| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
শিরোনাম : * তুরস্কে বিমান বিধ্বস্ত   * ঢাকা কলেজ ছাড়লেন আবরারের ছোট ভাই   * চট্টগ্রামে কভার্ড ভ্যান-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ২   * সুন্দরবনে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ বনদস্যু নিহত   * ১০ দিনের রিমান্ডে সম্রাট   * হাগিবিসের তাণ্ডবে মৃত বেড়ে ৬৬   * সম্রাটকে আদালতে নেওয়া হয়েছে   * চাঞ্চল্যকর তুহিন হত্যায় ১০ জনকে আসামি করে মামলা   * মানবতাবিরোধী অপরাধে গাইবান্ধার পাঁচ আসামির মৃত্যুদণ্ড   * ইসলামপুরে ৫ কোটি টাকার অবৈধ বন্ডেড কাপড় জব্দ  

   রাজনীতি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
সম্রাটকে আদালতে নেওয়া হয়েছে

ক্যাসিনো-কাণ্ডে গ্রেফতার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিস্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে ঢাকা মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে হাজির করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ১২টায় তাকে আদালতে হাজির করে পুলিশ।

ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে সম্রাটের রিমান্ড শুনানি হবে বলে এ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের অন্যতম আইনজীবী আজাদ রহমান জানান।

সম্রাটকে আদালতে আনার খবরে আদালত পাড়ায় ভিড় করেছেন তার কর্মী ও সমর্থকরা।

ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে ৬ অক্টোবর কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে সম্রাটকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। একই সঙ্গে তার অন্যতম সহযোগী ও ঘনিষ্ঠ বন্ধু ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের বহিস্কৃত সহসভাপতি আরমানকেও গ্রেফতার করা হয়। ওইদিনই র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত দু`জনকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়ে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠান।

এর দু`দিনের মাথায় ৮ অক্টোবর বুকে ব্যথার কথা বলে কারাগার থেকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে ভর্তি হন সম্রাট। পরীক্ষার রিপোর্টে তার হার্টে কোনো সমস্যা ধরা পড়েনি। তবুও তাকে অবজারভেশনে রাখা হয়। পুরোপুরি সুস্থ থাকায় চার দিন পর ১২ অক্টোবর হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয় সম্রাটকে। এরপর ওইদিনই কারা অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে কেরানীগঞ্জে নেওয়া হয় কারাগারে।

সম্রাটকে আদালতে নেওয়া হয়েছে
                                  

ক্যাসিনো-কাণ্ডে গ্রেফতার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিস্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে ঢাকা মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে হাজির করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ১২টায় তাকে আদালতে হাজির করে পুলিশ।

ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে সম্রাটের রিমান্ড শুনানি হবে বলে এ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের অন্যতম আইনজীবী আজাদ রহমান জানান।

সম্রাটকে আদালতে আনার খবরে আদালত পাড়ায় ভিড় করেছেন তার কর্মী ও সমর্থকরা।

ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে ৬ অক্টোবর কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে সম্রাটকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। একই সঙ্গে তার অন্যতম সহযোগী ও ঘনিষ্ঠ বন্ধু ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের বহিস্কৃত সহসভাপতি আরমানকেও গ্রেফতার করা হয়। ওইদিনই র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত দু`জনকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়ে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠান।

এর দু`দিনের মাথায় ৮ অক্টোবর বুকে ব্যথার কথা বলে কারাগার থেকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে ভর্তি হন সম্রাট। পরীক্ষার রিপোর্টে তার হার্টে কোনো সমস্যা ধরা পড়েনি। তবুও তাকে অবজারভেশনে রাখা হয়। পুরোপুরি সুস্থ থাকায় চার দিন পর ১২ অক্টোবর হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয় সম্রাটকে। এরপর ওইদিনই কারা অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে কেরানীগঞ্জে নেওয়া হয় কারাগারে।

আবরার হত্যাকান্ডকে পুঁজি করে কেউ যেন তাদের স্বার্থ হাসিল করতে না পারে : তথ্যমন্ত্রী
                                  

