বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * তুরস্ক-সিরিয়ায় হতাহতদের স্মরণে জাতিসংঘে নীরবতা পালন   * ডেঙ্গু আক্রান্ত আরও ১১ জন হাসপাতালে   * ১২ ঘণ্টা না যেতেই তুরস্ক-সিরিয়ায় ফের শক্তিশালী ভূমিকম্প   * তুুরস্ক-সিরিয়ায় ভূমিকম্প: মৃতের সংখ্যা বেড়ে প্রায় ১৫০০   * দেশের মোট জনসংখ্যা ১৬ কোটি ৯৭ লাখ : বিআইডিএস   * ভূমিকম্পে তুরস্কে প্রাণহানি ১০ হাজার ছাড়াতে পারে: ইউএসজিএস   * ভূমিকম্পে কেবল তুরস্কেই নিহত ৯১২   * যত দ্রুত সম্ভব আমরা এই ট্রাজেডি কাটিয়ে উঠব: এরদোগান   * লাশ হয়ে ফিরলেন ৭১৪ নারী : ক্ষতিপূরণ চেয়ে হাইকোর্টে রিট   * তুরস্কে উদ্ধারকারী দল পাঠাবে নেদারল্যান্ডস  

   অর্থ-বাণিজ্য -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় এখন ২৭৯৩ ডলার

অনলাইন ডেস্ক : ২০২১-২২ অর্থবছরের চূড়ান্ত হিসাবে বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়ে দুই হাজার ৭৯৩ মার্কিন ডলার হয়েছে। ২০২০-২১ অর্থবছরে যা ছিল দুই হাজার ৫৯১ মার্কিন ডলার। ফলে এক বছরে মাথাপিছু আয় বেড়েছে ২০২ মার্কিন ডলার।

রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) চূড়ান্ত এ হিসাব প্রকাশ করেছে। মাথাপিছু আয় বাড়লেও সরকারের প্রত্যাশা অনুযায়ী বাড়েনি। সাময়িক হিসাবে এ আয় ছিল দুই হাজার ৮২৪ ডলার। ফলে প্রতি ডলার সমান ১০৭ টাকা ধরে প্রতি বাংলাদেশি মানুষের আয় এখন দুই লাখ ৯৮ হাজার ৮৫১ টাকা।

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা অর্জনের পর থেকেই দ্রুত সমৃদ্ধি অর্জন করছে বাংলাদেশের অর্থনীতি। ১৯৭২-৭৩ অর্থবছরে দেশে বার্ষিক মাথাপিছু আয় ছিল ৬৭৬ টাকা। সেই হিসাবে একজনের দৈনিক আয় ছিল এক টাকা ৮৫ পয়সা। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ফলেই মাথাপিছু আয় বেড়েছে।

জিডিপির প্রবৃদ্ধি সবসময় ইতিবাচক থাকায় ধারাবাহিকভাবে বেড়েছে মাথাপিছু আয়। স্বাধীন দেশের শুরুতে যেখানে মাথাপিছু আয় ছিল ৬৭৬ টাকা, সেখানে মাত্র দুই যুগ পর (১৯৯৫-৯৬) সেই মাথাপিছু আয় বেড়ে দাঁড়ায় ১১ হাজার ১৫২ টাকা। এরপর ১৯৯৮-৯৯ সালে মাথাপিছু আয় বেড়ে দাঁড়ায় ১৪ হাজার ১৪৩ টাকা। এক ধাপে ২০০০-০১ সালে মাথাপিছু আয় বেড়ে দাঁড়ায় ২৩ হাজার ৯১ টাকা। এরপর ২০০৫-০৬ অর্থবছরে ৩৬ হাজার ৪৪৮ টাকা, ২০১০-১১ অর্থবছরে ৬৬ হাজার ৪৪ টাকা মাথাপিছু আয় হয়।

২০১৫-১৬ অর্থবছরে লাখ টাকা ছাড়ায় মাথাপিছু আয়। এই সময় মাথাপিছু আয় দাঁড়ায় এক লাখ ১৪ হাজার ৬২১ টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে মাথাপিছু আয় দাঁড়ায় এক লাখ ৬০ হাজার ৪৪০ টাকা।

বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় এখন ২৭৯৩ ডলার
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ২০২১-২২ অর্থবছরের চূড়ান্ত হিসাবে বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়ে দুই হাজার ৭৯৩ মার্কিন ডলার হয়েছে। ২০২০-২১ অর্থবছরে যা ছিল দুই হাজার ৫৯১ মার্কিন ডলার। ফলে এক বছরে মাথাপিছু আয় বেড়েছে ২০২ মার্কিন ডলার।

রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) চূড়ান্ত এ হিসাব প্রকাশ করেছে। মাথাপিছু আয় বাড়লেও সরকারের প্রত্যাশা অনুযায়ী বাড়েনি। সাময়িক হিসাবে এ আয় ছিল দুই হাজার ৮২৪ ডলার। ফলে প্রতি ডলার সমান ১০৭ টাকা ধরে প্রতি বাংলাদেশি মানুষের আয় এখন দুই লাখ ৯৮ হাজার ৮৫১ টাকা।

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা অর্জনের পর থেকেই দ্রুত সমৃদ্ধি অর্জন করছে বাংলাদেশের অর্থনীতি। ১৯৭২-৭৩ অর্থবছরে দেশে বার্ষিক মাথাপিছু আয় ছিল ৬৭৬ টাকা। সেই হিসাবে একজনের দৈনিক আয় ছিল এক টাকা ৮৫ পয়সা। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ফলেই মাথাপিছু আয় বেড়েছে।

জিডিপির প্রবৃদ্ধি সবসময় ইতিবাচক থাকায় ধারাবাহিকভাবে বেড়েছে মাথাপিছু আয়। স্বাধীন দেশের শুরুতে যেখানে মাথাপিছু আয় ছিল ৬৭৬ টাকা, সেখানে মাত্র দুই যুগ পর (১৯৯৫-৯৬) সেই মাথাপিছু আয় বেড়ে দাঁড়ায় ১১ হাজার ১৫২ টাকা। এরপর ১৯৯৮-৯৯ সালে মাথাপিছু আয় বেড়ে দাঁড়ায় ১৪ হাজার ১৪৩ টাকা। এক ধাপে ২০০০-০১ সালে মাথাপিছু আয় বেড়ে দাঁড়ায় ২৩ হাজার ৯১ টাকা। এরপর ২০০৫-০৬ অর্থবছরে ৩৬ হাজার ৪৪৮ টাকা, ২০১০-১১ অর্থবছরে ৬৬ হাজার ৪৪ টাকা মাথাপিছু আয় হয়।

২০১৫-১৬ অর্থবছরে লাখ টাকা ছাড়ায় মাথাপিছু আয়। এই সময় মাথাপিছু আয় দাঁড়ায় এক লাখ ১৪ হাজার ৬২১ টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে মাথাপিছু আয় দাঁড়ায় এক লাখ ৬০ হাজার ৪৪০ টাকা।

