| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * শিক্ষাসনদ ও মালামাল গায়েব, কারাগারে ছাত্রাবাসের মালিক   * করোনা নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে ৩২ দেশের ২৩৯ গবেষকের চ্যালেঞ্জ   * আবারও হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহারে ‘না’ করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা   * বিশ্বব্যাপী করোনা আক্রান্তের সর্বোচ্চ রেকর্ড আজ   * সৌদিতে করোনায় পাঁচ শতাধিক বাংলাদেশির মৃত্যু, আক্রান্ত প্রায় ২০ হাজার   * ট্রাম্পের বিপক্ষে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিলেন কার্দাশিয়ানের স্বামী কেনি   * মৃত্যু বেড়ে ২০৫২, মোট শনাক্ত ১৬২৪১৭   * কাতার বিশ্বকাপের চমক ‘রোবট রেফারি’   * শ্রীলঙ্কার কুশল মেন্ডিস গ্রেফতার   * ১ কোটি ১৩ লাখ ছাড়াল আক্রান্ত, মৃত্যু ৫ লাখ ৩৩ হাজার  

   আইন শৃঙ্খলা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
শিক্ষাসনদ ও মালামাল গায়েব, কারাগারে ছাত্রাবাসের মালিক

একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০ শিক্ষার্থী তিন মাসের ভাড়া না দেয়ায় তাদের শিক্ষাসনদ ও মালামাল গায়েব করায় পূর্ব রাজাবাজারে আলিফ নামের একটি ছাত্রাবাসের মালিক খোরশেদ আলমকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ রবিবার ঢাকা মহানগর হাকিম আশেক ইমামা এ আদেশ দেন। এর আগে তাকে একদিনের রিমান্ড শেষে পুলিশ আদালতে হাজির করে। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এদিকে গত শুক্রবার তাঁকে ঢাকা মহানগর আদালতে হাজির করে পুলিশ। মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তাঁকে তিন দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে বিচারক এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গত বুধবার গভীর রাতে পুলিশ খোরশেদকে গ্রেপ্তার করে।

জানা যায়, করোনা পরিস্থিতিতে গত মার্চে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হলে সব শিক্ষার্থী তাঁদের কক্ষে তালা লাগিয়ে বাড়িতে চলে যান। কিছুদিন আগে জানতে পারেন, ছাত্রাবাস মালিক খোরশেদ আলম গত এপ্রিল থেকে মে পর্যন্ত তিন মাসের ভাড়া না পেয়ে তাঁদের কক্ষ ভেঙে চেয়ার-টেবিল, বই-খাতা, আসবাবপত্রসহ মালামাল সরিয়ে ফেলেন। গত বুধবার সকালে ৫০ শিক্ষার্থীর সবাই ঢাকায় আসেন। তাঁরা খোরশেদ আলমকে ফোন করলে তিনি এসে বলেন, বকেয়া টাকা দিলে মালামাল দেওয়া হবে। শিক্ষার্থীদের চাপে গত বুধবার রাতে যেখানে মালামাল রাখা হয়েছে সেখানে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু শিক্ষার্থীরা দেখতে পান, তাঁদের প্রত্যেকের স্যুটকেসের তালা ভাঙা। লেপ-তোশক ছাড়া কোনো মালপত্রই নেই। পরে রাত ১২টার দিকে শিক্ষার্থীরা কলাবাগান থানায় যান। পরে ছাত্রাবাসের মালিক খোরশেদ আলমের বিরুদ্ধে চুরির মামলা দেন।

শিক্ষাসনদ ও মালামাল গায়েব, কারাগারে ছাত্রাবাসের মালিক
                                  

একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০ শিক্ষার্থী তিন মাসের ভাড়া না দেয়ায় তাদের শিক্ষাসনদ ও মালামাল গায়েব করায় পূর্ব রাজাবাজারে আলিফ নামের একটি ছাত্রাবাসের মালিক খোরশেদ আলমকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ রবিবার ঢাকা মহানগর হাকিম আশেক ইমামা এ আদেশ দেন। এর আগে তাকে একদিনের রিমান্ড শেষে পুলিশ আদালতে হাজির করে। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এদিকে গত শুক্রবার তাঁকে ঢাকা মহানগর আদালতে হাজির করে পুলিশ। মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তাঁকে তিন দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে বিচারক এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গত বুধবার গভীর রাতে পুলিশ খোরশেদকে গ্রেপ্তার করে।

জানা যায়, করোনা পরিস্থিতিতে গত মার্চে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হলে সব শিক্ষার্থী তাঁদের কক্ষে তালা লাগিয়ে বাড়িতে চলে যান। কিছুদিন আগে জানতে পারেন, ছাত্রাবাস মালিক খোরশেদ আলম গত এপ্রিল থেকে মে পর্যন্ত তিন মাসের ভাড়া না পেয়ে তাঁদের কক্ষ ভেঙে চেয়ার-টেবিল, বই-খাতা, আসবাবপত্রসহ মালামাল সরিয়ে ফেলেন। গত বুধবার সকালে ৫০ শিক্ষার্থীর সবাই ঢাকায় আসেন। তাঁরা খোরশেদ আলমকে ফোন করলে তিনি এসে বলেন, বকেয়া টাকা দিলে মালামাল দেওয়া হবে। শিক্ষার্থীদের চাপে গত বুধবার রাতে যেখানে মালামাল রাখা হয়েছে সেখানে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু শিক্ষার্থীরা দেখতে পান, তাঁদের প্রত্যেকের স্যুটকেসের তালা ভাঙা। লেপ-তোশক ছাড়া কোনো মালপত্রই নেই। পরে রাত ১২টার দিকে শিক্ষার্থীরা কলাবাগান থানায় যান। পরে ছাত্রাবাসের মালিক খোরশেদ আলমের বিরুদ্ধে চুরির মামলা দেন।

জঙ্গিবাদ দমনে যে সফলতা অর্জন করেছি তা ধরে রাখতে হবে: র‌্যাব ডিজি
                                  

দেশে জঙ্গিবাদ যথেষ্ট পরিমাণে নিয়ন্ত্রণে আছে উল্লেখ করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের মহা-পরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, ‘আমরা কিন্তু আত্মতুষ্টিতে ভুগছি না। জঙ্গিবাদ দমনের যে সফলতা অর্জন করেছি, সেই সফলতা ধরে রাখতে র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সব ইউনিট কাজ করছে।’ ‘হলি আর্টিজান বেকারিতে নৃশংস হামলার চার বছর পালনে’ আজ বুধবার সকাল ৯টার দিকে ঘটনাস্থলে এসে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন র‌্যাব ডিজি।