অনলাইন ডেস্ক : তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডকে পুঁজি করে কেউ যেন তাদের স্বার্থ হাসিল করতে না পারে সে ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার আহবান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন .“বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডকে পুজি করে কেউ যেন তাদের স্বার্থ হাসিল করতে না পারে। এই ঘটনা নিন্দনীয়, নৃশংস এবং ন্যাক্কারজনক। প্রশ্ন হলো দাবি মেনে নেযার পরেও কেন তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা।”
তথ্যমন্ত্রী আজ সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে আরো বলেন, বুয়েটে ছাত্র আন্দোলনকে পুঁজি করে বিএনপি এবং তাদের মিত্ররা দেশকে অশান্ত করতে চায় ছাত্রদল এবং শিবির আড়ালে বুয়েটে ছাত্র আন্দোলনের সাথে যুক্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, বিএনপি এ আন্দোলনে তাদের এজেন্ট ঢুকিয়ে দিয়েছে। রগকাটা বাহিনী এই শিবির তাকে দুইবার হত্যা করার চক্রান্ত করেছিল উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘ফাহাদ হত্যাকান্ডের ঘটনায় ছাত্রদের প্রতিবাদের সঙ্গে আমি একমত। তবে আমার প্রশ্ন ছাত্রদের দাবি মেনে নেয়ার পরে কেন আন্দোলন।’
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা প্রথম থেকেই এ ঘটনার প্রতিবাদ করেছি। কেউ দাবি তোলার আগেই সরকার ব্যবস্থা নিয়েছে। মামলা হওয়ার আগেই পুলিশ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে। এ পর্যন্ত ১৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দেশের ইতিহাসে এতো দ্রুত কোনো ঘটনায় ব্যবস্থা নেয়া হয়নি’
আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বলেন, ‘বুয়েটে ছাত্র দলের দুই গ্রুপের মারামারির কারণে মেধাবী ছাত্রী সনি হত্যাকান্ডে পুলিশ হত্যাকারীদের পালিয়ে যেতে সহায়তা করেছিল। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মহসীন হলে এক ছাত্রকে হত্যাকরে পানির ট্যাংকিতে রেখে দেয়া হয়েছিল। সেই পানি ছাত্ররা খেয়েছিল। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র চুন্নুকে হত্যা করা হয়েছিল। এসব ঘটনায় বিএনপি কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।’

বর্তমান পরিস্থিতি উত্তরণে বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের সিদ্ধান্ত সহায়ক হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, তবে এটি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ব্যাপার। দেশে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের দাবি অমূলক। এদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে শুরু করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে ছাত্ররা গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখেছে।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপির রাজনীতির মূল প্রতিপাদ্য ভারত বিরোধীতা। তাদের এই টেবলেট বেশিদিন কাজ করবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘দেশের স্বার্থ রক্ষা করেই ভারতের সাথে চুক্তি হয়েছে। ছিটমহল চুক্তি এবং সমুদ্রসীমা বিজয় হয়েছে। ভারতের সাথে আমাদের সুসম্পর্ক রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘ভারত আমাদের চট্টগ্রাম এবং মোংলা বন্দর ব্যবহার করলে আমারা আর্থিক লাভবান হবো। তাছাড়া ভারতের সাথে আমাদের অন্যান্য যেসব চুক্তি হয়েছে সেগুলো দেশের স্বার্থ রক্ষা করেই হয়েছে। বিএনপি এ বিষয়টিকে নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। না বুঝে কথা বলছে। এটি তাদের পুরনো অভ্যাস।’

হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক যে সমস্য সেটি পুরনো, দেশের সর্বোচ্চ চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে যে অভিযোগ করছেন তা অমূলক বলে উল্লেখ করেন তিনি। বাসস

 
সরকার ছাত্র রাজনীতি বন্ধের পক্ষে নয়: কাদের
                                  

অনলাইন ডেস্ক : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ছাত্র রাজনীতির কোনো দোষ নেই, ছাত্র রাজনীতির নামে যারা অপকর্ম করবে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

রোববার বেলা সোয়া ১২টার দিকে রাজশাহী সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র রাজনীতি বন্ধের বিষয়ে তিনি বলেন, সরকার ছাত্র রাজনীতি বন্ধের পক্ষে নয়। মাথা ব্যাথা হলে মাথা কেটে ফেলা কোনো সমাধান নয়।

তিনি বলেন, যুবলীগে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে তারা সবাই নজরদারীতে, যুবলীগ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে কি না সেটা পরে জানতে পারবেন।

 
বিএনপি নেতা হাফিজ গ্রেফতার
                                  

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদকে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার রাতে সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফেরার পর বিমানবন্দরে তাকে গ্রেফতার করে পল্লবী থানায় নেওয়া হয়েছে।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি আইনে পল্লবী থানায় দায়েরকৃত একটি মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

হাসপাতাল থেকে কারাগারে সম্রাট
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ক্যাসিনোকাণ্ডে গ্রেফতার ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে হাসপাতাল থেকে কারাগারে নেওয়া হচ্ছে।

বর্তমানে তিনি হৃদ্‌রোগ ইনস্টিটিউটে রয়েছে। আজ সেখান থেকে ছাড়পত্র দেয়ার পর তাকে কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হবে বলে নিশ্চিত করেছেন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের কারাধ্যক্ষ মাহাবুবুল ইসলাম ।

হৃদ্‌রোগ ইনস্টিটিউট সূত্র জানিয়েছে, শনিবার সম্রাটকে তারা হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেবে।
এর আগে গত মঙ্গলবার সম্রাট ‘অসুস্থ’ হয়ে পড়লে চিকিৎসার জন্য তাকে কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ঢাকায় আনা হয়। প্রথমে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হয়। সেখান থেকে সম্রাটকে হৃদ্‌রোগ ইনস্টিটিউটে পাঠানোর পরামর্শ দেন চিকিৎসক। ওইদিন সকালেই সম্রাটকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে হৃদ্‌রোগ ইনস্টিটিউটে নিয়ে যাওয়া হয়।

 
স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফিরেছেন ওবায়দুল কাদের
                                  

অনলাইন ডেস্ক : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে আজ শুক্রবার রাতে দেশে ফিরেছেন।