রাজস্ব ভবন ও সম্মেলনের উদ্বোধন আজ
                                  

অনলাইন ডেস্ক : রাজস্ব প্রদানে জনসচেতনতা বৃদ্ধি ও রাজস্ববান্ধব মানসিকতা বিকাশের লক্ষ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) আজ ও আগামীকাল (৫ ও ৬ ফেব্রুয়ারি), আয়োজন করেছে দুদিনব্যাপী রাজস্ব সম্মেলন।

আগারগাঁওয়ের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আজ রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টা ২০ মিনিটে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে সকাল ১০টায় আগারগাঁওয়ে এনবিআরের নতুন ভবনের উদ্বোধন করবেন তিনি।

শুক্রবার (৩ ফেব্রুয়ারি) রাজস্ব সম্মেলন-২০২৩ এবং রাজস্ব ভবন উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছিলেন এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা রহমাতুল মুনিম।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, সম্মেলনের দুদিন রাজস্ব আদায়, ভ্যাট ও আয়করের ভূমিকা নিয়ে একাধিক সভা-সেমিনার হবে। সম্মেলনে মতবিনিময় এবং স্টল স্থাপনের মাধ্যমে আয়কর, কাস্টমস ও ভ্যাটবিষয়ক সেবাসমূহের বিষয়ে সাধারণ জনগণকে বাস্তবিক ধারণা দেওয়া হবে। একই সঙ্গে অস্থায়ীভাবে নির্মিত রাজস্ব মিউজিয়ামে ভ্যাট, আয়কর ও কাস্টমস বিভাগের ঐতিহাসিক দলিল, গেজেট, ঐতিহাসিক বস্তুসমূহ সর্বসাধারণের প্রদর্শনের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, রাজস্ব সম্মেলনে ভ্যাট, আয়কর এবং কাস্টমসের তিনটি স্টল থাকবে। স্টলগুলোতে ভ্যাট নিবন্ধন, আয়কর সনদপত্র, ভ্যাট ও আয়করের দাখিলপত্র জমা দেওয়াসহ ভ্যাট, কাস্টমস ও আয়কর সংক্রান্ত অন্য প্রয়োজনীয় সেবা দেওয়া হবে।

কমলো সোনার দাম
                                  

অনলাইন ডেস্ক : দেশের বাজারে সোনার দাম কিছুটা কমানো হয়েছে। স্থানীয় বাজারে তেজাবী সোনার (পাকা সোনা) দাম কমার পরিপ্রেক্ষিতে এই দাম কমানো হয়েছে। সব থেকে ভালো মানের সোনার দাম ভরিতে ১ হাজার ১৬৭ টাকা কমিয়ে নতুন দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে ভালো মানের প্রতি ভরি সোনার দাম হয়েছে ৯২ হাজার ২৬২ টাকা।

আগামীকাল রোববার (৫ ফেব্রুয়ারি) থেকে সোনার এই নতুন দাম কার্যকর করা হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)।

এর আগে চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারি, ৮ জানুয়ারি, গত বছরের ৩০ ও ৪ ডিসেম্বর এবং ১৮ ও ১৩ নভেম্বর দেশের বাজারে সোনার দাম বাড়ানো হয়। ফলে দুই মাসের ব্যবধানে দেশের বাজারে ছয় দফা সোনার দাম বাড়ে। এতে দেশের বাজারে ইতিহাসের সর্বোচ্চ দামে পৌঁছে যায় দামি এই ধাতুটি।

সর্বশেষ ১৫ জানুয়ারি দাম বাড়ার মাধ্যমে ভালো মানের এক ভরি সোনার দাম হয় ৯৩ হাজার ৪২৯ টাকা। এর আগে কখনো দেশের বাজারে সোনার ভরি ৯৩ হাজার টাকা স্পর্শ করেনি। রেকর্ড দাম হওয়ার পর এখন সোনার দাম কিছুটা কমলো।

বাজুসের মূল্য নির্ধারণ ও মূল্য পর্যবেক্ষণ সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটি শনিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) বৈঠক করে এই দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নেয়। পরবর্তীতে মূল্য নির্ধারণ ও মূল্য পর্যবেক্ষণ সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান এম এ হান্নান আজাদ সই করা এক বিজ্ঞপ্তিতে দাম কমানোর এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, স্থানীয় বাজারে তেজাবী সোনার দাম কমেছে। তাই সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতি সোনার নতুন দাম নির্ধারণ করেছে, যা ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর হবে।

নতুন মূল্য অনুযায়ী, সব থেকে ভালো মানের বা ২২ ক্যারেট প্রতি ভরি (১১.৬৬৪ গ্রাম) সোনার দাম ১ হাজার ১৬৭ টাকা কমিয়ে ৯২ হাজার ২৬২ টাকা করা হয়েছে।

এছাড়া ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার দাম ১ হাজার ১০৮ টাকা কমিয়ে ৮৮ হাজার ৬৩ টাকা করা হয়েছে। ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার দাম ৯৯২ টাকা কমিয়ে ৭৫ হাজার ৪৬৬ টাকা করা হয়েছে। আর সনাতন পদ্ধতির সোনার দাম ভরিতে ৮১৬ টাকা কমিয়ে ৬২ হাজার ৮৬৭ টাকা করা হয়েছে।

এর আগে চলতি বছর প্রথমবার সোনার দাম বাড়ানো হয় ৮ জানুয়ারি। সে সময় সব থেকে ভালো মানের এক ভরি সোনার দাম ২ হাজার ৩৩৩ টাকা বাড়িয়ে ৯০ হাজার ৭৪৬ টাকা করা হয়।

এছাড়া ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার দাম ২ হাজার ২১৬ টাকা বাড়িয়ে ৮৬ হাজার ৬০৫ টাকা, ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার দাম ১ হাজার ৯২৪ টাকা বাড়িয়ে ৭৪ হাজার ২৪১ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি সোনার দাম ১ হাজার ৫৭৫ টাকা বাড়িয়ে ৬১ হাজার ৮৭৮ টাকা করা হয়।

এরপর ১৫ জানুয়ারি সব থেকে ভালো মানের বা ২২ ক্যারেট প্রতি ভরি (১১.৬৬৪ গ্রাম) সোনার দাম ২ হাজার ৬৮৩ টাকা বাড়িয়ে ৯৩ হাজার ৪২৯ টাকা করা হয়।

এছাড়া ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার দাম ২ হাজার ৫৬৬ টাকা বাড়িয়ে ৮৯ হাজার ১৭১ টাকা করা হয়। ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনার দাম ২ হাজার ২১৭ টাকা বাড়িয়ে ৭৬ হাজার ৪৫৮ টাকা করা হয়। আর সনাতন পদ্ধতির সোনার দাম ভরিতে ১ হাজার ৮০৭ টাকা বাড়িয়ে ৬৩ হাজার ৬৮৫ টাকা করা হয়।