২০১৬ সালের এ দিনে পাঁচ অস্ত্রধারী জঙ্গি রাজধানীর গুলশানে অবস্থিত হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা করে। সেখানে অবস্থানরত দেশি-বিদেশি ব্যক্তিদের জিম্মি করে। পরে তাদের মধ্যে ২০ জনকে নির্মমভাবে হত্যা করে জঙ্গি সদস্যরা। এদের মধ্যে তিনজন বাংলাদেশি, সাতজন জাপানি, নয়জন ইতালিয়ান এবং একজন ভারতীয় নাগরিক ছিলেন।

জঙ্গি সংগঠনগুলোর সক্ষমতা কেমন? সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে র‌্যাব ডিজি বলেন, ‘জঙ্গিবাদ একটি বৈশ্বিক সমস্যা। সারাবিশ্ব জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় কাজ করছে। আমরাও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী চেষ্টা চালিয়ে জঙ্গিবাদ দমন করতে সক্ষম হয়েছি। আমি মনে করি জঙ্গিবিরোধী কার্যক্রম সফলভাবে আমরা বাস্তবায়ন করতে পেরেছি এবং এই সফলতার ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে বলে আমরা আশা করছি।’

র‌্যাব ডিজি বলেন, হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার ঘটনার আগ থেকেই র‌্যাব দেশের জঙ্গিবিরোধী বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করেছে। এখন পর্যন্ত আমরা দুই হাজারেরও অধিক জঙ্গি সদস্যদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। এ ঘটনার পর আমরা অভিযান চালিয়ে এক হাজারেরও অধিক জঙ্গি সদস্যদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। বর্তমান পরিস্থিতিতেও বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে জঙ্গি সদস্যদের গ্রেফতার করছে র‌্যাব। আমি মনে করি, ‘আমরা এক ধাপ এগিয়ে আছি, জঙ্গি সংগঠনের সদস্যরা যখনই কোনো পরিকল্পনা করছে, তখনই আমরা গোয়েন্দা তথ্য পেয়ে কাজ করছি এবং তাদের আটক করতে সক্ষম হচ্ছি। বর্তমানে জঙ্গিবাদ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

তিনি বলেন, ২০১৬ সালের এ দিনে হলি আর্টিজান বেকারিতে মর্মান্তিক ও কাপুরুষিত ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় যারা নিহত হয়েছেন তাদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করছি। নিহতদের স্বজনরা যাতে এই শোক সইতে পারেন সেজন্য তাদের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, হলি আর্টিজান হামলার ঘটনার পর থেকে র‌্যাব, পুলিশ, গোয়েন্দা সংস্থা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সব ইউনিট একত্রিত হয়ে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করি। সফলতার সঙ্গে জঙ্গিদের সক্ষমতা ভেঙে দিতে আমরা সফল হয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা দেশের জঙ্গি নিয়ন্ত্রণে সফলতা পেয়েছি। হলি আর্টিজান হামলার ঘটনায় নিহত ও পরিকল্পনাকারীসহ জঙ্গি সদস্যদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সেটি তদন্ত শেষে চার্জশিট আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে বর্তমানে মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে। আমরা আশা করছি, খুব দ্রুতই এর বিচার সম্পন্ন হবে আসামিরা সাজা পাবে।

‘জঙ্গিবাদ দমনে দেশের সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে জনপ্রতিনিধিসহ সব পর্যায়ের মানুষ আমাদের সহযোগিতা করেছে। এজন্য সবাইকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে পক্ষ থেকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।’

কবিরহাটে ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক গ্রেপ্তার
                                  

নোয়াখালীর কবিরহাট থানার সুন্দলপুর ইউনিয়নের দশম শ্রেণির ছাত্রীকে (১৫) হাত-মুখ বেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত আসামি আব্দুর রহিম রবিনকে (২০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টায় জেলার সদর উপজেলা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

কবিরহাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ফজলুল কাদের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সদর উপজেলার অশ্বদিয়া ইউনিয়নের নীমতলা এলাকা থেকে ধর্ষক রবিনকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হবে। এদিকে মঙ্গলবার দুপুরে ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, এর আগে গত সোমবার (২৯ জুন) বিকালে ওই ছাত্রীর মা তার নানার বাড়িতে যায়। এ সুযোগে পার্শ্ববর্তী বাড়ির সামছু জামান মানিকের বখাটে ছেলে আব্দুর রহিম রবিন ওই ছাত্রীর বসতঘরে ডুকে তাদের খাটের ওঁৎ পেতে থাকে। পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বাইরের কাজকর্ম শেষ করে ওই স্কুলছাত্রী ঘরে ঢুকলে রবিন তাকে জাপটে ধরে তার হাত-মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে। এ সময় পার্শ্ববর্তী এক গৃহবধূ ঘর থেকে ধস্তাধস্তি ও ভিকটিমের চিৎকার শুনে ঘরে ঢুকলে ধর্ষক রবিন পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় রাতে ভিকটিমের মা বাদী হয়ে রবিনকে আসামি করে কবিরহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবির ঘটনায় মামলা, আসামি ৭
                                  

রাজধানীর শ্যামবাজার এলাকার বুড়িগঙ্গা নদীতে সংঘটিত লঞ্চ দুর্ঘটনায় ময়ূর-২ লঞ্চের মালিক, মাস্টার, সুকানিসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গতকাল সোমবার (৩০ জুন) দিবাগত রাতে নৌপুলিশ সদরঘাট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ শামসুল বাদী হয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় মামলাটি দায়ের করেন। এতে আসামি হিসেবে ময়ূর-২ এর মালিক মোসাদ্দেক হানিফ সোয়াত ও  মাস্টার  আবুল বাশারসহ সাতজনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহজামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, অবহেলাজনিত হত্যার অভিযোগে একটি মামলা হয়েছে। এতে  সাতজনকে আসামি করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলে জানান তিনি।