রাত সাড়ে ১০টার পর সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে করে ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছেন তিনি।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ জনসংযোগ কর্মকর্তা শেখ ওয়ালিদ ফয়েজ শুক্রবার রাতে বাসস’কে একথা জানিয়েছেন।

তিনি জানান, বিমানবন্দর থেকে সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সরাসরি বাসায় যাবেন। ওবায়দুল কাদেরের সহধর্মিণী ইসরাতুন্নেছা কাদেরও সফরসঙ্গী হিসেবে ছিলেন।
বৃহষ্পতিবার দুপুরে ফলো-আপ চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে করে ওবায়দুল কাদের সিঙ্গাপুরে যান।

সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে কাদেরের স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে তার স্বাস্থ্য নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন চিকিৎসক দলের প্রধান ডা. ফিলিপ কোহ।
এদিকে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (উন্নয়ন) ডা. আবু নাসার রিজভী সাংবাদিকদের জানান, বাইপাস সার্জারি শেষে দ্বিতীয়বারের মতো ওবায়দুল কাদেরের স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। তার স্বাস্থ্য স্থিতিশীল রয়েছে এবং প্রতিটি প্যারামিটার আশানুরূপ উন্নতি হয়েছে।
ওবায়দুল কাদেরের হৃদযন্ত্রের কার্যক্ষমতা বেড়েছে এবং শতকরা হারে তা ক্রমশ উন্নতির দিকে যা অত্যন্ত ইতিবাচক বলে জানান ডা. রিজভী। বাসস

 
বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ অধ্যাপক এটিএম হেমায়েত উদ্দিনের ইন্তেকাল -জাতীয় নেতৃবৃন্দের শোক
                                  

মিয়া আবদুল হান্নান : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ অধ্যাপক হাফেজ মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন (৬৩) গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টা ৪০মিনিটে রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারস্থ নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন। তিনি দীর্ঘদিন ফুসফুসে ক্যান্সারে ভুগছিলেন। ১১ ভাই ও ৫ বোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয় ছিলেন।

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়ে নাতী নাতনীসহ রাজনৈতিক সহকর্মী ভক্ত ছাত্র-ছাত্রী রেখে গেছেন। তাঁর ইন্তেকালের খবর দ্রুত দেশ-বিদেশ ছড়িয়ে পড়লে সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে আসে। মরহুমের মৃত্যুর খবর পেয়ে তার লাশ একনজর দেখার জন্য দলীয় নেতা-কর্মীসহ জাতীয় নেতৃবৃন্দ তার বাসায় ছুঁটে যান।

বাদ আসর জাতীয় সংসদ ভবন সংলগ্ন টিএন্ডটি মাঠে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় ইমামতি করেন দলের সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই। নামাজে জানাজায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালসহ জাতীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। মরহুমের নামাজে জানাজায় যেসব নেতৃবৃন্দ শরীক হন তারা হচ্ছেন, জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের মহাসচিব মাওলানা শাব্বির আহমদ মোমতাজী, ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী, ইসলামী ঐক্য আন্দোলনের চেয়ারম্যান ড. ঈসা শাহেদী, খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক, ইসলামী আন্দোলনের প্রেসিডিয়াম সদস্য আল্লামা প্রিন্সিপাল সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী, নূরুল হুদা ফয়েজী, মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, উত্তর সভাপতি প্রিন্সিপাল শেখ ফজলে বারী মাসউদ , খেলাফত আন্দোলনের নেতা মাওলানা জাফরুল্লাহ খান, মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, বাংলাদেশ জনসেবা আন্দোলনের চেয়ারম্যান মুফতী ফখরুল ইসলাম, কামরুন্নেসা কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল প্রফেসর ফজলুল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আব্দুস সবুর খান, মুসলিম লীগের মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, ইসলামী ঐক্যজোটের নেতা মাওলানা জোবায়ের আহমদ।

আজ শনিবার সকাল ১০টায় বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ উপজেলার রাজৈর গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে পিতা-মাতার কবরের পাশে তার লাশ দাফন করা হবে।
তিনি ঢাকা মাদরাসা-ই-আলিয়া থেকে কামিল এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম এ সম্পন্ন করেন। তিনি পশ্চিম রাজাবাজার জামে মসজিদে ৪২ বছর যাবৎ ইমাম ও খতীবের দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি মালিবাগ আবুজর গিফারী কলেজে দীর্ঘদিন অধ্যাপনা করেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত রামপুরা কামরুন্নেসা ডিগ্রী কলেজের সহযোগী অধ্যাপকের দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন তিনি। তিনি পশ্চিম রাজাবাজার হাফিজিয়া মাদরাসা, মাতুয়াইল আল্লাহ কারীম মাদরাসাসহ বহু মসজিদ-মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করে গেছেন। তিনি ইসলামী আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাকালীন থেকে ঢাকা মহানগর সভাপতি, কেন্দ্রীয় সহকারী সমন্বয়কারী দায়িত্ব পালন করে কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করছিলেন। দেশ ও ইসলাম বিদ্বেষী শক্তির মোকাবেলায় তিনি অত্যন্ত বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে গেছেন। আধিপত্যবাদী ও সাম্রাজ্যবাদী শক্তির কাছে তিনি কখনো মাথানত করেননি।