এখন সোনার দাম কমলেও অপরিবর্তিত রয়েছে রুপার দাম। ২২ ক্যারেটের এক ভরি রুপার ১ হাজার ৭১৫ টাকা, ২১ ক্যারেটের রুপা ১ হাজার ৬৩৩ টাকা, ১৮ ক্যারেটের রুপা ১ হাজার ৪০০ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির রুপা ১ হাজার ৫০ টাকা ভরি বিক্রি হচ্ছে।

অস্থির ব্রয়লার ও ডিমের বাজার
                                  

অনলাইন ডেস্ক : তিনদিন আগেও যারা ব্রয়লার মুরগি কিংবা ফার্মের ডিম কিনেছেন, শুক্রবার সকালে বাজার এসে তাদের পিলে চমকে যেতে পারে। কারণ, এ সময়ের ব্যবধানে প্রতি কেজি ব্রয়লারের দাম ৩০ টাকা ও ডিম ডজনে বেড়েছে ১০-১৫ টাকা।

এখন বাজারে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি ১৫০-১৫৫ থেকে বেড়ে ১৮০-১৮৫ টাকা হয়েছে। আর ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৩৫-১৪০ টাকা। যা আগে ছিল ১২৫ টাকা।

হুট করে ব্রয়লার ও ডিমের এ দামবৃদ্ধি বাজারে অস্থিরতা তৈরি করেছে। দোকানে দোকানে দাম নিয়ে চলছে ক্রেতা-বিক্রেতার বাগবিতণ্ডা। শুক্রবার (৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে।

শান্তিনগর বাজারে ডিমের দরদাম করছিলেন ওই এলাকার বাসিন্দা মাহফুজা পারভিন। নির্দিষ্ট দোকান থেকে তিনি ব্রয়লার মুরগি ও ডিম কেনেন। এদিন সকালে ডিম কিনতে এসে তিনি জানতে পারেন দামবৃদ্ধির কথা। বিক্রেতা পরিচিত হলেও তিনি তাকে সাফ বলে দিলেন, ‘মগের মুল্লুক নাকি’!

মাহফুজা পারভিন বলেন, সোমবারও ব্রয়লার মুরগি ১৫৫ টাকায় কিনেছি। এখন বলছে ১৮৫ টাকা। আশ্চর্য লাগছে। মাঝে তিনদিনে কীভাবে এতো বাড়ে। আমাদের জীবন চালানো অসম্ভব হয়ে যাচ্ছে।

শাহনাজ বেগম নামের অন্য এক ক্রেতা বলেন, ডিমের দাম এই বাড়ে তো, এই কমে। আগে ১১০ টাকায় এক ডজন ডিম পাওয়া যেতো। এরপর একবার ১৫০ টাকা হলো। তারপর কমে আবার ১২০ টাকায় নেমেছে। এখন আবার ডজনে ১৫ টাকা বেশি চাওয়া হচ্ছে। বাজার থেকে যদি এই দামে কিনতে হয়, পাড়া-মহল্লার দোকানে নিশ্চয়ই আরও বেশি দামে কিনতে হবে। আর কাল কী হবে সেটা কীভাবে বলবেন?

কারওয়ান বাজার, মালিবাগ ও রামপুরা বাজার ঘুরেও ব্রয়লার মুরগি ও ফার্মের ডিমের বাড়তি দামের তথ্য পাওয়া গেছে। কারওয়ান বাজারের বিক্রেতারা সরবরাহের সংকট না থাকলেও আড়তে ডিমের দাম বাড়ছে বলে জানান।

কারওয়ান বাজারের ডিম ব্যবসায়ী জামাল হোসেন বলেন, হুট করে ডিমের দাম বেড়ে গেল। তিনদিন ধরে এ দামবৃদ্ধি। আজকে এক রকম তো কাল আরেক রকম। প্রতিদিন ডজনে ৫ টাকা করে বাড়তি কিনতে হচ্ছে। জানিনা এ দাম কোথায় ঠেঁকবে।

অন্যদিকে পাড়া-মহল্লার মুদি দোকান থেকে ডিম কিনলে গুনতে হচ্ছে তার চেয়ে কয়েক টাকা বেশি। কোথাও কোথাও ডিম ৫০ টাকা হালি বিক্রি হতে দেখা গেছে। ফার্মের মুরগির সাদা ডিম একটু কমে, প্রতি হালি ৪৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর বাজারভেদে হাঁসের ডিমের হালি ৭৫ থেকে ৮০ টাকা।

অন্যদিকে বাজারভেদে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১৮০ থেকে ১৯৫ টাকা। আর সোনালি মুরগির দাম প্রতি কেজি ৩০০-৩২০ টাকা পর্যন্ত। এ সময়ের ব্যবধানে ব্রয়লার ও সোনালি মুরগির দাম প্রতি কেজি ৩৫ টাকা বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

কারওয়ান বাজারে এসএম এন্টারপ্রাইজের বিক্রেতা কাশেম সিকদার বলেন, মাঝে মুরগির দাম বেশ বেড়েছিল। এরপর আবার কিছুটা কমেছে। এখন আবার বাড়তির দিকে। তবে এবার দাম অস্বাভাবিক হারে বাড়ছে।

তিনি বলেন, কাঁচামালের দাম মাঝেমধ্যে হেরফের হয়। শীতের সময় ব্রয়লারের চাহিদা বাড়ে, সরবরাহ কমে যায়। তবে হুট করে কেন এমন হলো সেটা জানা নেই।

এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে কথা হয় খামারিদের সংগঠন পোল্ট্রি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. সুমন হাওলাদারের সঙ্গে। তিনি বলেন, খামারেই ডিম ও মুরগির দাম বেড়েছে। যার প্রভাব পড়েছে বাজারে। খামারে মুরগি ১৪৮ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এ দাম কয়েকদিনে বেড়েছে। সামনে দাম আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

এ বিষয়ে সুমন হাওলাদার বলেন, আমাদের এ বাজারে করপোরেট কোম্পানিগুলোর শক্ত সিন্ডিকেট রয়েছে। তারা ১০ দিনে ১০ টাকার বাচ্চা ৪৩ টাকা করেছে। গত বছরের আগস্টের পর থেকে দফায় দফায় ফিডের দাম বাড়িয়েছে। যার প্রভাবে টিকতে না পেরে অনেক খামারি খামার বন্ধ করে দিয়েছেন। এখন তারাই (করপোরেট কোম্পানি) বাজার নিয়ন্ত্রণ করছেন।

তিনি বলেন, গত বছরের আগস্টের পর থেকে ফিড ও বাচ্চার অস্বাভাবিক বাজার নিয়ে আমরা বারবার প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরে যাচ্ছি। সরকারের উচ্চ মহলও এটি নিয়ন্ত্রণে একমাসের মধ্যে কৌশলপত্র তৈরি করতে বলেছে। কিন্তু সেটা তারা করেনি। দুমাসের বেশি সময় আমরা ঘুরছি। তাদের কোনো প্রকার আগ্রহ নেই। সেটা কেন জানি না।

