সচল হচ্ছে, বিদেশের বিভিন্ন দেশ থেকে রেমিট্যান্স পাঠানো টাকা দিয়ে সরকার প্রধান আমাদের বেতন দিচ্ছে। তাই প্রবাসী বাংলাদেশীদের প্রতি আমাদের অনেক দায়িত্ব রয়েছে, প্রবাসীদের নিকট আমরা ঋণী রয়েছি, আমাদের কেরানীগঞ্জ উপজেলা থেকে যেন কোন মানুষ প্রতারিত মানব পাচারের শিকার না হয় সেদিকে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। এলাকা থেকে যদি কেউ বিদেশ যেতে চায় তারা যেন প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস সংগ্রহ করে ও ভিসা যাচাই-বাছাই করে বিদেশ যায় সেই বিষয়ে সবাইকে পরামর্শ দেয়ার জন্য আহ্বান জানান। ব্র্যাক এর দেশে প্রবাসে যে পেজটি রয়েছে তার প্রচারণা বাড়ানোর জন্য বেশি করে বোষ্ট করার জন্য অনুরোধ জানান। ব্র্যাক যে স্ট্রাকচার অনুযায়ী কাজ করে তা অনুসরণীয়৷ উপজেলায় অনিয়মিত অভিবাসন ও মানব পাচার রোধে এই ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করার জন্য তিনি ব্র্যাকের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইকোনমিক রিইন্টিগ্রেশন ম্যানেজার নূর-ই সাফা আঁখি তিনি ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম এর কার্যক্রম, মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের মূল ফোকাস, মানব পাচার, অনিয়মিত অভিবাসন, মানব পাচারের কারণ, মানব পাচারের কুফল, নিরাপদ অভিবাসনের প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট, ফোর পি যেমন : প্রিভেনশন, প্রটেকশন, প্রসিকিউশন ও পার্টনারশিপ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। বিশেষ অতিথি উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বলেন - মানুষ বিদেশ যাওয়ার আগে আমাদের সাথে যোগাযোগ কম করে। বিদেশ গিয়ে প্রতারিত হলে আমাদের কাছে আসে শালিশ দরবার করে টাকা উঠায় দেয়ার জন্য। তাই আমি বলব বিদেশ জেনে শুনে যাওয়াটা ভালো তাহলে প্রতারণা ও মানব পাচার কম হবে।দৈনিক এশিয়া বাণী ইউনিট প্রধান সাংবাদিক মিয়া আবদুল হান্নান বলেন প্রবাসী বাংলাদেশীরা আন্তর্জাতিক শ্রমিক রেমিট্যান্স বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন সাফল্যের কারিগর কিছু সংখ্যক ট্রাভেলিং এজেন্ট গুলো অতি মুনাফা করার জন্য সাপ্লাই নামে নতুন ব্যবসা শুরু করছেন,প্রবাসী বাংলাদেশী শ্রমিকদের বেশি বেতনের লোভ দেখিয়ে বিভিন্ন মিল- ফ্যাক্টরী চাকুরী দিয়ে বেতনের টাকা উত্তোলন করে, হিংহ ভাগ টাকা সে সব আদম বেপারীরা হাতিয়ে নিচ্ছে কারণ তারা চুক্তিভিত্তিক সাপ্লাইয়ার এদের প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধি করে তাদের প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে হবে। শিক্ষক প্রতিনিধি সোহানুর রহমান সোহেল বলেন সভা-সেমিনারে বক্তব্য দিয়েই শেষ করা নহে বাস্তবতা হচ্ছে ব্র্যাক কর্মকর্তাদের আরও জনসচেতনতার প্রচার বৃদ্ধি মাঠ প্রর্যায়ে বাস্তবায়ন করতে হবে। অনুষ্ঠানে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন ঢাকা এমআরএসির কাউন্সিলর মাশকুরা বিনতে মুরশেদ। অনুষ্ঠানের উপস্থিত সবাই অনিরাপদ অভিবাসন ও মানব পাচার প্রতিরোধে সচেতনতার বিকল্প নাই বলে উল্লেখ করবেন। তাই যার যার অবস্থান থেকে কাজ করার জন্য অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি পরামর্শ প্রদান করেন। আরও বক্তব্য রাখেন কেরানীগঞ্জ প্রেসক্লাবে সহ সভাপতি মোঃ আলমগীর হোসেন, বাস্তব ফিল্ড অর্গানাইজার অফিসার সুলতানা ওহাব প্রমুখ।


   Page 1 of 13
     প্রবাস
আজ থেকে ১৫ দেশের শ্রমিক মালয়েশিয়ায় ঢুকতে পারবেন না
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ৫২ অবৈধ অভিবাসী আটক
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় ১৩২ প্রবাসী বাংলাদেশি গ্রেফতার
.............................................................................................