গতকাল সোমবার সকালে রাজধানীর শ্যামবাজার এলাকার বুড়িগঙ্গা নদীতে ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় ডুবে যায় ছোট আকারের লঞ্চ মর্নিং বার্ড।মুন্সীগঞ্জের কাঠপট্টি থেকে সদরঘাটে এসে নোঙর করতে যাচ্ছিল মর্নিং বার্ড। ময়ূর-২ লঞ্চটিও চাঁদপুর থেকে সদরঘাটে এসে যাত্রী নামিয়ে ভিন্ন স্থানে নোঙর করতে যাচ্ছিল।

ডুবে যাওয়া লঞ্চটি থেকে এ পর্যন্ত ৩২ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া লঞ্চডুবির প্রায় ১৩ ঘণ্টা পর রাত ১০টার দিকে এক ব্যক্তিকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। নদীতে ভেসে ওঠার পর কোস্ট গার্ডের কর্মীরা তাঁকে তুলে নেন। উদ্ধার করার পর তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নেওয়া হলে তাঁর জ্ঞান ফিরে আসে। তাকে রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

দুর্ঘটনার পর দায়ী ব্যক্তি বা সংস্থাকে শনাক্তকরণ এবং দুর্ঘটনা প্রতিরোধে করণীয় উল্লেখ করে সুনির্দিষ্ট সুপারিশ প্রদানের লক্ষ্যে সাত সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। কমিটি আগামী সাত দিনের মধ্যে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন দাখিল করবে।

পুলিশের সেবা জনগণের দোরগোড়ায় নিয়ে যেতে হবে : ড. বেনজীর
                                  

বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীকে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের উপযোগী হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে। এজন্য পুলিশের প্রতিটি ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সংস্কার ও পরিবর্তনের কথা জানিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

আজ শনিবার (২৭ জুন) রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়িতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উত্তরা আঞ্চলিক পুলিশ লাইন্সের নবনির্মিত ব্যারাক ভবন উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা জানান। উন্নত দেশের পুলিশ হতে হলে পাঁচটি বিষয় উল্লেখ করে আইজিপি বলেন, বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে পুলিশের সেবা জনগণের দোরগোড়ায় নিয়ে যেতে, পুলিশকে মাদকমুক্ত হতে হবে, মানুষের কাছ থেকে অবৈধ সুবিধা নেওয়া যাবে না, মানুষের প্রতি নিষ্ঠুরতা নয়, মানবিক আচরণ করতে হবে এবং জনগণের সেবায় নিয়োজিত পুলিশ অফিসার ও ফোর্সের সার্বিক কল্যাণও নিশ্চিত করা হবে।

কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, পুলিশের কোনো সদস্য ড্রাগ খাবে না, ড্রাগের সঙ্গে কোনোভাবেই সম্পর্কযুক্ত থাকবে না। কোনো ব্যক্তি ক্যান্সার আক্রান্ত হলে আক্রান্ত অংশ কেটে অপসারণ করা হয়। পুলিশের কোনো সদস্য যদি ড্রাগের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত থাকে তাহলে নির্দয়ভাবে তাকেও বাংলাদেশ পুলিশ থেকে অপসারণ করা হবে। এ ব্যাপারে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।

আইজিপি বলেন, আমাদের দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। তখন পুলিশ এ ভাইরাস প্রতিরোধে সুরক্ষাসামগ্রীর জন্য অপেক্ষা না করে জনগণের সুরক্ষায় কাজ শুরু করেছে। এখন পুলিশের দুই লাখ সদস্যের প্রত্যেকের জন্য পর্যাপ্ত সুরক্ষাসামগ্রী রয়েছে।

করোনা আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা ব্যবস্থার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা মাত্র দুই সপ্তাহে রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালকে ২৫০ বেড থেকে ৫০০ বেডের কোভিড হাসপাতালে রূপান্তর করেছি।

পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসার জন্য রাজধানীতে একটি উন্নত বেসরকারি হাসপাতাল ভাড়া করা হয়েছে। স্কুল-কলেজ ও হোটেল ভাড়া করে আইসোলেশন সেন্টারে পরিণত করা হয়েছে।

‘করোনা পরীক্ষার জন্য যেখানে চার সপ্তাহের কম সময়ে পিসিআর মেশিন স্থাপন করা যায় না, সেখানে মাত্র ১২ দিনে কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতলে পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে। শুধু রাজধানীতে নয়, রাজধানীর বাইরে বিভাগীয় হাসপাতালগুলোকে আধুনিকায়ন করা হচ্ছে।’

ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, এর ফলে পুলিশ সদস্যরা দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছেন এবং মৃত্যুর হার কমছে। তিনি বলেন, করোনা আক্রান্ত হয়ে জাতীয় পর্যায়ে মৃত্যুর হার এক দশমিক তিন শতাংশ। পুলিশে মৃত্যুর হার মাত্র দশমিক পাঁচ শতাংশ।

আইজিপি বলেন, করোনা সংক্রমণ কিভাবে শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনা যায় সে লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি। জাতীয়ভাবেও এ হার শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনার জন্য সবাইকে ন্যূনতম স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে অনুরোধ জানান তিনি।

ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, পুলিশ সদস্যদের আবাসিক সংকট নিরসনের লক্ষ্যে আমরা স্বল্পমেয়াদে অস্থায়ী ভিত্তিতে ব্যারাক ভবন নির্মাণ করেছি। ডেমরায় করা হয়েছে, উত্তরাতে আজ করা হলো। পূর্বাচলেও আমরা ব্যারাক ভবন নির্মাণ করবো। দীর্ঘমেয়াদে আমরা বহুতল ভবন নির্মাণের দিকে যাবো। পুলিশ ফোর্সের বসবাসের ঘনত্ব কমিয়ে তাদের জন্য স্বস্তিদায়ক আবাসনের ব্যবস্থা করতে চাই আমরা।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত আইজি ড. মো. মইনুর রহমান চৌধুরীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

১৪ প্রতিষ্ঠানকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর
                                  

দুর্নীতি দমন কমিশনের নির্দেশনার প্রায় সাড়ে ৬ মাস পর দুর্নীতি, প্রতারণা ও চক্রান্তের অভিযোগে চৌদ্দটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কালোতালিকাভুক্ত করলো স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