তারপরও তিনদিনের ব্যবধানে এ অস্বাভাবিক দরবৃদ্ধি কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখন সাধারণ খামারিদের কাছে মুরগি নেই। যেগুলো আছে সেগুলো চড়া দামের ফিড খাওয়া। অন্যদিকে করপোরেট কোম্পানি সিন্ডিকেট করছে, তাদের কাছে মুরগি আছে। তারা দাম বাড়াচ্ছে। যখন খামারিদের মুরগি থাকে তখন তারা দাম দেয় না। মুরগি শেষ হলে ইচ্ছেমতো দাম বাড়িয়ে দেয়। এসব আমরা সরকারের বিভিন্ন মহলকে জানিয়েছি। কিন্তু কোনো ব্যবস্থা হচ্ছে না।

চীনকে উত্তরাঞ্চলে কৃষিনির্ভর কারখানা করার আহ্বান বাণিজ্যমন্ত্রীর
                                  

অনলাইন ডেস্ক : দেশের উত্তরাঞ্চলে চীনকে অ্যাগ্রোবেজ ইন্ডাস্ট্রিজ স্থাপনের আহ্বান জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, চীনসহ বিশ্বের অনেক দেশের বিভিন্ন কোম্পানি বাংলাদেশে বিনিয়োগ করেছে। বিনিয়োগের ক্ষেত্রে চীনের অবস্থান বেশ ভালো। কৃষিপ্রধান বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলে অ্যাগ্রোবেজ শিল্প কল-কারখানা স্থাপন খুবই প্রয়োজন এবং এখানে বিনিয়োগ লাভজনক হবে।

বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে তার অফিসে ঢাকায় নবনিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েনের সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় এ আহ্বান জানান তিনি।

টিপু মুনশি বলেন, চীন বাংলাদেশের বৃহৎ অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক অংশীদার। বাংলাদেশের উন্নয়নে তথা মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নে চীন অনেক সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। এজন্য চীনের প্রতি কৃতজ্ঞ বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিদের্শনায় দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ১০০টি স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে উঠছে। এর অনেকগুলোর কাজ এখন প্রায় শেষ। আরও চীনা বিনিয়োগ প্রত্যাশা করছে বাংলাদেশ। চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য ব্যবধান অনেক বেশি। চীনে রপ্তানি বৃদ্ধি এবং বাংলাদেশে চীনা বিনিয়োগ বাড়ানো প্রয়োজন।

তিনি বলেন, চীনের বিনিয়োগকারীদের নিয়ে উত্তরাঞ্চল পরিদর্শন করলে অ্যাগ্রো সেক্টরসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিনিয়োগ করা সহজ হবে। উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হয়েছে। অল্প কিছুদিনের মধ্যে প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহ শুরু হবে। এছাড়া বাংলাদেশের চামড়া, আইসিটি, লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং খাতে বিনিয়োগ খুবই সম্ভাবনাময়। ২০৪১ সালে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে আইসিটি সেক্টরের গুরুত্ব অনেক বেশি। এ সেক্টরে বিনিয়োগ চীনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে। বাংলাদেশ এ সেক্টর থেকে পাঁচ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানির প্রস্তুতি নিয়েছে।

চীনের রাষ্ট্রদূত বলেন, বাণিজ্য ও অর্থনৈকি ক্ষেত্রে চীন বাংলাদেশকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে থাকে। বাংলাদেশে মেগা প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে চীন আন্তরিকতার সঙ্গে সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। ২০৪১ সালে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে চীন প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দিয়ে যাবে। এছাড়া চীন বাংলাদেশের পাওয়ার প্ল্যান্টসহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে বিনিয়োগ করতে প্রস্তুত। বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য ব্যবধান কমাতে চীন ৯৮ শতাংশ পণ্য রপ্তানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা দিয়েছে। বাংলাদেশ-চায়না ফ্রি ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট করতে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ কাজ করছে। বাংলাদেশে স্পেশাল ইকোনমিক জোনে বিনিয়োগের বিষয়ে চীন খুবই আগ্রহী।

আগামী নভেম্বরে চীনের সাংহাইতে অনুষ্ঠেয় চায়না ইমপোর্ট ফেয়ারে বাণিজ্যমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়ে তিনি বলেন, মার্চে বাংলাদেশে অনুষ্ঠেয় বাংলাদেশ সামিটে চীন গুরুত্ব দিয়ে অংশ নেবে। আগামীতে বাংলাদেশে চীনের বিনিয়োগ আরও বাড়বে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ২০২৬ সালে বাংলাদেশ এলডিসি গ্রাজুয়েশন করবে, তখন বিভিন্ন দেশ থেকে বাণিজ্য সুবিধা পেতে পিটিএ বা এফটিএ এর মতো বাণিজ্য চুক্তি করার জন্য আমরা কাজ করছি। বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের অনেক পণ্য চীন থেকে আমদানি করতে হয়। এ সেক্টরে আমাদের রপ্তানি বাড়ছে। আমাদের তৈরি পোশাক পণ্যের প্রয়োজনীয় মালামাল আমদানিও বাড়বে।

২০২১-২২ অর্থবছরে চীনে ৬৮৩ দশমিক ৪৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য রপ্তানি করেছে বাংলাদেশ, একই সময়ে চীন থেকে আমদানি করা হয়েছে ২৬ হাজার ২৫৩ দশমিক শূন্য ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য।

এসময় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (এফটিএ) নূর মো. মাহবুবুল হক উপস্থিত ছিলেন।

শেষদিনে ফাঁকা ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা
                                  

অনলাইন ডেস্ক : আর কয়েক ঘণ্টা পর পর্দা নামবে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার ২৭তম আসরের। এরই মধ্যে মাসব্যাপী চলা এ মেলার সমাপনী অনুষ্ঠান করতে সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে কর্তৃপক্ষ। এদিকে মেলার শুরুর দিকে ক্রেতা-দর্শনার্থীর চাপ কম থাকলেও গত কয়েকদিনে তা ছিল উল্লেখ করার মতো। তবে মেলার শেষদিনে আবারও মানুষের উপস্থিতি তুলনামূলক অনেক কম দেখা গেছে।

মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় গিয়ে দেখা যায়, ক্রেতা-দর্শনার্থীর চাপ না থাকায় অধিকাংশ ব্যবসায়ী অলস সময় পার করছেন। মেলার শেষদিন উপলক্ষে বিভিন্ন স্টল-প্যাভিলিয়নগুলোতে চলছে নানা অফারের ছড়াছড়ি। ব্যবসায়ীদের প্রত্যাশা ছিল শেষদিনে প্রচুর চাপ থাকবে। তবে বিপরীত অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হয়েছে তাদের।

মেলার সার্বিক বিষয়ে কথা হয় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের ইনচার্জ তানভীর আহমেদের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘এবারের মেলায় বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স পণ্যের পাশাপাশি নতুন কিছু পণ্য নিয়ে হাজির হয়েছি আমরা। এসব প্রণ্যের প্রতি ক্রেতাদের বেশ চাহিদা দেখা গেছে। তবে এখানে যাতায়াত ব্যবস্থা খারাপ থাকায় ক্রেতাদের সুবিধার কথা চিন্তা করে ওয়ালটনের নিকটস্থ শো-রুম থেকে এসব পণ্য সংগ্রহ করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু আজ শেষদিনে আমরা ক্রেতাদের তেমন সাড়া পাচ্ছি না।’