ইতালি থেকে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স পাঠিয়ে সম্মাননা পেলেন ৫ বাংলাদেশি
.............................................................................................
তুরস্কে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন
.............................................................................................
রিয়াদে গণহত্যা দিবস পালিত
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় ট্রেনের ধাক্কায় তিন বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় ৫৪ দিনে ১৪ হাজারেরও বেশি অবৈধ অভিবাসী আটক
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে বাড়ছে অবৈধ অভিবাসী, এক বছরে গ্রেফতার ১২ হাজার
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি দম্পতি নিহত
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় ১০১ বাংলাদেশিসহ ১৩৪ নির্মাণশ্রমিক আটক
.............................................................................................
লিবিয়া থেকে প্রত্যাবাসন হবেন আরও ২৬৩ বাংলাদেশি
.............................................................................................
কানাডায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন কবি আসাদ চৌধুরী
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় ২৫২ বাংলাদেশিসহ ৪২৫ অভিবাসী আটক
.............................................................................................
বিদেশে দক্ষ কর্মীর চাহিদা বাড়ছে, হাতছাড়া হতে হচ্ছে ইউরোপ
.............................................................................................
প্রবসীদের প্রতি আমাদের অনেক দায়িত্ব রয়েছে, প্রবাসীদের নিকট আমরা ঋণী : ফয়সাল বিন করিম
.............................................................................................
কুষ্টিয়ার জগলুল বিএনপির দুঃসময়ে যুক্তরাষ্ট্রে রাজনীতির মাঠে
.............................................................................................
কানাডায় সড়কে ঝরলো ৩ বাংলাদেশি শিক্ষার্থীর প্রাণ
.............................................................................................
তুরস্কের ধ্বংসস্তূপ থেকে দুই বাংলাদেশি উদ্ধার
.............................................................................................
তুরস্কে প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য হটলাইন চালু
.............................................................................................
মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার সিন্ডিকেটমুক্ত করার সভায় কয়েক দফায় হট্টগন্ডগোল
.............................................................................................
২০২২ সালে ফ্রান্সে রেকর্ড আশ্রয় আবেদন
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের বৈধ হওয়ার কার্যক্রম শুরু ২৭ জানুয়ারি
.............................................................................................
কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় চার বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
আবুধাবিতে লটারিতে ১০৫ কোটি টাকা জিতলেন বাংলাদেশি
.............................................................................................
প্রবাসী আয়ে বড় ধাক্কা, ৭ মাসে সর্বনিম্ন সেপ্টেম্বরে
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় ৫ মাসে লাখেরও বেশি পাসপোর্ট বিতরণ
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় চার মাসে ৬,৫৭৩ অবৈধ অভিবাসী গ্রেফতার, বাংলাদেশি ৮২০
.............................................................................................
রিক্রুটিং এজেন্সি ইস্যুতে ঝুলে আছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার
.............................................................................................
ইউক্রেনে আটকেপড়া বাংলাদেশিদের উদ্ধার করবে রেড ক্রস
.............................................................................................
আজারবাইজানে বাংলাদেশি ছাত্রী খুন
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের সাবেক হাইকমিশনার খায়রুজ্জামান গ্রেফতার
.............................................................................................
লিবিয়ায় বন্দিদের নির্যাতন: ইতালিতে দুই বাংলাদেশির ২০ বছর কারাদণ্ড
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মী নিয়োগের আবেদন শুরু
.............................................................................................
শারজায় সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি মা-মেয়ে নিহত
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় কর্মী নিয়োগে অনলাইন আবেদনের তারিখ ঘোষণা
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় কর্মী নিয়োগের আবেদনের ঘোষণা শিগগিরই
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বৈধ হওয়ার মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৩১ ডিসেম্বর
.............................................................................................
মালয়েশিয়া যেতে যেসব সুবিধা পাবেন বাংলাদেশি কর্মীরা
.............................................................................................
বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিতে রাজি মালয়েশিয়ার মন্ত্রিপরিষদ
.............................................................................................
অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে ৬ লাখ বিদেশি কর্মীর প্রয়োজন মালয়েশিয়ায়
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ১২৯ অভিবাসী আটক
.............................................................................................
স্পেনে শহীদ বীরমুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ মহান বিজয় দিবস পালিত
.............................................................................................
ওমানে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই ভাইসহ তিন বাংলাদেশির মৃত্যু
.............................................................................................
কুয়েত প্রবাসীদের দ্বিতীয় দফা বৈধ হওয়ার সুযোগ
.............................................................................................
ইতালিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি যুবক নিহত
.............................................................................................
মরিশাসে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
এখনই কাটছে না প্রবাসী কর্মীদের অনিশ্চয়তা
.............................................................................................
কানাডায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশীদের জন্য সেকেন্ড হোম অবস্থান তৃতীয়
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: [email protected]
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Dynamic Scale BD