বুধবার (২৪ জুন) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক প্রশাসন এ নির্দেশ দেন। সময় সংবাদের হাতে আসা নথি বিশ্লেষণ করে দেখা যায় এই প্রতিষ্ঠানগুলো স্বাস্থ্য সরঞ্জাম কেনাকাটার ১৩১ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণে থাকা মেডিকেল কলেজ, হাসপাতাল ও প্রতিষ্ঠানের এমএসআর, ভারী মেশিন ও সামগ্রী কেনা কাটায় অনিয়ম ও দুর্নীতির ওঠা অভিযোগ তদন্ত করে ২০১৯ সালের ১২ই ডিসেম্বর চৌদ্দটি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে কালো তালিকাভুক্ত করতে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগের সচিবের কাছে চিঠি পাঠান দুদক সচিব।

এর ১৭৮ দিন পর এ মাসের ৬ তারিখ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের ক্রয় ও সংগ্রহ অধিশাখা, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, কেন্দ্রীয় ঔষাধাগারের পরিচালকে দুদকের সুপারিশ অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে চিঠি দেন।


সময় সংবাদের হাতে আসা নথিতে দেখা যায়, ১৪টি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দুর্নীতি করে ১৩১ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ৯টি মামলা রয়েছে। ২০১৮ ও ১৯ সালে মামলাগুলো করে দুদক।

করোনাভাইরাস: বিদেশফেরতরা আত্মগোপনে থাকলেই গ্রেফতার
                                  

স্টাফ রিপোর্টার: বিদেশফেরত ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদের শনাক্ত করতে সামাজিক অনুসন্ধান ও প্রণোদনামূলক কাজ চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। গতকাল পুলিশ সদর দপ্তর থেকে প্রেস নোট জারি করে গত ১ মার্চ থেকে যারা বিদেশ থেকে ফিরেছেন এবং পাসপোর্টের ঠিকানায় থাকছেন না, তাঁদের স্থানীয় থানায় যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

এই নির্দেশনা না মানলে ‘সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন-২০১৮’সহ বিভিন্ন আইনে মামলা করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। তবে গতকাল রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের অর্ধশতাধিক থানার ওসি জানিয়েছেন, এখনো স্বেচ্ছায় বিদেশফেরত ব্যক্তিরা পুলিশকে তথ্য দিচ্ছেন না। ঢাকার প্রতিটি থানায় গতকাল দু-একজন করে তথ্য দিয়েছেন। তবে প্রবাসী বেশি থাকা দেশের বিভিন্ন প্রান্তের থানাগুলোতে বিদেশফেরত ব্যক্তিরা কোনো তথ্য দিচ্ছেন না।

পুলিশ ও র‌্যাবের একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, চলতি মাসে দেশে ফেরা দুই লাখ ৭৮ হজার ২৭৩ ব্যক্তির মধ্যে কয়েক হাজার পাসপোর্টের ঠিকানায় নেই। তারা পরিবর্তিত ঠিকানায় অনেকে হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। আবার কেউ কেউ ঝুঁকিপূর্ণভাবে চলাফেরা করছেন। তাদের শনাক্ত করতে বিশেষ কৌশলে মাঠে নেমেছে পুলিশ। যারা অবস্থান জানান দিয়ে সতর্কভাবে থাকবেন, তাদের সহায়তা করবে পুলিশ। আর যারা আত্মগোপনে থাকবেন, তাদের আলাদা করে দ্রুত সময়ের মধ্যে শনাক্ত করা হবে। এ ক্ষেত্রে পাসপোর্টের স্থায়ী ঠিকানার আত্মীয়-স্বজন, জাতীয় পরিচয়পত্র, ফিঙ্গারপ্রিন্ট ও মোবাইল ফোন নাম্বার সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

দায়িত্বশীল পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, তদন্তে কোনোভাবেই আত্মগোপনে থাকতে পারবেন না বিদেশফেরত ব্যক্তিরা। মূলত কয়েক দিন তাদের সময় দিয়েছে পুলিশ প্রশাসন। গতকাল এক ভিডিও বার্তায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সবাইকে নিষেধাজ্ঞা মানার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আপনারা আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে সহযোগিতা করুন, সরকারিভাবে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে, আপনারা সেই নিষেধাজ্ঞা অক্ষরে অক্ষরে পালন করুন। আপনাদের সাময়িক কষ্ট হবে, কষ্ট হলেও এই জায়গা থেকে উত্তরণের আর কোনো উপায় নেই। আমরা সবাই মিলে একসঙ্গে প্রশাসনকে সহযোগিতা করব।’

গতকাল এক প্রেস নোটে পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-মিডিয়া অ্যান্ড পিআর) সোহেল রানা বলেন, ‘উদ্ভূত পরিস্থিতিতে, ১ মার্চ ২০২০ হতে এ যাবৎ বিদেশফেরত সকল সম্মানিত প্রবাসী নাগরিককে তাদের বর্তমান অবস্থানের নিকটস্থ থানায় অতিসত্বর যোগাযোগ করে তাদের বর্তমান ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর জানাতে অনুরোধ করা হচ্ছে। অন্যথায়, তাদের বিরুদ্ধে সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন-২০১৮, বাংলাদেশ দণ্ডবিধি এবং প্রযোজ্য অন্যান্য আইনের উপযুক্ত ধারা মতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এমনকি প্রয়োজনে তাদের পাসপোর্ট রহিত করারও উদ্যোগ নেওয়া হবে। প্রবাসী ব্যক্তিগণের পক্ষে অন্য কেউ থানায় যোগাযোগ করে উক্ত প্রবাসী ব্যক্তি বা ব্যক্তিগণের অবস্থান ও ঠিকানা জানাতে পারবেন।

 
ট্রাম্পের হোয়াইট হাউজেও করোনার আক্রমন
                                  

অনলাইন ডেস্ক
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সরকারি কার্যালয় ও বাসভবনও করোনার নাগাল থেকে বাঁচতে পারল না। প্রথমবারের মতো সেখানেও খোঁজ মিলেছে করোনা আক্রান্ত রোগীর। এর মধ্য দিয়ে হোয়াইট হাউজও অনিরাপদ হয়ে উঠল। ওই ব্যক্তি ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের এক কর্মী।

শুক্রবার হোয়াইট হাউজের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়। খবর সিএনএন’র। পেন্সের মুখপাত্র কেটি মিলার ওই বিবৃতিতে জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় আমরা জানতে পারি যে, ভাইস প্রেসিডেন্টের অফিসের এক কর্মী করোনায় আক্রান্ত। টোবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স কেউই ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে যায়নি। এর আগে করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন ভেবে ট্রাম্পের পরীক্ষা করা হয়, কিন্তু তার নেগেটিভ আসে। তবে এখন পর্যন্ত ভাইস প্রেসিডেন্টের করোনা টেস্ট করা হয়নি।