চয়েজ ফ্যাশন স্টলের ইনচার্জ মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘পূর্বাচলের বাণিজ্যমেলায় এবছর আমরা ক্রেতাদের ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। এ পর্যন্ত চারবার বাণিজ্যমেলায় অংশগ্রহণ করেছি আমরা। গতবারের তুলনায় এবার আমাদের স্টলে প্রচুর ভিড় করেছেন ক্রেতা-দর্শনার্থীরা। তারা তাদের পছন্দের ব্লেজারটি কিনছেন আমাদের এখান থেকে। ক্রেতা আকর্ষণে আমরা শেষ মুহূর্তে সব পণ্যে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছি।

জামদানি ওয়ার্ল্ডের ইনচার্জ নাইম ইসলাম বলেন, ‘আমরা প্রতি বছরই আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় স্টল নিয়ে থাকি। আমাদের কারিগররা প্রতিটি শাড়ি খুব যত্ন সহকারে তৈরি করেন। তবে ঢাকার আগারগাঁওয়ে কাস্টমারদের যে চাহিদা ছিল পূর্বাচলে তেমনটা দেখা যাচ্ছে না। এছাড়া চট্টগ্রামে আমাদের অনেক ক্রেতা রয়েছেন। বাংলাদেশের যেকোনো জায়গায় আমাদের পণ্য হোম ডেলিভারি দিয়ে থাকি। আশা ছিল, মেলার শেষদিন বেচাকেনা সবচেয়ে বেশি হবে। কিন্তু ক্রেতা-দর্শনার্থীর চাপ তেমন নেই বললেই চলে।’

গত ১ জানুয়ারি শুরু হয়েছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা। এবারের মেলায় বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, হংকং, তুরস্ক, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, পাকিস্তান, থাইল্যান্ড, নেপালসহ ১২টি দেশের ব্যবসায়ীরা তাদের পণ্য নিয়ে হাজির হয়েছেন। মেলায় ১৭টি বিদেশি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। মেলায় দেশ-বিদেশের মোট ৩৩১টি স্টল, প্যাভিলিয়ন ও মিনি প্যাভিলিয়ন রয়েছে।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত চলছে বাণিজ্যমেলা। এবারে মেলার প্রবেশমূল্য প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ৪০ টাকা ও অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ২০ টাকা। অনলাইনে ৫০ শতাংশ ডিসকাউন্টে মেলার টিকিট কেনার সুযোগ ছিল।

এদিকে বাণিজ্যমেলার ২৭তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার সময় বাড়ানো হবে না বলে জানা গেছে। তাই নির্ধারিত সময় অর্থাৎ ৩১ জানুয়ারিই শেষ হচ্ছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার এবারের আসর।

স্থায়ী ভেন্যুতে দ্বিতীয়বারের মতো আয়োজিত এই আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার প্রধান ফটক করা হয়েছে মেট্রোরেলের আদলে। রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয় যৌথভাবে এই মেলার আয়োজন করেছে।

ঢাকায় স্বর্ণের অলঙ্কারের মেলা শুরু ৯ ফেব্রুয়ারি
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ঢাকায় দ্বিতীয়বারের মতো স্বর্ণের অলঙ্কার মেলা শুরু হবে আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি।

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস) উদ্যোগে তিন দিনব্যাপী এ মেলা অনুষ্ঠিত হবে।

মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) রাজধানীর পান্থপথে বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হয়।

রাজধানীর পূর্বাচলে ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) ৪ নম্বর নবরাত্রি হ‌লে এ মেলা অনুষ্ঠিত হবে।

এই মেলায় স্বর্ণের অলঙ্কারের ৫০টির মতো প্যাভিলিয়ন, মিনি প্যাভিলিয়ন ও স্টল অংশ নে‌বে। মেলা ৯ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে চল‌বে ১১ ফেব্রুয়া‌রি পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মেলা চলবে।

বাজুস ফেয়ারে প্রবেশ টিকিটের মূল্য ১০০ টাকা। পাঁচ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুদের টিকিট লাগবে না। বাজুস ফেয়ারে ক্রেতাদের জন্য র‍্যাফেল ড্রয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। ক্রেতারা যে প্রতিষ্ঠানের অলঙ্কার কিনবেন, সে প্রতিষ্ঠান থেকেই র‍্যাফেল ড্রয়ের কূপন সংগ্রহ করতে পারবেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আশা করা হচ্ছে বাজুস ফেয়ার-২০২৩ দেশিয় জুয়েলারি শিল্পকে সমৃদ্ধশালী করবে। পাশাপাশি বিশ্ববাজারে একটি নতুন অবস্থান তৈরিতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। দেশের স্বর্ণ শিল্পীদের হাতে গড়া নিত্যনতুন ডিজাইনের অলঙ্কারের পরিচিতি বাড়বে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বাজুসের সহসভাপতি ও বাজুস স্ট্যান্ডিং কমিটির সোশ্যাল অ্যাফেয়ার্সের চেয়ারম্যান ডা. দেওয়ান আমিনুল ইসলাম শাহীন, বাজুসের উপদেষ্টা রুহুল আমিন রাসেল, জায়া গোল্ড অ্যান্ড ডায়মন্ডের চেয়ারম্যান উত্তম বণিক, বৈশাখী জুয়েলার্সের ভাইস চেয়ারম্যান নারায়ণ চন্দ্র দে প্রমুখ।

বাংলাদেশের জন্য ৪৫০ কোটি ডলার ঋণ অনুমোদন আইএমএফের
                                  

অনলাইন ডেস্ক : বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সংকটকালে বাংলাদেশের জন্য ৪৫০ কোটি মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪৭ হাজার ২০৫ কোটি টাকা) ঋণ অনুমোদন দিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)।

সোমবার (৩০ জানুয়ারি) যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে আইএমএফের নির্বাহী পরিষদের সভায় এ ঋণ অনুমোদন দেওয়া হয়।

বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ঋণ অনুমোদন দেওয়ায় সংস্থাটির কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।

অর্থ মন্ত্রণালয় জানায়, বাংলাদেশকে ২ দশমিক ২ শতাংশ সুদে সাত কিস্তিতে ৪৫০ কোটি ডলার ঋণ দেবে আইএমএফ। এর মধ্যে প্রথম কিস্তির ৩৫২ দশমিক ৩৫ মিলিয়ন ডলার ছাড় হতে পারে ফেব্রুয়ারিতে। ২০২৬ সালে দেওয়া হবে এ ঋণের শেষ কিস্তি।

আইএমএফ বাংলাদেশের ঋণ প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়ায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, আমরা এ জন্য অবশ্যই আইএমএফের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আইএমএফের এই ঋণ অনুমোদনের মাধ্যমে বাংলাদেশের অর্থনীতির সক্ষমতার প্রকাশ ঘটেছে।