মরহুমের ইন্তেকালে পীর সাহেব চরমোনাইসহ বিভিন্ন ইসলামী রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ পৃথক পৃথক বিবৃতিতে গভীর শোক প্রকাশ ও তাঁর রুহের মাগফেরাত কামনা করেন।

চেয়ারম্যান ওমর ফারুককে ছাড়াই যুবলীগের প্রেসিডিয়াম বৈঠক
                                  

অনলাইন ডেস্ক : চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীকে ছাড়াই অনুষ্ঠিত হয়েছে যুবলীগের প্রেসিডিয়ামের বৈঠক।

শুক্রবার (১১ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে যুবলীগের কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত। সভা শেষে নেতারা বলেন, ওমর ফারুক চৌধুরীকে বহিষ্কার এখতিয়ার দলীয় সভাপতির। এদিকে, সভায় শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে যুবলীগের দফতর সম্পাদক আনিসুর রহমান আনিসকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

শুক্রবার সকাল থেকেই যুবলীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জড়ো হতে থাকেন নেতাকর্মীরা। এ সময় বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন তারা। এর কিছুক্ষণ পরেই সংগঠনের প্রেসিডিয়াম বৈঠক শুরু হয়। তবে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। ক্যাসিনো কেলেঙ্কারিতে যুবলীগ নেতা সম্রাট গ্রেফতার হওয়ার পর থেকেই দলীয় কার্যালয়ে দেখা যায়নি তাকে।

চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতিতে বৈঠকের সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ।

বৈঠকে শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে দফতর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমান আনিসকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এছাড়া আগামী সম্মেলনের বিষয়েও আলোচনা করেন প্রেসিডিয়াম সদস্যরা।

আগামী ২৩ নভেম্বর যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

শপথ নিলেন সাদ এরশাদ
                                  

অনলাইন ডেস্ক : একাদশ জাতীয় সংসদে রংপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন রাহগির আলমাহি ওরফে সাদ এরশাদ।

বৃহস্পতিবার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সংসদ ভবনে তাকে এ শপথ বাক্য পাঠ করান বলে জাতীয় সংসদের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। খবর ইউএনবির

এতে বলা হয়, জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন।

এ সময় জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ, হুইপ ইকবালুর রহিম, হুইপ আতিউর রহমান আতিক, হুইপ মো. সামশুল হক, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ফারুক খান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ বি তাজুল ইসলাম এমপি, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি মুজিবুল হক চুন্নু, ফখরুল ইমাম, মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী এবং সৈয়দা জাকিয়া নূর উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচএম এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর ৩ আসনে গত ৩ অক্টোবর উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে রাহগির আলমাহি ওরফে সাদ এরশাদ ৫৮ হাজার ৮৭৮ ভোট পান। অন্যদিকে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির রিটা রহমান পান ১৬ হাজার ৯৪৭ ভোট। এইচএম এরশাদ ও রওশন এরশাদ দম্পতির বড় ছেলে সাদ।

 
ভারতের সঙ্গে চুক্তি নিয়ে স্ট্যাটাসের জেরে আ. লীগ নেতা বহিষ্কার
                                  

অনলাইন ডেস্ক : ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের চুক্তি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় জেরে খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ও বাংলা‌দেশ মে‌ডি‌কেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) খুলনা শাখার সভাপতি ডা. শেখ বাহারুল আলমকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বৃহস্পতিবার সকালে সময়নিউজকে বাহারুল আলম বলেন, আমাকে বহিষ্কার করা হয়েছে এটা সত্য। যদিও সংগঠনের নিয়ম অনুযায়ী আগে কারণ দর্শানো হয়, তার জবাব যদি সন্তোষজনক না হয়, সে ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেয়া হয়। এখন তো আর সংগঠনের নিময় নীতি কেউ মানে না। তাই এমনটা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমি ওই স্ট্যাটাসটি দিয়েছি একান্ত ব্যাক্তিগত ভাবে, দেশকে ভালোবেসে। দেশের প্রতি ভালোবাসা আমার সংগঠনের ঊর্ধ্বে, আমার জীবনের ঊর্ধ্বে। আমাকে সংগঠন থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। আমি দল নিয়ে কিছু বলিনি, প্রধানমন্ত্রীকে নিয়েও কিছু বলিনি। শুধু ভারতের সঙ্গে চুক্তি নিয়ে বলেছি, যে সব বিষয়ে বাংলাদেশের জনগণকে বঞ্চিত করা হয়েছে তা নিয়ে। এইটুকু যে বলা যাবে না, এটা হতে পারে না।

বাহারুল আলম বলেন, সংগঠন থেকে আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে, তা একমাত্র ব্যক্তিগত প্রতিহিংসা থেকে। দলের যেহেতু পুরনো কোন্দল ছিল তাই কাউকে সরানোর সুযোগ ছিলা না। এখন এ সুযোগটা তারা কাজে লাগিয়েছে।