আমেরিকায় দিন দিন করোনার প্রকোপ বাড়ছে। এ পরিস্থিতিতে লোকজনকে ঘরে থাকতে অনুরোধ করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে অন্তত ২৬৪ জন করোনায় মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৬৫৮ মানুষ।

 
করোনা নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মক লিফলেট বিতরণ করায় যুবদল সভাপতি গ্রেফতার
                                  

করোনাভাইরাস নিয়ে ব্যঙ্গাত্মক বাক্য লেখা লিফলেট ফেসবুকে প্রচার করায় রাজশাহীর বাঘা পৌর যুবদলের সভাপতি আব্দুল লতিফকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে একটি মামলা দায়েরের পর তাকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়।

বুধবার রাতে বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ফকরুল হাসান বাবলু ও বর্তমান বাজুবাঘা ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহাম্মেদ রঞ্জু-সহ উপজেলা বিএনপির ডজন খানেক নেতা-কর্মী বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ব্যঙ্গাত্মক লিফলেট বিতরণ করেন। এ ধরনের লিফলেট বিতরণে থানায় মামলা দায়ের করেন পাকুড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেরাজুল ইসলাম মেরাজ।

বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় লিফলেট বিতারণকারিদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেরাজুল ইসলাম মেরাজ। মামলা দায়েরের পর বাঘা পৌর যুবদলের সভাপতি আব্দুল লতিফকে গ্রেফতার করে শুক্রবার জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যরা পলাতক রয়েছে।

 
মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধী আজহারের মৃত্যুপরোয়ানা কাশিমপুর কারাগারে
                                  

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা এ টি এম আজহারুল ইসলামের মৃত্যুপরোয়ানা কাশিমপুর কারাগারে পৌঁছেছে। সোমবার দিবাগত রাত ১১টা ১০মিনিটে গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কারাগারে লাল কাপড়ে মোড়ানো মৃত্যু পরোয়ানাটি পৌঁছে। ওই কারাগারের জেলার দেবদুলাল কর্মকার গণমাধ্যমকে জানান, কারাগারে মৃত্যুপরোয়ানাটি এটি এ টি এম আজহারুল ইসলামকে পড়ে শোনানো হবে। এরপর আইনজীবীরা সাক্ষাৎ করে তার সিদ্ধান্ত জানতে পারবে।

নিয়ম অনুযায়ী, এখন তিনি ফাঁসির রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে রিভিউ আবেদন করতে পারবেন। পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের ১৫ দিনের মধ্যে এই আবেদন না করলে যেকোনো দিন রায় কার্যকর হতে পারে। এর আগে মানবতাবিরোধী অপরাধে জামায়াত নেতা এ টি এম আজহারুল ইসলামকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেওয়া মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। গত ৩১ অক্টোবর রায় ঘোষণা করেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ। ২০১৪ সালের ৩০ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেওয়া রায়ে ২ নম্বর, ৩ নম্বর এবং ৪ নম্বর অভিযোগে ফাঁসির দণ্ডাদেশ পেয়েছেন আজহার।

এ ছাড়া ৫ নম্বর অভিযোগে অপহরণ, নির্যাতন, ধর্ষণসহ অমানবিক অপরাধের দায়ে ২৫ বছর ও ৬ নম্বর অভিযোগে নির্যাতনের দায়ে ৫ বছর কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। আর আপিল বিভাগের রায়ে ২, ৩, ৪ নম্বর অভিযোগে (সংখ্যাগরিষ্ঠ মতের ভিত্তিতে) ও ৬ নম্বর অভিযোগে দণ্ড বহাল রাখেন। আর ৫ নম্বর অভিযোগ থেকে তাকে খালাস দেওয়া হয়।

 
র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৮
                                  

অনলাইন রিপোর্টার:

কক্সবাজারের টেকনাফে র‌্যাব ও বিজিবির সঙ্গে পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৮ জন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ৭ জন ও বিজিবির সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক জন নিহত হয়েছেন।আজ সোমবার ভোরে এসব বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। টেকনাফে জাদিমোড়া-মোছনির গভীর পাহাড়ে র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা ডাকাত জকি গ্রুপের ৭ সদস্য নিহত হয়েছেন। সোমবার ভোরে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন র‍্যাব-১৫ এর টেকনাফের কর্মকর্তা মীর্জা শাহেদ মাহতাব। তবে নিহতদের বিস্তারিত পরিচয় জানাতে পারেননি এ র‌্যাব কর্মকর্তা।

লাশ উদ্ধার এবং পরিচয় শনাক্তের কাজ শেষ হলে বিস্তারিত জানানো হবে বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। এদিকে টেকনাফে বিজিবি সদস্যদের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ অজ্ঞাত আরও এক মাদক কারবারী নিহত হয়েছেন। এ সময় বিজিবির ৩ সদস্য আহত হয়েছেন। সোমবার ভোরে টেকনাফের জাদিমোড়া খাল সংলগ্ন এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ বিজিবির কমান্ডার লে. কর্নেল মো. ফয়সল হাসান খান।

তিনি জানান, সোমবার রাতের প্রথম প্রহরে টেকনাফ-২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের নয়াপাড়া বিওপির বিশেষ টহল দল মাদকের চালান আসার সংবাদ পেয়ে জাদিমোরা খাল সংলগ্ন পয়েন্টে অবস্থান নেয়। কিছুক্ষণ পর মাদকের চালান নিয়ে নৌকাযোগে কয়েকজন ব্যক্তি কিনারায় উঠে পালিয়ে যাওয়ার সময় বিজিবি সদস্যরা চ্যালেঞ্জ করলে মাদক কারবারীরা বিজিবি সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে। এতে বিজিবির ৩ সদস্য আহত হন। পরে বিজিবিও পাল্টা গুলি চালায়।

কিছুক্ষণ পর পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে দেড়লাখ ইয়াবা, ১টি দেশীয় অস্ত্র ও ২ রাউন্ড তাঁজা কার্তুজসহ গুলিবিদ্ধ অজ্ঞাত এক ব্যক্তি ও আহত সদস্যদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। আহত বিজিবি সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে গুলিবিদ্ধ মাদক কারবারীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়।

সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃতদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। তার সঙ্গে থাকা অন্য সহযোগীদের আটক সম্ভব না হওয়ায় নিহতের পরিচয় শনাক্ত সম্ভব হয়নি বলেও জানান এ কর্মকর্তা।

 
পিলখানার ঘটনা যেন আর না ঘটে সে লক্ষ্যে কাজ করছি
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:
দীর্ঘ ১১ বছর শোক বয়ে বেড়ানো স্বজনদের বুকের জমিনে এখনো শুধুই রক্তক্ষরণ। ২০০৯ সালে রাজধানীর পিলখানায় ইতিহাসের নির্মমতম হত্যাকাণ্ডে ৫৭ সেনা কর্মকর্তাসহ প্রাণ হারানো ৭৪ জনের পরিবারের সদস্যরা চোখের জলে স্মরণ করলেন প্রিয়জনদের। বিজিবির মহাপরিচালক বললেন, এমন ঘটনা আর যাতে না ঘটে সে লক্ষ্যে কাজ করছে বাহিনীটি।একটা কান্না মিশে থাকা সকাল। স্মৃতিতে ১১ বছর আগের দুঃসহ এক স্মৃতি। যেদিন মধ্য ফাগুনের পলাশের রং নয়, বরং রক্তে লাল হয়ে গিয়েছিলো পিলখানার ২৭০ বিঘা সবুজ জমিন। ক্যালেন্ডারের পাতায় ১১ বছর মানে ৪ হাজার ১৮ দিন, অনেকের কাছে দীর্ঘ বেদনার পথ হেঁটে যাওয়া লম্বা একটা সময়।

অনেক দূরে চলে যাওয়া স্বজনদের স্মৃতিগুলো তবু যেন কত কাছে! মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে শহীদ সেনা কর্মকর্তার পরিবারের সদস্যরা কোরআন তেলাওয়াত, কবর জিয়ারত, মোনাজাতের মাধ্যমে স্মরণ করে হঠাৎ ছবি হয়ে যাওয়া প্রিয় মানুষটিকে। নিহতদের প্রতি রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এদিকে, হত্যা মামলার রায় এলেও আক্ষেপ স্বজনদের কন্ঠে। চান, পুরো ঘটনার পেছনে দায়ীরা শনাক্ত হোক।

এ ঘটনার পর নাম ও পোশাক, দুটোই পাল্টেছে বাহিনীটি। তিলে তিলে অর্জন হচ্ছে সিপাহী ও কর্মকর্তাদের মধ্যে আস্থা। এ ঘটনা আর যেন পুনারাবৃত্তি না হয় সেটির লক্ষ্যে কাজ চলছে বলে জানান বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাফিনুল ইসলাম। পরিবারের সদস্যদের দাবি, দিনটিকে শহীদ সেনা দিবস ঘোষণা করা হোক।

খালেদ’সহ ছয়জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

আয়ের উৎস অবৈধ অস্ত্র, মাদক ব্যবসা, সংঘবদ্ধভাবে চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি এবং ক্যাসিনো ব্যবসা-বিষয়টি প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হওয়ায় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াসহ ছয় আসামির বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং মামলায় চার্জশিট দিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। রবিবার নিম্ন আদালতে এই চার্জশিট জমা দেয় সিআইডি। সিআইডির মুখপাত্র ফারুক হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

চার্জশিটে খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, তার দুই ভাই মাসুদ মাহমুদ ভূঁইয়া ও হাসান মাহমুদ ভূঁইয়া, হারুন রশিদ, শাহাদৎ হোসেন উজ্জ্বল ও মোহাম্মদ উল্ল্যাহ খানের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। সিআইডি জানায়, তদন্তে আসামি খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার ভ্রমণ বৃত্তান্ত ও পাসপোর্ট পর্যালোচনায় দেখা যায়, তিনি পাসপোর্টে কোনো বিদেশি মুদ্রা এন্ডোর্সমেন্ট করা ছাড়াই বহুবার বিদেশ গিয়েছেন। তিনি বিদেশে যাবার সময় নগদ বিদেশি মুদ্রা পাচারের উদ্দেশ্যে নিয়ে যেতেন বলে জানা যায়।

তদন্ত সূত্রে জানা গেছে, আসামি খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার পাসপোর্টে একটি মালয়েশিয়ান ভিসা পাওয়া গেছে। ভিসায় ‘এমওয়াইএস মাই টু হোম’ লেখা আছে যা ‘সেকেন্ড হোম ভিসা’ নামে অধিক পরিচিত। এই ভিসা গ্রহণের শর্ত হিসেবে মালয়েশিয়ার আরএইচবি ব্যাংকে ৩ লাখ রিঙ্গিত (১ রিঙ্গিত সমান ২০ টাকা ৫০ পয়সা) এফডিআর করা আছে। খালেদ নিয়মবর্হিভূতভাবে এই টাকা মালয়েশিয়ায় পাচার করেছেন। সিআইডি জানায়, সিঙ্গাপুর সিটির জুরং ইস্ট এলাকায় মেসার্স অর্পন ট্রেডার্স পিটিই লিমিটেড নামে খালেদের একটি কোম্পানি আছে। এই কোম্পানির মূলধনও বেআইনিভাবে হুন্ডির মাধ্যমে সিঙ্গাপুরে পাচার করেছেন তিনি।

খালেদ ও তার কোম্পানির নামে ব্যাংক হিসাব থাকার প্রমাণ হিসেবে ইউওবির ডেবিট কার্ডও জব্দ করা হয়েছে। এছাড়া তার নামে থাইল্যান্ডের ব্যাংঙ্কক ব্যাংকে একটি অ্যাকাউন্টে ২০ লাখ টাকার সমপরিমাণ থাই বাথ জমা থাকার তথ্য পাওয়া গেছে। আসামির ব্যাংঙ্কক ব্যাংকে আরও দুটি ডেবিট কার্ড উদ্ধার করা হয়েছে। সহযোগী আসামি মোহাম্মদ উল্লাহ তার নির্দেশে বিদেশি মুদ্রা ক্রয় করেন বলে জানা যায়। তিনি আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