তিনি বলেন, অনেকেরই সন্দেহ ছিল, আইএমএফ হয়তো আমাদেরকে এ ঋণ দেবে না। কিন্তু আমাদের সামষ্টিক অর্থনীতির মৌলিক এলাকাগুলো শক্ত ভিতের ওপরে দাঁড়িয়ে আছে এবং অন্যান্য অনেক দেশের তুলনায় ভালো, এ ঋণ অনুমোদনের মাধ্যমে তা প্রমাণিত হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০২২ সালের ২৪ জুলাই আইএমএফের কাছে ঋণ চেয়ে চিঠি পাঠায় বাংলাদেশ সরকার। এ ছাড়া ওই বছরের ১২ অক্টোবর ওয়াশিংটনে বিশ্বব্যাংক-আইএমএফের বার্ষিক সম্মেলনে ৪৫০ কোটি ডলারের ঋণ সহায়তার কথা জানান গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার। অক্টোবরের শেষের দিকে দুই সপ্তাহের সফরে ঢাকায় আসেন আইএমএফের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রধান রাহুল আনন্দের নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি দল। তারা সরকারের বিভিন্ন দপ্তর, নিয়ন্ত্রক সংস্থা ও অংশীজনদের সঙ্গে ধারাবাহিকভাবে বৈঠক করেন। ওই সময় আইএমএফের সঙ্গে ঋণের বিষয়ে প্রাথমিক সমঝোতা হয়েছে বলেও জানিয়েছিল সরকার।

সোনালী ব্যাংকের সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট টিমের সভা
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট টিমের (এসএমটি) ১৭তম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার (২৯ জানুয়ারি) ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ সভা হয়।

সভায় ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান সিদ্দিকীর উপস্থিতিতে সভাপতিত্ব করেন এসএমটি চেয়ারম্যান এবং ব্যাংকটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আফজাল করিম।

সভায় ব্যাংকের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টররা, প্রধান কার্যালয়, স্থানীয় কার্যালয়, ব্যাংকের মাঠ পর্যায়ের সব জেনারেল ম্যানেজারসহ সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় সিইও এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক আফজাল করিম ব্যাংকের সার্বিক ব্যবসায়িক পর্যালোচনা ও প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দেন।

বাংলাদেশী ১০টি প্রতিষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্রে বাণিজ্য মেলায় অংশ নেবে
                                  

অনলাইন ডেস্ক : বাংলাদেশী ১০টি কোম্পানী ‘টেস্কওয়ার্ল্ড ইউএসএ/এপারেল সোর্সিং ইউএসএ ২০২৩’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠেয় বাণিজ্য মেলায় অংশ নেবে। নিউ ইয়র্কে ৩১ জানুয়ারি থেকে ২ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত এই মেলা অনুষ্ঠিত হবে।

আজ এখানে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ গার্মেন্ট বাইং হাউস এসোসিয়েশন এর সভাপতি হোসেনের নেতৃত্বে সংগঠনটি একটি বিশেষ বাংলাদেশী প্যাভিলনসহ এই বাণিজ্য মেলায় অংশ নেবে।
বাংলাদেশে উৎপাদিত প্রায় সব ধরনের পণ্য এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে প্যাভিলয়নে ক্রেতাদের কাছে উপস্থাপন করা হবে।
সূত্র জানায়, ২২টি দেশের মোট ৩২৪ প্রতিষ্ঠান এ মেলায় অংশ নেবে। চীন, তাইওয়ান ও দক্ষিণ কোরিয়ার প্যাভিলন থাকবে এ মেলায়। চীনের ১৭৫টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে এ মেলায়।

বাংলাদেশের যে সব কোম্পানী নিউইয়র্ক মেলায় অংশ নেবে সেগুলো হল:-আরজিন্স প্রডিউসার লি., হাম-মীম ডেনিম, পাওনিয়ার ডেনিম, ম্যাস্ক উইল বিডি, পেঙ্গনু গ্রুপ, ভেরো স্টাইল, টোটাল এ্যাপারেল, এনটুএন সোর্সিং। এ সব কোম্পানী বাংলাদেশ গার্মেন্ট বাইং হাউস এসোসিয়েশন এর আওতায় মেলায় অংশ নেবে। তাছাড়া ঢাকা ফারইষ্ট এবং উইকিটেক্স বিডি (ইন্টারলিংক ড্রেসেস) সরাসরি মেলায় অংশ নেবে। বাসস

ছুটির দিনে বাণিজ্য মেলায় দর্শনার্থীদের ঢল
                                  

 

রাজধানীর অদূরে পূর্বাচলে চলছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার ২৭তম আসর। আগামী ৩১ জানুয়ারি এই মেলা শেষ হওয়ার কথা। সেই হিসেবে মেলার শেষ (শুক্রবার) আজই। এজন্য ছুটির দিনে মেলায় ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের ঢল নেমেছে।

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) বিকেলে পূর্বাচলের বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে গিয়ে এমন চিত্র দেখা গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মেলার প্রধান ফটকের সামনে দর্শনার্থীদের দীর্ঘ সারি। তারা কাউন্টার থেকে টিকিট সংগ্রহ করে লাইন ধরে মেলায় প্রবেশ করছেন। মেলার প্রবেশ গেটে পুলিশ ও মেলা কর্তৃপক্ষের লোকজন নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন। এদিন ঢাকাসহ নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর ও আশপাশের অনেক এলাকা থেকে মেলায় এসেছেন। কেউ পরিবার নিয়ে মেলায় এসেছেন। আবার কেউ বন্ধুদের সঙ্গে এসেছেন।

মেলায় প্রবেশের পরই চোখে পড়ে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের সামনে থাকা সুবিশাল খালি জায়গা। যেখানে রয়েছে বিশ্রাম করার জন্য বেঞ্চ, দৃষ্টিনন্দন ফোয়ারা ও হাঁটা-চলার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা। সেখানে অনেকেই গল্প-আড্ডায় মেতে উঠেছেন। আবার কেউ প্রিয়জনদের সঙ্গে ছবি তোলায় ব্যস্ত।

এবারের মেলায় দেশ-বিদেশের মোট ৩৩১টি স্টল, প্যাভিলিয়ন ও মিনি প্যাভিলিয়ন রয়েছে। এতে ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, হংকং, তুরস্ক, ইন্দোনেশিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়াসহ ১২টি দেশের ব্যবসায়ীরা অংশ নিয়েছেন।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত চলবে বাণিজ্য মেলা। তবে সাপ্তাহিক বন্ধের দিন রাত ১০টা পর্যন্ত মেলা চলবে। মেলার প্রবেশ মূল্য প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ৪০ টাকা এবং অপ্রাপ্ত বয়ষ্কদের জন্য ২০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