এর আগে ,বুধবার (৯ অক্টোবর) সন্ধ্যায় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদের সভাপতিত্বে দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক জরুরি সভায় তাকে বহিষ্কার করা হয়।

জানা গেছে, ফেসবুকে সরকার প্রধানের বিরুদ্ধে স্ট্যাটাস, ভারতের চুক্তি নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্যসহ রাষ্ট্রবিরোধী বক্তব্য প্রদান এবং তা পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ায় ডা. শেখ বাহারুল আলমকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। একই সঙ্গে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে তাকে কেনো স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রে সুপারিশ করা হবে না, তা আগামী সাত দিনের মধ্যে জানাতে বলা হয়েছে।

ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের কী চুক্তি হয়েছে তা জানার অধিকার এদেশের জনগণের রয়েছে বলে গত ৬ অক্টোবর ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন ডা. শেখ বাহারুল আলম। যা বেশ আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দেয়।

তার স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে দেয়া হলো :

“ভারত–বাংলাদেশ দ্বিপক্ষীয় চুক্তি বলা হলেও বাস্তবে একপক্ষীয় সিদ্ধান্ত – বাংলাদেশের জনগণের স্বার্থ ও অধিকার চরম উপেক্ষিত
...........................
দুর্বল অবস্থানে থেকে বন্ধু-প্রতিম শক্তিধর প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সাথে বৈঠকে-ফলাফল শক্তিধরের পক্ষেই আসে। বাংলাদেশ- ভারত উভয়-পক্ষীয় সমঝোতা স্মারক নাম দেয়া হলেও বাস্তবে একপক্ষীয় সিদ্ধান্তই মেনে নিতে হয় দুর্বল রাষ্ট্রকে।

ভারত বাংলাদেশ থেকে তার সকল স্বার্থই আদায় করে নিয়েছে। বিপরীতে বাংলাদেশ ভারতের কাছ থেকে এখনও ন্যায্য হিস্যা আদায় করতে পারেনি।

১) দীর্ঘদিনের আলোচিত তিস্তা নদীর পানি বণ্টন এবারের দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় স্থান পায়নি।
২) ভারতের প্রধানমন্ত্রী স্পষ্ট করে কিছু না বললেও তার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ হুংকার দিয়েছে নাগরিকপঞ্জীতে বাদ পড়া জনগণকে বাংলাদেশে ঠেলে দেয়া হবে। তারপরেও এবারের সমঝোতা চুক্তিতে ‘অভ্যন্তরীণ’ অজুহাতে বিষয়টি স্থান পায়নি।
৩) বাংলাদেশে অবস্থানরত রোহিঙ্গা শরণার্থী মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে প্রত্যাবাসনের বিষয়ে ভারত কিছু বলেনি।
৪) তিস্তা নদীর পানি বণ্টন নিয়ে চুপ থাকলেও বাংলাদেশ অংশের ফেনী নদীর পানি ত্রিপুরা রাজ্যের পানীয় জল হিসেবে প্রতিদিন ১.৮২ কিউসেক টেনে নেবে ভারত। এ বিষয়ে বাংলাদেশ সম্মত হয়েছে।
৫) বাংলাদেশের জনগণের তরল গ্যাসের চাহিদা পূরণের ঘাটতি থাকলেও ভারতে তরল গ্যাস রপ্তানির সিদ্ধান্ত হয়েছে এবং যৌথভাবে সে প্রকল্প উদ্বোধনও হয়েছে।
৬) চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দর ভারত কীভাবে ব্যবহার করবে, তা নির্ধারিত হলেও বাংলাদেশের জন্য ব্যবহারযোগ্য ভারতের কোনও বন্দর সেই তালিকায় ছিল না।

অমানবিক আচরণের শিকার হয়েও বাংলাদেশ পানি ও গ্যাস সরবরাহ দিয়ে মানবিকতার প্রদর্শন করেছে। বাংলাদেশের মানুষের স্বার্থ ও অধিকার উপেক্ষিত রেখে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক শেষ হয়েছে।

শক্তিধর প্রতিবেশীর আধিপত্যের চাপ এতোই তীব্র যে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব বজায় থাকবে কিনা আশংকা হয়। কারণ ভারতের চাপিয়ে দেওয়া সকল সিদ্ধান্ত বাংলাদেশকে মেনে নিতে হচ্ছে।”

 
আবরার `খুনের` আসামি পক্ষের আইনজীবীকে বহিষ্কার করলো বিএনপি
                                  

অনলাইন ডেস্ক : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার আসামি পক্ষের আইনজীবী মোর্শেদা খাতুন শিল্পীকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বুধবার রাত দেড়টার দিকে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‌‘দলীয় শৃঙ্খলা ভঙের জন্য বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট মোর্শেদা খাতুন শিল্পীকে সংগঠনের সব পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এখন থেকে আইনজীবী ফোরামের সাংগঠনিক কার্যক্রমের সঙ্গে তার কোনও সম্পর্ক থাকবে না।’

উল্লেখ্য, আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার এক আসামির পক্ষে আইনজীবী হিসেবে গণমাধ্যমে কথা বলেন ফেসবুকে তীব্রভাবে সমালোচিত হন মোর্শেদা খাতুন শিল্পী। এরপর তাকে বহিষ্কারের দাবি জানান নবগঠিত বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের বেশ কয়েকজন সদস্য।