তদন্তে আসামি খালেদের বিরুদ্ধে পরস্পর যোগসাজশে অবৈধ মাদক, অস্ত্র, টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজিসহ সংঘবদ্ধ অপরাধলব্ধ আয় জ্ঞাতসারে স্থানান্তর, হস্তান্তর ও রূপান্তরের মাধ্যমে দেশি-বিদেশি মুদ্রা অবৈধভাবে বিদেশে পাচার ও পাচারের চেষ্টায় জমা রাখার অপরাধ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে। তদন্তে আরও জানা যায়, আসামি মোহাম্মদ উল্লাহ ২০১২ সাল থেকে আসামি খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার মালিকানাধীন ভূঁইয়া অ্যান্ড ভূঁইয়া ডেভেলপার লিমিটেড, মেসার্স অর্পণ প্রোপার্টিজ ও অর্ক বিল্ডার্স নামে তিনটি ফার্মের জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি আসামি খালেদের নির্দেশে তার অপরাধলব্ধ আয় গ্রহণ করে খালেদের ভাই মাসুদ মাহমুদ ভূঁইয়া সঙ্গে গিয়ে বিভিন্ন ব্যাংক যেমন-এনসিসি ব্যাংকের মতিঝিল শাখা এবং ব্র্যাক ব্যাংক মালিবাগ শাখায় জমা দিতেন।

আসামি মোহাম্মদ উল্লাহর বিরুদ্ধে আসামি খালেদের অপরাধলব্ধ আয় গ্রহণ, ব্যাংকে জমা এবং পাচারের জন্য অবৈধভাবে বিদেশি মুদ্রা ক্রয় করার মাধ্যমে মানি লন্ডারিংয়ে সহায়তা করার অপরাধ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়ছে। তদন্তে অন্য আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে আসামি খালেদের সকল অপরাধ কার্যের প্রত্যক্ষ সহযোগী ছিলেন বলে প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে।

 
জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় সকল মিডিয়ার প্রতি আহ্বান মনিরুল ইসলামের
                                  

উগ্রবাদ বা জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়াকে সতর্কভাবে সংবাদ পরিবেশনের আহ্বান জানিয়েছেন কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের প্রধান মো. মনিরুল ইসলাম। শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সাংবাদিকদের এ আহ্বান জানান তিনি। মনিরুল ইসলাম জানান, গ্লোবাল টেররিজম ইনডেক্সে সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকি থেকে ছয় ধাপ কমে বাংলাদেশ ৩১ নম্বরে এসেছে।

গ্লোবাল টেররিজম ইনডেক্স (জিটিআই) হলো প্রতি বছর ইনস্টিটিউট ফর ইকোনমিকস অ্যান্ড পিস (আইইপি) দ্বারা প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন। সূচিটি ২০০০ সাল থেকে সন্ত্রাসবাদের মূল বৈশ্বিক প্রবণতা এবং নিদর্শনগুলোর একটি বিস্তৃত সংক্ষিপ্তসার সরবরাহ করে। গত বছরের নভেম্বরে সিডনিভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনস্টিটিউট ফর ইকোনমিকস অ্যান্ড পিসের (আইইপি) বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচক-২০১৯ প্রকাশিত হয়। ২৩টি গুণগত ও পরিমাণগত নির্দেশকের ভিত্তিতে বিশ্বের ১৬৩টি দেশের পরিস্থিতি নিয়ে তৈরি করেছে বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচক-২০১৯।

এসব দেশের জনসংখ্যা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৯৯ দশমিক ৭ শতাংশ বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনে। এ প্রতিবেদনে বাংলাদেশের অবস্থান ছয় ধাপ নেমে হয় ৩১তম। স্কোর ৫.২০৮। অর্থাৎ এ দেশে সন্ত্রাসবাদের প্রভাব মাঝারি মাত্রার। ২০১৮ সালের সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ২৫তম। এর আগের বছর বাংলাদেশ ছিল ২১তম। অর্থাৎ সন্ত্রাসবাদ দমনে ধারাবাহিকভাবে উন্নতি করছে বাংলাদেশ। সব মিলিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে এবার বাংলাদেশের অগ্রগতি সবচেয়ে বেশি।

বিএনপির ৩৫ নেতার জামিন
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

শাহবাগ থানায় করা নাশকতার মামলায় মির্জা ফখরুলসহ বিএনপির ৩৫ নেতা-কর্মী জামিন পেয়েছেন। রবিবার সকালে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন। শুনানি শেষে তাদের জামিন দেওয়া হয়। জামিন পাওয়া নেতাদের মধ্যে রয়েছেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন ও মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল।

নব্য জেএমবির নারী শাখার প্রধান গ্রেপ্তার
                                  

স্টাফ রিপোর্টার:

নব্য জেএমবির নারী শাখার প্রধানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট। ওই নারীর নাম আসমানী খাতুন ওরফে আসমা ওরফে আমাতুল্লাহ ওরফে বন্দী জীবন ওরফে নীখোজ আলো (২৮)। গতকাল মঙ্গলবার রাতে তাকে উত্তর কমলাপুর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আজ বুধবার আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আসমানীর গ্রামের বাড়ি রাজবাড়ীর সদর থানার খানাপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামে। গ্রেপ্তারের সময় তার কাছ থেকে দুটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সিটিটিসি সূত্র। জানা গেছে, নব্য জেএমবির নারী শাখার প্রধান হওয়ার পর দীর্ঘদিন ধরে গোপনে অনলাইনে নারী সদস্য সংগ্রহ করছিলেন আসমানী খাতুন।

দেশে খিলাফত ও শরিয়া আইন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সরকার ও রাষ্ট্রের জননিরাপত্তা বিঘ্ন ও প্রজাতন্ত্রের সরকারি সম্পত্তির ক্ষতিসাধনের প্রচেষ্টা গ্রহণ করার উদ্দেশে ষড়যন্ত্র এবং ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড পরিচালনা পরিকল্পনা করেছিলেন কয়েকজন সহযোগীসহ তিনি। এ বিষয়ে মতিঝিল থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে একটি মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।