নভোএয়ার ৩৮তম জাতীয় জুডো প্রতিযোগিতা শুরু
                                  

নিউজ ডেস্ক : বেসরকারি এয়ারলাইন্স নভোএয়ারের পৃষ্ঠপোষকতায় দুই দিনব্যাপী ৩৮তম জাতীয় জুডো প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন নভোএয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মফিজুর রহমান।

বাংলাদেশ জুডো ফেডারেশনের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ফয়জুর রহমানের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কামরুন নাহার হীরুসহ ফেডারেশন ও নভোএয়ারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীরা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নভোএয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মফিজুর রহমান বলেন, খেলাধুলা একটি সমৃদ্ধ জাতি গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে নভোএয়ার শুরু থেকেই ফুটবল, ক্রিকেট, ভলিবল, গলফসহ বিভিন্ন খেলাধুলায় পৃষ্ঠপোষকতা করছে।

সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ জুডো ফেডারেশনের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ফয়জুর রহমান বলেন, জুডোকে জনপ্রিয় করতে আমরা নানান উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। নিয়মিত চর্চা ও প্রতিযোগিতা আয়োজনের মাধ্যমে দেশে জুডো খেলাকে জনপ্রিয় করতে এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সাফল্য অর্জন করতে কাজ করছি আমরা।

অনুষ্ঠানে জানানো হয় সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশ, আনসার, বিকেএসপি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে মোট ৩১ দলের ৩১০ জন খেলোয়াড় এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছেন। পুরুষ বিভাগে ৭টি ও মহিলা বিভাগে ৭টি ওজন শ্রেণিতে প্রতিযোগিতা হবে।

নভোএয়ার বর্তমানে অভ্যন্তরীণ গন্তব্যে ঢাকা থেকে প্রতিদিন কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, সৈয়দপুর, সিলেট, যশোর, রাজশাহী এবং আন্তর্জাতিক গন্তব্যে কলকাতায় ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

রমজানে সুযোগ নিলে শক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ ডিসিদের
                                  

অনলাইন ডেস্ক : আসন্ন রমজানে পণ্যের দাম নিয়ে কেউ সুযোগ নিলে তাদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) শক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে কোরবানির সময় পশুর চামড়ার দাম নিয়ে কেউ যাতে ছিনিমিনি খেলতে না পারে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

বুধবার (২৫ জানুয়ারি) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের চতুর্থ অধিবেশনে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

আসন্ন রমজান দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ডিসিদের কী নির্দেশনা দিয়েছেন এবং তারা কী বলেছেন জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আমি আমার সেশনে দুই মিনিট পেয়েছি, সেখানে বলেছি, রমজান মাস সামনে আপনারা সরকারের হাত। আপনারা খেয়াল রাখবেন কেউ যাতে সুযোগ না নেয়। শক্ত ব্যবস্থা নেবেন। একই সঙ্গে বলেছি ভোক্তাদের অধিকার সচেতন করতে হবে।

তিনি বলেন, বাণিজ্য প্রসারের জন্য ডিসিদের সহযোগিতার দরকার রয়েছে। কোরবানির সময় পশুর চামড়ার দাম পাওয়া যায় না। সে সময়টায় সতর্ক থাকবেন। ব্যবস্থা নেবেন যাতে চামড়ার দাম নিয়ে কোনো ছিনিমিনি খেলা না হয়।

নিত্যপণ্যের বাজার মনিটরিং নিয়ে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, রমজান মাসকে সামনে রেখে নিত্যপণ্যের বাজার নিয়ে ডিসিরা সতর্ক থাকবে। আপনারা সরকারের হাত। সরকারের সব পদক্ষেপ তাদের বাস্তবায়ন করতে হয়।

তাদের (ডিসি) একটি প্রশ্ন ছিল বিদেশি মিশনগুলোতে কমার্শিয়াল কাউন্সিলরদের নিয়ে জানিয়ে টিপু মুনশি বলেন, এ বিষয়টি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মাথায় আছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন— ফুল ডিপ্লোমেটিক মিশনটাই মেনটেন করা দরকার। তারা কাজ করলে পরে পারপাস সাফ হবে।

জানুয়ারির ২০ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে ১৩১ কোটি ডলার
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ডলার সংকটের মধ্যেই সুবাতাস বইছে প্রবাসী আয়ে। চলতি জানুয়ারি মাসের ২০ তারিখ পর্যন্ত ১৩১ কোটি ৫২ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স এসেছে দেশে। বাংলাদেশি মুদ্রায় (প্রতি ডলার ১০৭ টাকা হিসাবে) এর পরিমাণ ১৪ হাজার কোটি টাকার বেশি। অর্থাৎ প্রতিদিন গড়ে আসছে ৬ কোটি ৫৭ লাখ ডলারের বেশি। রেমিট্যান্সের এ ধারা অব্যাহত থাকলে মাস শেষে দুই বিলিয়ন বা ২০০ কোটি ডলার ছাড়িয়ে যাবে।

এর আগের মাস ডিসেম্বরে এসেছিল ১৬৯ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স। বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন সূত্রে জানা গেছে এ তথ্য।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এক ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তা জানান, বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠাতে প্রবাসীদের উৎসাহিত করা হচ্ছে। রেমিট্যান্সে প্রণোদনাও বাড়ানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নানা উদ্যোগও কাজে আসছে। এখন রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়তে শুরু করেছে। আমাদের সামনে দুটি ঈদ আছে। ঈদ কেন্দ্র করে রেমিট্যান্স প্রবাহ আরও বাড়বে।

এর আগে চলতি ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে (জুলাই ও আগস্ট) টানা দুই বিলিয়ন ডলার করে রেমিট্যান্স এসেছিল দেশে। এর পরের মাস সেপ্টেম্বর থেকে টানা পাঁচ মাস দেড় বিলিয়ন ডলারের আশপাশে আটকে থাকে রেমিট্যান্স।

জুলাই মাসে এসেছিল ২০৯ কোটি ৬৩ লাখ ডলার, আগস্টে এসেছিল ২০৩ কোটি ৬৯ লাখ ডলার। অর্থাৎ অর্থবছরের শুরুর দুই মাস দুই বিলিয়ন ডলারের বেশি রেমিট্যান্স এসেছিল।

এর পরই কমতে থাকে রেমিট্যান্স প্রবাহ। সেপ্টেম্বরে এসেছিল ১৫৩ কোটি ৯৬ লাখ ডলার, অক্টোবরে এসেছিল ১৫২ কোটি ৫৫ লাখ ডলার, নভেম্বরে ১৫৯ কোটি ৪৭ লাখ ডলার আর আর সদ্য বিদায়ী ডিসেম্বরে প্রায় ১৭০ কোটি ডলার বা ১৬৯ কোটি ৯৬ লাখ ডলার পাঠিয়েছেন বিভিন্ন দেশে বসবাসরত বাংলাদেশিরা।

রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড পেল ইসলামী ব্যাংক
                                  

নিউজ ডেস্ক : সেন্টার ফর নন রেসিডেন্ট বাংলাদেশি (এনআরবি) প্রদত্ত রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড-২০২২ পেয়েছে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমানের কাছ থেকে এ পুরস্কার গ্রহণ করেন ব্যাংকের অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মুহাম্মদ কায়সার আলী।