আবরার হত্যায় গ্রেফতার ১০ জন রিমান্ডে
                                  

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার ছাত্রলীগের ১০ নেতার ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার তাদের ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় চকবাজার থানায় করা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াসির আহসান চৌধুরী এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

যাদের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে তারা হলেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদি হাসান রাসেল, সহ-সভাপতি মুস্তাকিম ফুয়াদ, সহ-সম্পাদক আশিকুল ইসলাম বিটু, উপ-দফতর সম্পাদক মুজতবা রাফিদ, উপ-সমাজকল্যাণ সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল, উপ-আইন সম্পাদক অমিত সাহা, ক্রীড়া সম্পাদক সেফায়েতুল ইসলাম জিওন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার, গ্রন্থনা ও গবেষণা সম্পাদক ইশতিয়াক মুন্না এবং খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির।

রোববার দিবাগত রাত ৩ টায় বুয়েটের ইইই বিভাগের ছাত্র আবরার ফাহাদকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শের-ই বাংলা হলের দ্বিতীয় তলা থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যান। সোমবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ময়নাতদন্ত শেষে ঢামেক ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডা. মো. সোহেল মাহমুদ জানান, বাঁশ বা স্ট্যাম্প দিয়ে পেটানো হয়ে থাকতে পারে বুয়েটছাত্র আবরার ফাহাদকে। এর ফলেই রক্তক্ষরণ বা পেইনের (ব্যথা) কারণে ফাহাদের মৃত্যু হয়েছে। তিনি বলেন, ফাহাদের হাতে, পায়ে ও পিঠে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এই আঘাতের কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে। আঘাতের ধরন দেখে মনে হয়েছে ভোঁতা কোনো জিনিস যেমন, বাঁশ বা স্ট্যাম্প দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। তবে তার মাথায় কোনো আঘাত নেই। কপালে ছোট একটি কাটা চিহ্ন রয়েছে। পুলিশও জানিয়েছে, আবরারকে পিটিয়ে হত্যার আলামত পাওয়া গেছে।

ভারতের সঙ্গে চুক্তির বিরোধিতা করে শনিবার বিকালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন ফাহাদ। এর জের ধরে রোববার রাতে শেরেবাংলা হলের নিজের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে তাকে ডেকে নিয়ে ২০১১ নম্বর কক্ষে বেধড়ক পেটানো হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পিটুনির সময় নিহত আবরারকে ‘শিবিরকর্মী’ হিসেবে চিহ্নিত করার চেষ্টা চালায় খুনিরা।

তবে আবরার কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন না বলে নিশ্চিত করেছেন তার পরিবারের সদস্যসহ সংশ্লিষ্টরা।

হত্যাকাণ্ডের প্রমাণ না রাখতে সিসিটিভি ফুটেজ মুছে (ডিলেট) দেয় খুনিরা। তবে পুলিশের আইসিটি বিশেষজ্ঞরা তা উদ্ধারে সক্ষম হন। পুলিশ ও চিকিৎসকরা আবরারকে পিটিয়ে হত্যার প্রমাণ পেয়েছেন।

এ ঘটনায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেলসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে এ ঘটনায় ১৪ জন জড়িত বলে জানিয়েছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ) কৃষ্ণপদ রায়।

এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে তার বাবা চকবাজার থানায় সোমবার রাতে একটি হত্যা মামলা করেন। বুয়েট কর্তৃপক্ষ একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে। পাশাপাশি গঠন করেছে একটি তদন্ত কমিটিও।

এদিকে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ মেলায় বুয়েট শাখার সহসভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ১১ জনকে ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

ফেনী নদীর নাম হোক ‘আবরার নদ’ : রিজভী
                                  

অনলাইন ডেস্ক : বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার যুদ্ধে, দেশের মাটি, পানি রক্ষার যুদ্ধে প্রথম শহীদ আবরার ফাহাদ।’

তিনি বলেন, ‘ফেনী নদীর নাম হোক-‘আবরার নদ’। ক্ষমতাসীন আওয়ামী সরকারের মাটি বিক্রি, পানি বিক্রি, দেশ বিক্রির নষ্ট বুদ্ধির বিরুদ্ধে সকলকে লড়াই করতে হবে। ক্ষমতাসীনদের মূঢ় অহমিকার বিরুদ্ধে সকলকে প্রতিরোধে সামিল হতে হবে। আমরা আবরার ফাহাদকে নৃশংসভাবে হত্যার তীব্র নিন্দা, ধিক্কার ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং প্রকৃত হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি করছি।’