   Page 1 of 11
     আইন শৃঙ্খলা
শিক্ষাসনদ ও মালামাল গায়েব, কারাগারে ছাত্রাবাসের মালিক
.............................................................................................
জঙ্গিবাদ দমনে যে সফলতা অর্জন করেছি তা ধরে রাখতে হবে: র‌্যাব ডিজি
.............................................................................................
কবিরহাটে ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক গ্রেপ্তার
.............................................................................................
বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবির ঘটনায় মামলা, আসামি ৭
.............................................................................................
পুলিশের সেবা জনগণের দোরগোড়ায় নিয়ে যেতে হবে : ড. বেনজীর
.............................................................................................
১৪ প্রতিষ্ঠানকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর
.............................................................................................
করোনাভাইরাস: বিদেশফেরতরা আত্মগোপনে থাকলেই গ্রেফতার
.............................................................................................
ট্রাম্পের হোয়াইট হাউজেও করোনার আক্রমন
.............................................................................................
করোনা নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মক লিফলেট বিতরণ করায় যুবদল সভাপতি গ্রেফতার
.............................................................................................
মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধী আজহারের মৃত্যুপরোয়ানা কাশিমপুর কারাগারে
.............................................................................................
র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৮
.............................................................................................
পিলখানার ঘটনা যেন আর না ঘটে সে লক্ষ্যে কাজ করছি
.............................................................................................
খালেদ’সহ ছয়জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট
.............................................................................................
জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় সকল মিডিয়ার প্রতি আহ্বান মনিরুল ইসলামের
.............................................................................................
বিএনপির ৩৫ নেতার জামিন
.............................................................................................
নব্য জেএমবির নারী শাখার প্রধান গ্রেপ্তার
.............................................................................................
হামলার ঘটনা সত্য হলে কঠোর ব্যবস্থা: আইজিপি
.............................................................................................
আমি ভোটকেন্দ্রে সব দলের এজেন্ট পেয়েছি: র‌্যাব ডিজি
.............................................................................................
১০ জনের মৃত্যুদণ্ড, দুইজন খালাস, সিপিবির সমাবেশে বোমা হামলা মামলায়
.............................................................................................
৩য় বারের মতো জেলার শ্রেষ্ঠ সার্কেল নির্বাচিত অতি: পুলিশ সুপার আদিবুল ইসলাম
.............................................................................................
৫ম বারের মতো জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত রামু থানার আবুল খায়ের
.............................................................................................
কক্সবাজার সদর মডেল থানায় নতুন ওসি সৈয়দ আবু মোঃ শাহজাহান কবীরের যোগদান
.............................................................................................
কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি ফরিদ উদ্দিনের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
কক্সবাজারে মাসিক কল্যাণ সভায় তথ্য প্রযুক্তিতে ব্যাপক অবদান রাখায় পুরষ্কার পেলেন দুই পুলিশ কর্মকর্তা
.............................................................................................
৪র্থ বারের মতো জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত রামু থানার আবুল খায়ের
.............................................................................................
থানা ভিত্তিক শ্রেষ্ঠ এসআই নির্বাচিত সদর মডেল থানার কাঞ্চন
.............................................................................................
মাাদক বিরোধী অভিযানে যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করছেন সদরের ওসি ফরিদ উদ্দীন খন্দকার
.............................................................................................
“একজন অভিজ্ঞ ও গুণি জেল সুপারের বদলী”
.............................................................................................
জাতীয় নিরাপত্তা সেলের প্রধান হলেন আছাদুজ্জামান মিয়া
.............................................................................................
২য় বারের মতো জেলার শ্রেষ্ঠ সার্কেল নির্বাচিত অতি: পুলিশ সুপার আদিবুল ইসলাম
.............................................................................................
থানা ভিত্তিক শ্রেষ্ঠ এএসআই নির্বাচিত সদর মডেল থানার টিটু কুমার সাহা
.............................................................................................
উখিয়ায় নবাগত ওসি আবুল মনসুরের অভিজ্ঞতা ও কর্মদক্ষতায় পরিস্থিতি উন্নতির পথে
.............................................................................................
ভোলায় ছেলেধরা গুজব রোধে পুলিশের প্রচারণা
.............................................................................................
মাদকের ব্যাপারে কাউকে বিন্দু পরিমাণ ছাড় দেয়া হবেনা: অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আদিবুল
.............................................................................................
উখিয়ায় ওসি আবুল মনসুরের যোগদান, চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সহযোগিতা কামনা
.............................................................................................
রামু থানায় যোগ দিলেন ওসি আবুল খায়ের
.............................................................................................
চট্টগ্রাম রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ ওয়ারেন্ট তামিলকারী নির্বাচিত কক্সবাজার মডেল থানার এএসআই কামাল
.............................................................................................
প্রথম বারের মতো চট্টগ্রাম রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ এসআই বোরহান
.............................................................................................
৫ম বারের মতো চট্টগ্রাম রেঞ্জে শ্রেষ্ঠ এসপি মাসুদ হোসাইন
.............................................................................................
মাদক ব্যবসায়ীর আতংক এসআই আনছারুল
.............................................................................................
প্রথম বারের মতো থানা ভিত্তিক শ্রেষ্ঠ এসআই নির্বাচিত সদর মডেল থানার সনৎ
.............................................................................................
জেলার শ্রেষ্ঠ ট্রাফিক কর্মকর্তা নির্বাচিত সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার বাবুল বণিক
.............................................................................................
৩য় বারের মতো জেলার শ্রেষ্ঠ সার্জেন্ট নির্বাচিত : ট্রাফিক বিভাগের লিয়াকত
.............................................................................................
পিরোজপুরে স্বচ্ছভাবে নিয়োগ পেল ৩৩ পুলিশ সদস্য
.............................................................................................
দ্বিতীয় বারের মতো জেলার শ্রেষ্ঠ এসআই নির্বাচিত সদর মডেল থানার আজাদ
.............................................................................................
রাজধানীতে ট্রাফিক আইন অমান্য করায় ৬৮৫০ মামলা
.............................................................................................
কুতুবদিয়া নির্বাচনে সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরিতে পুলিশের সর্বোচ্চ পেশাদারিত্ব নিশ্চিত করা হবে : ভারপ্রাপ্ত এসপি ইকবাল
.............................................................................................
পুলিশ বিভাগের আদর্শের জ্বলন্ত প্রতীক মোহাঃ গোলাম রুহুল কুদ্দুস
.............................................................................................
৩য় বারের মতো জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত উখিয়া থানার আবুল খায়ের
.............................................................................................
সৌম্য-মোসাদ্দেকের বিধ্বংসী ব্যাটিং-এ প্রথমবারের মত ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamic Solution IT & Dynamic Scale BD