সেন্টার ফর এনআরবির চেয়ারপারসন এম এস সেকিল চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ায় পণ্যের দাম কিছুটা বাড়বে
                                  

গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ায় পণ্যের দাম কিছুটা বাড়বে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

রোববার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে রংপুর কালেক্টরেট ক্রিকেট গার্ডেন কর্নারে আয়োজিত অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

টিপু মুনশি বলেন, গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ার কারণে দ্রব্যমূল্য স্বাভাবিকভাবেই কিছুটা বাড়বে। জনগণের ট্যাক্সের টাকায় সরকার দীর্ঘদিন ভর্তুকি দিয়েছে। এবার সেই ভর্তুকি তুলে নেওয়ায় গ্যাসের দাম বেড়েছে।

তিনি বলেন, তারপরও দাম কমানোর বিষয়টি মাথায় রেখে আলোচনা চলছে। কোনো উপায় রয়েছে কি না, সেটা দেখা হচ্ছে। তবে বিশ্বের বর্তমান অবস্থা অনুযায়ী আমরা ভালো আছি।

অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, রমজানে সিন্ডিকেট করে দ্রব্যমূল্য বাড়ানোর চেষ্টা করলে কঠোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেইসঙ্গে বাজার নিয়ন্ত্রণে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর মাঠে থাকবে।


   Page 1 of 49
     অর্থ-বাণিজ্য
বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় এখন ২৭৯৩ ডলার
.............................................................................................
রাজস্ব ভবন ও সম্মেলনের উদ্বোধন আজ
.............................................................................................
কমলো সোনার দাম
.............................................................................................
অস্থির ব্রয়লার ও ডিমের বাজার
.............................................................................................
চীনকে উত্তরাঞ্চলে কৃষিনির্ভর কারখানা করার আহ্বান বাণিজ্যমন্ত্রীর
.............................................................................................
শেষদিনে ফাঁকা ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা
.............................................................................................
ঢাকায় স্বর্ণের অলঙ্কারের মেলা শুরু ৯ ফেব্রুয়ারি
.............................................................................................
বাংলাদেশের জন্য ৪৫০ কোটি ডলার ঋণ অনুমোদন আইএমএফের
.............................................................................................
সোনালী ব্যাংকের সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট টিমের সভা
.............................................................................................
বাংলাদেশী ১০টি প্রতিষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্রে বাণিজ্য মেলায় অংশ নেবে
.............................................................................................
ছুটির দিনে বাণিজ্য মেলায় দর্শনার্থীদের ঢল
.............................................................................................
নভোএয়ার ৩৮তম জাতীয় জুডো প্রতিযোগিতা শুরু
.............................................................................................
রমজানে সুযোগ নিলে শক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ ডিসিদের
.............................................................................................
জানুয়ারির ২০ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে ১৩১ কোটি ডলার
.............................................................................................
রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড পেল ইসলামী ব্যাংক
.............................................................................................
গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ায় পণ্যের দাম কিছুটা বাড়বে
.............................................................................................
৬ বিলিয়ন থেকে বেড়ে জিডিপি এখন ৪৬৫ বিলিয়ন: অর্থমন্ত্রী
.............................................................................................
বৈশ্বিক মূল্যস্ফীতি কমাতে সাড়ে তিন বিলিয়ন ডলার দেবে বিশ্বব্যাংক
.............................................................................................
শনিবার ঢাকায় আসছেন বিশ্বব্যাংকের এমডি
.............................................................................................
ছুটির দিনে বাণিজ্য মেলায় উপচে পড়া ভিড়
.............................................................................................
বেড়েছে সবজি ও মাছের দাম, মাংস বিক্রি হচ্ছে আগের দামেই
.............................................................................................
গার্ডিয়ান লাইফ ও সিটিজেনস ব্যাংক পিএলসি এর মধ্যে চুক্তি সাক্ষরিত
.............................................................................................
বাজারে শীতের সবজি থাকলেও দাম নাগালে নেই
.............................................................................................
মাংসে দেশি মুরগির স্বাদ ফেরাবে ‘সুবর্ণ’
.............................................................................................
গ্যাসের দাম ফের বাড়লো
.............................................................................................
১০ মাসে ইউরোপের বাজারে ১৯.৪০ বিলিয়ন ডলারের পোশাক রপ্তানি
.............................................................................................
লেনদেনের গতি বেড়েছে শেয়ারবাজারে
.............................................................................................
আশ্রয়ণ প্রকল্পে এক কোটি টাকা দিলো মিডল্যান্ড ব্যাংক
.............................................................................................
বাণিজ্যমেলায় কেনাকাটায় নগদ পেমেন্টে ২২ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়
.............................................................................................
মুদ্রানীতি ঘোষণা আজ
.............................................................................................
আধাঘণ্টায় ১২০ কোটি টাকার লেনদেন
.............................................................................................
সোনার দাম বেড়ে ভরি ৯৩ হাজার টাকা ছাড়ালো
.............................................................................................
বাণিজ্যমেলায় বিদেশি ফলে ১০ শতাংশ ছাড়, ক্রেতাদের ভিড়
.............................................................................................
ছুটির দিনে জমজমাট বাণিজ্য মেলা
.............................................................................................
আধাঘণ্টায় ৭০ কোটি টাকার লেনদেন
.............................................................................................
বাণিজ্যমেলায় কোট-ব্লেজারে অফারের ছড়াছড়ি, নেই ক্রেতার চাপ
.............................................................................................
আজ থেকে ভতুর্কি মূল্যে টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু
.............................................................................................
দেশে প্রথম ওএলইডি টিভি বাজারে আনলো ‘ভিশন’
.............................................................................................
সোনার ভরি ৯০ হাজার টাকা ছাড়ালো
.............................................................................................
বাণিজ্যমেলায় শীতের প্রভাব, ছুটির দিনেও ক্রেতা-দর্শনার্থী কম
.............................................................................................
ফের বাড়ছে সোনার দাম
.............................................................................................
নতুন বছরের শুরুতে বড় পতনে জ্বালানি তেল
.............................................................................................
কমছে চাল-সবজির দাম, চিনিতে অস্বস্তি কাটেনি
.............................................................................................
২০২৪ সালে ৮১ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয় চাই: বাণিজ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
রমজানে একসঙ্গে পুরো মাসের পণ্য না কেনার অনুরোধ
.............................................................................................
অবশেষে শেয়ারবাজারে ঊর্ধ্বমুখিতার দেখা মিললো
.............................................................................................
ডিসেম্বরে কমেছে মূল্যস্ফীতি
.............................................................................................
ডিসেম্বরে রপ্তানি আয়ে রেকর্ড
.............................................................................................
শুক্রবার থেকে জমবে বাণিজ্যমেলা, আশা ব্যবসায়ীদের
.............................................................................................
এলপিজির দাম কমলো, ১২ কেজির সিলিন্ডার এখন ১২৩২
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Dynamic Scale BD