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ভারতের সঙ্গে দেশবিরোধী চুক্তির বিষয়ে কথা বলায় আবরারকে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ করে রিজভী বলেন, নারকীয় কায়দায় রাতভর নির্যাতন চালিয়ে ছাত্রলীগের ক্যাডাররা খুন করেছে বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে। এর মাধ্যমে ছাত্রলীগ প্রমাণ করেছে যে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সাধারণ শিক্ষার্থীদের কোনো নিরাপত্তা নেই। ছাত্রলীগের খুন, ধর্ষণ, সন্ত্রাসী কার্যক্রম, চাঁদাবাজি, টেন্ডার বাণিজ্য অতীতের সব রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাত্রলীগের ক্যাডারদের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে। ছাত্রলীগ নামক এই দানব জঙ্গি লীগকে নিষিদ্ধ ঘোষণা না করলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়ার পরিবেশ ফিরবে না। শিক্ষার্থীদের জীবনের নিরাপত্তা থাকবে না।

তিনি বলেন, ‘দলমত নির্বিশেষে সবাইকে এই ভয়ঙ্কর হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে, যাতে আর কোনো মায়ের কোল শুন্য না হয়।’

এক প্রশ্নের জবাবে রিজভী বলেন, ‘ভারতের সঙ্গে অসম চুক্তির প্রতিবাদে ধাপে ধাপে বিএনপির পক্ষ থেকে রাজপথে কর্মসূচি দেয়া হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবীর খোকন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিমুজ্জামান সেলিম, আব্দুস সালাম আজাদ, সহ দফতর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 
বিএনপি কার্যালয়ে আগুন
                                  

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন থাকে কেন্দ্রীয় কার্যালয়। এ কারণে যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হয়নি দলটির পূর্ব নির্ধারিত সংবাদ সম্মেলন।

বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেন বলেন, ‘আজ (মঙ্গলবার) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটের কারণে কার্যালয়ে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। আধাঘণ্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট।’

আগুনে বড় কোনো ক্ষতি না হলেও প্রায় পৌনে একঘণ্টা দলের কার্যালয় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন ছিল। অন্ধকারে কার্যালয়ের মধ্যে ভুতুড়ে পরিবেশ তৈরি হয়।

এদিকে নয়াপল্টনে দুপুর ১২টার দিকে দলের পূর্ব নির্ধারিত সংবাদ সম্মেলন শুরু হওয়ার কথা থাকলেও একঘণ্টা পর দুপুর ১টার দিকে শুরু হয়। শুরুতে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ সংবাদ সম্মেলনে দেরি করার কারণ ব্যাখ্যা করেন। অগ্নিকাণ্ডে বড় ধরনের ক্ষতি না হওয়ায় তিনি আল্লাহর কাছে শুকরিয়া প্রকাশ করেন। এ সময় তিনি বলেন, ওইসময় সাংবাদিকরা তাদের দায়িত্ব পালন করায় দ্রুত ফায়ার সার্ভিস এসেছে।

অপরাধী যেই হোক প্রধানমন্ত্রী কাউকে ছাড় দেবেন না
                                  

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অপরাধী যেই হোক প্রধানমন্ত্রী কাউকে ছাড় দেবেন না। আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা কঠোর অবস্থানে রয়েছেন।

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১র দিকে রাজধানীর ধানমন্ডি আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সংবাদ সম্মেলন এসব কথা বলেন তিনি। কাদের বলেন, নেত্রী আগেও কঠোর অবস্থানে ছিলেন এখনো আছেন।

তিনি বলেন, ক্ষমতাসীন দলেও অনেক সময় আগাছা-পরগাছা ঢুকে পড়ে নানা কারণে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে যে এসব অপকর্মের বিষয়ে দলের দৃষ্টিভঙ্গি কী? নেতৃত্বের দৃষ্টিভঙ্গি কী? অবস্থান কী নিচ্ছে। এসব অপকর্ম যারা করে তাদের দলে কোনো প্রশ্রয় দেয়া হবে না।

কাদের বলেন, এখন প্রশাসন অনেক তৎপর। বুয়েটের ঘটনার পর সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ৯ জনকে গ্রেফতার করেছে এবং ১১ জনকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই বহিষ্কার করা হয়েছে।

আবরার হত্যা: ছাত্রলীগের ১১ জন বহিষ্কার
                                  

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালেয়ে (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যায় সংশ্লিষ্টতা পাওয়া ১১ জনকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করেছে ছাত্রলীগ। সোমবার (৭ অক্টোবর) রাতে সংগঠনটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টচার্য স্বাক্ষরিত সংবাদবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বহিষ্কৃতরা হলেন- বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল, সহ-সভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ, সাংগঠিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার, ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিওন, সাহিত্য সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, উপ-সমাজ সেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল, উপ-দপ্তর সম্পাদক মুজতবা রাফিদ, সদস্য মুনতাসির আল জেমি, এহেতসামুল রাব্বি তানিম ও মুজাহিদুর রহমান।


   Page 1 of 58
     রাজনীতি
সম্রাটকে আদালতে নেওয়া হয়েছে
.............................................................................................
আবরার হত্যাকান্ডকে পুঁজি করে কেউ যেন তাদের স্বার্থ হাসিল করতে না পারে : তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
সরকার ছাত্র রাজনীতি বন্ধের পক্ষে নয়: কাদের
.............................................................................................
বিএনপি নেতা হাফিজ গ্রেফতার
.............................................................................................
হাসপাতাল থেকে কারাগারে সম্রাট
.............................................................................................
স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফিরেছেন ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ অধ্যাপক এটিএম হেমায়েত উদ্দিনের ইন্তেকাল -জাতীয় নেতৃবৃন্দের শোক
.............................................................................................
চেয়ারম্যান ওমর ফারুককে ছাড়াই যুবলীগের প্রেসিডিয়াম বৈঠক
.............................................................................................
শপথ নিলেন সাদ এরশাদ
.............................................................................................
ভারতের সঙ্গে চুক্তি নিয়ে স্ট্যাটাসের জেরে আ. লীগ নেতা বহিষ্কার
.............................................................................................
আবরার `খুনের` আসামি পক্ষের আইনজীবীকে বহিষ্কার করলো বিএনপি
.............................................................................................
আবরার হত্যায় গ্রেফতার ১০ জন রিমান্ডে
.............................................................................................
ফেনী নদীর নাম হোক ‘আবরার নদ’ : রিজভী
.............................................................................................
বিএনপি কার্যালয়ে আগুন
.............................................................................................
অপরাধী যেই হোক প্রধানমন্ত্রী কাউকে ছাড় দেবেন না
.............................................................................................
আবরার হত্যা: ছাত্রলীগের ১১ জন বহিষ্কার
.............................................................................................
অভিযুক্ত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না : ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
ভারত সফরে প্রধানমন্ত্রী চরম ব্যর্থ : মান্না
.............................................................................................
বিএনপির রাজনৈতিক অপকৌশলের জন্যই খালেদা জিয়া কারাগারে
.............................................................................................
সম্রাটকে যুবলীগ থেকে বহিস্কার
.............................................................................................
রংপুরে-৩ আসনে সাদ এরশাদ জয়ী
.............................................................................................
চাঁদাবাজ টেন্ডারবাজ স্বাধীনতাবিরোধীদের বিরুদ্ধে এ অভিযান : কাদের
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে বিএনপি ও চিকিৎসকদের বক্তব্য এক নয় : কাদের
.............................................................................................
অপকর্মকারীদের তালিকা দেখে আ.লীগের কমিটি গঠনের নির্দেশ
.............................................................................................
আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা হলেন জয়নাল হাজারী
.............................................................................................
গরম খবর আসছে
.............................................................................................
এতগুলো ক্যাসিনোর ভাগ কাদের পকেটে যেত, প্রশ্ন রিজভীর
.............................................................................................
নিজ ঘর থেকেই শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছে আ.লীগ : ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
১৪ দলের সভা বৃহস্পতিবার
.............................................................................................
সারাদেশে পর্যায়ক্রমে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান পরিচালিত হবে : ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
দেশটা জুয়াড়িদের দেশ হয়ে গেছে : ফখরুল
.............................................................................................
কেঁচো খুঁড়তে সাপ বেরুচ্ছে : ফখরুল
.............................................................................................
দলের অনেকেই নজরদারিতে : কাদের
.............................................................................................
ছাত্রদলের সভাপতি খোকন, সাধারণ সম্পাদক শ্যামল
.............................................................................................
যুবলীগ নেতা খালেদ মাহমুদের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ
.............................................................................................
প্রয়োজনে দলের ভেতরে শুদ্ধি অভিযান চালানো হবে : কাদের
.............................................................................................
জাবি ভিসির অপসারণ চাইলেন ফখরুল
.............................................................................................
আমি অনুতপ্ত, ক্ষমাপ্রার্থী : রাব্বানী
.............................................................................................
আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আসছে নতুন চমক
.............................................................................................
চাঁদাবাজদের প্রশ্রয় দেয় না ছাত্রলীগ : জয়
.............................................................................................
আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ২০ ও ২১ ডিসেম্বর
.............................................................................................
ছাত্রলীগের নেতৃত্বে জয় ও লেখক ভট্টাচার্য
.............................................................................................
নিজেদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে মামলা করে ছাত্রদলের সম্মেলন বন্ধ হয়েছে: কাদের
.............................................................................................
আওয়ামী লীগ প্রতিহিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না : হাছান মাহমুদ
.............................................................................................
নিয়মতান্ত্রিক রাজনীতির পথে হাঁটার জন্য বিএনপি’র প্রতি তথ্যমন্ত্রীর আহ্বান
.............................................................................................
আসাম ইস্যুতে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে চক্রান্ত চলছে : ফখরুল
.............................................................................................
রওশন বিরোধী দলের নেতা, কাদের উপনেতা
.............................................................................................
সমঝোতায় জাপা, রংপুর-৩ আসনে প্রার্থী হচ্ছেন সাদ এরশাদ
.............................................................................................
ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়নি: কাদের
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে কর্মসূচি দিল বিএনপি
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক : মো: তাজুল ইসলাম
প্রধান কার্যালয়: ২১৯ ফকিরের ফুল (১ম লেন, ৩য় তলা), মতিঝিল, ঢাকা- ১০০০ থেকে প্রকাশিত । ফোন: ০২-৭১৯৩৮৭৮ মোবাইল: ০১৮৩৪৮৯৮৫০৪, ০১৭২০০৯০৫১৪
Web: www.dailyasiabani.com ই-মেইল: dailyasiabani2012@gmail.com
   All Right Reserved By www.dailyasiabani.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]